যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 09:33am

|   লন্ডন - 03:33am

|   নিউইয়র্ক - 10:33pm

  সর্বশেষ :

  মুশফিকের অনবদ্য ডাবল সেঞ্চুরি   প্রথম দিনে বিএনপির ১ হাজার ৩২৬টি মনোনয়নপত্র বিক্রি   ৪ হাজার ৩৬৭টি মনোনয়ন বিক্রি করেছে আ.লীগ, আয় ১৩ কোটি টাকা   সিডনিতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক নাটক ‘লিভ মি অ্যালন’ মঞ্চায়িত   ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানলের ভয়াবহতা বাড়ছেই, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩১   নির্বাচন এক সপ্তাহ পেছাল, ৩০ ডিসেম্বর ভোট   বিশ্বের সবচেয়ে সেক্সি পুরুষ ইদ্রিস এলবা   একটা গোলাপি হিরার দাম ৪১৮ কোটি!   ৩ আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম কিনলেন খালেদা জিয়া   ইসরায়েলিদের গুলিতে হামাস কমান্ডারসহ নিহত ৭   প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সমাপ্তির শতবর্ষ পূর্তিতে স্মরণানুষ্ঠান   ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করবে বিএনপিসহ ৮ দল   ঢাবির হলে ছাত্রদের বের করে কক্ষ দখল করল ছাত্রলীগ   ইতালিতে আইয়ুব বাচ্চু’র স্মরনে “রূপালী গিটার”   পেটারসনে ‘বাংলাদেশ বুলেবার্ড’ নামে সড়ক হচ্ছে

>>  আইটি এর সকল সংবাদ

নাটোরে বিনামূল্যে আইটি প্রশিক্ষণ দেবে পিপলএনটেক

হাইটেক পার্কের সহযোগিতায় সম্পূর্ণ বিনামূল্যে নাটোরে আইটি বিষয়ক প্রশিক্ষণ দিবে পিপলএনটেক। এর ফলে, নাটোরের ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের নিজস্ব জেলায় ঢাকার মত করেই প্রযুক্তি প্রশিক্ষণের সুযোগ পাবে।এই প্রজেক্টের আওতায় পিপলএনটেক মূলত দুটি বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণ দিবে। ১. গ্রাফিক্স ডিজাইন ২. ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট। পিপলএনটেকে এর ডিরেক্টর লায়ন মোঃ ইউসুফ খান জানিয়েছেন, "শুধুমাত্র প্রশিক্ষণ নয়, প্রশিক্ষণ শেষে ভাল ছাত্রছাত্রীদের চাকরীর ব্যাবস্থা করে দেওয়া হবে'

পিপলএনটেক যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি প্রযুক্তি প্রশিক্ষন ইন্সটিটিউট, যারা নিউইয়র্ক, ভার্জিনিয়া আর

বিস্তারিত খবর

যে পাঁচ উপায়ে ঠিকঠাক রাখবেন নিজের কম্পিউটার

 প্রকাশিত: ২০১৮-১১-০৬ ১৩:৩৬:২২

অনেক সময় দেখা যায় কম্পিউটার কেনার দুই-এক বছরের মধ্যেই সেটি আর সাচ্ছন্দে ব্যবহার করা যাচ্ছে না। অথবা নতুন কেনা ল্যাপটপ চালু হতেই অনেক্ষণ সময় লাগে। প্রতিনিয়ত ব্যবহারের সময় কম্পিউটারের এসব সমস্যা আপনি নিজেই খুব সহজে মিটিয়ে ফেলতে পারেন।

তাপমাত্রা

কম্পিউটারের ভেতরে কী চলছে তা সাধারণত আমরা খেয়াল করি না। কম্পিউটার যখন এক-দুই বছরের পুরনো হতে থাকে, তখন স্বাভাবিকভাবেই সিপিইউ-এর ওপরের কুলারটিতে ধুলো জমে যায়। এতে কম্পিউটার ঠাণ্ডা করার কাজে ব্যাঘাত ঘটে। এ ছাড়াও ওই ফ্যানের নিচে আর সিপিইউ-এর মাঝে একটা পাতলা থার্মাল পেস্টের লেয়ার থাকে, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সেটাও কিছুটা শুকিয়ে আসে। ফলে সিপিইউ থেকে তাপ কুলার পর্যন্ত পৌঁছতে পারে না।

এখন থেকে কম্পিউটার চালিয়ে এইচডব্লিউ-মনিটর (HWMonitor) নামের সফটওয়্যার ব্যবহার করুন। এটি বিনামূল্যেই পাবেন। কম্পিউটার যখন চালু করছেন, আর যখন একসাথে অনেক প্রোগ্রাম চালাচ্ছেন, তখন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা কত মাঝে মাঝে খেয়াল করে দেখুন। যদি দেখেন তাপমাত্রা সাধারণভাবে ৩৫-৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ ৭৫ ডিগ্রির মধ্যে ঘোরাফেরা করছে, খুব একটা চিন্তার কারণ নেই। তাপমাত্রা যদি তার থেকে বেড়ে যায়, তাহলে ভাল করে ভেতরের ধুলা পরিষ্কার করুন। অনেক ক্ষেত্রে এতেই কাজ হয়ে যায়। কিন্তু তাতেও না হলে থার্মাল পেস্ট পাল্টাতে হতে পারে। নিজে না পারলে অভিজ্ঞ কারও সাহায্য নিন।

হার্ড ডিস্ক স্লো
কম্পিউটার চালু হতে বা সামান্য একটা ফাইল খুলতেই অনেক সময় লেগে গেলে খেয়াল করে দেখুন, আপনার ল্যাপটপের হার্ড ডিস্কের স্পিড কত আরপিএম। যদি সেটা ৫,৪০০ রোটেশন প্রতি মিনিট হয়, তবে তা সাধারণ ৭,২০০ আরপিএম হার্ড ডিস্কের থেকে স্লো হবেই, কিছু করার নেই। এটা কেনার আগেই খেয়াল করবেন।

কিন্তু আপনার সাধারণ ৭,২০০ আরপিএম-এর হার্ড ডিস্ক যদি আগের থেকে স্লো হয়ে যায়, সেটাকে ডিফ্র্যাগ করুন। এর ফলে যত তথ্য রয়েছে হার্ড ডিস্কে, সব একটা নির্দিষ্ট অংশে থাকবে, হার্ড ডিস্ক জুড়ে ছড়িয়ে থাকবে না, ফলে আপনি যখন কোনও ফাইল খুঁজবেন, অনেক তাড়াতাড়ি সেটা খুঁজে পাবেন, খুলে ব্যবহার করতে পারবেন। যদি নতুন কম্পিউটার হয়ে থাকে, তাহলে শুরুতেই বায়োস সেটিংস (BIOS Settings) ব্যবহার করে ফাস্ট বুট চালু করে দিন, উইনডোজ চালু হবে আরও তাড়াতাড়ি।

র‍্যামের যথাযথ ব্যবহার
অনেক সময় ৮ জিবি র‍্যাম থাকা সত্ত্বেও সামান্য কিছু ট্যাব খুলতেই প্রায় অর্ধেক র‍্যাম ভরে যায়, তার পর ছবি বা ভিডিও এডিটের মতো কাজ করার প্রায় কোনও উপায়ই থাকে না। এ ক্ষেত্রে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে কম্পিউটারে শুরু হতেই পেছনে কী কী সফটওয়্যার চালু হয়ে গেছে। অনেক ক্ষেত্রে একাধিক এমন সফটওয়্যারও চালু হয়ে যায়, যা আপনি হয়তো কোনও দিন ব্যবহারও করেননি বা খুব অল্প ব্যবহার করেছেন। টাস্ক ম্যানেজার থেকে দেখুন স্টার্টআপে কী কী সফটওয়্যার চালু হচ্ছে। অপ্রয়োজনীয় সবকটি সফটওয়্যার বন্ধ করুন। দেখুন অটো আপডেটে কী কী সফটওয়্যার রয়েছে, যার জন্য আপনার কম্পিউটার এবং নেট স্লো হয়ে যেতে পারে, সব বন্ধ করুন। ম্যানুয়ালি আপডেট করুন নিজের প্রয়োজন অনুযায়ী। খেয়াল রাখুন ক্যাশে মেমরি এবং টেম্প ফাইল, জাঙ্ক ফাইল নিয়মিত ক্লিয়ার করার কথা। শুধু র‍্যাম নয়, গোটা কম্পিউটারই আরও ফাস্ট হবে। সি-ক্লিনার (C Cleaner) এ রকমই একটা সফটওয়্যার, ফ্রি-তে পাবেন, আপনার জন্য এ রকম সব কাজ একটা ক্লিকে করে দেবে।

প্রয়োজনীয় আপডেট
সাধারণত কোনও আপডেট দেখলেই সেটা ‘রিমাইন্ড মি লেটার’ করে রাখি আমরা। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই এটা শুধু দরকারি তাই নয়, আপনার কম্পিউটারকে সুরক্ষিত রাখার জন্যেও এটা ভাল। ওয়ানাক্রাই (Wanna Cry) বেশি দিন আগের কথা নয়। এই ভাইরাস আপনার কম্পিউটারকে হ্যাক করে এমন অবস্থায় রেখে দেবে যে, দাবি অনুযায়ী টাকা না দেওয়া অবধি আপনি কিছু করতে পারবেন না ওই কম্পিউটারে। কিন্তু এই ভাইরাস আসার আগে আগেই উইনডোজ আপডেট দিয়েছিল সমস্ত ব্যবহারকারীর জন্য। যারা আপডেট করে নিয়েছিলেন, তাদের কিন্তু কিচ্ছু হয়নি। আপডেটগুলো বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই কোনও নতুন ফিচার বা পুরনো সমস্যা মেটানোর জন্যই, তাই আপনার প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারগুলি আপডেট করে রাখুন।

ক্লিন ফরম্যাট
ডেস্কটপ ভর্তি আইকন, ফাইল, হার্ড ডিস্ক প্রায় ভর্তি, এ রকম অবস্থায় কম্পিউটার আগের থেকে স্লো চলবে, সেটাই স্বাভাবিক। সব থেকে ভাল, সমস্ত ফাইলের ব্যাকআপ নিন একটা হার্ড ডিস্কে, নিয়ে ক্লিন ফরম্যাট করুন। এটা ঠিক, তার পর সমস্ত সফটওয়্যার ইনস্টল করা, বুকমার্ক তৈরি করা, সব মেইল আইডি ধরে লগ ইন করা, হাজার ঝক্কি। কিন্তু যদি মনে করেন, আগের থেকে একটু ভালভাবে কম্পিউটারটা চলুক, তাহলে হয় আপনার অগোছালো অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে অথবা ক্লিন ফরম্যাট।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

আগামী ৪৮ ঘণ্টা বিশ্বজুড়ে বন্ধ থাকবে ইন্টারনেট পরিষেবা!

 প্রকাশিত: ২০১৮-১০-১২ ১৩:৫৫:৪৫

আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বিশ্বজুড়ে ইন্টারনেট পরিষেবা বিপর্যস্ত হবে। কি ডোমেন সার্ভারের রুটিন মেরামতের কারণে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের এই সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে বলে বলা হচ্ছে। রুশ গণমাধ্যম রাশিয়া টুডের খবরে এ কথা বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এর ফলে ওই সময়ের মধ্যে ওয়েব পেজ খোলায় সমস্যা হবে, ব্যাহত হতে পারে ইন্টারনেটের সঙ্গে জড়িত সমস্ত রকম লেনদেনও। এমনকি ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধও হয়ে যেতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

রাশিয়া টুডের বরাত দিয়ে কলকাতাভিত্তিক আনন্দবাজার বলছে, দ্য ইন্টারনেট কর্পোরেশন অব অ্যাসাইনড নেমস অ্যান্ড নাম্বারস (আইসিএএনএন) এই মেরামতির কাজ করবে। ইন্টারনেটের অ্যাড্রেস বুক বা ডোমেন নেম সিস্টেম (ডিএনএস)-কে সুরক্ষিত রাখার জন্য যে ‘ক্রিপটোগ্রাফিক কি’ রয়েছে তা বদলানোর কাজ চলবে এই সময়ে।

আইসিএএনএন জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে যেভাবে সাইবার হানা বাড়ছে, হ্যাকরদের কবল থেকে ইন্টারনেটকে সুরক্ষিত রাখতেই এই ‘ক্রিপটোগ্রাফিক কি’ বদলানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কমিউনিকেশনস রেগুলেটরি অথরিটি (সিআরএ) এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ডিএনএস-কে আরও সুরক্ষিত করতে এই সময়ের জন্য বিশ্বজুড়ে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া জরুরি।

সিআরএ আরও জানিয়েছে, নেটওয়ার্ক অপারেটরস বা ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডাররা (আইএসপি) যদি এই অবস্থার জন্য প্রস্তুতি না নেয় তা হলে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা সমস্যার মুখে পড়তে পারেন। তবে সিস্টেম সিকিউরিটি এক্সটেনশনকে যদি যথাযথভাবে সক্রিয় রাখা যায়, তা হলে কিছুটা হলেও এর প্রভাব আটকানো সম্ভব হবে বলে জানিয়েছে সিআরএ।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মেসেঞ্জারে আসছে ভয়েস কমান্ড সুবিধা

 প্রকাশিত: ২০১৮-১০-০৭ ১৪:৫২:১৫

মেসেঞ্জারে জরুরি ভিত্তিতে কাউকে কিছু জানানো প্রয়োজন। কিন্তু এমন অবস্থায় আছেন যে, টেক্সট লেখার সুযোগ পাচ্ছেন না। এ ধরনের পরিস্থিতি সামাল দিতেই মেসেঞ্জারে এবার ভয়েস কমান্ড চালুর পরিকল্পনা করছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

এই ফিচার চালু হলে মেসেঞ্জারের সাহায্যে যোগাযোগ আরও সহজ হবে। ব্যবহারকারীদের কথা লেখা আকারে উঠবে মেসেঞ্জারে। তারপর সেটা নির্দিষ্ট ঠিকানায় পাঠিয়ে দেওয়া যাবে।

প্রযুক্তিভিত্তিক সাইট টেক ক্রাঞ্চের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দ্রুতই ভয়েস কমান্ড ফিচার চালু করতে পারে মেসেঞ্জার। এজন্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষ কাজও শুরু করে দিয়েছে। বলা হচ্ছে, ইতোমধ্যে নিজস্ব পরিসরে পরীক্ষামূলকভাবে ভয়েস কমান্ড ফিচার চালু করেছে ফেসবুক। সেখানে সফলতা পাওয়া গেলে সবার জন্য এটা উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

টেক ক্রাঞ্চ বলছে, মেসেঞ্জারে ভয়েস কমান্ড চালু হলে গ্রাহকদের অনেক সময় বাঁচবে। এছাড়া অন্য যেকোনও কাজের পাশাপাশি কথোপকথন চালিয়ে যাওয়া যাবে এই প্লাটফর্মে। গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রে ভয়েস কমান্ড সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে ধারণা করছেন প্রযুক্তি বিশ্লেষকরা।

সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে সবসময়ই গ্রাহকদের জন্য নতুন সব ফিচার আনার চেষ্টা করে ফেসবুক মেসেঞ্জার। তারই ধারাবাহিকতায় ভয়েস কমান্ড চালুর পদক্ষেপ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইন্টারনেটের বিকল্প নিয়ে আসছেন ইন্টারনেটের উদ্ভাবক

 প্রকাশিত: ২০১৮-১০-০১ ১১:২১:৫৭

ড. ফ্রাঙ্কেন্সটাইন যেমন তার তৈরি করা দানবের কাজে আতঙ্কিত ছিলেন, তেমনই ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবের অর্থাৎ ইন্টারনেটের উদ্ভাবক টিম বার্নারস-লিও তার উদ্ভাবনের কুফলে বিরক্ত।

ইন্টারনেট ‘অসাম্য ও বিভাজনের উৎপাদনের যন্ত্র’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

কিন্তু বার্নার্স-লি বিশ্বাস করেন তিনি এখন ইন্টারনেটের বিকল্প একটি ওয়েব উদ্ভাবন করেছেন যেখানে ইউজাররা ফেসবুক, অ্যামাজন ও গুগলের মতো ইন্টারনেট জায়ান্টকে এড়িয়ে চলতে পারবে।

সবার জন্য উন্মুক্ত এই প্রকল্পের নাম ‘সলিড’। এখানে ইউজাররা তাদের তথ্য কোথায় রাখবেন এবং কাদের সঙ্গে শেয়ার করবেন বা কারা এগুলো দেখতে পারবে সেটা তারা নিজেরাই ঠিক করতে পারবেন। বিপুল পরিমাণ তথ্য গুটিকয় বৃহৎ প্রতিষ্ঠানের হাতে কুক্ষিগত হয়ে না থাকার ফলে ওয়েবের ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ ঘটবে।

একটি ব্লগ পোস্টে তিনি লেখেন, ‘এখন ইউজাররা জরুরী মনে করায় তাদের ব্যক্তিগত তথ্য ডিজিটাল জায়ান্টগুলোকে দিয়ে থাকেন। কিন্তু সলিড এই ব্যবস্থা বদলে দিবে। আমরা সবাই দেখেছি প্রচলিত পদ্ধতি আমাদের জন্য বিশেষ উপকারী নয়।’

‘কার্যত সলিড প্রত্যেক ইউজারকে তাদের নিজস্ব ইন্টারনেট দিয়ে থাকে’, মার্কিন মাগাজিন ফাস্ট কোম্পানিকে জানান বার্নার্স-লি।

বিদেশি হ্যাকারদের দ্বারা ফেসবুকের তথ্য বেহাত হয়ে যাওয়ার প্রতি ইঙ্গিত দিয়ে তিনি বলেন, ‘এটা আমাদেরকে এখনই করতে হবে, কারণ এটা একটা ঐতিহাসিক মুহূর্ত।’

এছাড়াও, ‘আমরা এখন সলিডের জমানায় উপস্থিত’ হয়েছি, যোগ করেন তিনি।

অক্সফোর্ডে শিক্ষিত ৬৩ বছর বয়সী বার্নার্স-লি বেশ কয়েক বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজিতে (এমআইটি) সলিড প্রকল্পে কাজ করছেন। অক্সফোর্ডের সঙ্গে সঙ্গে তিনি এমআইটিতেও অধ্যাপনা করেন।

বার্নার্স-লি ইনরাপ্ট নামের একটি ব্যবসার উদ্যোগ শুরু করেছেন, যা সপ্তাহে উদ্বোধন করা হবে। এটির মাধ্যমে ইউজাররা সলিডে তাদের নিজস্ব বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করতে পারবেন।

সলিডের ইন্টারনেটের প্রযুক্তির মতোই কাজ করবে কিন্তু, বিভিন্ন অ্যাপ ও সাইটের সঙ্গে ডেভেলপারদের সলিডকে সংযুক্ত করতে হবে। এজন্য প্রয়োজনীয় প্রথম পর্যায়ের অ্যাপগুলোর বাজারে আনার কাজ চলছে, ইনরাপ্টের বক্তব্য উদ্ধৃত করে জানায় এনগ্যাজেট সাইট।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যেভাবে সুরক্ষিত রাখবেন আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৯-২৪ ১০:৩৯:০০

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো ফেসবুক। ফেসবুক এখন জীবনের অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে। আপনার একটু অসতর্কতার কারণে ফেসবুক আইডি হ্যাক বা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। যার ফলাফল হয় ক্ষেত্র বিশেষে খুবই ভয়াবহ। ইন্টারনেটে বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ প্রদান করা ওয়েবসাইট উইকিহাউ ডটকম ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখার কয়েকটি উপায় জানিয়েছে। নয়া দিগন্তের পাঠকদের জন্য সেসব উপায় এখানে তুলে ধরা হলো:

ফেসবুকে লগ ইন: ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড টাইপ করুন। তবে কখনোই ‘কিপ মি লগড ইন' বক্স চেক করবেন না। এটা করলে আপনার অ্যাকাউন্ট বেহাত হওয়ার ঝুঁকি বাড়বে। শুধু নিজের কম্পিউটারেই এই বক্সে হাত দেওয়া যেতে পারে।

পাসওয়ার্ড কাউকে বলা যাবে না: অনেক সময় অন্য ফেসবুক ব্যবহারকারীর সঙ্গে নিজের পাসওয়ার্ড শেয়ার করেন অ্যাকাউন্টধারীরা, যা থেকে অ্যাকাউন্ট হ্যাকিংয়ের ঘটনা ঘটে। কোনো বন্ধুর সঙ্গে পাসওয়ার্ড শেয়ার করলে তিনি আপনার অ্যাকাউন্টে ঢুকে উলটোপালটা কিছু করতে পারেন। আর এতেই আপনি গুরুতর সমস্যায় পড়ে যেতে পারেন।


পাবলিক প্লেসে লগ ইন নয়: ঘুরতে বেরিয়ে বন্ধুদের মনে হতে পারে আস্থা করার মতো এবং আপনি পাবলিক প্লেসে যথাযথ নিরাপত্তা পদক্ষেপ ছাড়াই ফেসবুকে লগ ইন করলেন। এটাও আপনাকে গুরুতর সমস্যায় ফেলতে পারে।

# সাইবার ক্যাফে বা কোনো বন্ধুর কম্পিউটারে ফেইসবুক লগ ইনের সময় কখনো ‘কিপ মি লগড ইন' বা ‘সেভ পাসওয়ার্ড’-এ ক্লিক করা যাবে না।

# আপনার বন্ধুরা ফেসবুক ডিক্রিপটর সফটওয়্যার ইনস্টল করে থাকতে পারে, যা আপনার ফেসবুক লগ ইনের সব তথ্য স্টোর করবে। তাই এই সফটওয়্যারের বিষয়ে আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে। কারণ আপনার বন্ধুরা এবং সাইবার ক্যাফে কখনো আপনাকে তা জানাবে না।

# সব সময় এমন একটি পাসওয়ার্ড রাখতে হবে, যেটা কেউ ধারণা করতে না পারে। পাসওয়ার্ড অনেক বড়ও হতে পারে।

# তবে সহজ কিন্তু বড় একটা পাসওয়ার্ড দিলেই আপনার অ্যাকাউন্ট নিরাপদ হবে না। অন্যের অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণ নিতে হ্যাকাররা ‘ডিকশনারি অ্যাটাক' নামে একটি কৌশল অবলম্বন করে যেখানে ইংরেজি বর্ণমালা দিয়ে তৈরি করা যায় এমন সব শব্দই ব্যবহার করা হয়। এ ধরনের আক্রমণ থেকে অ্যাকাউন্ট রক্ষায় সব সময়ই সংখ্যা, প্রতীক যেমন !@#%^°& ইত্যাদি ব্যবহার করা যায়।

#  পাসওয়ার্ডমিটার-এর মতো ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার পাসওয়ার্ড কতো শক্তিশালী তা পরীক্ষা করে দেখতে পারেন।

# দুই থেকে তিন মাস পর পর আপনার পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করুন। তাহলে কেউ আপনার পাসওয়ার্ড জানলেও একটা সময় পর আর ফেসবুকে ঢুকতে পারবে না।

# এই ভুলগুলোই বেশিরভাগ মানুষ করে থাকে। এ থেকে আপনাকে সাবধান থাকতে হবে। পাসওয়ার্ড, পাসওয়ার্ড ১২৩, নিজের নাম, বন্ধু-বান্ধবী-স্ত্রীর নাম, নিজের ডাক নাম এগুলোই অনেকে পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করেন। এখানে গুরুত্বপূর্ণ যে আপনার পরিচিত বা বন্ধুদের কেউ আপনার পাসওয়ার্ড পেতে চাইলে প্রথমেই এগুলো দিয়ে চেষ্টা করবে।

# একাধিক সাইটের জন্য একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা যাবে না। যেমন ফেসবুক, টুইটার ও গুগল অ্যাকাউন্টের জন্য ভিন্ন ভিন্ন পাসওয়ার্ড রাখতে হবে। একই পাসওয়ার্ড হলে কেউ আপনার যে কোনো একটি অ্যাকাউন্টে ঢুকতে পারলে সেই পাসওয়ার্ড দিয়ে অন্যগুলোতেও ঢুকতে পারবে।

থার্ড পার্টি অ্যাপ নিয়ে সাবধান: আপনার ডিভাইস বা ফেইসবুকের ছাড়া অন্য কারও তৈরি অ্যাপ ব্যবহার করে ব্যক্তিগত তথ্যে প্রবেশ ঠিক হবে না। এটা করলে ওই অ্যাপগুলো আপনার হয়ে যে কোনো পোস্ট আপলোডে সক্ষম হবে, যা নিরাপদ ফেসবুকের জন্য বিপজ্জনক হতে পারে। এমন থার্ড পার্টি অ্যাপ ব্যবহার করবেন যেটা ফেসবুক স্বীকৃত।

প্রাইভেসি সেটিংস:  প্রাইভেসি সেটিংস নিতান্তই নিজের হাতে রাখতে হবে এবং ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখতে এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ৷ এর ধাপগুলো নীচে তুলে ধরা হলো –

# সেটিংসে যান, সবার উপরে ‘সিকিউর ব্রাউজিং' অপশন পাবেন৷ এই অপশনে ঢুকতে হবে এবং ‘ব্রাউজ ফেসবুক অন অ্যা সিকিউর কানেকশন (এইচটিটিপিএস) হোয়েন পসিবল' বক্স চেক করবেন। এটাও আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিরাপদ করবে।

# সেটিংসে যান, দ্বিতীয় অপশনে আপনি ‘লগইন নোটিফিকেশনস' পাবেন। এই অপশনে গিয়ে সেখানে যেসব বক্স পাওয়া যাবে সেগুলো চেক করতে হবে। এটার লাভ হলো, কোনো সময় আপনি অন্য কারো কম্পিউটার থেকে ফেসবুকে ঢুকলে সঙ্গে সঙ্গে আপনি একটা বার্তা পাবেন যে কেউ আপনার অ্যাকাউন্টে ঢুকেছে। এতে ব্রাউজার নেম, কম্পিউটার অপারেটিং সিস্টেমও জানিয়ে দেয় এবং তা প্রয়োজনে আপনার অসুন্ধান সহজ করে দেবে।

# সেটিংসের তৃতীয় অপশন সিকিউরিটিতে যান। এখানে ‘লগইন অ্যাপ্রোভালস' অপশন পাবেন। ‘এডিটে' ক্লিক করুন এবং ‘রিকয়ার অ্যা সিকিউরিটি কোড টু অ্যাকসেস মাই অ্যাকাউন্ট ফ্রম আননোন ব্রাউজারস' বক্স চেক করুন। ‘লগইন অ্যাপ্রোভালস ইজ অ্যান এক্সট্রা লেয়ার অফ সিকিউরিটি দ্যাট ইউজেস ইওর ফোন টু প্রটেক্ট ইওর অ্যাকাউন্ট' লেখা একটি পপ আপ বক্স আসবে। ‘গেট স্টারটেড' লেখায় ক্লিক করুন। এর ফলে অপরিচিত কোনো ব্রাউজার থেকে আপনার ফেইসবুকে লগইনের চেষ্টা হলে ফেসবুক থেকে আপনার মোবাইলে একটি মেসেজ আসবে। বলাবাহুল্য, ফেসবুক মাঝেমাঝে এসব সেটিংসে ভাষাগত পরিবর্তন আনে। তবে, মূল বিষয়গুলো একই থাকে৷।


# আরেকটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ফিচার হচ্ছে ‘টু-ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশন’। এই অপশন চালু করলে অপরিচিত ব্রাউজার থেকে লগ-ইন করার সময় পাসওয়ার্ডের পাশাপাশি একটি কোড ব্যবহার করতে হবে আপনার, যা মোবাইল এসএমএস বা ফেসবুক অ্যাপের মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া যাবে। ফেসবুকে অনাকাঙ্খিত লগ-ইন রোধে এই পন্থা বেশ কার্যকর।

# সেটিংসে ‘ট্রাস্টেড কনট্রাক্টস'-এ যান। এতে ফেসবুকে আপনার ট্রাস্টেড কনটাক্টস তৈরি হবে, যা আপনি পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে বা কেউ আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করলে তা পুনরুদ্ধারে সহায়তা করবে। খুব বেশি নয়, অন্তত তিনজনকে ট্রাস্টেড কনটাক্টসে রাখুন।

# সেটিংসে প্রাইভেসিতে যান। ‘হু ক্যান সি মাই স্টাফস' লেখা দেখতে পাবেন। এই অপশন এডিট করে ‘ফ্রেন্ডস অব ফ্রেন্ডস' থেকে ‘ফ্রেন্ডস (অনলি)' করুন। এটা না করলে আপনার ফেসবুক ফ্রেন্ডদের ফ্রেন্ডরাও আপনার  ‘স্টাফস' দেখতে পাবে। তাদের মধ্যে কেউ হ্যাকারও হতে পারে।

# ফটো/ভিডিও বা অন্য কোনো কিছু শেয়ার করার সময় আপনি ‘ফ্রেন্ডস' অপশনেও ক্লিক করতে পারেন। এতে আপনি যা শেয়ার করছেন তা শুধু আপনার বন্ধু তালিকায় যারা আছেন তারাই দেখতে পাবেন।

#  সেটিংস পেইজে ‘টাইমলাইন অ্যান্ড ট্যাগিং'- এ ক্লিক করুন এবং ‘ফ্রেন্ডস টু ফ্রেন্ডস' থেকে ‘ফ্রেন্ডস (অনলি)' অপশনে চলে যান। এতে আপনার অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা বাড়বে।

‘সেটিংস> জেনারেল> ডাউনলোড অ্যা কপি' – এই পদ্ধতিতে আপনার ফেইসবুক ডেটা ডাউনলোড করে সংরক্ষণ করতে পারেন, যাতে হ্যাকারের কবলে ডেটা হারিয়ে যাওয়ার ঝুঁকি মুক্ত থাকা যায়।

সেলিব্রেটি হলে ফেসবুক পেইজ খুলুন – যাদের  কাছে ভক্তদের অনেক মেইল/মেসেজ আসে বা হুমকি দিয়ে বার্তা দেওয়া হয়, তাদের জন্য এটাই উত্তম পন্থা।

শুধু পরিচিতদেরই বন্ধু তালিকায় রাখুন – ‘পিপল ইউ মে নো'হিসেবে যারা আসে তাদের সবাইকে ফ্রেন্ড হিসেবে অ্যাড করবেন না। সাধারণত কিশোর-কিশোরীরা এটা করে থাকেন। এভাবে ফ্রেন্ড করা হলে তাদের মধ্যে হ্যাকারও আপনার বন্ধু তালিকায় চলে আসতে পারে।

নিয়মিত বন্ধু তালিকা চেক করবেন। হ্যাকাররা আপনার কোনো বন্ধুর নাম-ছবি ব্যবহার করে ভুয়া প্রোফাইল খুলতে পারে। কোনো হ্যাকারকে বন্ধু তালিকায় ঢুকতে দেওয়ার অর্থ তাকে আপনার ব্যক্তিগত কনটাক্ট ও তথ্যে প্রবেশাধিকার দেওয়া। শুধু বাস্তব জীবনে পরিচিতদেরই বন্ধু তালিকায় রেখে এই ঝুঁকি এড়িয়ে চলুন।

বিস্তারিত খবর

সিঙ্গাপুরে প্রথম এশিয়ান ডেটা সেন্টার করছে ফেসবুক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৯-০৭ ১২:৩৪:৫৮

সিঙ্গাপুরে ১৪০ কোটিরও বেশি সিঙ্গাপুরি ডলার বিনিয়োগ করে নিজেদের প্রথম এশিয়ান ডেটা সেন্টার করার ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

দেশটির পশ্চিমাঞ্চলের ডেটা সেন্টার পার্ক হিসেবে পরিচিত তানজং ক্লিংয়ে ১,৭০,০০০ বর্গমিটার জায়গাজুড়ে নির্মিত হবে এই ১১তলা ভবন।

বৃহস্পতিবার ডেটা সেন্টারটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এই ঘোষণা দেয় বলে জানিয়েছে সিঙ্গাপুরের গণমাধ্যম চ্যানেল নিউজ এশিয়া।

এসময় ফেসবুকের ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেটা সেন্টার বিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট টমাস ফুরলং বলেন, এটি হবে এশিয়ায় আমাদের প্রথম ডেটা সেন্টার। এটা ২০২২ সালে চালু হবে বলে আশা করা হচ্ছে, যদিও তা নির্মাণ কাজের গতির ওপর নির্ভর করবে।

তিনি বলেন, এই নতুন প্রকল্পে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান হবে। কারণ, নেটওয়ার্ক রক্ষণাবেক্ষণ থেকে শুরু করে সরবরাহকর্মী- সব মিলিয়ে এখানে কয়েক হাজার অপারেটরের প্রয়োজন হবে।

তিনি আরও বলেন, এটি একটি দীর্ঘমেয়াদী প্রকল্প এবং এতে সবমিলিয়ে কতজন কর্মীর প্রয়োজন তা নিয়ে এখনও কাজ করছে কর্তৃপক্ষ।

সিঙ্গাপুরের বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী চ্যান চুন সিং বলেন, এখানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির প্রথম এশিয়ান ডেটা সেন্টার নির্মাণের সিদ্ধান্তটি আমাদের জন্য উল্লেখযোগ্য মাইলফলক।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

হজ পালনে সুবিধার জন্য অ্যাপস আনলো সৌদি সরকার

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৮-২০ ০৫:৪৬:৩০

পবিত্র হজ পালনে প্রতি বছর পৃথিবীর নানা প্রান্তের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা জমায়েত হন পবিত্র মক্কায়। ধর্মপ্রাণ এই হাজিদের সুবিধার্থে এবার সৌদি আরবের যোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় ‘স্মার্ট হজ’ নামে নতুন উদ্যোগ চালু করেছে। এই উদ্যোগের আওতায় সৌদি সরকার হাজিদের নির্বিঘ্নে চলাচল নিশ্চিত করতে বেশ কয়েকটি অ্যাপ চালু করেছে। খবর সৌদি গেজেট।

এই অ্যাপগুলো ব্যবহার করে হজ পালনকারীরা তাদের ভ্রমণের পরিকল্পনা থেকে শুরু করে চিকিৎসা সেবা  পর্যন্ত সব কিছুর ব্যবস্থা করতে পারবেন।

আসেফনি (Asefny) হচ্ছে সৌদি আরবের রেড ক্রিসেন্টের অ্যাপ, যার মাধ্যমে হজ পালনকারীরা জরুরি চিকিৎসা সহায়তা চাইতে পারবেন। এটিতে মোট ছয়টি ভাষায় এসব তথ্য দেয়া আছে। যাদের বিভিন্ন জরুরি সহায়তা দরকার এই অ্যাপের মাধ্যমে কর্তৃপক্ষ তাদের অবস্থান জানতে পারবেন।

সৌদি হজ মন্ত্রণালয় মানাসিকানা (Manasikana) নামের আরেকটি অ্যাপ চালু করেছে। যারা আরবি বা ইংরেজি জানেন না এমন ভাষাভাষীদের এক স্থান থেকে আরেক স্থানে গমনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য, সময়সূচি, মক্কা-মদিনার আবহাওয়া, মুদ্রা বিনিময়ের হার ও জায়গা এবং জরুরি ফোন নম্বর ও নিকটস্থ ইমারজেন্সি সেন্টারের তথ্যসহ বিভিন্ন নির্দেশনা দেয়া আছে। অ্যাপটিতে মোট আটটি ভাষায় এসব তথ্য পাওয়া যাবে।

এই উদ্যোগের আওতায় আরও কয়েকটি ডিজিটাল সেবা ও গুরুত্বপূর্ণ অ্যাপ রয়েছে। মক্কা ও মদিনার হজ পালনকারীদের সহায়তায় হজের আচরণবিধি, বিভিন্ন পবিত্র স্থানের ম্যাপ, প্রযুক্তি বিষয়ক নির্দেশনা এবং গাইডলাইন, স্বাস্থ্য বিষয়ক অ্যাপ ও সরকারি অ্যাপ চালু করা হয়েছে বলে জানায় hajj.media.gov.sa এই ওয়েবসাইট।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইউটিউবের সক্রিয় গ্রাহক প্রায় ২ কোটি

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২৩ ১৩:০৮:৩৮

গুগল মালিকানাধীন জনপ্রিয় ভিডিও প্ল্যাটফর্ম ইউটিউবে মাসিক গড় ১৯০ কোটি সক্রিয় গ্রাহক রয়েছে। এর মধ্যে ১৮ কোটি গ্রাহক টিভি স্ক্রিনে প্রতিদিন ইউটিউব ভিডিও দেখেন।

ইউটিউবের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সুসান ওয়াজিকি এই তথ্য জানিয়েছেন।

সুসান জানিয়েছেন, ইউটিউবে আগের চেয়ে লাইক কমেন্ট চ্যাট ইত্যাদি ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি আরও জানান, প্রতিষ্ঠানের সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে আমরা আগের চেয়ে অনেক বেশি প্রশ্নের উত্তর দিতে চেয়েছি। আগের চেয়ে টুইটারে প্রায় ৬০০ শতাংশ বেশি প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের জন্য তৈরি ইউটিউব স্টুডিওর মাধ্যমে অনেক বেশি তথ্য জানা যায়।

ফেব্রুয়ারি মাসে অল্প কিছু ক্রিয়েটারদের নিয়ে ইউটিউবে নতুন এই ড্যাশবোর্ড পরীক্ষা শুরু করা হয়েছিল। ইতোমধ্যেই সব ইংরেজি চ্যানেলে নতুন এই ড্যাশবোর্ড তৈরি হয়ে গিয়েছে।

আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যেই বাকি ৭৬টি ভাষার চ্যানেলেও এই ড্যাশবোর্ড চলে আসবে। প্রত্যেকদিন ৬ কোটি গ্রাহক ইউটিউব কমিউনিটি পোস্টে অংশগ্রহণ করেন।

সুসান জানিয়েছেন, এর সাথেই লাইভ স্ট্রিম এর জনপ্রিয়তা ক্রমশই বাড়ছে, গত তিন বছরে লাইভ স্ট্রিম এর সংখ্যা প্রায় দশ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাজ্যে পাঁচ লাখ পাউন্ড জরিমানার মুখে ফেসবুক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১১ ১৪:৪৬:২৮

যুক্তরাজ্যের তথ্য অধিকার সংরক্ষণ বিষয়ক সংস্থা ফেসবুককে পাঁচ লক্ষ পাউন্ড জরিমানার পরিকল্পনা করছে। ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারির জের ধরে এই জরিমানার কথা ভাবছে ব্রিটেনের তথ্য কমিশনারের অফিস।
 
ব্রিটেনে এটাই হবে এ ধরণের সবচেয়ে বড় অংকের জরিমানা। খবর- বিবিসির।

তবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এ জরিমানার অংক কমানোর চেষ্টা করবে কিনা সে বিষয়ে এখনো কিছু বলেনি।

ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল রাজনৈতিক দলের ব্যবহার জন্য তারা অনৈতিকভাবে কোটি-কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য সরবরাহ করেছিল।

ফলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন এবং ইউরোপিয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে আসার বিষয়ে গণভোটের ফলাফল প্রভাবিত হয়েছিল বলে অভিযোগ রয়েছে।

তথ্য অধিকার সংরক্ষণ বিষয়ক সংস্থাটি আরো জানিয়েছে আর্থিক জরিমানার পাশাপাশি বিলুপ্ত হওয়া ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার সহযোগী সংস্থা এসসিএল ইলেকশনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করার কথাও ভাবছে।

ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য কিভাবে হুমকির মুখে পড়তে পারে সে সংক্রান্ত কোন ব্যাখ্যা ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের ব্যবহারকারীদের কাছে ব্যাখ্যা করেনি।

এর পাশাপাশি সংস্থাটি ব্রিটেনের ১১টি রাজনৈতিক দলের কাছে চিঠি দিয়েছে যাতে তারা তাদের তথ্য যথাযথভাবে সংরক্ষণ করে এবং সেটি ঠিকমতো হচ্ছে কিনা তা নিরীক্ষা করে।

ব্রিটেনে ব্রেক্সিট প্রশ্নে গণভোটের সময় রাজনৈতিক প্রচারণায় জনগণের ব্যক্তিগত তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষটি নিয়ে এখনো তদন্ত চলছে।

এ তদন্ত শুরুর ১৬ মাস পরে ব্রিটেনের তথ্য কমিশনারের অফিস থেকে ফেসবুককে জরিমানার উদ্যোগ এসেছে।

যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার কাছে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের যেসব ব্যক্তিগত তথ্য ছিল সেগুলো যাতে তারা মুছে ফেলে সেটি ফেসবুক নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে।

এতে ফেসবুকের নিয়ম-নীতির লঙ্ঘন হয়েছে বলে মনে তথ্য কমিশনারের অফিস।

তবে বন্ধ হয়ে যাবার আগে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা জানিয়েছিল যে ফেসবুকের কাছ থেকে তথ্য মুছে ফেলার অনুরোধ পাবার পর তারা সব তথ্য মুছে ফেলেছে।

কিন্তু তথ্য কমিশনার অফিস বলছে সেসব তথ্য যে অন্যদের দেয়া হয়েছে সে সংক্রান্ত প্রমাণ তাদের হাতে রয়েছে।

তীব্র বিতর্কের মুখে গত মে মাসে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দেবার ঘোষণা দেয়া হয়।

এর আগে গত এপ্রিল মাসে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চ-কক্ষে বিচার ও বাণিজ্য বিষয়ক যৌথ কমিটির ৪৪ জন সিনেটরের মুখোমুখি হন মার্ক জাকারবার্গ।

অভিযোগ রয়েছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচারণা দলের সঙ্গে যুক্ত যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা প্রায় ৫ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য সংগ্রহ করেছে।

যদিও ফেসবুক কর্তৃপক্ষ পরে মোট ৮ কোটি ৭০ লাভ গ্রাহকের তথ্য চুরির খবর নিশ্চিত করে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বিনামূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ আনছে গুগল ক্রোম

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২৫ ১৪:২৬:৪৪

রাস্তায় আছেন, ফোন থেকেই অফিসের জরুরি একটা কাজ করতে হবে, তখনই দেখলেন ফোনে ডাটা নাই। আবার কোনও বন্ধুকে মেসেজ করবেন একটা ছবি বা লেখার লিংক অথচ আশপাশে ওয়াইফাই এর চিহ্নমাত্র নেই। তখন? মাথায় হাত দিয়ে বসে থাকা ছাড়া আপনার আর করণীয় কিছুই থাকে না! সেই সমস্যা দূর করতে আসছে গুগল ক্রোমের নতুন ফিচারটি।

জানা যায়, গুগল ক্রোমের নতুন সংস্করণে থাকছে এমন ফিচার যাতে অফলাইন থাকলেও ইন্টারনেটের সুবিধা পাওয়া যাবে।

আপনার ব্রাউজিং হিস্টোরি, অবস্থান ইত্যাদির উপর নির্ভর করে গুগল অনেক কিছুই এবার থেকে আগাম নামিয়ে রাখবে। ফলে যখন নেট কানেকশন থাকবে না, তখনও সে সব জিনিস চাইলে আপনার সামনে হাজির করে দেবে।

গুগলের অফলাইন ক্রোম ফর অ্যান্ড্রয়েড এর প্রোডাক্ট ম্যানেজার আমান্দা বোস জানিয়েছেন, ইন্টারনেট কানেকশন ব্যাহত হলেও এবার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে নেট ব্যবহার করা যাবে।

ভারতে তো বটেই, নাইজেরিয়া বা ব্রাজিলের মতো শতাধিক দেশেও এই ফিচার মিলবে। প্লে-স্টোর থেকে ক্রোমের এই নতুন সংস্করণটি ডাউনলোড করা যাবে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ফেসবুকের নতুন পরিকল্পনা, যা হতে পারে

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-০৩ ১৬:৩২:৩৭

চার দিকে ছড়িয়ে পড়ছে ফেক নিউজ। আর সেটা রুখতেই আরও কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। ২০১৪ সালে শুরু করা ‘‌ট্রেন্ডিং নিউজ’ বিভাগটি তুলে নিতে চলেছে তারা। ভবিষ্যতে সংবাদ পরিবেশনে নতুন মাত্রা যোগ করতেই এই ব্যবস্থা নিতে চলেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

তাদের মতে, এখন পর্যন্ত গড়ে মাত্র ১.‌৫ শতাংশ ক্লিক হয়েছে এই ‌ট্রেন্ডিং নিউজে এবং তাই সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। ফেসবুকের কর্মকর্তা অ্যালেক্স হার্দিম্যান একটি ব্লগে জানিয়েছেন, ‘‌গবেষণায় আমরা জেনেছি, সময় যত গড়াচ্ছে এই ট্রেন্ডিং নিউজটিকে অপ্রয়োজনীয় মনে করছেন অধিকাংশ ব্যবহারকারী। আগামী সপ্তাহ থেকে তাই এটি সরিয়ে নেয়া হবে। এমনকি থার্ড পার্টি এপিআইগুলোতেও এটি মিলবে না।’

এই ‌ ‌ট্রেন্ডিং নিউজ নিয়ে দু’‌বছর আগেই বিতর্কে জড়িয়েছিল ফেসবুক। এর অ্যালগরিদমে বিভিন্ন খবর নির্বাচন নিয়েই তৈরি হয় বিতর্ক। অ্যালগরিদম নিখুঁতভাবে সংবাদ বাছাই করতে পারে না বলে প্রায়ই ভুয়া খবর ট্রেন্ডিং হয়ে পড়ে এবং তা দ্রুত ছড়িয়েও যায়। এরপর এই নিয়ে বক্তব্যও রাখতে হয় ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গকেও।

তবে এই ট্রেন্ডিং নিউজের পরিবর্তে নতুন কি ফিচার আনবে ফেসবুকে? জানা গেছে, তারা ‘‌ব্রেকিং নিউজ লেবেল’‌, ‘‌টুডে ইন’‌ এবং ‘‌ফেসবুক ওয়াচ’‌ নামে তিনটি নতুন ফিচার আনবে। এর মধ্যে নিউজ ভিডিও–র জন্য ‘ফেসবুক ওয়াচ’–কে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হবে। এটির মাধ্যমে ইউটিউবের মতোই ভিডিও হাব তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে ফেসবুকের। এখানে লাইভ ভিডিও, কিংবা আলোচনার ভিডিও অথবা খবরের ভিডিও পোস্ট করা যাবে। এর পাশাপাশি কোনো নিউজ পোস্টে ব্রেকিং নিউজের লেবেলও লাগানো যাবে। অপরদিকে, ‘টুডে ইন’ নামে ফেসবুকে একটি নির্দিষ্ট সেকশন থাকবে। ওই সেকশনে স্থানীয় সংবাদ প্রকাশকেরা তাদের শহরের বিভিন্ন মানুষকে তথ্য ও খবরের সঙ্গে যুক্ত করতে পারবেন। পাশাপাশি স্থানীয় সংবাদও পাওয়া যাবে।‌‌

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ফেসবুক আসক্তি: বাড়ছে একাকিত্ব-হতাশা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২৮ ১৪:১১:৩২

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের ব্যবহার মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজতর করেছে। বিশ্বের যেকোনো স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বন্ধুদের কাছে টেনে নেয়ার মতো সুযোগ এই মাধ্যমটিই করে দিয়েছে। সবচেয়ে লক্ষণীয় ব্যাপার হলো- মানুষের দৈনন্দিন জীবনে কিছু ভালো সময় কাটানোর একটি অন্যতম প্ল্যাটফরম ফেসবুকই। আর সেটা নির্দ্বিধায় বলা যায়। তবে ভার্চুয়াল ওয়ার্ল্ডের এ জায়গাটি যতই মানুষের দৈনন্দিন জীবনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলছে ততটাই নেতিবাচক প্রভাবও ফেলেছে। প্রতিনিয়ত অসংখ্য মানুষ প্রচুর সময় ব্যয় করার পাশাপাশি ফেসবুকে থেকে নিজেরা হতাশায় ভুগছেন- এমনটাই মনে করছেন গবেষকরা।

বিভিন্ন সমাজ বিজ্ঞানী ও গবেষক বলছেন, ফেসবুক মানুষের জন্য কল্যাণ বয়ে আনলেও এর থেকে প্রভাবিত হয়ে হতাশ হচ্ছেন অনেকে। বিশেষ করে এ হতাশা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তরুণ সমাজের মাঝে বেশি লক্ষণীয়। দেখা যায়, কেউ সারাদিন ব্যস্ততার পর বাড়ি ফিরে ফেসবুক অনলাইনে আসেন। ওয়াল ঘুরে দেখলেন কাছের বন্ধুদের অনেকে কোথাও ঘুরতে গিয়েছেন সেসব ছবি, যেখানে তার থাকার কথা থাকলেও পারেননি। আবার অনেকে আছেন অনলাইনে প্রায়ই কোনো এক বন্ধুর সঙ্গে চ্যাটিংয়ে ব্যস্ত। কিন্তু হঠাৎ তিনি লাপাত্তা। তার সঙ্গে কথা বলতে চেয়েও পারছেন না। এর থেকে হতাশায় ভোগেন তারা।
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাইম জানান, গত এক মাস ধরে ফেসবুক আইডি ডিঅ্যাক্টিভেট করে রেখেছি। ফেসবুক অনলাইনে থাকলে মাঝে মাঝে অলস সময় কাটানো যায়। কিন্তু এর থেকে বড় সমস্যা হলো- প্রায়ই হতাশ হয়ে যাই। বন্ধুবান্ধবের অনেকের অ্যাক্টিভিটি দেখি। নানা কারণে সেসবে অংশ নিতে পারি না। নিউজফিডে সবার কাজকর্ম দেখে সময়গুলোতে অস্থিরতা কাজ করে।

আফসার নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, ফেসবুক যতটা আমাদের জীবনকে সহজ করে তুলেছে ততটাই খারাপ প্রভাব পড়ছে। বিশেষ করে চ্যাটিংয়ে অনেকের সঙ্গে কথা হয়। দেখা যায়, যে বন্ধুকে বেশি ভালো লাগে তার সঙ্গে হঠাৎ কথোপকথন বন্ধ হয়ে গেলে ভীষণ খারাপ লাগে। এ সময় খানিকটা একাকিত্ব অনুভব করি। সারাদিন কাজকর্ম শেষ করে এসে যদি দেখি ওই ভালোলাগার বন্ধুটি অনলাইনে নেই তখন সত্যিই খুব বিষণ্নতায় ভুগি। এসব কারণে অনেক দিন হয় সামাজিক যোগাযোগের এ মাধ্যমটিতে খুব একটা আসা হয় না।
ওহিও স্টেট ইউনির্ভাসিটির জ্ঞাপন বিভাগের অধ্যাপক সিলভিয়া নবলক ওয়েস্টারইউক বলছেন, যখন আপনি ভালো মুডে থাকেন, তখন আপনি সেলিব্রিটিদের ফলো করতে ভালোবাসেন। কিন্তু যখন মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তখন আপনি সাধারণ মানুষদের জীবনেও আগ্রহ দেখান। যারা আপনার মতো কোনো না কোনোভাবে ভেঙে পড়েছেন তাদের প্রতি আপনার সহানুভূতি জন্মায়। এই সমীক্ষা আরো জানাচ্ছে, ফেসবুকের প্রতি অত্যধিক আগ্রহ ব্যবহারকারীদের খিটখিটে করে দেয়। কারণ, এক সময় বন্ধুদের কাছ থেকে তাদের সাফল্যের আপডেট পেতে পেতে আপনার নিজেকে একা, পিছিয়ে পড়া, হেরে যাওয়া বলে মনে হতে পারে। তাই কীভাবে সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করবেন তা নিয়ে সাবধান। সমীক্ষা বলছে, মন খারাপের সময় আপনি সেই সমস্ত মানুষদের প্রোফাইল বেশি ভিজিট করেন যারা আপনার থেকেও বেশি পিছিয়ে রয়েছে বা কম সাফল্যের মুখ দেখেছে।

গত কয়েক বছরে এ নিয়ে ব্যাপক গবেষণা হয়েছে। এ রকমই কিছু গবেষণার ফলাফল বিশ্লেষণ করে এবং মনোবিজ্ঞানীদের সঙ্গে কথা বলে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা আইএএনএস। সেই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একাকিত্ব নিয়ে আমাদের সাধারণ ধারণা হচ্ছে বয়স হলে মানুষ একা হয়ে যায়। কিন্তু কম বয়সী কিশোর-কিশোরীরাও দিন দিন একা হয়ে যাচ্ছে ফেসবুকের কারণে। মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, এ ধরনের ঘটনা বেড়েই চলছে। ফেসবুকে আসক্তির কারণে কিশোর-কিশোরীরা অন্যদের থেকে আলাদা হয়ে একাকী জীবনযাপনে অভ্যস্ত হয়ে পড়ছে। আর এই একাকিত্ব থেকে বাড়ছে হতাশা। দীর্ঘদিনের হতাশা থেকে তারা হয়ে পড়ছে আত্মহত্যাপ্রবণ। দিল্লির ফরটিস হেলথ কেয়ার হাসপাতালের মেন্টাল হেলথ অ্যান্ড বিহ্যাভিরিয়াল সায়েন্সেসের পরিচালক ডা. সামির পারিখ জানিয়েছেন, একাকিত্ব শারীরিক ও মানসিক দুদিক দিয়েই রোগীদের ক্ষতি করে। এরা আস্তে আস্তে সবার থেকে দূরে সরে যায় এবং তাদের ক্ষেত্রে আত্মহত্যার ঝুঁকি অনেক বেশি থাকে। নিজের অভিজ্ঞতার বর্ণনা দিয়ে নয়াদিল্লির সরোজ সুপার স্পেশালিটি হসপিটালের কনসালটেন্ট ডা. সন্দীপ গোভিল বলেন, তনয় নামের ১৪ বছর বয়সী এক ছেলে আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। ফেসবুকে সে এতটাই আসক্ত ছিল যে ফোন বন্ধ করে রাখলে সে অস্থির হয়ে পড়তো। আমরা তার এই ‘স্ক্রিন এডিকশন’-এর চিকিৎসা শুরু করি। তখন ব্যবস্থা নেয়া না হলে এই আসক্তি থেকে সে আরো বড় কোনো মানসিক রোগে আক্রান্ত হতে পারতো। ইউনিভার্সিটি অব শিকাগো এবং ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া-লস অ্যাঞ্জেলেসের গবেষকরা বিষয়টি নিয়ে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করেছেন। সেখানে তারা উল্লেখ করেছেন, একাকিত্বের ফলে মস্তিষ্কে বিপজ্জনক সিগন্যাল পৌঁছায়। যার ফলে হোয়াইট ব্লাড সেলের উৎপাদন ব্যাহত করে। তাই একাকিত্ব থেকে শারীরিক অসুস্থতার ঝুঁকি তৈরি হতে পারে।

তবে এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান ভিন্ন মতই পোষণ করেন। তিনি বলেন, মানুষ একা হয়ে যাচ্ছে, হতাশ হচ্ছে এসবের জন্য ফেসবুককে দোষ দেয়া যাবে না। আসল কারণ কোনটা সেটা খুুঁজে বের করতে হবে। আমার কাছে যেটা মনে হয়, মানুষ অতিমাত্রায় আয়মুখী ও ভোগবাদী হয়ে উঠেছেন। মানুষের জীবনযাত্রায় ফেসবুক একটা কম্পোন্যান্ট মাত্র। এখানে মানুষ বরং কিছু কোয়ালিটি টাইম পাস করছে। আসলে ফেসবুকে মানুষ কি করে? ছবি পোস্ট করে, স্ট্যাটাস দেয়, অন্যদের ছবি দেখে, অন্যদের ছবি-স্ট্যাটাসে লাইক কমেন্ট করে! এখানে ফেসবুকের দোষের কিছু দেখছি না। মূল সমস্যা হচ্ছে- ওই যে বললাম, মানুষের উপার্জনমুখী মনোভাব এবং ভোগবাদিতা। আর নৈতিক শিক্ষা।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

কক্ষপথে পৌঁছে কাজ শুরু করেছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২১ ১২:১২:২৬

ফ্লোরিডা থেকে উৎক্ষেপণের ১০ দিন পর বাংলাদেশের প্রথম যোগাযোগ উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ (বিএস-১) তার নিজস্ব অবস্থানে (অরবিট স্লট) পৌঁছেছে।

বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএসসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের স্যাটেলাইট তার অবস্থান নিয়েছে এবং স্বাভাবিকভাবেই কাজ শুরু করেছে।’ খবর বাসসের।

গত ১১ মে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে বিএস-১ সফলভাবে উৎক্ষেপণ করা হয়। স্পেসএক্স-এর সর্বাধুনিক রকেট ফ্যালকন-৯ এর মাধ্যমে স্যাটেলাইটটি ১১৯.১ দ্রাঘিমাংশে পৌঁছানোর জন্য এটি উৎক্ষেপণ করা হয়।

বিসিএসসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘তারা এখন বাণিজ্যিকভাবে কার্যক্রম শুরু করার আগে আরও বেশকিছু পরীক্ষা চালাবেন।’

সাইফুল ইসলাম বলেন আরও বলেন, ‘তিন মাসের মধ্যে আমরা বাণিজ্যিক অপারেশনে যাব।’

সরকারি সূত্র জানায়, বিএস-১ প্রতি ২৪ ঘণ্টায় একবার ৩৬ হাজার কিলোমিটার উচ্চতায় একবার পৃথিবী পরিক্রমণ করবে। ফ্যালকন-৯ এর ব্লক-৫ থেকে উৎক্ষেপণের অব্যবহিত পরই বিএস-১ ৩৫ হাজার ৭শ’ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেয়। এরপর ১০ দিনে আরও ৩শ’ কিলোমিটার অতিক্রম করে বর্তমান অবস্থানে যায়।

গাজীপুর গ্রাউন্ড স্টেশনের অপারেশন ইঞ্জিনিয়ার তাজুল ইসলাম ইতোপূর্বে জানিয়েছেন বিএস-১ গ্রাউন্ড স্টেশনে সংকেত পাঠাতে শুরু করেছে।

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘গাজীপুরের জয়দেবপুর ও রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়ার গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে বিএস-১-এর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ পেতে প্রায় দুই মাস সময় লাগবে।’

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

তিন মাসে ৫৮ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে ফেসবুক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৬ ১৩:১৯:৫৬

এবছরের প্রথম তিন মাসে ৫৮.৩ কোটি ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে সামাজিক মাধ্যমটি।

‘কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড অর্থাৎ সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্য’ আচরণ নিশ্চিত করতে ফেসবুক কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে তার বর্ণনায় একথা জানিয়েছে তারা।

রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার কাছে ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য বেহাত হয়ে যাওয়ার পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে ফেসবুক।

এর পর সাইটটি তাদের সেবার মান উন্নত করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়। প্রতিদিন কয়েক কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট তৈরির চেষ্টা রুখে দেয়া তারই একটা অংশ।

বিপুল সংখ্যক ভুয়া অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দেয়া সত্ত্বেও সক্রিয় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ৩-৪ শতাংশ এখনো নাম-পরিচয় লুকিয়ে ভুয়া অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করছেন।

ফেসবুক দাবি করেছে, তারা সাইটটি থেকে স্প্যাম অর্থাৎ ক্ষতিকারক বিভিন্ন পোস্ট প্রায় ১০০ ভাগ শনাক্ত করেছে এবং স্প্যামের সঙ্গে সম্পর্কিত ৮৩.৭ কোটি পোস্ট মুছে দিয়েছে।

বছরের প্রথমভাগে ফেসবুক যৌন বা সহিংস ও সন্ত্রাসমূলক কর্মকাণ্ডে উৎসাহ দেয় এমন ৩ কোটি পোস্ট সরিয়ে নেয় বা সেগুলোকে সতর্ক করে দেয়। সহিংস ঘটনার ছবি শনাক্ত করতে সহায়তা করেছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে তৈরি উন্নত প্রযুক্তি । ২০১৭ সালের শেষ ভাগের চেয়ে এই সংখ্যা তিনগুণ।

প্রায় ৮৫ শতাংশ ক্ষেত্রে বিভিন্ন আপত্তিকর পোস্ট সম্পর্কে কেউ অভিযোগ করার আগেই ফেসবুক ওই পোস্টগুলো শনাক্ত করতে সক্ষম হয়।

এর আগের দিন ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য অপব্যবহার করার অভিযোগ তদন্ত করতে ফেসবুক প্রায় ২০০ অ্যাপ বন্ধ করে দেয়।

অন্যদিকে, এই তিন মাসে ২৫ লাখ ‘হেট স্পিচ বা ঘৃণামূলক বক্তব্য’ মুছে দেয় ফেসবুক। গত অক্টোবর থেকে ডিসেম্বরের তুলনায় বিদ্বেষমূলক বক্তব্যের সংখ্যা বেড়েছে দেড় গুণ। কিন্তু ফেসবুক মাত্র ৩৮ শতাংশ ক্ষেত্রে নিজে থেকেই এসব আপত্তিকর বক্তব্য শনাক্ত করতে সক্ষম হয়, বাকি সময় ইউজারদের অভিযোগ পাওয়া পর এগুলো সরিয়ে দেয়া হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের সামনে যেসব চ্যালেঞ্জ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১২ ১৪:৩৩:৪৭

বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটকে স্বাগত জানিয়েছেন টেলিভিশন ইন্টারনেটসহ যোগাযোগ খাত সংশ্লিষ্টরা।

তারা বলছেন, যোগাযোগে উন্নতি  বৈদেশিক মুদ্রা আয়সহ ইতিবাচক অনেক দিক থাকলেও চ্যালেঞ্জও কম নয়। সব সেক্টরের সঙ্গে পরামর্শ করে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনার কথা বলছেন তারা।

নানা জল্পনার-কল্পনার শেষ করে অবশেষে মহাকাশে নিজের নাম লেখাল বাংলাদেশ। অনেক বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে ইতিহাসের অংশ হল বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট। স্বপ্নের এ স্যাটেলাইট গৌরবের পাশাপাশি অনেক ইতিবাচক দিক নিয়ে আসছে।  তবে সেগুলোর বাস্তবায়ন নিয়ে জল্পনা-কল্পনাও কম নয়।

টেলিভিশন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিজেদের স্যাটেলাইটে বাংলাদেশকে বাড়তি সুবিধা দিলেও কানেক্টিভিটি খরচ একটি বড় প্রশ্ন।

ডিবিসি নিউজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু বলছেন, একটা স্যাটেলাইট যাওয়ার পর আমরা তাৎক্ষণিকভাবে বলতে পারছি না- এর সিগন্যালটা কতটা পাবো? এটাকে টেকনিক্যাল ভাষায় বলে ইআইআরপি। একটা ইআইআরপি ও টোটাল গেইনটা অর্থাৎ সিগনাল পাঠানোর পর গেইন কতটা পাচ্ছি- তা পরীক্ষা করতে হবে।

অন্যদিকে বেসিস বলছে, প্রযুক্তির ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের উন্মোচন হলেও এর প্রয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রয়োজন।

বেসিস সভাপতি আলমাস কবির বলেন, বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে- যেখানে এখনও কমিউনিকেশন পৌঁছায়নি; কমিউনিকেশনের ইনফ্রাস্ট্রাকচার পৌঁছায়নি, সেখানে অতি সহজে এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে কমিউনিকেশনের ইনফ্রাস্ট্রাকচার ও মাধ্যম তৈরি করা যাবে।

তিনি বলেন, প্রায় দেড় কোটি ডলারের মতো টাকা আমরা বাইরে খরচ করি শুধু টিভি চ্যানেলগুলোর স্যাটেলাইট ভাড়ায়। এই বৈদেশিক মুদ্রাটা অবশ্যই সেভ হবে। 

একইসঙ্গে যারা দীর্ঘদিন ধরে প্রযুক্তি খাত নিয়ে কাজ করছেন তারা মনে করেন,  তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে কাজ করলে বিষয়টি সহজ হবে।

মঞ্জু বলেন, আমাদের টেলিভিশন চ্যানেলগুলো সি-ব্যান্ডে কাজ করে। ফলে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে যে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার আছে, তা থেকে টেলিভিশনকে প্রথমত সি-ব্যান্ডে দিতে হবে। যদি এটা না দেয়া হয়, তবে আমাদের এন্টিনা থেকে শুরু করে অনেক ইকুইপমেন্ট নতুন করে কিনতে হবে। যেটা সময়সাপেক্ষ এবং অর্থ দণ্ডের ব্যাপার।

আর আবহাওয়াবিদরা বলছেন,  প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ গুরুত্বপূর্ণ সময়ে সাহায্য করবে এ স্যাটেলাইট।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, আমাদের সেবা দিতে অনেক সময় দেরি হওয়ার বিষয়টি থাকে। এই স্যাটেলাইটের ফলে এখন আর হয়তো সেটি হবে না।

তবে কক্ষপথে স্যাটেলাইটের অবস্থান, কভারেজের ক্ষমতা, দাম আর সরকারি সিদ্ধান্তের ওপরই বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের সফলতা নির্ভর করবে বলে মনে করছেন তারা।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১১ ২৩:৪০:২৩

জাতির স্বপ্নের ‘বঙ্গবন্ধু-১’ স্যাটেলাইট এখন মহাকাশে। আর এর মধ্য দিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় যুক্ত হলো আরো একটি অর্জন।

বাংলাদেশ সময় শুক্রবার দিবাগত রাত ২টা ১৪ মিনিটে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার মহাকাশ কেন্দ্র স্পেসএক্স থেকে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট বহনকারী রকেটটি সফলভাবে উৎক্ষেপণ করা হয়। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্পেস সোসাইটিতে প্রবেশের ঐতিহাসিক মুহূর্তের সূচনা হল।

এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মাধ্যমে বাংলাদেশ কৃত্রিম উপগ্রহের অধিকারী বিশ্বের ৫৭তম দেশের মর্যাদা অর্জন করেছে।

মার্কিন কোম্পানি স্পেসএক্সের সর্বাধুনিক রকেট ফ্যালকন-৯ যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপ ক্যানাভেরাল উৎক্ষেপণ মঞ্চ থেকে স্যাটেলাইটটি নিয়ে কক্ষপথের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে।

প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নেতৃত্বে বাংলাদেশের একটি প্রতিনিধিদল এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ প্রত্যক্ষ করেন।

ফ্লোরিডা থেকে উৎক্ষেপণ প্রত্যক্ষকারী আইসিটি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ‘আমি আজকের দিনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করতে চাই, যিনি ১৯৭৪ সালে দেশের সর্ব প্রথম স্যাটেলাইট আর্থ স্টেশন স্থাপনের মাধ্যমে মহাকাশ যুগে প্রবেশের কার্যক্রমের সূচনা করেন।’

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের প্রযুক্তি কেন্দ্রীক উত্তরণের দৃষ্টান্ত।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু-১ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি সময়োপযোগী উদ্যোগও যার ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের ভিশন রয়েছে।

দেশের সর্বস্তরের মানুষ এই উৎক্ষেপণের সরাসরি সম্প্রচার প্রত্যক্ষ করার জন্য মধ্যরাতেও জেগে ছিলেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী বহু বাংলাদেশিও এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের সরাসরি সম্প্রচার ও ওয়েবকাস্ট প্রত্যক্ষ করেন।

এর আগে বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার ভোররাত ৩টা ৪৭ মিনিটে বঙ্গবন্ধু-১ উৎক্ষেপণের জন্য চূড়ান্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছিল। কিন্তু যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের উৎক্ষেপণ প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে বলেন, উৎক্ষেপণের শেষ মুহূর্তটিও সম্পূর্ণ কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত ছিল। এ ক্ষেত্রে যেকোনো পরিমাপ অস্বাভাবিক হলে উৎক্ষেপণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যাবে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ এর আগে বলেছেন, ফ্যালকন-৯ মহাকাশ যানে স্যাটেলাইটটি মহাকাশে যাবে। দুটি পর্যায়ে এ উৎক্ষেপণে প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। প্রথম পর্যায়ে ১০ দিন ও দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০ দিনের মতো সময় লাগবে। এসব প্রক্রিয়া শেষে গাজীপুরের জয়দেবপুর ও রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়ার গ্রাউন্ড স্টেশনে এর সংযোগ পেতে আরো কিছুদিন সময় প্রয়োজন হবে।

মহাকাশের ১১৯ দশমিক ১ ডিগ্রী পূর্ব দ্রাঘিমায় থেকে উপগ্রহটি প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় আবহাওয়া পূর্বাভাস এবং পর্যবেক্ষণে দেশের সক্ষমতা সম্প্রসারিত করবে। উপগ্রহটি থেকে সার্ক দেশগুলোর পাশাপাশি ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, মিয়ানমার, তাজিকিস্তান, কিরগিজস্তান, উজবেকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান এবং কাজাকিস্তানের একটি অংশ এর সুযোগ নিতে পারবে।

এই স্যাটেলাইট প্রথমে ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর উৎক্ষেপণের কথা ছিল। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় ইরমার কারণে এর উৎক্ষেপণ স্থগিত করা হয়।

বঙ্গবন্ধু-১ এর ফলে ডাইরেক্ট-টু-হো (ডিটিএইচ) ভিডিও সার্ভিস, ই-লার্নিং, টেলি-মেডিসিন, পরিবার পরিকল্পনা, কৃষি খাতসহ দুর্যোগ উদ্ধারে ভয়েস সার্ভিসের জন্য সেলুলার নেটোয়ার্কের কার্যক্রম এবং এসসিএডিএ, এওএইচও এর ডাটা সার্ভিসের পাশাপাশি বিজনেস-টু-বিজনেস (ভিসেট) পরিচালনায় আরো সহজতর করবে।

বিটিআরসি ২০১৫ সালের নভেম্বরে দেশের প্রথম এ স্যাটেলাইট নির্মাণের জন্য ফ্রান্সের থালেস এলিনিয়া স্পেস ফ্যাসিলিটিস কোম্পানির সঙ্গে ২৪৮ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি করে। কোম্পানিটি কয়েক মাস আগে স্যাটেলাইটটির তৈরির কাজ সম্পন্নের পর এটি ফ্রান্সের ক্যানেস ওয়্যারহাউজে রাখা হয়। পরে ২৯ মার্চ এ স্যাটেলাইট ফ্লোরিডায় স্থানান্তর করা হয়।

বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের জন্য বাংলাদেশ ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে রাশিয়ার স্যাটেলাইট প্রতিষ্ঠান ‘ইন্টারস্পুটনিক’ এর কাছ থেকে ২ কোটি ৮০ লাখ ডলারে ১১৯ দশমিক ১ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমায় (স্লট) কক্ষপথ স্লট ক্রয় করে।

বিস্তারিত খবর

মহাকাশে কোন দেশের কত স্যাটেলাইট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১১ ১৪:০০:০৬

স্যাটেলাইট ক্লাবে পা রাখতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।  আধুনিক বিজ্ঞানের অন্যতম আবিষ্কার স্যাটেলাইট বা কৃত্রিম উপগ্রহ। তথ্য ও যোগাযোগ ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছে এই স্যাটেলাইট। বিশ্বের ৫৭তম দেশ হিসেবে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ। প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশের বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

১৯৫৭ সালে প্রথম মহাকাশে স্পুটনিক-১ নামে স্যাটেলাইট প্রেরণ করে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন। এরপর অনেক দেশ তাদের অনুসরণ করে মহাকাশে স্যাটেলাইট প্রেরণ করেছে। বর্তমানে কক্ষপথে দু্ই হাজার দুইশোটির বেশি স্যাটেলাইট রয়েছে।

স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ ও এর গতিবিধি নিয়ে কাজ করে এন২ওয়াইও.কম ওয়েবসাইটের তথ্য মতে, সাবেক সোভিয়েত রাশিয়া ভূক্ত দেশগুলোর সম্মিলিত স্যাটেলাইট সংখ্যা ১৫০৪টি, যুক্তরাষ্ট্রের ১৬১৬টি, চীনের ২৯৮টি, জাপানের ১৭২টি, ফ্রান্সের ৬৮টি, ভারতের ৮৮টি, তুরস্কের ১৪টি, পাকিস্তানের ৩টি, সৌদি আরবের ১৩টি, দক্ষিণ কোরিয়ার ২৪টি, স্পেনের ২৩টি, ব্রিটেনের ৪২টি। এছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার অনেকগুলো স্যাটেলাইট বর্তমানে কক্ষপথে অবস্থান করছে।

বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটটির ওজন সাড়ে সাড়ে তিন হাজার কেজিরও বেশি। আর্থ স্টেশন থেকে ৩৫ হাজার ৭৮৬ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে স্যাটেলাইটটির কক্ষপথে যেতে সময় লাগবে ৮-১১ দিন। আর পুরোপুরি কাজের জন্য প্রস্তুত হবে ৩ মাসের মধ্যে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ স্থগিত, আজ রাতে ফের শুরু

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১১ ০৭:৫৪:৪৪

বাংলাদেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১’ উৎক্ষেপণ স্থগিত হয়েছে। উৎক্ষেপণের প্রক্রিয়া আজ শুক্রবার  রাতে পুণরায় শুরু করা হবে।
বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১টা ৪৭ মিনিটে উৎক্ষেপণের সময় নির্ধারণ করা হয়েছিল। পরে তা ২টা ২২ মিনিটে ও সর্বশেষ ৩টা ৪৭ মিনিটে কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে উপগ্রহটি বহনকারী রকেট ফ্যালকন-৯-এর মহাকাশের পথে উড়াল দেয়ার কথা ছিল। আজ রাতে একই সময়ে এটি উৎক্ষেপণ শুরু করা হবে।
 
কারিগরি ত্রুটির কারণে সেটি পরবর্তীতে ৪টা ২২ মিনিটে নির্ধারণ করে ঘোষণা দেয়া হয় এসময়ের মধ্যে উৎক্ষেপণ না হলে সেটি আর আজ উৎক্ষেপন হবে না। সবশেষে কারিগরি সমস্যার কারণে সেটি স্থগিত করা হয় বলে ঘোষণা দেয়া হয়।

স্পেসএক্সের পক্ষ থেকে জানানো হয়, উৎক্ষেপণ আজকের মতো স্থগিত করা হয়েছে। রকেট ও পে লোড ভালোই আছে। ব্যাকআপ হিসেবে যে সুযোগ আছে সেটিকে কাজে লাগানো হবে।

তবে আগামীকাল একই সময়ে অর্থাৎ রাত ৪টার পর এটি আবার উড্ডয়ন করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ উপলক্ষে এদিন কেনেডি স্পেস সেন্টারে ছিল বাংলাদেশের ৩০ সদস্যের প্রতিনিধি দল। এ ঐতিহাসিক ঘটনা নিজ চোখে দেখতে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী বাংলাদেশিরাও ছুটে আসেন ফ্লোরিডায়। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজন করে নানা অনুষ্ঠান।

লঞ্চপ্যাডের সাড়ে তিন মাইল দূরে ছিল দর্শনার্থীদের বসার স্থান। এর ভিআইপি লাউঞ্জে এদিন ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। আর বাংলাদেশ দলের সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন তথ্যপ্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, ইমরান আহমেদ, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ প্রমুখ। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি কৃষিবিজ্ঞানী ড. সিদ্দিকুর রহমানসহ দলের নেতাকর্মীরাও ছিলেন দর্শনার্থী।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরীক্ষামূলক সফল উৎক্ষেপণ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-০৫ ১৩:৫৪:২৪

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ১ এর পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ সফল হয়েছে বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি মহাকাশ গবেষণা ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স।

ফ্লোরিডার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে অরল্যান্ডোর কেনেডি স্পেস সেন্টারে সফল পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ চালানো হয় বলে টুইট বার্তায় জানিয়েছে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণের দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠানটি।

স্পেসএক্স জানিয়েছে, শুক্রবারের স্ট্যাটিক ফায়ার টেস্ট নামের এই পরীক্ষায় স্যাটেলাইটটির উৎক্ষেপণযান ফ্যালকন ৯ এ কোনো ত্রুটি ধরা পড়েনি। এটি সম্পূর্ণ কার্যকর। এখন এই পরীক্ষা থেকে পাওয়া তথ্য স্পেসএক্সের সদর দপ্তর লস অ্যাঞ্জেলসে পাঠানো হয়েছে।

তথ্য পর্যালোচনা শেষে দ্রুতই উৎক্ষেপণের তারিখ নির্ধারণ করা হবে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে মার্কিন বিমান বাহিনীর আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, আগামী ৭ মে আবহাওয়া ৭০ শতাংশ অনুকূলে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে মহাকাশে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের জন্য আবহাওয়া ৮০ শতাংশ অনুকূলে থাকতে হয়।

উল্লেখ্য, স্যাটেলাইটটি মহাকাশের ১১৯ দশমিক ১ পূর্ব দ্রাঘিমাংশে অবস্থিত অরবিট প্লটে স্থাপন করা হবে। এতে নিজস্ব স্যাটেলাইটের অধিকারী বিশ্বের ৫৭তম দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটবে বাংলাদেশের।

২০১৫ সালের ১১ নভেম্বর বিটিআরসির সঙ্গে সই হওয়া চুক্তি অনুসারে এই স্যাটেলাইট নির্মাণ করেছে ফ্রান্সের থেলেস এলেনিয়া স্পেস।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইউজারদের পাসওয়ার্ড বদলানোর পরামর্শ দিলো টুইটার

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-০৫ ১৩:৪৭:৪৭

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারের নিজস্ব নেটওয়ার্কের একটি ত্রুটির কারণে তাদের ৩৩ কোটি ইউজারকে পাসওয়ার্ড বদলানোর পরামর্শ দিয়েছে প্ল্যাটফর্মটি।

অবশ্য ইউজারদের টুইটার আশ্বস্ত করেছে, প্রাথমিক তদন্তে কারও পাসওয়ার্ড বেহাত হয়ে যাওয়ার বা কারও তথ্যের অপব্যবহার হওয়ার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

টুইটারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যাক ডরসি এক টুইটে জানান, একজন ইউজার যখন লগইন করার জন্য পাসওয়ার্ড দেন, তখন তা টুইটারের কর্মীদের কাছ থেকে গোপন রাখার জন্য সেটিকে বিভিন্ন সংখ্যা ও অক্ষরে রূপান্তরিত করা হয়, যাকে বলা হয় হ্যাশিং।

কিন্তু একটি ত্রুটির কারণে গ্রাহকদের পাসওয়ার্ডগুলো হ্যাশিং প্রক্রিয়ার মধ্যে না গিয়ে অবিকৃত অবস্থায় টুইটারের অভ্যন্তরীণ একটি কম্পিউটারে জমা হচ্ছিল।

ঘটনাটির জন্য দুঃখ প্রকাশ করে টুইটার বলেছে, তারা ত্রুটিটি সারিয়ে নিয়েছে এবং কারও পাসওয়ার্ড এ ঘটনায় বেহাত হয়নি।

তবে অ্যাকাউন্টের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ইউজারদের পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের পাশাপাশি ‘টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন’ অর্থাৎ দুই স্তরের সুরক্ষার অপশন চালু করে নিতে বলেছে টুইটার।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, কারও পাসওয়ার্ড চুরি হয়েছে এমন প্রমাণ না পেলেও বাড়তি সতর্কতা হিসেবে টুইটার গ্রাহকদের পাসওয়ার্ড বদলে ফেলতে বলা হয়েছে।

ওই ত্রুটির কারণে ঠিক কতগুলো পাসওয়ার্ড ঝুঁকিতে পড়েছে তা টুইটার প্রকাশ করেনি।
তবে বিবিসি লিখেছে, ওই সংখ্যা একেবারে কম নয় এবং কয়েক মাস ধরে সমস্যাটা ছিল বলে তারা জানতে পেরেছে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ছবিতে ট্যাগিং নিয়ে মামলা : বিপাকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৪-১৭ ১৪:১৪:৫৪

ব্যবহারকারীদের অনুমতি ছাড়া অবৈধভাবে ছবিতে ‘ফেস ট্যাগিং’ বা ‘অবয়ব চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া’ ব্যবহারের অভিযোগে আইনগত ঝামেলায় পড়েছে ফেসবুক।

সোমবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির বিরুদ্ধে এই অভিযোগে ‘শ্রেণিগত বৈষম্যের পদক্ষেপে মামলা’ করার আদেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের এক বিচারক।

যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকো ফেডারেল আদালতে জেলা জজ জেমস ডোনাটো সোমবার আদেশ দেন যে, ফেস ট্যাগিং নিয়ে যে বিতর্ক দেখা দিয়েছে তা সমাধানের সবচেয়ে ভালো উপায় হলো ফেসবুকের বিরুদ্ধে শ্রেণিগত বৈষম্যের পদক্ষেপে মামলা করা।

বায়োমেট্রিক তথ্যের গোপনীয়তা সম্পর্কে ইলিনয় রাজ্যের আইন ভঙ্গের অভিযোগে ২০১৫ সালে কয়েকজন ফেসবুক ব্যবহারকারী আদালতের দ্বারস্থ হন।

বিচারক ডোনাটো আদেশে বলেন, ‘শ্রেণি’ বলতে ইলিনয়ের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বুঝাবে যাদের জন্য ২০১১ সালের ৭ জুন ফেসবুক ‘অবয়ব চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া’ চালু করেছিল। ওই দিনই ফেসবুক তাদের নতুন ফিচার ‘ট্যাগ সাজেশনস’ চালু করে। ফেসবুকে কোনো ছবি আপলোড করলে এই ফিচারের মাধ্যমে ছবিতে থাকা ব্যক্তিদের ট্যাগের প্রস্তাব করে অনুরোধ আসে।

যুক্তরাষ্ট্রে কোনো ব্যক্তি শ্রেণি বা জাতিগত বৈষম্যের কোনো মামলা করতে চাইলে তাকে আগে আদালতের ‘সার্টিফিকেশন অব ক্লাস’ পেতে হয়।

ফেসবুক জানিয়েছে, তারা আদালতের আদেশ পর্যবেক্ষণ করছেন। এক বিবৃতিতে তারা বলে, ‘আমরা বিশ্বাস করি, এই মামলার কোনো ভিত্তি নেই এবং আদালতে বেশ ভালোভাবেই আমরা লড়ব।’

লাখো ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার হাতে চলে যাওয়ার ঘটনায় এমনিতেই সমালোচনা ও মার্কিন আইনপ্রণেতাদের প্রশ্নের মুখে থাকা ফেসবুকের জন্য ক্যালিফোর্নিয়ার বিচারকের এই আদেশ বড় ধরনের এক ধাক্কা। যোগাযোগমাধ্যমটির সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ এসব ঘটনায় বেশ পেরেশানিতে আছেন। শেয়ার বাজারেও মুখ থুবড়ে পড়েছে ফেসবুক।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

আরো কঠোর হচ্ছে ফেসবুক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৪-০৭ ১৩:২৪:৫১

ফেসবুকে জনপ্রিয় পেজ বা পাতা যারা চালাচ্ছেন তাদের পরিচয় এবং তথ্য যাচাই করা হবে। ফেসবুকে ভুয়া সংবাদ ছড়ানো এবং অসত্য প্রচারণা বন্ধের জন্য যে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তার অংশ হিসেবে জনপ্রিয় পাতা পরিচালনাকারীর পরিচয় যাচাই করার কথা বলা হচ্ছে।

ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ বলেছেন, জনপ্রিয় পেজ বা পাতাগুলো যাচাই করে দেখতে হবে। এই পাতাগুলো চালানোর ক্ষেত্রে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়েছে কিনা, সেটা যাচাই করে দেখা হবে।

এটিকে ফেসবুক নতুন অভিযান হিসেবে দেখছে।

আর এই অভিযানে দেখা হবে, জনপ্রিয় পেজ পরিচালনায় কেউ আসল পরিচয় গোপন করে ফেসবুকে ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলেছে কি-না।

জাকারবার্গ বলেছেন, ফেসবুকে রাজনৈতিক কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণের প্রস্তাবকে তিনি সমর্থন করছেন।

কঠিন সময় পার করছে ফেসবুক। পরিস্থিতি সামলানোর চেষ্টা কি আস্থা ফিরিয়ে আনতে পারছে?

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে প্রচারণায় কৌশল নির্ধারণে ফেসবুকের গ্রাহকের তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে। কেমব্র্রিজি অ্যানালিকা এটি করেছে।

আর প্রতিষ্ঠানটিকে গ্রাহকের তথ্য দিয়েছে ফেইসবুক।

এই অভিযোগ ওঠার পর বিশ্বে ব্যাপক আলোচনা চলছে ফেসবুক নিয়ে।

মার্ক জাকারবার্গ ভুল স্বীকার করেছেন।

তীব্র সমালোচনার মুখে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের প্রাইভেসি সেটিংসে পরিবর্তন আনাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছে।

কিন্তু শেয়ারবাজারে ফেসবুকের শেয়ারে ধস নেমেছে। সবদিক থেকেই চাপের মুখে পড়েছে ফেসবুক।

মার্ক জাকারবার্গ বলেছেন, তিনি আগে ভাবতেন, ফেসবুকের সুবিধা কে, কিভাবে ব্যবহার করলো - সেই দায় ব্যবহারকারিদের উপর বর্তাবে।

এই চিন্তায় সীমাবদ্ধতা ছিল বলে জাকারবার্গ মনে করেন।

ফেসবুককে আরো বেশি দায়িত্বশীল হতে হবে বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।

জাকারবার্গ বলেছেন, ফেসবুকে সার্চ বক্সে ইমেইল ঠিকানা বা ফোন নম্বর দিয়ে কোন ব্যবহারকারীকে খোঁজার যে ফিচার রয়েছে, কিছু লোক তার অপব্যবহার করছে বলে তাদের অনুসন্ধানে তারা পেয়েছেন।

এই ফিচারটি বন্ধ রাখার কথাও তিনি জানিয়েছেন।

বিভিন্ন পদক্ষেপ আস্থা কতটা ফিরিয়ে আনতে পারছে, তা নিয়ে বিশ্লেষকরা এখনও সন্দেহ প্রকাশ করছেন।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মোবাইল টাওয়ার বসছে চাঁদে!

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-০২ ১০:৫৮:৪০

হ্যাঁ, এবার মোবাইল টাওয়ার বসছে চাঁদে! ‘পাহাড়, গভীর জঙ্গল, মাঝ সমুদ্র— যেখানেই যাবেন আমাদের নেটওয়ার্ক আপনাকে ফলো করবে।’

এই ‘ফলো’ করা বোঝাতে একটি ছোট্ট ‘পাগ’-এর সাহায্য নেয় ভোডাফোন। পাহাড়, জঙ্গল, সমুদ্র পেরিয়ে জনপ্রিয় বিজ্ঞাপনের এই ছোট্ট পাগটিকে এবার পাড়ি দিতে হবে চাঁদে! ভোডাফোন যে সেখানেও এবার মোবাইল টাওয়ার বসানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে! সংস্থার দাবি, সব কিছু ঠিকঠাক এগলে ২০১৯-এর মধ্যেই চাঁদে বসবে প্রথম মোবাইল টাওয়ার।

তবে চাঁদ বলে কথা! তাই সেই মুলুকে একা ‘যুদ্ধ’-এ নামছে না ভোডাফোন। টাওয়ার বসানোর কাজে ভোডাফোন একা নামছে না। ওই প্রজেক্টে ভোডাফোনের সঙ্গে আছে নোকিয়া এবং গাড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থা অডি-ও।

আনন্দবাজারের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভোডাফোনের তরফে জানানো হয়েছে, চাঁদে টাওয়ার বসানোর যাবতীয় প্রযুক্তিগত সাহায্য করছে নোকিয়া। ২০১৯ সালে কেপ ক্যানাভেরাল থেকে এলন মাস্কের কোম্পানি ‘স্পেস এক্স’-এর ‘ফ্যালকন ৯’ রকেটে চাপিয়ে চাঁদে পাঠানো হবে ওই টাওয়ার। স্পেস এক্সের উদ্যোগে সেটাই হতে চলেছে বিশ্বের প্রথম বেসরকারি চন্দ্রাভিযান। স্পেস এক্স এর আগেও দুইবার সফলভাবে ফ্যালকন রকেটের উৎক্ষেপণ করেছে।

অভিনব এই প্রজেক্টটি নিয়ে ভোডাফোন জার্মানির চিফ এগজিটিউটিভ হান্স আমেটস্ট্রেটার বলেন, ‘মোবাইল নেটওয়ার্ক প্রযুক্তির উন্নতিতে আমাদের এই প্রজেক্ট সাহায্য করবে বলে আমরা আশাবাদী।’ তবে কী ভাবে এই টাওয়ার কাজ করবে তা জানানো হয়নি ভোডাফোনের তরফে।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

নিজের নম্বর গোপন রেখে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০২-১৮ ০৭:৫৬:৩৭

বিশ্বে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১৫০ কোটির বেশি। ফেসবুকের মালিকানাধীন জনপ্রিয় এই মেসেজিং অ্যাপে প্রতিদিন ৬ হাজার কোটি মেসেজ আদান-প্রদান হয়।

নানা সুবিধা রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপে। কিন্তু আপনি কি এটা জানেন যে, নিজের নম্বর গোপন রেখেই চ্যাটিং করা সম্ভব হোয়াটসঅ্যাপে। আর এজন্য আপনাকে ইনস্টল করতে হবে একটি অ্যাপ। যা পাওয়া যাবে গুগল স্টোরেই। অ্যাপটির নাম ‘প্রিমো‌’।

প্রিমো অ্যাপ ব্যবহার করলে আপনি যার সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাটিং করবেন, তিনি আপনার নম্বরের পরিবর্তে দেখতে পাবেন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ‌‘ভার্চুয়াল’‌ নম্বর।

এজন্য যা করতে হবে তা হচ্ছে, গুগল প্লে স্টোর থেকে ‘প্রিমো’ অ্যাপ ইনস্টল করে এই অ্যাপে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। এক্ষেত্রে নিজের ফোন নম্বর নিয়ে সাইনআপ করতে হবে। এরপর আপনার কাছে আসবে ৬ সংখ্যার ভেরিফিকেশন কোড। কোড দেওয়ার পর সম্পূর্ণ হবে ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া। এরপর ঢুকতে হবে  প্রিমো ইউএস ফোন নম্বরে। এখানে রয়েছে বিনামূল্যের ট্রায়াল ও প্রিমিয়াম। ট্রায়াল অপশন থেকে একটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফোন নম্বর পাওয়া যাবে। এই নম্বর দিয়ে হোয়্যাটসঅ্যাপ করা যাবে।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত