যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ১৭ Jul, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 01:40pm

|   লন্ডন - 08:40am

|   নিউইয়র্ক - 03:40am

  সর্বশেষ :

  পুলিশবাহী মাইক্রো বাসের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত ৩   মানবতাবিরোধী অপরাধ : মৌলভীবাজারের ৪ জনের মৃত্যুদণ্ড   প্রাইজমানির ৫ লক্ষ ডলার প্রতিবন্ধী শিশুদের দিয়ে দিচ্ছেন এমবাপে   বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে রাখা সোনা হয়ে গেল মিশ্র ধাতু!   লং বিচ কাইট ফেস্টিভ্যাল-এর ৫ম আসর ১২ আগস্ট   ওসমানী মেডিকেলে রোগীর নাতনিকে ধর্ষণ, ইন্টার্ন চিকিৎসক আটক   ছাত্রলীগকে ‘আবার মানুষ হওয়ার’ পরামর্শ ঢাবি শিক্ষকের   ফিনল্যান্ডে ট্রাম্প-পুতিন বৈঠক   শিরোপা উদযাপন করতে গিয়ে প্যারিসে সহিংসতা, নিহত ২   ঘিঞ্জি মহল্লা থেকে বিশ্বমঞ্চে কিলিয়ান এমবাপ্পে   ভারতে মোদির জনসভায় শামিয়ানা ভেঙে আহত ৬৭   লিবিয়ায় কনটেইনার লরি থেকে বাংলাদেশিসহ ৯০ অভিবাসী উদ্ধার   কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের পূর্ণ সমর্থন দিলো বিএনপি   যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে ইরানের মামলা   কোটার রায় কি বৈধ ছিল?

>>  আইটি এর সকল সংবাদ

যুক্তরাজ্যে পাঁচ লাখ পাউন্ড জরিমানার মুখে ফেসবুক

যুক্তরাজ্যের তথ্য অধিকার সংরক্ষণ বিষয়ক সংস্থা ফেসবুককে পাঁচ লক্ষ পাউন্ড জরিমানার পরিকল্পনা করছে। ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারির জের ধরে এই জরিমানার কথা ভাবছে ব্রিটেনের তথ্য কমিশনারের অফিস।
 
ব্রিটেনে এটাই হবে এ ধরণের সবচেয়ে বড় অংকের জরিমানা। খবর- বিবিসির।

তবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এ জরিমানার অংক কমানোর চেষ্টা করবে কিনা সে বিষয়ে এখনো কিছু বলেনি।

ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল রাজনৈতিক দলের ব্যবহার জন্য তারা অনৈতিকভাবে কোটি-কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য সরবরাহ করেছিল।

ফলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট

বিস্তারিত খবর

বিনামূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ আনছে গুগল ক্রোম

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২৫ ১৪:২৬:৪৪

রাস্তায় আছেন, ফোন থেকেই অফিসের জরুরি একটা কাজ করতে হবে, তখনই দেখলেন ফোনে ডাটা নাই। আবার কোনও বন্ধুকে মেসেজ করবেন একটা ছবি বা লেখার লিংক অথচ আশপাশে ওয়াইফাই এর চিহ্নমাত্র নেই। তখন? মাথায় হাত দিয়ে বসে থাকা ছাড়া আপনার আর করণীয় কিছুই থাকে না! সেই সমস্যা দূর করতে আসছে গুগল ক্রোমের নতুন ফিচারটি।

জানা যায়, গুগল ক্রোমের নতুন সংস্করণে থাকছে এমন ফিচার যাতে অফলাইন থাকলেও ইন্টারনেটের সুবিধা পাওয়া যাবে।

আপনার ব্রাউজিং হিস্টোরি, অবস্থান ইত্যাদির উপর নির্ভর করে গুগল অনেক কিছুই এবার থেকে আগাম নামিয়ে রাখবে। ফলে যখন নেট কানেকশন থাকবে না, তখনও সে সব জিনিস চাইলে আপনার সামনে হাজির করে দেবে।

গুগলের অফলাইন ক্রোম ফর অ্যান্ড্রয়েড এর প্রোডাক্ট ম্যানেজার আমান্দা বোস জানিয়েছেন, ইন্টারনেট কানেকশন ব্যাহত হলেও এবার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে নেট ব্যবহার করা যাবে।

ভারতে তো বটেই, নাইজেরিয়া বা ব্রাজিলের মতো শতাধিক দেশেও এই ফিচার মিলবে। প্লে-স্টোর থেকে ক্রোমের এই নতুন সংস্করণটি ডাউনলোড করা যাবে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ফেসবুকের নতুন পরিকল্পনা, যা হতে পারে

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-০৩ ১৬:৩২:৩৭

চার দিকে ছড়িয়ে পড়ছে ফেক নিউজ। আর সেটা রুখতেই আরও কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। ২০১৪ সালে শুরু করা ‘‌ট্রেন্ডিং নিউজ’ বিভাগটি তুলে নিতে চলেছে তারা। ভবিষ্যতে সংবাদ পরিবেশনে নতুন মাত্রা যোগ করতেই এই ব্যবস্থা নিতে চলেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

তাদের মতে, এখন পর্যন্ত গড়ে মাত্র ১.‌৫ শতাংশ ক্লিক হয়েছে এই ‌ট্রেন্ডিং নিউজে এবং তাই সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। ফেসবুকের কর্মকর্তা অ্যালেক্স হার্দিম্যান একটি ব্লগে জানিয়েছেন, ‘‌গবেষণায় আমরা জেনেছি, সময় যত গড়াচ্ছে এই ট্রেন্ডিং নিউজটিকে অপ্রয়োজনীয় মনে করছেন অধিকাংশ ব্যবহারকারী। আগামী সপ্তাহ থেকে তাই এটি সরিয়ে নেয়া হবে। এমনকি থার্ড পার্টি এপিআইগুলোতেও এটি মিলবে না।’

এই ‌ ‌ট্রেন্ডিং নিউজ নিয়ে দু’‌বছর আগেই বিতর্কে জড়িয়েছিল ফেসবুক। এর অ্যালগরিদমে বিভিন্ন খবর নির্বাচন নিয়েই তৈরি হয় বিতর্ক। অ্যালগরিদম নিখুঁতভাবে সংবাদ বাছাই করতে পারে না বলে প্রায়ই ভুয়া খবর ট্রেন্ডিং হয়ে পড়ে এবং তা দ্রুত ছড়িয়েও যায়। এরপর এই নিয়ে বক্তব্যও রাখতে হয় ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গকেও।

তবে এই ট্রেন্ডিং নিউজের পরিবর্তে নতুন কি ফিচার আনবে ফেসবুকে? জানা গেছে, তারা ‘‌ব্রেকিং নিউজ লেবেল’‌, ‘‌টুডে ইন’‌ এবং ‘‌ফেসবুক ওয়াচ’‌ নামে তিনটি নতুন ফিচার আনবে। এর মধ্যে নিউজ ভিডিও–র জন্য ‘ফেসবুক ওয়াচ’–কে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হবে। এটির মাধ্যমে ইউটিউবের মতোই ভিডিও হাব তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে ফেসবুকের। এখানে লাইভ ভিডিও, কিংবা আলোচনার ভিডিও অথবা খবরের ভিডিও পোস্ট করা যাবে। এর পাশাপাশি কোনো নিউজ পোস্টে ব্রেকিং নিউজের লেবেলও লাগানো যাবে। অপরদিকে, ‘টুডে ইন’ নামে ফেসবুকে একটি নির্দিষ্ট সেকশন থাকবে। ওই সেকশনে স্থানীয় সংবাদ প্রকাশকেরা তাদের শহরের বিভিন্ন মানুষকে তথ্য ও খবরের সঙ্গে যুক্ত করতে পারবেন। পাশাপাশি স্থানীয় সংবাদও পাওয়া যাবে।‌‌

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ফেসবুক আসক্তি: বাড়ছে একাকিত্ব-হতাশা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২৮ ১৪:১১:৩২

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের ব্যবহার মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজতর করেছে। বিশ্বের যেকোনো স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বন্ধুদের কাছে টেনে নেয়ার মতো সুযোগ এই মাধ্যমটিই করে দিয়েছে। সবচেয়ে লক্ষণীয় ব্যাপার হলো- মানুষের দৈনন্দিন জীবনে কিছু ভালো সময় কাটানোর একটি অন্যতম প্ল্যাটফরম ফেসবুকই। আর সেটা নির্দ্বিধায় বলা যায়। তবে ভার্চুয়াল ওয়ার্ল্ডের এ জায়গাটি যতই মানুষের দৈনন্দিন জীবনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলছে ততটাই নেতিবাচক প্রভাবও ফেলেছে। প্রতিনিয়ত অসংখ্য মানুষ প্রচুর সময় ব্যয় করার পাশাপাশি ফেসবুকে থেকে নিজেরা হতাশায় ভুগছেন- এমনটাই মনে করছেন গবেষকরা।

বিভিন্ন সমাজ বিজ্ঞানী ও গবেষক বলছেন, ফেসবুক মানুষের জন্য কল্যাণ বয়ে আনলেও এর থেকে প্রভাবিত হয়ে হতাশ হচ্ছেন অনেকে। বিশেষ করে এ হতাশা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তরুণ সমাজের মাঝে বেশি লক্ষণীয়। দেখা যায়, কেউ সারাদিন ব্যস্ততার পর বাড়ি ফিরে ফেসবুক অনলাইনে আসেন। ওয়াল ঘুরে দেখলেন কাছের বন্ধুদের অনেকে কোথাও ঘুরতে গিয়েছেন সেসব ছবি, যেখানে তার থাকার কথা থাকলেও পারেননি। আবার অনেকে আছেন অনলাইনে প্রায়ই কোনো এক বন্ধুর সঙ্গে চ্যাটিংয়ে ব্যস্ত। কিন্তু হঠাৎ তিনি লাপাত্তা। তার সঙ্গে কথা বলতে চেয়েও পারছেন না। এর থেকে হতাশায় ভোগেন তারা।
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাইম জানান, গত এক মাস ধরে ফেসবুক আইডি ডিঅ্যাক্টিভেট করে রেখেছি। ফেসবুক অনলাইনে থাকলে মাঝে মাঝে অলস সময় কাটানো যায়। কিন্তু এর থেকে বড় সমস্যা হলো- প্রায়ই হতাশ হয়ে যাই। বন্ধুবান্ধবের অনেকের অ্যাক্টিভিটি দেখি। নানা কারণে সেসবে অংশ নিতে পারি না। নিউজফিডে সবার কাজকর্ম দেখে সময়গুলোতে অস্থিরতা কাজ করে।

আফসার নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, ফেসবুক যতটা আমাদের জীবনকে সহজ করে তুলেছে ততটাই খারাপ প্রভাব পড়ছে। বিশেষ করে চ্যাটিংয়ে অনেকের সঙ্গে কথা হয়। দেখা যায়, যে বন্ধুকে বেশি ভালো লাগে তার সঙ্গে হঠাৎ কথোপকথন বন্ধ হয়ে গেলে ভীষণ খারাপ লাগে। এ সময় খানিকটা একাকিত্ব অনুভব করি। সারাদিন কাজকর্ম শেষ করে এসে যদি দেখি ওই ভালোলাগার বন্ধুটি অনলাইনে নেই তখন সত্যিই খুব বিষণ্নতায় ভুগি। এসব কারণে অনেক দিন হয় সামাজিক যোগাযোগের এ মাধ্যমটিতে খুব একটা আসা হয় না।
ওহিও স্টেট ইউনির্ভাসিটির জ্ঞাপন বিভাগের অধ্যাপক সিলভিয়া নবলক ওয়েস্টারইউক বলছেন, যখন আপনি ভালো মুডে থাকেন, তখন আপনি সেলিব্রিটিদের ফলো করতে ভালোবাসেন। কিন্তু যখন মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তখন আপনি সাধারণ মানুষদের জীবনেও আগ্রহ দেখান। যারা আপনার মতো কোনো না কোনোভাবে ভেঙে পড়েছেন তাদের প্রতি আপনার সহানুভূতি জন্মায়। এই সমীক্ষা আরো জানাচ্ছে, ফেসবুকের প্রতি অত্যধিক আগ্রহ ব্যবহারকারীদের খিটখিটে করে দেয়। কারণ, এক সময় বন্ধুদের কাছ থেকে তাদের সাফল্যের আপডেট পেতে পেতে আপনার নিজেকে একা, পিছিয়ে পড়া, হেরে যাওয়া বলে মনে হতে পারে। তাই কীভাবে সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করবেন তা নিয়ে সাবধান। সমীক্ষা বলছে, মন খারাপের সময় আপনি সেই সমস্ত মানুষদের প্রোফাইল বেশি ভিজিট করেন যারা আপনার থেকেও বেশি পিছিয়ে রয়েছে বা কম সাফল্যের মুখ দেখেছে।

গত কয়েক বছরে এ নিয়ে ব্যাপক গবেষণা হয়েছে। এ রকমই কিছু গবেষণার ফলাফল বিশ্লেষণ করে এবং মনোবিজ্ঞানীদের সঙ্গে কথা বলে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা আইএএনএস। সেই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একাকিত্ব নিয়ে আমাদের সাধারণ ধারণা হচ্ছে বয়স হলে মানুষ একা হয়ে যায়। কিন্তু কম বয়সী কিশোর-কিশোরীরাও দিন দিন একা হয়ে যাচ্ছে ফেসবুকের কারণে। মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, এ ধরনের ঘটনা বেড়েই চলছে। ফেসবুকে আসক্তির কারণে কিশোর-কিশোরীরা অন্যদের থেকে আলাদা হয়ে একাকী জীবনযাপনে অভ্যস্ত হয়ে পড়ছে। আর এই একাকিত্ব থেকে বাড়ছে হতাশা। দীর্ঘদিনের হতাশা থেকে তারা হয়ে পড়ছে আত্মহত্যাপ্রবণ। দিল্লির ফরটিস হেলথ কেয়ার হাসপাতালের মেন্টাল হেলথ অ্যান্ড বিহ্যাভিরিয়াল সায়েন্সেসের পরিচালক ডা. সামির পারিখ জানিয়েছেন, একাকিত্ব শারীরিক ও মানসিক দুদিক দিয়েই রোগীদের ক্ষতি করে। এরা আস্তে আস্তে সবার থেকে দূরে সরে যায় এবং তাদের ক্ষেত্রে আত্মহত্যার ঝুঁকি অনেক বেশি থাকে। নিজের অভিজ্ঞতার বর্ণনা দিয়ে নয়াদিল্লির সরোজ সুপার স্পেশালিটি হসপিটালের কনসালটেন্ট ডা. সন্দীপ গোভিল বলেন, তনয় নামের ১৪ বছর বয়সী এক ছেলে আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। ফেসবুকে সে এতটাই আসক্ত ছিল যে ফোন বন্ধ করে রাখলে সে অস্থির হয়ে পড়তো। আমরা তার এই ‘স্ক্রিন এডিকশন’-এর চিকিৎসা শুরু করি। তখন ব্যবস্থা নেয়া না হলে এই আসক্তি থেকে সে আরো বড় কোনো মানসিক রোগে আক্রান্ত হতে পারতো। ইউনিভার্সিটি অব শিকাগো এবং ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া-লস অ্যাঞ্জেলেসের গবেষকরা বিষয়টি নিয়ে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করেছেন। সেখানে তারা উল্লেখ করেছেন, একাকিত্বের ফলে মস্তিষ্কে বিপজ্জনক সিগন্যাল পৌঁছায়। যার ফলে হোয়াইট ব্লাড সেলের উৎপাদন ব্যাহত করে। তাই একাকিত্ব থেকে শারীরিক অসুস্থতার ঝুঁকি তৈরি হতে পারে।

তবে এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান ভিন্ন মতই পোষণ করেন। তিনি বলেন, মানুষ একা হয়ে যাচ্ছে, হতাশ হচ্ছে এসবের জন্য ফেসবুককে দোষ দেয়া যাবে না। আসল কারণ কোনটা সেটা খুুঁজে বের করতে হবে। আমার কাছে যেটা মনে হয়, মানুষ অতিমাত্রায় আয়মুখী ও ভোগবাদী হয়ে উঠেছেন। মানুষের জীবনযাত্রায় ফেসবুক একটা কম্পোন্যান্ট মাত্র। এখানে মানুষ বরং কিছু কোয়ালিটি টাইম পাস করছে। আসলে ফেসবুকে মানুষ কি করে? ছবি পোস্ট করে, স্ট্যাটাস দেয়, অন্যদের ছবি দেখে, অন্যদের ছবি-স্ট্যাটাসে লাইক কমেন্ট করে! এখানে ফেসবুকের দোষের কিছু দেখছি না। মূল সমস্যা হচ্ছে- ওই যে বললাম, মানুষের উপার্জনমুখী মনোভাব এবং ভোগবাদিতা। আর নৈতিক শিক্ষা।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

কক্ষপথে পৌঁছে কাজ শুরু করেছে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২১ ১২:১২:২৬

ফ্লোরিডা থেকে উৎক্ষেপণের ১০ দিন পর বাংলাদেশের প্রথম যোগাযোগ উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ (বিএস-১) তার নিজস্ব অবস্থানে (অরবিট স্লট) পৌঁছেছে।

বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএসসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের স্যাটেলাইট তার অবস্থান নিয়েছে এবং স্বাভাবিকভাবেই কাজ শুরু করেছে।’ খবর বাসসের।

গত ১১ মে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে বিএস-১ সফলভাবে উৎক্ষেপণ করা হয়। স্পেসএক্স-এর সর্বাধুনিক রকেট ফ্যালকন-৯ এর মাধ্যমে স্যাটেলাইটটি ১১৯.১ দ্রাঘিমাংশে পৌঁছানোর জন্য এটি উৎক্ষেপণ করা হয়।

বিসিএসসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘তারা এখন বাণিজ্যিকভাবে কার্যক্রম শুরু করার আগে আরও বেশকিছু পরীক্ষা চালাবেন।’

সাইফুল ইসলাম বলেন আরও বলেন, ‘তিন মাসের মধ্যে আমরা বাণিজ্যিক অপারেশনে যাব।’

সরকারি সূত্র জানায়, বিএস-১ প্রতি ২৪ ঘণ্টায় একবার ৩৬ হাজার কিলোমিটার উচ্চতায় একবার পৃথিবী পরিক্রমণ করবে। ফ্যালকন-৯ এর ব্লক-৫ থেকে উৎক্ষেপণের অব্যবহিত পরই বিএস-১ ৩৫ হাজার ৭শ’ কিলোমিটার পথ পাড়ি দেয়। এরপর ১০ দিনে আরও ৩শ’ কিলোমিটার অতিক্রম করে বর্তমান অবস্থানে যায়।

গাজীপুর গ্রাউন্ড স্টেশনের অপারেশন ইঞ্জিনিয়ার তাজুল ইসলাম ইতোপূর্বে জানিয়েছেন বিএস-১ গ্রাউন্ড স্টেশনে সংকেত পাঠাতে শুরু করেছে।

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘গাজীপুরের জয়দেবপুর ও রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়ার গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে বিএস-১-এর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ পেতে প্রায় দুই মাস সময় লাগবে।’

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

তিন মাসে ৫৮ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে ফেসবুক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৬ ১৩:১৯:৫৬

এবছরের প্রথম তিন মাসে ৫৮.৩ কোটি ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে সামাজিক মাধ্যমটি।

‘কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড অর্থাৎ সামাজিকভাবে গ্রহণযোগ্য’ আচরণ নিশ্চিত করতে ফেসবুক কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে তার বর্ণনায় একথা জানিয়েছে তারা।

রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার কাছে ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য বেহাত হয়ে যাওয়ার পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে ফেসবুক।

এর পর সাইটটি তাদের সেবার মান উন্নত করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়। প্রতিদিন কয়েক কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট তৈরির চেষ্টা রুখে দেয়া তারই একটা অংশ।

বিপুল সংখ্যক ভুয়া অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দেয়া সত্ত্বেও সক্রিয় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ৩-৪ শতাংশ এখনো নাম-পরিচয় লুকিয়ে ভুয়া অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করছেন।

ফেসবুক দাবি করেছে, তারা সাইটটি থেকে স্প্যাম অর্থাৎ ক্ষতিকারক বিভিন্ন পোস্ট প্রায় ১০০ ভাগ শনাক্ত করেছে এবং স্প্যামের সঙ্গে সম্পর্কিত ৮৩.৭ কোটি পোস্ট মুছে দিয়েছে।

বছরের প্রথমভাগে ফেসবুক যৌন বা সহিংস ও সন্ত্রাসমূলক কর্মকাণ্ডে উৎসাহ দেয় এমন ৩ কোটি পোস্ট সরিয়ে নেয় বা সেগুলোকে সতর্ক করে দেয়। সহিংস ঘটনার ছবি শনাক্ত করতে সহায়তা করেছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে তৈরি উন্নত প্রযুক্তি । ২০১৭ সালের শেষ ভাগের চেয়ে এই সংখ্যা তিনগুণ।

প্রায় ৮৫ শতাংশ ক্ষেত্রে বিভিন্ন আপত্তিকর পোস্ট সম্পর্কে কেউ অভিযোগ করার আগেই ফেসবুক ওই পোস্টগুলো শনাক্ত করতে সক্ষম হয়।

এর আগের দিন ইউজারদের ব্যক্তিগত তথ্য অপব্যবহার করার অভিযোগ তদন্ত করতে ফেসবুক প্রায় ২০০ অ্যাপ বন্ধ করে দেয়।

অন্যদিকে, এই তিন মাসে ২৫ লাখ ‘হেট স্পিচ বা ঘৃণামূলক বক্তব্য’ মুছে দেয় ফেসবুক। গত অক্টোবর থেকে ডিসেম্বরের তুলনায় বিদ্বেষমূলক বক্তব্যের সংখ্যা বেড়েছে দেড় গুণ। কিন্তু ফেসবুক মাত্র ৩৮ শতাংশ ক্ষেত্রে নিজে থেকেই এসব আপত্তিকর বক্তব্য শনাক্ত করতে সক্ষম হয়, বাকি সময় ইউজারদের অভিযোগ পাওয়া পর এগুলো সরিয়ে দেয়া হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের সামনে যেসব চ্যালেঞ্জ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১২ ১৪:৩৩:৪৭

বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটকে স্বাগত জানিয়েছেন টেলিভিশন ইন্টারনেটসহ যোগাযোগ খাত সংশ্লিষ্টরা।

তারা বলছেন, যোগাযোগে উন্নতি  বৈদেশিক মুদ্রা আয়সহ ইতিবাচক অনেক দিক থাকলেও চ্যালেঞ্জও কম নয়। সব সেক্টরের সঙ্গে পরামর্শ করে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনার কথা বলছেন তারা।

নানা জল্পনার-কল্পনার শেষ করে অবশেষে মহাকাশে নিজের নাম লেখাল বাংলাদেশ। অনেক বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে ইতিহাসের অংশ হল বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট। স্বপ্নের এ স্যাটেলাইট গৌরবের পাশাপাশি অনেক ইতিবাচক দিক নিয়ে আসছে।  তবে সেগুলোর বাস্তবায়ন নিয়ে জল্পনা-কল্পনাও কম নয়।

টেলিভিশন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিজেদের স্যাটেলাইটে বাংলাদেশকে বাড়তি সুবিধা দিলেও কানেক্টিভিটি খরচ একটি বড় প্রশ্ন।

ডিবিসি নিউজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু বলছেন, একটা স্যাটেলাইট যাওয়ার পর আমরা তাৎক্ষণিকভাবে বলতে পারছি না- এর সিগন্যালটা কতটা পাবো? এটাকে টেকনিক্যাল ভাষায় বলে ইআইআরপি। একটা ইআইআরপি ও টোটাল গেইনটা অর্থাৎ সিগনাল পাঠানোর পর গেইন কতটা পাচ্ছি- তা পরীক্ষা করতে হবে।

অন্যদিকে বেসিস বলছে, প্রযুক্তির ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের উন্মোচন হলেও এর প্রয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রয়োজন।

বেসিস সভাপতি আলমাস কবির বলেন, বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে- যেখানে এখনও কমিউনিকেশন পৌঁছায়নি; কমিউনিকেশনের ইনফ্রাস্ট্রাকচার পৌঁছায়নি, সেখানে অতি সহজে এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে কমিউনিকেশনের ইনফ্রাস্ট্রাকচার ও মাধ্যম তৈরি করা যাবে।

তিনি বলেন, প্রায় দেড় কোটি ডলারের মতো টাকা আমরা বাইরে খরচ করি শুধু টিভি চ্যানেলগুলোর স্যাটেলাইট ভাড়ায়। এই বৈদেশিক মুদ্রাটা অবশ্যই সেভ হবে। 

একইসঙ্গে যারা দীর্ঘদিন ধরে প্রযুক্তি খাত নিয়ে কাজ করছেন তারা মনে করেন,  তাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে কাজ করলে বিষয়টি সহজ হবে।

মঞ্জু বলেন, আমাদের টেলিভিশন চ্যানেলগুলো সি-ব্যান্ডে কাজ করে। ফলে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে যে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার আছে, তা থেকে টেলিভিশনকে প্রথমত সি-ব্যান্ডে দিতে হবে। যদি এটা না দেয়া হয়, তবে আমাদের এন্টিনা থেকে শুরু করে অনেক ইকুইপমেন্ট নতুন করে কিনতে হবে। যেটা সময়সাপেক্ষ এবং অর্থ দণ্ডের ব্যাপার।

আর আবহাওয়াবিদরা বলছেন,  প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ গুরুত্বপূর্ণ সময়ে সাহায্য করবে এ স্যাটেলাইট।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, আমাদের সেবা দিতে অনেক সময় দেরি হওয়ার বিষয়টি থাকে। এই স্যাটেলাইটের ফলে এখন আর হয়তো সেটি হবে না।

তবে কক্ষপথে স্যাটেলাইটের অবস্থান, কভারেজের ক্ষমতা, দাম আর সরকারি সিদ্ধান্তের ওপরই বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের সফলতা নির্ভর করবে বলে মনে করছেন তারা।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১১ ২৩:৪০:২৩

জাতির স্বপ্নের ‘বঙ্গবন্ধু-১’ স্যাটেলাইট এখন মহাকাশে। আর এর মধ্য দিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় যুক্ত হলো আরো একটি অর্জন।

বাংলাদেশ সময় শুক্রবার দিবাগত রাত ২টা ১৪ মিনিটে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার মহাকাশ কেন্দ্র স্পেসএক্স থেকে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট বহনকারী রকেটটি সফলভাবে উৎক্ষেপণ করা হয়। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্পেস সোসাইটিতে প্রবেশের ঐতিহাসিক মুহূর্তের সূচনা হল।

এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মাধ্যমে বাংলাদেশ কৃত্রিম উপগ্রহের অধিকারী বিশ্বের ৫৭তম দেশের মর্যাদা অর্জন করেছে।

মার্কিন কোম্পানি স্পেসএক্সের সর্বাধুনিক রকেট ফ্যালকন-৯ যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপ ক্যানাভেরাল উৎক্ষেপণ মঞ্চ থেকে স্যাটেলাইটটি নিয়ে কক্ষপথের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে।

প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নেতৃত্বে বাংলাদেশের একটি প্রতিনিধিদল এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ প্রত্যক্ষ করেন।

ফ্লোরিডা থেকে উৎক্ষেপণ প্রত্যক্ষকারী আইসিটি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ‘আমি আজকের দিনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণ করতে চাই, যিনি ১৯৭৪ সালে দেশের সর্ব প্রথম স্যাটেলাইট আর্থ স্টেশন স্থাপনের মাধ্যমে মহাকাশ যুগে প্রবেশের কার্যক্রমের সূচনা করেন।’

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের প্রযুক্তি কেন্দ্রীক উত্তরণের দৃষ্টান্ত।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু-১ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি সময়োপযোগী উদ্যোগও যার ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের ভিশন রয়েছে।

দেশের সর্বস্তরের মানুষ এই উৎক্ষেপণের সরাসরি সম্প্রচার প্রত্যক্ষ করার জন্য মধ্যরাতেও জেগে ছিলেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী বহু বাংলাদেশিও এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের সরাসরি সম্প্রচার ও ওয়েবকাস্ট প্রত্যক্ষ করেন।

এর আগে বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার ভোররাত ৩টা ৪৭ মিনিটে বঙ্গবন্ধু-১ উৎক্ষেপণের জন্য চূড়ান্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছিল। কিন্তু যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের উৎক্ষেপণ প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে বলেন, উৎক্ষেপণের শেষ মুহূর্তটিও সম্পূর্ণ কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত ছিল। এ ক্ষেত্রে যেকোনো পরিমাপ অস্বাভাবিক হলে উৎক্ষেপণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যাবে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ এর আগে বলেছেন, ফ্যালকন-৯ মহাকাশ যানে স্যাটেলাইটটি মহাকাশে যাবে। দুটি পর্যায়ে এ উৎক্ষেপণে প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। প্রথম পর্যায়ে ১০ দিন ও দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০ দিনের মতো সময় লাগবে। এসব প্রক্রিয়া শেষে গাজীপুরের জয়দেবপুর ও রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়ার গ্রাউন্ড স্টেশনে এর সংযোগ পেতে আরো কিছুদিন সময় প্রয়োজন হবে।

মহাকাশের ১১৯ দশমিক ১ ডিগ্রী পূর্ব দ্রাঘিমায় থেকে উপগ্রহটি প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় আবহাওয়া পূর্বাভাস এবং পর্যবেক্ষণে দেশের সক্ষমতা সম্প্রসারিত করবে। উপগ্রহটি থেকে সার্ক দেশগুলোর পাশাপাশি ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, মিয়ানমার, তাজিকিস্তান, কিরগিজস্তান, উজবেকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান এবং কাজাকিস্তানের একটি অংশ এর সুযোগ নিতে পারবে।

এই স্যাটেলাইট প্রথমে ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর উৎক্ষেপণের কথা ছিল। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় ইরমার কারণে এর উৎক্ষেপণ স্থগিত করা হয়।

বঙ্গবন্ধু-১ এর ফলে ডাইরেক্ট-টু-হো (ডিটিএইচ) ভিডিও সার্ভিস, ই-লার্নিং, টেলি-মেডিসিন, পরিবার পরিকল্পনা, কৃষি খাতসহ দুর্যোগ উদ্ধারে ভয়েস সার্ভিসের জন্য সেলুলার নেটোয়ার্কের কার্যক্রম এবং এসসিএডিএ, এওএইচও এর ডাটা সার্ভিসের পাশাপাশি বিজনেস-টু-বিজনেস (ভিসেট) পরিচালনায় আরো সহজতর করবে।

বিটিআরসি ২০১৫ সালের নভেম্বরে দেশের প্রথম এ স্যাটেলাইট নির্মাণের জন্য ফ্রান্সের থালেস এলিনিয়া স্পেস ফ্যাসিলিটিস কোম্পানির সঙ্গে ২৪৮ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি করে। কোম্পানিটি কয়েক মাস আগে স্যাটেলাইটটির তৈরির কাজ সম্পন্নের পর এটি ফ্রান্সের ক্যানেস ওয়্যারহাউজে রাখা হয়। পরে ২৯ মার্চ এ স্যাটেলাইট ফ্লোরিডায় স্থানান্তর করা হয়।

বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের জন্য বাংলাদেশ ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে রাশিয়ার স্যাটেলাইট প্রতিষ্ঠান ‘ইন্টারস্পুটনিক’ এর কাছ থেকে ২ কোটি ৮০ লাখ ডলারে ১১৯ দশমিক ১ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমায় (স্লট) কক্ষপথ স্লট ক্রয় করে।

বিস্তারিত খবর

মহাকাশে কোন দেশের কত স্যাটেলাইট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১১ ১৪:০০:০৬

স্যাটেলাইট ক্লাবে পা রাখতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।  আধুনিক বিজ্ঞানের অন্যতম আবিষ্কার স্যাটেলাইট বা কৃত্রিম উপগ্রহ। তথ্য ও যোগাযোগ ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছে এই স্যাটেলাইট। বিশ্বের ৫৭তম দেশ হিসেবে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ। প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশের বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

১৯৫৭ সালে প্রথম মহাকাশে স্পুটনিক-১ নামে স্যাটেলাইট প্রেরণ করে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন। এরপর অনেক দেশ তাদের অনুসরণ করে মহাকাশে স্যাটেলাইট প্রেরণ করেছে। বর্তমানে কক্ষপথে দু্ই হাজার দুইশোটির বেশি স্যাটেলাইট রয়েছে।

স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ ও এর গতিবিধি নিয়ে কাজ করে এন২ওয়াইও.কম ওয়েবসাইটের তথ্য মতে, সাবেক সোভিয়েত রাশিয়া ভূক্ত দেশগুলোর সম্মিলিত স্যাটেলাইট সংখ্যা ১৫০৪টি, যুক্তরাষ্ট্রের ১৬১৬টি, চীনের ২৯৮টি, জাপানের ১৭২টি, ফ্রান্সের ৬৮টি, ভারতের ৮৮টি, তুরস্কের ১৪টি, পাকিস্তানের ৩টি, সৌদি আরবের ১৩টি, দক্ষিণ কোরিয়ার ২৪টি, স্পেনের ২৩টি, ব্রিটেনের ৪২টি। এছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার অনেকগুলো স্যাটেলাইট বর্তমানে কক্ষপথে অবস্থান করছে।

বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটটির ওজন সাড়ে সাড়ে তিন হাজার কেজিরও বেশি। আর্থ স্টেশন থেকে ৩৫ হাজার ৭৮৬ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে স্যাটেলাইটটির কক্ষপথে যেতে সময় লাগবে ৮-১১ দিন। আর পুরোপুরি কাজের জন্য প্রস্তুত হবে ৩ মাসের মধ্যে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ স্থগিত, আজ রাতে ফের শুরু

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১১ ০৭:৫৪:৪৪

বাংলাদেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১’ উৎক্ষেপণ স্থগিত হয়েছে। উৎক্ষেপণের প্রক্রিয়া আজ শুক্রবার  রাতে পুণরায় শুরু করা হবে।
বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১টা ৪৭ মিনিটে উৎক্ষেপণের সময় নির্ধারণ করা হয়েছিল। পরে তা ২টা ২২ মিনিটে ও সর্বশেষ ৩টা ৪৭ মিনিটে কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে উপগ্রহটি বহনকারী রকেট ফ্যালকন-৯-এর মহাকাশের পথে উড়াল দেয়ার কথা ছিল। আজ রাতে একই সময়ে এটি উৎক্ষেপণ শুরু করা হবে।
 
কারিগরি ত্রুটির কারণে সেটি পরবর্তীতে ৪টা ২২ মিনিটে নির্ধারণ করে ঘোষণা দেয়া হয় এসময়ের মধ্যে উৎক্ষেপণ না হলে সেটি আর আজ উৎক্ষেপন হবে না। সবশেষে কারিগরি সমস্যার কারণে সেটি স্থগিত করা হয় বলে ঘোষণা দেয়া হয়।

স্পেসএক্সের পক্ষ থেকে জানানো হয়, উৎক্ষেপণ আজকের মতো স্থগিত করা হয়েছে। রকেট ও পে লোড ভালোই আছে। ব্যাকআপ হিসেবে যে সুযোগ আছে সেটিকে কাজে লাগানো হবে।

তবে আগামীকাল একই সময়ে অর্থাৎ রাত ৪টার পর এটি আবার উড্ডয়ন করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্র জানিয়েছে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ উপলক্ষে এদিন কেনেডি স্পেস সেন্টারে ছিল বাংলাদেশের ৩০ সদস্যের প্রতিনিধি দল। এ ঐতিহাসিক ঘটনা নিজ চোখে দেখতে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী বাংলাদেশিরাও ছুটে আসেন ফ্লোরিডায়। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজন করে নানা অনুষ্ঠান।

লঞ্চপ্যাডের সাড়ে তিন মাইল দূরে ছিল দর্শনার্থীদের বসার স্থান। এর ভিআইপি লাউঞ্জে এদিন ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। আর বাংলাদেশ দলের সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন তথ্যপ্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, ইমরান আহমেদ, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ প্রমুখ। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি কৃষিবিজ্ঞানী ড. সিদ্দিকুর রহমানসহ দলের নেতাকর্মীরাও ছিলেন দর্শনার্থী।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরীক্ষামূলক সফল উৎক্ষেপণ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-০৫ ১৩:৫৪:২৪

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ১ এর পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ সফল হয়েছে বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি মহাকাশ গবেষণা ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স।

ফ্লোরিডার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে অরল্যান্ডোর কেনেডি স্পেস সেন্টারে সফল পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ চালানো হয় বলে টুইট বার্তায় জানিয়েছে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণের দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠানটি।

স্পেসএক্স জানিয়েছে, শুক্রবারের স্ট্যাটিক ফায়ার টেস্ট নামের এই পরীক্ষায় স্যাটেলাইটটির উৎক্ষেপণযান ফ্যালকন ৯ এ কোনো ত্রুটি ধরা পড়েনি। এটি সম্পূর্ণ কার্যকর। এখন এই পরীক্ষা থেকে পাওয়া তথ্য স্পেসএক্সের সদর দপ্তর লস অ্যাঞ্জেলসে পাঠানো হয়েছে।

তথ্য পর্যালোচনা শেষে দ্রুতই উৎক্ষেপণের তারিখ নির্ধারণ করা হবে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে মার্কিন বিমান বাহিনীর আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, আগামী ৭ মে আবহাওয়া ৭০ শতাংশ অনুকূলে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে মহাকাশে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের জন্য আবহাওয়া ৮০ শতাংশ অনুকূলে থাকতে হয়।

উল্লেখ্য, স্যাটেলাইটটি মহাকাশের ১১৯ দশমিক ১ পূর্ব দ্রাঘিমাংশে অবস্থিত অরবিট প্লটে স্থাপন করা হবে। এতে নিজস্ব স্যাটেলাইটের অধিকারী বিশ্বের ৫৭তম দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটবে বাংলাদেশের।

২০১৫ সালের ১১ নভেম্বর বিটিআরসির সঙ্গে সই হওয়া চুক্তি অনুসারে এই স্যাটেলাইট নির্মাণ করেছে ফ্রান্সের থেলেস এলেনিয়া স্পেস।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইউজারদের পাসওয়ার্ড বদলানোর পরামর্শ দিলো টুইটার

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-০৫ ১৩:৪৭:৪৭

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারের নিজস্ব নেটওয়ার্কের একটি ত্রুটির কারণে তাদের ৩৩ কোটি ইউজারকে পাসওয়ার্ড বদলানোর পরামর্শ দিয়েছে প্ল্যাটফর্মটি।

অবশ্য ইউজারদের টুইটার আশ্বস্ত করেছে, প্রাথমিক তদন্তে কারও পাসওয়ার্ড বেহাত হয়ে যাওয়ার বা কারও তথ্যের অপব্যবহার হওয়ার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

টুইটারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যাক ডরসি এক টুইটে জানান, একজন ইউজার যখন লগইন করার জন্য পাসওয়ার্ড দেন, তখন তা টুইটারের কর্মীদের কাছ থেকে গোপন রাখার জন্য সেটিকে বিভিন্ন সংখ্যা ও অক্ষরে রূপান্তরিত করা হয়, যাকে বলা হয় হ্যাশিং।

কিন্তু একটি ত্রুটির কারণে গ্রাহকদের পাসওয়ার্ডগুলো হ্যাশিং প্রক্রিয়ার মধ্যে না গিয়ে অবিকৃত অবস্থায় টুইটারের অভ্যন্তরীণ একটি কম্পিউটারে জমা হচ্ছিল।

ঘটনাটির জন্য দুঃখ প্রকাশ করে টুইটার বলেছে, তারা ত্রুটিটি সারিয়ে নিয়েছে এবং কারও পাসওয়ার্ড এ ঘটনায় বেহাত হয়নি।

তবে অ্যাকাউন্টের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ইউজারদের পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের পাশাপাশি ‘টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন’ অর্থাৎ দুই স্তরের সুরক্ষার অপশন চালু করে নিতে বলেছে টুইটার।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, কারও পাসওয়ার্ড চুরি হয়েছে এমন প্রমাণ না পেলেও বাড়তি সতর্কতা হিসেবে টুইটার গ্রাহকদের পাসওয়ার্ড বদলে ফেলতে বলা হয়েছে।

ওই ত্রুটির কারণে ঠিক কতগুলো পাসওয়ার্ড ঝুঁকিতে পড়েছে তা টুইটার প্রকাশ করেনি।
তবে বিবিসি লিখেছে, ওই সংখ্যা একেবারে কম নয় এবং কয়েক মাস ধরে সমস্যাটা ছিল বলে তারা জানতে পেরেছে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ছবিতে ট্যাগিং নিয়ে মামলা : বিপাকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৪-১৭ ১৪:১৪:৫৪

ব্যবহারকারীদের অনুমতি ছাড়া অবৈধভাবে ছবিতে ‘ফেস ট্যাগিং’ বা ‘অবয়ব চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া’ ব্যবহারের অভিযোগে আইনগত ঝামেলায় পড়েছে ফেসবুক।

সোমবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির বিরুদ্ধে এই অভিযোগে ‘শ্রেণিগত বৈষম্যের পদক্ষেপে মামলা’ করার আদেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের এক বিচারক।

যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকো ফেডারেল আদালতে জেলা জজ জেমস ডোনাটো সোমবার আদেশ দেন যে, ফেস ট্যাগিং নিয়ে যে বিতর্ক দেখা দিয়েছে তা সমাধানের সবচেয়ে ভালো উপায় হলো ফেসবুকের বিরুদ্ধে শ্রেণিগত বৈষম্যের পদক্ষেপে মামলা করা।

বায়োমেট্রিক তথ্যের গোপনীয়তা সম্পর্কে ইলিনয় রাজ্যের আইন ভঙ্গের অভিযোগে ২০১৫ সালে কয়েকজন ফেসবুক ব্যবহারকারী আদালতের দ্বারস্থ হন।

বিচারক ডোনাটো আদেশে বলেন, ‘শ্রেণি’ বলতে ইলিনয়ের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বুঝাবে যাদের জন্য ২০১১ সালের ৭ জুন ফেসবুক ‘অবয়ব চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া’ চালু করেছিল। ওই দিনই ফেসবুক তাদের নতুন ফিচার ‘ট্যাগ সাজেশনস’ চালু করে। ফেসবুকে কোনো ছবি আপলোড করলে এই ফিচারের মাধ্যমে ছবিতে থাকা ব্যক্তিদের ট্যাগের প্রস্তাব করে অনুরোধ আসে।

যুক্তরাষ্ট্রে কোনো ব্যক্তি শ্রেণি বা জাতিগত বৈষম্যের কোনো মামলা করতে চাইলে তাকে আগে আদালতের ‘সার্টিফিকেশন অব ক্লাস’ পেতে হয়।

ফেসবুক জানিয়েছে, তারা আদালতের আদেশ পর্যবেক্ষণ করছেন। এক বিবৃতিতে তারা বলে, ‘আমরা বিশ্বাস করি, এই মামলার কোনো ভিত্তি নেই এবং আদালতে বেশ ভালোভাবেই আমরা লড়ব।’

লাখো ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার হাতে চলে যাওয়ার ঘটনায় এমনিতেই সমালোচনা ও মার্কিন আইনপ্রণেতাদের প্রশ্নের মুখে থাকা ফেসবুকের জন্য ক্যালিফোর্নিয়ার বিচারকের এই আদেশ বড় ধরনের এক ধাক্কা। যোগাযোগমাধ্যমটির সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ এসব ঘটনায় বেশ পেরেশানিতে আছেন। শেয়ার বাজারেও মুখ থুবড়ে পড়েছে ফেসবুক।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

আরো কঠোর হচ্ছে ফেসবুক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৪-০৭ ১৩:২৪:৫১

ফেসবুকে জনপ্রিয় পেজ বা পাতা যারা চালাচ্ছেন তাদের পরিচয় এবং তথ্য যাচাই করা হবে। ফেসবুকে ভুয়া সংবাদ ছড়ানো এবং অসত্য প্রচারণা বন্ধের জন্য যে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তার অংশ হিসেবে জনপ্রিয় পাতা পরিচালনাকারীর পরিচয় যাচাই করার কথা বলা হচ্ছে।

ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ বলেছেন, জনপ্রিয় পেজ বা পাতাগুলো যাচাই করে দেখতে হবে। এই পাতাগুলো চালানোর ক্ষেত্রে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়েছে কিনা, সেটা যাচাই করে দেখা হবে।

এটিকে ফেসবুক নতুন অভিযান হিসেবে দেখছে।

আর এই অভিযানে দেখা হবে, জনপ্রিয় পেজ পরিচালনায় কেউ আসল পরিচয় গোপন করে ফেসবুকে ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলেছে কি-না।

জাকারবার্গ বলেছেন, ফেসবুকে রাজনৈতিক কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণের প্রস্তাবকে তিনি সমর্থন করছেন।

কঠিন সময় পার করছে ফেসবুক। পরিস্থিতি সামলানোর চেষ্টা কি আস্থা ফিরিয়ে আনতে পারছে?

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে প্রচারণায় কৌশল নির্ধারণে ফেসবুকের গ্রাহকের তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে। কেমব্র্রিজি অ্যানালিকা এটি করেছে।

আর প্রতিষ্ঠানটিকে গ্রাহকের তথ্য দিয়েছে ফেইসবুক।

এই অভিযোগ ওঠার পর বিশ্বে ব্যাপক আলোচনা চলছে ফেসবুক নিয়ে।

মার্ক জাকারবার্গ ভুল স্বীকার করেছেন।

তীব্র সমালোচনার মুখে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের প্রাইভেসি সেটিংসে পরিবর্তন আনাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছে।

কিন্তু শেয়ারবাজারে ফেসবুকের শেয়ারে ধস নেমেছে। সবদিক থেকেই চাপের মুখে পড়েছে ফেসবুক।

মার্ক জাকারবার্গ বলেছেন, তিনি আগে ভাবতেন, ফেসবুকের সুবিধা কে, কিভাবে ব্যবহার করলো - সেই দায় ব্যবহারকারিদের উপর বর্তাবে।

এই চিন্তায় সীমাবদ্ধতা ছিল বলে জাকারবার্গ মনে করেন।

ফেসবুককে আরো বেশি দায়িত্বশীল হতে হবে বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।

জাকারবার্গ বলেছেন, ফেসবুকে সার্চ বক্সে ইমেইল ঠিকানা বা ফোন নম্বর দিয়ে কোন ব্যবহারকারীকে খোঁজার যে ফিচার রয়েছে, কিছু লোক তার অপব্যবহার করছে বলে তাদের অনুসন্ধানে তারা পেয়েছেন।

এই ফিচারটি বন্ধ রাখার কথাও তিনি জানিয়েছেন।

বিভিন্ন পদক্ষেপ আস্থা কতটা ফিরিয়ে আনতে পারছে, তা নিয়ে বিশ্লেষকরা এখনও সন্দেহ প্রকাশ করছেন।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মোবাইল টাওয়ার বসছে চাঁদে!

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-০২ ১০:৫৮:৪০

হ্যাঁ, এবার মোবাইল টাওয়ার বসছে চাঁদে! ‘পাহাড়, গভীর জঙ্গল, মাঝ সমুদ্র— যেখানেই যাবেন আমাদের নেটওয়ার্ক আপনাকে ফলো করবে।’

এই ‘ফলো’ করা বোঝাতে একটি ছোট্ট ‘পাগ’-এর সাহায্য নেয় ভোডাফোন। পাহাড়, জঙ্গল, সমুদ্র পেরিয়ে জনপ্রিয় বিজ্ঞাপনের এই ছোট্ট পাগটিকে এবার পাড়ি দিতে হবে চাঁদে! ভোডাফোন যে সেখানেও এবার মোবাইল টাওয়ার বসানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে! সংস্থার দাবি, সব কিছু ঠিকঠাক এগলে ২০১৯-এর মধ্যেই চাঁদে বসবে প্রথম মোবাইল টাওয়ার।

তবে চাঁদ বলে কথা! তাই সেই মুলুকে একা ‘যুদ্ধ’-এ নামছে না ভোডাফোন। টাওয়ার বসানোর কাজে ভোডাফোন একা নামছে না। ওই প্রজেক্টে ভোডাফোনের সঙ্গে আছে নোকিয়া এবং গাড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থা অডি-ও।

আনন্দবাজারের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভোডাফোনের তরফে জানানো হয়েছে, চাঁদে টাওয়ার বসানোর যাবতীয় প্রযুক্তিগত সাহায্য করছে নোকিয়া। ২০১৯ সালে কেপ ক্যানাভেরাল থেকে এলন মাস্কের কোম্পানি ‘স্পেস এক্স’-এর ‘ফ্যালকন ৯’ রকেটে চাপিয়ে চাঁদে পাঠানো হবে ওই টাওয়ার। স্পেস এক্সের উদ্যোগে সেটাই হতে চলেছে বিশ্বের প্রথম বেসরকারি চন্দ্রাভিযান। স্পেস এক্স এর আগেও দুইবার সফলভাবে ফ্যালকন রকেটের উৎক্ষেপণ করেছে।

অভিনব এই প্রজেক্টটি নিয়ে ভোডাফোন জার্মানির চিফ এগজিটিউটিভ হান্স আমেটস্ট্রেটার বলেন, ‘মোবাইল নেটওয়ার্ক প্রযুক্তির উন্নতিতে আমাদের এই প্রজেক্ট সাহায্য করবে বলে আমরা আশাবাদী।’ তবে কী ভাবে এই টাওয়ার কাজ করবে তা জানানো হয়নি ভোডাফোনের তরফে।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

নিজের নম্বর গোপন রেখে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০২-১৮ ০৭:৫৬:৩৭

বিশ্বে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১৫০ কোটির বেশি। ফেসবুকের মালিকানাধীন জনপ্রিয় এই মেসেজিং অ্যাপে প্রতিদিন ৬ হাজার কোটি মেসেজ আদান-প্রদান হয়।

নানা সুবিধা রয়েছে হোয়াটসঅ্যাপে। কিন্তু আপনি কি এটা জানেন যে, নিজের নম্বর গোপন রেখেই চ্যাটিং করা সম্ভব হোয়াটসঅ্যাপে। আর এজন্য আপনাকে ইনস্টল করতে হবে একটি অ্যাপ। যা পাওয়া যাবে গুগল স্টোরেই। অ্যাপটির নাম ‘প্রিমো‌’।

প্রিমো অ্যাপ ব্যবহার করলে আপনি যার সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাটিং করবেন, তিনি আপনার নম্বরের পরিবর্তে দেখতে পাবেন যুক্তরাষ্ট্রের একটি ‌‘ভার্চুয়াল’‌ নম্বর।

এজন্য যা করতে হবে তা হচ্ছে, গুগল প্লে স্টোর থেকে ‘প্রিমো’ অ্যাপ ইনস্টল করে এই অ্যাপে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। এক্ষেত্রে নিজের ফোন নম্বর নিয়ে সাইনআপ করতে হবে। এরপর আপনার কাছে আসবে ৬ সংখ্যার ভেরিফিকেশন কোড। কোড দেওয়ার পর সম্পূর্ণ হবে ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া। এরপর ঢুকতে হবে  প্রিমো ইউএস ফোন নম্বরে। এখানে রয়েছে বিনামূল্যের ট্রায়াল ও প্রিমিয়াম। ট্রায়াল অপশন থেকে একটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফোন নম্বর পাওয়া যাবে। এই নম্বর দিয়ে হোয়্যাটসঅ্যাপ করা যাবে।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ফ্লোরিডা থেকে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী রকেটের মহাকাশ-যাত্রা শুরু

 প্রকাশিত: ২০১৮-০২-০৭ ১২:৪৬:৫৬

রকেটটির নাম ফ্যালকন হেভি। ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে যখন সেটির উৎক্ষেপণ হচ্ছিল তখন শোনা যাচ্ছিলো উচ্ছ্বসিত দর্শকদের হর্ষধ্বনি।

এক ব্যবসায়ীর খেয়ালি পরীক্ষা বা ঝুঁকিপূর্ণ উদ্যোগ বলে এই রকেট প্রকল্প নিয়ে নানা রকম আশংকা ছিল। কিন্তু সফলভাবেই ব্যাপক বেগের সাথে আটলান্টিক মহাসাগরের উপর দিয়ে মহাকাশের উদ্দেশে উড়ে গেছে এটি।

এখনকার দিনে বিশ্বের সবচেয়ে সফল ও মেধাবী উদ্যোক্তাদের একজন ইলন মাস্কের কোম্পানি স্পেস এক্সের পরীক্ষামূলক এই রকেটটি বর্তমান যেকোনো মডেলের থেকে দ্বিগুণ ভার বহন করতে পারে। এই রকেট ৬৪ টন ওজনের বস্তু পৃথিবীর কক্ষপথে পৌঁছে দেয়ার ক্ষমতা রাখে। যা লন্ডনের রাস্তায় চলা ৫টি দোতলা বাসের সমান।

তবে পরীক্ষামূলক এই মিশনে রকেটটিতে ইলন মাস্ক তুলে দিয়েছেন নিজের ব্যবহৃত একটি পুরনো স্পোর্টস কার। তার ভেতরে বসিয়ে দেয়া হয় একটি ম্যানিকিন। আর ভেতরে বাজছিল ডেভিড বাউয়ির গান। কিন্তু এত জাঁকজমকের সাথে যাত্রা শুরু করা রকেটটির এই মিশনের কোনো গন্তব্য নেই। এটিকে নিয়ে মুল উত্তেজনা হলো মহাকাশ যাত্রায় তা নতুন দ্বার উন্মোচন করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

রকেটটি যেমন শক্তিশালী তেমনি এর খরচও কমিয়ে আনা হয়েছে দ্বিতীয় শক্তিশালী রকেটের তিন ভাগের একভাগ।

মহাকাশে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ এই মিশনের উদ্দেশ্য বলে মনে করা হচ্ছে। ফ্যালকন হেভির মতো রকেটের মাধ্যমে ইলন মাস্কের কোম্পানি আরো বেশি সংখ্যায় এবং বড় আকারের স্যাটেলাইট মহাকাশে পৌঁছে দিতে পারবে।

মহাকাশের নতুন রেসে এভাবেই এখন নেতৃত্ব দিচ্ছে কোন রাষ্ট্র নয় বরং ব্যাক্তিমালিনাধীন কোম্পানি।

আন্তর্জাতিক স্পেস সেন্টার ঘুরে আসা একজন নভোচারী কমান্ডার লিরয় চাও এই উৎক্ষেপণ দেখার পর তার অনুভূতি ব্যাখ্যা করে বলছিলেন তার কাছে দিনটি একটি মহা উত্তেজনার দিন।

ভবিষ্যতে মহাকাশে অনুসন্ধান ও গবেষণার কাজে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রের গ্রাহকদের আরো স্থানীয় সংবাদ দেবে ফেসবুক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-৩১ ১০:৩৮:৩৯

ফেসবুক জানিয়েছে, তারা মার্কিন গ্রাহকদের কাছে আরো স্থানীয় সংবাদ সরবরাহ করবে। অনেক প্রভাবশালী এ সামাজিক নেটওয়ার্কের তথ্য প্রবাহ আরো বাড়ানোর ক্ষেত্রে এটি তাদের সর্বশেষ প্রচেষ্টা। 
এ মাসের গোড়ার দিকে ফেসবুকের পক্ষ থেকে দেয়া ঘোষণায় ভুল তথ্যের বিস্তার ঠেকানো প্রচেষ্টার পাশাপাশি সংবাদ সূত্রের ক্ষেত্রে তাদের বিশ্বাসযোগ্যতার মাত্রা বৃদ্ধি করে এ নেটওয়ার্কের গ্রাহক সংখ্যা ২শ’ কোটিতে উন্নীত করা কথা বলা হয়।

এ অনলাইন জায়ান্ট মিথ্যা সংবাদের বিস্তার রোধে (বিশেষকরে ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকালীন সময়ের) ব্যর্থ হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ ওঠার পর তা মোকাবেলায় এ পরিবর্তনের ঘোষণা দেয়া হলো।

এ সামাজিক নেটওয়ার্কে দেয়া এক পোস্টে ফেসবুক কো-ফাউন্ডার ও প্রধান নির্বাহী মার্ক জুকার্সবার্গ বলেন, ‘স্থানীয় সংবাদ অন ও অফলাইন উভয় ক্ষেত্রে কমিউনিটি গড়ে তোলার জন্য সহায়ক হচ্ছে।

‘ফেসবুকে আমাদের সময় কাটানোর ক্ষেত্রে এটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ।’

জুকার্সবার্গ গত বছর সারা যুক্তরাষ্ট্র সফর করে ফেসবুক গ্রাহকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

‘এ সময় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের অনেকে আমাকে বলেছেন যে অধিক বিতর্কিত বিভিন্ন বিষয় এড়িয়ে তার স্থলে স্থানীয় গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয়ের ওপর নজর দেয়া যেতে পারে।’

তিনি ফেসবুক গ্রাহকদের সাথে কথা বলে আরো জানতে পেরেছেন যে স্থানীয় সংবাদ দেয়া হলে এটা কমিউনিটির জন্য ইতিবাচক হবে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্লিপস ক্যামেরা আনলো গুগল

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-৩১ ০৯:৫৭:২২

কোনও প্রচারণা ছাড়াই ক্লিপস ক্যামেরা বাজারে ছেড়েছে গুগল। ছোট আকৃতির এই ক্যামেরাটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন। মজার কিছু সামনে পেলে নিজে থেকেই ছবি তুলে নিতে পারে এটি।
গত অক্টোবরে ক্লিপস ক্যামেরা প্রথমবারের মতো সবার সামনে নিয়ে আসে গুগল। তবে সেটা ছিল অনেকটা প্রদর্শনীর মতো। এবার গ্রাহকদের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে ক্লিপস ক্যামেরা সরবরাহ শুরু করেছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি। ২৭ জানুয়ারি এর বিক্রি শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।
নিজেই ছবি তোলার পাশাপাশি ক্লিপস ক্যামেরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিস্থিতি অনুযায়ী ছবির রেজ্যুলেশন ঠিক করে নিতে পারে। তাছাড়া এই ক্যামেরায় রয়েছে মোমেন্ট আইকিউ যা একটি অনবোর্ড ও অফলাইন লার্নিং মডেল। সেই সঙ্গে এতে রয়েছে একটি ভিজুয়াল প্রসেসিং ইউনিট যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে সঠিক মুখভঙ্গি, আলো, ফ্রেমিং শনাক্তের মাধ্যমে অর্থপূর্ণ ছবি ধারণে সক্ষম।
গুগলের এই বিশেষ ধরনের ক্যামেরাটি বিক্রি হচ্ছে ২৪৯ মার্কিন ডলারে। তবে এটা তাৎক্ষণিকভাবে কেউ কিনতে পারছেন না। যারা আগে থেকেই অনুরোধ জানিয়ে রেখেছে, শুধু তাদেরকেই সরবরাহ করা হচ্ছে ক্লিপস ক্যামেরাটি।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাজ্যে প্রতি ৪ জনে ৩ জনেরই আস্থা নেই ফেসবুক-টুইটারে!

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-২২ ১২:০২:৫৪

যুক্তরাজ্যে প্রতি চারজনের মধ্যে মাত্র একজন ফেসবুক-টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ওপর আস্থা রাখেন; তার মানে শতকরা ৭৫ ভাগ ব্রিটিশেরই আস্থা নেই এতে। তাঁরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ওপর কঠোর নিয়ন্ত্রণ দেখতে চান।

এডেলম্যান ট্রাস্ট ব্যারোমিটারের বার্ষিক জরিপে এ কথা বলা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী ব্যবসা, সরকার, বেসরকারি সংস্থা ও গণমাধ্যমের প্রতি মানুষের বিশ্বাস কতটুকু, তা নিয়ে জরিপ চালিয়ে থাকে এডেলম্যান ট্রাস্ট ব্যারোমিটার।

সংস্থাটির জরিপে দেখা গেছে, দেশটি দুই-তৃতীয়াংশ নাগরিক মনে করেন, ফেসবুক টুইটারের মতো প্ল্যাটফর্মগুলো জঙ্গিবাদসহ অনৈতিক ও অবৈধ কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে যথেষ্ট ব্যবস্থা নিচ্ছে না।
তবে যুক্তরাজ্যের জনগণের মধ্যে প্রচলিত সাংবাদিকতার প্রতি বিশ্বাস গত বছরে উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে। এডেলম্যান বলছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম মাধ্যমগুলোর পদক্ষেপ নেওয়ার সময় এসেছে। বিপণন ও জনসংযোগ প্রতিষ্ঠান এডেলম্যান যুক্তরাজ্যের প্রধান নির্বাহী এড উইলিয়ামস বলেন, ‘অনলাইনে নিরাপত্তা-সংশ্লিষ্ট মূল ইস্যুগুলোর বিষয়ে জনগণ পদক্ষেপ চায়। এসব বিষয়ে পদক্ষেপ না নিলে মানুষের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের প্রতি আস্থা আরও কমবে।’

এডেলম্যান বলছে, যুক্তরাজ্যের অর্ধেকের বেশি নাগরিক ভুয়া খবরের বিষয়ে চিন্তিত। ৬৪ শতাংশ মানুষ বলেছে, তারা ভুয়া খবর ও প্রকৃত সাংবাদিকতার মধ্যে পার্থক্য করতে পারে না।

সম্প্রতি ফেসবুক তাদের প্ল্যাটফর্মে ভুয়া খবর প্রতিরোধের ঘোষণা দিয়ে বলেছে, খবরের কোন কোন সূত্রকে ব্যবহারকারীরা বিশ্বাসযোগ্য বলে মনে করেন, সে বিষয়ে জরিপ চালানোর পরিকল্পনা করেছে ফেসবুক এবং জরিপের মাধ্যমে খবরের ভুয়া উৎসকে শনাক্ত করে তা বন্ধ করবে তারা। ফেসবুকের এ ঘোষণার মধ্যে এডেলম্যান তাদের জরিপের ফল ঘোষণা করল।

এডেলম্যানের জরিপে দেখা গেছে, ৬৩ শতাংশ মানুষ মনে করেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোর মধ্যে স্বচ্ছতার অভাব রয়েছে। ৬২ শতাংশ মনে করেন, এসব কোম্পানি ব্যবহারকারীদের অজ্ঞাতে তাদের তথ্য বিক্রি করছে।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ভুয়া খবরের প্রচার ঠেকাতে ‘বিশ্বস্ত সংবাদমাধ্যম’র র‍্যাংকিং করবে ফেসবুক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-২০ ১১:৫২:১৯

দুইশ কোটি ব্যবহারকারীকে নিজেদের বিশ্বস্ত সংবাদসূত্রের র‍্যাংকিং করার সুযোগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। আগামী সপ্তাহ থেকে এই র‍্যাংকিং শুরু হবে। শুক্রবার প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ এই ঘোষণা দেন। সামাজিক মাধ্যমে ভুয়া খবরের প্রচার ঠেকানোর সর্বশেষ কৌশল হিসেবে উদ্যোগটি নিতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

জাকারবার্গ লিখেছেন, বিশ্বে এখন অনেক বেশি সেনসেশনালিজম, ভুল তথ্য ও মেরুকরণ চলছে। সামাজিক মাধ্যমের কারণে অতীতের যে কোনও সময়ের চেয়ে তথ্য দ্রুত ছড়ায়। আমরা যদি নির্দিষ্টভাবে এই সমস্যা মোকাবিলা না করি তাহলে শেষ পর্যন্ত সেগুলোকে বাড়তেই সহযোগিতা করব। জাকারবার্গ জানান, ফেসবুকের এই ‘বিশ্বস্ত মাধ্যমে’র র‍্যাংকিং শুরু হবে আগামী সপ্তাহে। এই র‍্যাংকিংয়ের লক্ষ্য হচ্ছে ‘ভালো মানের সংবাদ’ নিশ্চিত করা।

ব্যবহারকারীদের র‍্যাংকিং করতে দেওয়ার বিষয়ে জাকারবার্গ লিখেছেন, এই সিদ্ধান্ত আমরাই নিতে পারতাম। কিন্তু এই বিষয়ে আমরা স্বচ্ছন্দ নই। আমরা কোম্পানির বাইরের বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়ার কথা বিবেচনা করেছিলাম। এতে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত আমাদের আয়ত্তের বাইরে চলে যেত কিন্তু সমস্যার বস্তুনিষ্ঠ সমাধান হতো না।

নতুন এই র‍্যাংকিং পাঠক ও দর্শকের বিশ্বস্ত সংবাদ প্রতিষ্ঠানগুলোকে সমাজের অন্যান্য প্রতিষ্ঠান থেকে আলাদা করবে। জাকারবার্গ লিখেছেন, এই আপডেটের কারণে ফেসবুকে দেখতে পাওয়া সংবাদের পরিমাণ কমবে না। তবে পাঠক বিশ্বস্ত মাধ্যমের যেসব খবরে চোখ রাখেন তার ভারসাম্যে পরিবর্তন ঘটবে।

এর আগে ১২ জানুয়ারি নিউজ ফিডে বড় ধরনের পরিবর্তন আনার ঘোষণা দেয় ফেসবুক। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছিল, এখন থেকে সংবাদ, সেলিব্রেটি ও পেজের চেয়ে বন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের পোস্টকে অগ্রাধিকার দিয়ে তা ব্যবহারকারীর ওয়ালে দেখানো হবে। 

এ বিষয়ে জাকারবার্গ ফেসবুক পেজে লিখেছিলেন, আমরা যখন এটা চালু করব আপনারা নিউজ ফিডে বাণিজ্যিক, পণ্য ও সংবাদমাধ্যমের পোস্ট অনেক কম দেখতে পাবেন। এছাড়া যেসব পাবলিক কনটেন্ট আপনারা পাবেন তাও হবে একই মানের। তা যেন মানুষের মধ্যে অর্থবহ মিথষ্ক্রিয়া সৃষ্টিতে অনুপ্রেরণা জোগায়।

২০১৬ সালে মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের পর ভুয়া খবর প্রচারের জন্য ফেসবুক, গুগল ও টুইটারের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে। ফেসবুক এই সমস্যা মোকাবিলায় বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে। এরপরও ভুয়া খবরের প্রচার রোধ করতে না পারায় ফেসবুক এসব পদক্ষেপ গ্রহণ করছে।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ফেসবুকে বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৩ ০০:০২:০২

ফেসবুকে যে এ বছরই বড় পরিবর্তন আসবে—এমন আভাস আগেই দিয়েছিলেন এর সহপ্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ। এ বছর তার চ্যালেঞ্জ ফেসবুককে ‘ঠিক’ করার। শুরুতেই ব্র্যান্ড, ব্যবসা ও মিডিয়ার পেজগুলোর জন্য বড় ধাক্কা দিলেন। এ ধরনের পেজগুলো এখন গুরুত্বহীন হয়ে যাবে। গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে বন্ধুদের দেওয়া স্ট্যাটাস, মন্তব্য, ভিডিও। হঠাৎ ফেসবুকের কী হলো? ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, ফেসবুকে শিগগিরই বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে। ফেসবুকের নিউজফিডে এখন যে ধরনের খবর, ভিডিও, ছবি বা তারকার যে পোস্টের প্রাধান্য দেখতে পান, তা আর দেখা যাবে না। এর পরিবর্তে আপনার বন্ধু, পরিবার বা যাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ বেশি হয়, তাদের পোস্টকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হবে। এর কারণ ব্যাখ্যা করেছেন ফেসবুকের মূল পাতার ব্যবস্থাপক জন হেজেমান। হেজেমান জানান, এটা বড় একটি পরিবর্তন। তবে আমরা জানি, ‘এতে ফেসবুকে মানুষের সময় কাটানোর পরিমাণ কমে যাবে কিন্তু যেটুকু সময় এখানে তারা থাকবে সেটা আরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। শেষ পর্যন্ত ব্যবসার জন্য ভালো হবে। উদাহরণ হিসেবে এক দম্পতির পোস্ট করা নিজেদের ভিডিও ক্লিপের কথা বলা যায়। কোনো বিখ্যাত তারকা বা রেস্তোরার টুকরো কিছু তুলে ধরার চেয়ে ওই দম্পতির ভিডিও বেশি আর্কষণীয়।’

হেজেমানের দাবি, পরোক্ষভাবে কনটেন্ট গ্রহণের চেয়ে মানুষের মধ্যে যোগাযোগের প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই এখন পর্যন্ত যতো হালনাগাদ আনা হচ্ছে, এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এ প্রসঙ্গে ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ বলেন, মানুষকে একসঙ্গে আনতে পারা ও কমিউনিটিগুলোকে শক্তিশালী করা বাস্তবে বেশি অগ্রাধিকার পাবে। শিগগিরই বিশ্বজুড়ে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা এ পরিবর্তন দেখতে পাবেন। জাকারবার্গ তাঁর ফেসবুক পেজে লিখেছেন, নিউজফিডে পরিবর্তন এলে আপনারা ব্যবসা, ব্র্যান্ড ও মিডিয়ার পোস্ট কম দেখতে পাবেন। ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টের মাধ্যমে এ পরিবর্তন আনার কথা জানিয়েছেন ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ। দীর্ঘদিন ধরে ফেসবুকের মূল পাতা সম্পর্কে বিভিন্ন অভিযোগ আসছিল। মূল পাতায় ব্যক্তিগত পোস্টের চেয়ে বিভিন্ন পেজের পোস্টকেই বেশি দেখা যায়, এমনটা জানিয়ে আসছিলেন ব্যবহারকারীরা। আর তাই ফেসবুকের ব্যবহারকে সুখকর করে তুলতে নতুন এ পরিবর্তন আনার কথা জানিয়েছেন মার্ক জাকারবার্গ। ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতাকে সাবলীল করে তোলা ফেসবুকের দায়িত্ব বলে জানান তিনি। জাকারবার্গ বলেন, ‘আমরা যখন এটা চালু করব, আপনারা নিউজ ফিডে বাণিজ্যিক পণ্য ও সংবাদমাধ্যমের পোস্ট অনেক কম দেখতে পাবেন। এ ছাড়া যেসব সর্বজনীন বিষয় আপনারা পাবেন, তা-ও হবে একই মানের। তা যেন মানুষের মধ্যে অর্থবহ অন্তরঙ্গতা সৃষ্টিতে উৎসাহ জোগায়।’ ফেসবুকের মূল পাতার ব্যবস্থাপক জন হেজেমান জানান, ফেসবুক মূল পাতাকে ব্যবহারকারীর কাছে আরও ভালোভাবে উপস্থাপন করার ব্যাপারে অনেক দিন ধরেই গবেষণা করছে। নতুন এ পরিবর্তনের ফলে ব্যবহারকারীদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্কের উন্নতি হবে। আর এটাই ফেসবুকের মূল লক্ষ্য বলে উল্লেখ করেন হেজেমান। ফেসবুকের মূল পাতার অ্যালগরিদমে বড় পরিবর্তন এবারই প্রথম নয়। ২০১৬ সালে মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের পর ভুয়া খবর প্রচারের অভিযোগ ওঠায় ফেসবুক বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়ে এসেছে এর মূল পাতায়। এ ছাড়া নেতিবাচক ও মানুষের পছন্দ নয়—এমন পোস্ট দ্রুত অপসারণেও কাজ করছে ফেসবুক। তবে নতুন এ পরিবর্তনের ফলে ফেসবুকের বেশ খরচা হতে চলেছে বলে নিজেই স্বীকার করেছেন মার্ক জাকারবার্গ।
এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ভিডিও রেকর্ডিং সুবিধার অভিনব সানগ্লাস

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-০৯ ১১:০০:২১

স্পেক্ট্যাকেলস-এর কথা নিশ্চয় মনে আছে। ভিডিও রেকর্ডিং সুবিধার এই সানগ্লাস ২০১৬ সালে বাজারে নিয়ে আসে মেসেজিং অ্যাপ স্ন্যাপচ্যাট।

এবার আরো একটি কোম্পানি ভিডিও রেকর্ডিং সুবিধার অভিনব সানগ্লাস নিয়ে এসেছে। স্মার্ট সানগ্লাসটির নাম ‘এসিই আইওয়্যার’। এটি তৈরি করেছে ইলেকট্রিক স্কেটবোর্ড নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাকটন।

স্পেক্ট্যাকেলস সানগ্লাসে যেখানে কেবল ৩০ সেকেন্ড ভিডিও রেকর্ডিং এবং তা স্ন্যাপচ্যাটে পোস্ট করা যায়, সেখানে নতুন এসিই আইওয়্যার সানগ্লাসে টানা ৪০ মিনিট ভিডিও রেকর্ডিং সম্ভব।

শুধু তাই নয়, এসিই আইওয়্যার সানগ্লাসে তোলা ছবি বা ভিডিও স্মার্টফোন অ্যাপের মাধ্যমে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম বা ইউটিউবে যেমন পোস্ট করা যাবে, তেমনি আবার এসব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভিডিও লাইভ স্ট্রিমিংও করা যাবে।

এসিই আইওয়্যার সানগ্লাস ৮ মেগাপিক্সেল মানের ছবি এবং এইচডি মানের ভিডিও রেকর্ডিং সুবিধাসম্পন্ন। এই সানগ্লাসের ক্যামেরা ঘুরবে ১২০ ডিগ্রি পর্যন্ত। সানগ্লাসটি ৪ জিবি মেমোরি সমৃদ্ধ। ৪০ মিনিট ভিডিও রেকর্ডি করা যাবে। ক্যামেরার ব্যাটারি টানা চলবে টানা দেড় ঘণ্টা, স্ট্যান্ডবাই মোডে ৮০ ঘণ্টা।

স্নানগ্লাসে যে ক্যামেরা রয়েছে, তা বাইরে থেকে দেখে বোঝার উপায় নেই। গোপনে ফটো ও ভিডিও ধারণ করা যাবে বিধায় অনেকেই মনে করছেন এটা মানুষের ব্যক্তিস্বাধীনতা নষ্ট করতে পারে। সানগ্লাসের উপরে বাঁ দিকের ফ্রেমে বোতাম চেপে ছবি তোলা কিংবা ভিডিও রেকর্ডিং শুরু করা যাবে। সানগ্লাসটি ধুলোবালি এবং পানি প্রতিরোধক।

এসিই আইওয়্যার সানগ্লাসের দাম ১৯৯ মার্কিন ডলার। আগামী এপ্রিল থেকে বিশ্বব্যাপী এর শিপিং শুরু হবে।  তবে বর্তমানে প্রি-অর্ডার করে রাখলে দাম পড়বে ৫০ শতাংশে ছাড়ে মাত্র ৯৯ ডলার। ওয়েবসাইট : https://shop.actonglobal.com/products/ace-eyewear।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যে কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ইউটিউব তারকা লগান পল এত আলোচিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-০৩ ১৩:১৬:৪৬

জাপানের আওকিগাহারা বনে সম্প্রতি বন্ধুদের নিয়ে ঘুরতে বেরিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ২২ বছর বয়সী ইউবটিউব তারকা লগান পল। সেখানে মাউন্ট ফুজির পাদদেশে দৃশ্যত আত্মহত্যা করা এক ব্যক্তির লাশের ছবি পোস্ট করে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে পােস্ট করেন তিনি। গত রোববার আপলোড করে সরিয়ে নেওয়ার আগ পর্যন্ত লাখ লাখ দর্শক দেখে ভিডিওটি। এ নিয়ে ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে শুরু হয় তুমুল আলোচনা। আর এর মধ্য দিয়ে ইতিমধ্যে ইউটিউবে জনপ্রিয় পল আরো পরিচিত হন বৈশ্বিক পরিসরে।

তবে বিপুল দর্শকের দেখা ভিডিওটির কারণে বিপাকেও পড়তে হয়েছে লগান পলকে। কেউ কেউ তাঁর  এই কাজকে 'অসম্মানজনক' ও 'ঘৃণ্য' বলে অভিহিত করেছেন। আর এতে প্রচণ্ড অনুশোচনায় ভুগছেন এই যুবক। এ নিয়ে তিনি মাইক্রো ব্লগিং সাইট টুইটারে একটি ভিডিও পোস্ট করেন।

ওই ভিডিওতে পল বলেন, তিনি শোকে ও আতঙ্কে বিপৎগামী হয়েছিলেন। নিজেকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে দেখেছেন,  যা তিনি করেছেন, তা ক্ষমার অযোগ্য।

ক্ষমা চেয়ে পোস্ট করা ভিডিওতে পল আরো বলেন, 'কখনোই ওই ভিডিওটি পোস্ট করা উচিত হয়নি আমার। ওই সময় আমার ক্যামেরা নিচে রেখে রেকর্ডিং বন্ধ করে দেওয়া উচিত ছিল। এ কাজের জন্য আমি লজ্জিত ও হতাশ।'

লগান পলের ইউটিউব চ্যানেলে দেড় কোটি সাবস্ক্রাইবার রয়েছে।  সেই চ্যানেলে আপলোড করা ভিডিওতে দৃশ্যত আত্মহত্যা করা একজনের মৃতদেহ আবিষ্কারের পর ভয়ার্ত অবস্থায় দেখা যায় পলকে। তিনি লাশ নিয়ে ঠাট্টাও করেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ১৫ মিনিটের ওই ভিডিটি জাপানে যাওয়া মার্কিন ভিলগারদের ভিডিও সিরিজের একটি অংশ ছিল। তারা জঙ্গলে ভুতুড়ে কিছু দেখানোর উদ্দেশ্যে ভিডিওটি ধারণ করছিল।

উন্নত দেশগুলোর মধ্যে জাপানে আত্মহত্যার হার সর্বোচ্চ। আত্মহত্যার স্থান হিসেবে কুখ্যাত আওকিগাহারা বন। মৃত্যুকূপ হিসেবে পরিচিতি এলাকাটিতে কতসংখ্যক লোক আত্মহত্যা করে, তা প্রকাশ করে না জাপান সরকার।


এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ফেসবুকে ভয়ঙ্কর ক্ষতি, প্রতিকারের উদ্যোগ

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-১৮ ০০:৩৪:২১

কখনো ডিপ্রেশন, কখনো মানসিক অস্থিরতা, কখনো লোক দেখানোর দৌড়ে পিছিয়ে পড়ার ভয়! নিয়মিত ফেসবুকের মতো সোশ্যাল সাইটে যাদের অবাধ আনাগোনা, তাদের মধ্যে এই ধরনের প্রবণতা প্রায়ই দেখা যায়। এছাড়াও ফেসবুকে আসক্তদের মধ্যে মনঃসংযোগের অভাব, মিথ্যা কথা লিখে নিজেকে জাহির করার মতো প্রবণতাও নতুন নয়। কিন্তু সবচেয়ে বড় কথা হলো, এতদিন এসব নিয়ে মুখ না খুললেও এবার খোদ ফেসবুক কর্তৃপক্ষই স্বীকার করে নিলো, বেশিক্ষণ ফেসবুকে থাকলে একজন পূর্ণবয়স্ক ব্যক্তি মানসিক অবসাদে ভুগতে পারেন।

একটি ব্লগে গত শুক্রবার ফেসবুকের গবেষকরা জানতে চান, সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশিক্ষণ সময় কাটানো কি খারাপ? এই প্রশ্নের কোনো সুনির্দিষ্ট উত্তর না দিলেও শীর্ষস্থানীয় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সংস্থাটি হাবেভাবে বুঝিয়ে দিচ্ছে যে তারাও বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত।

সংস্থার সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের ইঙ্গিত, তিনি আরো খানিকটা সময় চান এই নিয়ে গবেষণার জন্য। আর এরপরই বোমাটি ফাটিয়েছে ফেসবুক। তারা এখন একটি ‘মিউট’ বোতাম নিয়ে দীর্ঘ গবেষণা চালাচ্ছেন। কী কাজ এই বোতামের? এই বোতাম একবার টিপলে আগামী ৩০ দিনের জন্য আপনার ফেসবুক অচল হয়ে যাবে। সাইলেন্ট হয়ে যাবে। ফলে কোনো নোটিফিকেশন বা মেসেজ আসবে না।

কেন এরকম পদক্ষেপ করল ফেসবুক? এতে তো আখেরে তাদের ব্যবসারই ক্ষতি।

আসলে সম্প্রতি একগুচ্ছ বিশিষ্ট মানুষ ও ফেসবুকের সাবেক কর্মীরা অভিযোগ তুলেছেন, অপরিচিতদের কাছাকাছি আনতে গিয়ে পরিচিতদের দূরে ঠেলে দিচ্ছে ফেসবুক। মানুষ এখন লোক দেখানো সম্পর্কে বিশ্বাসী হয়ে পড়েছেন। ভেঙে যাচ্ছে সমাজের বুনোট। ছিঁড়ে যাচ্ছে আত্মীয়তা। ‘লাইক’ পাওয়ার তীব্র আকাঙ্ক্ষা মানুষকে ক্রমশ মেকি করে তুলছে। ফেসবুকে তাৎক্ষণিক জনপ্রিয়তা পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা সাধারণ মানুষের রাতের ঘুম কেড়ে নিচ্ছে। বদলে যাচ্ছে মানুষের সাইকোলজি, বলছেন সাবেক ফেসবুকের শীর্ষ কর্তা কামাথ পালিহাপতিয়া। আর এক সাবেক কর্তা শন পার্কার বলছেন, লাইক পাওয়ার জন্য শারীরিক সৌন্দর্যকে ব্যবহার করা হচ্ছে, যৌন উসকানি দেয়া হচ্ছে। এভাবে চলতে পারে না। ফেসবুক কারো ব্যক্তিগত সম্পর্ককেও প্রভাবিত করতে বলে মতপ্রকাশ করেছেন তিনি।

প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েই কি অবশেষে আত্মসমালোচনায় ফেসবুক? ইঙ্গিত কিন্তু তেমনটাই। মিউট বোতাম এনে একটানা ৩০ দিন ফেসবুক থেকে দূরে থাকার সুযোগ আনছেন খোদ সংস্থার কর্তারাই। তাহলে এবার আপনিও নিজের মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিন। সচেতনভাবে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ব্যবহার করুন ও সুস্থ থাকুন।

এলএবাংলাটাইমস/আইসিটি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত