যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ১৫ Jul, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 02:50am

|   লন্ডন - 09:50pm

|   নিউইয়র্ক - 04:50pm

  সর্বশেষ :

  রক্তের বিনিময়ে হলেও এরশাদের লাশ পল্লী নিবাসেই দাফন করা হবে : রংপুর মেয়র   সব মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য একই ডিজাইনের কবর হবে   কংগ্রেসের ভিন্ন বর্ণের নারীদের ‘দেশে ফিরতে’বললেন ট্রাম্প   নেতাকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত এরশাদ   ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কায় আসামের মুসলমানরা   ঢাবি ক্যাম্পাসকে প্লাস্টিকমুক্ত ঘোষণা   মর্মান্তিক: মাইক্রোবাসে ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ নিহত ৯   কুমিল্লায় আদালতের ভেতর আসামির ছুরিকাঘাতে আসামির মৃত্যু   দক্ষিণ কোরিয়ার সাথে বাংলাদেশের তিন চুক্তি স্বাক্ষর   সুইডেনে বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৯   ইংল্যান্ডের প্রথম বিশ্বকাপ জয়   এরশাদের মৃত্যুতে প্রতিক্রিয়া জানাতে সময় লাগবে বিএনপির   এরশাদের সন্তানরা কে কী করেন?   বৃহস্পতিবার সোহেল তাজের ‘আনুষ্ঠানিক ঘোষণা’   আফগানিস্তান সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে যৌন হয়রানির অভিযোগে তোলপাড়

>>  বহিঃ বিশ্ব এর সকল সংবাদ

কংগ্রেসের ভিন্ন বর্ণের নারীদের ‘দেশে ফিরতে’বললেন ট্রাম্প

ডেমোক্র্যাট দলের কংগ্রেসের সদস্য কয়েকজন নারী সম্পর্কে বিদ্বেষমূলক টুইট করার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বর্ণবাদী আচরণের অভিযোগ উঠেছে।

তিনি দাবি করেন, ওই নারীরা নিজেরা ‘এমন দেশ থেকে এসেছেন যেখানকার সরকার সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত।’ এরপরেই ট্রাম্প ওই নারীদের উদ্দেশ্যে লেখেন, ‘ফিরে যাও।’

কংগ্রেসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির সাথে চারজন ভিন্ন বর্ণের কংগ্রেস সদস্যদের কিছুটা বচসা হওয়ার ঘটনার পরের সপ্তাহে এমন টুইট করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

প্রেসিডেন্ট কী বলেছেন?
এক সাথে করা তিনটি টুইটের মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প

বিস্তারিত খবর

ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কায় আসামের মুসলমানরা

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১৫ ১৪:৪৯:৫৫

অনুপ্রবেশকারী আখ্যায়িত হওয়া এবং নাগরিকত্ব নিয়ে বিচারিক প্রক্রিয়ার দুর্ভোগের কারণে ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কার কথা জানিয়েছেন ভারতের আসামের মুসলমানরা৷ এর মধ্যে প্রায় অর্ধশত ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ বিরোধীদের৷ খবর ডয়চে ভেলের

সত্তর বছর আগে ভারতের জন্ম নিলেও বিচারিক প্রক্রিয়ায় গিয়ে তিন বছর আটক ছিলেন রেহাত আলী৷ বিজেপি সরকারের মুসলিম-বিরোধী নীতির কারণে কয়েক লাখ মুসলমানের মতো এখন ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কায় এই নিরক্ষর কৃষক৷

‘‘আমি কখনো কল্পনাও করিনি আমার নাগরিকত্বের প্রমাণ দিতে হবে৷ আমি ভারতের নাগরিক৷ আসামে জন্ম নিয়েছি এবং কয়েক পুরুষ ধরে এখানেই বসবাস করছি,'' এএফপিকে বলেছেন রেহাত আলী৷

গ্রামীণ এই কৃষক ‘বিদেশি শনাক্তকরণ ট্রাইব্যুনালে' প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দিতে না পারায় তাকে বাংলাদেশি ঘোষণা করে আটক কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছিল৷

উচ্চ আদালতের রায়ে তিন বছরের মাথায় ছাড়া পেয়েছেন রেহাত আলী৷ কিন্তু আইনি লড়াই করতে গিয়ে এর মধ্যে তাকে বিক্রি করতে হয়েছে সমস্ত জমি এবং গবাদিপশু৷ এরপরও অন্যদের তুলনায় নিজেকে ভাগ্যবান মানছেন তিনি৷

আসামে গতবছরের দ্য ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেনস (এনআরসি) নামক খসড়া আইনের কারণে প্রায় ৪০ লাখ আসামবাসীর ভাগ্য ঝুলছে৷ কারণ ১৯৭১ সালের আগে বাবা কিংবা দাদার প্রজন্ম আসামে ছিল, এমন প্রমাণ দিতে পারেনি তারা৷

বিদেশি শনাক্তকরণ ট্রাইব্যুনালে যারা বাদ পড়বে, তারা আপিল করতে পারবেন৷ কিন্তু চলতি মাসের শেষ নাগাদ পর্যন্ত চলা শনাক্তকরণ প্রক্রিয়া চললেও প্রায় ২০ লাখ লোক এর বাইরে থেকে যেতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ কারণ বেশিরভাগ নিরক্ষর মানুষের জন্য ট্রাইব্যুনালের প্রক্রিয়া বুঝা এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দেওয়া যেন দুঃস্বপ্নের মতো৷

শনাক্তকরণ ট্রাইব্যুনালে ভারতীয় সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন সোনা উল্লাহর নাগরিকত্ব প্রমাণ না হওয়ার বিষয়টি ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দিয়েছিল৷ ১৯৯৯ সালে পাকিস্তানের সঙ্গে কারগিল যুদ্ধেও অংশ নিয়েছিলেন তিনি৷

কাগজপত্রে অমিল থাকার কারণে গত মে মাসে তাকে আটক কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছিল৷ এমনকি পুলিশ তাঁর পুরাতন ইউনিফর্মও জব্দ করেছিল৷ অবশ্য ব্যাপক প্রতিবাদের পর অন্তর্বর্তী জামিন পেয়েছেন তিনি৷

নাগরিকত্ব জটিলতা নিরসনে আসামে একশ'টি বিদেশি শনাক্তকরণ ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম চলছে এবং আরো দু'শটি ট্রাইব্যুনাল স্থাপন করা হচ্ছে৷ কর্মকর্তারা অযোগ্য হওয়ায় এসব ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম অনেকটা লটারির মতো বলে অভিযোগ করছেন অধিকারকর্মীরা৷

অনলাইন ম্যাগাজিন স্ক্রল জানিয়েছে, বিদেশি ঘোষণার ক্ষেত্রে সংখ্যার বিচারে ট্রাইব্যুনালের কর্মকর্তাদের হরহামেশায় সরিয়ে দেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন রাজ্য সরকার৷

‘‘পরিস্থিতি এমন দাঁড়িয়েছে, ট্রাইব্যুনালের যে সদস্য অধিক ব্যক্তিকে বিদেশি ঘোষণা করতে পারেন, তাকে সবচেয়ে বেশি উইকেট-শিকারি বলা হয়ে থাকে,'' ক্রিকেটীয় পরিভাষা ব্যবহার করে বলেন সাবেক একজন ট্রাইব্যুনাল সদস্য৷

খসড়া এনআরসিতে যারা বাদ পড়েছেন, তাদের বেশিরভাগই মুসলিম৷ কারণ এই সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে কাজে লাগানোর জন্য নরেন্দ্র মোদীর সরকার এটি চালু করেছে বলে অভিযোগ৷

গত জানুয়ারিতে নাগরিকত্ব নিয়ে একটি আইন পাস করে ভারতীয় সংসদের নিম্নকক্ষ৷ যাতে বলা হয়, ছয় বছর আগে যারা বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে ভারতে এসেছেন তাদেরকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে৷ তবে মুসলিমরা বাদে৷

আসামের ছয়টি আটক কেন্দ্রে বর্তমানে ৯৩৮ জন লোক বন্দী আছেন৷ তিন হাজার লোকের জন্য আরেকটি কেন্দ্র নির্মাণ করছে সরকার৷ পাশাপাশি প্রতিটিতে এক হাজার লোকের ধারণক্ষমতাসম্পন্ন নয়টি কেন্দ্র নির্মাণ করার পরিকল্পনা নিয়েছে তারা৷

অনিশ্চয়তায় দিনাতিপাত করতে হচ্ছে আসামের মুসলমানদের৷ তাদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতাও দেখা দিয়েছে৷

বিরোধী দলগুলোর অভিযোগ, এনআরসি-র প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর থেকে ৪৪ জন লোক আত্মহত্যা করেছেন৷ যদিও এক্ষেত্রে সরকারি কোনো হিসাব পাওয়া যায় না৷

বিস্তারিত খবর

সুইডেনে বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৯

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১৪ ১৫:৩৬:৫৬

সুইডেনে ছোট একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৯ জন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় রোববার দুপুর ২ টার দিকে উত্তর সুইডেনের উমেয়া এলাকার কাছে একটি নদীতে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা স্পুৎনিক জানিয়েছে, বিমানটির সব যাত্রী ছিলেন প্যারাট্রুপার। বিমানটির কোনো আরোহী আর বেঁচে নেই বলে স্থানীয়রা নিশ্চিত করেছেন।

সুইডিশ সংবাদমাধ্যম দ্য লোকাল জানিয়েছে, বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার আগে স্থানীয়রা বিকট শব্দ শুনতে পেয়েছিলেন।

আরেকটি স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ডি  টেলিগ্রাফ জানিয়েছে, ওই এলাকার ট্রেন চলাচল বাতিল করা হয়েছে। উদ্ধারকারী দল সেখানে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে।

বিস্তারিত খবর

আফগানিস্তান সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে যৌন হয়রানির অভিযোগে তোলপাড়

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১৪ ১৪:৪০:১৮

আফগানিস্তানের সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে যৌন হয়রানির অভিযোগ তোলপাড় শুরু হয়েছে দেশটিতে। কর্মকর্তারা অভিযোগ অস্বীকার করলেও ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির অনুসন্ধানে নারীদের কাছ থেকে শোনা বয়ানে উঠে এসেছে যৌন অবমাননার চর্চার বিবরণ।

কাবুলকে ঘিরে থাকা পার্বত্য এলাকার পাদদেশের কাছাকাছি একটি বাড়িতে সাবেক একজন সরকারি চাকরিজীবীর সাথে কথা বলেন বিবিসির প্রতিবেদক।

নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার আশঙ্কায় তার নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ করেন সেই নারী, কিন্তু পুরো বিশ্ব তার নির্যাতনের খবর জানুক; সেটাই তিনি চান।

ওই নারী জানান, তার সাবেক বস, (অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা) যিনি সরকারের একজন সিনিয়র মন্ত্রী, বারবার তাকে যৌন হয়রানি করেছেন এবং একদিন যখন তিনি নিজের অফিসে যান, তখন তাকে শারীরিকভাবে আক্রমণের চেষ্টা করেন।

‘তিনি সরাসরি আমাকে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের জন্য বলেন। আমি তাকে বললাম আমি যোগ্য এবং অভিজ্ঞতাসম্পন্ন। আমি কখনো ভাবতে পারিনি, আপনি আমাকে এ ধরনের কোনো কথা বলতে পারেন না! আমি চলে যাওয়ার জন্য উঠে দাঁড়াই।’

তবে এরপরও জোর খাটানোর চেষ্টা করা হয় তার সাথে। 'তিনি আমার হাত ধরে ফেলেন এবং আমাকে তার অফিসের একটি কক্ষে নিয়ে যান। জোর করে ভেতরে ঠেলে দেন আমাকে এবং বলেন, মাত্র কয়েক মিনিট সময় লাগবে, চিন্তা করো না। আমার সাথে আসো। এরপর আমি তাকে ধাক্কা দিয়ে বলি যথেষ্ট হয়েছে। আমাকে চিৎকার করতে বাধ্য করবেন না। এটাই ছিল তার সাথে আমার শেষ দেখা। আমি ভীষণ ক্রুব্ধ এবং আপসেট ছিলাম।'

এই ঘটনার পর তিনি কী কোনও অভিযোগ দায়ের করেছিলেন?
‘না, আমি কাজ ছেড়ে দিতে বাধ্য হলাম। আমি সরকারকে বিশ্বাস করতে পারছি না। যদি আপনি কোর্ট বা পুলিশের শরণাপন্ন হন, তাহলে দেখতে পারবেন তারা কতটা দুর্নীতিগ্রস্ত। আপনি অভিযোগ করে দাঁড়ানোর মত কোনও নিরাপদ জায়গা খুঁজে পাবেন না। আপনি যদি মুখ খোলেন তাহলে মেয়েটিকেই সবাই দোষারোপ করবে’, বলেন ভুক্তভোগী নারী।

সাবেক এই সরকারি কর্মী জানান, আরও দুজন নারী তাকে বলেছেন যে ওই একই মন্ত্রী তাদেরকে ধর্ষণ করেছেন (যদিও এই অভিযোগের তথ্যের বিষয়ে বিবিসি স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারেনি)।

‘তিনি এসব করেছেন নির্লজ্জভাবে, কোনো ধরনের ভয় ছাড়াই কারণ সে সরকারের একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি।’ নারীদের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে খারাপ দেশগুলোর তালিকায় আফগানিস্তান ধারাবাহিকভাবে তার অবস্থান ধরে রেখেছে।

২০১৮ সালে জাতিসংঘের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বিস্তারিত উঠে আসে যে কীভাবে যৌন অপরাধ এবং নির্যাতনের শিকার নারীদের অভিযোগ তুলে নিতে বাধ্য করা হচ্ছে। অনেক ঘটনার ক্ষেত্রে তাদের ওপর ঘটে যাওয়া অপরাধের জন্য তাদেরকে দোষারোপ করা হয়েছে।

এমন প্রেক্ষাপটে প্রভাবশালী ব্যক্তিদের দ্বারা সংঘটিত যৌন অসদাচরণের ঘটনার খবর প্রকাশ করা সহজ নয়। সেই কারণে যে ছয়জন নারীর সাথে বিবিসি কথা বলেছে তারা অধিকাংশই ছিল তাদের পরিচয় প্রকাশে ভীষণ ভীত।

কিন্তু তাদের সাথে আলাপে এটা স্পষ্ট হয়ে ওঠে যে, যৌন হয়রানি আফগান সরকারের ভেতরের একটি সমস্যা যেটি কোনো একজন ব্যক্তি একটি মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই।

এখন এটা সংস্কৃতির অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে
আরেকটি অফিসের অন্য একজন নারী কর্মী স্বপ্রণোদিত হয়ে নিজের জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনা শেয়ার করতে রাজি হলেন। সরকারি চাকরির জন্য দরখাস্ত করেছিলেন তিনি এবং তার সব যোগ্যতা ছিল।

কিন্তু তাকে বলা হল, চাকরির জন্য তাকে প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির একজন ঘনিষ্ঠ সহযোগীর সাথে দেখা করতে হবে। প্রেসিডেন্টের সাথে তাকে ছবিতে দেখা যায়। তিনি আমাকে তার ব্যক্তিগত কার্যালয়ে যেতে বলেন। তিনি বলেন যে, আসো এবং বসো, আমি তোমার সব কাগজপত্র অনুমোদন করে দেবো।

তিনি আমার সাথে ঘনিষ্ঠ হয়ে বসলেন এবং এরপর বললেন, এবার কিছু পান করা যাক এবং বিছানায় যাওয়া যাক। ওই নারী জানান, শেষপর্যন্ত তাকে কোন পথ বেছে নিতে হয়েছিল।

আমার কাছে দুটো পথ খোলা ছিল, এই প্রস্তাব মেনে নেয়া অথবা ছেড়ে দেয়া। এবং আমি যদি তা গ্রহণ করতাম, এটা শুধুমাত্র ওই ব্যক্তির মধ্যেই থেমে থাকতো না, বরং আরও অনেক পুরুষ আমাকে তাদের শয্যাসঙ্গী হওয়ার জন্য বলতো। এটা সত্যিই জঘন্য। আমি আতঙ্কিত হলাম এবং সেখান থেকে বেরিয়ে এলাম।

সরকারি সেই কাজের কী হয়েছিলো?
তিনি জানান, সরকারি দপ্তরে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তাকে বলা হয়েছিলো, ভাবুন আপনি আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা জমা রেখেছেন এবং তা গ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

কথা বলতে বলতে কান্নায় ভেঙে পড়ে মেয়েটি। এইসব বিষয় আমাকে রাতে ঘুমাতে দেয় না। আপনি ধীরে ধীরে ক্রুদ্ধ এবং হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়বেন।

কিন্তু তিনি কি অভিযোগ জানিয়েছিলেন?
আপনি যদি অভিযোগ নিয়ে একজন বিচারক, পুলিশ, কৌঁসুলি বা এদের যে কারও কাছে যান, তারাও আপনাকে শয্যাসঙ্গী হতে বলবেন। এমন যদি তারাও করে তাহলে কার কাছে যাবেন?

'এটা এখন যেন সংস্কৃতির একটা অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে যে আশেপাশের সব পুরুষই আপনার সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতে চায়।'

এসব ঘটনার খবর হয় না-বলা রয়ে গেছে কিংবা কোথাও এ নিয়ে ফিসফাস শোনা গেলেও তা ধামাচাপা পড়ে গেছে। যতক্ষণ পর্যন্ত না গত মে মাসে, প্রেসিডেন্টের সাবেক একজন উপদেষ্টা জেনারেল হাবিবুল্লাহ আহমেদযাই এ বিষয়ে মুখ খোলেন।

প্রেসিডেন্টের একসময়কার এই উপদেষ্টা রাজনৈতিক বিরোধীতে পরিণত হওয়ার পর আফগান নিউজ চ্যানেলে সাক্ষাৎকার প্রদানের সময় বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন। তিনি শীর্ষ কর্মকর্তা এবং রাজনীতিবীদদের বিরুদ্ধে পতিতাবৃত্তির প্রচার চালানোর অভিযোগ করেন।

প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে এ বিষয়ে সাক্ষাৎকারের অনুরোধ জানানো হলেও তা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে, এবং ইমেইলে প্রশ্ন পাঠানো হলে তারও কোনো জবাব মেলেনি।

তারা জেনারেল আহমাদযাইয়ের অভিযোগের প্রেক্ষিতে এর আগে দেয়া বিবৃতি দেখে নিতে বলে, যেখানে তার এসব অভিযোগকে সম্পূর্ণ মিথ্যা হিসেবে দাবি করে। নিজের ব্যক্তিগত উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্য সে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মিথ্যা বলেছে বলে দাবি করে তারা।

সরকারের একজন মন্ত্রী নার্গিস নেহান টুইটারে লিখেছেন, ক্যাবিনেটের একজন নারী সদস্য হিসেবে আমি আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারি যে এইধরনের অভিযোগ ভিত্তিহীন।

কিন্তু বিশিষ্ট নারী অধিকার-কর্মী, সাবেক সংসদ সদস্য ফাওজিয়া কোফি জানিয়েছেন যে, তিনি বর্তমান সরকারের অনেক পুরুষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির বহু অভিযোগ পেয়েছেন। তিনি বলেন, সরকারের প্রতিক্রিয়া আত্মরক্ষামূলক। তারা বিষয়টিকে আফগানিস্তানের নারীদের জন্য একটি সঙ্কটের চেয়েও রাজনৈতিক ইস্যু হিসেবে দেখছে।

তার মতে, সেখানে দায়মুক্তির এক ধরনের সংস্কৃতি রয়েছে। অপরাধীরা এই সরকারের অধীনে নিরাপদ মনে করে নিজেদের এবং সে কারণে তারা এই ধরনের আরও অপরাধ সংঘটিত করার সাহস পায়।

সরকার যৌন হয়রানির ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। এটি প্রেসিডেন্টের নিয়োগপ্রাপ্ত একজন ব্যক্তি এবং অ্যাটর্নি জেনারেলে কার্যালয় থেকে পরিচালিত হচ্ছে। অ্যাটর্নি জেনারেলের মুখপাত্র জামশিদ রাসুলিকে কাবুলে বিবিসির প্রতিবেদক প্রশ্ন করেছিলেন যে, লোকজন কেন বিশ্বাস করবে যে পতপাক্ষহীন তদন্ত হবে?

তিনি বলেন, সংবিধান অ্যাটর্নি জেনারেলকে স্বাধীনভাবে কাজ করার অধিকার দিয়েছে। আমরা আন্দোলন-কর্মী, মুসলিম চিন্তাবিদ, এবং মানবাধিকার সংগঠনকে এই তদন্ত কার্যক্রমের শরীক হতে আহ্বান করেছি, যাতে লোকজনকে আশ্বস্ত করা যায় যে আমরা পক্ষপাতহীন।

নারীরা অভিযোগ জানানোর জন্য সরকারি বিভিন্ন দপ্তরকে যথেষ্ট বিশ্বাস পর্যন্ত করতে পারছে না। সে বিষয়টি তুলে ধরা হলে এই মুখপাত্র বলেন, আমরা ঘোষণা দিয়েছি যে, সমস্ত অভিযোগকারীর পরিচয় গোপন রাখা হবে।

তিনি আরও বলেন, যারা আমাদের সাথে সহযোগিতা করবে তাদের এবং তাদের পরিবারকে নিরাপদ রাখার জন্য আমরা বিধান তৈরি করবো। আফগানিস্তানে যুদ্ধের ফলশ্রুতিতে গণতন্ত্র আসে, যে যুদ্ধে হাজার হাজার মানুষ নিহত হয়েছে। যুদ্ধের অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল তালিবানদের অধীনে বর্বর আচরণের শিকার হওয়া আফগান নারীদের অধিকার ও সম্মান প্রতিষ্ঠার নিশ্চয়তা।

দেশটিতে নেটো-নেতৃত্বাধীন মিশন সরকারের ভেতরে শীর্ষ ব্যক্তিদের দ্বারা এহেন যৌন হয়রানির অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্য করতে চায়নি। জাতিসংঘের নারী বিষয়ক উইং-এর পক্ষ থেকে মন্তব্য করার জন্য বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও কোনও উত্তর আসেনি। ব্রিটিশ দূতাবাস মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

আফগানিস্তানের নারীদের জন্য এটা একটা নিরাপত্তাহীন অনিশ্চিত সময়কাল। তারা যুক্তরাষ্ট্র এবং তালেবান বাহিনীর মধ্যে চলমান শান্তি আলোচনায় তাদের বক্তব্য তুলে ধরার ব্যাপারে বদ্ধপরিকর।

সেখানকার নারীরা, অন্তত দেশটির অন্তত কোনো কোনো এলাকার নারীরা, নিপীড়নকারী তালেবান শাসন ২০০১ সালে উৎখাতের পর থেকে এ পর্যন্ত বহু চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে এসেছেন। কিন্তু তাদের এই অগ্রযাত্রা মুখ থুবড়ে পড়বে যদি সরকারে ভেতরে যৌন হয়রানির ঘটনাগুলোর শাস্তি না হয়।

ভুক্তভোগী নারীদের একজন বলছিলেন দেশে তাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরির আকুতির কথা। 'আমি প্রেসিডেন্টের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে, এটা তার দায়িত্ব এইসব নারীদের কথা শোনা এবং তাদেরকে আমলে নেয়া। যদি তিনি দেশকে নিরাপদ করতে চান, তাহলে এই সমস্যাও তাকে সমাধান করতে হবে।

এই নারীর মত অনেকেই মনে করছেন, সত্য একদিন প্রকাশ হবেই। কিন্তু এই মুহূর্তে তা যেন এক দূরবর্তী স্বপ্ন তাদের কাছে। বিবিসি বাংলা।

বিস্তারিত খবর

২০০ রুপি শোধ করতে ভারতে কেনিয়ার এমপি

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১৩ ১২:৪৪:৩৭

পুরনো ধার শোধ করতে ভারতে চলে এসেছেন কেনিয়ার এমপি রিচার্ড টোঙ্গি। মহারাষ্ট্রে পৌঁছেই ত্রিশ বছর আগে ধার নেওয়া ২০০ রুপি শোধ করলেন তিনি।

সোমবার ঋণদাতা মুদি দোকানির সঙ্গে দেখা করার পর সেখানে এক আবেগঘন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। যে ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়।

১৯৮৫ সালে কেনিয়া থেকে আওরঙ্গবাদে পড়াশোনা করতে এসেছিলেন টোঙ্গি। ব্যবস্থাপনা কলেজের ছাত্র ছিলেন। চার বছর পড়াশোনা করার পর ১৯৮৯ সালে কেনিয়ায় ফিরে যান। তবে তখন তার আর্থিক অবস্থা এতটাই খারাপ ছিল যে, দেশে ফেরার সময় মুদি দোকানি কাশীনাথ গাওলির কাছ থেকে নেওয়া ২০০ রুপিও শোধ দিতে পারেননি। এরপর চলে গেছে ৩০ বছর। জীবনযুদ্ধে অনেক লড়াই করে রিচার্ড এখন আইনপ্রণেতা। তবে তিনি ভুলে যাননি ধার শোধের কথা।

ত্রিশ বছর পর টাকা শোধ করতে স্ত্রী মিশেলকে নিয়ে মহারাষ্ট্রে আসেন তিনি। সোমবার সেই ঋণদাতাকে খুঁজে বের করে তার টাকা শোধ দেন। টোঙ্গিকে দেখে কাশীনাথ প্রথমে চিনতে পারেননি। পরে পরিচয় জানার পর কেঁদে ফেলেন তিনি।

টোঙ্গি জানান, শিক্ষার্থী অবস্থায় তার আর্থিক দুর্দিনে মুদি দোকানি কাশীনাথের পরিবারই তার পাশে দাঁড়িয়েছিল। তখনই ভেবেছিলাম একদিন এ ঋণ শোধ করবই। খবর ইন্ডিয়া টুডের।

বিস্তারিত খবর

১৮টি কুকুর মিলে খেয়ে ফেলে মালিককে

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১৩ ১২:৪১:৫০

সম্প্রতি টেক্সাসের ভেনিসের বাসিন্দা ফ্রেডি ম্যাকের খোঁজ করতে গিয়ে পোষ্য কুকুরদের নির্মমতার পরিচয় মিলেছে। মালিকের খোঁজ করতে গিয়ে তদন্তে বেরিয়ে এসেছে, তারই পোষ্য ১৮টি কুকুর মালিক ফ্রেডিকে খেয়ে ফেলেছে!

নিহত ফ্রেডি ম্যাক তার বাড়িতে একাই থাকতেন। সঙ্গী বলতে তার পোষ্য ১৮টি কুকুর ছিলো। অবশেষে জানা যায়, ওই কুকুরগুলোই তাদের মালিকের ঘাতক।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক খবরে বলা হয়, গত মে মাসে পুলিশের কাছে অভিযোগ আসে- ৫৭ বছর বয়সী ফ্রেডির কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। এর পরেই তদন্ত শুরু করে পুলিশ। কিছু আত্মীয়স্বজনও ফ্রেডির বাড়িতে ঢোকার চেষ্টা করেন। কিন্তু তার পোষ্যরা এমন হিংস্র হয়ে উঠত, যে ভয়ে ঢুকতে পারতেন না কেউ। শেষে ড্রোন উড়িয়ে প্রথমে তাদের গতিবিধি লক্ষ করা হয়। তার পর বাড়িতে ঢুকেও কোথাও ফ্রেডির দেখা মেলেনি। এর পর হাসপাতাল, জেল, দূর সম্পর্কের আত্মীয়স্বজনদের বাড়িতে খোঁজ করা হয়। কোত্থাও নেই ৫৭ বছর বয়সি ফ্রেডি।

প্রথম সন্দেহের তীর যায় কুকুরদের দিকে যখন বাড়ির মধ্যে এক টুকরো হাড় পাওয়া যায়। তারপর জামার ছেঁড়া টুকরো, জুতো। পরীক্ষা করে দেখা যায়, কাপড়টি ফ্রেডির জামার। এর পরেই ডিএনএ পরীক্ষা করে দেখা যায় হাড়টিও ফ্রেডির। তারপর কুকুরদের মল পরীক্ষা করে দেখতেই ভয়ঙ্কর উত্তর মেলে। ১৮টি কুকুর মিলে খেয়ে ফেলেছে তাদের মালিককে। তবে কুকুরগুলো ফ্রেডিকে জীবিত অবস্থায় খেয়েছে, নাকি অসুস্থ ফ্রেডি মারা যাওয়ার পরে ওই কাণ্ড ঘটেছে, তা জানা যায়নি।

বিস্তারিত খবর

১৮টি কুকুর মিলে খেয়ে ফেলে মালিককে

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১৩ ১২:৪১:৪৯

সম্প্রতি টেক্সাসের ভেনিসের বাসিন্দা ফ্রেডি ম্যাকের খোঁজ করতে গিয়ে পোষ্য কুকুরদের নির্মমতার পরিচয় মিলেছে। মালিকের খোঁজ করতে গিয়ে তদন্তে বেরিয়ে এসেছে, তারই পোষ্য ১৮টি কুকুর মালিক ফ্রেডিকে খেয়ে ফেলেছে!

নিহত ফ্রেডি ম্যাক তার বাড়িতে একাই থাকতেন। সঙ্গী বলতে তার পোষ্য ১৮টি কুকুর ছিলো। অবশেষে জানা যায়, ওই কুকুরগুলোই তাদের মালিকের ঘাতক।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক খবরে বলা হয়, গত মে মাসে পুলিশের কাছে অভিযোগ আসে- ৫৭ বছর বয়সী ফ্রেডির কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। এর পরেই তদন্ত শুরু করে পুলিশ। কিছু আত্মীয়স্বজনও ফ্রেডির বাড়িতে ঢোকার চেষ্টা করেন। কিন্তু তার পোষ্যরা এমন হিংস্র হয়ে উঠত, যে ভয়ে ঢুকতে পারতেন না কেউ। শেষে ড্রোন উড়িয়ে প্রথমে তাদের গতিবিধি লক্ষ করা হয়। তার পর বাড়িতে ঢুকেও কোথাও ফ্রেডির দেখা মেলেনি। এর পর হাসপাতাল, জেল, দূর সম্পর্কের আত্মীয়স্বজনদের বাড়িতে খোঁজ করা হয়। কোত্থাও নেই ৫৭ বছর বয়সি ফ্রেডি।

প্রথম সন্দেহের তীর যায় কুকুরদের দিকে যখন বাড়ির মধ্যে এক টুকরো হাড় পাওয়া যায়। তারপর জামার ছেঁড়া টুকরো, জুতো। পরীক্ষা করে দেখা যায়, কাপড়টি ফ্রেডির জামার। এর পরেই ডিএনএ পরীক্ষা করে দেখা যায় হাড়টিও ফ্রেডির। তারপর কুকুরদের মল পরীক্ষা করে দেখতেই ভয়ঙ্কর উত্তর মেলে। ১৮টি কুকুর মিলে খেয়ে ফেলেছে তাদের মালিককে। তবে কুকুরগুলো ফ্রেডিকে জীবিত অবস্থায় খেয়েছে, নাকি অসুস্থ ফ্রেডি মারা যাওয়ার পরে ওই কাণ্ড ঘটেছে, তা জানা যায়নি।

বিস্তারিত খবর

ভারতে গুলি ছুড়েছে পাকিস্তানি সেনারা

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১৩ ১২:৩৬:৪৪

যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘনের পর নিয়ন্ত্রণরেখা ভেদ করে ভারতে গুলি ছুড়েছে পাকিস্তানি সেনারা।

শুক্রবার সকালে জম্মু-কাশ্মীরের পুঞ্চ ও রাজৌরি জেলায় এ ঘটনা ঘটে বলে হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে।

বেসামরিক এলাকায় সাধারণ মানুষকে লক্ষ্য করে পাকিস্তানি সেনাদের ছোড়া গুলিতে কেউ হতাহত হননি বলে জানা গেছে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল দেবেন্দ্র আনন্দ বলেন, সকাল ৮টার দিকে যুদ্ধবিরতি চুক্তি ভেঙে নিয়ন্ত্রণরেখা ভেদ করে গুলি ও মর্টারশেল ছুড়েছে পাকিস্তানি বাহিনী।

ভারতীয় সেনা বাহিনী এর সমুচিত জবাব দেবে বলে জানান তিনি।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, পুঞ্চের মানকোর্ট এলাকাতেও হামলা চালিয়েছে পাকিস্তানি সেনারা। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভারত এবং পাকিস্তানের সেনাদের মধ্যে গোলাগুলি চলছিল।

বিস্তারিত খবর

ধর্ষকের যৌন সক্ষমতা ধ্বংস করে শাস্তি দেবে যে দেশ

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১২ ১৪:৩৭:২৩

ইনজেকশনের মাধ্যমে রাসায়নিক প্রক্রিয়ায় শিশুর ধর্ষণকারীদের যৌন সক্ষমতা ধ্বংস করার আইন পাশ করেছে ইউক্রেন। গত বৃহস্পতিবার দেশটির ২৪৭ জন এমপির ভোটে আইনটি পাশ হয়। ইউক্রেনের জাতীয় বার্তা সংস্থা এ তথ্য জানায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নতুন এই আইনে ১৮ থেকে ৬৫ বছরের পুরুষের কেউ ধর্ষণ ও শিশুকে যৌন নিপীড়নকারী হিসেবে প্রমাণিত হলে তাদের ক্ষেত্রে কার্যকর হবে।

এছাড়া দেশটিতে শিশুকে ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা ১২ থেকে বাড়িয়ে ১৫ বছর করা হয়েছে।

দেশটির জাতীয় পুলিশ প্রধান ভিয়াচেস্লাভ আব্রোসকিন বলেন, ‘ ইউক্রেনের চারটি অঞ্চলে মাত্র ২৪ ঘণ্টায় পাঁচ শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এই অপরাধের ঘটনাগুলো অভিভাবকরা পুলিশের কাছে দায়ের করেছেন। কিন্তু সারাদেশে শিশুদের যৌন হামলার শিকার হওয়ার সঠিক সংখ্যা আমরা ধারণা করতে পারি শুধু।’

আরো পড়ুন: ভেনিজুয়েলার রাজনৈতিক সংকট সমাধানে সম্মত সরকার ও বিরোধী দল

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনে ২০১৭ সালে ৩২০ শিশু ধর্ষণের শিকার হয়। তবে ধারণা করা হয়, বাস্তবে শিশুদের যৌন হামলার শিকার হওয়ার ঘটনা কয়েক হাজার।

বিস্তারিত খবর

২৫ লাখ লিটার পানি নিয়ে চেন্নাই যাচ্ছে ট্রেন

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১২ ১৪:২১:১৩

তীব্র পানি সঙ্কটে পড়েছে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর চেন্নাই। শহরটির বড় বড় সংরক্ষণাগার থেকে শুরু করে সব জায়গার পানি শেষ। এ সঙ্কট মোকাবিলায় পানি পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তামিলনাড়ু সরকার। সিদ্ধান্ত মোতাবেক শুক্রবার ২৫ লাখ লিটার পানি নিয়ে তামিলনাড়ু থেকে একটি বিশেষ ট্রেন পাঠানো হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজ সকালে তামিলনাড়ুর ভেলোর জোলারপেট স্টেশন থেকে ৫০ ওয়াগন পানি ভর্তি এ ট্রেনটি যাত্রা শুরু করে। আজ বিকেলে ট্রেনটি চেন্নাই পৌঁছাবে বলে জানিয়েছে সাউদার্ন রেলের কর্মকর্তারা। ট্রেনটির প্রত্যেক ওয়াগনে ৫০ হাজার লিটার পানি রয়েছে।

তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী পালানিস্বামী এমন সঙ্কটের কারণে চেন্নাইয়ে পানি পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এ প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে ৬৫ কোটি টাকা। প্রত্যেক ট্রেনের যাত্রার জন্য ৮.৫ লাখ টাকা খরচ পড়বে।

ট্রেনটি গতকাল বৃহস্পতিবার পৌঁছনোর কথা ছিল। কিন্তু ট্যাংক ও রেলওয়ে স্টেশনের সংযোগরক্ষাকারী ভালভে লিক থাকায় এটি দেরিতে ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে প্রতিদিন ৫২৫ মিলিয়ন লিটার পানি সরবরাহ করা হচ্ছে।

খরার জেরে চেন্নাইয়ের একাধিকা স্কুলে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের কর্মকর্তাদের বাড়িতে বসেই কাজ করার নির্দেশ দিয়েছে। এ পরিস্থিতিতে পানির সঙ্কটটা কিছুটা লঘব হবে বলে আশা করছে তামিলনাড়ু সরকার।

বিস্তারিত খবর

চীনে বন্যায় নিহত ৬১

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১২ ১৪:২০:১৯

চীনের দক্ষিণ ও মধ্যাঞ্চলে শুরু হওয়া বন্যায় চলতি সপ্তাহে এখন পর্যন্ত অন্তত ৬১ জন নিহত হয়েছেন। টানা প্রবল বর্ষণের ফলে সৃষ্ট বন্যায় গৃহহীন হয়ে পড়েছেন ৩ লাখ ৫৬ হাজার মানুষ। চীনা উদ্ধারকারী সংস্থার বরাত দিয়ে মার্কিন দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে চীনের জরুরি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত এক নোটে জানানো হয়েছে, প্রবল এই বন্যায় ৯ হাজার ৩০০টি বাড়ি ধসে পড়েছে।

এ ছাড়া ৩ লাখ ৭১ হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে। বন্যার কারণে প্রত্যক্ষভাবে প্রায় ২০০ কোটি ডলার সমমূল্যের ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত ওই নোটে আরও জানানো হয়েছে, বন্যাকবলিত এলাকাগুলো থেকে নারী-শিশুসহ এখন পর্যন্ত ৪ হাজার তিনশ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে।

দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশে গুয়ানদং সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে। এ ছাড়া দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের চংগিং শহরের পাশের ইয়ংজিত নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

চলতি গ্রীষ্মকালে চীনের উত্তারঞ্চলীয় প্রদেশগুলোতে প্রবল খরা দেখা দেয় আর দক্ষিণাঞ্চলের প্রদেশেগুলোতে দেখা দেয় ভয়াবহ বন্যা।

জরুরি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় সতর্ক করে বলেছে, উত্তরাঞ্চলীয় এলাকাগুলোতে চলতি বছরে সর্বনিম্ন বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এদিকে ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে ইয়োলো নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে বন্যার আশঙ্কাও দেখা দিয়েছে।

বিস্তারিত খবর

আটলান্টার রাস্তায় উড়ছে লাখ লাখ ডলার, কুড়াচ্ছে মানুষ

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১২ ১৪:১৯:১২

যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টার এক ব্যস্ত মহাসড়কজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে লাখ লাখ ডলারের নোট। আর গাড়ি থামিয়ে সেই ডলার কুড়াচ্ছে মানুষ।

কেউ কেউ আবার কুড়ানো টাকা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করছে। এ ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

পুলিশ বলছে, যারা টাকা কুড়িয়ে নিয়ে পালিয়েছে, সিসিটিভি ফুটেজের মাধ্যমে তাদের শনাক্ত করার চষ্টো চলছে।

নিউইয়র্ক টাইমস জানায়, ট্রাকে করে ওই টাকা বহন করা হচ্ছিল। একপর্যায়ে ট্রাকের দরজা খুলে তা রাস্তায় পড়তে শুরু করে।

এটিএম বুথ বা ব্যাংকের জন্য টাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল ট্রাকে করে। প্রায় এক লাখ ডলারের নোট ছিল ট্রাকটিতে (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮৫ লাখ টাকা)। আই-২৮৫ হাইওয়ে দিয়ে যাওয়ার সময় হঠাত্ই খুলে যায় ট্রাকের দরজা।

সিনেমার দৃশ্যের মতো ডলারের বান্ডিল ছড়িয়ে পড়তে থাকে রাস্তায়। বেশ কিছু দূর যাওয়ার পর চালক তা টের পান। তবে ততক্ষণে হাইওয়ের রাস্তায় ছড়িয়ে পড়েছে ডলারের নোট।

এমন দৃশ্য দেখে রীতিমতো চমকে যান অন্য গাড়ির চালকরা। অনেকেই রাস্তার ধারে গাড়ি দঁাড় করিয়ে দেন। গাড়ি থেকে নেমে যে যেমন পারলেন কুড়িয়ে নিলেন কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা।

কেউ কেউ ভিডিও করেন এমন অবাক করা দৃশ্যের। অল্প সময়ের মধ্যে ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হলেও ডলার নিয়ে পালিয়ে গেছেন অনেকেই। কেউ কেউ আবার কুড়ানো ডলার তুলে দিয়েছেন পুলিশের হাতে।

ডানউডি পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, ট্রাকচালকের অবহেলায় এমন ঘটনা ঘটেছে। তবে রাস্তা থেকে অন্যের টাকা কুড়িয়ে নেয়াকে 'চুরি' আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, কারা টাকা কুড়িয়ে নিয়ে পালিয়েছেন, সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তা শনাক্ত করার চষ্টো চালানো হচ্ছে।

বিস্তারিত খবর

বাংলাদেশের পাওনা ৬০ মিলিয়ন ডলার দিচ্ছে জাতিসংঘ

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১১ ১৫:১৩:৩৫

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশের পাওনা ৬০ মিলিয়ন ডলার দ্রুত পরিশোধ করছে জাতিসংঘ। পাওনা পরিশোধের অংশ হিসেবে ৮ জুলাই বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের অনুরোধে জাতিসংঘের অপারেশনাল সাপোর্ট বিভাগের সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল লিসা এম. বুটেনহেইম তাৎক্ষণিকভাবে ৩০ মিলিয়ন ডলারের পরিশোধপত্র হস্তান্তর করেন এবং বাকী ৩০ মিলিয়ন ডলার অচিরেই পরিশোধ করবেন মর্মে প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন।
জাতিসংঘ সদরদপ্তরে সেনাবাহিনী প্রধানের সাথে আন্তরিকতাপূর্ণ এই দ্বি-পক্ষীয় বৈঠকে বকেয়া প্রদানের প্রতিশ্রুতি ছাড়াও শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশের সফল অংশগ্রহণের প্রশংসা করেন জাতিসংঘের এই কর্মকর্তা।
একইদিন জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা কার্যক্রমের মিলিটারি অ্যাডভাইজর লেফটেন্যান্ট জেনারেল কার্লোস হামবার্টো লয়টে সেনা প্রধানের সাথে বৈঠক করেন। মিলিটারি অ্যাডভাইজর বিশ্ব শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশ সরকারের স্বত:স্ফূর্ত ভূমিকা ও ফলপ্রসূ অবদানের উল্লেখসহ বিভিন্ন মিশনে কর্মরত বাংলাদেশের শান্তিরক্ষীদের পেশাদারিত্ব, কর্তব্য পরায়নতা, দায়িত্বশীলতা ও মানবিক মূল্যবোধের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন। এ সময় জেনারেল লয়টে সেনা প্রধানকে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে একজন কর্নেল পদমর্যাদার
কর্মকর্তাকে শান্তিরক্ষা মিশনের ফোর্স জেনারেশন সার্ভিসের প্রধান হিসেবে নিয়োগপত্র হস্তান্তর করেন। জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের ৩১ বছরে এই প্রথম গুরুত্বপূর্ণ পদে বাংলাদেশকে নির্বাচন করা হলো। এছাড়া সেনা প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশ থেকে একজন ফোর্স কমান্ডার নিয়োগের প্রস্তাব দিলে জেনারেল লয়টে তা স্বাগত জানান এবং
দ্রুততম সময়ে এ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন করার আশ্বাস দেন। সেনাপ্রধান বাংলাদেশ থেকে আরও ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিক্যাল, স্পেশাল ফোর্স এবং দ্রুত মোতায়েনযোগ্য ব্যাটেলিয়ন নিয়োগেরও প্রস্তাব দেন।
জাতিসংঘের মিলিটারি অ্যাডভাইজর রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ সরকার ও জনগণের উদারতা ও মানবিক সহায়তার প্রশংসা করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রোহিঙ্গা সঙ্কটে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী যে ভূমিকা রেখেছে তা উল্লেখ করেন জেনারেল আজিজ আহমেদ। এর আগে সেনা প্রধান জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে পৌঁছালে স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন তাঁকে স্বাগত জানান এবং শান্তিরক্ষা
কার্যক্রমের বিভিন্ন দিকসহ জাতিসংঘে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের নানা দিক এবং ভবিষ্যত কর্ম-পরিকল্পনা অবহিত করেন। ৯ জুলাই সকালে সেনা প্রধান জাতিসংঘ সদরদপ্তরে জাতিসংঘের পিস অপারেশন
বিভাগের প্রধান আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল জ্যঁ পিয়েরে ল্যাক্রুয়া এর সাথে বৈঠক করেন। বৈঠককালে সেনা প্রধান ফরাসি ভাষাভাষী দেশগুলোতে বাংলাদেশের সেনা মোতায়েনের জন্য প্রয়োজনীয় সক্ষমতা অর্জনে বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন প্রচেষ্টা সম্পর্কে অবহিত করেন। বিশেষ করে, বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে চ্যালেঞ্জিং পরিবেশে সেনা পাঠানোর ক্ষেত্রে বাংলাদেশের তাৎক্ষণিক প্রস্তুতি রয়েছে মর্মে জ্যঁ পিয়েরে ল্যাক্রুয়াকে অবহিত করেন সেনা প্রধান।

জাতিসংঘের পদস্থ এসকল কর্মকর্তাকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণও জানান জেনারেল আজিজ আহমেদ।
এসব বৈঠকে সেনা প্রধানের সাথে ছিলেন জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের ডিফেন্স অ্যাডভাইজর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খান ফিরোজ আহমেদ এবং সেনা প্রধানের সহকারি একান্ত সচিব কর্নেল কায়সার রশিদ।
উল্লেখ্য, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধিসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা ও বৈঠকে অংশ নিতে সেনাবাহিনী প্রধান সরকারি সফরে যুক্তরাষ্ট্র অবস্থান করছেন।

বিস্তারিত খবর

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে প্রচারণায় বৃটিশ এমপিরা

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১১ ১৫:১২:০০

বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ব্যতিক্রমী প্রচারণা শুরু হয়েছে বিলাতে। প্রচারণার অংশ হিসেবে বুধবার কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সম্মেলনের প্রাক্কালে লন্ডনের মার্লবোরো হাউজে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ প্রচারণার মূল উদ্যোক্তা ছিলেন বৃটিশ লেবার পার্টির এমপি খালিদ মাহমুদ, লিবারেল ডেমোক্রেট দলের ফিল বেনিয়ন, কনজারভেটিভ দলের অ্যান্থিয়া ম্যাকইন্টায়ার, ক্রসবেঞ্চার লর্ড কার্লাইল ও লিবারেল পার্টি অব অস্ট্রেলিয়ার আন্তর্জাতিক বিষয়ক সমপাদক ব্রুস এডওয়ার্ডস। সভায় মূল উদ্যেক্তারা ছাড়াও বৃটেনের এমপিরা এবং বিশ্বের প্রভাবশালী রাজনীতিবিদরা অংশ নেন।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, ৭৩ বছর বয়সী বাংলাদেশ জাতীয়তবাদী দলের প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য বাংলাদেশ সরকারকে চাপ দিতেই এই প্রচারণা সভার আয়োজন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার আইনজীবী লর্ড কার্লাইল এতে অংশ নিয়ে বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে থাকা অভিযোগ মামুলি। যারা বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা সমপর্কে জানেন তারা বুঝবেন যে, এই অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যা। তাই, খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দেয়া উচিৎ।

তিনি আরো বলেন, আমরা ্তুফ্রি খালেদা জিয়া্থ ক্যামেপইন পরিচালনা করছি যাতে বৃটেন, ইউরোপ ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানগুলো জানতে পারে কত বড় অবিচার চলছে। তিনি দাবি করেন, খালেদা জিয়াকে কোনো তথ্যপ্রমান ছাড়াই আটকে রাখা হয়েছে। তাই, তার মুক্তির জন্য বাংলাদেশ সরকারকে চাপ দিতে কমনওয়েলথ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও বৃটিশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানান কার্লাইল।

এ সময় বাংলাদেশকে স্থিতিশীল রাখতে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির ওপর গুরুত্বারোপ করেন লর্ড কার্লাইল। তিনি বলেন, এটি সমগ্র বাংলাদেশে বড় মাপের জনঅসন্তোষ সৃষ্টি করতে পারে। তাই বাংলাদেশ সরকারের উচিৎ সঠিক কাজটি করা এবং তাকে অবিলম্বে মুক্তি দেয়া।

বিস্তারিত খবর

পাকিস্তানে ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১৬

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১১ ১৫:১০:১১

পাকিস্তানের সাদিকাবাদের কাছে ওয়ালহারে দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে অন্তত ১৬ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আরও অন্তত ৭০ জন আহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে দুবাইভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গালফ নিউজ। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকালে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

জরুরি বিভাগের কর্মীরা উদ্ধার কাজ চালাচ্ছেন। তারা জানিয়েছেন, নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে। এদিকে ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে জানিয়েছে, কোয়েটা থেকে লাহোরগামী আকবর এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে মালবাহী ট্রেনের সংঘর্ষ হলে ১০ জন নিহত হয়। এই ঘটনায় ৩৫ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

দুর্ঘটনা সম্পর্কে রহিম ইয়ার খান জেলার ডিসট্রিক্ট পুলিশ অফিসার (ডিপিও) বলেন, উদ্ধার অভিযান চলছে। এতে ব্যবহার করা হচ্ছে হাইড্রোলিক কাটার। দুর্ঘটনায় আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে।

এদিকে দুর্ঘটনায় নিহতদের প্রতি শোক প্রকাশ করেছেন রেলওয়ে মন্ত্রী শেখ রাশেদ আহমেদ। একইসঙ্গে তিনি একটি তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন।

বিস্তারিত খবর

সারাদিন খাওয়ার পেছনে ব্যয় করবেন না: শি জিনপিং

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১০ ১৪:১৭:৫৪

দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইকে অজুহাত হিসেবে দাঁড় করিয়ে অলস সময় কাটানো এবং‘সারাদিন খাওয়ার পেছনে সময় ব্যয়’ না করতে সরকারি কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

মঙ্গলবার ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির শীর্ষ নেতাদের বৈঠকে তিনি এ আহ্বান জানিয়েছেন।

২০১২ সালে শি জিনপিং দুর্নীতিবিরোধী অভিযান শুরু করেন। এরপর থেকেই পদোন্নতি ও শাস্তি এড়াতে কাজে ফাঁকি দেওয়া কিংবা সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া এড়াতে শুরু করেন চীনা সরকারি কর্মকর্তারা। তবে কমিউনিস্ট পার্টি ও সরকারের তরফ থেকে এ ব্যাপারে বারবার কর্মকর্তাদের সতর্ক করা হচ্ছিল।

বৈঠকে শি বলেছেন,‘দুর্নীতিমুক্ত থাকা এবং দায়িত্ববান হওয়ার সম্পর্কটি সঠিকভাবে নির্ধারণ করা’ গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, ‘দুর্নীতি বিরোধিতাকে আপনি কখনোই দায়িত্ব গ্রহণ না করা কিংবা কোনো কিছুই না করা হিসেবে দেখতে পারেন না। কঠিন দায়িত্ব নিতে সাহসী হোন, ক্ষমতাশালীকে ধরুন এবং স্পর্শকাতর বিষয় মোকাবেলা করুন।’

চীনা প্রেসিডেন্ট সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্যমী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘নির্বোধ কর্মকর্তা হবেন না যারা রাজনৈতিকভাবে বিমুখ এবং উদ্যমহীনভাবে কাজ করে। এমন অলস কর্মকর্তা হবেন না যারা সারাদিন খায় এবং অলসভাবে সময় পার করে।’

বিস্তারিত খবর

সৌদি আরবে র‍্যাপার নিকি মিনাজের কনসার্ট বাতিল

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১০ ১৪:১৬:০১

সৌদি আরবের সংগীত উৎসবে শেষ পর্যন্ত অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল করেছেন র‍্যাপার নিকি মিনাজ।

নারী ও এলজিবিটি গোষ্ঠীর অধিকারের সমর্থনে জেদ্দায় তার ওই কনসার্টে অংশ নেয়ার কথা ছিলো। কিন্তু ওই কনসার্টকে নিয়ে তীব্র আলোচনা সমালোচনা তৈরি হয়েছিলো।

এছাড়া চরম রক্ষণশীল সৌদি সমাজে নিকি মিনাজের পোশাক ও গানের ভাষা কিভাবে নেয় - তা নিয়েও প্রশ্ন ছিলো।

সৌদি আরব সাম্প্রতিক সময়ে বিনোদনমূলক নানা বিষয়ের ওপর বাধা-নিষেধ সহজ করে আনার চেষ্টা করছে।

গত অক্টোবরে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সাংবাদিক জামাল খাসোগজী হত্যাকাণ্ডের পর সৌদি আরবে মানবাধিকার রেকর্ড নিয়ে সমালোচনা আরও জোরদার হয়।

এরপর এই মার্চে আবারো দেশটি তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে দশজন নারী অধিকার কর্মীকে বিচারের মুখোমুখি করার পর।

এখন নিজের কনসার্ট বাতিল করে দেয়া এক বিবৃতিতে নিকি মিনাজ বলছেন, "সতর্ক পর্যবেক্ষণের পর জেদ্দা ওয়ার্ল্ড ফেস্টে আমার নির্ধারিত কনসার্ট নিয়ে এগিয়ে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমি।"

এর আগে শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন নিকি মিনাজের কাছে লেখা এক খোলা চিঠিতে ১৮ জুলাইয়ের ওই ফেস্টিভ্যাল থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেয়ার অনুরোধ জানায়।

তারা 'রাজতন্ত্রের অর্থ প্রত্যাখ্যান' করে নিজের প্রভাব আটক নারী অধিকার কর্মীদের জন্য ব্যবহারের পরামর্শ দেন তাকে।

তবে নিকি মিনাজই সৌদি আরবের আমন্ত্রণ পেয়ে বিতর্ক তৈরি করার প্রথম শিল্পী নন।

এ বছরের শুরুতেই মারিয়া ক্যারি তার অনুষ্ঠান বাতিল করতে মানবাধিকার কর্মীদের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছিলেন।

বিস্তারিত খবর

পাপুয়া নিউ গিনিতে উপজাতি সংঘাতে নিহত ২৪

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১০ ১৪:১২:৫২

পাপুয়া নিউ গিনিতে উপজাতিদের সংঘাতে অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছে। এদের  মধ্যে অধিকাংশই নারী ও শিশু। গত রোব ও সোমবার দেশটির হেলা প্রদেশের তারি-পোরি জেলায় এ ঘটনা ঘটেছে।

গত কয়েক বছরের মধ্যে এটিকে পাপুয়া নিউ গিনির সবচেয়ে ভয়াবহ উপজাতিগত সহিংসতা বলা হচ্চে। প্রধানমন্ত্রী জেমস মারাপে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, ‘এটা আমার জীবনের সবচেয়ে দুঃখের দিনগুলোর একটি।’

কী কারণে এই হামলা চালানো হয়েছে তা এখনো জানা যায় নি। তবে গত ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে পাপুয়া নিউ গিনিতে গোষ্ঠীগত কারণে উপজাতিদের মধ্যে সংঘাত চলে আসছে।

স্থানীয় বার্তা সংস্থা ইএমটিভি জানিয়েছে, রোববার মুনিমা গ্রামের চার পুরুষ ও তিন নারীকে হত্যা করা হয়। সোমবার কারিদা গ্রামের ১৬ নারী ও শিশুকে হত্যা করা হয়। এদের মধ্যে দুজন সন্তানসম্ভবা ছিলেন।

কারিদা উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ফিলিপ পিমুয়া হামলার সময় ওই গ্রামে ছিলেন।

তিনি বলেন, ‘আমি সকালে ঘুম থেকে উঠে রান্নাঘরে চুলা জ্বালাতে গিয়েছিলাম। ওই সময় আমি গুলির শব্দ শুনতে পাই এবং দেখতে পাই কয়েকটি বাড়ি আগুনে জ্বলছে। আমি বুঝতে পারলাম,শত্রুরা ইতোমধ্যে গ্রামে প্রবেশ করেছে।  আমি দ্রুত দৌঁড়ে একটি ঝোপের ভেতরে লুকিয়ে পড়ি। সকাল ৯টা-১০টার দিকে সেখান থেকে ফিরে আসি এবং খন্ডবিখন্ড মৃতদেহ ও পুড়ে যাওয়া বাড়িঘর দেখতে পাই।’


বিস্তারিত খবর

ইরানে বিমান হামলার হুমকি ইসরাইলের

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-১০ ১৩:৫৭:২৫

ইরানে বিমান হামলার হুমকি দিল ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

আক্রান্ত হলে ইরান সবার আগে ইসরাইল ধ্বংস করে ফেলবে- দেশটির এমন হুমকির জবাবে মঙ্গলবার নেতানিয়াহু ওই পাল্টা হুমকি দেন। খবর রয়টার্সের।

ইসরাইলে এক সভায় বক্তৃতাকালে নেতানিয়াহু বলেন, সম্প্রতি ইরান আমাদের গুঁড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়েছে।

কিন্তু তাদের জানা উচিত- আমাদের বিমানগুলো মধ্যপ্রাচ্যের যেকোনো স্থানে আঘাত করার সক্ষমতা রাখে। সবার আগে ইসরাইল সিরিয়ায় হামলা করবে।

ইরানের এক জ্যেষ্ঠ সংসদ সদস্য গত সপ্তাহে দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা মেহের নিউজ এজেন্সিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, যদি যুক্তরাষ্ট্র ইরানে হামলা চালায়, তা হলে আধাঘণ্টার মধ্যে ইসরাইলকে গুঁড়িয়ে দেয়া হবে।

বিস্তারিত খবর

নেই কোনো অফিস, বাড়িতে বসেই চাকরি করে ৯০০ কর্মী

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৯ ০৭:৩৬:১৯

ব্রিটেনভিত্তিক একটি বহুজাতিক কোম্পানি অটোম্যাটিকের কর্মীর সংখ্যা ৯৩০। কিন্তু এতো বড় প্রতিষ্ঠানের কোনো অফিস নেই! প্রতিটি কর্মী তাদের নিজের বাড়িতে বা অন্যত্র বসে কাজ করেন। খবর বিবিসির।

প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কেট হাস্টন বলেন, আমাদের প্রতিষ্ঠানের এটিই নীতি, সংস্কৃতি। কেউ আর এখন অফিসের কথা মুখেই আনে না।

'প্রতিদিন অফিস যাওয়ার চাপ নেই। আমরা স্বাধীন। কাজের জন্য একজনের সঙ্গে আরেকজনের দেখা করার দরকার হলে আমরা একটি জায়গা ঠিক করে দেখা করি। এই অ্যাডভেঞ্চার আমাদের খুবই পছন্দের।'

পয়সা বাঁচে

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অনেক প্রতিষ্ঠানেরই এখন কেন্দ্রীয় কোনো অফিস নেই।

দ্রুতগতির ইন্টারনেট, মেসেজিং এবং ভিডিও অ্যাপ, তদারকি এবং নজরদারি করার জন্য বিভিন্ন সফটওয়্যারের বদৌলতে এখন চেয়ার-টেবিল-কম্পিউটার-টেলিফোন সাজিয়ে গতানুগতিক অফিস করার প্রয়োজন হচ্ছে না।

এর পরিবর্তে এসব প্রতিষ্ঠান বিশ্বের নানা জায়গায় কর্মী নিয়োগ করছে। তাদের হয় বাড়ি থেকে না হয় বাড়ির কাছাকাছি কোথাও অল্প জায়গা ভাড়া করে কাজ করতে বলছে। এমনকি কফি শপে বসেও তারা কাজ করে।

যেমন অটোম্যাটিক ৭০টি দেশে কাজ করে। সব জায়গাতেই তাদের কর্মী আছে। কিন্তু কেন্দ্রীয় কোনো অফিস নেই।

কর্মীদের নিজেদের মধ্যে সামনাসামনি দেখা করার প্রয়োজন হলে, তারা এক শহর বা দেশ থেকে অন্য দেশ বা শহরে ভ্রমণ করছে।

অটোম্যাটিকের কর্মকর্তা কেট হাস্টনের টিম এ বছর দেখা করেছে থাইল্যান্ডে

বাসার ভেতর অফিস তৈরির সাজ সরঞ্জাম, আসবাব কেনার পয়সা দেওয়া হচ্ছে। কফি শপে বসে কাজ করার সময় কফি খাওয়ার পয়সাও দেওয়া হচ্ছে। অন্য কোনো জায়গায় চেয়ার-টেবিল ভাড়া করার প্রয়োজন হলেও সেই ভাড়া দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তারপরও স্থায়ী একটি বড় অফিস তৈরির খরচের চেয়ে অনেক কম খরচ হচ্ছে।

কেট হাস্টন বলেন, অবশ্যই অনেক টাকা সাশ্রয় হচ্ছে। বিশেষ করে লন্ডন, সান ফ্রান্সিসকো বা নিউইয়র্কের মতো শহরে অফিস ভবনের ভাড়া যেভাবে বেড়ে গেছে, তাতে খরচ অনেক বাঁচে। ওই টাকা বরঞ্চ আমরা কর্মীদের ভ্রমণে খরচ করছি। যেমন আমার পুরো টিম এ বছর থাইল্যান্ডে গিয়ে মিটিং করেছি।

ঘরে বসে কাজ করেন এমন কর্মীর সংখ্যা গত এক দশকে কয়েক গুণ বেড়েছে বলে জানান তিনি।

প্রবণতা বাড়ছে

অফিসের বদলে বাড়িতে বসে কাজ করার প্রচলন দিন দিন বাড়ছে। খণ্ডকালীন বা স্বল্প মেয়াদের জন্য কর্মী নিয়োগ যত বাড়ছে, ঘরে বসে কাজ করার প্রবণতাও ততই প্রসারিত হচ্ছে।

ব্রিটেনের এক্সিটার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্কুলের অধ্যাপক ইনসিওগ্লু বলছেন, এই প্রবণতা দিন দিন বাড়ছে। খরচ কমছে। বিশেষ করে নতুন ব্যবসা যারা শুরু করছেন তারা এতে আকৃষ্ট হচ্ছে। অন্যদিকে কর্মচারীদের দৃষ্টিকোণ থেকে যদি ভাবেন, তাহলে তাদের প্রতিদিন ভিড় ঠেলে অফিসে যাওয়া লাগছে না। এটা বিরাট একটা সুবিধা।

তবে অফিসে যাওয়ার ঝামেলা, খরচ না থাকলে, ঘরে বসে কাজ করার কিছু নেতিবাচক দিক রয়েছে।

অধ্যাপক ইনসিওগ্লু বলছেন, পারিবারিক জীবন এবং কাজের মধ্যে বিভাজন রেখা টানা অনেকের জন্য বিরাট একটা চ্যালেঞ্জ। আপনি যদি ঘরে বসে কাজ করেন, তাহলে সেই কাজ কখন শেষ করে আপনি আবার পুরোপুরি পারিবারিক সময় শুরু করবেন?

মানসিক রোগ নিয়ে কাজ করে এমন একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠান মাইন্ড বলছে, ঘরে বসে কাজ করলে অনেক সময় মানুষের মধ্যে একাকীত্ব এবং বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ার মতো অনুভূতি জন্ম নিতে পারে।

তবে অধ্যাপক ইনসিওগ্লু বলছেন, একটি প্রতিষ্ঠানের সবাই যদি ভিন্ন ভিন্ন জায়গা থেকে কাজ করে, তাহলে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ার মানসিকতা তৈরির ঝুঁকি কম।

অটোম্যাটিকের কর্মকর্তা কেট হাস্টন বলছেন, অফিসে না যাওয়ার স্বাধীনতা উপভোগ করছেন প্রতিষ্ঠানের নয় হাজার কর্মী। অফিসের কথা তারা মুখেও আনেন না।

যোগাযোগ সুবিধা

অটোম্যাটিকের কেট হাস্টন মনে করেন, যার যার জায়গা থেকে কাজ করাটা কর্মীদের পারস্পরিক বোঝাপড়া এবং যোগাযোগের জন্য ভালো।

'যখন আপনার টিম সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকে তখন শক্তিশালী একটি টিম তৈরি নিয়ে আমরা অনেক বেশি সচেতন এবং সচেষ্ট থাকি। নিজেদের মধ্যে যোগাযোগের ক্ষেত্রে যেন কোনো অস্পষ্টতা বা অসম্পূর্ণতা না থাকে তা নিয়ে অনেক সজাগ থাকি।'

বিস্তারিত খবর

গণবিক্ষোভের মুখে চীনের সঙ্গে হংকংয়ের প্রত্যর্পণ বিলের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৯ ০৭:৩৪:৫৬

উত্তাল গণবিক্ষোভের মুখে চীনের সঙ্গে হংকংয়ের প্রত্যর্পণ বিলের মৃত্যু হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন হংকংয়ের শাসক ক্যারি ল্যাম। এ বিলটি বাতিলের দাবিতে আন্দোলনকারীরা সরকারি অফিসগুলো অবরুদ্ধ করে রাখেন। এমনকি তারা দেশটির সংসদে ঢুকে যায়। খবর রয়টার্স।

মঙ্গলবার ক্যারি ল্যাম স্বীকার করেন, এই গণবিক্ষোভ বিলটি নিয়ে তার সরকারের তৎপরতা পুরোপুরি ভেস্তে দিয়েছে।

চীনের মতো ভয়াবহ মানবাধিকার লঙ্ঘনের দেশে প্রত্যর্পণের উদ্যোগ নেয়ায় ক্যারি ল্যামের পদত্যাগের দাবিতে সোচ্চার হন আন্দোলনকারীরা। এ সময় তারা বিতর্কিত বিলটি স্থায়ীভাবে বাতিলের দাবিতে আওয়াজ তোলেন।

এর আগে গত মাসে লাখো মানুষের গণবিক্ষোভের মুখে এ বিলটির জন্য ক্ষমা চান হংকংয়ের চীনপন্থী শাসক ক্যারি ল্যাম।

বিতর্কিত অপরাধী প্রত্যর্পণ বিলটির কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিতেরও ঘোষণা দেন তিনি। তবে এর পরও আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন বিক্ষোভকারীরা।

এর আগে অপরাধী প্রত্যর্পণ বিলে কোনো রকমের কাটছাঁট করা হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন ক্যারি ল্যাম। তবে গণআন্দোলনের মুখে বিলটি স্থগিতের পর উল্টো জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হন তিনি।

মূলত চীন ও তাইওয়ানে অপরাধী প্রত্যর্পণ সংক্রান্ত প্রস্তাবিত একটি বিলের বিপক্ষে হংকংজুড়ে এই গণবিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

আন্দোলনকারীদের মূল ক্ষোভ চীনের সঙ্গে সমঝোতা নিয়ে। হংকংয়ের সাধারণ মানুষ মনে করছেন, বেইজিংয়ের দুর্বল আইন এবং মানবাধিকার রেকর্ডের কারণে সেখানে কাউকে ফেরত পাঠানো নিরাপদ নয়। দেশটির সাধারণ মানুষের ধারণা, বিলটি পাস হলে তা দেশটির অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে চীনের হস্তক্ষেপের সুযোগ বাড়িয়ে দেবে।

হংকং চীনের বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চল হিসেবে বিবেচিত হলেও ২০৪৭ সাল অবধি অঞ্চলটির স্বায়ত্তশাসনের নিশ্চয়তা দিয়েছে দেশটি। ১৫০ বছর ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসনে থাকার পর লিজ চুক্তির মেয়াদ শেষে ১৯৯৭ সালের ১ জুলাই অঞ্চলটি চীনের কাছে ফেরত দেয়া হয়েছিল।

হংকংয়ের জনসংখ্যা প্রায় ৭৪ লাখ হলেও ১২ জনের একটি বিশেষ কমিটি নেতা বাছাইয়ে ভোট দেয়ার সুযোগ পান।

বিস্তারিত খবর

ওয়াশিংটন ডিসিতে আকস্মিক বন্যা

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৯ ০৭:১০:০৫

যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে সোমবার এক ঘণ্টার রেকর্ড বৃষ্টিপাতে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা। এমনকি পানি ঢুকে পড়েছে হোয়াইট হাউসের বেজমেন্টেও।

আবহাওয়া দফতরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘একেবারেই বিপজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সবার উঁচু জায়গায় আশ্রয় নেয়া প্রয়োজন!’ ভারী বর্ষণের ফলে স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে রেগন ন্যাশনাল এয়ারপোর্ট এলাকায় ৩.৫ ইঞ্চি পানি জমেছে। এর আগে ১৯৫৮ সালে এক ঘণ্টায় ২.২ ইঞ্চি পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হয়েছিল। ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিসের আবহাওয়াবিদ মার্ক চেনার্ড জানান, ১৮৭১ সালের পর এ নিয়ে সপ্তমবারের মতো ওয়াশিংটনে এমন রেকর্ড বৃষ্টিপাতের ঘটনা ঘটলো।

উত্তরপশ্চিমে আরলিংটন, ভার্জিনিয়াতেও সকাল ৯টা থেকে ১০ পর্যন্ত প্রায় ৫ ইঞ্চি বৃষ্টিপাত হয় বলে জানিয়েছেন মার্কি চেনার্ড। মেট্রো স্টেশনগুলোর সিলিংয়ের মাধ্যমে ভেতরে পানি ঢুকে যাওয়ায় সেখানকার পরিষেবা ব্যাহত হয়েছে। পানি ঢুকে গেছে ওয়াশিংটনের জাদুঘর ও সংগ্রহশালাগুলোতেও। ফলে সেগুলো বন্ধ করে দিতে হয়েছে। পাশাপাশি জমাট পানিতে বেশ কয়েকটি গাড়ি আটকে পড়ায় সেখান থেকে কয়েকজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। ডিসি ফায়ার ও ইএমএস জানিয়েছে, ১৫ জন চালককে উদ্ধার করা হয়েছে।

পানিতে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারের জন্যে হলুদ রাবার লাইফবোট ব্যবহার করছেন উদ্ধারকারীরা। টুইটারে পোস্ট করা একটি ছবিতে উঠে এসেছে কিভাবে পেনসিলভানিয়া অ্যাভিনিউয়ের একটি অফিসের চেয়ার-টেবিল পানিতে ভাসছে।

টুইটারে একটি ছবি পোস্ট করে সিএনএনের সাংবাদিক বেটসি ক্লেইন লিখেছেন, ‘হোয়াইট হাউস লিক করছে’,অর্থাৎ হোয়াইট হাউসের ভেতরেও পানি ঢুকেছে।

বিস্তারিত খবর

ইন্দোনেশিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৮ ০৩:০২:২৩

ইন্দোনেশিয়ায় একটি শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাতের পর সুনামি সতর্কতা জারি করেছে সে দেশের কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয় সময় রোববার রাত ১০টার দিকে উত্তর সুলাবেসি ও মালুকুর মাঝে মলাক্কা সাগরে এ ভূমিকম্প আঘাত হানে বলে জানিয়েছে ইউএসএটুডে ও স্ট্রেট টাইমস।

প্রাথমিকভাবে এতে বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) জানিয়েছে, ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল মানাদোর ১৮৫ কিলোমিটার (১১৫ মাইল) উত্তরপূর্বে ২৪ কিলোমিটার (১৫ মাইল) গভীরে।

ইন্দোনেশিয়ার জিওফিজিক্স সংস্থা টুইটারে একটি গ্রাফিক্স পোস্ট করে বলেছে, সুনামিতে উত্তর সুলাবেসি ও উত্তর মালুকুর বিভিন্ন অংশে অর্ধ মিটার (১.৬ ফুট) উঁচু ঢেউ সৃষ্টি হতে পারে।

সংবাদ সংস্থা এপি এক প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে জানিয়েছে, ভুমিকম্পে মালুকুর টার্নেট শহরে আতঙ্ক দেথা দেয়। লোকজন ভয়ে উঁচু স্থানের দিকে দৌঁড়াতে থাকে।

স্থানীয় বেতার কেন্দ্র রেডিও এল সিন্টা জানায়, উত্তর সুলাবেসির রাজধানী মানাদোর বাসিন্দারা ভয়ে তাদের ঘর-বাড়ি ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসেন।

ইন্দোনেশিয়া  ২৬ কোটি মানুষের একটি বিশাল দ্বীপপুঞ্জ। দেশটি প্রশান্ত মহাসাগরীয় অববাহিকায় ‘ফায়ার অব রিং’ অঞ্চলে। আর এ অঞ্চলে প্রচুর আগ্নেয়গিরি এবং বিশাল চ্যুতি (শিলাস্তরের ফাটল) থাকার কারণে প্রায়ই সেখানকার দ্বীপগুলোতে ভূমিকম্প, আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত এবং সুনামি আঘাত হানে।

উল্লেখ্য, এর আগে ইন্দোনেশিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি মানুষ প্রাণ হারায় ২০০৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর। ভারত মহাসাগরে ভূমিকম্পের ফলে সৃষ্ট সুনামিতে ১৪ দেশের ২ লাখ ২৬ হাজার মানুষ প্রাণ হারায়। শুধু ইন্দোনেশিয়াতেই নিহত হয় ১ লাখ ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ।

বিস্তারিত খবর

ফ্লোরিডায় শপিং সেন্টারে বিস্ফোরণে আহত ২১

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৭ ১১:০৭:২০

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় একটি শপিং সেন্টারে বিস্ফোরণে অন্তত ২১ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার দক্ষিণ ফ্লোরিডার প্লানটেশন সিটিতে এ ঘটনা ঘটে।

বিস্ফোরণে এক রেস্তোরাঁ চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে গেছে। দমকল কর্মীরা প্রাথমিকভাবে গ্যাসের লাইন ফেটে বিস্ফোরণ হয়েছে জানালেও অধিকতর তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

টুইটারে প্রকাশ করা এক ভিডিওতে দেখা গেছে, প্রচণ্ড বিস্ফোরণের ধাক্কায় পাশের এল. এ. ফিটনেস জিমের বেশ কয়েকটি জানালা উড়ে গেছে।

এক সংবাদ সম্মেলনে নগরীর দমকল বাহিনীর উপপ্রধান জোয়েল গর্ডন জানিয়েছেন, বিস্ফোরণে আহতদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা গুরুতর। তাদের স্থানীয় ট্রমা সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

গর্ডন জানান, দমকল কর্মীরা ঘটনাস্থলে ফেটে যাওয়া একটি গ্যাস লাইন পেয়েছে। কিন্তু বিস্ফোরণটি ওই লাইন থেকেই ঘটেছে কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।


বিস্তারিত খবর

ভূমিকম্পের পর ক্যালিফোর্নিয়ায় জরুরি অবস্থা

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৭ ১১:০৬:৪১

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে পরপর দু'বার শক্তিশালী ভূমিকম্প এবং আরও বেশ কয়েকবার পরাঘাতের (আফটার শক) কারণে জরুরি অবস্থা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ।

ভূমিকম্পের কারণে বেশ কিছু ভবন ও রাস্তায় ফাটল ধরেছে। কিছু কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে এবং অনেক স্থানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। গত ২০ বছরে ক্যালিফোর্নিয়ায় এমন শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানেনি। দমকল ও জরুরি বিভাগের কর্মীরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

শক্তিশালী ভূমিকম্পের পর আরও পরাঘাত (আফটার শক) আঘাত হানতে পারে বলে জরুরি অবস্থা জারির পাশাপাশি লোকজনকে সতর্ক করেছেন ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর গেভিন নিউসম।

এক টুইট বার্তায় নিউসম বলেন, নিরলসভাবে রাতভর এবং আজ সকাল পর্যন্ত এভাবে কাজ করে যাওয়ায় সবার প্রতি অনেক কৃতজ্ঞতা। ক্যালিফোর্নিয়ার নাগরিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমাদের সব সময়ই পরবর্তী ভূমিকম্পের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

শুক্রবার লস অ্যাঞ্জেলস থেকে ১৫০ মাইল উত্তর-পূর্বের রিডজেক্রেস্ট শহরে ৭ দশমিক এক মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানে। এর প্রায় ৩৪ ঘণ্টা পর ৬ দশমিক ৪ মাত্রার আরও একটি ভূমিকম্প আঘাত হানে।

কের্ন কাউন্টির দমকল প্রধার ডেভিড উইট বলেন, ভূমিকম্প থেকে কারো মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। তবে কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনও জানা সম্ভব হয়নি।

তিনি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আমরা জানি যে এখানে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা আমরা এখনও জানি না। কেউ কোথাও আটকা পড়েনি। বড় ধরনের কোন ক্ষয়ক্ষতিও হয়নি। তবে আমরা পুরো পরিস্থিতি খতিয়ে দেখছি। আগামী সপ্তাহের মধ্যে আরও কয়েকবার ভূমিকম্প আঘাত হানতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে।


বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত