যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ৩০ মে, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 10:10am

|   লন্ডন - 05:10am

|   নিউইয়র্ক - 12:10am

  সর্বশেষ :

  জেনে নিন, রিয়েল আইডি ও ক্যালিফোর্নিয়া ডিএমভি কী?   ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনায় মৃত ছাড়িয়েছে ৪ হাজার   বড় পরিসরে ব্যবসা চালুর আশা করছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি   ক্যালিফোর্নিয়ার আইনপ্রণেতাদের বেতন এবছর বাড়ছে না   করোনায় একদিনে গেল আরও ৪৮ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৯ হাজার ৭৭৪   বেকার বীমা জালিয়াতি কী? শাস্তি হবে কেমন?   নিজের গড়া দল থেকে বহিষ্কার হলেন মাহাথির মোহাম্মদ   দেশে একদিনে সর্বোচ্চ ২০২৯ জন শনাক্ত, মৃত্যু ১৫   ভারতে করোনা সন্দেহে বাংলাদেশি যুবককে পিটিয়ে হত্যা   নিউজিল্যান্ডকে করোনামুক্ত ঘোষণা   দেশে ১ জুন থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান চলাচল শুরু   সৌদিআরবে গোলাগুলিতে ৬ জন নিহত   লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশীকে গুলি করে হত্যা করল মানবপাচারকারীরা   আন্তর্জাতিক গানে কণ্ঠ দিলেন বাংলাদেশি ৩ তরুণ   লস এঞ্জেলেস কাউন্টির কিছু জেলে করোনা আক্রান্ত ৪০ শতাংশ

>>  বহিঃ বিশ্ব এর সকল সংবাদ

নিজের গড়া দল থেকে বহিষ্কার হলেন মাহাথির মোহাম্মদ

নিজের গড়া দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে।

ইউনাইটেড ইনডিজেনাস পার্টি অব মালয়েশিয়ার (বারসাতু) সহ-প্রতিষ্ঠাতা মাহাথির; বৃহস্পতিবার এ দলের এক বিবৃতিতে তাকে বহিষ্কারের কথা জানানো হয়।

সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, গত ১৮ মে দলের প্রেসিডেন্ট মুহিদ্দিন ইয়াসিনের নেতৃত্বাধীন সরকারকে সমর্থন না দিয়ে পার্লামেন্ট অধিবেশনে বিরোধী দলের সারিতে বসেছিলেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী, এ ঘটনার পরিরেক্ষিতে তাকে বহিষ্কার করা হলো।

ইউনাইটেড ইনডিজেনাস পার্টি অব মালয়েশিয়ার বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায়

বিস্তারিত খবর

নিউজিল্যান্ডকে করোনামুক্ত ঘোষণা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৮ ১৫:০৪:৫৭

নিউজিল্যান্ডে হাসপাতালে থাকা শেষ করোনা রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এই প্রথম দেশটির কোনো হাসপাতালে একজনও করোনা রোগী নেই। বুধবার দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ এ তথ্য জানিয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালক ডা. অ্যাশলে ব্লুমফির্ড এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বর্তমানে দেশের কোনো হাসপাতালে আর একজন রোগীও নেই, যিনি কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সবশেষ সুস্থ হয়ে মিডলমোর হাসপাতাল থেকে একজন রোগী ছাড়া পাওয়ার পর এই সংখ্যা এখন শূন্য।

ডা. অ্যাশলে বলেন, বর্তমানে দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা ২১, তারা বাড়িতেই চিকিৎসা নিচ্ছেন।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে ডেইলি মেইল অনলাইন জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোনো করোনাভাইরাস রোগীর মৃত্যু হয়নি। এছাড়া টানা পঞ্চম দিন করোনায় আক্রান্ত হিসেবে কেউ শনাক্ত হয়নি।

এদিকে, টানা প্রায় দুই মাস দেশ লকডাউন থাকার পর গত ১৪ মে থেকে কিছু ব্যবসা কেন্দ্র ও জনসমাগমস্থল খুলে দিতে শুরু করেছে নিউজিল্যান্ড সরকার।

তবে, সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলতে সবাইকে সর্তক প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা অ্যার্ডেন বলেন, নিউজিল্যান্ড এখন ‌‌‘অ্যালার্ট-২’ স্তরে রয়েছে। রোগ প্রতিরোধ করা গেলেও এখনও সংক্রমণ হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

গবেষণাভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, নিউজিল্যান্ডে করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৫০৪। মারা গেছেন ২১ জন। সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪৬২ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

সৌদিআরবে গোলাগুলিতে ৬ জন নিহত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৮ ১৫:০১:২১

পবিত্র ঈদুল ফিতরের রেশ কাটতে না কাটতেই সৌদিতে হঠাৎ গোলাগুলিতে অন্তত ৬ জন নিহত হয়েছেন। দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের আসির প্রদেশের এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কমপক্ষে ৩ জন। বুধবার সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সির (এসপিএ) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জাানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলছে, ইয়েমেন সীমান্তসংলগ্ন সৌদি আরবের আসির প্রদেশে মঙ্গলবার গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে ৬ জন নিহত ও ৩ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ গোলাগুলির এ ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে। অবশ্য সৌদি কর্তৃপক্ষ এই গোলাগুলির ব্যাপারে বিস্তারিত কোনও তথ্য দেয়নি।

উল্লেখ্য, দেশটির সীমান্তবর্তী এই প্রদেশে প্রায়ই ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা হামলা চালিয়ে আসছে। ঐ প্রদেশের বিভিন্ন স্থাপনায় প্রায়ই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় হুথিরা। গত বছরের জুনে আসিরের আভা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হুথি বিদ্রোহীদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত একজনের প্রাণহানি ঘটে এবং আহত হন অন্তত ৭ জন।

এর আগে ২০১৫ সালের মাঝের দিকে ইয়েমেনের সাবেক প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মনসুর আল-হাদি এই হুথি বিদ্রোহীদের আন্দোলনের মুখে দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য হন। এরপর দেশটির সাবেক এই প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতায় ফেরাতে হুথিদের লক্ষ্য করে ইয়েমেনে হামলা শুরু করে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

ভারত ও চীনকে মধ্যস্থতার প্রস্তাব ট্রাম্পের

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১২:২৩:৪৭

ভারত ও চীনের মধ্যে সীমান্ত নিয়ে যখন উত্তেজনা বাড়ছে তখন এই দুই দেশের মধ্যে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার এক টুইটে এ প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি সিকিম ও লাদাখ সীমান্তে চীন ও ভারতের সেনা সদস্যদের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। প্যাংগং সো আর গালওয়ান উপত্যকায় অতিরিক্ত দুই থেকে আড়াই হাজার সেনা মোতায়েন করেছে চীন। গালওয়ানে ১০০টি শিবির তৈরি করেছে সেনারা। বাঙ্কার তৈরিরও চেষ্টা চলছে। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর বিতর্কিত এলাকায় ভারতও অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে। যেভাবে পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে তাতে কোনো সমঝোতায় পৌঁছতে না পারলে রণক্ষেত্র হয়ে উঠতে পারে সীমান্ত।

বুধবারই টুইটারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প লিখেছেন, ‘আমরা ভারত ও চীনকে জানিয়েছি যে যুক্তরাষ্ট্র তাদের মধ্যকার ক্রমবর্ধমান সীমান্ত বিরোধের মধ্যস্থতা বা সালিশ করতে প্রস্তুত, ইচ্ছুক ও সক্ষম। আপনাদের ধন্যবাদ!’

এর আগে ট্রাম্প কাশ্মীর নিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। তবে নয়া দিল্লি কঠোরভাবে সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিল।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

আবারো স্পেস এক্স এর কার্যক্রম শুরু করল নাসা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১২:২২:০৬

প্রথমবারের মতো আমেরিকার মাটি থেকে, আমেরিকান রকেটে, আমেরিকান নভোচারী যাচ্ছেন মহাকাশে। আর এর মাধ্যমে আবারো স্পেস এক্স এর কার্যক্রম শুরু করল নাসা। ইলন মাস্কের বেসরকারি রকেট সংস্থা স্পেসএক্স দুই জন আমেরিকানকে বুধবার ফ্লোরিডা থেকে মহাকাশে পাঠাচ্ছেন। এ মিশনটির মাধ্যমে নাসার নভোচারীরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মাটি থেকে গত নয় বছরের মধ্যে প্রথম মহাকাশ চিহ্নিত করবে।

একটি স্পেসএক্স ফ্যালকন ৯ রকেট কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৪টা ৩৩ মিনিটে যাত্রা করবে। আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনে সংস্থাটির সদ্য নকশাকৃত ক্রু ড্রাগন ক্যাপসুলের উপরে ১৯ ঘণ্টার পরিভ্রমণ করবে ডগ হারলি (৫৩) এবং বব বেনকেন (৪৯)।

নভোচারী হারলির ২০১১ সালে চূড়ান্ত মহাকাশ শাটল উড়ানের জন্য একটি বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছিল। এবার মার্কিন ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স রকেটটির উৎক্ষেপণ দেখার জন্য ফ্লোরিডার কেপ ক্যানভেরাল সফর করার কথা রয়েছে।

পূর্ব ফ্লোরিডায় আসন্ন ঝড়ের কারণে রকেট উৎক্ষেপণ বন্ধ রাখার ৪০ শতাংশ সম্ভাবনা রয়েছে বলে সোমবার জানানো হয়েছে। আর যদি আবহাওয়ার কারণে রকেট উৎক্ষেপণ বন্ধ রাখতে হয় তাহলে বুধবারের পরিবর্তে নতুন সময় আগামী শনিবার করা হবে। সংস্থার প্রধান জিম ব্রইডেনস্টাইন বলেন, একটি সফল মিশন নাসার শীর্ষ অগ্রাধিকার অর্জন করবে। আর এটি আমেরিকান রকেটে করে আমেরিকান মাটি থেকে আমেরিকান নভোচারীর যাত্রা।

গত ৯ বছর ধরে নাসার নভোচারীদের রাশিয়ার সোয়ুজ মহাকাশযানের উপরের কক্ষপথে যাত্রা চালাতে হয়েছিল। বৃহস্পতিবার উদ্বোধন করা মাস্কের পুনরায় ব্যবহারযোগ্য রকেটগুলি মহাকাশযানের জন্য একটি মাইলফলক হয়ে দাঁড়িয়েছে। যা তার সংস্থা স্পেসফ্লাইটকে কম ব্যয়বহুল এবং ঘন ঘন তৈরি করতে অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছিল। আর এই মহাকাশযানের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো চিহ্নিত হবে যে বাণিজ্যিকভাবে কোন ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠানের বিকশিত হওয়া মহাকাশ যান যা নাসার পরিবর্তে ব্যক্তি মালিকানাধীন এবং পরিচালিত।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লাখ ছাড়ালো

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১২:১৮:২৯

ভারতে করোনার সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। বুধবার দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৫১ হাজার ৭৬৭। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণের শিকার হয়েছেন আরও ৬ হাজার ৩৮৭ জন। এই নিয়ে পর পর ছয় দিন দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার হলো। খবর আনন্দবাজার অনলাইন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনায় মৃত্যু হয়েছে আরও ১৭০ জনের। এর ফলে সারা দেশে করোনায় মোট মৃত ৪ হাজার ৩৩৭ জন। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে কো-মর্বিডিটির কারণে ৭০ শতাংশ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। পৃথিবীর মধ্যে ভারতে করোনায় মৃত্যুর হার সবচেয়ে কম বলেও দাবি করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মোট ৫৪ হাজার ৭৫৮। মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৭৯২ জনের। সারা দেশে মোট আক্রান্তের তিন ভাগের এক ভাগই এই রাজ্যে। আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে তামিলনাড়ু, দিল্লি ও গুজরাটেও। তামিলনাড়ুতে আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ হাজার ৭২৮ জন। গুজরাটে মোট করোনা রোগী এখন ১৪ হাজার ৮২১ জন। দিল্লিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ হাজার ৪৬৫ জন। এ ছাড়াও সংক্রমণ বাড়ছে মধ্যপ্রদেশে ৭ হাজার ২৪, রাজস্থানে ৭ হাজার ৫৩৬, উত্তরপ্রদেশে ৬ হাজার ৫৪৮, অন্ধ্রপ্রদেশে ৩ হাজার ১৭১ জন।

পশ্চিমবঙ্গে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৪ হাজার ৯ জন। এ রাজ্যে মোট ২৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বলেও জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রণায়।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

মসজিদে জুমা’র নামাজের অনুমতি দিয়েছে সৌদি সরকার

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১২:১৭:১৫

আগামী শুক্রবার থেকে মসজিদে গিয়ে জুমা’র নামাজ আদায় করতে পারবে সৌদিবাসী। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার (২৬ মে) এমনটাই জানানো হয়েছে। পাশাপাশি ৩১ মে থেকে সরকারি কর্মচারিরা কাজে যোগ দিতে শুরু করবেন।

জুমা’র নামাজের ২০ মিনিট আগে মসজিদগুলো খুলে দেওয়া হবে। আর নামাজ আদায়ের ২০ মিনিট পর আবার বন্ধ করে দেওয়া হবে। মসজিদে জুমা’র নামাজের অনুমতি দেওয়ার পাশাপাশি লকডাউনও আস্তে আস্তে শিথিল করবে সৌদি। তবে পবিত্র মক্কা নগরীর কারফিউ বহাল থাকবে। ২১ জুনের পর মক্কার কারফিউ তুলে নেওয়ার পরিকল্পনা করছে সৌদি সরকার।

এদিকে দুই মাস পর ৩১ মে থেকে আস্তে আস্তে কাজে যোগ দিতে শুরু করবে সৌদি আরবের সরকারি কর্মচারিরা। ১৪ জুনের পর সব সরকারি অফিস-আদালত খুলে দেওয়া হবে। এমনটাই জানিয়েছেন দেশটির জনসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আহমেদ আল রাজি।

১৬ মার্চ স্বাস্থ্য বিভাগ ছাড়া সব সরকারি অফিস-আদালত বন্ধ ঘোষণা করেছিল সৌদি আরব।

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাজ্যে প্রথমবারের মতো ‘বিচারক’ হলেন মুসলিম নারী

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১১:৫৫:১৮

প্রথমবারের মতো একজন হিজাবধারী মুসলিম নারী ব্রিটেনের বিচারকের আসনে বসেছেন। ৪০ বছর বয়সী হিজাবধারী ওই মুসলিম জজের নাম রাফিয়া এরশাদ। তিনি তরুণ মুসলিমদের জানাতে চান যে, যদি তারা মনে করেন তাহলে সব কিছুই অর্জন করা সম্ভব।

রাফিয়ার বয়স যখন ১১ বছর তখন থেকেই তিনি নিজেকে একজন বিচারক বানানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন। কিন্তু তখন প্রশ্ন উঠেছিল, তার মতো একজন সংখ্যা লঘু সম্প্রদায়ের মুসলিম মেয়ের পক্ষে সেই ইচ্ছা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে তো? কিন্তু মাত্র ৩০ বছরের মধ্যেই তিনি একজন ব্যারিস্টার হয়েছেন এবং সেই সঙ্গে গত সপ্তাহে দেশটির মধ্য-ভূমিতে একজন উপজেলা জজ হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন।

তিনি যুক্তরাজ্য ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম মেট্রেকে বলেন, আমি একজন নারী হয়ে বিচারক হয়েছি, শুধু মুসলিম নারী হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টা তা নয় বরং এটি সব নারীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তবুও এটি মুসলিম নারীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমি আমার অর্জন নিয়ে আনন্দিত। কিন্তু আমি তার চেয়ে বেশি আনন্দিত যখন আমি অন্যদের সঙ্গে আমার এই দীর্ঘ পথচলার বিষয়টা শেয়ার করতে পারি।

তিনি বলেন, এটা ওইসব হিজাবধারী নারীদের বের করে আনতে সহায়তা করবে, যারা কিনা একজন জজ হওয়া তো দূরের কথা, একজন ব্যারিস্টার হওয়ার কথাও কল্পনা করতে পারেন না।

২০০১ সালে আইনের স্কুলে ভর্তি পরীক্ষায় ভাইবা দেওয়ার সময় তার পরিবারের লোকেরা তাকে হিজাব পড়তে বারণ করেছিলেন। যা তিনি জজ হিসেবে যোগদানের পর বর্ণনা করলেন। রাফিয়ার পরিবার বলেছিল যে, যদি সে হিজাব পড়ে তাহলে তার ভর্তির সুযোগ নাটকীয়ভাবে কমে আসতে পারতো। কিন্তু রাফিয়া তার পরিবারের এই চাপকে প্রত্যাখ্যান করেছিল।

তিনি বলেন, আমি এটি পড়ি আমার জন্য। কিন্তু অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছিল যে অন্যরা এটা কতটা গ্রহণ করছে। ভাইবায় যাওয়ার সময় ভেবেছিলাম যদি আমার পেশার জন্য আমাকে এই হিজাব পড়া থেকে বিরত থাকতে হয় তাহলে আমি তা চাই না। তাই আমি হিজাব পড়েই ভাইবা দিয়েছিলাম এবং সফল হয়েছিলাম। এবং আমাকে যথেষ্ট বৃত্তি দেওয়া হয়েছিল। আমি মনে করি এটা আমার ক্যারিয়ারের জন্য সবচেয়ে বড় অর্জন। এটি দৃঢ় হয়ে উঠেছিলো যে, হ্যাঁ আমি পারবো।

লন্ডনে প্রশিক্ষণ শেষ করে ২০০৪ সালে রাফিয়া নটিংহামে এস.টি ম্যারি,র পারিবারিক আইন চেম্বারে শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ শুরু করেন। প্রায় ১৫ বছর যাবত তিনি ব্যক্তিগত ল চেম্বারের জোর করে বিয়ে, ইসলামিক আইনের কোনো কেস, নারী নির্যাতনের উপর চর্চা চালিয়ে যাচ্ছেন। এই কারণে ইসলামি পারিবারিক আইনের একজন দক্ষ নেতৃত্বদানকারী আইনজীবী হয়ে উঠেছিলেন তিনি। তিনি বলেন আমার সফলতার পরেও অনেকেই কোর্টে আমাকে প্রশ্ন করতেন আমি একজন ক্লাইন্ট কি না? আমি উত্তর দিতাম না। আবার প্রশ্ন করতো, তাহলে আপনি একজন দোভাষী? তখনও উত্তরে বলতাম না, আমি সেটাও নই। আবারও বলতো, আপনি এখানে কাজের অভিজ্ঞতা নেওয়ার জন্য এসেছেন? আমি তখনও বলতাম না। আমি আসলে একজন ব্যারিস্টার। আসলে আমার ওই ব্যক্তির প্রতি কোন অভিযোগ নেই। কিন্তু এটা একটি সমাজের প্রতিচ্ছবি বটে।

রাফিয়া বলেন, ব্রিটেনের আদালত আমাকে একজন হিজাবধারী মুসলিম নারী হিসেবে বিচারক নিয়োগ দেননি। বরং তারা আমাকে আমার মেধার মূল্যায়ন করে নিয়োগ দিয়েছেন। শুধু আমাকে, প্রত্যেক পেশার এমন সফলদেরকে অনুপ্রেরণা হিসেবে নিয়ে নারীরা এগিয়ে যেতে পারে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা এক লক্ষ ছাড়ালো

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১১:৪৭:৫৯

প্যান্ডেমিক মহামারী কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসে  যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা এক লক্ষ অতিক্রম করেছে! আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে প্রায় পৌনে দুই মিলিয়ন! ২৮'শে ফেব্রুয়ারী-২০২০ থেকে ২৬'শে মে পর্যন্ত ৮৭ দিনে করোনা কেড়ে নিয়েছে এই এক লক্ষ আমেরিকানের প্রাণ। গড়ে দৈনিক সহস্রাধিক প্রাণহানি ঘটে মরণব্যাধি মহামারী করোনায়।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যু রেকর্ড করা হয়েছিল ২৮'শে ফেব্রুয়ারী ওয়াশিংটন স্টেটের সিয়াটল শহরে। কিন্তু সম্প্রতি ক্যালিফোর্নিয়া স্টেটের সান্টা ক্লারা কাউন্টির(বে-এরিয়া) স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা 6 ফেব্রুয়ারী এবং 17 ফেব্রুয়ারীর দুটি মৃত্যুর পোস্টমর্টেম পরীক্ষা করে নিশ্চিত হন যে, ঐ দুইটি মৃত্যুই হয়েছিলো COVID-19' করোনাভাইরাস থেকে। এই রিপোর্টের মাধ্যমে ধারণা করা হয়, ২৮'শে ফেব্রুয়ারীর কয়েক সপ্তাহ আগেই ক্যালিফোর্নিয়ার সান ফ্রান্সিসকো বে এরিয়াতে ছড়িয়ে পড়েছিল কোভিড-19, যার থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

তবে ঐ মৃত ব্যক্তিদ্বয়ের কোনও ভ্রমণ ইতিহাস ছিল না। তাই তখন তাদের করোনা পরীক্ষা করা হয়নি। স্যান ফ্রান্সিসকো ক্রনিকল জানিয়েছে, প্রাথমিকভাবে সান্টা ক্লারার কর্মকর্তারা ৯ মার্চ তাদের কাউন্টিতে COVID-19 থেকে প্রথম মৃত্যু চিহ্নিত করেছিলো।

যুক্তরাষ্ট্রে COVID-19'এ মৃত্যুর নতুন তথ্য থেকে জানা যায় যে, ফেব্রুয়ারী শুরুর আগেই ক্যালিফোর্নিয়ার স্যানফ্রান্সিসকো বে-এরিয়াতে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছিল। ক্যালিফোর্নিয়াতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পঞ্চম সবচেয়ে বেশী কেস রয়েছে, তবে মৃত্যু ভয়াবহতায় নিউ ইয়র্ক, নিউজার্সি, ম্যাসাচুসেটস, মিশিগান, পেন্সিলভেনিয়া ও ইলিনয় অঙ্গরাজ্যগুলি অগ্রগামী। যুক্তরাষ্ট্রের ৫০'টি অঙ্গরাজ্যের ১ লক্ষ মৃত্যুর মাঝে ঐ ৬'টা অঙ্গরাজ্যেই নিহত হয় অর্ধ-লক্ষাধিক।

কোভিড-19'এ ফেব্রুয়ারী থেকে আজ অবধি ক্যালিফোর্নিয়াতে ৩ হাজার ৭০৮ প্রাণহানি ঘটে, আক্রান্তের সংখ্যা ৯০ হাজার ৬৩১ জন।
♪ ২৬ মে পর্যন্ত নিউইয়র্কে নিহত- ২৩ হাজার ২৮২, আক্রান্ত ৩ লক্ষ ৬০ হাজার।
♪নিউজার্সিতে নিহত-১১ হাজার ৮৪, আক্রান্ত দেড় লক্ষাধিক।
♪ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যে নিহত- ৬ হাজার ৩০৪, আক্রান্ত ৯১ হাজার ৬৬২ জন।
♪মিশিগানে নিহত ৫ হাজার ২২৩, আক্রান্ত ৫৪ হাজার ৩৬৫ জন।
♪পেন্সিলভেনিয়াতে নিহত ৫ হাজার ৯৬, আক্রান্ত প্রায় ৬৭ হাজার।
♪ইলিনয় অঙ্গরাজ্যে নিহত ৪ হাজার ৭৯০, আক্রান্ত এক লক্ষ ৮ হাজারের অধিক।
♪কানেক্টিকাটে নিহত ৩ হাজার ৭৬৯, আক্রান্ত ৪১ হাজার ৩০৩ জন।
♪লুইজিয়ানা স্টেটে নিহত ২ হাজার ৫৬০, আক্রান্ত ৩৭ হাজার ০৪০ জন।
♪ফ্লোরিডাতে নিহত ২ হাজার ৩২৩, আক্রান্ত অর্ধ লক্ষাধিক।
♪ম্যারিল্যান্ডে নিহত ২ হাজার ১৩০, আক্রান্ত প্রায় ৪৬ হাজার।
যেসকল অঙ্গরাজ্যে নিহতের সংখ্যা দুই হাজারের বেশী, শুধু সেই সকল অঙ্গরাজ্যের রিপোর্ট সন্নিবেশিত হল।

১০ই মে থেকে ১৮ই মে পর্যন্ত মৃত্যু ও আক্রান্তের হার কমে আসছিলো। কিন্তু ১৯শে মে থেকে আবার খারাপ হতে থাকে পরিস্থিতি।

পৃথিবীব্যাপী ছড়িয়ে পরা ছোট্ট একটা অজ্ঞাত শত্রুর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নাস্তানাবুদ পৃথিবীর অন্যতম পরাশক্তি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তবে শক্ত হাতে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে দেশটি। পরিস্থিতি মোকাবেলায় এযাবৎ স্বাস্থ্যসেবার সাথে সংশ্লিষ্ট চল্লিশ হাজারের অধিক অবসরপ্রাপ্ত জনবল আবার কর্মক্ষেত্রে যোগদান করে।

মরণব্যাধি মহামারী করোনায় আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে এযাবৎ তিন শতাধিক বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত আমেরিকানের মৃত্যু হয়েছে।

কেউ জানেনা কোথায় গিয়ে দাড়াবে এই মৃত্যুর মিছিল। আত্মসচেতনতা, সামাজিক দুরত্ব ও গৃহবন্দী জীবনের মাঝেই ধর্মীয় নির্ভরশীলতাও দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে মার্কিনীদের। সেই সাথে কর্মের প্রয়োজনে বহির্গমণ'ও বাড়ছে দিন দিন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

১৫ জুন থেকে যুক্তরাজ্যে খুলছে দোকানপাট

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৬ ১০:২৫:১৭

করোনাভাইরাসের বিস্তার এখনকার মতো নিয়ন্ত্রণের রাখতে পারলে ব্রিটেনে ১৫ জুন থেকে সব অপ্রয়োজনীয় খুচরা দোকানপাট খোলা হবে ঘোষণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

ব্রিটেনে করোনায় মারা গেছেন ৩৬ হাজার ৯১৪ জন,যা ইউরোপে সর্বোচ্চ। তবে বর্তমান সময়ে সংক্রমণ ও মৃত্যু কমতে শুরু করেছে। পরিস্থিতি বিবেচনা করে ১ জুন থেকে আউটডোর মার্কেট ও ছোট বাচ্চাদের জন্য স্কুল খোলা হচ্ছে।

জনসন বলেছেন, ‘আমরা যে অগ্রগতি ধরে রেখেছি, তাতে আমি আত্মবিশ্বাসী যে ব্রিটিশ জনগণ এবার পরবর্তী ধাপে যেতে পারে। ১৫ জুন থেকে আমরা সব অপ্রয়োজনীয় দোকানপাট খোলার অনুমতি দেবো। ডিপার্টমেন্টাল স্টোর থেকে শুরু করে ছোটখাটো খুচরা দোকান খোলা যাবে।’ তবে তার আগে কোভিড-১৯ রোগের বিরুদ্ধে দেশ কতটা নিরাপদ তা নিশ্চিত করতে হবে।

১৫ জুন থেকে প্রাপ্তবয়স্কদের জন্যও স্কুল খোলা হবে বললেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী। তবে সবাইকে সতর্ক থাকার কথা মনে করিয়ে দিলেন জনসন, ‘আমরা ধীরে ধীরে স্কুল আবার খোলার নির্দেশ দিচ্ছি। আমি আত্মবিশ্বাসী যে এই সময়ে ব্রিটিশ জনগণের কাণ্ডজ্ঞান ঠিক থাকবে।’


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্ত ৫৬ লাখ ছাড়িয়েছে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৬ ০৯:৪১:০৬

বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬ লাখ ছাড়ালো। মঙ্গলবার করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সংখ্যা নিয়ে সর্বশেষ তথ্য সরবরাহকারী ওয়েবসাইটে ওয়ার্ল্ড মিটার এ তথ্য জানিয়েছে।

তালিকায় দেখা গেছে, আক্রান্তদের দুই তৃতীয়াংশই ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রের। করোনায় মৃতের সংখ্যাও বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে এই দুই অঞ্চলে বেশি।

ওয়ার্ল্ড মিটার জানিয়েছে, বিশ্বে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে ১৯ লাখ ২৭ হাজার জন ইউরোপের। এদের মধ্যে মারা গেছেন ১ লাখ ৬৮ হাজার ৭৬৮ জন। উত্তর আমেরিকার দেশ যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ লাখ ৫ হাজার ৪৪৬ জন। এদের মধ্যে মারা গেছেন ১ লাখ ১৫ হাজার ২৭৩ জন।

তালিকায় এর পরের অবস্থানেই আছে এশিয়া মহাদেশ। এই অঞ্চলের দেশগুলোতে ৯ লাখ ৯২ হাজার ৮১৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। আর মারা গেছেন ২৭ হাজার ৯৮৩ জন আক্রান্ত। দক্ষিণ আমেরিকায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৫৬ হাজার ৬১২ জন এবং মৃতের সংখ্যা ৩২ হাজার ৬৪৯।  আফ্রিকায় ১ লাখ ১৮ হাজার ৩১৮ জন আক্রান্ত হয়েছে এবং ৩ হাজার ৫১১ জন মারা গেছে।

বিশ্বে করোনায়ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত দুটির সংখ্যাই কম, ওশেনিয়াতে। এই অঞ্চলে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ৭৪১ জন এবং মারা গেছেন ১২৩ জন।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

দ্বিতীয়বার আক্রমণ করতে পারে করোনা: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৬ ০৯:৩৭:৪৩

করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যেসব দেশে কমেছে সেসব দেশে দ্বিতীয় দফায় সর্বোচ্চ আক্রান্তের ব্যাপারে হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। করোনার বিস্তার রোধে যেসব নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল সেগুলো দ্রুত প্রত্যাহার করে নিলে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে বলে সোমবার জানিয়েছে সংস্থাটি।

সংস্থার জরুরি বিভাগের প্রধান ডা. মাইক রায়ান অনলাইন ব্রিফিংয়ে জানিয়েছেন, বিশ্ব এখন করোনার প্রাদুর্ভাবের প্রথম আঘাতের মাঝামাঝি অবস্থায় রয়েছে। কিছু দেশে করোনা সংক্রমণ কমলেও এখনও মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকা, দক্ষিণ এশিয়া এবং আফ্রিকার কিছু দেশে সংক্রমণের হার বাড়ছে।

তিনি জানান, মহামারি প্রায়ই ঢেউয়ের মতো আসে। এর মানে হচ্ছে যেসব এলাকায় করোনার প্রথম ধাক্কাটি চলে গেছে সেসব স্থানে চলতি বছরের শেষ নাগাদ দ্বিতীয় আঘাতটি আসতে পারে। প্রথম ধাক্কার পর নিষেধাজ্ঞাগুলো দ্রুত প্রত্যাহার করে নিলে সংক্রমণের হার দ্রুত বাড়ার আশঙ্কাও রয়েছে।

রায়ান বলেন, ‘আমরা যখন দ্বিতীয় ঢেউয়ের কথা বলব তখন ক্লাসিক্যালি প্রায়ই যেটা বোঝাই সেটা হচ্ছে, রোগটি নিজেই প্রথম ঢেউ এবং কয়েক মাস পর এটি ফিরে আসে। কয়েক মাসের মধ্যে অনেক দেশের বেলাতেই এটি বাস্তব চিত্র হতে পারে।’

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই কর্মকর্তা বলেন, ‘তবে রোগটি যে কোনো সময় বাড়তে পারার বিষয়টিও আমাদের অবগত হতে হবে। রোগের প্রকোপ এখন যেভাবে কমছে তাতে কয়েক মাস এই ধারা অব্যাহত থাকবে সেই অনুমান আমরা করতে পারি না এবং আমরা কয়েক মাসের মধ্যে দ্বিতীয় ঢেউ পেতে যাচ্ছি। এই ঢেউয়ে আমরা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পর্যায়ে চলে যেতে পারি।’

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

প্রকাশ্যে এসেই পারমাণবিক যুদ্ধ সক্ষমতা বাড়নোর নির্দেশ উনের

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৪ ১১:২২:২৮

তিন সপ্তাহ পর প্রকাশ্যে এসেই পারমাণবিক যুদ্ধ সক্ষমতা বাড়ানোর ওপর জোর দিলেন উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন। রোববার দেশটির সরকারি বার্তা সংস্থা কেসিএনএ এ তথ্য জানিয়েছে।

টেলিভিশনে প্রচারিত দৃশ্যে দেখা গেছে, ক্ষমতাসীন দল ওয়ার্কার্স পার্টির শীর্ষ নেতারা বৈঠকে উনকে স্বাগত জানাচ্ছেন। দলের শক্তিশালী সেন্ট্রাল মিলিটারি কমিশনের বৈঠকে উনসহ কাউকে মাস্ক পরা অবস্থায় দেখা যায়নি।

বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার সামরিক সক্ষমতা বাড়ানোর ওপর জোর দেওয়া হয়। একইসঙ্গে  শত্রুবাহিনীর বড় বা ছোট সামরিক হুমকি মোকাবিলায় পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলা হয়।

কেসিএনএ বলেছে, বৈঠকে ‘দেশের পারমাণবিক যুদ্ধ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং কৌশলগত সামরিক বাহিনীকে উচ্চ সতর্ক অভিযানে নিয়োজিত করার কথা বলা হয়।’ একইসঙ্গে গোলন্দাজ বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ক্ষমতা বৃদ্ধিতে গুরতর পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়’ আলোচনা হয়েছে।

গত ১২ এপ্রিল থেকে পহেলা মে পর্যন্ত কিম জং উনকে জনসম্মুখে দেখা যায়নি। ওই সময় কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে দাবি করা হয়, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন উন। অস্ত্রোপচারের পর তার অবস্থা সংকটজনক। আবার কেউ কেউ দাবি করেন, মারাই গেছেন উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা। তবে সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ২ মে জনসম্মুখে হাজির হন তিনি। এর আবার তিন সপ্তাহ দেখা মেলেনি উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতার। দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা জানান, হয়তো করোনা সংক্রমণ নিয়ে আতঙ্কের কারণে উন সরকারি বিভিন্ন অনুষ্ঠান এড়িয়ে যাচ্ছেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

দুর্নীতির মামলায় কাঠগড়ায় ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৪ ১১:১৮:৪৬

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার কয়েক দিনের মাথাতেই দুর্নীতির অভিযোগে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হলো ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে। দেশটির ইতিহাসে ক্ষমতায় থাকাকালে নেতানিয়াহুই প্রথম প্রধানমন্ত্রী যাকে রোববার  ফৌজদারি মামলায় শুনানির জন্য আদালতে হাজির হতে হলো।

মাত্র এক সপ্তাহ আগেই পঞ্চমবারের মতো ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন নেতানিয়াহু। গত বছর নভেম্বরে তার বিরুদ্ধে ঘুষ, জালিয়াতি ও বিশ্বাস ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়। অবশ্য তিনি সব অভিযোগই অস্বীকার করেছেন।

রোববার আদালতে হাজির হয়ে নেতানিয়াহু দাবি করেন, তাকে যে কোনো পন্থায় ক্ষমতা থেকে উৎখাতের জন্য এসব মামলা দায়ের করা হয়েছিল।

জেরুজালেম জেলা আদালতে প্রবেশের আগে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি এখানে স্পষ্ট জবাব দিতে এবং আমার মাথা সমুন্নত রাখতে এসেছি।’

তিনি বলেন,‘আপনি যখন আমাকে সরাতে চাইবেন, সঠিক পথ থেকে এক জন শক্তিশালী প্রধানমন্ত্রীকে সরাতে চাইবেন, তখন সবকিছুই সম্ভব।’

আধা ঘণ্টা শুনানির পর আদালত জানান মামলার পরবর্তী শুনানি ১৯ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে। আদালত নেতানিয়াহুকে ব্যক্তিগত হাজিরা থেকেও অব্যাহতি দেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

২৮ বছর পর পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৩ ১৩:৪৭:৫৯

২৮ বছর পর প্রথম পারমাণবিক বোমার পরীক্ষা করতে চাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়া ও চীনকে একটি ত্রিপক্ষীয় অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ চুক্তির জন্য চাপ প্রয়োগ করতেই এটি করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে ট্রাম্প প্রশাসনের এক শীর্ষ নিরাপত্তা কমকর্তা জানিয়েছেন।

ওই কর্মকর্তা জানান, গত ১৫ মে হোয়াইট হাউজে ‘ডেপুটিদের বৈঠকে’ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে এই প্রস্তাবটি আপাতত সরিয়ে রাখা হয়েছে।

মার্কিন কংগ্রেসের এক সহকারী বলেছেন, ‘ঈশ্বরকে ধন্যবাদ,বৈঠকে কয়েক জন পেশাদার ব্যক্তি ছিলেন যারা বলেছেন, এটা ভয়ঙ্কর চিন্তাভাবনা।’

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট শুক্রবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, মস্কো ও বেইজিংকে অস্ত্র পরীক্ষার এই দ্রুত প্রদর্শনী দেখিয়ে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষরে রাশিয়া ও চীনকে নিয়ে আসতে দর কষাকষি করতে যুক্তরাষ্ট্রকে সাহায্য করবে। অবশ্য এ ক্ষেত্রে রাশিয়ার চেয়ে চীনের ওপরই গুরুত্ব দিচ্ছে বেশি ট্রাম্প প্রশাসন।

ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মকর্তাদের মধ্যে পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষার এই আলোচনার বিষয়টি এমন সময় প্রকাশ পেল যখন বিশ্বে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ চুক্তিগুলো ঝুঁকির মধ্যে আছে।  ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র তিনটি অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ চুক্তি থেকে বের হয়ে গেছে। সর্বশেষ ট্রাম্প প্রশাসন ওপেন স্কাইস ট্রিটি (উন্মুক্ত আকাশ চুক্তি) থেকে ওয়াশিংটনকে প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে। এই চুক্তির বদৌলতে রাশিয়া ও অন্যান্য পশ্চিমা দেশগুলো পরস্পরের আকাশসীমার ওপর নজরদারির সুযোগ পেতো।

এই মুহূর্তে গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র চুক্তিগুলোর মধ্যে কেবল ২০১০ সালে সম্পাদিত নিউ স্টার্ট চুক্তিটি বলবৎ আছে। এই চুক্তির মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার কৌশলগত ওয়্যারহেড মোতায়েনের সীমা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। আগামী বছর ফেব্রুয়ারিতে এই চুক্তির মেয়াদ শেষ হতে যাচ্ছে। ট্রাম্প প্রশাসন জানিয়েছে, চীনকে পক্ষভুক্ত করা না গেলে এই চুক্তি তারা আর নবায়ন করবে না। তবে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের তুলনায়  নিজেদের ওয়্যারহেডের সংখ্যা একেবারেই কম দাবি করে চীন চুক্তির পক্ষভুক্ত হতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

এক প্রাক্তন কর্মকর্তা  বলেছেন, ‘চীনকে ত্রিপক্ষীয় চুক্তিতে নিয়ে আসতে তারা ভূগর্ভস্থ পরীক্ষার বিষয়ে আলোচনা করেছেন। প্রশাসনের পেশাজীবীরা এই ধারণাকে অকার্যকর ও নির্বোধ বলে বাতিল করে দেন। এই বোর্ডে নিশ্চিতভাবে এনএমএসএ (ন্যাশনাল নিক্লিয়ার সিকিউরিটি অ্যাডমিনেস্ট্রেশন) ছিল না। ধারণা করা হচ্ছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও এতে যুক্ত ছিল না।’

বিস্তারিত খবর

ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন ট্রাম্প

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৩ ১৩:৪৭:১৮

যুক্তরাষ্ট্র ও বিশ্বের মুসলিমদের ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শনিবার এক বার্তায় তিনি এ শুভেচ্ছা জানান।

ট্রাম্প বলেছেন, ‘মুসলমানরা যখন ঈদুল ফিতর পালন করবে, আমরা আশাবাদী তারা প্রার্থনা ও উপাসনার আরোগ্য ক্ষমতাবলে শান্তি ও সমৃদ্ধি খুঁজে পাবে। গত সপ্তাহ ও মাসগুলোতে আমরা করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যখন লড়াই করছি তখন আমাদের বিশ্বাসের ওপর আস্থা রেখে, পরিবার ও বন্ধুদের এই অপ্রত্যাশিত সময়ে পথ চলতে সহযোগিতা করেছি আমরা ।’

তিনি বলেন, ‘এখন আগের চেয়ে বেশি আমাদেরকে শান্তির নিশ্চয়তা, ভালোবাসা বৃদ্ধি এবং বন্ধুদের কাছে টেনে নেওয়া স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে, যেটি ধর্ম আমাদের জীবনে নিয়ে এসেছে। সৌভাগ্য ও আনন্দময় ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানাই আমরা।’

বিস্তারিত খবর

করোনা ভাইরাসে আমেরিকার ধনীরা আরো ধনী

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২২ ১৬:০৯:১৫

করোনা কালে মার্চের মাঝামাঝি থেকে চলতি মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত আমেরিকার ধনীদের সম্পদ বেড়েছে ৪৩৪ বিলিয়ন ডলার (প্রায় ৩৭ লাখ কোটি টাকা)। আমেরিকানস ফর ট্যাক্স ফেয়ারনেস এবং ইনস্টিটিউট ফর পলিসি ইনস্টিটিউটের ‘প্রোগ্রাম ফর ইকুয়ালিটি’র রিপোর্ট জানিয়েছে এই তথ্য।

আমেরিকার ৬০০-এরও বেশি কোটিপতির তথ্য থেকে রিপোর্টটি তৈরি করা হয়েছে। মার্চের ১৮ তারিখ থেকে মে মাসের ১৯ তারিখ পর্যন্ত লকডাউন চলাকালীন তাদের আয় সংক্রান্ত তথ্য জানিয়েছে ফোর্বস। প্রতিবেদনটি বলছে, এই দুই মাসে আমেরিকার কোটিপতিদের মোট সম্পদের পরিমাণ ১৫ ভাগ বেড়েছে। ২ দশমিক ৯৪৮ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে হয়েছে ৩ দশমিক ৩৮২ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার। শীর্ষ পাঁচ ধনী জেফ বেজোস, মার্ক জাকারবার্গ, বিল গেটস, ওয়ারেন বাফেট এবং ল্যারি এলিসনের মোট ৭৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সম্পদ বেড়েছে।

গত দুই মাসে শতকরা হিসেবে বেশি লাভ হয়েছে এলন মাস্কের। তার মোট সম্পদ বেড়েছে শতকরা ৪৮ ভাগ। এরপরেই আছেন জাকারবার্গ, যার বেড়েছে ৪৬ ভাগ, বেজোসের ৩১ ভাগ। আমাজনের জেফ বেজোসের সম্পদে যোগ হয়েছে ৩৪ দশমিক ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা প্রায় ৩ লাখ কোটি টাকা। ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের সম্পদে যোগ হয়েছে বাড়তি ২৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ২ লাখ ১২ হাজার কোটি টাকার বেশি।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

চাঁদ দেখা যায়নি, সৌদি আরবে রোববার ঈদ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২২ ১৬:০২:১৬

সৌদি আরবে পবিত্র ঈদু-উল-ফিতর রোববার অনুষ্ঠিত হবে। দেশটির কোথাও চাঁদ দেখা না যাওয়ায় এ বছর রোজা ৩০ দিন অনুষ্ঠিত হবে। সে অনুযায়ী দেশটিতে ২৪ মে পবিত্র ঈদ পালন করা হবে। খবর- আরব নিউজ।

শুক্রবার সৌদির উচ্চতর বিচার বিভাগীয় কাউন্সিল এ ঘোষণা দেয়। দেশটিতে শেষ রোজা শনিবার অনুষ্ঠিত হবে।

তবে দেশটির মসজিদগুলোতে এবার ঈদ-উল-ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে শুক্রবার সৌদি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

পাকিস্তানে বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৮০

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২২ ১৫:৫৯:৪৯

পাকিস্তানের করাচিতে যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৮০ জন নিহত হয়েছেন। দেশটির স্বাস্থ্যকর্মীরা এই তথ্য জানান। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এছাড়া নিহতদের মধ্যে কতজন ওই বিমানের আরোহী না স্থানীয় বাসিন্দা তা নিশ্চিত করা যায়নি।

দেশটির বিমান চলাচল কর্মকর্তারা জানান, শুক্রবার পাকিস্তান ইন্টারন্যাশানাল এয়ারলাইন্সের (পিআইএ) জেট বিমান এ-৩২০ এ, ৯১ জন যাত্রী এবং ৮ জন বিমান কর্মী ছিলেন। লাহোর থেকে বিমানটি যাত্রা শুরু করে পাকিস্তানের অন্যতম ব্যস্ত একটি বিমানবন্দর করাচির জিন্নাহ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাচ্ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিমানটি বিধ্বস্তের আগে দুই থেকে তিন বার অবতরণের চেষ্টা করে। কিন্তু শেষমেশ করাচির একটি আবাসিক এলাকায় বিধ্বস্ত হয়ে যায় বিমানটি।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জিন্নাহ বিমানবন্দর থেকে বিমানটি মাত্র প্রায় এক মিনিটের দূরত্বে ছিল।

শাকিল আহমেদ নামে স্থানীয় একজন বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, বিমানটি প্রথমে একটি মোবাইল টাওয়ারে আঘাত করে। এরপর বাড়ির উপরে বিধ্বস্ত হয়ে পড়ে।

দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা আশঙ্কা করছেন, দুর্ঘটনায় আরও অনেকে হতাহত হয়েছে। উদ্ধার কাজ অব্যাহত রয়েছে।

পাকিস্তানের টিভি ফুটেজ থেকে দেখা গেছে, ওই এলাকার বহু বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একজন প্রত্যক্ষদর্শী মোহাম্মদ উজায়ের বিবিসি উর্দু বিভাগকে জানিয়েছেন, বিকট আওয়াজ শুনে তিনি বাইরে বেরিয়ে আসেন।

তিনি বলেন, প্রায় চারটি বাড়ি পুরো বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। প্রচুর ধোঁয়া আর আগুন জ্বলছে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এক টুইট বার্তায় জানান, দুর্ঘটনার খবরে তিনি মর্মাহত এবং দু:খিত। সেইসঙ্গে অবিলম্বে ঘটনার তদন্তের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

লকডাউনে জুম কলে অপরাধীকে মৃত্যুদণ্ড দিলেন আদালত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২১ ০৪:৪৯:৫৬

করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ। তাই ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ জুম কলেই এক মাদকাপাচারকারীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন সিঙ্গাপুরের আদালত।

মাদক পাচারে যুক্ত থাকায় পুনিথান গেনাসান নামের এক ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে গত সপ্তাহে। ৩৭ বছরের ওই ব্যক্তি মালয়েশিয়ার বাসিন্দা। সিঙ্গাপুরের সুপ্রিম কোর্টের তথ্য অনুযায়ী, ২০১১ সালে ২৮.৫ গ্রাম হেরোইনসহ ধরা পড়ে ওই মাদকপাচারকারী।

পুনিথানকে ‘মাদক পাচারের অন্যতম হোতা’ বলে আখ্যা দিয়েছেন আদালত। জুম কলে দণ্ড দেওয়ার কথা সিএনএনকে নিশ্চিত করেছেন তার পক্ষের আইনজীবী।

সুপ্রিম কোর্টের একজন মুখপাত্র বলেছেন, ‘কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধ করার পদক্ষেপ হিসেবে কোর্ট দূর থেকে শুনানির আয়োজন করেছে। সিঙ্গাপুরে এটাই প্রথম মামলা যেখানে দূর থেকে কারো মৃত্যুদণ্ডের রায় দেওয়া হলো।’

সিঙ্গাপুরে করোনাভাইরাসে অন্তত ২৯ হাজার ৩৬৪ জন আক্রান্ত হয়েছে এবং মৃতের সংখ্যা ২২।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

আম্ফানের তাণ্ডবে আমরা ধ্বংসস্তূপের ওপর দাঁড়িয়ে আছি: মমতা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২১ ০৪:৪৪:০০

ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’র তাণ্ডবের পর ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘আমরা ধ্বংসম্তূপের ওপর দাঁড়িয়ে আছি’।এমন পরিস্থিতিতে রাজনীতি দূরে রেখে কেন্দ্রীয় সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

আনন্দবাজার পত্রিকার অনলাইন সংস্করণের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একের পর এক জেলা থেকে বিপর্যয়ের খবর শুনে বুধবার রাতে নবান্নে (পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সচিবালয়) মুখ্যমন্ত্রীকে দৃশ্যত বিধ্বস্ত দেখায় দেখাচ্ছিল। দেশবাসীর কাছে সহায়তার আর্জি জানান মমতা। তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিকভাবে এই ঝড়কে না দেখে মানবিকতার দিক দিয়ে দেখুন। এখন রাজনীতি দূরে থাক। বাংলাকে ধ্বংস থেকে উন্নয়নের পথে ফের দাঁড় করাতে হবে। সবার সহযোগিতা চাচ্ছি’।

পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি জানতে মমতার সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন বিরোধী দল কংগ্রেসের নেত্রী সোনিয়া গান্ধী।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘সব হিসেব উল্টে গেছে। কারও ভবিষ্যদ্বাণী মিললো না। পুরো ঝড় বাংলার উপর দিয়ে গেছে। করোনার জন্য অর্থনীতির অবস্থা শেষ। তার ওপর এই দুর্যোগ। কোনও রোজগার নেই। পুনর্গঠন করতে অনেক টাকা লাগবে’।

বিপর্যয়ের বিবরণ দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এলাকার পর এলাকা ধ্বংস হয়েছে। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। প্রশাসন পাঁচ লাখ মানুষকে সরাতে পেরেছে। ১৭৩৭ সালে এমন ভয়ঙ্কও ঝড় হয়েছিল। ওয়ার রুমে বসে আছি আমি। নবান্নে আমার অফিস কাঁপছে। একটা কঠিন পরিস্থিতির যুদ্ধকালীন মোকাবিলা করলাম। নন্দীগ্রাম, রামনগর এলাকায় বড় ক্ষতি হয়েছে। দক্ষিণ ও উত্তর ২৪ পরগনা প্রায় ধ্বংস হয়ে গেছে ঝড়ের দাপটে। মোট ক্ষতি এখনও হিসেব করা যায়নি। অনেক জায়গায় বিদ্যুৎ নেই, পানি নেই। পাথরপ্রতিমা, নামখানা, কাকদ্বীপ, কুলতলি, বারুইপুর, সোনারপুরসহ সব জায়গায় ধ্বংসের ছবি। রাজারহাট, হাসনাবাদ, সন্দেশখালি, গোসাবা বিপর্যস্ত’।

এতদিন কলকাতায় থাকলেও এমন ঝড় দেখেননি বলে মন্তব্য করেছেন পশ্চিমবঙ্গের তৃণমুল দলীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা। তিনি বলেন, ‘ঝড় সব শেষ করে দিয়ে গেছে। ১০-১২ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। বিস্তারিত খবর পেতে সময় লাগবে’।

মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, বৃহস্পতিবার টাস্ক ফোর্সেও বৈঠক ডাকা হয়েছে। সেখানে প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতির হিসেব করে ত্রাণের কাজে নামবে প্রশাসন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে ৯৩ হাজারের বেশি প্রাণহানি

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২১ ০৪:৩৭:৫৫

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় দেড় হাজারের বেশি মৃত্যু হয়েছে। তাতে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাবে দেশটিতে কোভিড-১৯ রোগে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৯৩ হাজার ৪৩৯ জন।

আর একদিনে আক্রান্ত হয়েছে ২৩ হাজারের বেশি মানুষ, মোট সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৫ লাখ ৫১ হাজার ৮৫৩ জন।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য বলছে, বুধবার একদিনে মোট মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৫১৮ জনের। আর নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ২৩ হাজার ২৮৫ জন।

সেরে উঠেছে ২ লাখ ৯৪ হাজার ৩১২ জন। অবশ্য ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য মতে, যুক্তরাষ্ট্রে ১৫ লাখ ৯৩ হাজার ৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৯৪ হাজার ৯৪১ জনের।

গত ডিসেম্বরে চীনে করোনা সংক্রমণের পর ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। যাতে মোট আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ৫০ লাখ। আর মৃত্যু ৩ লাখ ২৯ হাজারের বেশি।

আক্রান্ত আর মৃতের হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রের ধারেকাছে কেউ নেই। দেশটির সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গরাজ্য নিউইয়র্ক, সেখানে ৩ লাখ ৬০ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ২৮ হাজার ৬৩৬ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

বিশ্বব্যাপী করোনা আক্রান্ত অর্ধকোটি ছাড়াল

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২০ ১৫:৫৭:৩৭

ভয়াবহ সংক্রামক ভাইরাস করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বিশ্ব জুড়ে অর্ধকোটি ছাড়িয়ে গেল। সেই চীনের উহান থেকে যাত্রা শুরু করে একের পর এক দেশে হানা দিয়ে বিশ্বব্যবস্থা পর্যুদস্ত করা এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা গতকাল বুধবার পর্যন্ত ছিল ৫০ লাখ ১৬ হাজার ৭২০ জন। আর এর শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ৩ লাখ ২৫ হাজার ৫৫৬ জন।

আক্রান্তের দিক দিয়ে সবচেয়ে খারাপ অবস্থানে আছে যুক্তরাষ্ট্র। ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশটিতে গতকাল পর্যন্ত আক্রান্ত ১৫ লাখ ৭২ হাজার এবং মারা গেছে প্রায় ৯৪ হাজার। অবশ্য যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, স্পেন, ইতালিসহ বেশ কয়েকটি দেশে সংক্রমণ এবং মৃত্যু উভয়টি কমলেও রাশিয়া, ব্রাজিল, ভারতসহ অনেক দেশে বাড়ছে দ্রুতগতিতে। স্পেনে কমতে কমতে শূন্যের দিকে যাচ্ছে যা দেশটির জন্য সুখবর। ইতিমধ্যে সারা বিশ্বে সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রায় ২০ লাখ। তবে রাশিয়া এবং ব্রাজিলের ক্রমবর্ধমান কোভিড সংক্রমণ চিন্তায় ফেলেছে বিশেষজ্ঞদের। উদ্বিগ্ন নির্দিষ্ট দুই দেশের প্রশাসনও।

করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে রাশিয়া। সেখানে ৩ লাখ পেরিয়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। রাশিয়ায় কোভিড-১৯ সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৩ লাখ ৮ হাজার ৭০৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ৭৬৪ জন। সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৯৭২ জনের। করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে বিশ্বের কোভিড পরিসংখ্যানে চতুর্থ স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা মোট ২ লাখ ৭১ হাজার ৮৮৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৭ হাজার ৯৮৩ জনের। আর সংক্রমণ সারিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ লাখ ৬ হাজার ৭৯৪ জন।

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে লাফিয়ে বাড়ছে ভারতের করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও। আর সেই সঙ্গে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ভয় জাঁকিয়ে বসছে ভারতের বুকে। ইতিমধ্যে ১ লাখ ছাড়িয়েছে সংক্রমণের সংখ্যা। মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৩০২ জনের। পাকিস্তানেও আক্রান্তের সংখ্যা ৪৫ হাজার ছাড়িয়ে গেছে, আর মৃত্যু হয়েছে ৯৮৫ জনের।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

পশ্চিমবঙ্গে আম্ফানে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি, ১০-১২ জনের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২০ ১৫:২১:২৮

সুপার সাইক্লোন আম্পানের আঘাতে ১০-১২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সরকারি বাসভবন নবান্নে স্থানীয় সময় বুধবার রাত ৯টায় সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।

মমতা বলেন, দুই ২৪ পরগনা ধ্বংস হয়ে গেছে...বাড়িঘর, নদী বাঁধ ভেঙে গেছে, ক্ষেত ভেসে গেছে।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, আম্পানের আঘাতে এখন পর্যন্ত ১০ থেকে ১২ জনের মৃত্যুর খবর এসেছে। তবে প্রকৃত সংখ্যাটা এখনই বলা যাবে না।

সারাদিনই নবান্নের কন্ট্রোল রুম থেকে ঝড়ের গতিপ্রকৃতি খোঁজখবর রাখছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, পাথরপ্রতিমা, নামখানা, বাসন্তী, কুলতলি, বারুইপুর, সোনারপুর, ভাঙড় থেকে যা খবর এসেছে তা ভয়াবহ। খারাপ খবর উত্তর ২৪ পরগনা থেকেও। তবে ক্ষয়ক্ষতি কতটা হয়েছে, সেই সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য পেতে ৩-৪দিন লেগে যাবে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, এলাকার পর এলাকা ধ্বংস হয়ে গেছে। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। প্রশাসন ও সাধারণ মানুষের সাহায্যে ৫ লাখ মানুষকে সরাতে পেরেছি।

নন্দীগ্রাম ও রামনগরসহ একাধিক এলাকায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, নন্দীগ্রাম, রামনগর প্রভৃতি এলাকায় বড় ক্ষতি। দক্ষিণ ও উত্তর ২৪ পরগনা প্রায় ধ্বংস ঝড়ের দাপটে। গাছ পড়ে মানুষ মারা গেছেন। মোট ক্ষতি এখনও গণনা করা যায়নি। অনেক জায়গায় বিদ্যুৎ নেই, পানি নেই। পাথরপ্রতিমা, নামখানা, কাকদ্বীপ, কুলতলি, বারুইপুর, সোনারপুর সব জায়গায় ধ্বংসের ছবি। রাজারহাট, হাসনাবাদ, সন্দেশখালি, গোসাবা, হাবড়া সব জায়গাই বিপর্যস্ত।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

করোনা আক্রান্তে শীর্ষস্থানে থাকাকে সম্মানের বললেন ট্রাম্প

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২০ ০৩:৫১:০৫

কোভিড-১৯ মহামারীতে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের আশপাশেও নেই কোনো দেশ।আর এ বিষয়টিকেই যুক্তরাষ্ট্রের জন্য মর‌্যাদার বিষয় হিসেবে দেখছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

করোনাভারাস প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর মঙ্গলবার মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক চলাকালে এ কথা বলেন ট্রাম্প।খবর বিবিসির।

হোয়াইট হাউসের ইস্ট রুমে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠক চলাকালে সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেন, প্রসঙ্গক্রমে যখন আপনারা বলেন, আক্রান্তের সংখ্যায় আমরা শীর্ষে আছি, এর কারণ হল, অন্য যে কারো চেয়ে বেশি পরীক্ষা করছি আমরা।

‘আমি এটাকে নিশ্চিত সম্মানের বিষয় হিসেবে দেখি, ভালো ব্যাপার হিসেবে দেখি। কারণ এটা দিয়ে বোঝায়, আমাদের টেস্টিং কতটা ভালো।’

তিনি যোগ করেন, যাই হোক, আপনারা যখন জিজ্ঞেস করেন আমরা আক্রান্তের তালিকায় শীর্ষে। এর কারণ হলো- আমরা যে কারোর চেয়ে অনেক বেশি টেস্ট করছি। তাই আমাদের অনেক বেশি আক্রান্ত। আমি এটাকে খারাপ হিসেবে দেখি না।

‘আমি তো মনে করি, এটা সম্মানের একটা ব্যাজ। সত্যি, এটা সম্মানের একটা ব্যাজ। এটা ব্যাপক হারে টেস্টিংয়ের প্রতি অনেক প্রশংসা। আমাদের অগণিত পেশাদারি যারা এসব কাজ করেছে তাদের প্রতি প্রশংসা।’

বুধবার সকালে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর সিস্টেম সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (সিএসএসই) হালনাগাদ করা তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ লাখ ২৮ হাজার ৫৬৮ জন এবং মৃতের সংখ্যা প্রায় ৯২ হাজার।

আর ওয়াল্ডওমিটারের তথ্যে বলা হয়েছে, বুধবার সকাল সাড়ে ৯ টা পর‌্যন্ত কোভিড-১৯ এ যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৭০ হাজার ৫৮৩ জন। আর মারা গেছেন ৯৩ হাজার ৫৩৩ জন।সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ লাখ ৬১ হাজার ১৮০ জন।আক্রান্তদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৪ লাখ ৫৪ হাজার ৭১৩ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোলের (সিডিসি) তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র এক কোটি ২৬ লাখ করোনাভাইরাস পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস ছড়ানোয় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ব্যর্থতাকেই দায়ী করছেন অনেকে।এক টুইটে রিপাবলিকান এই প্রেসিডেন্টের সমালোচনা করে ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কমিটি বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রে ১৫ লাখ কোভিড-১৯ রোগী ‘নেতৃত্বের সম্পূর্ণ ব্যর্থতার’ নিদর্শন।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক বৈজ্ঞানিক প্রকাশনা ‘আওয়ার ওয়াল্ড ডাটা’ তথ্য অনুযায়ী, সংখ্যার হিসেবে অন্য যে কোনো দেশের চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বেশি পরীক্ষা হলেও মাথাপিছু পরীক্ষার হিসেবে দেশটি বিশ্বে শীর্ষে নেই, বরং ১৬তম স্থানে আছে।

প্রতি হাজারে পরীক্ষার হিসাবে দক্ষিণ কোরিয়ার আগে থাকলেও যুক্তরাষ্ট্র আইসল্যান্ড, নিউ জিল্যান্ড, রাশিয়া ও কানাডার মতো বেশ কয়েকটি দেশের চেয়ে পিছিয়ে আছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত