যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ২৩ Jul, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 03:43pm

|   লন্ডন - 10:43am

|   নিউইয়র্ক - 05:43am

  সর্বশেষ :

  জার্মান থেকে অবসরই নিয়ে ফেললেন ওজিল   টরোন্টোতে ১৫ জনকে গুলি, হামলাকারীসহ নিহত ২   ওয়েস্ট ইন্ডিজে বাংলাদেশের দাপুটে জয়   মাহমুদুর রহমান ইউনাইটেডে ভর্তি, দেখতে গেলেন ফখরুল   জাপানে তাপদাহে ৩০ জনের মৃত্যু   মসজিদে নববীর সাবেক ইমাম ও মুসাইদ আত তাইয়ার গ্রেফতার   গরু চোরাচালানি সন্দেহে ভারতে মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা   কাবুল বিমানবন্দরের প্রবেশ পথে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১১   বিনামূল্যে চিকিৎসা পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা   কুষ্টিয়ায় ছাত্রলীগের হামলায় মাহমুদুর রহমান গুরুতর আহত   বৃহৎ শ্রমবাজারে কর্মী যাওয়া নেমে এসেছে অর্ধেকে   ভালো ব্যবসার জন্য প্রয়োজন দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা : নিউইয়র্কে বিজনেস ডেভোলেপমেন্ট ওয়ার্কশপে বক্তারা   ধর্ষণের ভয়ে ভারত যাচ্ছেন না সুইজারল্যান্ডের এক নম্বর তারকা   রাজধানীতে বাড়ির নিচে ‘গুপ্তধন’   ইরানে সন্ত্রাসী হামলায় ১০ সেনা নিহত

>>  বহিঃ বিশ্ব এর সকল সংবাদ

টরোন্টোতে ১৫ জনকে গুলি, হামলাকারীসহ নিহত ২

কানাডার টরোন্টোয় ১৪ জনকে গুলি করেছে এক বন্দুকধারী, যাদের মধ্যে একজন নিহত হয়েছেন। পরে পুলিশের গুলিতে ওই হামলাকারী নিহত হয়েছে।

রোববার রাতে ড্যানফোর্থ ও লোগান অ্যাভিনিউতে এই গুলির ঘটনা ঘটে বলে কানাডা পুলিশ জানায়।

গুলিবিদ্ধদের মধ্যে একজন কিশোরী নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ বাকিদের অবস্থা কী, সে সম্পর্কে তাৎক্ষণিক জানা যায়নি। এ ব্যাপারে পুলিশ এখনো বিস্তারিত কিছু জানায়নি।

গুলিবিদ্ধদের কয়েকজনকে ঘটনাস্থলেই চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আর বাকিদেরকে নিকটস্থ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হামলার উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানা যায়নি।

জডি স্টেইনহওয়ার নামের

বিস্তারিত খবর

জাপানে তাপদাহে ৩০ জনের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২২ ১৪:১৪:৪০

জাপানজুড়ে তীব্র তাপদাহের ফলে দু’সপ্তাহে দেশটিতে অন্তত ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাপদাহজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন হাজারো নাগরিক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আশঙ্কায় দেশজুড়ে সতর্কবার্তা জারি করেছে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন।

স্থানীয় আবহাওয়া অধিদফতরের বরাত দিয়ে রবিবার (২২ জুলাই) আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানায়, এই সপ্তাহে জাপানের মধ্যাঞ্চলে তাপমাত্রা উঠে গেছে ৪০ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত, যা গত পাঁচ বছরে দেশটিতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

আর সাবেক রাজধানী কিয়োটো শহরে গত সাত দিনে টানা তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। একনাগাড়ে এমন তীব্র তাপমাত্রা এর আগে ১৯ শতকের শুরুর দিকে দেখা গিয়েছিল জাপানে।

দেশটির কর্মকর্তারা সাধারণ লোকজনকে হিটস্ট্রোক এড়ানোর জন্য পর্যাপ্ত পানি এবং শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এলাকায় থাকার উপদেশ দিচ্ছেন।

এদিকে ২০২০ সালে টোকিওতে অলিম্পিক গেমস অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তখনও এই রকম গরম অনুভূত হবে। এই রকম তাপমাত্রার পরিপ্রেক্ষিতে অলিম্পিক খেলা নিয়ে ভাবছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

অলিম্পিক পরিদর্শক দলের প্রধান জন কোটস গত সপ্তাহ টোকিওতে ছিলেন। তিনি বলেন, এই তাপমাত্রা হবে অলিম্পকিস সংগঠকদের জন্য একটা বড় রকমের চ্যালেঞ্জ।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মসজিদে নববীর সাবেক ইমাম ও মুসাইদ আত তাইয়ার গ্রেফতার

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২২ ১৪:১৩:২৮

সৌদি আরবে মসজিদে নববীর সাবেক ইমাম ও খতিব শায়খ আলী বিন সাঈদ আল-হাজ্জাজ আল-গামেদিকে গ্রেফতার করেছে দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এসময় তার ভাই, আইনজীবীসহ ঐ সময় উপস্থিত ৫ জন আলেমকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। ৮০ বছর বয়সী এই আলেম মসজিদে নববীর সাবেক ইমাম ছিলেন। অন্যদিকে সৌদি আরবসহ মুসলিম দেশগুলোতে ব্যাপক জনপ্রিয় বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ শায়খ মুসাইদ আত তাইয়ারকে গ্রেফতার করেছে সৌদি আরব নিরাপত্তা বাহিনী। তিনি রিয়াদের কিং সাউদ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন। ‘প্রিজনারস অব কনসিয়েন্স’ নামক এক টুইটার একাউন্টের বরাতে জানা যায়।

গত সপ্তাহে ইসলাহপন্থী আলেম সাফার আল হিওয়ালীকে গ্রেফতার করা হয়। তার নতুন বইয়ে ইসলাম ও পশ্চিমা সভ্যতা নিয়ে সৌদি শাসকদের সমালোচনা করার কারণে সৌদি সরকার এই সিদ্ধান্ত নেয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এসময় পরিচালিত অভিযানে আরো ৭ জনকে আটক করা হয়।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি
 

বিস্তারিত খবর

গরু চোরাচালানি সন্দেহে ভারতে মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২২ ১৪:১১:৫২

ভারতের রাজস্থানের আলওয়াতে গরু চোরাচালানি সন্দেহে এক মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা করেছে স্থানীয় লোকজন। শুক্রবার (২০ জুলাই) রাতে এই ঘটনা ঘটে। নিহত যুবকের নাম আকবর খান। খবর জিও নিউজ।

শুক্রবার  রাতে গরু নিয়ে যাওয়ার সময় দুজনকে আটক করে রামগড় গ্রামের লোকজন। দুজনকে তারা গণপিটুনি দেয়। আকবরের সঙ্গে থাকা বন্ধুটি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। কিন্তু আকবরকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে গেলে মারা যান তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, ২৮ বছরের আকবর খান হরিয়ানার বাসিন্দা। আকবর ও তার এক বন্ধু আলওয়া জেলায় নিজেদের দুটি গরু নিয়ে একটি বনের ভেতর দিয়ে শুক্রবার রাতে গন্তব্যে যাচ্ছিলেন। এ সময় গরু পাচারকারী হিসেবে সন্দেহ করে তাদের ওপর হামলা চালায় স্থানীয়রা। এ সময় আকবরের সঙ্গে থাকা বন্ধুটি কোনোমতে পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও আকবর সন্ত্রাসীদের হাতে ব্যাপক মারধরের শিকার হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা আকবরকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাত লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।

এদিকে এ ঘটনার পরপরই রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে টুইট করে নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আলওয়ারের জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা অনিল বেনিওয়াল বলেন, ‘তারা গরু চোরাচালানি কি না তা স্পষ্ট নয়। আমরা দুর্বৃত্তদের শনাক্ত করার চেষ্টা করছি। খুব তাড়াতাড়ি তাদের গ্রেপ্তার করা হবে।’

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

কাবুল বিমানবন্দরের প্রবেশ পথে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১১

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২২ ১৪:১০:৪৩

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রবেশ মুখে আত্মঘাতী বোমা হামলায় কমপক্ষে ১১ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো ১৪ জন।  আফগান সংবাদমাধ্যম তলো নিউজ এ তথ্য জানিয়েছে।

স্থানীয় সময় রোববার বিকেল ৫টার দিকে আফগান ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুল রশিদ দোস্তামের গাড়ি বহর বিমানবন্দর থেকে বের হওয়ার পরপর এ হামলা চালানো হয়।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, রশিদ দোস্তামকে স্বাগত জানানোর জন্য বিমানবন্দরে অপেক্ষমান ছিলেন রাজনৈতিক নেতা, সরকারি কর্মকর্তা ও সমর্থকরা। প্রভাবশালী ও যুদ্ধবাজ এই নেতার গাড়ি বহর বিমানবন্দর ছেড়ে যাওয়ার পর তাকে অভ্যর্থনাকারীরাও সেখান থেকে ফিরতে শুরু করেছিল। ঠিক এ সময় হামলা  চালানো হয়।

আফগান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হতাহতের সংখ্যা নিশ্চিত করেছে। হতাহতদের অধিকাংশই পুলিশ সদস্য।

এর আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাজিব দানেশ বলেছিলেন, ‘পায়ে হেঁটে এসে এক আত্মঘাতী হামলাকারী বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। আমরা ১০ জন নিহত অথবা আহতের খবর নিশ্চিত হতে পেরেছি।’

তলো নিউজের এক সাংবাদিক জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে কমপক্ষে ১০টি অ্যাম্বুলেন্স এসেছে এবং হতাহতদের হাসপাতালে নিয়ে গেছে।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ধর্ষণের ভয়ে ভারত যাচ্ছেন না সুইজারল্যান্ডের এক নম্বর তারকা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২১ ১৪:৫৬:৩৫

ভারতে নারীদের ওপরে হেনস্থা ভারতে ক্রমবর্ধমান। ধর্ষণ, যৌন হেনস্থা, অত্যাচারের কারণে ভারত প্রায়ই পাশ্চাত্য সংবাদমাধ্যমে শিরোনামে আসে। ঠিক এই কারণ দেখিয়েই বিশ্ব যুব স্কোয়াশ চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিলেন সুইজারল্যান্ডের আমব্রে আলিঙ্কস।

বিশ্ব যুব স্কোয়াশ চ্যাম্পিয়নশিপের আসর বসেছে চেন্নাইয়ে। এই চেন্নাইতেই কিছু দিন আগে ১১ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণ-কাণ্ডে অভিযুক্ত হয়েছে ১৭ জন। শুধু চেন্নাই-ই নয়, ভারতের বহু স্থান থেকেই প্রতিদিন এ রকম খবর ভেসে আসে। আসিফা, গীতার মতো নাবালিকার বিরুদ্ধে হিংসায় স্তম্ভিত হয়ে গিয়েছিল গোটা বিশ্ব। এমনই যৌন-লোলুপ দেশে তাই নিজের মেয়েকে পাঠানোর ঝুঁকি নেননি আমব্রে আলিঙ্কস-এর বাবা-মা। ঘটনাচক্রে তিনিই আবার দেশের এক নম্বর তারকা।

সুইজারল্যান্ডের কোচ পাসকাল ভুরিন বলেছেন, ‘‘আমব্রে আমাদের স্কোয়াডের এক নম্বর তারকা। তবে ওর বাবা-মা চায়নি বলে আসতে পারল না। বেশ কিছু দিন ধরেই নেট দুনিয়ায় ভারতের ক্রমবর্ধমান যৌন হেনস্থার কথা ওঁদের কাছে পৌঁছেছিল। তাই নিজের মেয়েকে পাঠানোর সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন।’’

তবে শুধু সুইজারল্যান্ডই নয়, অস্ট্রেলিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কিংবা ইরানের মতো দেশও ভারতে দল পাঠানোর আগে নিরাপত্তা নিয়ে ব্যাপক বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। ইরানের তারকা নিকির পিতা আমির জানিয়েছেন, ‘‘এ দেশের সংস্কৃতি, ভাষা— দুটিই আমাদের অচেনা। তাই মেয়েকে সব সময়ে দলের সঙ্গে থাকতে বলেছি।’’ অস্ট্রেলিয়ার অ্যালেক্স হেডেন জানিয়েছেন, ‘‘বিদেশে খেলতে গেলে সব সময় আমার অভিভাবক সঙ্গে থাকেন। এমনকী নিউজিল্যান্ডে গিয়েই বাইরে ঘুরতে সমস্যা হয়নি। তবে ভারতে আমাদের সঙ্গে সব সময়ে এক জন পুরুষ থাকছেন।’’

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইরানে সন্ত্রাসী হামলায় ১০ সেনা নিহত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২১ ১৩:৫৩:২৭

ইরাক সীমান্তবর্তী একটি সামরিক চেকপয়েন্টে হামলা এবং একই সময়ে একটি গোলাবারুদের গুদামে বিস্ফোরণের ঘটনায় ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনী (আইআরজিসি)-র ১০ সদস্য নিহত হয়েছেন। ইরানের বেসরকারি সংবাদ সংস্থা ফার্স নিউজ এ খবর দিয়েছে।

হামযা সাইয়্যেদ আশ-শোহাদা সামরিক ঘাঁটি থেকে দেয়া বিবৃতির বরাত দিয়ে ফার্স নিউজ বলেছে, গেলোরাতে মারিভান এলাকার দারি গ্রামে এ হামলা হয় এবং দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এক পর্যায়ে গোলাবারুদের গুদামে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে আইআরজিসি’র ১০ সদস্য নিহত হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আইআরজিসি’র সঙ্গে সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী নিহত ও বহু সন্ত্রাসী আহত অবস্থায় পালিয়ে গেছে। সন্ত্রাসী ও বিপ্লববিরোধী এই গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে কুর্দিস্তানের জ্ঞানী এবং বিপ্লবী জনগণকে দ্রুত জবাব দিতে হবে।

গত কয়েক বছর ধরে সীমান্তে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে ইরানের সামরিক বাহিনী একের পর এক সংঘর্ষে লিপ্ত রয়েছে। এর মধ্যে বহু সন্ত্রাসী গোষ্ঠী পাকিস্তান ও ইরাক সীমান্ত পার হয়ে ইরানের ভেতরে এসে হামলা চালায়।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

গাজায় ইসরায়েলের হামলা, ৪ ফিলিস্তিনি নিহত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২১ ০৭:৪৩:০৪

গাজায় ইসরায়েলের হামলায় শুক্রবার চার ফিলিস্তিন নাগরিক নিহত হয়েছেন।এদিন ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনি সামরিক স্থাপনা লক্ষ্য করে হামলা চালায়। ইসরায়েল দাবি করেছে, তাদের সৈন্যকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়েছে। এতে এক সৈন্য নিহত হয়েছে। এরপরই তারা গাজায় সামরিক স্থাপনা লক্ষ্য করে হামলা চালায়।

গাজার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, শুক্রবার ইসরায়েলের হামলায় চার ফিলিস্তিনি নিহত হন। এদের মধ্যে তিনজন হামাসের সদস্য এবং এক প্রতিবাদী যুবক নিহত হয়েছেন।

হামাসের দাবি, ইসরায়েলের সঙ্গে অস্ত্রবিরতির ঐক্যমত হয়েছে। সংগঠনটির মুখপাত্র ফাওজি বারহৌম বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘জাতিসংঘ ও মিশরের সহযোগিতায় নিজ নিজ অঞ্চলে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে শান্তি বজায় রাখতে ঐক্যমত হয়েছে।’ তবে এ ঐক্যমতের ব্যাপারে মুখ খুলেনি ইসরায়েল।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বিশ্বের ৪ কোটি মানুষ ‘আধুনিক দাসত্বে’র কবলে, যুক্তরাষ্ট্রে ৪ লক্ষাধিক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২০ ১১:২৬:০৪

সারাবিশ্বে আধুনিক দাসত্বের শিকার চার কোটির বেশি মানুষ। আর বিশ্বের অন্যতম উন্নত দেশ যুক্তরাষ্ট্রের এই সংখ্যা চার লাখের বেশি। মহাদেশ হিসেবে এশিয়ায় সবচেয়ে বেশি মানুষ আধুনিক দাসত্বের কবলে রয়েছেন। সবচেয়ে বেশি উত্তর কোরিয়ায়। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে ভারতে সবচেয়ে বেশি মানুষ এই দাস প্রথার শিকার। ১৬৭টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৯২ নম্বরে। বাংলাদেশে প্রায় ৫ লাখ ৯২ হাজার মানুষ আধুনিক দাসত্বের কবলে রয়েছেন। বৃহস্পতিবার বৃহস্পতিবার ‘দ্য গ্লোবাল স্লেভ ইনডেক্স’ বা বৈশ্বিক দাসত্ব সূচক নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

দাসপ্রথার বিরুদ্ধে লড়াই করা সংগঠন ওয়াক ফ্রি ফাউন্ডেশন প্রতিবছর এ সূচক প্রতিবেদন তৈরি করে। বিশ্বের ১৬৭ দেশে গবেষণা চালিয়ে এ তথ্য পাওয়া পাওয়া গেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রে চার লাখেরও বেশি মানুষ রাষ্ট্রের চাপিয়ে দেওয়া শ্রম, জোরপূর্বক বিয়ে ও যৌন নিগ্রহের শিকার হচ্ছেন। যুক্তরাষ্ট্রে সংখ্যার চেয়ে সারাবিশ্বে এই সংখ্যা প্রায় ১০০ গুণ বেশি। তাদের হিসেবে বিশ্বে ৪ কোটি ৩ লাখ এই দাসত্বের শিকার।

ওয়াক ফ্রি ফাউন্ডেশন জানায়, আধুনিক দাসত্ব বিষয়টি অনেক জটিল। সীমানা পেরিয়ে এই অপরাধের পরিধি বিস্তৃত। এই সূচক তৈরিতে জাতীয় পরিসংখ্যান, জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার মতো সংগঠনেরও তথ্য যুক্ত করেছে ওয়াক ফ্রি ফাউন্ডেশন। তবে যারা এই জোরপূর্বক শ্রমের শিকার শুধু তাদেরই আধুনিক দাসত্বের তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করেছে সংগঠনটি।

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা অ্যান্ড্রু ফরেস্ট বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বের অন্যতম উন্নত দেশ। আর এখানেই ৪ লাখ মানুষ দাসের মতো জীবন যাপন করছেন। জোরপূর্বক শ্রম চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এখান থেকেই বোঝা যায় সারা বিশ্বের পরিস্থিতি কতটা ভয়াবহ।’

প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, এশিয়া মহাদেশে এই আধুনিক দাসপ্রথা সবচেয়ে বেশি। উত্তর কোরিয়ায় সর্বোচ্চ। দেশটির ২৬ লাখ জনসংখ্যার প্রতি ১০ জনের একজন এই দাসত্বের শিকার।

বিশ্বে মোট আধুনিক দাসত্বের শিকারের এক তৃতীয়াংশই জোরপূর্বক বিয়ের মাধ্যমে এই অবস্থায় পড়েছেন। সংখ্যার হিসেবে যা প্রায় দেড় কোটি। নারীরাই এর শিকার হয় বেশি। প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘সাংস্কৃতিকভাবেই মেয়েদের জোর করে বিয়ে দেওয়ার এই চর্চায় যৌন নিগ্রহ, আর্থিক সীমাবদ্ধতা, নির্যাতনের শিকার হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়। যার শেষ হয়ে আধুনিক দাসত্বে। 

সংগঠনটি জানায়, জোরপূর্বক বিয়ে বন্ধ করা উচিত। অন্তত ১৮ বছর বয়সকে বিয়ের উপযুক্ত নির্ধারণ করা, জোরপূর্বক শ্রম বন্ধ করা ও কর্মক্ষেত্রের উন্নয়নে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত সরকারের।

এই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। কারণ বৈশ্বিক পণ্য আমদানির মাধ্যমে তারাই জোরপূর্বক শ্রম নিচ্ছে। বছরে ল্যাপটপ, কম্পিউটার, মোবাইল ফোন, কাপড়, মাছ, বাঁশসহ অনেক পণ্য আমদানি করে দেশটি। আর এগুলো উৎপাদন বেশিরভাগ সময়ই জোরপূর্বক চাপিয়ে দেওয়া শ্রমের মাধ্যমে হয়।

সংস্থাটি জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের আমদানির কারণে দাসত্বের প্রভাব সবচেয়ে বেশি চীনে। দেশটি থেকে ১২২ বিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করে যুক্তরাষ্ট্র। ভিয়েতনাম থেকে ১১.২ বিলিয়ন ও ভারত থেকে ৩ দশমিক ৮ বিলিয়ন।

এছাড়া মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জাপান, তাইওয়ান, দক্ষিণ কোরিয়া, রাশিয়া, ঘানা, আইভরি কোস্ট ও পেরুও রফতানি করে। ফরেস্ট বলেন, ‘এর কোনও দ্রুত সমাধান নেই। কিন্তু এর সমাধানের জন্য সরকার, ব্যবসায়ী ও গ্রাহক সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

তবে এই সূচকের সমালোচনা করে অ্যান্টি ট্রাফিকিং রিভিউয়ে ‘হোয়াটস রং উইদ দ্য গ্লোবাল স্লেভারি ইনডেক্স’ শীর্ষক একটি একটি প্রবন্ধে লিখেছেন অ্যানা গালাগার। তিনি বলেন, ‘আধুনিক দাসত্বের নাম করে অনেক কিছুকে এক করে ফেলা হচ্ছে। তিনি দাবি করেন, ‘আমাদের এখনও বৈশ্বিকভাবে স্বীকৃতি কোনও প্রক্রিয়া নেই। আমরা এখন সমস্যার পরিধি তুলে ধরতে পারছি না। কিন্তু এটা খুবই প্রয়োজন।’

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

গাড়িতে চড়েন গৃহকর্মী, পরেন ২৫ লাখের গয়না!

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২০ ১১:২৩:৩৮

বাসায় গৃহকর্মী থাকাটা একেবারেই স্বাভাবিক। কিন্তু সেই গৃহকর্মী যদি হয় লাখপতি! তার নিজের যদি থাকে দামি গাড়ি, আর পরেন লাখ লাখ টাকার গয়না তাহলে অবশ্যই বিষয়টি অস্বাভাবিক। বিষয়টি রীতিমতো সন্দেহেরও কারণ।

কলকাতায় বৃহস্পতিবার রাতে গীতা নামে এক গৃহকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারের পর তার রাজকীয় কাহিনী এখন টক অব দ্য সিটি।

বিভিন্ন বাড়িতে কাজ করে ২৫ লাখ টাকার গয়নার মালিক হয়েছেন গীতা। তবে সবটাই চুরির সম্পদ। তার একটি গাড়িও রয়েছে। পুলিশের দাবি, গীতাকে ‘ডাকাত রানি’ বললেও কম হবে।

বেহালার পর্ণশ্রীর বাসিন্দা স্নেহাংশু ভট্টাচার্যের বাড়িতে সম্প্রতি চুরি হয়। বাড়ি থেকে বেশকিছু গয়নাগাটি, টাকা এবং মূল্যবান জিনিসপত্র খোয়া যায়।

এরপর স্নেহাংশু বাবু থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তবে তিনি নির্দিষ্ট করে কারো নাম উল্লেখ করেননি। তদন্তে নেমে পুলিশ ওই বাড়ির গৃহকর্মীকে গ্রেফতার করেন।

প্রথমে গীতা চুরির ঘটনা অস্বীকার করেন। কিন্তু পুলিশ গীতার বিষয়ে খোঁজখবর শুরু করে। এর আগেও ওই পরিচারিকার নামে অভিযোগ দায়ের হয়েছিল বিভিন্ন থানায়। যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ না মেলায় প্রতিবারই ছাড়া পেয়ে যান।

এবার হঠাৎ গীতার বাড়িতে হানা দেয় নারী পুলিশ অফিসাররা। এক দিকে জেরা, অন্যদিকে শুরু হয় তল্লাশি। ঘর থেকে এক এক করে ৯৬টি সোনার গয়না পাওয়া যায়। উদ্ধার হয়েছে ভারতীয় বিমানবাহিনীর একটি মেডেল।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্টের সাজা বেড়ে ৩২ বছর

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২০ ১১:০১:২৫

সরকারি তহবিলের ক্ষতিসাধন এবং ২০১৬-র সংসদীয় নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী বাছাইয়ে হস্তক্ষেপের অভিযোগে দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক নারী প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইকে ৮ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। সিউলের সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট শুক্রবার এ রায় দেয়। এর ফলে তার সাজা বেড়ে দাড়িয়েছে ৩২ বছরে।

দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার এবং অনৈতিক প্রভাব খাটানোর অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়ে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে অভিশংসিত হওয়া পার্ক এখনি ২৪ বছরের কারাদণ্ড ভোগ করছেন। সরকারি তহবিলের ক্ষতি ও নির্বাচনে প্রভাব খাটানোর অভিযোগে এর সঙ্গে আরও ৮ বছর যুক্ত হল।

সাবেক সহযোগীদের সঙ্গে যোগসাজশে পার্ক দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার ৩০ বিলিয়ন উয়ন (প্রায় ২ কোটি ৫০ লাখ ডলার) ক্ষতি করেছিলেন বলে রায়ে জানায় সিউলের সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট।

সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী বাছাইয়ে হস্তক্ষেপের দায়েও দেশটির প্রথম এ নারী প্রেসিডেন্টকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়।

৬৬ বছর বয়সী পার্ক তার বিরুদ্ধে আনা এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন। রায় ঘোষণার সময়ও তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না, জানিয়েছে রয়টার্স।

দক্ষিণ কোরিয়ায় সাবেক সেনাশাসক পার্ক চুং-হির মেয়ে পার্ক জিউন-হাই ২০১৩ দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন। ব্যক্তিগত লাভের জন্য বন্ধুকে সুবিধা পাইয়ে দিতে তিনি রাজনৈতিক ক্ষমতা ও প্রভাব-প্রতিপত্তি ব্যবহার করেছেন- এমন অভিযোগে ২০১৬ সালের মাঝামাঝি সময়ে পার্লামেন্ট ও রাজপথে পার্কের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরু হয়।

ওই বছর ডিসেম্বরে পার্লামেন্টে ভোটাভুটি করে পার্ককে অভিশংসনের সিদ্ধান্ত হয়। এরপর গতবছর মার্চে দেশটির সাংবিধানিক আদালত সেই সিদ্ধান্তে সায় দিলে পার্ককে ক্ষমতাচ্যুত হয়ে দুর্নীতির অভিযোগে কারাগারে যেতে হয়। সেই থেকে তিনি কারাগারেই আছেন।

ক্ষমতার অপব্যবহার এবং অনৈতিক প্রভাব খাটানোর অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলে চলতি বছরের এপ্রিলে আদালত তাকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দেয়। পাশাপাশি সাবেক এই রাষ্ট্রপ্রধানকে ১৮ বিলিয়ন উয়ন জরিমানাও করা হয়।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি নিহত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-২০ ০৯:৫৯:১১

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় এক বাংলাদেশি শ্রমিক নিহত হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে নিহত মীর মো. মোবারক উল্যাহর (৪১) ছোট ভাই হোসেন আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এর আগে শুক্রবার রাতে সৌদি আরবের রিয়াদে রাস্তা পারাপারের সময় দুর্ঘটনা ঘটে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে নিহতের পরিবার ও স্বজনদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে। তারা দ্রুত মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনার দাবি জানান।

নিহত মোবারক লক্ষ্মীপুরের সদর উপজেলার মান্দারী ইউনিয়নের মোহাম্মদনগর গ্রামের মীর বাড়ির মৃত মীর হাফিজ উল্যার বড় ছেলে। সংসারে তার স্ত্রী ও এক ছেলে সন্তান রয়েছে। তিনি রিয়াদে বিস্কুট তৈরির কারখানায় শ্রমিকের কাজ করতেন।

হোসেন আহমেদ জানান, বড় ভাই মোবারক ও মেজ ভাই মনির সৌদি আরবের রিয়াদের দামামা এলাকায় থাকে। কারখানায় বিস্কুট তৈরির কাজ শেষে বাসায় যাচ্ছিলেন মোবারক। রাস্তা পার হওয়ার সময় দ্রুতগামী গাড়ি তাকে চাপা দেয়। এক পর্যায়ে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

‘ইহুদি জাতীয় রাষ্ট্র’ বিল পাস করেছে ইসরাইলি পার্লামেন্ট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৯ ০২:১৫:৪১

বিতর্কিত ‘ইহুদি জাতীয় রাষ্ট্র’ বিল পাস করেছে ইসরাইলি পার্লামেন্ট নেসেট। ইসরাইলি আরব সংসদ সদস্যদের বিরোধিতা সত্ত্বেও বুধবার বিলটি পাস করা হয়। অন্যরা সমালোচনা করলেও ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী এটিকে ‘ঐতিহাসিক মুহূর্ত’ বলে উল্লেখ করেছেন। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিতর্কিত এই আইনের ফলে ইসরাইলের জাতীয় স্বার্থেই বসতি স্থাপন আরো বাড়াতে পারবে তেলআবিব। এ ছাড়া দেশটির অফিসিয়াল ভাষা হিসেবে আরবির মর্যাদাও কমে যাবে।

এ ছাড়া নতুন আইন অনুযায়ী ‘পূর্ণাঙ্গ ও সমন্বিত’ জেরুজালেম হবে ইসরাইলের রাজধানী।

প্রসঙ্গত, এর আগেই বিলটিতে অনুমোদন দেয় ইসরাইলি মন্ত্রিসভা। বুধবার নেসেটে পাস হওয়ার মাধ্যমে সেটি আইনে পরিণত হলো।

ইসরাইলি আরব সংসদ সদস্যরা এই আইনের নিন্দা জানিয়েছেন। কিন্তু দেশটির ডানপন্থী সরকার বলছে, হহুদিদের ঐতিহাসিক জন্মস্থান হলো ইসরাইল এবং নিজেদের ব্যাপারে স্বাধীন সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার তাদের রয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, আট ঘণ্টার উত্তপ্ত আলোচনার পর বিলটি সংসদে পাস হয়। বিলটির পক্ষে ভোট দেন ৬২ জন সংসদ সদস্য। আর বিপক্ষে ভোট পড়ে ৫৫টি।

ইসরাইলি প্রেসিডেন্ট ও অ্যাটর্নি জেনারেলের আপত্তি জানানোর পর বিলটি থেকে কিছু অনুচ্ছেদ বাদ দেওয়া হয়েছে। যেমন- ইহুদিরাই একমাত্র সম্প্রদায় এমন একটি অনুচ্ছেদ বাদ দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ৯০ লাখ ইসরাইলি জনসংখ্যার ২০ শতাংশ ইসরাইলি আরব। আইন অনুযায়ী তাদের সমান অধিকারের কথা বলা হলেও তাদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে বিবেচনা করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়া শিক্ষা, চাকরি, স্বাস্থ্য ও বাসস্থানসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তারা বৈষম্যের শিকার বলে অভিযোগ রয়েছে।

ইসরাইলি আরব এমপি আহমেদ তিবি বলেছেন, এই বিল পাসের ফলে ইসরাইলে গণতন্ত্রের মৃত্যু হলো।

আর মানবাধিকার বিষয়ক এনজিও আদালাহ বলেছে, এর ফলে বর্ণবাদী নীতির মাধ্যমে জাতিগত শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিষ্ঠিত হবে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

সাইপ্রাসে নৌকাডুবিতে ১৯ অভিবাসীর মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৯ ০২:১১:৩২

সাইপ্রাসের উত্তরাঞ্চলে নৌকাডুবির ঘটনায় কমপক্ষে ১৯ অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে। তুর্কিশ কোস্টগার্ড এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বুধবার (১৮ জুলাই) কোস্টগার্ডদের তরফ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, উদ্ধারকর্মীরা ১০৩ জনকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছেন। তবে এখনও আরও ২৫ জনের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

ঘটনাস্থলে একটি হেলিকপ্টার এবং চারটি নৌকা উদ্ধারকাজে অংশ নিয়েছে। সাইপ্রাসের কারপাস উপদ্বীপ থেকে ৩০ কিলোমিটার উত্তরে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে। তবে ঠিক কখন এবং কি কারণে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে তা এখনও জানা যায়নি।

ওই নৌকায় থাকায় যাত্রীরা কোন দেশের নাগরিক তাও এখনও নিশ্চিত নয়। দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে যাওয়াদের তুরস্কের মেরসিন শহরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর। তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

২০১৫ সালে ইউরোপের উদ্দেশ্যে বিপজ্জনক সাগরপথে পাড়ি দেয়া ১০ লাখের বেশি অভিবাসীর কাছে অন্যতম রুটে পরিণত হয় তুরস্ক। মধ্যপ্রাচ্য এবং আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে যুদ্ধ-বিধ্বস্ত এবং দরিদ্র অবস্থা থেকে বাঁচতে এসব অভিবাসীরা নিজেদের জীবন বাজি রেখে ইউরোপের বিভিন্ন দেশের উদ্দেশ্যে পাড়ি জমায়।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত তুরস্ক হয়ে ইউরোপে পাড়ি দিতে গিয়ে কমপক্ষে ২৬ অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

দুই বছর জারি থাকা জরুরি অবস্থা তুলে নিল তুরস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৯ ০২:০৯:০৫

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানতুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের পর তুরস্কে দুই বছর ধরে জারি থাকা জরুরি অবস্থা তুলে নিয়েছে দেশটির সরকার। গতকাল বুধবার জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়া হয় বলে জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম।

বিবিসি জানিয়েছে, জরুরি অবস্থার সময় লাখো মানুষ গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন।

২০১৬ সালের ১৫ জুলাই তুরস্ক সেনাবাহিনীর একটি অংশ অভ্যুত্থানের চেষ্টা করে। তুরস্কের জনগণ তা ব্যর্থ করে দেয়। এরপর জরুরি অবস্থা জারি করেন প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান।

ওই জরুরি অবস্থা জারি করার পর তার মেয়াদ সাতবার বৃদ্ধি করা হয়। জরুরি অবস্থার কারণে নতুন আইন পাস এবং নাগরিক অধিকার ও ব্যক্তিস্বাধীনতা স্থগিত করার ক্ষেত্রে পার্লামেন্টের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, এরদোয়ান নির্বাচনে জেতার কয়েক সপ্তাহ পরেই জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়ার ঘোষণা এল। নির্বাচনের আগে এরদোয়ানের প্রতিদ্বন্দ্বীরা নির্বাচনে জিতলে জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

তুরস্কের ব্যবসায়ী সংগঠনগুলো অনেক দিন ধরেই জরুরি অবস্থা তুলে নিতে দেশটির সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছিল। ইউরোপীয় ইউনিয়নও তুরস্কে জরুরি অবস্থা বলবৎ থাকায় সেটির সমালোচনা করে বলেছে, এর মাধ্যমে বিভিন্ন নাগরিক ও রাজনৈতিক অধিকার খর্ব করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, নির্বাচনী প্রচারণার সময় দুই বছর ধরে চলা জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন এরদোয়ান। ২৪ জুন তুরস্কে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

বেসরকারি ও সরকারি সূত্র অনুযায়ী, জরুরি অবস্থা জারির পর দেশটিতে ১ লাখ ৭ হাজার মানুষ সরকারি চাকরি হারিয়েছেন এবং ৫০ হাজার লোক জেলে গেছেন, যাঁরা বিচারের অপেক্ষায় রয়েছেন।

সামরিক বাহিনী, বিচার বিভাগ, পুলিশ, গণমাধ্যম, শিক্ষা খাতসহ অভ্যুত্থানচেষ্টায় জড়িত বা যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছানির্বাসিত ধর্মীয় নেতা ফেতুল্লা গুলেনের সমর্থক সন্দেহে হাজার হাজার ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যাপক শুদ্ধি অভিযানের ধারাবাহিকতায় জরুরি অবস্থা জারি করে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের সরকার।

অভ্যুত্থানচেষ্টায় গুলেন ও তাঁর অনুসারীদের দায়ী করে তুরস্ক। তবে তাঁরা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

২০১৬ সালের ওই অভ্যুত্থানচেষ্টায় প্রায় ২৫০ জন নিহত হন।

এর আগে তুরস্কে সর্বশেষ জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছিল ১৯৮৭ সালে দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন প্রদেশে। কুর্দি মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে লড়াই করাই ছিল এর লক্ষ্য। ২০০২ সালে সেই জরুরি অবস্থা তুলে নেওয়া হয়।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

জনসম্মুখে এলো থাইল্যান্ডের ক্ষুদে ফুটবলাররা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৮ ০৮:২২:৪৫

১৯ দিন গুহায় আটকে থাকা থাইল্যান্ডের ১২ কিশোর ও তাদের ফুটবল কোচ প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে হাজির হয়েছেন। বুধবার বিকেলে উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশে চিয়াং রাইতে জাতীয় সম্প্রচার মাধ্যমে হাজির হন তারা।

১১ থেকে ১৬ বছরের কিশোর ও তাদের ২৫ বছরের কোচকে হাত নেড়ে স্বাগত জানিয়েছেন চিকিৎসক, স্বজন ও বন্ধুরা। এসম ফুটবল দলটির পরনে ছিল তাদের দলের জার্সি। যেই মঞ্চে ফুটবলার ও তাদের কোচকে বসানো হয়েছিল তার পেছনে ‘ঘরে ফিরেছে ওয়াইল্ড বোয়ার্স’ লেখা ব্যানার ছিল। ফুটবলারদের পাশেই ছিল উদ্ধারকারী দলের পাঁচ সদস্য।

এর আগে একটি গাড়িতে করে দলটিকে হাসপাতাল থেকে সম্প্রচার কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। এসময় সেখানে গণমাধ্যমকর্মী ও উৎসুক লোকদের ব্যাপক ভীড় ছিল।

টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত ৪৫ মিনিটের অনুষ্ঠানের উপস্থাপক সুথিচাই ইউন শুরুতেই বলেন, ‘যেই প্রশ্নগুলো আমরা ভাবছি আজ কিশোরদের কাছ থেকেই তার উত্তর পেতে যাচ্ছি।’

হাসপাতালের পরিচালক জানিয়েছেন, উদ্ধারের পর কিশোরদের ওজন গড়ে তিন কেজি করে বেড়েছে। বুধবারের অনুষ্ঠানকে সামনে রেখে তাদেরকে আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধির চর্চা করানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে কিশোর ফুটবলার, তাদের কোচ ও উদ্ধারকারীদের কয়েকজন সাংবাদিকদের আগে থেকে জমা দেওয়া প্রশ্নের উত্তর দেবেন বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় ফুটবল দল উইল্ড বোরের  ১২ সদস্য ও তাদের কোচ চিয়াং রাই প্রদেশের থ্যাম লুয়াং গুহায় প্রবেশের পর আটকা পড়ে। ১৯ দিন পর তাদেরকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় উদ্ধারকারী দল। উদ্ধারের পরপর তাদেরকে নিয়ে যাওয়া হয় চিয়াং রাই হাসপাতালে। সেখানে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থায় থাকা কিশোরদের কাছে তাদের স্বজনদেরও ভীড়তে দেওয়া হয়নি।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

আগাম নির্বাচনের হুমকি থেরেসা মে’র সমর্থকদের

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৮ ০৮:০৪:৩৬

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সমর্থকরা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, দলের এমপিরা তার ব্রেক্সিট (ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বের হয়ে যাওয়া) পরিকল্পনার বিরোধিতা করলেন এই গ্রীষ্মে  জাতীয় নির্বাচন ঘোষণা করা হবে। বুধবার দ্য টাইমস এ তথ্য জানিয়েছে।

গত চার বছর ব্রিটিশ রাজনীতির অন্যতম ঝঞ্ঝাবিক্ষুব্ধ সময় ছিল। ২০১৪ সালে ব্রিটেনের সঙ্গে থাকার প্রশ্নে স্কটল্যান্ডের গণভোট, ২০১৫ সালে ব্রিটিশ নির্বাচন, ২০১৬ সালে ব্রেক্সিট গণভোট এবং গত বছর ব্রিটিশ পার্লামেন্টের আগাম নির্বাচন।

সম্প্রতি থেরেসা মে প্রকাশিত ‘ব্রেক্সিট হোয়াইট পেপার’ নিয়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে তার দল কনজারভেটিভ পার্টির কয়েকজন এমপি। ব্রেক্সিটের পর ইইউ’র সঙ্গে ব্রিটেনের সম্পর্ক কেমন হবে এই ‘হোয়াইট পেপারে’ তাই উল্লেখ করা হয়েছে। পরিকল্পনায় ইইউ থেকে বের হয়ে গেলেও তাদের সঙ্গে বাণিজ্যের ব্যাপারে নমনীয়তা দেখানো হয়েছে। এর জের ধরে ব্রেক্সিট বিষয়ক মন্ত্রী দেভিস ডেভিস ও তার ডেপুটি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন পদত্যাগ করেছেন। এখনো কয়েকজন এমপি প্রস্তাবিত এই হোয়াইট পেপারসে পরিবর্তন আনতে চান। তবে মে’র দাবি এমনটি করলে ব্রেক্সিটের বিষয়টি ঝুঁকিতে পড়তে পারে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যশ দ্য টাইমস জানিয়েছে, কনজারভেটিভ দলের হুইপ মঙ্গলবার ব্রেক্সিট নীতি নিয়ে পার্লামেন্টে ভোট হওয়ার আগে স্টিফেন হ্যামন্ড ও নিকি মরগানের নেতৃত্বাধীন ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমর্থক এমপিদের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবিত ব্রেক্সিট পরিকল্পনায় ভোট না দিলে গ্রীষ্মে আগাম নির্বাচন দেওয়া হতে পারে।

প্রসঙ্গত, এই মুহূর্তে কনজারভেটিভ পার্টির নেতাদের কাছে আতঙ্কের বিষয় হচ্ছে জাতীয় নির্বাচন। বিভিন্ন ইস্যুতে ক্ষমতাসীন দলের জনপ্রিয়তা হ্রাস পাওয়ায় বিরোধী লেবার দলের জয়ের সম্ভাবনা বাড়ছে। চলতি মাসের শুরুতে এক জরিপে এমনই আভাস মিলেছে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত হচ্ছেন আর্ল রবার্ট মিলার

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৮ ০৭:৫১:৫০

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে আর্ল রবার্ট মিলারকে মনোনীত করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই কূটনীতিকের নাম ঘোষণা করেন।

এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউজ বলেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মঙ্গলবার আর্ল রবার্ট মিলারকে ওই পদের জন্য মনোনীত করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। সাড়ে তিন বছর ধরে বাংলাদেশে মার্কিন দূতাবাসের দায়িত্ব সামলে আসছিলেন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আনুষ্ঠানিক মনোনয়ন দেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস অনুমোদন করলে শিগগিরই বার্নিকাটের জায়গায় দেখা যাবে মিলারকে।

মার্কিন মেরিন কোরের সাবেক কর্মকর্তা মিলার পররাষ্ট্র দপ্তরের হয়ে কাজ করে আসছেন ১৯৮৭ সাল থেকে। আর ২০১৪ সাল থেকে তিনি আফ্রিকার দেশ বতসোয়ানায় রাষ্ট্রদূতের পালন করে আসছেন। রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পাওয়ার আগে মিলার ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে যুক্তরাষ্ট্রের কনসাল জেনারেলের দায়িত্ব পালন করেন।

এছাড়া নয়াদিল্লি, বাগদাদ ও জাকার্তায় মার্কিন দূতাবাসে আঞ্চলিক নিরাপত্তা কর্মকর্তা হিসেবেও তিনি কাজ করেছেন। মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করার পর মিলার যোগ দেন যুক্তরাষ্ট্রের মেরিন কোরে। ১৯৮১ থেকে ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত তিনি মেরিন কোরে এবং ১৯৮৫ থেকে ১৯৯২ পর্যন্ত মেরিন কোর রিজার্ভে অফিসার পদে ছিলেন।

মিলার ইংরেজি ছাড়াও ফরাসি, স্প্যানিশ ও ইন্দোনেশীয় ভাষা জানেন। তিনি স্টেট ডিপার্টমেন্ট অ্যাওয়ার্ড ফর হিরোইজমসহ কয়েকটি পুরস্কার পেয়েছেন। সামরিক বাহিনীর একাধিক পুরস্কারেও ভূষিত হয়েছেন তিনি।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

নিজের বেতন কমানোর ঘোষণা দিলেন মেক্সিকোর নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৭ ১১:৩০:০২

বেতনভাতা ৬০ শতাংশ কমানোর কথা জানিয়েছেন মেক্সিকোর নবনির্বাচিত বামপন্থী প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর। আগামী ডিসেম্বরে তিনি ছয় বছরের জন্য লাতিন আমেরিকার দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ পরিচালনার দায়িত্ব নেবেন। ক্ষমতা গ্রহণের পর বেতনভাতা বাবদ ৪০ শতাংশ পরিমাণ অর্থ নেবেন বলে জানান তিনি।

রোববার দেশটির রাজধানী মেক্সিকো সিটিতে তার নির্বাচনী ক্যাম্পের প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর এসব কথা বলেন। সমর্থকেরা এ সময় তার এ ঘোষণাকে মুহুর্মুহু হাততালি দিয়ে স্বাগত জানান। তিনি বলেন, ‘আমরা চাই বাজেটের সবকিছু সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে যাক।’

দ্য লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমসের খবরে বলা হয়, আগামী ডিসেম্বর মাসে বর্তমান প্রেসিডেন্ট এনরিক পি এ নেতোর কাছ থেকে ক্ষমতা গ্রহণ করবেন বামপন্থী প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর। এরপরই বেতনভাতার ৪০ শতাংশ অর্থ নেবেন বলে জানান তিনি। বর্তমানে মেক্সিকোর প্রেসিডেন্টের মাসিক বেতন-ভাতা ২ লাখ ৭০ হাজার পেসো।

সাংবাদিকদের আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর বলেন, তিনি মাসে ১ লাখ ৮ হাজার পেসো (৫ হাজার ৭০৭ মার্কিন ডলার) বেতন হিসেবে নেবেন। তিনি বলেন, তার ছয় বছরের মেয়াদে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন যেন প্রেসিডেন্টের বেতনের চেয়ে বেশি হবে না। উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তাদের বিভিন্ন সুবিধা যেমন, গাড়ির চালক, দেহরক্ষী ও ব্যক্তিগত চিকিৎসাবিমা-সংক্রান্ত খরচগুলো কমানোর পরিকল্পনাও তাঁর রয়েছে বলে জানান তিনি।

বর্তমানে মেক্সিকো ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালে দুর্নীতির সূচকে ১৮০ দেশের মধ্য ১৩৫তম।

আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর বলেন, সরকারি কর্মকর্তাদের তাঁদের সম্পদের হিসাব প্রকাশ করতে হবে। দুর্নীতি এ দেশে অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। মন্ত্রিসভার ব্যয় আরও কমানোর ইচ্ছা তাঁর আছে। মন্ত্রিসভার অপর সদস্য যাঁরা বেসরকারি খাতের চাকরি ছেড়ে এসেছেন, তাঁদের অসুবিধার কথা চিন্তা করে আপাতত সেই পরিকল্পনা বাদ দিচ্ছেন তিনি।

বিজয়ের খবর আসার পর একটি হোটেলে জড়ো হওয়া সমর্থকদের উদ্দেশে বক্তব্য দিচ্ছেন আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর। পাশে ছিলেন তাঁর স্ত্রী। মেক্সিকো সিটি, ১ জুলাই। ছবি: এএফপিপ্রসঙ্গত, গত সপ্তাহ থেকে ওব্রাদোর তার আগামী বছরের আর্থিক খাতে ব্যাপক মিতব্যয়িতার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন। সেখানে অপ্রয়োজনীয় সংসদীয় কমিটিগুলো বিলোপ, রাজনীতিকদের বেতন কমানোসহ আরও বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় সরকারের ব্যয় হ্রাসের বিষয় অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

বল্গাহীন দুর্নীতি আর সহিংসতায় ক্ষুব্ধ জনরোষের ঢেউয়ে চড়ে এ মাসের শুরুর দিনে মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন বামপন্থী আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদর। এ জয়ে দেশটির মূলধারার রাজনীতি পাল্টে দেওয়ার পাশাপাশি লোপেজ ওব্রাদরকে নতুন করে দেশ গড়ে তোলার একচেটিয়া অধিকার দিয়েছে। তাঁর বিজয় লাখো মেক্সিকানের মনে আশার সঞ্চার করেছে এবং ধনীদের বুকে কাঁপন ধরিয়েছে। এই ফলাফলে দেশটির বিরাজমান অবস্থাকে প্রত্যাখ্যান করার সুস্পষ্ট চিত্র প্রকাশ পেয়েছ। সিকি শতক ধরে মেক্সিকো মধ্যপন্থী রাজনৈতিক চিন্তা ও বিশ্বায়নের দর্শন দ্বারা পরিচালিত হয়। বহু মেক্সিকানেরই ধারণা, এই আদর্শ তাদের জন্য সুফল বয়ে আনেনি।

লোপেজ ওব্রাদরের মূল নির্বাচনী ওয়াদা—দুর্নীতির অবসান, সহিংসতা হ্রাস এবং মেক্সিকোর দেশব্যাপী দারিদ্র্য দূরীকরণ—ভোটারদের মধ্যে দারুণ জনপ্রিয়তা লাভ করে। তবে এগুলোর সঙ্গেই চলে আসে অনেক প্রশ্ন, যেগুলোর উত্তর দিতে তিনি ও তাঁর সরকারকে বেগ পেতে হতে পারে।

ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী হোসে অ্যান্তিনিও মেয়াদিকে হারিয়েছেন ওব্রাদর। গত শতকের বেশির ভাগ সময় রাজনীতিতে কর্তৃত্ব করেছে মেয়াদির দল কনস্টিটিউশনাল রেভল্যুশনারি পার্টি (পিআরআই)। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশটিতে রাজনৈতিক সহিংসতায় ১৩০ জন নিহত হন। তাঁদের মধ্যে অনেক প্রার্থী ও দলের কর্মী ছিলেন। লোপেজ ওব্রাদর তিনবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়েছেন। অবশেষে তিনি সোনার হরিণের দেখা পেলেন।

দেশটিতে মোট ভোটার প্রায় ৮ কোটি ৮০ লাখ। তারা শুধু প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করেননি, ১২৮ সিনেটর এবং কংগ্রেসে ৫০০ জন ডেপুটি নির্বাচিত করেছেন তারা।

জয়ের পর দেশটির গণমাধ্যমকে লোপেজ ওব্রাদর বলেছিলেন, জনগণ তাকে সমর্থন করেছে, এতে তিনি খুব খুশি। তিনি সবাইকে ধন্যবাদ জানান। তিনি আরও বলেন, ‘তাঁর অন্যতম প্রতিশ্রুতি হবে দুর্নীতিকে ঠাঁই না দেওয়া। একই সাথে কোনো অপরাধী যেন ছাড় না পায়। আমরা মেক্সিকো থেকে সব অপরাধ উপড়ে ফেলব।’


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মুসলিম কিশোরদের ধর্মীয় শিক্ষা নিষিদ্ধ করল চীন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৭ ১১:২৭:২৫

চীনের পশ্চিমাঞ্চলের নীলগম্বুজের ঐতিহাসিক মসজিদ এর চত্বরটিকে বালকদের ধর্মীয় শিক্ষা ও নামাজের জন্য এখন আর ব্যবহার করা যাবে না।

সম্প্রতি চীনের ক্ষমতাসীন কম্যুনিস্ট সরকার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ট পশ্চিমাঞ্চলের লিনজিয়ায় ১৬ বছরের নিচে বালক-বালিকাদের জন্য ধর্মীয় শিক্ষা ও নামাজ নিষিদ্ধ করেছে।

পশ্চিমাঞ্চলে আরেক মুসলিম অধ্যুষিত এলাকা জিনজিয়াংয়েও ধর্মীয় স্বাধীনতার ওপরে হস্তক্ষেপের অভিযোগ আছে সরকারের বিরুদ্ধে। সেখানকার উইঘুর মুসলিমদের বিরুদ্ধে বিচ্ছন্নতাবাদী আন্দোলনের অভিযোগ তাদেরকে নানাভাবে নিপীড়ন করছে কম্যুনিস্ট শাসক।

কথিত ইসলামী চরমপন্থা মতবাদ বৃদ্ধির আশঙ্কার অজুহাতে সেখানে ইতোমধ্যে পবিত্র কুরআন শিক্ষা ও দাড়ি রাখার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

ধর্মীয় স্বাধীনতার বিষয়ে এমন সিদ্ধান্তে স্থানীয় হুই জাতিগোষ্ঠীর মুসলিম নেতারা জানান, এর মাধ্যমে চীনা সরকার এখান থেকে ইসলামকে সমূলে উৎখাত করার পদক্ষেপ নিল মূলত।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক লিনজিয়ার শীর্ষ একজন ইমাম বলেন, খোলাখুলিভাবে বললে আমরা খুব ভীত। এখানেও জিনজিয়াং মডেল চাপিয়ে দেয়া হচ্ছে আমাদের ওপর।

জানা গেছে, ১৬ বছরের ঊর্ধ্ব বয়সের বালকদের শুধু ধর্মীয় শিক্ষার জন্য মসজিদে যেতে দেয়া হচ্ছে সেখানে। এছাড়া মসজিদে ইমামতি করার আনুষ্ঠানিকতাকেও সংকুচিত করে ফেলা হয়েছে।

এছাড়া প্রত্যেক মসজিদে জাতীয় পতাকার উত্তোলনের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। শব্দ দূষণের অজুহাত দিয়ে এ অঞ্চলের ৩৫৫টি মসজিদের মাইক অপসারণ করারও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

স্থানীয় মুসলিম নেতারা জানাচ্ছেন, ইসলামকে তার ভিত্তি থেকে সরিয়ে তারা ধর্মশূন্যতার দিকে নিয়ে যেতে যাচ্ছে। এখানে কম্যিউনিজম আর শাসক পার্টির আদর্শ ছাড়া আমাদের বাচ্চাদের কোনো ধরনের শিক্ষাই ওরা নিতে দেবে না।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ফিনল্যান্ডে ট্রাম্প-পুতিন বৈঠক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৬ ১২:৩৫:৪৪

প্রথমবারের মতো দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিংকির প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে বিশ্বের প্রভাবশালী দুই নেতা বৈঠক চলছে।

পূর্ব নির্ধারিত সময়ের কিছুক্ষণ পরে ট্রাম্প-পুতিন বৈঠক শুরু হয়েছে বলে জানায় বিবিসি। পরিকল্পিত সূচি অনুযায়ী, দুই নেতা প্রথমে অন্তত এক ঘণ্টা নিজেরা কথা বলবেন। এই সময়ে দুইজন দোভাষী ছাড়া অন্য কেউ তাদের সঙ্গে থাকবেন না। গার্ডিয়ান জানিয়েছে, বৈঠকের অংশ হিসেবে দুই নেতা মধ্যাহ্নভোজে অংশ নিয়েছেন। অন্যান্য কূটনীতিকদের তাদের সঙ্গে ভোজে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে।

সোমবার পুতিনের সাথে প্রথম সাক্ষাতেই সফলভাবে বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজনের জন্য তাকে অভিনন্দন জানান ট্রাম্প। এটি সেরা আয়োজনগুলোর অন্যতম ছিল বলে মন্তব্য করেন তিনি। রাশিয়ার সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তোলার আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘আমাদের(দুই দেশের) মধ্যে সম্পর্ক খুব ভালো নয়…… তবে গত দুই বছর ধরে সম্পর্কের দূরত্ব কমছে। রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি হলে সেটা ভালো হবে, এটা খারাপ কিছু না।’

ট্রাম্প জানান, বৈঠকে তারা বাণিজ্য, সেনাবাহিনী এমনকি চীনের আধিপত্য বিস্তার নিয়েও আলোচনা করবেন বলে জানান নিজেদের পরমাণু অস্ত্রের বিষয়েও তারা একটি সমঝোতায় পৌঁছাতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

ওদিকে, পুতিন বলেন, ‘বিশিষ্ট প্রেসিডেন্ট, ফিনল্যান্ডের হেলসিংকিতে আপনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পেরে আমি আনন্দিত। যদিও আমাদের মধ্যে নিয়মিত যোগাযোগ আছে...আমরা ফোনে কথা বলেছি এবং কয়েকটি আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠানে আমাদের বেশ কয়েকবার দেখা হয়েছে। তবে অবশ্যই নিজেদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে বিস্তারিত কথা বলার এবং বিশ্বের সমস্যাপূর্ণ অনেকগুলো এলাকা নিয়ে আলোচনার এটাই সময়।’

বৈঠক শুরুর আড়াই ঘণ্টা পর একটি সংবাদ সম্মেলন হবে এবং সেখান থেকে ট্রাম্প হেলসিংকি বিমানবন্দরে চলে যাবেন।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

শিরোপা উদযাপন করতে গিয়ে প্যারিসে সহিংসতা, নিহত ২

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৬ ১২:২৮:৩৮

ফ্রান্সের বিশ্বকাপ শিরোপা জয় উদযাপন করতে গিয়ে প্যারিসে ছড়িয়ে পড়লো সহিংসতা। বাধভাঙা উদযাপন করতে গিয়ে দুজন নিহত হওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। যাতে মাটি হয়ে গেছে দেশটির আনন্দঘন এই উপলক্ষ।

রবিবার ফ্রান্স ৪-২ গোলে ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরপর প্যারিসে আনন্দের ঢল নেমেছিল বিকালে। বাধভাঙা সেই উদযাপন হঠাৎ করে রূপ নেয় সহিংসতায়। সেটা ঠেকাতে পুলিশ ছুড়েছে কাঁদানে গ্যাস, তাদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় বিক্ষুব্ধ ভক্তের কিছু অংশ।

বিশ্বকাপ ফাইনালের শেষ বাঁশি বাজার পরপরই চ্যাম্পস এলিসিসে আনন্দের জোয়ার নামে। লাখ লাখ ফরাসি রাস্তায় নেমে পরে শিরোপা উদযাপন করতে। প্যারিসের এই আইকনিক ভেন্যুতে হাজার হাজার ভক্ত একত্র হতে থাকে।

কিন্তু সন্ধ্যা গড়িয়ে যেতেই ভক্তরা বুনো উল্লাসে মেতে ওঠে। বেশ কয়েকটি জায়গায় লুটপাটের ঘটনাও ঘটেছে। তাদের থামাতে ১ লাখ পুলিশ মাঠে নামে। ৪৪ হাজার অগ্নিনির্বাপণ কর্মী যোগ দেন এই বিশৃঙ্খলা ঠেকানোর কাজে।

শিরোপা জয়ের উল্লাস করতে গিয়ে দুর্ঘটনায় মারা গেছেন দুই জন। পুলিশ জানায়, ফ্রান্সের জয় উদযাপন করতে গিয়ে খালে লাফ দিয়ে ৫০ বছর বয়সী একজন নিহত হয়েছেন। ফ্রান্সের সেন্ট ফেলিক্স শহরে গাছের সঙ্গে গাড়ি ধাক্কা লাগায় ত্রিশোর্ধ্ব এক ব্যক্তি মারা যান।

উদযাপন থেকে রূপ নেওয়া সহিংসতায় ৮৪৫টি গাড়ি ভাংচুরের শিকার হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে প্রায় ৫০০ জনকে।

সহিংসতার ভিডিও মুছে না ফেলায় কয়েকজন সাংবাদিক হেনস্তার শিকার হয়েছেন। প্যারিসের একটি পানশালায় ভাংচুর করা হয়েছে। ফোনে ছবি তোলা শেষে চ্যাম্পস এলিসিসের একটি দোকানে লুটপাট করেছে মুখোশধারী প্রায় ৩০ জন তরুণ।

পুরো প্যারিস শহরে ছড়িয়ে পড়ে এই দাঙ্গা। রাত সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ এই বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে জলকামান ব্যবহার করে।

প্যারিসে একজন মেয়র জ্যা ডি’আউতেসের বলেন, ‘উদযাপন মাটি হয়ে গেছে সহিংসতার কারণে।’

লিওঁতে পুলিশ ও শতাধিক তরুণের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। তারা সবাই পুলিশের গাড়িতে উঠে উল্লাস করছিলেন। ন্যান্সিতে ৩ বছরের এক ছেলে ও দুজন ছয় বছরের মেয়ে উদযাপন করতে গিয়ে মোটরবাইকের ধাক্কায় গুরুতর আহত হন।

মার্শেইতে অন্তত ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সেখানে সংঘর্ষে নিরাপত্তাবাহিনীর দুজন আহত হয়েছেন জানায় পুলিশের একজন মুখপাত্র। সেখানে উদযাপনকে প্রশমিত রাখতে ৪ হাজার পুলিশকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ভারতে মোদির জনসভায় শামিয়ানা ভেঙে আহত ৬৭

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৬ ১২:১১:১২

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এক অনুষ্ঠানে শামিয়ানা ভেঙে পড়ে অন্তত ৬৭ জন আহত হয়েছেন। সোমবার বিকালে প্রদেশের মিদনাপুর শহরে এই দুর্ঘটনা ঘটে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মোদির বক্তব্যের মাঝখানেই এই দুর্ঘটনা ঘটে। মোদি বক্তব্য থামিয়ে নিরাপত্তা কর্মীদের আহতদের সহায়তা করার নির্দেশ দেন। তিনি সবাইকে আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রীর বহরে থাকা মোটরবাইক ও অ্যাম্বুলেন্সে করে আহতদের নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। মোদির নিরাপত্তায় থাকা বিশেষ বাহিনী ও বিজেপি কর্মীরা উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়।

এরপর হাসপাতালে আহতদের দেখতেও যান মোদি। সেখানে তাদের সঙ্গে আবেগঘন মুহূর্ত কাটান ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী। বিজেপির আইটি সেল প্রধান অমিত মালভিয়া এক টুইটে বলেন, মিদনাপুর হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে থাকা এক নারী মোদির অটোগ্রাফ চাইলে সাথে সাথেই তা দেন মোদি।

সোমবার সকাল থেকেই অনেক বৃষ্টি হচ্ছিলো। সেজন্য জনসভায় শামিয়ান টাঙায় স্থানীয় প্রশাসন। কিন্তু বিকালে সেই শামিয়ান ধসে পড়ে। ইউনিয়নমন্ত্রী এসএস আহলুওয়ালিয়া দাবি করেন, কোনোরকম অব্যবস্থাপনা হয়নি। অনেক বৃষ্টির কারণেই এমনটা হয়েছে।

তিনি বলেন, বৃষ্টির কারণে মাটি নরম হয়ে গিয়েছিলো। তাই বাঁশ খুলে যায়। এছাড়া অনেকে প্রধানমন্ত্রীকে দেখার জন্য বাঁশের উপরে ওঠার চেষ্টা করেন। এজন্য স্থাপনা আরও দুর্বল হয়ে যায়।

কেন্দ্রীয় কর্মকর্তারা একে নিরাপত্তাজনিত অব্যবস্থাপনা বলে উল্লেখ করেছেন। তারা প্রশ্ন তুলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর কথা মাথা রেখে সেখানে যথেষ্ট নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছিল কিনা। এক কর্মকর্তা বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নিরাপত্তার জন্য  বছরে ৩৫০ কোটি রুপিরও বেশি খরচ করা হয়। কিন্তু ভেন্যু যদি নিরাপদ না হয়, তবে তিনিও নিরাপদ নন।’

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে ইরানের মামলা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৬ ১২:০৬:১৯

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে মামলা দায়ের করেছে ইরান। তেহরানের বিরুদ্ধে নতুন করে একতরফা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার কারণে ইরান এ পদক্ষেপ নিয়েছে বলে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ জানিয়েছেন।

মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ তার সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্টে দেয়া এক পোস্টে বলেন, বেআইনিভাবে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করার জন্য ইরান আজ সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে মামলা দায়ের করেছে।

গত ৮ মে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে বলেন, ইরানের বিরুদ্ধে এ যাবতকালের কঠোরতম নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে ছয় জাতিগোষ্ঠীর যে সমঝোতা সই হয় তাতে যুক্তরাষ্ট্রও সই করেছিল। পরবর্তীতে সে সমঝোতা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ অনুমোদন করে। কিন্তু ট্রাম্প প্রশাসন ওই চুক্তি থেকে একতরফাভাবে নিজেদের সরিয়ে নিয়ে ইরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

দুই দেশের মধ্যে পাল্টাপাল্টি আক্রমণের পর দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে আজ মামলা দায়ের করলেন।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

‘প্যান্ট ফুলে থাকায়’ কৃষ্ণাঙ্গকে হত্যা পুলিশের, শিকাগোয় সংঘর্ষ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৫ ১৪:০৫:০৯

পুলিশ অফিসারের গুলিতে এক কৃষ্ণাঙ্গ নিহত হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভকারীরা রাস্তায় নামলে তাদের সাথেও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো রাজ্যের পুলিশ।

পরনের প্যান্ট ফুলে থাকায় নিহত ব্যক্তির কাছে আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে এই সন্দেহে তাকে গুলি করে হত্যা করে পুলিশ।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি রোববার জানিয়েছে, প্রায় ১৫০ জন বিক্ষোভকারী পুলিশকে ‘খুনি’ বলে অভিহিত করে স্লোগান দেয়, ইটপাটকেল ছুঁড়ে মারে। একপর্যায়ে তারা পুলিশের গাড়িতে হামলা চালায়।

এসময় পুলিশ লাঠি নিয়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে বলে জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো। সংঘর্ষে তিনজন পুলিশ সামান্য আহত হয়েছেন। গ্রেফতার করা হয়েছে চারজনকে।

নিহত ব্যক্তির নাম-পরিচয় গোপন রাখা হয়েছে। তবে, স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে বলা হয়, তার বয়স ৩০ বছরের কাছাকাছি।

পুলিশের এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ওই ব্যক্তিকে দেখে কর্তব্যরত পুলিশের মনে হয়েছিল তিনি ‘সশস্ত্র’। ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুক ও দুটি গুলি উদ্ধার করার দাবি করেছে পুলিশ।

শিকাগো পুলিশের ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা জানান, নিহতের প্যান্ট ফুলে থাকায় পুলিশ সন্দেহ করে সে লুকিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র বহন করছে। পুলিশ তাকে থামতে বললে সে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে এবং বন্দুক বের করার জন্য হাত বাড়ালে গুলি চালায় পুলিশ।

সম্প্রতি, কৃষ্ণাঙ্গদের হত্যার বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটায় যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিক্ষোভ শুরু হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই নিহত ব্যক্তিরা নিরস্ত্র ছিলেন।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত