যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ২২ মে, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 05:18am

|   লন্ডন - 12:18am

|   নিউইয়র্ক - 07:18pm

  সর্বশেষ :

  দ্বিতীয় বিয়ে বাধ্যতামূলক যেখানে   চীনে মসজিদে মসজিদে জাতীয় পতাকা ওড়ানোর নির্দেশ   করাচিতে দাবদাহে হিট-স্ট্রোকে ৬৫ জনের মৃত্যু   যুদ্ধক্ষেত্রে সর্বাধুনিক এফ-৩৫ উড়িয়েছে ইসরায়েল   মিলানে ছাত্রলীগের আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল   নিউজার্সিতে কুলাউড়া এসোসিয়েশনের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত   তথাকথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এবার ৯ জেলায় নিহত ১২   আর্জেন্টিনার চূড়ান্ত দল ঘোষণা   মাদকের আন্ডারওয়ার্ল্ডে ১৪১ গডফাদার   মদিনায় বিমান দুর্ঘটনা থেকে বাঁচলেন ১৫১ বাংলাদেশি   রাজীবের দুই ভাইকে কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আদেশ স্থগিত   বান্দরবানে পাহাড় ধসে ৪ শ্রমিক নিহত   ইবাদতের মৌসুম মাহে রমজান   শান্তিনিকেতনে শুক্রবার হাসিনা-মোদি-মমতার সাক্ষাৎ   ইরানের ওপর ‘ইতিহাসের বড় নিষেধাজ্ঞা’ দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

>>  বহিঃ বিশ্ব এর সকল সংবাদ

দ্বিতীয় বিয়ে বাধ্যতামূলক যেখানে

ভারত ও পাকিস্তান সীমান্তে রাজস্থানের একটি গ্রাম দেরাসর। ওই গ্রামের প্রত্যেক পুরুষের জন্য দুবার করে বিয়ে বাধ্যতামূলক। কিন্তু একটি প্রত্যন্ত গ্রামে কেন এই অদ্ভুত রীতি? কেনই বা দীর্ঘদিন ধরে এটাই রেওয়াজ হিসেবে চলে আসছে?

দেরাসর গ্রামে ৬০০ মানুষের বাস। মুসলিম অধ্যুষিত গ্রামটিতে সব মিলিয়ে রয়েছে ৭০টি পরিবার।

বহু দিন ধরেই চলে আসা এই প্রথা মেনে চলেন সবাই। এ আধুনিক যুগেও এর ব্যতিক্রম হয় না। ইসলাম ধর্মে বহুবিবাহ প্রথার চল রয়েছে। তবে, দেরাসরে জোর করে ছেলেদের দ্বিতীয়বার বিয়ে করতে বাধ্য করে পরিবার। কিন্তু কেন এমন রেওয়াজ?

গ্রামবাসীর ভাষ্য, গ্রামে যতজন পুরুষ

বিস্তারিত খবর

চীনে মসজিদে মসজিদে জাতীয় পতাকা ওড়ানোর নির্দেশ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২২ ১৪:২২:৪৯

দেশাত্মবোধের স্পৃহা বাড়াতে চীনে মসজিদে মসজিদে জাতীয় পতাকা ওড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে ইসলাম বিষয়ে দেশটির শীর্ষ নীতিনির্ধারণী সংগঠন চায়না ইসলামিক অ্যাসোসিয়েশন। একইসঙ্গে সমাজতন্ত্রের আদর্শকে নিজের আদর্শ হিসেবে গ্রহণ এবং সেই আদর্শের আলোকে ধর্মীয় গ্রন্থকে ব্যাখ্যা করারও নির্দেশ দিয়েছে সরকারঘেঁষা এই প্রতিষ্ঠানটি। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

সংস্থাটি এক বিবৃতিতে জানায়, মসজিদের দৃশ্যমান জায়গায় পাঁচ তারকা সম্বলিত লাল পতাকা ওড়াতে হবে। বিশেষ করে নিংজিয়া, বেইজিং, গানসু, কিংহাই ও জিনজিয়াং প্রদেশে এ বিষয়ে বিশেষ প্রচার প্রচারণা চালানোর নির্দেশ দিয়েছে ওই সংগঠনটি। এই বিবৃতিকে কমিউনিস্ট শাসিত চীনে মুসলিমদের ধর্মীয় বিধিবিধানের ওপর কঠোর বিধিনিষেধ আরোপের এটি সবশেষ পদেক্ষেপ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো চীনেও গত সপ্তাহ থেকে রমজান মাস উপলক্ষে রোজা রাখা শুরু করেছেন মুসলমানরা। বিবৃতিতে বলা হয়, মসজিদে মসজিদে জাতীয় পতাকা ওড়ানো হলে জাতীয় ও নাগরিক আদর্শ সম্পর্কে ধ্যান-ধারণা বাড়বে এবং মুসলিমদের মাঝে দেশাত্মবোধ জেগে উঠবে।

ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়, মসজিদগুলোর উচিত সমাজতন্ত্রের মৌলিক বিষয় সংক্রান্ত তথ্যসমূহ প্রকাশ্যে নিয়ে আসা এবং সেগুলো মুসলিমদের কাছে ইসলামিক দৃষ্টিকোণ থেকে ব্যাখ্যা করা যাতে করে মানুষের মনে এগুলো গভীরভাবে গেঁথে যায়।

চীন সম্প্রতি ‘ধর্মীয় বিশ্বাসের স্বাধীনতার উপর চীনের নীতি ও রীতির নিয়ন্ত্রণ’ শিরোনামে একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছে। সেখানে ধর্মানুরাগীদের কমিউনিস্ট নেতৃত্বের প্রতি সমর্থন এবং দেশের ও দেশের জনগোষ্ঠীর স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে নত থাকার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়। ওই শ্বেতপত্রে আরও বলা হয়, ২০ কোটি ধর্ম বিশ্বাসীদের উচিত সমাজতান্ত্রিক সমাজের সাথে মিল রেখে ধর্মীয় বিধি-নিষেধ মেনে চলা।

ওই শ্বেতপত্রে বলা হয়, ১০টি সংখ্যালঘু গোষ্ঠী বাদেও দেশটিতে ২ কোটি মুসলমানদের বসবাস রয়েছে।

উল্লেখ্য, চীনে রাষ্ট্রীয়ভাবে পাঁচটি ধর্মের স্বীকৃতি রয়েছে। এগুলো হলো- বৌদ্ধ, ক্যাথলিক, প্রোটেস্ট্যানিজম, তাওবাদ ও ইসলাম। চীনের সংবিধানে ধর্মীয় স্বাধীনতার নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

করাচিতে দাবদাহে হিট-স্ট্রোকে ৬৫ জনের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২২ ১৪:২১:০০

গত তিনদিনে পাকিস্তানের দক্ষিণের নগরী করাচিতে হিট-স্ট্রোকে ৬৫ জন মারা গেছেন। মঙ্গলবার দেশটির একটি সমাজকল্যাণ সংস্থা এ তথ্য জানিয়েছে। তাপমাত্রা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে ইদি ফাউন্ডেশন নামের সংস্থাটি।

স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, বিদ্যুৎ সংকট এবং রমজানে দিনে পানি পান বন্ধ থাকায় অধিকাংশ মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। সোমবার করাচির তাপামাত্র ৪৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ইদি ফাউন্ডেশনের পরিচালক ফয়সাল ইদি জানিয়েছেন, অধিকাংশ মৃত্যুর ঘটনা করাচির নিম্নবিত্ত এলাকাগুলোতে ঘটেছে।

ইদি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘গত তিনদিনে ৬৫ জন মারা গেছেন। মৃতদেহগুলো আমাদের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মর্গে রাখা আছে। এলাকার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন এসব লোক হিট-স্ট্রোকে মারা গেছেন।

এ ব্যাপারে সরকারের কোনো মুখপাত্রের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

অবশ্য সিন্ধু প্রদেশের স্বাস্থ্য সচিব ফজলুল্লাহ পিচুহো ডন নিউজকে জানিয়েছেন, তার রাজ্যে হিট-স্ট্রোকে কেউ মারা যায়নি।

তিনি বলেছেন, ‘কেবল চিকিৎসক ও হাসপাতালই নির্ধারণ করতে পারে তারা হিট-স্ট্রোকে নাকি অন্য কোনোভাবে মারা গেছেন। করাচিতে হিট-স্ট্রোকে মৃত্যু হয়েছে এ বিষয়টি আমি অস্বীকার করছি।’

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যুদ্ধক্ষেত্রে সর্বাধুনিক এফ-৩৫ উড়িয়েছে ইসরায়েল

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২২ ১৪:২০:৩২

প্রথমবারের মতো আকাশযুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি সর্বাধুনিক এফ-৩৫ স্টিলথ যুদ্ধবিমান ব্যবহার করেছে ইসরায়েল। মঙ্গলবার ইসরায়েলি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বিবিসি এ তথ্য জানিয়েছে।

ইসরায়েলি বিমানবাহিনীর প্রধান বৈরুত ও লেবাননের আকাশ দিয়ে এফ-৩৫ এর ছবি দেখিয়ে জানিয়েছেন, ইতিমধ্যে দুটি যুদ্ধক্ষেত্রে এই বিমান দিয়ে হামলা চালানো হয়েছে।

মেজর জেনারেল আমিকাম নরকিন ইসরায়েলে ২০ বিদেশি দেশের বিমানবাহিনীর প্রধানদের বৈঠকে বলেছেন, ‘আমরা পুরো মধ্যপ্রাচ্যের আকাশে এফ-৩৫ উড়িয়েছি এবং ইতিমধ্যে দুটি যুদ্ধক্ষেত্রে এটি লক্ষ্যবস্তুকে আঘাতও হেনেছে।’

ইসরায়েল অবশ্য সম্প্রতি সিরিয়ায় কয়েক দফা বিমান হামলা চালিয়েছে।

সমরাস্ত্রের দিক থেকে এফ-৩৫ হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে দামী যুদ্ধবিমান। একইসঙ্গে যুদ্ধক্ষেত্রে এর কার্যদক্ষতাও অনেক বেশি। গত বছর এই বিমানের উৎপাদন খরচ বেশি হওয়ায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সমালোচনার মুখে মার্কিন সামরিক বাজেট কাঁটছাঁট করতে বাধ্য হয়েছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস মাত্তিস। ওই সময় জানানো হয়েছিল একটি এফ-৩৫ তৈরি করতে খরচ পড়ে প্রায় ১০ কোটি মার্কিন ডলার। যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে ইসরায়েলই একমাত্র দেশের যাদের এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান রয়েছে। এর আগে তারা ৫০টি এফ-৩৫ এর ক্রয়াদেশ দিয়েছিল।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মদিনায় বিমান দুর্ঘটনা থেকে বাঁচলেন ১৫১ বাংলাদেশি

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২২ ০১:৪২:৩০

সৌদি আরব থেকে ঢাকাগামী একটি বিমান বড় ধরনের দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। এর ফলে প্রাণে বেঁচে গেছেন বিমানটিতে থাকা ১৫১ বাংলাদেশি। গতকাল সোমবার বিমানটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

জানা গেছে, ১৫১ আরোহী নিয়ে সৌদি এয়ারলাইন্সের SV3818 একটি বিমান মদিনা থেকে ঢাকার উদ্দেশে উড্ডয়ন করে। আকাশে ওড়ার পর বিমানটিতে যান্ত্রিক ত্রুটি ধরা পড়ায় পাইলট দ্রুত বিমানটি জেদ্দার কিং আব্দুল আজিজ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে জরুরি অবতরণ করাতে বাধ্য হন। এতে ল্যান্ডিং গিয়ার ভেঙে বিমানটি রানওয়েতে মুখ থুবড়ে পড়ে এবং বিমানটির ল্যান্ডিং গিয়ারে আগুন ধরে যায়।

জেদ্দা বিমানবন্দরের সিভিল এভিয়েশন এবং ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ জানায়, পাইলট কয়েকবার চেষ্টা করে বিমানটি অবতরণ করাতে ব্যর্থ হন। শেষ পর্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে স্থানীয় সময় রাত ১১টা ২০ মিনিটে বিমানটি জরুরি অবতরণ করাতে সক্ষম হন তিনি।

বিমানটি অবতরণ করার আগে সৌদি সেনাবাহিনী, বিমান বাহিনী এবং ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল সম্ভাব্য ক্ষতির আশঙ্কা মাথায় রেখেই সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহণ করে। বিমানটি মাটি স্পর্শ করার সঙ্গে সঙ্গেই উদ্ধারকারী দল দ্রুত যাত্রীদের উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়।

সৌদি এয়ারলাইন্স তাদের অফিসিয়াল টুইটারে জানিয়েছে, বিমানটিতে ১৫১ জন আরোহী ছিল, যাদের সবাইকে নিরাপদে বিমান থেকে নামিয়ে আনা হয়েছে। তারা সকলেই সুস্থ আছেন।

বিমানটির যাত্রী আহাদুল হাসান জানান, ‘আলহামদুল্লিলাহ, আমরা প্রাণে বেঁচে এসেছি আল্লাহর হাজার শুকরিয়া। প্রায় দশবার বিমানটি অবতরণে চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে আমরা বেঁচে আসবো এ আশা ছিল না। বিমানের ভেতরে কান্নার রোল পড়ে যায়। যে যার মতো দোয়া দরুদ পড়ছিল।’

বর্তমানে ফ্লাইটটির সকল যাত্রীদের জেদ্দা হজ টার্মিনালের লাউঞ্জে রাখা হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

শান্তিনিকেতনে শুক্রবার হাসিনা-মোদি-মমতার সাক্ষাৎ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২১ ১২:২৭:৪৭

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের শান্তিনিকেতনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাচ্ছেন।

বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ ভবন উদ্বোধন অনুষ্ঠান উপলক্ষে একত্রিত হবেন তারা। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়টির সমাবর্তনে যোগ দেবেন তারা।

তিস্তার পানি বণ্টন নিয়ে হাসিনা, মোদি ও মমতার মধ্যে আনুষ্ঠানিক আলোচনা হবে কিনা সেই বিষয়ে কোনো সরকারি বার্তা পাওয়া যায়নি। তবে এই বিষয়ে আলোচনা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সফরসূচি অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কলকাতার উদ্দেশ্যে ২৫ মে সকাল ৮টায় ঢাকা ত্যাগ করবেন। একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট যোগে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবেন তিনি।

এরপর সকাল ৯টায় নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে হেলিকপ্টারযোগে বীরভূমের বোলপুরের উদ্দেশে যাত্রা করবেন। সেখানে হাসিনা-মোদিকে স্বাগত জানাবেন বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক সবুজকলি সেন।

এর আগে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর জানান, বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রীর স্মারক হিসেবে বাংলাদেশ ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। ভবনটিকে বাংলাদেশ ও ভারতের শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতি শিক্ষার এবং প্রাসঙ্গিক গবেষণার কেন্দ্র হিসেব গড়ে নেয়া হবে।

শেখ হাসিনার খসড়া সফরসূচি অনুযায়ী, দুই প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ ভবনে মধ্যাহ্নভোজের সময় বৈঠক করবেন। অনুষ্ঠান শেষে মোদি কলকাতায় ফিরে নয়াদিল্লি চলে যাবেন। অন্যদিকে শেখ হাসিনা বিকেলে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মস্থান জোড়াসাঁকোর ঠাকুর বাড়ি যাবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরদিন শনিবার আসানসোল যাবেন এবং কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় সমাবর্তনে যোগদান এবং ডি-লিট ডিগ্রি গ্রহণ করবেন। সেইসঙ্গে তিনি নেতাজি জাদুঘর পরিদর্শন করবেন।

প্রধানমন্ত্রী শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকার উদ্দেশে কলকাতা ত্যাগ করবেন। এসময় নয়াদিল্লিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী তাকে বিদায় জানাবেন।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইরানের ওপর ‘ইতিহাসের বড় নিষেধাজ্ঞা’ দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২১ ১২:২১:২৭

ইরানের ওপর ‘ইতিহাসের সবচেয়ে বড় নিষেধাজ্ঞা’ জারি করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার এমনটা বললেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

রাজধানী ওয়াশিংটনে দেয়া এক বক্তৃতায় এ নিষেধাজ্ঞার কথা জানিয়ে পম্পেও জানান, ‘ইরানের বাড়াবাড়ি রুখে দিতে’ মিত্র শক্তিগুলোর সঙ্গে কাজ করবে যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া এ নিষেধাজ্ঞা জারির পর নিজেদের অর্থনীতি চাঙ্গা রাখতে ইরানকে ‘যুদ্ধ’ করতে হবে বলে জানান তিনি।

পম্পেও আরও বলেন, ‘আমরা ইরানের ওপর নজিরবিহীন অর্থনৈতিক চাপ দিতে যাচ্ছি। আমাদের কঠিন অবস্থা নিয়ে তেহরানের নেতাদের আর কোনো সন্দেহ থাকবে না। ইরান আর কখনও মধ্যপ্রাচ্যে পূর্ণ ক্ষমতায় ফিরে যেতে পারবে না।'

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে পরমাণু ইস্যুতে ছয় জাতির একটি চুক্তি সই হয়। ওই চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী দেশগুলোর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও রয়েছে ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, চীন ও রাশিয়া। সম্প্রতি ইরানের সঙ্গে করা পারমাণবিক চুক্তি বাতিল করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

হ্যারি-মেগানের বিয়ে উপলক্ষ্যে বিশেষ কনডম

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২০ ১৫:৫১:৩১

ব্রিটিশ রাজপরিবারে বিয়ের ধুম লাগলে তার অাঁচ পাওয়া যায় সর্বত্র। সাধারণ মানুষের ব্যাপক কৌতুহল থাকায় রাজপরিবারের কোনো সদস্যের বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক হওয়ার পর থেকে বিয়ের কয়েকদিন পর পর্যন্ত আলোচনা চলতে থাকে। ব্যবসায়ীরাও এ সুযোগটি হেলায় নষ্ট করেন না। রাজপরিবার নিয়ে সাধারণ মানুষের সীমাহীন কৌতুহলকে পুঁজি করে নতুন নতুন ব্যবসার ফন্দি আঁটেন তারা।

প্রিন্স হ্যারি ও মেগান মার্কেলের বিয়েতেও ব্যবসায়ীরা রাজপরিবারের থিমে নানা পণ্য বিক্রি করেছেন। তবে ‘ক্রাউন জুয়েলস’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান এ কাজে বাকী সবাইকে ছাড়িয়ে গেছে। হ্যারি-মার্কেলের বিয়ে উপলক্ষ্যে তারা নতুন একটি কনডম বাজারে এনেছে!

এ কনডমের বিক্রি বাড়াতে চেষ্টার ত্রুটি রাখেনি ক্রাউন জুয়েলস। ৮০টি কনডমের একটি বক্স মাত্র ১০ পাউন্ডে বিক্রি করছে তারা। এসব কনডমের প্যাকেটও করা হয়েছে ভিন্নভাবে। রয়্যাল ব্লু রঙে কনডমের প্যাকেটের ওপর তারা হ্যারি ও মার্কেলের ছবি ছেপে দিয়েছে। আরও অবাক করা ব্যাপার হচ্ছে, কনডমের বক্স খুললেই বেজে উঠবে ‘গড সেভ দ্য কুইন’ গানের সুর। এ গানটি ব্রিটেনের রানীর মঙ্গল কামনায় রচিত হয়েছিল।

মেগান-হ্যারির বিয়ে নিয়ে অনেকে নানা রকমের স্যুভেনির বিক্রি করলেও রাজ পরিবারের সদস্যদের ছবিযুক্ত কনডম বিক্রিকে অনেকে বাড়াবাড়ি বলে মনে করছেন। তবে ক্রাউন জুয়েলস তাদের কনডমের প্যাকেটের গায়ে লিখে দিয়েছে ‘রাজ পরিবারের কোনো সদস্য এ কনডম অনুমোদন করেন নি।’

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

নিউ ইয়র্ক পুলিশে পাগড়ি পরা নারী পুলিশ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২০ ১৫:৪৯:০৬

নিউ ইয়র্কের পুলিশে পাগড়ি পরা পুলিশ আগেও দেখা গেছে। তবে এই প্রথম কোনো পাগড়ি পরা নারী পুলিশকে দেখা যাবে নিউ ইয়র্ক পুলিশে। গুরসৌচ কৌর নামে ওই নারী নিউ ইয়র্ক পুলিশ অ্যাকাডেমি থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন। সহাকারী পুলিশ অফিসার হিসেবে পাগড়ি পরা এই নারী নিউ ইয়র্ক পুলিশে যোগদান করেছেন।

নিউ ইয়র্কের পুলিশ কমিশনার জেমস ও’নেইল জানান, ২০১৬ সালের হিসেব অনুযায়ী ১৬০ জন শিখ রয়েছেন নিউ ইয়র্ক পুলিশে। কিন্তু গুরসৌচ কৌর হলেন প্রথম নারী পাগড়ি পরা পুলিশ।

নিউ ইয়র্ক পুলিশে প্রথম পাগড়ি পরা নারী পুলিশ গুরসৌচ কৌর। ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনিডিটিভির এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ২০১৬ সালের আগে নিউ ইয়র্ক পুলিশে শিখরা মাথায় পাগড়ি কিংবা দাড়ি রাখার অনুমতি পেতেন না। ২০১৬ সালে শিখরা বিক্ষোভ করলে এ বিষয়ে নিউ ইয়র্ক পুলিশ নিয়ম কিছুটা শিথিল করে। শিখরা দেড় ইঞ্চি পর্যন্ত দাড়ি আর পুলিশের টুপির নিচে পাগড়ি পরার অনুমতি পায়।

নিউ ইয়র্ক পুলিশে প্রথম পাগড়ি পরা নারী পুলিশ হিসেবে গুরসৌচ ইতোমধ্যে সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদিপ সিংহ গুরসৌচকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

কিউবায় বিধ্বস্ত বিমানের ব্ল্যাক বাক্সের সন্ধান, নিহত ১১০

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২০ ১৫:৪৮:০৬

কিউবায় বিধ্বস্ত বিমানের দুটি ব্ল্যাক বাক্সের একটি ‘ভালো অবস্থায়’ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা। এ দুর্ঘটনায় তারা ১১০ জনের নিহতের খবর নিশ্চিত করেছেন।

উদ্ধারকৃত ব্ল্যাক বাক্সের মাধ্যমে জানা যাবে, বিমানটিতে দুর্ঘটনার আগে কী কী ঘটেছিল।

কিউবার পরিবহনমন্ত্রী আদেল ইজকুইয়ারডো এ তথ্য জানিয়ে আশা প্রকাশ করেন, দ্বিতীয় ব্ল্যাক বাক্সটিও অক্ষত অবস্থায় অতি দ্রুত উদ্ধার করা সম্ভব হবে।

মন্ত্রী জানান, নিহত ১১০ জনের মধ্যে ১১ জন বিদেশি রয়েছেন। নিহতদের মধ্যে পাঁচজন শিশুও রয়েছে। ওই বিমানের ১১৩ আরোহীর মধ্যে দুর্ঘটনায় জীবিত উদ্ধার হয়েছেন তিন নারী। তবে তাদের শরীর গুরুতরভাবে পুড়ে গেছে।
 
১৯৮৯ সালের পর এটি কিউবায় সবচেয়ে বড় বিমান দুর্ঘটনা। ১৯৮৯ সালে হাভানার কাছে একটি বিমান বিধ্বস্ত হলে ১২৬ আরোহী ও ১৪ জন এলাকার বাসিন্দাসহ মোট ১৪০ জন নিহত হন।

শুক্রবারের এ দুর্ঘটনায় কিউবায় দুই দিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি ৪০ বছর পুরোনো ছিল।

শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা ৮ মিনিটে হোসে মারতি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার কিছুক্ষণ পূর্বে এয়ারপোর্ট থেকে পূর্বাঞ্চলীয় শহর হলগুইনের উদ্দেশে রওয়ানা হয়। পরে উড্ডয়নের কিছুক্ষণ পর সেটি এয়ারপোর্টের কাছাকাছি বিধ্বস্ত হয়। একটি মেক্সিকান প্রতিষ্ঠান থেকে বিমানটি লিজ নিয়েছিল কিউবা সরকার।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বিশ্বের ষষ্ঠ ধনী দেশ ভারত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২০ ১৫:৪৭:২২

বিশ্বের ধনী দেশগুলোর তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে ভারত। দেশটির মোট সম্পদের মূল্য ৮,২৩০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। গত ১০ বছরে ভারতের তথ্যপ্রযুক্তি, মিডিয়া, শিক্ষাক্ষেত্রে ২০০ শতাংশ লাভ বেড়েছে।

সম্প্রতি এএফআর এশিয়া ব্যাংক গ্লোবাল ওয়েলথ মাইগ্রেশন রিভিউয়ের সমীক্ষায় এই তথ্য উঠে এসেছে।

বিশ্বের শীর্ষ ধনী দেশ আমেরিকা, যাদের সম্পদের মূল্য ৬২,৫৮৪ বিলিয়ন ডলার। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে চীন, যাদের সম্পদের মূল্য ২৪,৮০৩ বিলিয়ন ডলার। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে জাপান। দেশটির সম্পদের মূল্য ১৯,৫২২ বিলিয়ন ডলার।

প্রথম ১০ দেশের তালিকায় এছাড়া রয়েছে ব্রিটেন, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ফ্রান্স ও ইতালি। আগামী দিনগুলোতে চীন অর্থনৈতিকভাবে আরও এগিয়ে যাবে বলে দাবি করা হয়েছে এই সমীক্ষায়।

দেশের সব মানুষের মোট সম্পদের পরিমাণ মিলিয়ে এই মূল্য ধার্য করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে নগদ টাকা, ব্যবসা, সম্পত্তি ইত্যাদি। তবে সরকারি সম্পত্তি ধরা হয়নি এই হিসেবে।

বড় দেশের ক্ষেত্রে জনসংখ্যা বেশি হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই তাদের মোট সম্পত্তির পরিমাণ অনেক বেশি হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

তুমব্রু সীমান্তে ফের উত্তেজনা, রোহিঙ্গারা আতঙ্কে

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২০ ১৫:৪২:১০

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের তুমব্রু জিরো পয়েন্টে ফের উত্তেজনা বিরাজ করছে। নো-ম্যানস-ল্যান্ডে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ঢোকাতে মাইকিংয়ের পাশাপাশি অস্ত্র উঁচিয়ে হুমকি দিচ্ছে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিজিপি। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন সেখানে অবস্থানরত রোহিঙ্গারা। এ অবস্থায়, সীমান্তে টহল কার্যক্রম জোরদার করেছে বিজিবি।

গত বছরের ২৫ আগস্টের পর মিয়ানমার থেকে পালিয়ে নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের তুমব্রু শূন্যরেখায় আশ্রয় নেয় ৬ হাজারের অধিক রোহিঙ্গা। এরপর থেকে শূন্যরেখায় অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সরাতে সীমান্তে অতিরিক্ত সৈন্য সমাবেশ, গুলিবর্ষণ, বাংকার নির্মাণ ও অস্ত্র উঁচিয়ে হুমকি দেয় মিয়ানমার।

সর্বশেষ মার্চের প্রথম সপ্তাহেও বারবার আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে সীমান্তে মাইকিং, গুলিবর্ষণ ও সৈন্য সমাবেশ ঘটিয়ে রোহিঙ্গাদের সরাতে চেষ্টা চালায় মিয়ানমার। এরপর বাংলাদেশ-মিয়ানমার পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে সীমান্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসে।

কিন্তু রোববার সকাল থেকে ফের অতিরিক্ত সৈন্য সমাবেশ ও মাইকিং করে শূন্যরেখায় অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সরে যেতে ঘোষণা দেয় মিয়ানমার। ফলে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গারা।

শূন্যরেখায় অবস্থান নেওয়া রোহিঙ্গা দিল মোহাম্মদ বলেন, ‘মিয়ানমার সেনাবাহিনী শূন্যরেখা থেকে দূরে সরে যেতে আমাদেরকে বারবার হুমকি দিচ্ছে। গত দুই মাস সৈন্য সমাবেশ ও মাইকিং বন্ধ ছিল। কিন্তু ফের আবারো তারা আমাদেরকে অস্ত্র উঁচিয়ে হুমকি দিচ্ছে।’

ইসমাইল জোহার নামে আরেকজন রোহিঙ্গা বলেন, ‘আমরা খুবই আতঙ্কিত। মিয়ানমার সেনাবাহিনী এখন অবধি আমাদের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এ ছাড়া রাতে ঢিল মারছে ও মদ্য পান করে গালিগালাজ করছে।’

শূন্যরেখার ক্যাম্পের ব্লক মাঝি মো. আরিফ বলেন, ‘মিয়ানমার মাইকিং করে জানিয়েছে, তুমব্রু সীমান্তের শূন্যরেখার রোহিঙ্গা ক্যাম্পের জায়গাটি মিয়ানমারের মংডু জেলার অন্তর্ভুক্ত। রাখাইন রাজ্যের মংডু জেলায় এখন দেশটির আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সাধারণ মানুষের চলাচলের ওপর কড়া বিধি-নিষেধ আরোপ করেছে। তাই মিয়ানমার অভ্যন্তরের শূন্যরেখা থেকে রোহিঙ্গাদের সরে যাওয়ার হুমকি দিচ্ছে।’

রোহিঙ্গা নেতা আরিফ আরো বলেন, ‘মাইকিং করে শূন্যরেখা থেকে রোহিঙ্গাদের চলে যাওয়ার হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি মিয়ানমার সীমান্তে সৈন্য সংখ্যা বৃদ্ধি করেছে। সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্টে মিয়ানমার বাহিনী টহল জোরদার করতে দেখা গেছে। এ নিয়ে শূন্যরেখায় আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।’

নাইক্ষ্যংছড়ি ৩নং ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ কে এম জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, ‘সৈন্যদের মহড়ায় আমরা একটুও বিচলিত নই। আমাদের কথা হলো, মিয়ানমার বারবার আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে গুলিবর্ষণ, শূন্যরেখায় টহল, সৈন্য সমাবেশ করছে। তাই এদের একটা শাস্তি দেওয়া উচিত, বোঝানো উচিত আমরাও নরম নই।’

বিজিবির ৩৪ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল মনঞ্জুরুল হাসান খান বলেন, ‘শূন্যরেখায় আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সরে যেতে সকাল থেকে নাইক্ষ্যংছড়ির কোনারপাড়া সীমান্তের বিপরীতে মিয়ানমার অভ্যন্তর থেকে বিজিপি মাইকিং শুরু করে। গাছের ওপর মাইক বেঁধে ঘণ্টা দেড়েক পর পর বিজিপি এ মাইকিং করে রোহিঙ্গাদের সরে যাওয়ার নির্দেশনা প্রচার করছে।’

তিনি বলেন, ‘মাইকিং ছাড়াও কোনারপাড়া সীমান্তের শূন্যরেখার বিপরীতে মিয়ানমার অভ্যন্তরে বিজিপি সৈন্যদের টহল জোরদার করতে দেখা গেছে। তাই বিজিবিও সীমান্তজুড়ে নজরদারি বাড়ানোর পাশাপাশি টহল জোরদার করেছে।’

বর্তমানে তুমব্রু সীমান্তের শূন্যরেখায় সাড়ে ৪ হাজার এবং কক্সবাজারের উখিয়ার ও টেকনাফ অবস্থান করছে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যুবরাজ সালমান মিসরে ছুটি কাটাচ্ছেন!

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-২০ ১৫:৪১:১৯

সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান তিন সপ্তাহ ধরে জনসমক্ষে না আসার কারণেই প্রশ্ন উঠেছে তাকে প্রকাশ্যে দেখা যাচ্ছে না কেন? তাকে কি হত্যা করা হয়েছে? ইরান ও রাশিয়ার গণমাধ্যম বলছে, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান হয়তো আর বেঁচে নেই। তবে এসব খবরকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে সৌদি রাজপরিবার।

তারা জানিয়েছে সৌদি যুবরাজ নিরাপদে ও সুস্থ আছেন এবং মিসরে ছুটি কাটাচ্ছেন। নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদুল ফাত্তাহ আল সিসির বিশেষ আমন্ত্রণে সৌদি যুবরাজ সপরিবারে সেখানে গিয়েছেন। তার সাথে আবুধাবি ও বাহরাইনের নেতারাও রয়েছেন। তার জনসমক্ষে না আসার সুযোগ নিয়ে ইরানি ও রুশ মিডিয়া এ মর্মে খবর ছড়িয়েছে যে, গত মাসের কথিত অভ্যুত্থান চেষ্টার সময় তিনি হয়তো মারা গেছেন। কিন্তু কয়েক দিন আগে সৌদি আরব সফর থেকে আসা পাকিস্তান উলামা পরিষদের চেয়ারম্যান তাহির মাহমুদ আশরাফি ডেইলি পাকিস্তানকে নিশ্চিত করেছেন সৌদি যুবরাজ নিরাপদ ও সুস্থ আছেন।

তিনি বলেন, ২১ এপ্রিলের পরেও মোহাম্মদ বিন সালমান দুইটি কেবিনেট মিটিংয়ে যোগ দিয়েছেন এবং বেশ কয়েকটি রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি আরো বলেন, সৌদি আরব ভুয়া খবরকে গুরুত্ব দেয়নি। এ জন্য এ সম্পর্কে কোনো ব্যাখ্যা দেয়নি।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

এক মোটরসাইকেলের দাম ২০ লাখ ডলার!

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৯ ১২:৩০:২৩

বিশ্বের সবচেয়ে দামি মোটরসাইকেল। এটির দাম রাখা হয়েছে ২০ লাখ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ১৭ কোটি টাকা।

এটি বিখ্যাত মার্কিন মোটরসাইকেল নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হার্লে ডেভিডসনের ব্লু-এডিশনের সর্বশেষ চমক।

গত ৯ মে জুরিখে এক অনুষ্ঠানে ব্লু-এডিশনের এই মোটরসাইকেলটিকে প্রকাশ্যে আনা হয়।

সুইজারল্যান্ডের বিখ্যাত গয়না ও ঘড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘বুশারার’ এবং মোটরসাইকেল প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘বান্ডানারবাইক’ যৌথ উদ্যোগে গাড়িটি তৈরি করেছে।

এক বছর ধরে দীর্ঘ ২৫ ঘণ্টা শ্রম দেয়ার পর এই দুই প্রতিষ্ঠানের এক দল বিশেষজ্ঞ এটির ডিজাইন তৈরি করে।

কোম্পানি দুটি বলছে, গাড়িটি সাজাতে ৩৬০টি হিরে ব্যবহার করা হয়েছে। বাইকে যে স্ক্রুগুলো ব্যবহার করা হয়েছে সেগুলো সবই স্বর্ণের।

সবশেষে ব্লু-এডিশনে এটি পাওয়া যাবে। এর অন্যতম একটি বিশেষত্ব হচ্ছে এর ফুয়েল ট্যাঙ্কের ডান পাশে একটি ঘড়ি লাগানো হয়েছে। এছাড়া ফুয়েল ট্যাঙ্কের ডান পাশে ৫.৪ ক্যারেটের ডায়মন্ড রিং লাগানো হয়েছে।

এর আগে, বিশ্বের সবচেয়ে দামি মোটরসাইকেলের রেকর্ডটি ছিল  ‘১৯৫১ ভিনসেন্ট ব্ল্যাক লাইটনিং’ এর দখলে। এ বছরের গোঁড়ায় নিলামে বাইকটির দাম উঠেছিলো ৯ লাখ ২৯ হাজার ডলার। সে হিসেবে নতুন গাড়িটির দাম প্রায় ১১ লাখ ডলার বেশি।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মোহাম্মদ বিন সালমানের অবস্থান নিয়ে রহস্য কাটছে না

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৯ ১২:১৭:২৭

সৌদি আরবের প্রভাবশালী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের অবস্থান নিয়ে ধোয়াশা কাটছে না। বেশ কিছুদিন ধরেই প্রকাশ্যে দেখা যাচ্ছে না তাকে; আর এই সুযোগে রটছে বিভিন্ন খবর। ইরানি গণমাধ্যমগুলো তো তার মৃত্যুর খবরই দিয়ে দিয়েছে!
এ ব্যাপারে ইরানের কাইহান পত্রিকা ‘আরব রাষ্ট্রের একজন ঊর্ধ্বতন কর্তকর্তার’ বরাত দিয়ে দাবি করছে, সৌদির রাজপ্রাসাদে হামলার সময় যুবরাজ বিন সালমানের শরীরে দু'টি বুলেট আঘাত হানে। তিনি হয়তো মারা গেছেন। কারণ ওই ঘটনার পর যুবরাজকে আর প্রকাশ্যে দেখা যায়নি।

তবে পাকিস্তান টুডের খবরে বলা হয়েছে, সৌদি দূতাবাসের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এই গুঞ্জনকে ‘ভুয়া খবর’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘জনগণের মধ্যে বিশৃঙ্খলা তৈরি করতে শত্রুপক্ষ এ প্রচার চালিয়েছে।’
গত ২৭ এপ্রিল তোলা একটি ছবি দেখিয়ে তিনি বলেন, ‘২১ এপ্রিল যদি কোনো হামলা হয়ে থাকত, তাহলে ২৭ এপ্রিল এই অনুষ্ঠানে হাজির হওয়া এটি কীভাবে সম্ভব? তাই এই মিথ্যাকে প্রত্যাখ্যান করলাম।’ ছবিতে দেখা যাচ্ছে চেয়ারে বসে অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে একটি অনুষ্ঠান উপভোগ করছেন বিন সালমান।

এছাড়া আরেকটি ছবি ছড়িয়ে পড়েছে টুইটারে যাতে দেখা যাচ্ছে আবুধাবির যুবরাজ শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নায়হান, বাহরাইনের বাদশা বিন ইসা ও মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসির সাথে বিন সালমানকে। গত শুক্রবার ছবিটি পোস্ট করেছেন যুবরাজের ব্যক্তিগত দপ্তরের পরিচালক বাদের আল-আসাকার। তিনি লিখেছেন, কয়েক দিন আগে মিসরের প্রেসিডেন্ট ফাত্তাহ আল সিসি এক বন্ধুত্বপূর্ণ বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন।

বিন সালমান প্রায়শ মিডিয়াতে তার সরব উপস্থিতি জানান দেন। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে জনসম্মুখে তার অনুপস্থিতি সবাইকে অবাক করেছে। এপ্রিলের শেষের দিকে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও সৌদি আরব সফরে গেলে তখনও যুবরাজ বিন সালমানকে কোনো অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি। এরপর থেকেই তার বিষয়ে চারদিকে গুজব ছড়াচ্ছে। আর এ কারণেই বিষয়টি নিয়ে কৌতুহল সৃষ্টি হয়েছে। ইরানের বেশ কিছু গণমাধ্যম বিন সালমানের জনসম্মুক্ষে অনুপস্থিতি ভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে বর্ণনা করছে। অনেকেই বিষয়টিকে দুই প্রতিবেশী দেশের শীতল সম্পর্কের ফসল হিসেবে দেখছেন। রাশিয়ার স্পুটনিক নিউজ বলেছে, ইরান মিডিয়ার ধারণা, গত মাসে এক অভ্যুত্থান চেষ্টার সময় মোহাম্মদ বিন সালমান নিহত হন। ইরানের গণমাধ্যমগুলোর দাবি, গত ২১ এপ্রিল রিয়াদের রাজপ্রাসাদে এক হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় গোলাগুলিতে সৌদি যুবরাজ বিন সালমান নিহত হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এ ব্যাপারে সৌদি আরবের পক্ষ থেকে ও কোন আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেয়া হয় নি। দেশটির কোন পর্যায়ের কর্মকর্তাই এ বিষয়ে কোথাও কিছু বলছেন না।

ইরানের প্রেস টিভি জানিয়েছে, ২১ এপ্রিল এর ঘটনার পর থেকে সৌদি কর্তৃপক্ষ যুবরাজ বিন সালমানের কোনো ছবি বা ভিডিও প্রকাশ করেনি। প্রেস টিভির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, গণমাধ্যমে যুবরাজ বিন সালমানকে প্রায়ই দেখা যায়; কিন্তু রিয়াদে ওই গোলাগুলির পর মাস খানেক তাকে আর গণমাধ্যম দেখা যাচ্ছে না। ফলে দীর্ঘ সময় যুবরাজ বিন সালমানের এমন অনুপস্থিতি তার বেঁচে থাকা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

গত বছর জুন মাসে নিজের চাচাতো ভাইকে যুবরাজের পদ থেকে সরিয়ে দিলে আলোচনায় আসেন ৩২ বছর বয়সী মোহাম্মদ বিন সালমান। এর পর থেকেই রক্ষণশীল সৌদি আরবে অথনৈতিক ও সামাজিক সংস্কারমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছেন। একই সঙ্গে দুনীর্তিবিরোধী অভিযান চালিয়ে বিশ্বব্যাপী ব্যাপক আলোচনায় আসেন। দেশের তরুণ সমাজের মধ্যেও তার গ্রহণযোগ্যতা তৈরি হয়েছে।
দুনীর্তিবিরোধী অভিযানে দুই শতাধিক ক্ষমতাধর ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেন। এরমধ্যে রয়েছে প্রিন্স,বতমান ও সাবেক মন্ত্রী ও ধনকুবের ব্যবসায়ী।আবার প্রতিবেশি ইয়েমেনে হামলা ও ইরানের বিরুদ্ধে কঠোর মনোভাব প্রকাশ করার কারণে তিনি মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তি হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

আফগানিস্তানে স্টেডিয়ামে বিস্ফোরণ, নিহত ৮

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৯ ১২:১১:৩৩

আফগানিস্তানে একটি স্টেডিয়ামে কয়েকটি বিস্ফোরণে কমপক্ষে আটজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় প্রায় অর্ধশত আহত হয়েছে। শুক্রবার গভীর রাতে পূর্বাঞ্চলীয় শহর জালালাবাদে এ ঘটনা ঘটেছে।

প্রাদেশিক কাউন্সিলের সদস্য সোহরাব কাদেরি জানিয়েছেন, রমজানের মাসের শুরুতেই শহরের ফুটবল স্টেডিয়ামে ক্রিকেট খেলার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানেই রাতে এই বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

তিনি আরো জানান, দূর থেকে ছোড়া দুটি রকেট বিস্ফোরিত হয়েছে। এতে কমপক্ষে ছয়জন নিহত ও ৫০ জন আহত হয়েছে। তবে হতাহতের সঠিক সংখ্যা নিশ্চিত করা যায়নি।

ননগরহার প্রদেশের গভর্নরের মুখপাত্র আতাউল্লাহ খোগায়ানি জানিয়েছেন, পরপর তিনটি বিস্ফোরণে আট দর্শক নিহত ও ৪৩ জন আহত হয়েছে। তাৎক্ষনিকভাবে কেউ এই হামলার দায় স্বীকার করেনি।

প্রসঙ্গত, পাকিস্তান সীমান্তবর্তী নানগরহার প্রদেশটিতে প্রায়ই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। প্রদেশটিতে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের শক্ত ঘাঁটি রয়েছে।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে তদন্তে যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ার না

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৯ ১২:১০:২৯

সম্প্রতি গাজায় ৬০ ফিলিস্তিনিকে হত্যার ঘটনায় ইসরায়েলের বিরুদ্ধে স্বাধীন তদন্ত কমিশন গঠনের প্রস্তাবের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়া। শুক্রবার রাতে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের বৈঠকে ‘অধিকৃত ফিলিস্তিনে মানবাধিকার পরিস্থিতির ক্রমাবনতি’ নিয়ে আলোচনা হলে এ প্রস্তাব আটকে দেয় দেশ দুটি।

দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, সম্প্রতি গাজায় মানবাধিকার ও আন্তর্জাতিক মানবিক আইন লঙ্ঘনে ‘স্বাধীন ও আন্তর্জাতিক তদন্ত কমিশন গঠনে ভোট দেয় ২৯টি দেশ। আর প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেয় দুটি দেশ-অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র। আর ভোটদানে বিরত ছিল ১৪টি দেশ।

বৈঠকের সারমর্ম বিশ্লেষণে দেখা গেছে, অস্ট্রেলিয়ার কর্মকর্তারা গাজায় প্রাণহানির ঘটনাকে ‘দুঃখজনক ও নিন্দনীয়’ বলে মন্তব্য করেছেন। তবে তাদের সুষ্পষ্ট দৃষ্টিভঙ্গি হচ্ছে নিরাপত্তার ব্যাপারে ইসরায়েলের বৈধ অধিকার এবং নিজেকে সুরক্ষার অধিকার রয়েছে।

এর আগে দেওয়া বিবৃতিতে অস্ট্রেলিয়া বলেছে, ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলিবর্ষণের ঘটনার স্বাধীন ও নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। তবে মানবাধিকার কাউন্সিলের তদন্ত কমিশনকে বিতর্কিত বলে মন্তব্য করেছে তারা।

দেশটির কর্মকর্তাদের দাবি, ‘তদন্তে অবশ্যই হামাসের ভূমিকা উল্লেখ করতে হবে,যা খসড়া প্রস্তাবে উল্লেখ করা হয়নি।’

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনের প্রতিবাদে গাজায় বিক্ষোভ করে ফিলিস্তিনিরা। এসময় ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে নিহত হয় ৬০ ফিলিস্তিনি।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইসরায়েলের মোকাবেলায় মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৯ ১২:০৫:১১

মুসলিম বিশ্বের নেতার ঐক্যবদ্ধ হয়ে ইসরায়েলের মোকাবেলা করার আহ্বান জানিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান। শুক্রবার ওআইসির বিশেষ অধিবেশনে তিনি এ আহ্বান জানিয়েছেন।

গত সপ্তাহে ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি দখলদারিত্বের ৭০ বছর পূর্ণ হয়। দখলকৃত ভূমি ছেড়ে দেওয়ার দাবিতে আন্দোলনরত ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলি সেনারা গুলি চালালে ৬০ জন নিহত হয়। এর প্রতিবাদে ওআইসির বিশেষ অধিবেশন আহ্বান করে তুরস্ক।

অধিবেশনে এরদোয়ান বলেছেন, এই হত্যাকাণ্ডের জন্য ইসরায়েলকে দোষী সাব্যস্ত করতে হবে।

তিনি বলেন, ‘ইসরায়েলি ডাকাতরা ফিলিস্তিনিদের ওপর যে নৃশংসতা চালিয়েছে তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়ে সারা বিশ্বকে দেখিয়ে দিতে হবে মানবতা এখনো মরেনি।’

ইসরায়েল ফিলিস্তিনিদের ওপর যে হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে তাকে ‘ঠগীবৃত্তি, নৃশংস ও রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস’ বলে মন্তব্য করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট।

কাতারের আমির শেইখ তামিম বিন হামাদ আল থানি বলেছেন, ‘গাজা উপত্যকা লাখ লাখ লোকের কনসেনট্রেশন ক্যাম্পে পরিণত হয়েছে, যেখানে তাদের ভ্রমণ, শিক্ষা, কর্ম ও চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘যখন তাদের সন্তানরা অস্ত্র তুলে তখন তাদের বলা হয় সন্ত্রাসী, যখন তারা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করে তখন তাদের বলা হয় চরমপন্থি এবং তাদেরকে তাজা গুলি দিয়ে হত্যা করা হয়।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

হ্যারি-মেগানের রাজকীয় বিয়ে সম্পন্ন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৯ ১২:০২:৩৮

ব্রিটিশ রাজ সিংহাসনের উত্তরাধিকারী প্রিন্স হ্যারির সাথে মার্কিন অভিনেত্রী মেগান মার্কেলের জাকজমকপূর্ণ বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টায় ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদ উইন্ডসর ক্যাসলের সেন্ট জর্জের চ্যাপেল গির্জায় তাদের বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। এর সাথে সাথেই ব্রিটিশ রাজবধূ হিসেবে নিজের নতুন পরিচয় পেয়ে গেলেন মেগান।

দেশ বিদেশের কয়েক শ’ সেলিব্রেটি আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন এই বিয়েতে। বিয়ের অনুষ্ঠান ছিলো যেন তারকার মেলা। প্রিন্স হ্যারির দাদি ব্রিটিশ রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ উপস্থিত ছিলেন বিয়ের অনুষ্ঠানে। এছাড়া ব্রিটিশ রাজপরিবার ও কনে মেগানের পরিবারের সব সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

ব্রিটিশ রাজপরিবারের ঐতিহ্যবাহী পোষাক পরে বড় ভাই প্রিন্স ‍উইলিয়ামের সাথে বিয়ের অনুষ্ঠানে আসেন প্রিন্স হ্যারি। অন্যদিকে ব্রিটিশ ডিজাইনার ক্লেয়ার ওয়াইট কেলারের নকশা করা সিল্কের রাজকীয় বিয়ের গাউন পরে সেন্ট জর্জের চ্যাপেলে হাজির হন নববধূ মেগান মার্কেল। মেগানের সঙ্গে এসেছেন মেগানের মা ডোরিয়া র‍্যাগল্যান্ড। কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে সাজানো হয় বিয়ের ভেন্যু সেন্ট জর্জের চ্যাপেল গির্জা। রাজকীয় এ বিয়ের অনুষ্ঠানে ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদ উইন্ডসর ক্যাসলের সামনে রাখা হয় ঘোড়ার বহর।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে, মার্কিন টিভি উপস্থাপক অপরাহ উনফ্রে, মার্কিন অভিনেত্রী গিনা টরেস, ব্রিটিশ কণ্ঠশিল্পী এলটন জন, মেগান মার্কেলের ঘনিষ্ঠবান্ধী বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া উপস্থিত ছিলেন বিয়ের অনুষ্ঠানে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্সের অনেক সেলিব্রেটি উপস্থিত ছিলেন বিয়েতে।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরট

বিস্তারিত খবর

নাজিবের বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণালংকার ও অর্থ জব্দ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৮ ১২:০৬:২৯

সদ্য প্রাক্তন হওয়া মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের ব্যক্তিগত বাসভবনে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২৮৪ ব্যাগ বোঝাই দামী হাতব্যাগ, স্বর্ণালংকার ও বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ জব্দ করেছে। শুক্রবার ভোররাতে কুয়ালালামপুরের ওই বাসভবনে এ অভিযান চালানো হয়।

ফেডারেল কমার্শিয়াল ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্টের পরিচালক দাতুক সিরি অমর সিং জানিয়েছেন, ওয়ান এমডিবি দুর্নীতির তদন্তের অংশ হিসেবে এ অভিযান চালানো হয়েছে। এর আগে রাজাকের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ছয়টি স্থানে অভিযান চালায়। এর মধ্যে রয়েছে পুত্রাজায়াতে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর, সাবেক সরকারি বাসভবন ও চারটি ব্যক্তিগত বাসভবন।

অমর সিং বলেন, ‘আমাদের জব্দকৃত বস্তুর মধ্যে ২৮৪ বাক্সে মূল্যবান হাতব্যাগ রয়েছে। এই ব্যাগগুলো পরীক্ষা করে তার ভেতরে মালয়েশীয় রিঙ্গিত, মার্কিন ডলারসহ বিভিন্ন দেশীয় মুদ্রা, ঘড়ি এবং ৭২টি ব্যাগে স্বর্ণালংকার পাওয়া গেছে।’

জব্দকৃত বস্তুগুলোর মূল্যমান নির্ধারণ পুলিশের পক্ষে তাৎক্ষনিক সম্ভব নয় জানিয়ে তিনি বলেন, এসব বাক্সে যেসব বস্তু রয়েছে সেগুলোর সংখ্যা ও নগদ অর্থের পরিমাণ অনেক বেশি।

২০০৯ সালে মালয়েশিয়ার অর্থনীতির উন্নয়নের জন্য ওয়ানএমডিবি তহবিল গঠন করা হয়। ওই তহবিলে ৩০০ কোটি ডলারের বেশি অর্থ ছিল। নাজিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ওয়ানএমডিবি তহবিল থেকে ৭০ কোটি মার্কিন ডলারের বেশি অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। নাজিব অবশ্য শুরু থেকেই সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বিল গেটসের মেয়ে সম্পর্কে ‘ভীতিকর পরিমাণ’ তথ্য জানতেন ট্রাম্প

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৮ ১১:৫৫:০৬

মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা ও বিশ্বের শীর্ষ ধনী বিল গেটস বলেছেন, তার মেয়ে দেখতে কেমন সে ব্যাপারে ‘ভীতিকর পরিমাণ’ তথ্য জানেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এছাড়া তার কাছে দুবার এইচআইভি ও এইচপিভি’র মধ্যকার পার্থক্য সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন।

সম্প্রতি বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের একটি বৈঠকে এ কথা বলেছেন বিল গেটস। সংবাদমাধ্যম এমএসএনবিসি বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানিয়েছে।

গেটস বৈঠকে উপস্থিত কর্মীদের জানান, ফ্লোরিডায় একটি ঘোড়া প্রদর্শনীতে তার মেয়ের মুখোমুখি হয়েছিলেন ট্রাম্প। ‘এর ২০ মিনিট পর তিনি একটি হেলিকপ্টারে করে সেখান থেকে চলে যান। স্পষ্টতই তিনি সেখান থেকে চলে গিয়েছিলেন, তবে তিনি হেলিকপ্টারে মহাসমারোহে প্রবেশ করতে চেয়েছিলেন।’

২০১৬ সালের ডিসেম্বরে প্রথমবারের মতো নিউ ইয়র্কে ট্রাম্পের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন গেটস।

তিনি বলেন, ‘আমি যখন প্রথমবার তার সঙ্গে কথা বললাম তখন দেখলাম, আমার মেয়ে দেখতে কেমন সে ব্যাপারে তিনি আতঙ্কজনভাবে বেশি তথ্য জানেন। মেলিন্ডা বিষয়টিকে ভালোভাবে নেয়নি।’

এরপর গত বছরের মার্চে ট্রাম্পের সঙ্গে দেখা হয় গেটসের। ওই সময় ট্রাম্প টিকা সম্পর্কে গেটসের মতামত জানতে চান।

বিল গেটস বলেন, দুবারই তিনি আমার কাছে জানতে চাচ্ছিলেন, এইচআইভি ও এইচপিভির মধ্যে কোনো পার্থক্য আছে কিনা্। তাই আমি তাকে ব্যাখ্যা করে বলেছিলাম, এই দুটির পার্থক্য বিভ্রান্ত করার সুযোগ নেই।’

প্রসঙ্গত, মুখের মাধ্যমে যৌনতার কারণে হিউম্যান পেপিললোমা ভাইরাস বা এইচপিভি ভাইরাস জন্ম নেয়। এইচপিভি ভাইরাস মুখ, গলা ও শরীরের অন্যান্য সংবেদনশীল অংশে ক্যান্সারের জন্ম দেয়। এইচআইভি বা হিউম্যান ইমিউনো ডেফিশিয়েন্সি ভাইরাস সংক্রমন এইডস রোগের কারণ। সাধারণত অনিরাপদ যৌন সম্পর্ক এবং এইচআইভি সংক্রমিত রক্ত আদান-প্রদানের মাধ্যমে এই রোগ ছড়ায়।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

টেক্সাসে স্কুলে বন্দুক হামলা, ৮ শিক্ষার্থী নিহত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৮ ১১:৫০:৪৪

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের একটি হাই স্কুলে এক কিশোর বন্দুকধারীর গুলিতে আট শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে বলে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে।

স্থানীয় সময় শুক্রবার সকালে হিউস্টনের ৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণের সান্তা ফে হাই স্কুলে গুলিবর্ষণের এ ঘটনা ঘটে।

হামলাকারী ওই বন্দুকধারী গ্রেপ্তার হয়েছেন এবং তাকে নিরস্ত্র করা হয়েছে বলে ওই স্কুলের সহকারী অধ্যক্ষ ক্রিস রিচার্ডসনের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম হিউস্টন ক্রনিকল জানিয়েছে। কেন্দ্রীয় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বরাত দিয়ে হামলায় অন্তত আট শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে।

সান্তা ফে হাই স্কুলের শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, কিশোর হামলাকারী তাদের আর্টের শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করে প্রথমে এক নারী শিক্ষার্থীকে গুলি করে। এ সময় অন্যরা পালাতে দৌড় দিলে তাদেরকেও লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি চালানো হয়।

এতে এক পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার খবরও জানা গেছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। প্রাথমিক হামলার কারণ ও হামলাকারীর পরিচয় জানা যায়নি। আহত কয়েকজনকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে ঘটনার পর বিষয়টি অবগত হয়ে ‘উদ্বিগ্ন’ রয়েছেন জানিয়ে এক টুইটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সবার মঙ্গল কামনা করেছেন।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

জাতিসঙ্ঘ শেষ হয়ে গেছে, ভেঙে পড়েছে : এরদোগান

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৭ ১৪:১৪:৪০

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেব এরদোগান বলেছেন- গাজায় ইসরাইলি সেনাবাহিনীর গুলিতে ৬০ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহতের ঘটনায় কার্যকর পদক্ষেপ নিতে না পারায় জাতিসঙ্ঘ শেষ হয়ে গেছে।

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় এক মাহফিলে এরদোগান বলেন, জাতিসঙ্ঘ শেষ হয়ে গেছে, ভেঙে পড়েছে। ভালো বন্ধুত্ব থাকার পরও এই মুহূর্তে আমি জাতিসঙ্ঘের মহাসচিবের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছি না।

এরদোগান বলেন, জেরুসালেমকে কখনো ইসরাইলের করায়ত্ত করতে দেয়া হবে না। ফিলিস্তিনি ভাইদের লড়াইয়ে আমরা সমর্থন দিয়ে যাব। দীর্ঘদিন ধরে দখলে থাকা ভূখণ্ডে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের সীমান্তে শান্তি ও নিরাপত্তা না আসবে ততদিন সমর্থন দেয়া হবে।

এরদোগান বলেন, ইসরাইলি হামলার ঘটনায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ব্যর্থ হয়েছে। বিশ্বের অন্য কোথাও এমন হত্যাযজ্ঞ ঘটলে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় অনেক বেশি সক্রিয় হতো। এই নিপীড়নে বিশ্ব চোখ বুজে থাকলেও আমরা ইসরাইলের বিরুদ্ধে নীরব থাকব না।

এরদোগান ঘোষণা দেন, ফিলিস্তিনিদের প্রতি সংহতি জানিয়ে শুক্রবার ইস্তাম্বুলে একটি মিছিল বের করা হবে। এছাড়া অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কোঅপারেশনের (ওআইসি) সভাপতি হিসেবে এরদোগান জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। বৈঠকটি শুক্রবার ইস্তাম্বুলে অনুষ্ঠিত হবে।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

একজোট হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করুন: আরব রাষ্ট্রগুলোকে ফিলিস্তিন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৭ ১৪:০৬:২২

জেরুজালেমে দূতাবাস স্থানান্তর করার প্রতিবাদে আরব দেশগুলোর সমন্বিত পদক্ষেপ প্রত্যাশা করছে ফিলিস্তিন। ওয়াশিংটনে নিযুক্ত নিজ নিজ রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করে নিতে আরব রাষ্ট্রগুলোকে সম্মিলিত পদক্ষেপ নেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে তারা।  ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল মালিকি বৃহস্পতিবার বলেছেন, জোটবদ্ধ হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতদের ডেকে পাঠালে আরব রাষ্ট্রগুলোর জন্য তা ঝুঁকিপূর্ণ হবে না। তিনি স্মরণ করে দিয়েছেন জেরুজালেমে  ইসরায়েলি দূতাবাস স্থানান্তরকারী যে কোনও দেশের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল আরব লীগ।

১৯৬৭ সালের যুদ্ধে দখল হয়ে যাওয়া পূর্ব জেরুজালেমকে নিজেদের দেশের রাজধানী করতে চায় ফিলিস্তিনিরা।  কিন্তু ইসরায়েল পুরো জেরুজালেমকেই তাদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে চায়। গত বছরের ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী  হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার ধারাবাহিকতায় গত সোমবার জেরুজালেমে দূতাবাস স্থানান্তর করেছে যুক্তরাষ্ট্র।  প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠেছে ফিলিস্তিনসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, কায়রোতে অনুষ্ঠিত আরব লিগের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে রিয়াদ আল মালিকি সদস্য দেশগুলোকে জোটবদ্ধভাবে মার্কিন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাতে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রের ইসরায়েলি দূতাবাস স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করার বিষয়ে আরব লিগের দেশগুলো আগে একমত হয়েছিল। পূর্বের সম্মেলনে দেশগুলো প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, জেরুজালেমে তাদের ইসরায়েলি দূতাবাস স্থানান্তর করা দেশগুলোর সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করবে আরব লিগের সদস্য রাষ্ট্রগুলো। এবার ওয়াশিংটন থেকে রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করতে আরব রাষ্ট্রগুলোকে ঐক্যবদ্ধ সিদ্ধান্ত নিতে বলেছেন ফিলিস্তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি মনে করছেন, জেরুজালেমে দূতাবাস স্থাপনের প্রতিবাদ জানাতে সব আরব রাষ্ট্রগুলো যদি ঐক্যবদ্ধভাবে রাষ্ট্রদূতদের ডেকে পাঠায় তা ঝুঁকিপূর্ণ হবে ন।

রয়টার্স বলছে, মালিকি যে আবেদন করেছেন তাতে কতগুলো আরব দেশ শেষ পর্যন্ত সাড়া দেবে তা বলা মুশকিল। কারণ মিসর ও সৌদি আরবের মতো আরব লিগের সদস্য রাষ্ট্রগুলো প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সরকারের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রেখে চলে। অবশ্য গত বুধবার (১৬ মে) তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব তুরস্কে থাকা ইসরায়েলি রাষ্ট্রদূতকে দেশত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন। পাল্টা জবাব হিসেবে ইসরায়েলও সে দেশে নিযুক্ত তুরস্কের কনসাল জেনারেলকে ইসরায়েল ত্যাগের নির্দেশ দেয়।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

যেভাবে সৌদির ক্ষমতার শীর্ষে পৌঁছলেন বিন সালমান

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-১৭ ১৩:৪৯:৩৬

বর্তমানে সৌদি আরবে প্রবল ক্ষমতাধর ব্যক্তি হিসেবে যিনি পরিচিত হয়ে উঠেছেন তিনি হলেন ৩২ বছরের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। কৈশোর বয়স থেকে তিনি তার বাবাকে দেখে এসেছেন।

সৌদি রাজকীয় আর্থিক অবস্থায় অন্যান্যদের চেয়ে গরিব ছিলেন তার বাবা বর্তমান বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ। ক্রাউন প্রিন্সের দাদা আব্দুল আজিজ ইবনে সৌদের অন্যান্য সন্তানরা যখন সম্পদশালী হচ্ছিলেন তখন তাদের কাছ থেকে সাহায্য পেয়েছিলেন বর্তমান বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ।

সালমান বিন আবদুল আজিজ হলেন সৌদি আরবের বর্তমান বাদশাহ, দুই পবিত্র মসজিদের খাদেম এবং আল সৌদের প্রধান। তিনি ২০১১ সাল থেকে সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন তারও আগে ১৯৬৩ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত রিয়াদের গভর্নর  ছিলেন। তিনি জানুয়ারি ২৩, ২০১৫ তারিখে তার সৎভাই বাদশাহ আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজের স্থলাভিষিক্ত হন।

২০১৫ সালে তার বাবা যখন সৌদি আরবের বাদশাহ হন, তখন থেকে মোহাম্মদ বিন সালমানের নাম আলোচনায় আসতে থাকে। ৩২ বছর বয়সে তিনি সৌদি আরবে হয়ে উঠেন প্রবল ক্ষমতাধর। মোহাম্মদ বিন সালমানকে ক্রাউন প্রিন্স পদে আসীন করেন বর্তমান বাদশাহ। ক্রাউন প্রিন্স হিসেবে যিনি আসীন হন, পরবর্তীতে তিনিই হবেন সৌদি আরবের বাদশাহ। বর্তমান ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের জন্ম ১৯৮৫ সালের ৩১শে আগস্ট। তৎকালীন সৌদি প্রিন্স (বর্তমানে বাদশাহ) সালমান বিন আব্দুল আজিজ-এর তৃতীয় স্ত্রীর বড় সন্তান হচ্ছেন মোহাম্মদ বিন সালমান। সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে অবস্থিত কিং সৌদ ইউনিভার্সিটি থেকে তিনি আইন শাস্ত্রে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাজে করেছেন। ২০০৯ সালে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানকে তার বাবার বিশেষ উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ করা হয়। তার বাবা সালমান বিন আব্দুল আজিজ তখন রিয়াদের গভর্নর ছিলেন। ২০১৩ সাল থেকে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতার কেন্দ্রে আসতে শুরু করেন।

বর্তমান ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান দেশটির দুর্নীতি বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে ও আধুনিক উপায়ে সৌদির অর্থনীতিকে গড়তে চান। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিশ্বের সবচেয়ে বিলাসবহুল বাড়ির মালিক হয়েছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। ২০১৫ সালে ৩২ কোটি ডলার মূল্যে ফ্রান্সের  বিলাস বহুল রহস্যময় বাড়িটি কিনেন তিনি।এছাড়া ৪৫০ মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির একটি পেইন্টিং কিনেছেন তিনি। এই পেইন্টিংটি তিনি পরবর্তীতে আরব আমিরাতকে দান করেছেন।

ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ২০৩০ সালকে লক্ষ্য করে সৌদি আরবের সামাজিক এবং অর্থনৈতিক পরিবর্তনের জন্য ব্যাপক পদক্ষেপ ঘোষণা করেন।

দেশের বাইরে তিনি তার বাবা সালমান বিন আব্দুল আজিজের প্রতিনিধিত্ব করে বেইজিং, ওয়াশিংটন সফর করেছেন। ওয়াশিংটন সফরে গত মার্চ মাসে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সাথে বৈঠক করেন।

ক্রাউন প্রিন্স সম্পদশালী হয়েছেন রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় ব্যক্তিগত ব্যবসা সম্প্রসারণের মাধ্যমে। রাষ্ট্রের তেল শিল্প থেকে যে আয় হয় তার একটি অংশ নিজেরা ধরে রাখেন। অন্যান্য ব্যবসাগুলো যে গুলো আছে সেগুলোর ওপরও প্রভাব বজায় রাখে। এছাড়া তিনি একটি রাসায়নিক উৎপাদন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। কোম্পানিটির ২০ শতাংশ শেয়ারের মালিক। এই প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন দেশে রাসায়নিক সরবারহ করে।  সৌদি এয়ারলাইন্স এবং ইউরোপীয় এয়ারবাসের সঙ্গে একটি চুক্তি হয়। চুক্তিটি পরিচালনা করেন ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। চুক্তির আর্থিক বিষয়াবলী সম্পর্কে কেউ মন্তব্য করতে চাইনি। ওই চুক্তি থেকে ১ কোটি ডলার যায় তার পরিবারের হাতে।

প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডে থারাওয়াত নামের একটি কোম্পানির উথান ঘটে। থারাওয়াতের প্রধান নির্বাহীর কথা অনুযায়ী, ক্রাউন প্রিন্সের ছোট ভাই  তুর্কি বিন সালমান ওই বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠানটির ৯৯ শতাংশের মালিক। বাকি একভাগ মালিক ছোট ভাই নাইফ। ২০১৭ সালে তার ছোট ভাই নাইফের কাছ থেকে ওই এক ভাগও কিনে নেন ক্রাউন প্রিন্স। অর্থাৎ কোম্পানিটির ১০০ ভাগই কিনে নিয়েছেন ক্রাউন প্রিন্স।

এদিকে পুরুষানুক্রমে চলে আসা রক্ষণশীল সৌদি আরবকে পুরো মাত্রায় বদলে দিচ্ছেন ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। শিক্ষা, সংস্কৃতি, যুদ্ধ- সবখানেই সংস্কারের ছোঁয়া। শুধু তাই নয়, সৌদিদের জীবনযাপনের মানও বদলে দিতে চান তিনি। এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে এবারের বাজেটে নতুন এক প্রকল্পের আওতায় ৩৪.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বরাদ্দ দিয়েছে সৌদি রাজপরিবার। নাগরিকদের জীবনমান উন্নয়নে ‘কোয়ালিটি অব লাইফ প্রোগ্রাম ২০২০’ প্রকল্প ঘোষণা করেছে সৌদি আরবের অর্থনীতি ও উন্নয়ন কাউন্সিল।

৩৪.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের কোয়ালিটি অব লাইফ প্রকল্পটি দেশটির অর্থনীতিকে বৈচিত্র্যকরণ ও তেলনির্ভরতা কমাতে ভিশন ২০৩০-এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ভিশন ২০৩০ কে বাস্তবায়নের লক্ষ্যেই এ প্রকল্পটি হাতে নেয়া হয়েছে। তিনি সৌদি বাদশাহ সালমানের নেতৃত্বে সৌদি অর্থনীতি, সামাজিক অবস্থান ও উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন।

কোয়ালিটি অব লাইফ প্রোগ্রামের আওতায় বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। প্রকল্পটির ১৩০ বিলিয়ন রিয়ালের মধ্যে ৭০ বিলিয়ন রিয়াল বাণিজ্যিক খাতে বিনিয়োগ করা হবে। এর উদ্দেশ্য ২০২০ সালের মধ্যে তেল ব্যতীত জাতীয় উৎপাদনে ২০ শতাংশ বৃদ্ধি করা।

একনজরে ক্রাউন প্রিন্স সালমান বিন সৌদ

 জন্ম: ৩১ আগস্ট, ১৯৮৫

পুরো নাম: মোহাম্মাদ বিন সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সউদ

পিতা: সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সউদ

মাতা: ফাহদা বিনতে ফালাহ

স্ত্রী: সারা বিনতে মাশহুর বিন আবদুল আজিজ আল সউদ

পড়াশোনা: আইনে স্নাতক (কিং সউদ ইউনিভার্সিটি)

দায়িত্ব পালন: ক্রাউন প্রিন্স অব সৌদি আরব, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী, চেয়ারম্যান অব এন্টিকরাপশন কমিটি

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত