যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ০৮ এপ্রিল, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 01:28pm

|   লন্ডন - 08:28am

|   নিউইয়র্ক - 03:28am

  সর্বশেষ :

  ১১ সপ্তাহ লকডাউনের পর উন্মুক্ত উহান   যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১৯৭০ জনের প্রাণহানি   ‘ওয়াইএমসিএ’র ছাঁটাইকৃত কর্মীদের চাকরির ঘোষণা দিলেন লস এঞ্জেলেস মেয়র   করোনা ঠেকাতে বাধ্যতামূলক মাস্ক পড়ার নিয়ম করল সান বার্নার্ডিনো কাউন্টি   করোনায় কমেছে লস এঞ্জেলেসের সকল প্রকার অপরাধঃ এলএ পুলিশ চীফ   কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৬৯; আক্রান্ত ৬ হাজার ৯১০   গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ জেলা লকডাউন   বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের নাতি ছাত্রলীগের সেক্রেটারি   পুলিশের মহাপরিদর্শক হচ্ছেন বেনজীর, র‌্যাব মহাপরিচালক মামুন   করোনাভাইরাস: বিশ্বব্যাপী সুস্থ হয়ে উঠেছে ৩ লাখ মানুষ   ফ্রান্সে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়ালো   নিউইয়র্কে মর্গে জায়গা নেই, ফ্রিজে লাশ রাখার সিদ্ধান্ত   সিঙ্গাপুরে একদিনে ৪৭ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত   বিশ্বনবীর মিম্বর থেকে করোনা নিয়ে যা বললেন শাইখ সুদাইস   এখন থেকে লস এঞ্জেলেসের যে কোন বাসিন্দা করোনা টেস্ট করাতে পারবে

>>  বহিঃ বিশ্ব এর সকল সংবাদ

১১ সপ্তাহ লকডাউনের পর উন্মুক্ত উহান

করোনাভাইরাসের মহা প্রলয়ের কারণে বিশ্বের শক্তিধর রাষ্ট্র থেকে শুরু করে অন্যান্যরা যখন একের পর এক শহর লকডাউনে যাচ্ছে, ঠিক সেই সময় চীনের উহান শহর সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হলো! অথচ চীনের হুবেই প্রদেশের এই উহান থেকে গত ডিসেম্বরে বিশ্বকে নাড়িয়ে দেওয়া মহামারি করোনাভাইরাসের উৎপত্তি। ১১ সপ্তাহ লকডাউন শেষে শহরটি আবারও স্বাভাবিক চেহারায় ফিরে এসেছে।

স্বাস্থ্য অ্যাপসে শহরটি বসবার এবং ভ্রমণের জন্য 'গ্রিন' সিগন্যাল প্রদর্শন করছে। গত ডিসেম্বরের পর থেকে উহান শহর থেকে বাইরে যাওয়া এবং আসা পুরোপুরি নিয়ন্ত্রিত ছিল। তবে এখন যে কেউ চাইলে রেল বা সড়ক যে কোনো

বিস্তারিত খবর

করোনাভাইরাস: বিশ্বব্যাপী সুস্থ হয়ে উঠেছে ৩ লাখ মানুষ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ১৮:৩৭:২১

মহামারি করোনাভাইরাসে এলোমেলো গোটা বিশ্ব। বিশ্বের ২০৯টি দেশ ও দুটি আন্তর্জাতিক অঞ্চলের ১৪ লাখ ১১ হাজার ৯৯ জন মানুষ আক্রান্ত হয়েছে এই ভাইরাসে। প্রাণ হারিয়েছে ৮১ হাজার ৪৪ জন। তবে অপ্রতিরোধ্য এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করে সেরে উঠেছে ৩ লাখ ৭৫৯ জন।

উহান প্রদেশ থেকে শুরু হওয়া এই ভাইরাস থেকে সর্বোচ্চ ৭৭ হাজার ১৬৭ জন সুস্থ হয়েছে চীনে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৩ হাজার ২০৮ জন সুস্থ হয়ে উঠেছে স্পেনে। জার্মানিতে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা ৩৬ হাজার ৮১ জন। ইরানে সুস্থ হয়েছে ২৭ হাজার ৩৯ জন।

এ ছাড়া ইতালিতে ২৪ হাজার ৩৯২, যুক্তরাষ্ট্রে ২১ হাজার ৩১৬, ফ্রান্সে ১৯ হাজার ৩৩৭, সুইজারল্যান্ডে ৮ হাজার৭০৪ হন ও বেলজিয়ামে ৪ হাজার ১৪৭ জন সেরে উঠেছে এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করে।

প্রতিনিয়তই হাজার হাজার মানুষ নতুন করে আক্রান্ত হচ্ছে এই ভাইরাসে। প্রাণ হারাচ্ছে হাজার হাজার। সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যার চেয়ে অনেক বেশি গতিতি আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। প্রশ্ন থেকে যায় করোনাভাইরাসের এই রাহু গ্রাস থেকে কবে মুক্তি পাবে বিশ্ব?

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

ট্রাম্পের হুমকিতে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন দিতে রাজি হলো ভারত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ১০:০২:৩৪

যুক্তরাষ্ট্রকে ম্যালেরিয়াপ্রতিরোধী হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন দিতে রাজি হয়েছে ভারত। ট্রাম্পের হুমকির ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই দিল্লি হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন রফতানি বন্ধে নিষেধাজ্ঞা থেকে সরে এসেছে।

মঙ্গলবার দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, যে সব দেশ করোনা মহামারীতে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত; সে সব দেশকে এ ওষুধ সরবরাহ করা হবে।

এর আগে সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ভারত থেকে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন আমদানি নিয়ে তার বক্তব্যে বলেছিলেন, ‘যদি তারা সরবরাহের অনুমতি না দেন তা হলে ঠিক আছে। তার ফলও ভোগ করতে হবে।’

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চাপের মুখেই ভারত ম্যালেরিয়াবিরোধী হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ সরবরাহ করতে রাজি হয়েছে। বলা হচ্ছে, ভারত সবচেয়ে বেশি হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ তৈরি করে থাকে।

কলকাতার সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজার জানায়, মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেছেন, ভারত সব সময়েই আন্তর্জাতিক সংহতি ও সহযোগিতার কথা বলে এসেছে। তিনি বলেন, ‘এই মহামারীর সময়ে মানবতার কথা ভেবে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে যে, ভারত প্যারাসিটামল ও হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের মতো ওষুধ যথাযথ পরিমাণে আমাদের প্রতিটি প্রতিবেশী দেশকে সরবরাহ করবে। যে সব দেশ করোনায় মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেখানেও আমরা এই প্রয়োজনীয় ওষুধ সরবরাহ করব।’

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের আক্রমণ বিপজ্জনক পর্যায়ে। নিউইয়র্কসহ প্রায় প্রতিটি অঙ্গরাজ্যেই এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ভারতে তৈরি হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ম্যালেরিয়াপ্রতিরোধী হিসেবে ব্যবহার করা হয়। আর এই হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনকে করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য ট্রিটমেন্ট হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

এর আগে ভারত সরকার নিজেদের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটানোর কথা বলে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ও ব্যথা উপশমকারী প্যারাসিটামল ট্যাবলেট রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। এতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নাখোশ হয়ে ভারতের সমালোচনা করেন। এর পরিণতি খারাপ হবে বলেও হুশিয়ারি দেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে ভারত আগের সিদ্ধান্ত পাল্টিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

বিশ্বের এই ক্ষতির জন্য চীন দায়ী: মার্কিন সিনেটর

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ০৭:৫১:৩৯

বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের জন্য চীনকে দায়ী করা হচ্ছে। আর এর ক্ষতি চীনকেই বহন করতে হবে।

মার্কিন সিনেটের প্রভাবশালী সদস্য, বিচার বিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান লিন্ডসে গ্রাহাম এই কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘বিশ্বের এই ক্ষয়ক্ষতির জন্য চীন দায়ী। তারা এই ভাইরাসটি সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়েছে।’

গ্রাহাম বলেন, ‘বিশ্বের এই তৃতীয় মহামারি চীনের কাঁচাবাজার থেকে এসেছ। যেখানে তারা বাদুর ও বানর বিক্রি করে। যেগুলো এই ভাইরাস বহন করে।’

মার্কিন এই সিনেটের দাবি করেন, এই ক্ষতির জন্য বিশ্বের উচিত চীনের কাছে ক্ষতিপূরণ চাওয়া।

গ্রাহাম যোগ করেন, চীনকে উপর থেকে নীচ পর্যন্ত দেখতে হবে। আমাদের চিকিত্সা সরবরাহের চেইনটি ফিরে পেতে হবে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত তিন লাখ ৬৭ হাজার ৬৫০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন ১০ হাজার ৯৪৩ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা তৈরি করে চীনের কাছে বিক্রি করেছিলেন এই প্রফেসর!

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ০২:২১:১৫

যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. চার্লস লিবারকে গত জানুয়ারিতে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার পর তার ওই গ্রেফতার নিয়ে তৈরি হয়েছে বেশ কিছু ষড়যন্ত্র তত্ত্ব। বিভিন্ন মাধ্যমে এমন কথাও উঠেছে যে, তিনি যুক্তরাষ্ট্রের গবেষণাগারে বসে করোনাভাইরাস তৈরি করে তা চীনের কাছে বিক্রি করেছেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, তিনি একাধিক চীনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তার সম্পর্কের তথ্য গোপন করেছিলেন।

তবে তার গ্রেফতারের সঙ্গে করোনার যে সম্পর্ক জুড়ে তথ্য ছড়িয়েছে সেটি বিভ্রান্তিমূলক হয়ে থাকতে পারে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের খবরে বলা হয়েছে। সংবাদমাধ্যমটির অ্যান্টি ফেক নিউজ ওয়ার রুম (এএফডব্লিউএ) বিশ্লেষণ করে এমন ইঙ্গিত পেয়েছে। এএফডব্লিউএ দাবি করছে ড. চার্লস লিবারের গ্রেফতারের সঙ্গে করোনা ভাইরাস উৎপাদন করে বিক্রি করা কোনো সম্পর্ক নেই।

সেখানে বলা হয়েছে ‘অ্যালেক্স আলভারেজ’ এবং ‘মীরা সিংহ’ ফেসবুক ব্যবহারকারীরা মার্কিন নিউজ চ্যানেল ‘ডাব্লুসিভিবি’-এর একটি ভিডিও ক্লিপ পোস্ট করেন, যাতে ক্যাপশনে লেখা হয় করোনা ভাইরাস আবিষ্কার করে চীনে বিক্রি করেছিলেন এমন ব্যক্তির সন্ধান পেয়েছে আমেরিকা। তিনি হলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হাভার্ড ইউনিভার্সিটির রসায়ন ও জীববিজ্ঞান বিভাগের প্রধান ড. চার্লস লিবার। তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তাদের এই দাবিটি ফেসবুক এবং টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপে ভাইরাল হয়ে যায়।

ড. চার্লস লিবারকে গ্রেফতারের কারণ:

জানুয়ারিতে মূলধারার মার্কিন গণমাধ্যমগুলি দ্বারা ড. চার্লস লিবারের গ্রেপ্তারের সংবাদ ব্যাপকভাবে প্রকাশিত হয়েছিল। দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়, হার্ভার্ডের এই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে চীনা তহবিল গোপন করার অভিযোগ ছিল। গুপ্তচরবৃত্তির জন্য বা চীনে কোনও সংবেদনশীল তথ্য প্রেরণের অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

ড. লিবারকে চীন থেকে প্রাপ্ত তহবিলের জন্য ‘বস্তুগতভাবে মিথ্যা, কল্পিত ও প্রতারণামূলক বক্তব্য দেওয়ার’ জন্য মার্কিন ফেডারেল কর্তৃপক্ষ ২০২০ সালের জানুয়ারিতে গ্রেপ্তার করে। তবে ন্যানোসায়েন্টিস্ট ড. চার্লস লিবারের গ্রেফতারের বিষয়ে করোনাভাইরাসের কোনো সম্পর্ক নাই।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

ফ্লোরিডা বিমানবন্দরে অগ্নিকাণ্ড, পুড়ল ৩৫০০ ভাড়ার গাড়ি

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ০২:১৮:১৬

দক্ষিণ-পশ্চিম ফ্লোরিডা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ঘাসের ছড়িয়ে পড়া আগুনে হাজার হাজার ভাড়া দেওয়া গাড়ি ধ্বংস হয়েছে, দমকল বিভাগের কর্মকর্তারা গণামাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আগুন শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছিল, ১৫ একর জুড়ে বিস্তৃত এবং মূলত ফোর্ট মাইয়ার্স বিমানবন্দরে ঘাসযুক্ত ভাড়া গাড়ি ওভারফ্লো এলাকায় মাত্র ২০ টি গাড়ি জড়িত ছিল। তবে এটি নিখোঁজ হওয়ার সময় আগুনে শিখাগুলি ৩,৫০০ এরও বেশি ভাড়া গাড়ি ধ্বংস করে দিয়েছিল, লি কাউন্টি বন্দর কর্তৃপক্ষের এক মুখপাত্র এমনটিই জানিয়েছেন।

কালুশাহাটচির ফ্লোরিডা ফরেস্ট্রি সার্ভিসের প্রশমন বিশেষজ্ঞ মেলিন্ডা অ্যাভনি বলেছেন, কর্তৃপক্ষকে বিকেল ৫ টার দিকে আগুন নেভাতে বলা হয়েছিল। শুক্রবার, যখন ২০ টি গাড়ি জড়িত ছিল। দৃশ্যে যখন আমাদের ইউনিট ছিল, ততক্ষণে আমাদের ১০০ টি গাড়ি (আগুনে) ছিল। আমরা শত শত লোকের পরে গণনা হারিয়ে ফেলেছি।

দক্ষিণ-পশ্চিম ফ্লোরিডার প্রায় ৮২ হাজার লোকের শহর ফোর্ট ময়ার্সের চারপাশে মাইলের ধূমপানের মেঘ দেখা যায়। ফ্লোরিডা ফরেস্ট্রি সার্ভিস এবং একাধিক ফায়ার বিভাগের দ্বারা গ্রাউন্ড এবং এরিয়াল সহায়তা সরবরাহ করা হয়েছিল, অবনী বলেছিলেন।

শার্লট কাউন্টি শেরিফের অফিসের বিমান পরিবহন ইউনিট কমপক্ষে ৮০ টি এয়ারড্রপ তৈরি করেছে, এটি একটি ফেসবুক পোস্টে প্রকাশিত হয়েছে।

ওভারফ্লো অঞ্চলের আশেপাশের ব্রাশটি আগুন ধরেছিল এবং দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে সাহায্য করেছিল, তবে বিমানবন্দরের কোনও কাঠামো ক্ষতিগ্রস্থ হয়নি, অবনি বলেছিলেন। কোনও আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি এবং আগুন লাগার কারণ তদন্তাধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।
 
একটি ফেসবুক পোস্টে বিমানবন্দর সেই সমস্ত এজেন্সিকে ধন্যবাদ জানায় যারা এই আগুনের প্রতিক্রিয়া জানায়।

বিমানবন্দরটি বলেছিল, বিমান বিমান উদ্ধার ও ফায়ার ফাইটিং বিভাগকে সহায়তা করার জন্য আমরা তাদের সাহস এবং আগ্রহের প্রশংসা করি। তারা একসাথে আমাদের সমস্ত যাত্রী এবং বিমানবন্দর দর্শকদের নিরাপদ রাখতে সক্ষম হয়েছিল।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এন

বিস্তারিত খবর

চীন থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছিল ৪ লাখ মানুষ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৫ ১২:১৩:৪৪

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পর চীন থেকে প্রায় চার লাখ ৩০ হাজার মানুষ প্রবেশ করেছিল যুক্তরাষ্ট্রে। এদের মধ্যে কয়েক হাজার সরাসরি এসেছিল ভাইরাসের উৎসস্থল উহান শহর থেকে। নিউ ইয়র্ক টাইমস এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগেই এই কয়েক লাখ লোক এক হাজার ৩০০ এর বেশি ফ্লাইটে যুক্তরাষ্ট্রের ১৭টি শহরে প্রবেশ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত তিন লাখ ১১ হাজার ৬৩৭ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। আর মারা গেছে আট হাজার ৪৫৪ জন। মার্কিন কর্মকর্তারা গত মাসের শেষ দিকে আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, করোনভাইরাসে দেশটির এক থেকে দুই লাখ মানুষ মারা যেতে পারে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পহেলা জানুয়ারি রহস্যময় রোগের প্রাদুর্ভাবের ( ওই সময় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়নি) বিষয়টি আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের জানানোর পর অন্ততপক্ষে চীন থেকে সরাসরি ফ্লাইটে চার লাখ ৩০ হাজার লোক যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছিল। এদের মধ্যে প্রায় ৪০ হাজার মানুষ প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারির দুই মাসের মধ্যে প্রবেশ করেছে। ওই সময় বিমানবন্দরে যাত্রীদের করোনাভাইরাস শনাক্তের পরীক্ষা সরঞ্জাম পর্যাপ্ত ছিল না।

জানুয়ারির মাঝামাঝির আগ পর্যন্ত চীনা কর্মকর্তারা যখন করোনা প্রাদুর্ভাবের বিষয়টি কঠোরভাবে মোকাবিলা করছিলেন তখনও চীন থেকে আসা কোনো যাত্রীর ভাইরাস শনাক্ত পরীক্ষা করা হয়নি। কেবল মধ্য জানুয়ারিতে এসে স্রেফ উহান থেকে আসা যাত্রীদের বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শুরু হয়, তাও কেবল লস অ্যাঞ্জেল, সান ফ্রান্সিসকো ও নিউ ইয়র্ক বিমানবন্দরে।

চীনা এভিয়েশন কোম্পানি ভারিফ্লাইট জানিয়েছে, ওই সময়ের মধ্যেই উহান থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছে প্রায় চার হাজার মানুষ।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

তবলিগের ৮ পলাতক মালয়েশীয় নাগরিক ধরা পড়লেন বিমানবন্দরে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৫ ০৬:২০:১৯

তাঁদের নিয়ে দেশ জুড়ে তোলপাড়। কেন্দ্র ও রাজ্যের পুলিশ-প্রশাসন হন্যে হয়ে খুঁজছে নিজামউদ্দিনে তবলিগ জামাতে যোগ দেওয়া দেশ-বিদেশির প্রতিনিধিদের। তার মধ্যেও কয়েক দিন ধরে লুকিয়ে থেকে দেশে ফেরার বিমান প্রায় ধরেই ফেলেছিলেন মালয়েশিয়ার ৮ জন। শেষ মুহূর্তে দিল্লি বিমানবন্দর থেকে তাদের ধরে ফেলল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। তাঁদের দিল্লি পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে বলে বিমানবন্দর প্রশাসন সূত্রে খবর।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে গত ২২ মার্চ থেকে আন্তর্জাতিক উড়ান বন্ধ। বিভিন্ন দেশ থেকে ভারতে এসে আটকে পড়া নাগরিকদের দেশে নিয়ে যেতে বিশেষ বিমান পাঠাচ্ছে ভারতে। রবিবার তেমনই একটি বিশেষ বিমান পাঠায় মালয়েশিয়া সরকার। সেই বিমানে ওঠার চেষ্টা করেছিলেন ওই ৮ জন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে অভিবাসন দফতর তাঁদের আটকে দেয়। তার পর দিল্লি পুলিশ ও স্বাস্থ্য দফতরের হাতে তুলে দেওয়া হয় তাঁদের। জানা গিয়েছে, স্ক্রিনিং ও মেডিক্যাল টেস্টের পরে তাঁদের কোয়রান্টিনে পাঠানো হতে পারে।

ইতিমধ্যেই তবলিগ জামাতে যোগ দেওয়া ৯৬০ জন বিদেশিকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ভিসার নিয়ম ভেঙে ট্যুরিস্ট ভিসায় এসে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ায় তাঁদের বিরুদ্ধে ফরেনার্স অ্যাক্টে আইনি ব্যবস্থাও নেওয়ার কথা জানিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। কিন্তু তার পরেও এই আট জন কী ভাবে লুকিয়ে ছিলেন এবং সরাসরি বিমানবন্দর পর্যন্ত পৌঁছে গেলেন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর, প্রত্যেকে আলাদা আলাদা জায়গায় লুকিয়ে ছিলেন তাঁরা।

দিল্লি পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, তবলিগ জামাতে যোগ দেওয়া সবাইকে খুঁজে বের করতে মোবাইলের কল ডিটেলস ও টাওয়ার লোকেশন খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সেই তথ্য বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকেও দিয়েছে দিল্লি পুলিশ। সেই তথ্য থেকেই এই ৮ জনকে শেষ মুহূর্তে আটকে দেওয়া সম্ভব হয়েছে বলে বিমানবন্দর সূত্রে খবর। তবে তাঁরা কালো তালিকাভুক্ত হয়েছেন কিনা, তা এখনও জানানো হয়নি দিল্লি পুলিশ বা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

করোনা: সন্তান প্রসবের কয়েক ঘণ্টা পর মায়ের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৫ ০৫:৩৭:৪৭

ইউক্রেনে সন্তান জন্ম দেয়ার কয়েক ঘণ্টা পর করোনাভাইরাসে এক মায়ের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির পশ্চিমাঞ্চলে ইভানকো-ফ্রাংকিভিসক শহরে একটি পেরিনেইটাল কেন্দ্রে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন ৩৬ বছর বয়সী গ্যালিনা।

গত ১০ মার্চ তিনি সেখানে ভর্তি হন, তখন তার শরীরে করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ ছিল না। কিন্তু কেন্দ্রটিতে ১৯ দিন অবস্থানকালে তিনি মারাত্মকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন।

স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র ভ্লোদিমির চেমনি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ২৯ মার্চ ওই নারীর অবস্থা হঠাৎ করে খারাপ হয়ে যায়। তার রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা মারাত্মকভাবে কমে যায়। আর শরীরের তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠে যায়।

‘তার শ্বাসপ্রশ্বাসে সমস্যা হতে শুরু করে। দ্রুতই তার নিউমোনিয়া হয়ে যায়। তার শরীরে করোনাভাইরাস পজেটিভ দেখা দেয়।’

একইদিন সন্ধ্যায় গ্যালিনা একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন। এরপর তার শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে শুরু করে। তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়।

ওকসানা স্ট্যাশভিচ নামের তার এক আত্মীয় বলেন, তিনি মারা যাচ্ছেন বলে আমাদের জানানো হয়েছে। ওয়ার্ডে ঢুকে তাকে বিদায় জানাতে বলা হয়েছে আমাদের। সন্তান জন্মদানের কয়েক ঘণ্টা পরেই তার মৃত্যু হয়েছে।

তারা আত্মীয় বলেন, স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গ্যালিনা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তার মৃত্যুর জন্য স্বাস্থ্যকর্মীরাই দায়ী। তাকে এমন একটি ওয়ার্ডে রাখা হয়েছিল, যেখানে জ্বর নিয়ে আরও দুই নারী ভর্তি ছিলেন। কয়েকদিন একই কক্ষে রাখার পরে তাদের আইসোলেশনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

ইতিহাসের সংকটময় সময় পার করছি: স্পেনের প্রধানমন্ত্রী

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৫ ০৫:২৭:১০

ইউরোপের করোনায় বিপর্যস্ত দেশ স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো শানচেজ জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে বলেছেন, আমরা এখন ইতিহাসের সবচেয়ে সংকটময় সময় পার করছি।

মহামারী করোনায় মৃত্যুপুরীতে পরিণত হওয়া দেশটিতে জাতীয় সতর্কতার মেয়াদ আগামী ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা দেয়া হয়েছে। খবর এএফপির। জাতীয় সতর্কতার কারণে দেশটিতে মানুষের চলাচলের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ রয়েছে। সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ।

স্পেনের সরকার গত মঙ্গলবার এই জাতীয় সতর্কতার অনুমোদন চাওয়ার পর দেশটির পার্লামেন্ট এ ব্যাপারে অনুমোদন দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে বলেন, আরও দুই সপ্তাহ নির্জন ঘরে একাকী থাকা কতটা কঠিন তা আমি বুঝতে পারছি।

কিন্তু এই সংকটের মুখে এ ছাড়া আমাদের আর কিছু করার নেই। আরও কয়েক সপ্তাহ আমাদের এই নিষেধাজ্ঞার মধ্যে থাকতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা প্রত্যেক পরিবারকে ঘরে থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। যারা তরুণ তারা তাদের পড়াশোনা চালিয়ে যাও। যারা বয়স্ক মানুষ আছেন, আপনারা নিজেদের সুরক্ষিত রাখুন।

মহামারী করোনার ভয়াবহতার বর্ণনা দিতে গিয়ে তিনি বলেন, আমরা কতটা শান্ত ও স্থির থাকতে পারি এই দিনগুলো সেই পরীক্ষাই নিচ্ছে। আমাদের জীবনে এ দিনগুলোই সবচেয়ে কঠিন দিন।

স্পেনে মৃত্যুর মিছিল যেন থামছেই না। ইউরোপের এই দেশটি মহামারী করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৮০৯ জন কোভিড-১৯ রোগী প্রাণ হারিয়েছেন। স্পেনে করোনায় মৃতের সংখ্যা এখন ১১ হাজার ৯৭৪ জন।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

স্পেন আরো দুই সপ্তাহের জন্য লকডাউন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ১৯:০৯:১০


মহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতির দিকে স্পেনে। তাতে অবশ্য তৃপ্তির ঢেকুর তুলতে চাচ্ছে না দেশটি। তাইতো লকডাউন বাড়িয়েছে আরো তিন সপ্তাহ। ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত যেটা বলবত থাকবে। স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ শনিবার এই ঘোষণা দেন।

পেদ্রো বলেছেন, ‘আক্রান্ত ও মৃতের হার কমিয়ে আনা ছিল আমাদের প্রথম লক্ষ্য। আমরা সেটার খুব কাছে। কিন্তু আমি সকলকে অনুরোধ করতে চাই আপনারা আর একটু স্যাক্রিফাইস করুন। আর একটু রুখে দাঁড়ান। লকডাউন ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। আমাদের পরবর্তী লক্ষ্য হচ্ছে সংক্রমণ কমিয়ে আনা। যদিও এখনই প্রতিদিন নতুন করে যে পরিমাণ আক্রান্ত হচ্ছে তার চেয়ে বেশি পরিমাণ সেরে উঠছে। আমি বুঝতে পারছি যে আরো দুই সপ্তাহ গৃহবন্দি ও সঙ্গনিরোধে থাকাটা কতোটা কষ্টকর হবে আপনাদের জন্য।’

গেল ১৪ মার্চ স্পেন লকডাউন ঘোষণা করে। সেটা এবার বাড়ানো হল আরো ১৪ দিন। সব মিলিয়ে মোট ৪৫ দিনের জন্য লকডাউনে গেল আটলান্টিক মহাসাগরের তীরবর্তী দেশটি।

করোনাভাইরাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে স্পেনে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা ১১ হাজার ৭৪৪ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ২৪ হাজার ৭৩৬। সেরে উঠেছে ৩৪ হাজার ২১৯ জন। এখনো হাসপাতালে রয়েছে ৫৬ হাজার ৬১২ জন।

বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১১ লাখ ৮৮ হাজার ৪৮৭ জন। মারা গেছে ৬৪ হাজার ১০৩ জন। করোনার সঙ্গে লড়াই করে সেরে উঠেছে ২ লাখ ৪৪ হাজার ৪৪৮ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত ৩ লাখ ছাড়িয়ে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ১৯:০৬:২৫


অপ্রতিরোধ্য করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের কাছে গোটা বিশ্ব অসহায়। বিশ্বের চিকিৎসা বিজ্ঞান অসহায়। পৃথিবীর ২০৫টি দেশ ও দুটি আন্তর্জাতিক অঞ্চলে মাত্র ৯৬ দিনের মধ্যে ১১ লক্ষাধিক মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মারা গেছে ৬৪ হাজার ২২৭ জন।

আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। ইতিমধ্যে ক্ষমতাধর দেশটির ৫০টি অঙ্গরাজ্য ও অধীনে থাকা বিভিন্ন অঞ্চলে ৩ লাখ ৫ হাজার ৯৩৪ জন আক্রান্ত হয়েছে। মৃতবরণ করেছে ৮ হাজার ৩০৬ জন। স্থানীয় সময় শনিবার দুপুর ২টা পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে আক্রান্ত হয়েছে ২৮ হাজার ৭৩৬ জন। প্রাণ হারিয়েছে ১০১০ জন। দিনশেষে এই সংখ্যাটা কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় দেখার বিষয়।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক রাজ্যেই আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ১৩ হাজার ৭০৪ জন। মারা গেছে ৩ হাজার ৫৬৫ জন। নিউ জার্সিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ হাজার ১২৪ জন। মিশিগানে ১৪ হাজার ২২৫ জন। ক্যালিফোর্নিয়ায় ১২ হাজার ৬৩৯ জন। লুসিয়ানায় ১২ হাজার ৪৯৬ জন। ম্যাসাচুসেটসে আক্রান্ত হয়েছে ১১ হাজার ৭৩৬ জন। ফ্লোরিডায় ১১ হাজার ১১১ জন। ইলিনয়িসে ১০ হাজার ৩৫৭ জন। আর পেনসালভানিয়ায় ১০ হাজার ১৭ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় মৃত্যুহারে শীর্ষে ইন্দোনেশিয়া

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ১১:১৫:৫৭

করোনায় মৃত্যুহারের দিক দিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে শীর্ষস্থানে উঠে এসেছে ইন্দোনেশিয়া। এমনকি সারা বিশ্বের গড় মৃত্যুহারের চেয়েও দ্বিগুণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপদেশটির মৃত্যুহার।

এই মুহূর্তে দেশটির করোনা মৃত্যুহার ৯.১ শতাংশ। যেখানে বিশ্বের গড় মৃত্যুহার ৫.২ শতাংশ। একই সময়ে প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়লেও প্রতিবেশী দেশ ফিলিপাইনের মৃত্যুহার ৪.৫ ভাগ। আর মালয়েশিয়ায় মাত্র ১.৬ শতাংশ। যদিও এই দেশ দুটিতেই আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজারেরও বেশি। খবর আলজাজিরার।

ইন্দোনেশিয়ায় প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে গত মাসের প্রথম সপ্তাহে (২ মার্চ)। শুক্রবার পর্যন্ত মাত্র এক মাসের ব্যবধানে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ১ হাজার ৯৮৬-তে। আর মৃত্যু ১৮১ জন। মৃত্যুর এই উচ্চহার দেশটিকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর শীর্ষে পৌঁছে দিয়েছে।

মৃত্যুহারে ইন্দোনেশিয়ার কাছাকাছি রয়েছে বাংলাদেশ (৯ শতাংশ)। ভারতের মৃত্যুহার ২.৭৯%, পাকিস্তানে ১.৪৮% ও শ্রীলংকায় মৃত্যুহার ৩.১৪%।

ইন্দোনেশিয়ার সবচেয়ে বেশি উপদ্রুত এলাকা রাজধানী জাকার্তা। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম কম্পাস.কম গত ৩ এপ্রিল জানায়, রাজধানীর প্রায় ৯৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। আর ২ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি হিসেবে মারা গেছে ১৩ জন।

গত জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসে কোনো করোনা আক্রান্ত রোগী না থাকলেও ইন্দোনেশিয়ায় হঠাৎ করে বেড়ে গেছে রোগীর সংখ্যা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর অতিরিক্ত চাপ, ব্যক্তিগত সুরক্ষাসামগ্রীর (পিপিই) সংকট আর দ্রুত রোগী পরীক্ষার অভাবের কারণে দেশটিতে মৃত্যুহার বেশি হয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী দেশটিতে দুই হাজার ৮১৩টি হাসপাতাল আছে। দেশটিতে প্রতি দশ হাজার মানুষের জন্য গড়ে হাসপাতালের শয্যা আছে ১২টি। দেশটিতে আনুমানিক চিকিৎসকের সংখ্যা এক লাখ দশ হাজার ৪০ জন।

২০১৮ সালের হিসাব অনুযায়ী দেশটির মোট জনসংখ্যা ২৬ কোটির বেশি। সে হিসাবে প্রতি দশ হাজার মানুষের জন্য চিকিৎসকের সংখ্যা মাত্র চারজন।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

দিল্লিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা একলাফে ৪৪৫, দেশে মোট আক্রান্ত ৩০৭২

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ১১:০৯:২৮

দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ছাড়িয়ে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৫২৪ জন কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন। তাতে সারা দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩ হাজার ৭২। এ দিন পশ্চিবঙ্গে নতুন করে ৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বাংলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৯। মহারাষ্ট্রে ৪৯০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। দিল্লিতে ৪৪৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তামিলনাড়ুতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪১১ জন।

এর আগে, শুক্রবার সকাল থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে আক্রান্ত হয়েছেন ৬০১ জন। এক দিনে এটাই সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫৫ জন। এই নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ২৯০২।  যে ভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে আবার তাতে উদ্বেগ বেড়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের। শুক্রবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের দেওয়া হিসেবে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২৩০১।

মৃত্যুর হারেও চিন্তার ভাঁজ চওড়া হয়েছে কেন্দ্র তথা রাজ্য সরকারগুলির। ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৮। শুক্রবার সকালে মৃতের সংখ্যা ছিল ৫৬। ১২ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের। তবে আশার কথা আক্রান্তের সংখ্যার সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যাও বাড়ছে দেশে। বর্তমানে সেই সংখ্যা ১৮৪।

আক্রান্তের সংখ্যায় এখনও পর্যন্ত শীর্ষস্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র। সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন ৪২৩ জন। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৮৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে দেশের মধ্যে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪১১। এখানে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১০২ জন। অন্য দিকে, দিল্লিতেও এক লাফে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৮৬ জন। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের।

আক্রান্তের সংখ্যায় মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু এবং দিল্লির পর রয়েছে কেরল(২৯৫), তার পর রাজস্থান(১৭৯), উত্তরপ্রদেশ(১৭৪), অন্ধ্রপ্রদেশ(১৬১) এবং তেলঙ্গানা(১৫৮)।

অন্য দিকে, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের হিসেব অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গে  এ পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৩। মৃতের সংখ্যা ৩। রাজ্য সরকারের হিসেব অনুযায়ী এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গে চিকিৎসাধীন আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯।

এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

করোনায় চীনে মারা গিয়েছে ৫০ হাজার মানুষ: ওয়াশিংটন পোস্ট

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৯:৫৫:৫৬

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চীনে অন্তত ৫০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। নিজ ভূখণ্ডে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের মাত্রা গোপন করেছে চীন। মৃত্যু ও আক্রান্তের সঠিক সংখ্যা তারা প্রকাশে করেনি।

শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী পত্রিকা ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’ এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করে। এর আগে হোয়াইট হাউসে পাঠানো এক গোপন প্রতিবেদনে মার্কিন গোয়েন্দারাও এমন তথ্য দিয়েছিলেন।

তবে চীন সরকার বলছে, এখন পর্যন্ত তাদের মূল ভূখণ্ডে ৮২ হাজার লোক আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন তিন হাজার ৩০০ লোক। অথচ যুক্তরাষ্ট্রে ২ লাখ ৭৭ হাজার লোক আক্রান্ত ও সাত হাজারের মৃত্যু হয়েছে।

চীনের একটি সাময়িকী ক্যাক্সিনের বরাতে ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, উহানের হানকাউ নামের একটি শ্মশানে প্রতিদিন ১৯ ঘণ্টা ধরে মৃতদেহ সৎকার হয়েছে। মাত্র দুদিনে সেখানে অন্তত ৫ হাজার মানুষের মরদেহ পোড়ানো হয়।

এছাড়া অনলাইনে পোস্ট করা ছবি ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো একটা হিসাব বের করেছে। এতে দেখা গেছে, গত ২৩ মার্চ থেকে মৃতদেহ সৎকার শেষে উহানে মৃতদেহের ছাই ভরা ৩ হাজার ৫০০ কলস ফিরে এসেছে প্রতিদিন। সে হিসেবে ৩ এপ্রিল পর্যন্ত ১২ দিনে উহানে ৪২ হাজার মানুষের মৃত্যুর তথ্য উঠে আসে।

রেডিও ফ্রি এশিয়ার বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, উহানে ৮৮টি চুল্লিতে দিন–রাত মৃতদেহ পোড়ানো হয়। সেখানে ৪৮ হাজার ৮০০ মানুষকে পোড়ানো হয়েছে।

এর আগে হোয়াইট হাউসে পাঠানো এক গোপন প্রতিবেদনে মার্কিন গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যু নিয়ে চীনের সরকারি প্রতিবেদন ইচ্ছাকৃতভাবে অসম্পূর্ণ রাখা হয়েছে। প্রতিবেদনটি অতিগোপনীয় বলে নাম প্রকাশ করতে চাননি কর্মকর্তারা। এ নিয়ে তারা বিস্তারিত তথ্য দিতেও অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

দুই মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তা এ বিষয়ে বলেন, হোয়াইট হাউসে তারা যে প্রতিবেদন দেন, তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হচ্ছে- চীন আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে যে পরিসংখ্যান দিয়েছে তা একেবারেই ভুয়া।

গোয়েন্দাদের এই প্রতিবেদন গত সপ্তাহে হোয়াইট হাউস গ্রহণ করে। গত বছরের শেষ দিনে চীনের হুবেইপ্রদেশের রাজধানী উহান শহর থেকে এ ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়েছে।

চীনে করোনাভাইারাসে আক্রান্ত ও মৃতের সরকারি সংখ্যা নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন ।

গত বুধবার ওয়াশিংটনে এক সংবাদ সমেল্লনে ট্রাম্প বলেন, চীনের পরিসংখ্যানে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা আমার মনে হয় কম করে দেখানো হয়েছে।

মার্কিন আইন প্রণেতা ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের পক্ষ থেকে বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে এই প্রাদুর্ভাবের প্রতিবেদনটি ইচ্ছাকৃতভাবে তৈরি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

কুয়েতে ২৫ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৯:৪৭:৩২

কুয়েতে নতুন করে ৬২ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তার মধ্যে ৪ জন বাংলাদেশি নাগরিক রয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ২৫ বাংলাদেশি।

৩ এপ্রিল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম ১ জনের মৃত্যু হয়।

বর্তমানে কুয়েতে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৪৭৯ জন, আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৯৩ জন, আইসিউতে চিকিৎসাধীর রয়েছেন ১৭ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

করোনায় আক্রান্ত বার্সার ভাইস প্রেসিডেন্ট

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৮:৫১:২৫

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন লা লিগা চ্যাম্পিয়নস বার্সেলোনার ভাইস প্রেসিডেন্ট জর্দি কার্দোনার। শনিবার (০৪ এপ্রিল) মধ্যাহ্নে খবরটি নিশ্চিত করেছে মুন্দো দেপার্তিভো।

স্পেনের জনপ্রিয় ক্রীড়া সংবাদমাধ্যমটি আরও জানায়, করোনা পজিটিভ হওয়ার পর ‘কোনো ধরনের জটিলতা ছাড়াই’ ধীরে ধীরে ‘আরোগ্য লাভের’ দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন কার্দোনার।

বার্সার তৃতীয় ব্যক্তি হিসেবে কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছেন কার্দোনার। ৫৭ বছর বয়সী ভাইস প্রেসিডেন্টের আগে গত সপ্তাহে এই রোগে আক্রান্ত হন ক্লাবের মেডিকেল সাভির্সের প্রধান র্যামন ক্যানাল এবং হ্যান্ডবল দলের চিকিৎসক হোসেপ অ্যান্তনি গুতিরেজ। দুজনেরই করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায় ২৬ মার্চ। 

এছাড়াও বার্সেলোনার দক্ষিণ আমেরিকান স্কাউট আন্দ্রে কুরিও আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। তবে ক্লাবটির কোনো খেলোয়াড়ের এখনও এই রোগের লক্ষণ দেখা দেয়নি।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

জার্মানিতে প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে মাইকে আজান

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৮:১৫:৫১

জার্মানিতে প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে মাইকে আজান দেয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছে। শুক্রবার বার্লিনের একটি মসজিদে মাইকে আজান দেয়ার সময় প্রচুর মানুষের সমাগম ঘটে।

করোনাভাইরাসের কারণে মানুষের মনোবল বাড়াতে দেশটির চার্চগুলিতে প্রতিদিন সন্ধ্যায় ঘণ্টা বাজানো হয়। বিশ্বের যে কয়টি দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা খুব দ্রুত বাড়ছে জার্মানি তার মধ্যে অন্যতম।

ইউরোপের এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাস আক্রান্ত ৯১১৫৯ জন।আর মারা গেছেন ১২৭৫ জন। এদিকে জার্মানিতে এখন পর্যন্ত ১২ জন বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

করোনায় স্পেনে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৮০৯

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৮:০২:৪৪

করোনা ভাইরাস সংক্রমণে (কোভিড-১৯) ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৮০৯ জনের মৃত্যু হয়েছে ইউরোপের দেশ স্পেনে। এর মধ্য দিয়ে ভাইরাস সংক্রমণে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৭৪৪ জনে।

শনিবার (০৪ এপ্রিল) দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানায় আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

সংবাদে জানানো হয়, ভাইরাস সংক্রমণে দেশটিতে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৭ হাজার ২৬জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে স্পেনে কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্য দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ২৪ হাজার ৭৩৬ জনে।
ksrm

৩১ জানুয়ারি স্পেনে প্রথম করোনা ভাইরাস সংক্রমণের পর দেশটিতে শনিবার পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৪ হাজার ২১৯ জন।

২০১৯ সালের নভেম্বরে চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথম করোনা ভাইরাস সংক্রমণ দেখা যায়। শনিবার পর্যন্ত ২০৫টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসে মোট ১১ লাখ ৩৩ হাজার ৪৫২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। পাশাপাশি ভাইরাস সংক্রমণে মারা গেছেন ৬০ হাজার ৩৭৮ জন।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

মায়ের মৃত্যুতে খাওয়ালেন দেড় হাজার জনকে, সবাই কোয়ারেন্টিনে!

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৭:০৭:৪৯

ভারতের মধ্যপ্রদেশের মরেনা জেলায় দুবাই ফেরত এক ব্যাক্তি তার মায়ের মৃত্যুতে এলাকার দেড় হাজার মানুষকে দাওয়াত করে খাইয়েছেন।

পরে জানা গেল ওই ব্যাক্তি এবং তার পরিবারের ১১ সদস্যের সবাই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত।

খবর পেয়ে কর্তৃপক্ষ এলাকায় এসে পুরো কলোনিটি লকডাউন করে দিয়েছে। কেউ যাতে এখানে প্রবেশ বা এখান থেকে বেড় হতে না পারে সে জন্য বসানো হয়েছে কড়া পাহারা। এক কথায় গোটা এলাকার মানুষ এখন কোয়ারেন্টিনে।

সুরেশ নামে ওই ব্যাক্তি দুবাইয়ে একটি বিলাসবহুল হোটেলে ওয়েটারের কাজ করতেন। গত ১৭ মার্চ তিনি ভারতে আসেন এবং তার মায়ের মৃত্যুর পর ২০ মার্চ একটি বিশেষ ভোজের আয়োজন করেন।

এরপর গত ২৫ মার্চ তার দেহে করোনার উপসর্গ দেখা দিলে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। পরীক্ষা করে তার ও তার স্ত্রীর দেহে করোনার জীবাণু পাওয়ার পর গত বৃহস্পতিবার ওই দম্পতিকে আইসোলেশনে নেয়া হয়।

এরপর তার ১০ আত্মীয়-স্বজনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেও করোনাভাইরাস পা্ওয়া যাওয়ার পর গোটা এলাকাটি লকডাউন করে দেয় স্থানীয় প্রশাসন।

উল্লেখ্য, সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখায় ভারতে গত তিন দিনে দ্বিগুন হয়েছে করোনায় আক্রান্ত লোকের সংখ্যা।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

বিদেশি তবলিগিদের নিয়ে টানাপড়েন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৫:১৪:১০

নিজামুদ্দিন কাণ্ডে করোনাভাইরাস সংক্রমণ তো কপালে ভাঁজ ফেলেছেই। এ বার বিভিন্ন দেশ থেকে ভারতে আসা তবলিগি জামাত সদস্যদের নিয়ে কূটনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়ে গেল।

এক দিকে বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, তাইল্যান্ডের মতো দেশগুলি তাদের নাগরিক তবলিগি সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য সাউথ ব্লকের সঙ্গে কথা বলছে। যাদের করোনাভাইরাস সংক্রমণ হয়নি অথচ কোয়রান্টিনে রাখা হয়েছে, তাদের কী ভাবে দেশে ফেরানো যায়, তা জানতে চাইছে। আবার ভারতের তরফ থেকে রাষ্ট্রদূতদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট দেশগুলিকে জানানো হয়েছে, কোয়রান্টিন-এর মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে কারও সঙ্গে দেখা করতে দেওয়ার প্রশ্ন নেই।

জেনেভা কনভেনশন-এর সনদ অনুযায়ী ‘কনসুলার অ্যাক্সেস’-এর দাবি এখানে করা যায় না, কারণ এখন অভূতপূর্ব পরিস্থিতি চলছে। কোয়রান্টিন-এর মেয়াদ শেষ হলে, হয় চার্টার্ড বিমানে তাঁদের ফেরত পাঠানো হবে, অথবা উড়ান চালুর জন্য অপেক্ষা করা হবে। যাঁরা ইতিমধ্যেই ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন, তাঁদের অপেক্ষা করতে হবে আরোগ্যের জন্য।

পাশাপাশি পর্যটক ভিসা নিয়ে এসে ধর্ম সম্মেলনে যোগ দিয়ে শর্তভঙ্গ করার জন্য ভারতের ভিসা আইন অনুযায়ী ব্যবস্থাও করা হবে এই বিদেশি নাগরিকদের বিরুদ্ধে। গত কালই বিষয়টি স্পষ্ট করে দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। বিভিন্ন দেশ থেকে ভারতে আসা মোট ৯৬০ জন তবলিগি সদস্যের পর্যটন ভিসা বাতিল করা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রের বক্তব্য, ৩৯টি দেশ থেকে তবিলিগি সদস্যরা এসেছিলেন, যার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের ১১০ জন, ইন্দোনেশিয়ার ৩৭৯ জন এবং তাইল্যান্ডের ৬৫ জন ছিলেন। সরকারের বক্তব্য, ৫০০ ডলার করে আর্থিক জরিমানা দেওয়ার পর তবেই ফেরার অনুমতি পাবেন তাঁরা। আগামী দু বছর ভারতে আসাও নিষিদ্ধ। সাহারনপুর এবং কানপুরে ডেরা বাঁধা নিজামুদ্দিনের সমাবেশ ফেরত ৬৫ জন বিদেশির বিরুদ্ধে মামলা করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশও।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

করোনা: ভারতে আক্রান্ত ৩ হাজার ছুঁইছুঁই, মৃত ৬৮

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৫:০৩:৩৪

মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে ভারতেও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে বলে দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

শুক্রবার সকাল থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশটির ৬০১ জনের দেহে নভেল করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে; এ সময়ের মধ্যে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। সব মিলিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৬৮ তে পৌঁছেছে।

এদিকে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব অনুযায়ী ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা এরই মধ্যে ৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। তাদের দেওয়া সর্বশেষ তথ্যে দেশটিতে এখন কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা ৩ হাজার ৮২।

দেশজুড়ে লকডাউনের মধ্যে আক্রান্ত-মৃতের সংখ্যায় এমন উল্লম্ফন দেশটির নীতিনির্ধারকদের শঙ্কা বাড়িয়েছে; এ কারণে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোরও চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। আক্রান্তদের মধ্যে ১৮৪ জনের সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরার খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেয়া হিসাবে এখন পর্যন্ত মহারাষ্ট্রেই সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে আনন্দবাজার। নতুন আক্রান্ত ৮৮ সহ সেখানে মোট ৪২৩ জনের কোভিড-১৯ রোগ ধরা পড়েছে।

তামিল নাডুতে মোট আক্রান্ত ৪১১। দিল্লিতে ৩৮৬, কেরালায় ২৯৫, রাজস্থানে ১৭৯, উত্তরপ্রদেশে ১৭৪, অন্ধ্রে ১৬১ এবং তেলেঙ্গানায় ১৫৮ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে বলে শুক্রবার জানিয়েছে ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

তাদের হিসাবে পশ্চিমবঙ্গে ৬৩ জন আক্রান্ত ও ৩ জন মৃত জানানো হলেও মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সরকার বলছে, তাদের রাজ্যে এখন চিকিৎসাধীন আক্রান্তের সংখ্যা ৩৮।

একদিনে ৬০১ জন যোগ হওয়ায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যায় ভারত তাদের সীমান্তবর্তী দেশ পাকিস্তানকেও ছাড়িয়ে গেছে।

শনিবার সকাল পর্যন্ত পাকিস্তানে আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ৭০০ ছাড়িয়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৪০ জনের।

এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

এক দিনে ১৫০০ মৃত্যুর ধাক্কা আমেরিকায়, বিশ্বে আক্রান্ত ছাড়াল ১১ লক্ষ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৪:৩৮:৫৯

আমেরিকায় যেন মৃত্যুমিছিল চলছে। জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার রাত পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৪৮০ জনের। যা এক দিনে মৃত্যুর নিরিখে সর্বোচ্চ। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যাও। ইতিমধ্যেই সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় ২ লক্ষ ৮০ হাজারে। ফলে আক্রান্তের সংখ্যায় গোটা বিশ্বে শীর্ষস্থানে রয়েছে আমেরিকা।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গোটা বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা ১১ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে প্রায় ৫৯ হাজার। শুক্রবারে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১ লক্ষ মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজারের বেশি মানুষের। যা এক দিনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর নিরিখে সর্বোচ্চ। করোনার সংক্রমণ ছড়িয়েছে মোট ১৮১টি দেশে।

আমেরিকার পর আক্রান্ত এবং মৃত্যুর নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ইটালি। পাল্লা দিয়ে প্রতি দিন নতুন করে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সেখানে। ইটালিতে এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১ লক্ষ ২০ হাজার মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ১৪ হাজার ৬৮১ জনের। মৃত্যুর নিরিখে গোটা বিশ্বে শীর্ষস্থানে রয়েছে ইউরোপের এই দেশটি।

করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় আমেরিকা এবং ইটালির পর রয়েছে স্পেন ও জার্মানি। মৃত্যুর সংখ্যা ১৩০০-র আশপাশে ঘোরাফেরা করছে জার্মানিতে। তবে স্পেনে এই সংখ্যাটা ১১ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। মৃত্যুমিছিল চলছে ফ্রান্সেও। ইটালি, স্পেনের পরই করোনার তাণ্ডব চালাচ্ছে এই দেশে। সাড়ে ৬ হাজার জনের মৃত্যু হয়েছে সেখানে।



এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

করোনা: মালয়েশিয়ায় প্রবাসীদের খাদ্য সহায়তা দেবে হাইকমিশন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৪:৩৪:০৭

করোনা ভাইরাসের কারণে মালয়েশিয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিকদের খাদ্য সহায়তা দেবে সেখানের বাংলাদেশ হাইকমিশন। এ লক্ষ্যে প্রবাসী বাংলাদেশিদের হাইকমিশনে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করা হয়েছে।

শনিবার (৪ এপ্রিল) মালয়েশিয়ার বাংলাদেশ হাইকমিশন এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়।

এতে উল্লেখ করা হয়, করোনা ভাইরাসের বিস্তার প্রতিরোধে মালয়েশিয়া সরকার ঘোষিত মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডারের কারণে যেসব প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিক খাদ্য সংকটে আছেন তাদের নিচের লিংকে দেয়া ফরম পূরণ করে হাইকমিশনে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হলো। লিঙ্ক: https://corona.bdhckl.gov.bd

ফরম পূরণ করতে অসুবিধা হলে নিচের নম্বরে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করা হয়েছে।
+৬০১২২৯০৩২৫২, +৬০১২২৯৪১৬১৭, +৬০১৩৬৩৩০১০৩, +৬০১১২৬৯৯১১৫০, +৬০১৭৬২৩২১৮৩, +৬০১৬৭৯০৭৪৩৪ এবং +৬০১২৪৩১৩১৫০ ।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

সিএনএনের উপস্থাপিকা করোনায় আক্রান্ত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৩:২১:৫৫

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম সিএনএনের উপস্থাপিকা ব্রুক বাল্ডউইন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

শুক্রবার (৩ এপ্রিল) এক ইনস্টাগ্রাম পোস্টের মাধ্যমে তিনি নিজেই এ খবর জানিয়েছেন বলে জানায় সিএনএন।

সিএনএন জানায়, একদিন আগে থেকে তার করোনা উপসর্গ দেখা দিলে তিনি টেস্ট করেন। শুক্রবার রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

ইনস্টাগ্রাম পোস্টে বাল্ডউইন লেখেন, এটা হঠাৎ করেই সর্দি, ব্যথা, জ্বরের উপসর্গ আসলে পরীক্ষা করাই। পরে করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে। তবে আমি ঠিক আছি।

এর আগে চলতি সপ্তাহের প্রথমে ক্রিস কুয়োমো নামে আরেক উপস্থাপকেরও করোনা ধরা পড়ে।

ব্রুক বাল্ডউইন কাজ করেন সিএনএন এর নিউইয়র্ক সিটির অফিসে। তিনি সব নিয়মকানুন মেনে চলছেন এবং শিগগিরই সুস্থ হয়ে আবার পর্দার সামনে ফিরবেন বলে জানিয়েছেন ইনস্টাগ্রাম পোস্টে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত