যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 02:49pm

|   লন্ডন - 08:49am

|   নিউইয়র্ক - 03:49am

  সর্বশেষ :

  ক্যালিফোর্নিয়ায় নিজের স্কুলে কিশোরের গুলি, নিহত ১   পেঁয়াজের মূল্য নিয়ে উত্তাল সংসদ   সিরাজগঞ্জে ট্রেনের ইঞ্জিনসহ ৮ বগি লাইনচ্যুত, দুটিতে আগুন   ভূ-কৌশলগত বিরোধ নয় সুষ্ঠু প্রতিযোগিতা চায় বাংলাদেশ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী   আবার বিয়ে করলেন হুমায়ূন আহমেদের প্রথম স্ত্রী গুলতেকিন   দুপুরে আটকের পর রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা যুবক নিহত   পিয়াজের কেজি ২০০ টাকা   ৫০ লাখ টাকার স্পিড বোট ১০ কোটি টাকা!   মুক্তিযুদ্ধে বিতর্কিতদের বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ না জানানোর নির্দেশনা   নেত্রকোণা জেলা সমিতি ইউএসএ ইনক্’-এর কমিটি গঠন   বুয়েটে আবরার হত্যা: ২৫ জনকে আসামি করে চার্জশিট   ভারতে পেঁয়াজের দাম ৮ টাকা, কৃষকের কান্নার ভিডিও ভাইরাল   গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহত ৯   ইতালিতে মসজিদে হামলার পরিকল্পনাকারী আটক, বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার   ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুর্ঘটনা: অটো ব্রেকে ট্রেন রেখে ঘুমাচ্ছিলেন চালকরা

>>  স্বদেশ এর সকল সংবাদ

পেঁয়াজের মূল্য নিয়ে উত্তাল সংসদ

পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধিতে সরকারের সুনাম নষ্ট হচ্ছে বলে সংসদকে জানিয়েছেন সংসদ সদস্যরা। সংকট মোকাবেলায় পেঁয়াজ আমদানির ওপর থেকে আমদানি শুল্ক প্রত্যাহারের প্রস্তাব করা হয়। পর্যাপ্ত মজুদ থাকার পরও মূল্য বৃদ্ধি করায় অভিযান পরিচালনা করতেও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে দাবি জানিয়েছেন সরকারি ও বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্যরা। বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে

পয়েন্ট অব অর্ডারে প্রসঙ্গটি উত্থাপন করেন, সরকারি দলের সংসদ সদস্য সাবেক মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

সংসদে অর্থমন্ত্রী ও বাণিজ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে নাসিম বলেন, পেঁয়াজের ঝাঁজ

বিস্তারিত খবর

সিরাজগঞ্জে ট্রেনের ইঞ্জিনসহ ৮ বগি লাইনচ্যুত, দুটিতে আগুন

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৪ ০৫:৪২:৩৮

সিরাজগঞ্জে উল্লাপাড়ায় 'রংপুর এক্সপ্রেস' ট্রেনের ইঞ্জিনসহ ৮টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। এ সময় ট্রেনটির দুটি বগিতে আগুন ধরে যায়। বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে সিরাজগঞ্জ-ঈশ্বরদী রেলপথের উল্লাপাড়া স্টেশনের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ট্রেনটি ঢাকা থেকে রংপুর যাচ্ছিল।

এতে কমপক্ষে ২০ যাত্রী আহত হয়েছে। তবে কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা এসে দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিভিয়েছে। ঘটনা তদন্তে  ৫ সদস্যের একটি কমিটি ঘটন করা হয়েছে।

উল্লাপাড়া স্টেশনের সহকারী মাস্টার মো. রফিকুল ইসলাম জানান, লাইনম্যানের ক্লিয়ারেন্স পেয়ে ট্রেনটি উল্লাপাড়া থেকে ঈশ্বরদীর উদ্দেশে ছেড়ে যায়। উল্লাপাড়া স্টেশনের মূল প্লাটফর্ম পার হওয়ার পর হঠাৎ ট্রেনটির ইঞ্জিন উপরের দিকে উঠে যায়। এ সময় ইঞ্জিনসহ ৮টি বগি একে একে লাইন লাইনচুত্য হয়। তবে কোনটি উল্টে পড়ে যায়নি। দুর্ঘটনার কারণে ট্রেনের দুটি বগিতে আগুন লেগে যায়। এ সময় ট্রেনের যাত্রীরা কেউ জানালা ভেঙে কেউবা দরজা দিয়ে লাফিয়ে নামতে থাকেন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিসসহ স্থানীয় লোকজন। দুর্ঘটনার কারণে উত্তরবঙ্গের সঙ্গে ঢাকার রেল যোগাযোগ সাময়িক বন্ধ রয়েছে।

উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার নাজির হোসেন ও উল্লাপাড়ার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মাঠকর্মী গোলাম কিবরিয়া জানান, কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। তাদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে কেউই নিহত হননি। বগিতে লাগা আগুন নেভানো হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগ পাকশাীর বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) মিজানুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে পাকশী থেকে রিলিফ ট্রেন উল্লাপাড়ায় পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে পাকশীর বিভাগীয় ট্রাফিক অফিসার (ডিটিও) আবদুল্লাহ আল মামুনকে প্রধান করে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি ঘটন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে ৩ কর্মদিবস সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এ দুর্ঘটনার পেছনে লাইনম্যানের কোনো গাফলাতি থাকলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 উল্লেখ্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষে ১৬ জন নিহতের দুইদিনের মাথায় এই দুর্ঘটনা ঘটলো।

বিস্তারিত খবর

ভূ-কৌশলগত বিরোধ নয় সুষ্ঠু প্রতিযোগিতা চায় বাংলাদেশ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৪ ০১:১১:৫০


পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ ভূ-কৌশলগত বা রাজনৈতিক বিরোধ নয়, আঞ্চলিক শান্তি ও অগ্রগতির জন্য সুষ্ঠু প্রতিযোগিতা চায়। তিনি বলেন, স্থিতিশীলতার জন্য আমাদের টেকসই উন্নয়নের ওপর জোর দিতে হবে। সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে পারষ্পরিক আস্থা ও শ্রদ্ধার ভিত্তিতে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিকে সহায়তা করে এমন যে কোনো বৈশ্বিক ও আঞ্চলিক উদ্যোগে যোগ দিতে বাংলাদেশ প্রস্তুত রয়েছে।

বুধবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে ঢাকা গ্লোবাল ডায়ালগের সমাপনী অধিবেশনে তিনি এ সব কথা বলেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস) ও ভারতের অবজার্ভার রিসার্চ ফাউন্ডেশন (ওআরএফ) যৌথভাবে এই ডায়ালগের আয়োজন করেছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দক্ষিণ এশিয়া মুক্তি বাণিজ্য অঞ্চল চুক্তির (সাফটা) আওতায় আগামী কয়েক বছরের মধ্যে পণ্য ও সেবা বাণিজ্য বৃদ্ধি পাবে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ান অল্প সময়ের মধ্যেই অন্যতম অর্থনৈতিক শক্তি হিসাবে আবির্ভূত হবে। এশিয়া-প্যাসেফিক বিষয়ক জাতিসঙ্ঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কমিশনের আওতায় আঞ্চলিক অর্থনৈতিক সম্পৃক্ততা পরবর্তী ধাপে উন্নীত হচ্ছে। বাংলাদেশ-চীন-ভারত-মিয়ানমার (বিসিআইএম) অর্থনৈতিক করিডোর উৎপাদন, বিতরন ও পরিবহনের ক্ষেত্রে সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করছে। বেল্ট এন্ড রোড (বিআরআই) উদ্যোগের মাধ্যমে এশিয়া, আফ্রিকা ও ইউরোপকে স্থল ও সমুদ্রপথে সংযুক্ত করার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে চীন। অবকাঠামো উন্নয়নকে মূল মন্ত্র করে যুক্তরাষ্ট্র এগিয়ে যাচ্ছে ইন্দো-প্যাসিফিক কৌশল নিয়ে।

তিনি বলেন, বিশ্বায়নের এই যুগে এককভাবে কোনো দেশ এগিয়ে যেতে পারে না। পারষ্পরিক শক্তি ও সক্ষমতা থেকে লাভবান হতে আমাদের একসাথে কাজ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে বলেন, ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য কানেক্টিভিটি প্রয়োজন। আর কানেক্টিভিটির জন্য প্রয়োজন পার্টনারশীপ (অংশীদারিত্ব)। সবার সহযোগিতার মধ্য দিয়ে এ পার্টনারশিপকে এগিয়ে নিতে হবে। তিনি বলেন, ঢাকা গ্লোবাল ডায়ালগের মধ্য দিয়ে ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে বাংলাদেশের গুরুত্ব সম্পর্কে সবাই জানতে পেরেছে। এটা খুবই ইতিবাচক একটি উদ্যোগ।

এক প্রশ্নের জবাবে ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন, সব কিছু ফ্রেমওয়ার্কের মাধ্যমে হয় না। ইন্দো-প্যাসিফিক নিয়ে আমাদের নিজস্ব কনসেপ্ট (ধারণা) আছে, চীনের নিজস্ব কনসেপ্ট আছে, আসিয়ানের নিজস্ব কনসেপ্ট আছে। এর মধ্য দিয়েই আমাদের একে অপরের সহযোগিতা বাড়াতে হবে। সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

বিস্তারিত খবর

দুপুরে আটকের পর রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা যুবক নিহত

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৪ ০১:০৯:০০

কক্সবাজারের টেকনাফের শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ে বুধবার দিবাগত রাতে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাহমুদুল হাসান (৩৭) নামে এক রোহিঙ্গা নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ। নিহত মাহমুদুল হাসান টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এইচ ব্লকের মৃত বাকের আহমদের ছেলে।

তাকে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী ও ডাকাত দাবি করে টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশের ভাষ্য, বুধবার দুপুরে আটক মাহমুদুলকে সঙ্গে নিয়ে রাত ১টার দিকে পাহাড়ে অস্ত্র উদ্ধার অভিযানে যায় পুলিশ। কিন্তু পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাহমুদুলের সহযোগীরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এসময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।

ওসির দাবি, এক পর্যায়ে মাহমুদুলের গুলি লাগলে তাকে আহত অবস্থায় প্রথমে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

মাহমুদুলের বিরুদ্ধে ডাকাতি, মানবপাচারসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানান পুলিশ কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার।

পুলিশের দাবি, ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, তিনটি দেশীয় অস্ত্র, দুটি ম্যাগাজিন, ১৮ রাউন্ড গুলি, ১৩ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ১৫ রাউন্ড কার্তুজের খালি খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

বিস্তারিত খবর

পিয়াজের কেজি ২০০ টাকা

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৪ ০১:০৮:২২

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পিয়াজের বাজারে অস্থিরতা চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় এবার পিয়াজের দাম কেজি প্রতি ডাবল সেঞ্চুরিতে গিয়ে ঠেকেছে। গতকাল বুধবার ঢাকার পাড়া-মহল্লার বাজার ও মুদি দোকানগুলোতে প্রতিকেজি দেশি পিয়াজ ১৭০ টাকা থেকে ১৮০ টাকায় বিক্রি হলেও আজ কোথাও কোথাও তা ২০০ টাকা দাম চাওয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজার পরিদর্শনে গিয়ে এমন দৃশ্য দেখা মিলেছে।

তবে গতকাল বুধবারও কোথাও কোথাও দেশি পিয়াজ ২০০ টাকা দরে বিক্রি করা হয়েছে। বুধবার বিকালে মিরপুরের পীরেরবাগ কাঁচাবাজারে গিয়ে দেখা গেছে, দেশি ক্রস জাতের পিয়াজ প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ১৭০ টাকায়। এর থেকে বাছাই করা তুলনামূলক ভালো মানের পিয়াজের দাম চাওয়া হচ্ছিল প্রতিকেজি ২০০ টাকা।

এদিকে, পিয়াজের দাম বাড়ার সাথে সাথে পিয়াজের বিক্রিও কমেছে। কারওয়ান বাজারের এক মুদি দোকানি বলেন, দাম বাড়ার কারণে পিয়াজ বিক্রিও কমে গেছে। আগে দিনে ২০ কেজির মতো বিক্রি হলেও এখন ৭ কেজি পিয়াজও বিক্রি হয় না।
দাম বৃদ্ধি নিয়ে মিরপুর-১ নম্বরে পাইকারি আড়তদার মোস্তফা কামাল গণমাধ্যমকে বলেন, সত্যিকার অর্থেই বাজারে পিয়াজের প্রচুর সংকট রয়েছে। সেই কারণে সরকার নানা অভিযান চালানোর পরও, অনেক জেল-জরিমানা করার পরও দাম কমাতে পারেনি। কয়েকদিন আগে ঘূর্ণিঝড়ের কারণে আমদানি করা পিয়াজ সরবরাহে সমস্যা হয়েছে। আর সেই কারণেই এখন বাজারের এই পরিস্থিতি।

জানা গেছে, সর্বশেষ পিয়াজের দাম বেড়েছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলকে ঘিরে। গত শনিবার বুলবুল আঘাত হানার একদিন আগে থেকে নতুন করে বাড়তে থাকে দাম। তার আগে খুচরায় পিয়াজের দাম ১১০ থেকে ১২০ টাকার মধ্যে ছিল। ঢাকায় পিয়াজের সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার শ্যামবাজারেও পিয়াজের সরবরাহে টান পড়েছে বলে সেখানকার ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।

বিস্তারিত খবর

৫০ লাখ টাকার স্পিড বোট ১০ কোটি টাকা!

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৪ ০১:০৬:২৯


উন্নয়ন প্রকল্প ব্যয়ে কোনো ধরনের লাগাম নেই। অনুমোদন পাওয়ার পর ব্যয় বাড়ছে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে থাকছে তো না-ই, উল্টো তিন বছরের প্রকল্প চলছে ছয় বছর ধরে। প্রকল্পপণ্যের দর নিয়েও অনেক প্রশ্ন পরিকল্পনা কমিশনের। কখনো যাচাই করা হয় না। আবার অনুমোদন নিয়ে পরে সংশোধনীতে মাত্রাতিরিক্ত দর ধরা হয়। যেখানে তিনটি ক্যাবিন পেট্রল বোটের দর ধরা হয় ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা, সেখানে দ্বিতীয় সংশোধনীতে এসে একটির দাম ধরা হয় ১০ কোটি টাকা। আর প্রকল্পটি হলো দেশের উপকূলীয় এলাকায় সাতটি লাইট হাউজ ও কোস্টাল রেডিও স্থাপন। ৩৭০ কোটি ৮৯ লাখ টাকা ব্যয়ের প্রকল্প খরচ এখন ১০৪.৪৫ শতাংশ বা ৩৮৭.৪০ কোটি টাকা বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ৭৫৮ কোটি ২৯ লাখ টাকা। বিনোদন খাতে ব্যয় এবং ক্যাবিন টাইপ হাই স্পিডবোট ক্রয়ে অস্বাভাবিক দাম নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগ। তারা বলছেন, ক্রয় আদেশ দেয়ার পর এ ধরনের ব্যয় বৃদ্ধির সুযোগ নেই। নির্মাণব্যয় বৃদ্ধি বিবেচনায় নেয়া না হলে সিডি-ভ্যাট বাবদ ৭২ কোটি টাকা বৃদ্ধির বিষয়টিও থাকবে না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এস্ট্যাবলিসমেন্ট অব গ্লোবাল মেরিটাইম ডিস্ট্রেস অ্যান্ড সেইফটি সিস্টেম অ্যান্ড ইন্টিগ্রেটেড মেরিটাইম নেভিগেশন সিস্টেম প্রকল্পটি দ্বিতীয় দফায় আবারো ব্যয় বৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে। ৩৭০ কোটি ৮৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ২০১৪ সালের ১১ মার্চ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য একনেকে অনুমোদন দেয়া হয়। কথা ছিল ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে সমাপ্ত করা হবে। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি না থাকায় ব্যয় বাড়িয়ে প্রকল্পের মেয়াদ আড়াই বছর বৃদ্ধি করা হয়। তাতেও প্রকল্পের কাজে গতি নেই। আরো ৩০২ কোটি টাকা ব্যয় বাড়িয়ে প্রকল্পটি দ্বিতীয় সংশোধনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। সেই সাথে মেয়াদ আরো দুই বছর বাড়ানোর জন্য বলা হয়েছে।

ব্যয় পর্যালোচনা থেকে দেখা যায়, তিনটি ক্যাবিন টাইপ পেট্রল স্পিডবোট কেনার জন্য মূল প্রস্তাবনায় ছিল দেড় কোটি টাকা। অর্থাৎ প্রতিটি বোটের দাম ৫০ লাখ টাকা করে ধরা হয়। প্রথম সংশোধনীতে একই ব্যয় বরাদ্দ ছিল। কিন্তু দ্বিতীয় সংশোধনীতে এসে এই বোটের দাম প্রতিটি ১০ কোটি টাকা ধরে তিনটির দাম ৩০ কোটি টাকা করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দুবলার চর, চর কুকরি মুকরি, সেন্টমার্টিন প্রকল্প এলাকা হিসেবে আগেও ছিল। অথচ পূর্বে কোনো ধরনের হাই স্পিড ও হাই পারফরম্যান্স বোটের প্রয়োজন হয়নি। প্রকল্পের শেষ সময়ে এসে এতো টাকায় বোট কেনা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগ।

প্রকল্পে পরামর্শক সেবার জন্য ব্যয় ধরা হয় ১৫ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। এক লাফে এই ব্যয় প্রায় ১১ কোটি টাকা বাড়িয়ে করা হয়েছে ২৬ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। বৈদেশিক প্রশিক্ষণ নেয়ার কথা ছিল ২৫ জনের। এই খাতে ব্যয় ১ কোটি ৩১ লাখ টাকা। কিন্তু সরকারি খাত থেকে কোনো বরাদ্দ এই খাতের জন্য ছিল না। বর্তমানে সংশোধনীতে এই খাতে ব্যয় বাড়তি ১ কোটি ৩৫ লাখ টাকা চাওয়া হয়েছে। ফলে এই খাতে ব্যয় ২ কোটি ৬৬ লাখ টাকা করা হলো। প্রকল্পের শেষ পর্যায়ে এসে এই ধরনের ব্যয় বৃদ্ধি গ্রহণযোগ্য নয় বলে ভৌত অবকাঠামো বিভাগ বলছে। তেমনিভাবে মাটির কাজে ব্যয় ২৯ কোটি টাকা বাড়ানোয় আপত্তিও জানানো হয়েছে।

গত জুন পর্যন্ত সাড়ে পাঁচ বছরে অর্থ ব্যয় হয়েছে ১১৫ কোটি ৩২ লাখ ৫৫ হাজার টাকা। আর বাস্তব অগ্রগতি মাত্র ১৫.২১ শতাংশ। পরামর্শক খাতে ব্যয় হয়েছে ১১ কোটি ৮৬ লাখ ৭৫ হাজার টাকা বলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের তথ্য থেকে জানা গেছে। এই প্রকল্পে কোরিয়া আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে।

প্রকল্পের উদ্দেশ্য হলো, টার্ন-কি পদ্ধতিতে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় সাতটি লাইট হাউজ ও কোস্টাল রেডিও স্টেশন স্থাপন, ঢাকায় একটি কমান্ড ও কন্ট্রোল সেন্টার স্থাপনের মাধ্যমে জাহাজের সাথে ২৪ ঘণ্টা যোগাযোগব্যবস্থা প্রতিষ্ঠাসহ নৌনিরাপত্তা, সিকিউরিটি ও সার্ভিল্যান্স প্রতিষ্ঠা করা। নৌসহায়ক যন্ত্রপাতি স্থাপন ও পরিচালনা, আন্তর্জাতিক কনভেনশনের চাহিদা পূরণ। বর্তমান লাইট হাউজ আধুনিকীকরণ ও নতুন লাইট হাউজ স্থাপন, অনুসন্ধান ও উদ্ধারকার্যক্রমের সমন্বয় সাধন করা। বর্তমানে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি লিমিটেড দ্বারা পরিচালিত মংলা এবং ছিলিমপুর রেডিও স্টেশনে জিএমডিএসএসের যন্ত্রপাতি বা জনবল নেই। সেন্টমার্টিন, কক্সবাজার ও কুতুবদিয়াতে তিনটি লাইট হাউজ (বাতিঘর) রয়েছে। যা অনেক পুরনো। মেরামতের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ না পাওয়ার কারণে লাইট হাউজগুলো যথার্থ কার্যকর নয়। তা ছাড়া কুয়াকাটা, নিঝুম দ্বীপ, ঢালচর এবং দুবলার চরে আরো চারটি লাইট হাউজ স্থাপন করা প্রয়োজন। এসব সংশ্লিষ্ট স্থলভিত্তিক অবকাঠামোও নির্মাণ করা প্রয়োজন।

ভৌত অবকাঠামো বিভাগ যুগ্ম প্রধান স্বাক্ষরিত কার্যপত্রে তিনি বলছেন, মূল প্রকল্প থেকে প্রকল্পের ব্যয়ে বৈদেশিক সাহায্য বেড়েছে মাত্র ৯ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। আর সরকারি খাতে বেড়েছে ৩৭৮ কোটি টাকা, যা বৈদেশিক ঋণ গ্রহণের উদ্দেশ্য ব্যাহত করেছে বলে কমিশন মনে করছে।

বিস্তারিত খবর

মুক্তিযুদ্ধে বিতর্কিতদের বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ না জানানোর নির্দেশনা

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৩ ০৭:২১:২১

মহান বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে স্বাধীনতা যুদ্ধে বিতর্কিত, যুদ্ধাপরাধী কেউ থাকতে পারবে না, তাদেরকে আমন্ত্রণ না জানাতে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে বুধবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সার্বিক আইন শৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘মহান বিজয় দিবসের কোন অনুষ্ঠানে যুদ্ধাপরাধী ও স্বাধীনতা যুদ্ধে বিতর্কিতরা অংশ নিতে পারবেন না। কোন যুদ্ধাপরাধী বা যুদ্ধে বিতর্কিত কাউকে যেন আমন্ত্রণ জানানো না হয়, সে বিষয়ে প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। আজকের বৈঠকেও এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

তিনি বলেন, বিজয় দিবসের দিন স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পনের জন্য রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ সবার নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে। স্মৃতিসৌধ এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। ওই এলাকা নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হবে। বিদেশিদের জন্যও বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। ঢাকা-সাভার রোডে সিসি ক্যামেরা থাকবে, যাতে কোনোভাবে কেউ কোন ধরনের নাশকতা ঘটাতে না পারে। ঢাকা থেকে সাভার পর্যন্ত কোন তোরণ করতে দেয়া হবে না। মেট্রোপলিটন, জেলা-উপজেলা পর্যায়ে প্রয়োজন অনুসারে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’

বিস্তারিত খবর

নেত্রকোণা জেলা সমিতি ইউএসএ ইনক্’-এর কমিটি গঠন

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৩ ০৭:০৭:০৩

প্রবাসীদের সামাজিক সংগঠন ‘নেত্রকোণা জেলা সমিতি ইউএসএ ইনক্’ এর ২০১৯-২০২০ এর কার্যকরী কমিটি গঠন করা হয়েছে।
গত ১০ নভেম্বর রবিবার জ্যাকসন হাইটসের ‘টক অব দ্যা টাউন’-এর পার্টি হলে সমিতির সকল উপদেষ্টা ও কার্যকরী কমিটির সদস্যবৃন্দের উপস্থিতিতে সর্বসম্মতি ক্রমে নতুন কার্যকরী কমিটি গঠন করা হয়।

নবগঠিত কমিটিতে বিজন চন্দ্র তালুকদার সভাপতি, জহিরুল আলম রানা সাধারণ সম্পাদক ও সারোয়ার জাহান খান (পাবেল)কে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে।

বলে বৈঠক থেকে জানানো হয়,  শীঘ্রই সমিতির পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে।

বিস্তারিত খবর

বুয়েটে আবরার হত্যা: ২৫ জনকে আসামি করে চার্জশিট

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৩ ০৬:৫৪:৫৮

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় বা বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট চূড়ান্ত করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। আলোচিত এই হত্যাকাণ্ডের মামলায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতাসহ প্রথমে ১৯ জন এজাহারভূক্ত আসামি ছিল, পরে আসামির সংখ্যা দাঁড়ায় ২৫ জনে। এদের সবার বিরুদ্ধে হত্যাকাণ্ডের সাথে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত থাকার প্রমাণ মিলেছে বলে এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ।

পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ডিপার্টমেন্টের প্রধান এবং ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, অভিযুক্তদের মধ্যে ১১ জন সরাসরি হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত ছিল। বাকিরা ছিল পরোক্ষভাবে জড়িত।

আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে যাদের আটক করা হয়েছিল তাদের বেশিরভাগই ছাত্রলীগের বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নেতাকর্মী। হত্যাকাণ্ডের পর তাদের সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের কথা জানায় ছাত্রলীগ।

অভিযুক্তদের মধ্যে ২১ জন বর্তমানে কারাগারে রয়েছে।

তদন্তকারীরা বলছেন, এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে গিয়ে বুয়েটের শিক্ষক এবং হল প্রশাসনসহ বিভিন্ন পক্ষের বক্তব্য নেয়া হয়েছে।

আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় চকবাজার থানায় দায়ের করা মামলা তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কাছে।

বিস্তারিত খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুর্ঘটনা: অটো ব্রেকে ট্রেন রেখে ঘুমাচ্ছিলেন চালকরা

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১৩ ০৬:৪৫:৩১

কুমিল্লা থেকে আখাউড়া রেললাইনটি সিঙ্গেল হওয়ায় সোমবার (১১ নভেম্বর) রাতে ‘উদয়ন’ ট্রেনকে স্টেশনে অপেক্ষায় রেখে ‘তূর্ণা নিশীথা’কে যেতে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। আরও সিদ্ধান্ত ছিল ‘উদয়ন এক্সপ্রেস’ স্টেশনে প্রবেশের আগ পর্যন্ত মন্দবাগ স্টেশনের আউটারে থাকবে ‘তূর্ণা-নিশীথা’। তবে সেই সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে দেয়া তিনটি সিগন্যাল অমান্য করে ৬০-৭০ কিলোমিটার বেগে উদয়নে আঘাত করে তূর্ণা-নিশীথা।

মন্দবাগ রেল স্টেশনে সোমবার দিনগত রাত ৩টায় ঘটে যাওয়া ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনের কথা জানাতে গিয়ে এমন তথ্য জানান বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মিয়া জাহান।

তিনি আরও বলেন, ‘চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা অভিমুখী ‘তূর্ণা নিশীথা’র চালক ও তার সহকারীর দায়িত্বহীনতার কারণে এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে তদন্ত কমিটির রিপোর্ট আসলে বিষয়টি পরিষ্কার হবে। ঘটনার পর থেকে তূর্ণা নিশীথার লোকোমাস্টার তাছের উদ্দিন, সহকারী লোকোমাস্টার অপু দে ও ওয়ার্কিং গার্ড আব্দুর রহমান পলাতক আছেন। ইতোমধ্যে তাদের বরখাস্ত করা হয়েছে।’

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের এক কর্মকর্তা উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়াদের বরাত দিয়ে জানান, দুর্ঘটনার সময় ‘তূর্ণা নিশীথা’ ছিল অটো ব্রেকে। মূলত বিরতিহীন ট্রেন হওয়ায় অটো ব্রেকে রেখেই লোকোমাস্টার ও সহকারী লোকোমাস্টার হয়তো ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। তূর্ণাকে আউটারে থাকতে তিনটি সিগন্যাল দেয়া হয়েছিল মন্দবাগ রেল স্টেশন থেকে। দুইজন চালক একটি সিগন্যালও কেন দেখলো না? এর বাইরে আউটার, হোম, স্টার্টারসহ বেশ কিছু কারিগরি প্রক্রিয়া আছে। এসবের কোনোটাতেই তূর্ণা নিশীথার চালকরা সারা দেয়নি। প্রায় ৬০-৭০ কিলোমিটার বেগে উদয়ন এক্সপ্রেসকে আঘাত করে তূর্ণা নিশীথা।

তিনি আরও বলেন, ‘দুই মিনিট অপেক্ষা করলেও এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা এড়ানো যেত। কারণ, দুর্ঘটনার আগেই উদয়ন এক্সপ্রেসের ৯টি বগি স্টেশনে ঢুকে পড়েছিল। বাকি ৩টি বগিকে ধাক্কা দেয় তূর্ণা।’

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের উপপরিচালক (জনসংযোগ) তৌষিয়া আহমেদ বলেন, তূর্ণা নিশীথা ট্রেনের লোকোমোটিভ মাস্টার সিগন্যাল ভঙ্গ করে উদয়নকে ধাক্কা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ রেলওয়ের পক্ষ থেকে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অপরদিকে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অধীনে সরকারি রেলপথ পরিদর্শক নিজে পরিদর্শন করে মন্ত্রণালয়ে তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করবেন এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকেও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের ৪ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন- কমিটির আহ্বায়ক অতিরিক্ত সচিব (আইন ও ভূমি) মো. রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রধান সংকেত ও টেলিযোগাযোগ কর্মকর্তা আবুল কালাম, বাংলাদেশ রেলওয়ের যুগ্ম মহাপরিচালক (অপারেশন) রাশিদা সুলতানা গনি, বাংলাদেশ রেলওয়ের সদস্য ও উপসচিব রেলপথ মন্ত্রণালয় মীর আলমগীর হোসেন। এ কমিটিকে আগামী ৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন পেশ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এদিকে দুর্ঘটনায় নিহত ১৬ জনের মৃতদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পরপরই লাকসাম ও আখাউড়া থেকে দুটি রিলিফ ট্রেন ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধারকাজ শুরু করে। উদয়ন এক্সপ্রেস সামনের অক্ষত ৯টি বগি নিয়ে বেলা ১১টার দিকে চট্টগ্রাম পৌঁছায়। আর মূল লাইন মেরামত শেষে বেলা পৌনে ১১টায় ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায় ‘তূর্ণা নিশীথা’।

বিস্তারিত খবর

চট্টগ্রামে যুবলীগের সম্মেলনে মারামারি

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১২ ১০:১৯:২৫

চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের সম্মেলনে নেতাকর্মীদের মধ্যে মারামারি ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। অনুষ্ঠানে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ায় বক্তব্য না রেখে সম্মেলনস্থল ত্যাগ করেছেন প্রধান অতিথি শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। 

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) বিকাল ৫টার দিকে নগরীর লালদীঘি মাঠের অনুষ্ঠানস্থলে এই মারামারির ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী নেতাকর্মীরা জানান, বিকাল ৩টার দিকে সম্মেলন শুরু হয়। বিকাল ৫টার দিকে বিশেষ অতিথি ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আলতাফ হোসেন বাচ্চু বক্তব্য দিচ্ছিলেন। তখন প্রধান অতিথি ব্যারিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল অনুষ্ঠানস্থলে এসে উপস্থিত হন। তিনি আসার পর স্লোগান, পাল্টা স্লোগান দিতে শুরু করেন নেতাকর্মীরা। এরই একপর্যায়ে দুই পক্ষ মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে। কিছু নেতাকর্মী মাঠ থেকে সড়কে অবস্থান নিয়ে পাথর নিক্ষেপ করেন। এ পরিস্থিতিতে বক্তব্য না দিয়ে সম্মেলনস্থল ত্যাগ করেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

আরও জানা যায়, প্রতিপক্ষের ছুড়ে মারা চেয়ারের আঘাতে নগরীর সাত নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা মোবারক হোসেন আহত হন। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ব্যাপারে ঘটনাস্থলে উপস্থিত নগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সাখাওয়াত হোসেন সাকু বলেন, ‘প্রধান অতিথির আগমনকে কেন্দ্র করে স্লোগান, পাল্টা স্লোগানের সময় কারও সঙ্গে কারও হয়তো ধাক্কাধাক্কি লেগেছে। ধাক্কাধাক্কির কারণে হয়তো কেউ বসতে না পেরে চেয়ার ওপরে ছুড়ে মারে। সেই চেয়ার গিয়ে কারও গায়ে পড়লে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।’

কাউন্সিলর মোবারকের বন্ধু ও নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মো. নাছির উদ্দিন বলেন, ‘অনুষ্ঠানে আসা নারীদের বসানোর জন্য আমাদের ছেলেরা কয়েকজনকে চেয়ার ছেড়ে দিতে বলে। এরপর তারা আমাদের ছেলেদের দিকে চেয়ার ছুড়ে মারে। একটি চেয়ার এসে মোবারকের মুখে পড়ে। পরে আমরা তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসি।’

তবে যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য জাবেদুল সুমন বলেন, ‘যুবলীগ নেতা মোবারক ও যুবলীগ নেতা ওয়াসিমের অনুসারীরা একই সঙ্গে মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে ঢোকার চেষ্টা করলে সমস্যা সৃষ্টি হয়।’ 

এ সম্পর্কে  নগর যুবলীগের আহ্বায়ক মহিউদ্দিন বাচ্চু বলেন, ‘রাস্তায় অনেকে দাঁড়িয়ে ছিলেন। কারও গায়ের সঙ্গে হয়তো কেউ লেগে গেছে, যা নিয়ে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটতে পারে। পরবর্তীতে হয়তো চেয়ার ছুড়ে মেরেছেন।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘কী কারণে ঘটনাটি ঘটেছে আমরা এখনও নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। আমরা এখনও তথ্য সংগ্রহের পর্যায়ে আছি। ঘটনার বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার পর এ বিষয়ে বলতে পারবো।’

বিস্তারিত খবর

সৌদিতে নারী শ্রমিক না পাঠানোর অনুরোধ সংসদে, মন্ত্রীর সমালোচনা

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১২ ১০:১২:৪৬


বিদেশে বিশেষ করে সৌদি আরবে নারী শ্রমিক পাঠানো নিয়ে সংসদে তোপের মুখে পড়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী মো. ইমরান আহমেদ।

প্রশ্নোত্তর পর্বে এ নিয়ে তাকে একের পর এক প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। এই সময় তাকে প্রশ্নকারী বিরোধী দলের একাধিক এমপি বিদেশে কর্মরত মহিলা শ্রমিকদের উপরে যৌন নির্যাতনের বিষয়ে প্রশ্ন করেন। স্বাধীন দেশের মানসম্মান রক্ষায় সৌদি আরবে নারী শ্রমিক না পাঠানোর জন্য অনুরোধ করেন তারা।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে এঘটনা ঘটে। এসময় জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক চুন্নু ও কাজী ফিরোজ রশীদ আক্রমনাত্মক প্রশ্ন করেন। এছাড়াও জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ সৌদিতে নারী শ্রমিক পাঠানোর বিরোধীতা করে বক্তব্য দেন। সম্পৃরক প্রশ্ন করতে গিয়ে তারা নারী শ্রমিক পাঠানোর বিরোধীতা করেন।

সাংসদরা দাবি করেন, বাংলাদেশ এখন আর তলাবিহীন ঝুঁড়ি নয় যে, নারীদের সম্ভমহানীর জন্য তাদের বিদেশে পাঠাতে হবে। এর পরিবর্তে বেশি করে পুরুষ শ্রমিক পাঠানোর জন্য বলেন তারা।

এবিষয়ে  জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, ‘সৌদি আরবে বিশেষ করে নারী গৃহকর্মীদের সেক্সয়াল হেরাসমেন্টসহ নানা ধরনের নির্যাতন করা হয়। এটা স্বীকৃত। এই অত্যাচারের কারণে অনেক মহিলা সুযোগ পেলেই পালিয়ে যাচ্ছে, জেলখানায় যায় এবং অনেক কিছু হচ্ছে। এজন্য বহির্বিশ্বে থেকে আমাদের অনেক প্রশ্ন আসছে। মাননীয় মন্ত্রীদের কাছে আমার প্রশ্ন, এই যে মহিলা কর্মীরা পাঠাচ্ছি, তাদেরকে সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্ট থেকে বাঁচানোর জন্য, তাদের ইজ্জত সম্মানের সাথে চাকরি করার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে কোনো রকম উদ্যোগ নিয়েছেন কিনা?’

সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে মহিলা শ্রমিক পাঠানোর ব্যাপারে মন্ত্রী বলছেন যে, শিক্ষা দিয়ে নারীদের পাঠানো হবে। কিন্তু সৌদি আরবকে তো কন্ট্রোল করতে আপনি এখান থেকে পারবেন না। আর ওরা কিভাবে এটা কন্ট্রোল করে সেটা আপনি, আমি, অনেকেই জানি। আমরা বিভিন্ন সময় গিয়েছি, দেখেছি। আমার অনুরোধ থাকবে, এই সমাজজীবনকে বাঁচানোর জন্য, এই দেশের মান মর্যাদা ও ঐতিহ্য রক্ষার্থে আমাদের মহিলা শ্রমিক না পাঠিয়ে পুরুষ শ্রমিক পাঠান। এতে দেশের মান বাঁচবে। আমাদের মান ইজ্জত বাঁচবে, পারিবারিক পরিবেশও সুন্দর থাকবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে।  আর না হলে আমরা দাসের বাংলাদেশ পরিণত হব।’

কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, ‘মাননীয় মন্ত্রী বললেন রিক্রুটিং এজেন্ট বিদেশে লোক পাঠায়। তাহলে উনাদের দায়িত্বটা কি? প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর দায়িত্বটা কি?  আমাদের মা বোনদের আমরা পাঠিয়ে দিচ্ছি, ওখান থেকে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়ে,  নানান রকম অন্যায় অত্যাচারের শিকার হয়ে তারা লাশ হয়ে ফিরে আসে। এযাবত ছয় থেকে সাত শত লাশ এসেছে এবং তাদের সবারই লেখা থাকে এটা স্বাভাবিক মৃত্যু।  ওখানে পোস্টমর্টেম যে হয়, সেটাও বাংলাদেশের অ‌্যাম্বাসি দেখে না।  একই রকমের পোস্টমর্টেম করে তারা।‘

জবাবে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ বলেন, ‘বিদেশে নারী শ্রমিকরা হয়রানির শিকার হন, মন্ত্রী ও মন্ত্রণালয় কিছুই জানে না, এটা সঠিক নয়। সংসদের বিরোধী দলীয় এমপিদের এ ইস্যুতে বক্তব্য শুনে আমার মনে হয়েছে, অভিযোগ করার জন্য অভিযোগ এবং রাজনৈতিক মাঠে দেয়া বক্তব্যের মতো।’

মন্ত্রী বলেন, বিদেশে মহিলা কর্মী পাঠানো রিক্রুট এজেন্সীদের মধ্যে অনিয়মের কারণে ১৬০টির কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। ৩টি এজেন্সীর লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে। জরিমানা করা হয়েছে কোটি টাকার বেশি। এক্ষেত্রে সরকারের অবস্থান জিরো টলারেন্স।

বিস্তারিত খবর

ডা. শফিকুর রহমান জামায়াতে ইসলামীর আমীর নির্বাচিত

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১২ ১০:১১:২০

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান সংগঠনের সদস্যদের (রুকন) প্রত্যক্ষ ভোটে দলটির আমীর নির্বাচিত হয়েছেন। গত ১৭ অক্টোবর থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন আজ মঙ্গলবার নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেছে।

ডা. শফিকুর রহমানের সংক্ষিপ্ত জীবন বৃত্তান্ত:
ডা. শফিকুর রহমান ১৯৫৮ সালের ৩১ অক্টোবর মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা ইউনিয়নে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মরহুম আবরু মিঞা ও মাতার নাম মরহুমা খাতিবুন নেসা। তার বর্তমান ঠিকানা সিলেট মহানগরীর শাহপরান থানার সবুজবাগ এলাকায়। তিনি ১৯৮৩ সালে সিলেট মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করেন। তিনি ছাত্র জীবনে ইসলামী ছাত্রশিবিরের সিলেট শহর শাখার সভাপতি ছিলেন। তিনি ১৯৮৫ সালে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য হন। তিনি ১৯৮৬ সাল থেকে ৮৮ সাল পর্যন্ত সিলেট জেলা শাখা জামায়াতের সেক্রেটারি ও ১৯৮৯ থেকে ৯১ পর্যন্ত সিলেট জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর এবং ১৯৯১ থেকে ৯৮ সাল পর্যন্ত সিলেট জেলা জামায়াতের আমীর, ১৯৯৮ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত সিলেট মহানগরী জামায়াতে ইসলামীর আমীর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৯৮ সালে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য মনোনীত হন। ২০১০ সাল থেকে জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল, ২০১১ সাল থেকে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য এবং ২০১১ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ও ২০১৭ সাল থেকে বর্তমান মুহূর্ত পর্যন্ত বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেলের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

জামায়াতের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘ বর্তমান সরকার ডা. শফিকুর রহমানকে একাধিকবার গ্রেফতার করে তার বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা’ দিয়ে জেলে বন্দি করে রাখে। তিনি জনগণের ভোটাধিকার আদায়ের আন্দোলনসহ গণতান্ত্রিক আন্দোলনে বিভিন্ন সময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তিনি একটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান, একটি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান এবং একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি অনেক এতিমখানা ও মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা এবং বহু দাতব্য চিকিৎসালয়, ক্লাব ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি একটি কামিল মাদ্রাসার ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।’

নবনির্বাচিত জামায়াত আমীর সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ইতালি, স্পেন, গ্রীস, বেলজিয়াম, তুরস্ক, মালয়েশিয়া, আরব আমিরাত, ফিলিপাইন, ব্রুনাই প্রভৃতি দেশ ভ্রমণ করেছেন। তিনি ২ কন্যা ও ১ পুত্র সন্তানের জনক। তার স্ত্রী ডা. আমিনা শফিক ৮ম জাতীয় সংসদের সদস্যা ছিলেন। তার ২ মেয়ে চিকিৎসা শাস্ত্রে উচ্চতর শিক্ষা নিয়েছেন এবং একমাত্র পুত্র এমবিবিএস শেষ বর্ষের ছাত্র।

বিস্তারিত খবর

শেখ হাসিনাকে কটাক্ষ করলে জনগণ ক্ষমা করবে না: কাদের

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১২ ০৮:০৫:১৩


জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘শেখ হাসিনাকে কটাক্ষ করলে জনগণ কাউকে ক্ষমা করবে না।’

মঙ্গলবার রাজধানীর ফার্মগেট কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নূর হোসেন হত্যাকাণ্ড গণতন্ত্রের সংগ্রাম হত্যা করার জন্য দেশ ও জাতি জানে। নূর হোসেনের প্রতিও বিরূপ মন্তব্য কেউ কেউ আজকে করেন। আমাদের নেত্রীর বদৌলতে যারা রাজনীতিতে অক্সিজেন পেয়েছেন, তারা নেত্রীকেও কটাক্ষ করেন। কথা মুখ থেকে ফসকে গেলে মুখে আর ফিরে আসে না। যত স্যরি বলা হোক, যতই অ্যাপোলাইজ করা হোক এ ধরনের দায়িত্বহীন মন্তব্য, কটাক্ষ আমাদের রাজনৈতিক পরিবেশকে নষ্ট করে দেয়।’

তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার প্রতি কোনো কটাক্ষ করলে শুধু আওয়ামী লীগ নয়, বাংলাদেশে শেখ হাসিনা সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী। বাংলাদেশের বহু মানুষের অনুভূতিকে কটাক্ষ করা হয়। তাকে আপনারা কটাক্ষ করলে জনগণ কাউকে ক্ষমা করবে না।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘এখনো বলা হয় মুজিব গেছে যেই পথে হাসিনা যাবে সেই পথে। এই রকম ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য বিএনপি আজকে দিয়ে যাচ্ছে। আরও অনেকেরই অতীতের অনেক ঘটনা আছে। পঁচাত্তরের পনেরই আগস্টের খুনের দায় বিএনপি কোনোভাবে এড়াতে পারে না।’

তিনি বলেন, ‘এই খুনিদের নিরাপদে বিদেশে পাঠিয়েছে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা। এই খুনিদেরকে বিদেশি দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করেছে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান। এই খুনিদের যাতে বিচার না হয় তার জন্য কুখ্যাত ইনডেমনিটি জারি করেছিল জিয়াউর রহমান।’

স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সভাপতি মো. মোবাশ্বের চৌধুরীর সভাপতিত্বে সম্মেলন সঞ্চালন করেন সাধারণ সম্পাদক ফরিদুর রহমান খান ইরান।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম।

উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক নির্মল রঞ্জন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মতিউর রহমান মতি, গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু।

বিস্তারিত খবর

নিহত ব্যক্তিদের পরিবারকে ১ লাখ টাকা করে দেওয়া হবে: রেলমন্ত্রী

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১২ ০৮:০৪:১২


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষে ১৬ জন নিহতের ঘটনায় দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, নিহত ব্যক্তিদের পরিবারকে এক লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। আর আহতদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে।

তদন্ত কমিটি গঠনের ব্যাপারে রেলমন্ত্রী বলেন, ‘প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে চালক সিগন্যাল অমান্য করায় দুর্ঘটনাটি ঘটে। তারপরও আমরা রেল মন্ত্রণালয় থেকে তিনটি, রেলওয়ে থেকে একটি এবং জনপ্রশাসন থেকে একটি করে মোট পাঁচটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছি।’

গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ২টা ৪৮ মিনিটে উপজেলার মন্দবাগে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা ও সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। এ সময় একটি ট্রেনের একাধিক বগি আরেকটি ট্রেনের কয়েকটি বগির ওপরে উঠে যায়।

রেলমন্ত্রী বলেন, তূর্ণা নিশীথা ট্রেনের চালক, সহকারী চালক এবং ট্রেনের গার্ড আবদুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৬ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আহত হয়েছেন শতাধিক যাত্রী। ঘটনাস্থলের কাছে একটি অস্থায়ী ক্যাম্প খোলা হয়েছে। অস্থায়ী তথ্যকেন্দ্রে নিহত লোকজনের পরিচয় দিয়ে লাশ নিতে আসছেন স্বজনেরা। অনেকেই এখনো তাঁদের প্রিয়জনকে খুঁজে বেড়াচ্ছেন। ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় বাসিন্দারা উদ্ধারকাজ চালাচ্ছেন।

বিস্তারিত খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ১৬

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১২ ০৭:৫৪:১৩


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে অন্তত ১৬ জন নিহত এবং শতাধিক আহতের খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার ভোররাত ৩টার দিকে কসবার মন্দবাগ এলাকায় চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী তূর্ণা নিশিতা ও সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের সাথে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় একটি ট্রেনের একাধিক বগি আরেকটি ট্রেনের কয়েকটি বগির ওপর উঠে যায়।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক হায়াতউদদৌলা খান ও পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন। জেলা প্রশাসক প্রাথমিকভাবে ১৫ জন নিহতের ব্যাপারে নিশ্চিত করলেও পরে তা বেড়ে ১৬ জনে উন্নীত হয়। হতাহতদের উদ্ধারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, আখাউড়া ও কসবা থেকে ফার্য়ার সাভিসের বেশ কয়েকটি ইউনিট উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে দুর্ঘটনার পর চট্টগ্রামের সাথে ঢাকা ও সিলেটের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াতউদদৌলা জানান, উদ্ধার তৎপরতা চালানো হচ্ছে। ঘটনাস্থলের কাছে একটি অস্থায়ী ক্যাম্প খোলা হয়েছে।

স্টেশন ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, তূর্ণা নিশীথা ট্রেনের চালক সিগন্যাল (সংকেত) অমান্য করায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। মন্দবাগ রেলস্টেশনে দাঁড়ানোর জন্য এই সিগন্যাল দেয়া হয়। ওই সিগন্যালে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেস প্রধান লেন থেকে ১ নম্বর লাইনে যেতে শুরু করে। ট্রেনটির ছয়টি বগি ১ নম্বর লাইনে উঠতে পেরেছিল। অন্য বগিগুলো প্রধান লেনে থাকা অবস্থায় তূর্ণা নিশীথা সিগন্যাল অমান্য করে। এতে তূর্ণা নিশীথার একাধিক বগি ওই ট্রেনের কয়েকটি বগির ওপর উঠে যায়। এতে উদয়নের তিনটি বগি দুমড়েমুচড়ে যায়। নিহতদের সবাই উদয়নের যাত্রী বলে ধারণা করা হচ্ছে।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে, ঘটনাস্থলের কাছে বায়েক শিক্ষা সদন উচ্চ বিদ্যালয়ে একটি অস্থায়ী ক্যাম্প খোলা হয়েছে। সেখানে ৯টি লাশ রয়েছে। কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছে তিনটি লাশ। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে নারী ও পুরুষের দুটি লাশ রয়েছে। আর কুমিল্লা জেলা সদর হাসপাতালে একজন পুরুষের লাশ রয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহত কারো পরিচয় জানা যায়নি।

ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় অধিবাসীরা উদ্ধারকাজ চালাচ্ছেন। দুর্ঘটনার পর ঢাকার সাথে চট্টগ্রাম ও সিলেটের রেলযোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

বিস্তারিত খবর

‘বুলবুলে’র তাণ্ডব: ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ ৯ জেলের লাশ উদ্ধার

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১১ ১২:২২:১৯


ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’এর তাণ্ডবে ভোলার ইলিশা নদীতে ট্রলারসহ নিখোঁজ ১৩ জেলের মধ্যে নয়জনের লাশ বরিশাল থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যার পর বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জের বাহাদুরপুর মেঘনা নদী থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

মেহেন্দিগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কমল জানান, রবিবার ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলে’র তাণ্ডবে ভোলার ইলিশা নদীতে একটি ট্রলার ডুবে যায়। ট্রলারটি ভেসে মেহেন্দিগঞ্জের বাহাদুরপুর সংলগ্ন মাছকাটা ও মেঘনা নদীর মোহনায় চলে আসে। এরপর স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে ট্রলারসহ নয় জেলের মরদেহ উদ্ধার করে।

এসআই জানান, প্রাথমিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি। তাদের লাশ থানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আশেপাশে আরও লাশ থাকতে পারে এমন অনুমানে ট্রলার নিয়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

জানা যায়, বরিবার দুপুরে ভোলার চরফ্যাশনের আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের তোফায়েল মাঝির একটি মাছ ধরার ট্রলার ২৪ জন জেলে নিয়ে চাঁদপুর থেকে মাছ বিক্রি করে ফিরছিল। পথে মেঘনা নদীর ভোলা-বরিশাল সীমান্তবর্তী এলাকায় ট্রলারটি ডুবে যাওয়া। পরে ট্রলারে থাকা ১০ জেলেকে জীবিত এবং এক জেলের মৃতদেহ উদ্ধার করে কোস্টগার্ড। এরপর থেকে বাকি ১৩ জেলের সন্ধানে নদীতে অভিযান চালায় কোস্টগার্ড, নৌপুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা। সোমবার দিনভরও চলে তাদের সন্ধানে তল্লাশি।

বিস্তারিত খবর

লতিফ সিদ্দিকীর জামিন স্থগিত

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১১ ০৭:০৮:৩৪



দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে হাইকোর্টের দেয়া ছয় মাসের জামিন স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। দুদকের করা এক আবেদনের ওপর শুনানি করে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন চার বিচারকের আপিল বেঞ্চ সোমবার ওই জামিন আদেশ ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত স্থগিত করে দেয়।

এই এক সপ্তাহের মধ্যে দুদককে ওই জামিন আদেশের বিরুদ্ধে নিয়মিত লিভ টু আপিল করতে বলেছে সর্বোচ্চ আদালত। গত বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের জামিন স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

আপিল বিভাগে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। আর লতিফ সিদ্দিকীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী।

গত ৪ নভেম্বর লতিফ সিদ্দিকীকে ছয় মাসের অন্তর্বর্তী জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। পাটকলের প্রায় আড়াই একর জমি দরপত্র ছাড়াই বিক্রির মাধ্যমে সরকারের প্রায় ৪০ লাখ ৭০ হাজার টাকা আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ এনে ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীসহ দুজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন দুদকের বগুড়া সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম।

গত ২০ জুন এ মামলায় বগুড়ার আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদনের পর তা নামঞ্জুর করেন আদালত। এরপর তিনি হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন করলে তার ছয় মাসের জামিন মঞ্জুর করেন হাইকোর্ট।


বিস্তারিত খবর

বাংলাদেশকে না দিলেও মালদ্বীপকে পেঁয়াজ দিচ্ছে ভারত

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১১ ০৬:৫৮:৩৬

বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত। দেশটিতে পেঁয়াজের ঘাটতিও দেখা দিয়েছে। রাজ্য ভেদে ৬০ থেকে ১০০ টাকা দরে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে। তবে ঘাটতির অজুহাতে বাংলাদেশকে পেঁয়াজ না দিলেও মালদ্বীপকে ঠিকই দিচ্ছে ভারত। নিজের দেশে ঘাটতি থাকায় ‘আমদানি করে’ মালদ্বীপে পেঁয়াজ রপ্তানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে পার্শ্ববর্তী দেশটি।

পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের জন্য ভারতের ওপর সম্পূর্ণ নির্ভরশীল মালদ্বীপ। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, দেশে পেঁয়াজের সংকট থাকা সত্ত্বেও মালদ্বীপে পেঁয়াজ রপ্তানি করবে ভারত। এতে পরিমাণেরও কোনো হেরফের হবে না। আগে দেশটিতে যে পরিমাণ পেঁয়াজ রপ্তানি হতো সেই পরিমাণই রপ্তানি করা হবে।

মালদ্বীপে নিযুক্ত ভারতীয় মিশন রোববার এক টুইট বার্তায় জানায়, ‘আমরা আমাদের বন্ধু মালদ্বীপকে আশ্বস্ত করতে চাই যে, টানা দাম বৃদ্ধি ও দেশে এক লাখ টন পেঁয়াজের ঘাটতি থাকা সত্ত্বেও মালদ্বীপে পেঁয়াজ রপ্তানি করতে চায় ভারত।’

ভারতে রান্নার নিত্য অনুষঙ্গ পেঁয়াজের ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে। চাহিদা মেটাতে আফগানিস্তান, তুরস্ক, ইরান ও মিশর থেকে পেঁয়াজ আমদানি করতে হয় ভারতকে।

সূত্র বলছে, শুধু পেঁয়াজই নয়, সব ধরনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র মালদ্বীপে রপ্তানি অব্যাহত রাখবে ভারত। চাহিদা মেটাতে এক লাখ টন পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন ভারতের খাদ্যমন্ত্রী রাম বিলাস পাসওয়ান।

সম্প্রতি ভারত সফরে বাংলাদেশে ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের বিষয়ে অনেকটা কৌতুকের ছলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের একটা সমস্যা হয়েছে...আপনারা পেঁয়াজ পাঠাচ্ছেন না। তাই আমি পেঁয়াজ খাওয়াই ছেড়ে দিয়েছে। রন্ধনশালার কর্মীদের তরকারিতে পেঁয়াজ না দিতে বলেছি। ভবিষ্যতে এ ধরনের কোনো পণ্য রফতানি বন্ধ করার আগে জানালে বাংলাদেশ পণ্য সংকট মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতি নিতে পারে।’

২৯ সেপ্টেম্বর ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়ায় বাংলাদেশের বাজারে হু হু করে বেড়ে যায় পেঁয়াজের দাম। কেজিপ্রতি পেঁয়াজ বর্তমানে ১৩০ থেকে ১৫০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

বিস্তারিত খবর

ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদ থেকে থেকে তুরিন আফরোজকে অপসারণ

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১১ ০৬:৫৫:৩৫


মানবতাবিরোধী অপরাধীর সঙ্গে প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজের গোপন আঁতাতের অভিযোগে শৃঙ্খলা ও পেশাগত আচরণ ভঙ্গ এবং গুরুতর অসদাচরণের দায়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজকে অপসারণ করা হয়েছে।

সোমবার (১১ নভেম্বর) আইন মন্ত্রণালয়ের উপ সলিসিটর এসএম নাহিদা নাজমীন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজকে শৃঙ্খলা ও পেশাগত আচরণ ভঙ্গ এবং গুরুতর অসদাচরণের দায়ে ২০১৩ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি প্রজ্ঞাপনে প্রদত্ত নিয়োগ বাতিলক্রমে প্রসিকিউটর পদ হতে অপসারণ করা হলো।’

এর আগে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার আসামি জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) এবং পাসপোর্ট অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক (ডিজি) মুহাম্মদ ওয়াহিদুল হককে ২০১৮ সালের ২৪ এপ্রিল গ্রেফতার করা হয়। পরদিন ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। ওয়াহিদুল হকের বিরুদ্ধে করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মতিউর রহমান।

তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়, ‘তাকে (তুরিন আফরোজ) মানবতাবিরোধী অপরাধের আসামি ওয়াহিদুল হকের বিরুদ্ধে করা মামলা পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজ ওই আসামির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আদেশ রয়েছে জানিয়ে তাকে পালিয়ে যেতে বলেন। এছাড়া, এ বিষয়ে ওয়াহিদুল হকের কাছে প্রসিকিউটর তুরিন মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করেন।’
পরে বিষয়টি ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার নজরে এলে প্রসিকিউটর তুরিনকে এ মামলা থেকে প্রাথমিকভাবে অব্যাহতি দেন ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর। পাশাপাশি এ ঘটনার তদন্ত শুরু হয়। তদন্ত চলা অবস্থায় ট্রাইব্যুনালের অন্যান্য মামলা (তার হাতে থাকা) থেকেও তুরিনকে অব্যাহতি দেন চিফ প্রসিকিউটর। একইসঙ্গে তুরিনের বিরুদ্ধে অভিযোগের যাবতীয় তথ্য-উপাত্ত আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়।

এরপর ২০১৮ সালের ৭ মে তুরিন আফরোজকে সংশ্লিষ্ট ওয়াহিদুল হকের মামলা থেকে অব্যাহতি দেন চিফ প্রসিকিউটর। পরদিন তাকে প্রসিকিউশনের সব দায়দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এ বিষয়ে চিফ প্রসিকিউটরের দুটি চিঠি, তার (তুরিন আফরোজ) সঙ্গে আসামির কথোপকথনের সিডিসহ যাবতীয় নথি আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠান ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা।

বিস্তারিত খবর

বুলবুল: ১১ জেলায় ১৪ জনের প্রাণহানি

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১১ ০৬:১৩:৩৬


ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে বিভিন্ন জেলায় অন্তত ১৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। দমকা হাওয়ায় গাছ ও ঘর চাপা পড়ে এবং আশ্রয়কেন্দ্রে অসুস্থ হয়ে ১১ জেলায় এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। এ সময় আহত হয়েছেন অন্তত ৬০ থেকে ৭০জন।

নিহতদের মধ্যে খুলনায় ২ জন, বাগেরহাটে ২ জন, পটুয়াখালী ১ জন, পিরোজপুরে ১ জন, মাদারীপুরে ১ জন, ভোলায় ১ জন, শরীয়তপুরে ১ জন, বরিশালে ১ জন, গোপালগঞ্জে ১ জন বরগুনায় ২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এর বাইরে সাতক্ষীরায় আরও একজনের মৃত্যুর খবর এলেও এর সঙ্গে ঝড়ের কোনো সম্পর্ক নেই বলে জানা গেছে।

এছাড়া ঝড়ে কয়েক হাজার ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে, কয়েকটি স্থানে বাঁধ ভেঙে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে এবং বিপুলসংখ্যক গাছ উপড়ে পড়েছে।

শনিবার দিবাগত রাত থেকে রবিবার বিকালের মধ্যে ঝড়ের সময় এসব ঘটনা ঘটে।

খুলনা: খুলনার দীঘলিয়া এবং দাকোপ উপজেলায় গাছ চাপা পড়ে দুইজনের নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। নিহতরা হলেন- দীঘলিয়া উপজেলায় সেনহাটির আলমগীর হোসেন এবং দাকোপের প্রমীলা মণ্ডল। রবিবার সকাল ১০ টার দিকে দুই উপজেলায় গাছ ভেঙে পড়ে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে বলে জেলার পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ জানিয়েছেন।

এদিকে বুলবুলের আঘাতে কয়রা উপজেলায় দেড় হাজার ঘরবাড়ি এবং দাকোপ উপজেলায় ১৭০০ ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়া দাকোপে ৩১৫টি চিংড়ি ঘের ও ৪২৫টি পুকুর ভেসে গেছে। এই দুটি উপজেলায় শনিবার মধ্যরাত থেকে বিদ্যুৎ নেই।

বাগেরহাট: ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র তাণ্ডবে বাগেরহাটের রামপাল ও ফকিরহাটে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

রবিবার দুপুরে ফকিরহাট উপজেলার বেতাগা ইউনিয়নের চাকুলী গ্রামে গাছচাপায় হিরা বেগম নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। হিরা বেগম একই গ্রামের মাসুম শেখের স্ত্রী। বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক কামরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, নিহতের পরিবারকে ফকিরহাট উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা আর্থিক সহযোগিতা করা হয়েছে।

এর আগে সকালে বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার ভরসাপুর গ্রামে গাছচাপা পড়ে সামিয়া খাতুন (১৫) নামে এক কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। সামিয়া উপজেলার দরপোনারায়ণপুর গ্রামের বাবুল শেখের মেয়ে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তুষার কুমার পাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পটুয়াখালী: পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলায় দমকা হওয়ায় গাছ উপড়ে ঘরের ওপর পড়ে হামেদ ফকির নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। শনিবার রাত সাড়ে তিনটার দিকে মাধবখালী ইউনিয়নের উত্তর রামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সরোয়ার হোসেন জানান। নিহত হামেদ ফকির পেশায় একজন মৎস্যজীবী ছিলেন।

পিরোজপুর: পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় প্রবল বাতাসে গাছ চাপা পড়ে ননী শিকারী নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নাজিরপুর থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান জানান, ননী শিকারীর বাড়ি নাজিরপুর উপজেলার মালিখালী ইউনিয়নের লড়া গ্রামে। রবিবরা সকালে বুলবুলের তাণ্ডব শুরু হলে গাছ উপড়ে ননীর বাড়ির ওপর পড়ে। এ সময় গাছের নিচে চাপা পরে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এছাড়া রাজৈর উপজেলায় গাছে নিচে পড়ে ৬ জন আহত হয়েছে। অন্যদিকে চৌহদ্দি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ক্লাসরুম ভেঙ্গে গেছে।

মাদারীপুর: সদর উপজেলায় ঝড়ো হাওয়ায় ঘর চাপা পড়ে সালেহা বেগম নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। মৃত সালেহা বেগম সদর উপজেলার ঘটমাঝি গ্রামের আজাদ খাঁয়ের স্ত্রী। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুদ্দিন গিয়াস জানান, ঘূর্ণিঝড়ের সময় দমকা বাতাসে সালেহা বেগমের ঘর বাতাসে হেলে পড়ে। এ সময় ঘরের ভেতরের একটি আলমারি গায়ের ওপর পড়ে গুরুতর আহত হন সালেহা। তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

বরিশাল: বরিশালে গাছের নিচে চাপা পড়ে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। রবিবার বেলা ২টার দিকে উজিরপুর পৌর শহরের এক নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনায় নিহতের নাম আশালতা মজুমদার। জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানান, বুলবুল এর প্রভাবে প্রবল বৃষ্টি ও দমকা হাওয়ায় একটি গাছ উপড়ে আশালতার ঘরের ওপর গিয়ে পরে। এতে গাছের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

ভোলা: ভোলায় ঘূর্ণিঝড়ে ট্রলার ডুবে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় এখনো ১০ জন নিখোঁজ রয়েছেন।

ভোলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার জানান, ইলিশা এলাকার মেঘনা নদীতে ২৪ জন জেলে নিয়ে একটি ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ১০ জন জেলে জীবিত উদ্ধার ও ১ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন ১৩ জন জেলে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল’র প্রভাবে ভোলায় দেড় শতাধিক কাঁচা ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ২০ জন। এদের মধ্যে গুরুতর ৫ জনকে চরফ্যাসন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া শনিবার রাত থেকে রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পর্যন্ত গোটা জেলায় ভারী বৃষ্টি এবং ঝড়ো বাতাস বইছিল। এতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অসংখ্য গাছপালা ভেঙে পড়েছে। উপড়ে গেছে বিদ্যুতের খুঁটি। বেশ কয়েকটি এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। অন্যদিকে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে অতি বৃষ্টির কারণে ভোলার সদরের ইলিশা ব্রিকস, রিয়াদ ব্রিকস, মায়ের দোয়া ব্রিকস, সাবাব ব্রিকসসহ ৬৩টি ফিল্ডের কয়েক লাখ কাঁচা ইট গলে গিয়ে কয়েক কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।

শরীয়তপুর: ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় ঘরের উপর গাছ পড়ে মো. আলী বক্স ছৈয়াল (৭০) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছে। রবিবার বিকালে নড়িয়া উপজেলার ডিঙ্গামানিক ইউনিয়নের দেওজড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে নড়িয়া থানার ওসি হাফিজুদ্দিন জানিয়েছেন।

এছাড়াও জেলার গোসাইরহাট উপজেলায় প্রায় ৩৫০টি ঘরবাড়ি ও শত শত গাছপালা ঝড়ে পড়ে গেছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানিয়েছেন।

কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ): গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে গাছ চাপা পড়ে সেকেল হাওলাদার (৭০) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। রবিবার দুপুরে ঝড়ের সময় উপজেলার বান্ধাবাড়ি গ্রামের মৃত হাসান উদ্দিন হাওলাদারের ছেলে সেকেল হাওলাদার গাছচাপা পড়ে মারা যান।

এছাড়া শতাধিক ঘরবাড়ি, পোল্ট্রি সেট বিধ্বস্ত হয়েছে। হাজার হাজার গাছপালা উপড়ে পড়েছে। বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতের তার ছিড়ে গেছে। মৌসুমী ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে সড়কের পাশের গাছ উপড়ে পড়ে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম মাহফুজুর রহমান বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে কোটালীপাড়ায় সেকেল হাওলাদার নামে এক বৃদ্ধের নিহত হওয়ার খবর পেয়েছি। এছাড়া এ উপজেলায় শতাধিক ঘরবাড়ি, পোল্ট্রি সেট বিধ্বস্ত হয়েছে। হাজার হাজার গাছপালা উপড়ে পড়েছে। বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতের তার ছিড়ে গেছে। মৌসুমী ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আমরা ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয়ের কাজ করছি। আমরা ক্ষতিগ্রস্থদের সার্বিক সহযোগিতা করবো।

বরগুনা ও বামনা: ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে বরগুনা সদর ও বামনা উপজেলায় দুইজন মারা গেছেন। বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনিচুর রহমান জানান, বরগুনা সদর উপজেলার ৯ নম্বর এম বালীয়াতলী এলাকার ডিএন কলেজ আশ্রয়কেন্দ্রে হালিমা খাতুন (৬৬) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। তার বাড়ি সদর উপজেলার বানাই গ্রামে। হালিমা খাতুন নামের ওই নারী অসুস্থতার কারণে মারা গেছেন বলে তিনি জানান।

এছাড়া বামনা উপজেলার উত্তর কাকচিড়া গ্রামে ঝড়ের আতঙ্কে শিশীর বিশ্বাস (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। ঝড়ের সময় ছুটাছুটি করতে গিয়ে আহত হয়েছে প্রায় অর্ধ শতাধিক লোকজন।

বামনা-পাথরঘাটা, বামনা-বরিশাল ও বামনা-বরগুনা সড়কে বড়বড় গাছ উপড়ে পড়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ রয়েছে। বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়ায় সমগ্র বামনা এখন বিদ্যুতবিহীন রয়েছে। বেগম ফায়জুন্নেসা মহিলা কলেজের টিনসেট ভবনটি সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিউলী হরি ও বামনা থানার ওসি মো. মাসুদুর রহমান ক্ষয়গ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করছেন ও আশ্রয় কেন্দ্রে শুকনো খাবার বিতরণ করছেন।

সাতক্ষীরা: বুলবলের তাণ্ডবের পর সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় আবুল কালাম (৬০) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। শ্যামনগর থানার ইউএনও জানান, আবুল কালাম শেল্টার হোম থেকে উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের চকবারা গ্রামে নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান।

বিস্তারিত খবর

‘সরকারের প্রস্তুতিতে বুলবুলে ক্ষতি হয়নি, নির্ঘুম রাত কাটিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী’

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১০ ০৯:০৯:২৮

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, সরকারের প্রস্তুতির কারণেই ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ কোনো ক্ষয়ক্ষতি করতে পারেনি। তিনি জানান, ঘূর্ণিঝড়টি উপকূলে আছড়ে পড়ার পর নির্ঘুম রাত কাটিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ রবিবার নূর হোসেন দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনাসভায় হাছান মাহমুদ এসব বিষয় জানান।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করতে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার বিকেলে ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পর নির্ঘুম রাত কাটিয়েছেন তিনি।

হাছান মাহমুদ জানান, সরকারের প্রস্তুতির কারণেই ঘূর্ণিঝড় বুলবুল কোনো ক্ষয়ক্ষতি করতে পারেনি। দুর্যোগ মোকাবিলায় বাংলাদেশ এখন বিশ্বে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদের মন্তব্যের নিন্দা জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আয়নায় আগে নিজেদের মুখ দেখুন। ১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় যে ঘূর্ণিঝড় হয়েছিল তাতে পাঁচ লাখ মানুষ মারা গিয়েছিল। এরপর তারা সংসদে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, সরকারের প্রস্তুতির কারণে যত লোক মারা যাওয়ার কথা ছিল তত মারা যায়নি।

নূর হোসেন সম্পর্কে হাছান মাহমুদ বলেন, নূর হোসেনসহ স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে শহীদদের রক্ত বৃথা যায়নি। তাদের রক্তের বিনিময়ে বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সেইসঙ্গে ভাত ও ভোটের অধিকার পেয়েছে।

বিস্তারিত খবর

সিরাজগঞ্জে ব্যবসায়ীর স্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে গেলেন মেয়র, ভয়ে চুপ স্বামী

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১০ ০৯:০৭:২৯

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ব্যবসায়ী রাজন আহমেদের স্ত্রী সহকারী শিক্ষিকা গুলশানারা পারভীন পান্নাকে ভাগিয়ে নিয়ে বিয়ে করেছেন উল্লাপাড়ার পৌর মেয়র আ.লীগ নেতা এস. এম নজরুল ইসলাম। কিন্তু মেয়রের প্রভাবে মামলা তো দূরের থাক আজ পর্যন্ত কোথাও কোনো অভিযোগও করতে পারেননি গুলশানারার স্বামী রাজন আহমেদ।

এ ঘটনায় উল্লাপাড়া উপজেলার সর্বত্র আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইলেও সমুদ্র সৈকতে গিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রী পান্নাকে নিয়ে হানিমুনও করেন মেয়র নজরুল। হানিমুন থেকে ঘুরে এসে ক্লাস ফাঁকি দিয়ে পৌর এলাকার সকল প্রোগ্রামসহ নানা অনুষ্ঠানে পান্নাকে নিয়ে যাতায়াত শুরু করেন মেয়র। তবে হানিমুনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হবার পর এখন সবাই মুখ খুলতে শুরু করেছেন।

এদিকে মেয়র নজরুল ইসলামের সঙ্গে বিয়ে হওয়ার পর থেকেই স্কুলে অনিয়মিত হয়ে পড়েছেন গুলশানারা পারভীন পান্না। একদিনের ছুটি নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে অনুপস্থিত তিনি। তবে স্কুলে না এলেও বেতন ঠিকই তুলছেন পান্না। পৌর মেয়রের স্ত্রী হওয়ায় বিষয়টি নিয়ে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কিংবা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা মুখ খুলতে নারাজ।

অভিযোগে জানা যায়, উল্লাপাড়া পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম কয়েক বছর আগে পৌর এলাকার ঝিড়িকা বন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে যান। ওই অনুষ্ঠানেই সহকারী শিক্ষিকা গুলশানারা পারভীন পান্না নজরে পড়েন মেয়রের। এরপর থেকেই মেয়র বিভিন্ন প্রলোভন দেখান পান্নাকে।কোনোভাবেই যখন পান্না রাজি হয়নি তখন ক্ষমতার দাপট ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রভাব দেখিয়ে পান্নাকে জোরপূর্বক উঠিয়ে নিয়ে বিয়ে করেন মেয়র। এ বিষয়ে কোনো মামলা করলে পান্নার স্বামী রাজন ও তার সন্তানকে হত্যা করবে বলেও হুমকি দেয়া হয়।

মেয়র ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর ভয়ে পান্নার স্বামী রাজন স্ত্রীকে ফিরিয়ে নিতে কোনো মামলা ও শালিসও ডাকেননি। ১৬ বছর বয়সী সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে তিনি কোনো ঝামেলায় নিজেকে জড়াননি। এরপর থেকেই রাজনকে সবসময় চাপের মুখে রেখেছেন মেয়রের সন্ত্রাসী বাহিনী।

বিতর্কিত এ ঘটনায় উল্লাপাড়ার সর্বত্র আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে। পৌর এলাকায় বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিলেও দ্বিতীয় স্ত্রী পান্নাকে নিয়ে সমুদ্র সৈকতে গিয়ে হানিমুন করেন মেয়র নজরুল ইসলাম। হানিমুনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হবার পর সবাই মুখ খুলতে শুরু করেছেন। হানিমুন থেকে এসেই স্ত্রীকে ক্লাসে না পাঠিয়ে সবসময় নিজের সঙ্গে রেখেই নানা অনুষ্ঠানে স্ত্রী পান্নাকে নিয়ে যাতায়াত শুরু করেন মেয়র। পরবর্তীতে প্রভাব দেখিয়ে ঝিড়িকা বন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে গুলশানারা পারভীনকে উল্লাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বদলি করেন এবং স্ত্রীকে নজরবন্দিতে রাখেন মেয়র ও তার বাহিনী।

গুলশানারা পারভীন পান্নার স্বামী ব্যবসায়ী রাজন আহমেদ রোববার সকালে বলেন, আমার দীর্ঘ ১৮ বছরের সংসার ভেঙে তছনছ করে দিয়েছেন মেয়র নজরুল ইসলাম। আমাদের একমাত্র সন্তান রয়েছে। আমার স্ত্রীকে জোরপূর্বক মেয়র সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে তুলে নিয়ে বিয়ে করেছেন এবং হুমকি দিয়ে বলে গেছেন, এ বিষয়ে মুখ খুললে আমাকে ও আমার সন্তানকে হত্যা করা হবে। আমার স্ত্রীকে জোরপূর্বক বিয়ে করায় আমার মান-মর্যাদা ধুলায় মিশে গেছে। আমার সন্তানও স্কুলে মর্যাদা পায় না। বহু কষ্টে জীবনযাপন করছি আমরা। তারপরও সবসময় মেয়রের লোকজন আমাকে নানা প্রকার চাপের মধ্যে রেখেছে। কোনো অভিযোগ যেন কোথায় না করি, করলেই আমাকে হত্যা করা হবে বলে ভয় দেখায়। তাদের ভয়ে আমি কোনো ব্যবস্থা নেইনি। তবে মেয়র পদের মেয়াদ শেষ হলে সকল আইনি ব্যবস্থা আমি গ্রহণ করবো। তাদের ভয়ে আমি সন্তানকে নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

এ বিষয়ে রোববার সকালে উল্লাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চিত্তরঞ্জন রায় বলেন, গুলশানারা পারভীন পান্নার ঝিড়িকা বন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকতে মেয়র নজরুল ইসলামের সঙ্গে বিয়ে হয়। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে আমার বিদ্যালয়ে বদলি হয়ে আসেন। তবে স্কুল ফাঁকির বিষয়ে তিনি বলেন, পৌর এলাকায় স্কুল, পৌর এলাকার মেয়রের স্ত্রী, ফাঁকি দিলে আমাদের কিছু করার থাকে না।

তবে এ বিষয়ে বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস সিরাজগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট শহীদুল ইসলাম বলেন, জনগণের ভোটে নির্বাচিত কোনো জনপ্রতিনিধি অন্যের স্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে বিয়ে করতে পারেন না। কারণ নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা হচ্ছেন সকলের অভিভাবক। অথচ সেই অভিভাবকই যদি অন্যের স্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে বিয়ে করেন তাহলে সেই এলাকার জনগণ বিচার চাইবে কার কাছে?
এ বিতর্কিত কর্মকাণ্ড সাধারণ মানুষ মেনে নিতে পারে না। তবে এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ যদি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে দেয় এবং তদন্তে অভিযোগটি প্রমাণিত হয় তাহলে সেই জনপ্রতিনিধিকে অপসারণ করতে পারে ‘জনপ্রতিনিধি দায়িত্ব কর্তব্য আইন’র দ্বারাই।

এ বিষয়ে উল্লাপাড়ার পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম বলেন, গুলশানারা পারভীন পান্না আমার স্ত্রী। তবে তিনি দ্বিতীয় বিয়ে সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।-জাগো নিউজ

বিস্তারিত খবর

বুলবুলের ধ্বংসযজ্ঞে ঢাল হয়ে দাঁড়ায় সুন্দরবন

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১০ ০১:৩৮:২৭


বাংলাদেশের উপকূলে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আঘাত হানলেও গতি ছিল কম। যে শক্তি নিয়ে এটি উপকূলের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল তা কমে যায় সুন্দরবনের কারণে।

বাংলাদেশের দিকে যত এগিয়েছে ততই দুর্বল হয়েছে বুলবুল। পাশাপাশি ঘূর্ণিঝড়ের ধ্বংসযজ্ঞে ঢাল হয়ে দাঁড়ায় সুন্দরবন। ফলে তেমন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

এর আগে ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর ঘূর্ণিঝড় ‘সিডর’ এবং ২০০৯ সালের ২৫ মে ‘আইলা’ একইভাবে সুন্দরবনে বাধা পেয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছিল।

রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে আবহাওয়াবিদ ড. আব্দুল মান্নান জানান, চলতি বছর যতগুলো ঘূর্ণিঝড় হয়েছে, তার অধিকাংশই সুন্দরবনকেন্দ্রিক হওয়ায় বাংলাদেশ রক্ষা পেয়েছে। এর মূল কারণ সুন্দরবন অতিক্রম করে ঘূর্ণিঝড় বেশিদূর এগোতে পারে না। তার আগেই ঘূর্ণিঝড়গুলো দুর্বল হয়ে যায়।

তিনি বলেন, একই ঘূর্ণিঝড় যদি বরিশালকেন্দ্রিক হতো তাহলে বাংলাদেশের জন্য বড় দুর্যোগ বয়ে আনতো। সুতরাং একথা বলা অনস্বীকার্য যে সুন্দরবন ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

আব্দুল মান্নান আরো বলেন, দেশের উপকূলে আছড়ে পড়া প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে এগিয়ে চলেছে। এটি ঘণ্টায় ৮-১০ কিলোমিটার গতিতে উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এটি ঢাকা ও কুমিল্লা অঞ্চল হয়ে দুপুর থেকে বিকেল নাগাদ ভারতে চলে যাবে। ত্রিপুরা থেকে আসাম এবং এর পার্শ্ববর্তী অঞ্চল দিয়ে অনেকটা দুর্বল হয়েই অতিক্রম করবে এই ঘূর্ণিঝড়। এর ফলে ঢাকাসহ ঝড়ের গতিপথ অঞ্চলে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে।

এ আবহাওয়াবিদ বলেন, ঘূর্ণিঝড়টি বর্তমানে খুলনা, সাতক্ষীরা এবং বাগেরহাট অঞ্চলে অবস্থান করছে। এটি তার অবস্থান থেকে ক্রমান্বয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে। বুলবুল উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমান্বয়ে মাদারীপুর, ফরিদপুর, ঢাকা ও কুমিল্লা অঞ্চলের ওপর দিয়ে অতিক্রম করে ভারতের আসাম অঞ্চলের দিকে যেতে যেতে দুর্বল হয়ে যাবে। আর এজন্য দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

এর আগে গত রাতে আবহাওয়া অধিদপ্তরের উপপরিচালক আয়েশা খানম জানিয়েছিলেন, ‘বুলবুল’ লোকালয়ে যত আসবে ততই দুর্বল হয়ে যাবে। সুন্দরবনের কারণেই এটি দুর্বল হয়ে যাবে। আয়েশা খানম আরও জানান, উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে বুলবুল অতি প্রবল ছিল। এটি  সুন্দরবন উপকূলে যখন আঘাত হানে সে সময় গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১০০-১২০ কি.মি.।

প্রসঙ্গত, বুলবুলের প্রভাবে শনিবার দিনভর ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিসহ দমকা হাওয়া বয়ে যায়। বৈরী আবহাওয়ায় নৌযান চলাচল বন্ধ থাকে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে আজও দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হচ্ছে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল এখন স্থল নিম্নচাপে পরিনত হয়েছে। যে কারণে মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এর আগে শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার গতিতে সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের দুবলার চরে আঘাত হানে বুলবুল।

উপকূলে আঘাত হানার পর ঘূর্ণিঝড়টি আরো সামান্য উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে সাতক্ষীরায় আঘাত হানে। এরপর রোববার ভোর পাঁচটায় তা খুলনা অতিক্রম করে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, খুলনা ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আরও সামান্য উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে আজ সকাল ৬টায় বাগেরহাট, বরিশাল ও পটুয়াখালী অঞ্চলে গভীর নিম্নচাপ আকারে অবস্থান করছে।

এটি আরও উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর ও বৃষ্টি ঝরিয়ে ক্রমশঃ দুর্বল হতে পারে।

বিস্তারিত খবর

কাটল ঘূর্ণিঝড় বুলবুল শঙ্কা, নামল বিপদ সংকেত

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-১০ ০১:৩৬:৫৩


ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ নিয়ে শঙ্কা কেটে গেছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এখন আর বিপর্যয়ের কোনো আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। এজন্য ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত থেকে নামিয়ে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়টি এখন গভীর স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এর প্রভাবে আগামী দুদিন থেমে থেমে বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের ৩০ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামসুদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন, এখন থেকে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৪ নম্বর সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে রবিবার সকালে আবহাওয়া অধিদপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান জানান, সুন্দরবনের কারণে বড় বিপর্যয় থেকে বেঁচে গেছে দেশ। এছাড়া বুলবুল যে গতিতে আসার কথা ছিল, সেই গতিতে আসেনি। তিনি বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়ের তিন দিকেই সুন্দরবন জুড়ে ছিল। যেহেতু ঘূর্ণিঝড় উত্তর দিকে অগ্রসর হচ্ছিল, সুন্দরবনের কারণে তার অবস্থানের পরিবর্তন কমে এসেছে। ঘূর্ণিঝড়ের নিজস্ব শক্তিও কমে আসে। এ কারণে উপকূল অতিক্রম করতে গিয়ে ঘূর্ণিঝড়ের দীর্ঘক্ষণ সময় লেগেছে।’

এর আগে অনেকটা দুর্বল হয়ে শনিবার রাতে খুলনা উপকূলে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। এতে সাতক্ষীরা, পটুয়াখালী, বাগেরহাট, বরগুনাসহ কয়েকটি উপকূলীয় জেলায় ঘরবাড়ি ও গাছগাছালির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। পটুয়াখালীতে একজন এবং খুলনায় গাছচাপায় একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত