যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ২০ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 10:53am

|   লন্ডন - 04:53am

|   নিউইয়র্ক - 11:53pm

  সর্বশেষ :

  বাংলাদেশ স্পোর্টস কাউন্সিল অব আমেরিকা’র কমিটি ঘোষণা   রোহিঙ্গা সংকট দ্রুতগতিতে বাড়ছে, জরুরি সহায়তা প্রয়োজন : বিশ্বব্যাংক   ভেরিফিকেশনে গিয়ে ফুল-মিষ্টি দিয়ে পুলিশ সুপারের শুভেচ্ছা!   দেশের রেডিওতে শুদ্ধ বাংলা ব্যবহারের নির্দেশ   দ্বিতীয় মেয়াদেও প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী হবেন সিসি   ভুয়া খবরের প্রচার ঠেকাতে ‘বিশ্বস্ত সংবাদমাধ্যম’র র‍্যাংকিং করবে ফেসবুক   কঙ্গোতে বিদ্রোহীদের হামলায় ২২ সেনা নিহত   যুক্তরাষ্ট্রে সরকার ব্যবস্থায় অচলাবস্থা, নেপথ্য কারণ   টাওয়ার হ্যামলেটসকে ‘ট্রাম্পমুক্ত এলাকা’ ঘোষণা : নেতৃত্বে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কাউন্সিলর   সিলেটে অর্থমন্ত্রীর গাড়ির ধাক্কায় ১০ জন আহত   নাইজেরিয়ায় আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ১২   জাতিসংঘের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ   রাজশাহীতে প্রথম ফ্লাইওভার নির্মাণের সিদ্ধান্ত   তহবিল সংকটের কারণে ফের শাটডাউনের শঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্র   ফিলিস্তিনকে সাড়ে ৪ কোটি ডলার খাদ্য সহায়তা দেবে না যুক্তরাষ্ট্র

>>  তারুণ্য এর সকল সংবাদ

পল্লীবাড়িতে কৃষি তথ্য ও উপকরণ সাজিয়ে বিশাল জাদুঘরের গল্প

মানুষের শখ আর অনেক শৌখিনতার বর্ণানার তো বহু মানুষের মুখে অহরহ শুনতে পাওয়া যায়। কিন্তু এই শৌখিনতা ও শখের কোন প্রকার সঠিক রাস্তা অথবা ভুল রাস্তা রয়েছে কিনা? আবার তারও কী নিয়মকানুন জানা আছে? আমার জানা নেই। তবুও বলতে চাই, এই শৌখিনতা বাা শখ একেবারেই নিজস্ব চিন্তা চেতনায় তৈরী হয়। শখ অথবা শৌখিনতা আসে একেবারে হৃদয় থেকে, যা নিজস্ব ব্যাপার বা নিজস্ব তাগিদেই চলে আসে।এমন এই শক্তিটা আসলে ধিরে ধিরে পথ করে নেয় সামাজিক পরিমন্ডলে। তার জন্যে ঘটা করে ভাবতে হয় না। যার ভিতরে শখ নেই, তাকে এ কথা বুঝিয়ে বলাও যাবে না। সুতরাং বুঝিয়ে বলা যাক আর নাই যাক, শখ থেকে জন্ম নেয় প্রতিভা, এটাই

বিস্তারিত খবর

ব্রিটিশ রানির ‘ইয়াং লিডারস’ পুরস্কার পেলেন দুই বাংলাদেশি

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৫ ১০:০৩:৪৩

সমাজের মানুষের জন্য ব্যতিক্রমধর্মী অবদান রাখায় আইমান সাদিক ও জাইবা তাহিয়া নামে দুই বাংলাদেশি ব্রিটিশ রানির ‘ইয়াং লিডারস’ পুরস্কার অর্জন করেছেন। কমনওয়েলথভুক্ত ৩৭টি দেশের মধ্যে ২০১৮ সালের জন্য এ পুরস্কার দেওয়া হলো।

পুরস্কারপ্রাপ্ত আইমান সাদিক ‘টেন মিনিট স্কুল’ নামে অনলাইনে ভিডিও তৈরির মাধ্যমে শিক্ষা বিস্তারে কাজ করছেন। অনলাইনে ওই ভিডিওতে বিনামূল্যে বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ দেওয়া হয়। তার মধ্যে ক্লাস, কুইজ, স্মার্ট বই, জটিল সমস্যা সমাধানসহ অনেক কিছু। আইমান ও তার ৫২ জন বন্ধু মিলে স্কুলটি পরিচালনা করছেন; যারা নিজেরাও শিক্ষার্থী।

এ ছাড়া পুরস্কারপ্রাপ্ত জাইবা তাহিয়া নারী-পুরুষ সমতা, নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ নিয়ে কাজ করাসহ নারীদের আত্মরক্ষার কৌশল শেখান।

প্রসঙ্গত, সমাজ সেবামূলক কাজে অবদান রাখায় ব্রিটিশ রানি কমনওয়েলথ দেশগুলোর ১৮-২৯ বছর বয়সী তরুণদের উৎসাহিত করতে ও তাদের অবদানের স্বীকৃতি প্রদানে ‘দ্য কুইন’স ইয়াং লিডার অ্যাওয়ার্ড’ দিয়ে থাকেন। নিয়মানুযায়ী বিজয়ীরা রানি এলিজাবেথের হাত থেকে পুরস্কার নেওয়ার পাশাপাশি এক সপ্তাহের একটি রেসিডেন্সিয়াল প্রোগ্রামে অংশ নেবেন। 


এলএবাংলাটাইমস/ওয়াই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ইসলামের দিকে ঝুঁকলেন আরবের জনপ্রিয় পপ তারকা

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৪ ১১:৩০:২৬

গত সেপ্টেম্বরে আমাল হিজাজী যখন ঘোষণা দিলেন যে তিনি তার সঙ্গীতের ক্যারিয়ার থেকে অবসরে যাচ্ছেন, সেটা তাঁর ভক্তদের জন্য ছিল এক বিরাট ধাক্কা। আমাল তখন বলেছিলেন, আল্লাহ তার প্রার্থনায় সাড়া দিয়েছেন। তিনি ইসলামের মধ্যেই তার সুখ-শান্তি খুঁজে পেয়েছেন। খবর- বিবিসির।

আমাল হিজাজী যখন তার গান-বাজনা ছেড়ে পুরোপুরি ইসলামী অনুশাসন মেনে জীবন-যাপন শুরু করলেন, তাঁর ভক্তরা অবাক হয়েছিলেন তখন।

কিন্তু তিন মাসের মাথায় তিনি আবার ফিরে এসেছেন গানের জগতে। তবে একেবারে নতুন রূপে এবং ভিন্ন ধরণের গান নিয়ে। ইসলামের নবী মুহাম্মদের জন্মবার্ষিকীতে তাঁকে নিয়েই একটি গান গেয়েছেন তিনি।

লেবাননের শিল্পী আমাল হিজাজী আরব দুনিয়ার জনপ্রিয় পপ তারকাদের একজন। ২০০১ সালে তাঁর প্রথম পপ রেকর্ড বাজারে আসে। পরের বছর দ্বিতীয় অ্যালবামেই তিনি এক সফল সঙ্গীত তারকায় পরিণত হন। এক দশকের মধ্যেই আমাল হিজাজী হয়ে উঠেন আরব বিশ্বের জনপ্রিয়তম সঙ্গীত তারকা।

২০০২ সালে আমাল হিজাজীর অ্যালবাম 'জামান' বাজারে আসে। এটিকে বিবেচনা করা হয় আরবী পপ সঙ্গীতের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়া অ্যালবাম।

গত সেপ্টেম্বরে আমাল হিজাজী তার এক ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছিলেন তিনি সঙ্গীতের জগত ছেড়ে যাচ্ছেন।
তখন তিনি তার হিজাব পরিহিত একটি ছবিও পোস্ট করেন। এতে তিনি লিখেন, "যে শিল্প আমি ভালোবাসি এবং যে ধর্মের নৈকট্যকে আমি লালন করি, এই দুটি নিয়ে আমাকে অনেক দিন ধরেই বোঝাপড়া করতে হচ্ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আল্লাহ আমার প্রার্থনায় সাড়া দিয়েছেন।"

নবী মুহাম্মদের জন্মবার্ষিকীতে তাঁকে নিয়ে আমাল হিজাজী যে গানটি গেয়েছেন, সেটি তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন।

ইতোমধ্যে ৮০ লাখ ভক্ত তাঁর এই গানটি শুনেছেন এবং আড়াই লাখের বেশি মানুষ এটি শেয়ার করেছেন। তবে আমাল হিজাজীর এই নতুন রূপ এবং নতুন গান নিয়ে তুমুল বিতর্কও চলছে।

যেভাবে তিনি হিজাব পরেছেন, তার যে সাজ-সজ্জা, সেটা কতটা ইসলাম সম্মত তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। ইসলামে এভাবে মহিলাদের গান করার বিধান আছে কিনা সেটা জানতে চেয়েছেন অনেকে।

আবু মুহাম্মদ আল আসতাল নামের একজন ফেসবুকে লিখেছেন, "তিনি যা করছেন তা ইসলাম সম্মত নয়।"
জেইনাব মুসেলমানি লিখেছেন, "আল্লাহ যা হারাম বলেছেন, সেটা প্রশংসা দয়া করে বন্ধ করুন। তার প্রশংসা বন্ধ করুন, তাকে বরং পথ দেখান।। ধর্মটা কেন অনেকের কাছে রসিকতার ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে?"

তবে অনেক ভক্ত আবার আমাল হিজাজীর প্রশংসা করেছেন। দিনা মিশিক নামে একজন লিখেছেন, "যে মহিলা কিনা ধর্মে যা নিষিদ্ধ তা করা বন্ধ করেছে, হিজাব পরা শুরু করেছে এবং নবীর জন্য গান করছে, তোমরা কিভাবে তার সমালোচনা করো।"
এলএবাংলাটাইমস/ওয়াই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

১৮ বছর বয়সে ব্রিটেনের কাউন্সিলর বাংলাদেশী শরিফাহ

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-২৫ ১০:৩৬:২৯

মাত্র ১৮ বছর বয়সে সিটি কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়ে ব্রিটেনে চমক সৃষ্টি করেছেন বাংলাদেশের সিলেটি কন্যা শরিফাহ রহমান।

গত সপ্তাহে অনুষ্ঠিত নর্থ-ইস্ট ইংল্যান্ডের ডারলিংটন বার কাউন্সিলের উপ-নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন তিনি।

লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে ৪৪ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট পেয়ে স্থানীয় রেড হল এবং লিংফিলড ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত হয়েছেন শরিফাহ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী টোরি পার্টির জোনাথন ডালস্টন। অন্য প্রতিদ্বন্দ্বীরা হলেন- লিবারেল ডেমোক্রেটস দলের হ্যারি লংমুর (১১ ভোট), গ্রিন পার্টির মাইকেল ম্যাকটিমনি (২০ ভোট) এবং সাবেক ইউকিপ কর্মী স্বতন্ত্র প্রার্থী কেভিন ব্রা পেয়েছেন (৪৬ ভোট)।

নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর শরিফাহকে অভিনন্দন জানিয়েছেন স্থানীয় এমপি জেনি চাপম্যান ও এন্ড্রু গাইন। আর শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) তাকে অভিনন্দন জানান ব্রিটেনের প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপি রোশনারা আলী।

এত কম বয়সে রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে শরিফাহ ব্রিটেনের দৈনিক গেজেট লাইভকে দেওয়া সাক্ষাতকারে জানান, অতীত অভিজ্ঞতা ও সংগ্রামের গল্পগুলোই তাকে রাজনীতিতে নিয়ে এসেছে।

কয়েক মাস আগে প্রকাশিত ‘এ’ লেভেল পরীক্ষার ফলাফলেও ঈর্ষণীয় সফলতা অর্জন করেন শরিফাহ।

উল্লেখ্য, শরিফাহ’র জন্ম ও বেড়ে ওঠা ডার্লিংটন শহরে। বাবা লোকমান খানের দেশের বাড়ি সিলেটের  সুনামগঞ্জ জেলার বরমরা গ্রামে। সাত ভাইবোনের মধ্যে শরিফাহ সবার ছোট।

এলএবাংলাটাইমস/ওয়াই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

৮০ ভাষায় গান গাইতে পারে এই কিশোরী!

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-১৪ ০৯:০৭:২৭

তিন আঙুলের করের সমান বয়স তার, মাত্র ১২ বছর। এ বয়সেই সে ৮০টি ভাষায় গান গাইতে পারে! রীতিমতো বিস্ময়!!

নাম তার সুচেতা সতীশ। ভারতের কেরেলার এই মেয়ে পরিবারের সঙ্গে দুবাই থাকে; সেখানে দি ইন্ডিয়ান হাইস্কুলের সপ্তম শ্রেণিতে পড়াশোনা করে। তার লক্ষ্য, একটি কনসার্টে সবচেয়ে বেশি ভাষার গান গেয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়া। গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লেখাতে ৮০ ভাষায় গান গাওয়ায় পারদর্শিতা অর্জন করেছে সে। ২৯ ডিসেম্বর তার সেই কাঙ্ক্ষিত কনসার্ট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এর আগে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় হিন্দি, মালয়লম, তামিলসহ অনেক ভাষায় গান গেয়ে নজর কেড়েছে ছোট্ট মেয়েটি। তবে বিদেশি ভাষায় গান গাওয়ার দক্ষত অর্জন করেছে বছরখানেক আগে এবং এরই মধ্যে সে ৮০টি ভাষায় গান গাইতে পারে। তবে গিনেজ বুকে নাম লেখাতে তাকে আরো পাঁচটি ভাষায় গান গাওয়া শিখতে হবে। এখন তার ধ্যানজ্ঞান এ নিয়েই।

নতুন ভাষায় গানে কণ্ঠ দিতে তার খুব বেশি সময় লাগে না। তবে তার কাছে মনে হয়েছে, জার্মান, ফ্রেন্স ও হাঙ্গেরিয়ান ভাষা সবচেয়ে কঠিন। সহজ ভাষায় কম অন্তরার গান হলে সে আধা ঘণ্টার মধ্যেই গাইতে পারে।

 এলএবাংলাটাইমস/টি/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বাংলাদেশে ফাইভ স্টার হোটেল ও রিসোর্টের বিজ্ঞাপন বানালেন পান্থ রহমান

 প্রকাশিত: ২০১৭-১০-২৭ ১৪:৩৬:১৬

বগুড়ায় অবস্থিত মম ইন ফাইভ স্টার হোটেল ও রিসোর্টের বিজ্ঞাপন নির্মাণ করলেন পান্থ রহমান।

ইতিপূর্বে তিনি হলিউডের নামকরা ফিল্ম ইনস্টিটিউট 'নিউ ইয়র্ক ফিল্ম একাডেমি (লস এঞ্জেলেস) থেকে ফিল্ম ও মিডিয়া প্রোডাকশন বিষয়ে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। পান্থ রহমানের পরিচালনায়  নির্মিত স্বল্পদৈর্ঘ চলচ্চিত্র 'ডিসিসড' সর্বপ্রথম প্রদর্শিত হয় হলিউডের বিখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাণকারী সংস্থা 'ওয়ার্নার ব্রাদার্স ষ্টুডিও' তে। তারপর বিভিন্ন দেশের ফিল্ম ফেস্টিভালগুলোয় প্রদর্শিত হতে থাকে। এছাড়া ২০১৪ সালে পান্থ রহমান চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেন পরিচালক কৃষ্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায় এর সাথে 'গ্রে ঢাকা'র আউটডোর এডভার্ট, এইচএমবিআর লক, 'দ্যা ইম্পসিপাজল পোস্টারে' যেটি কান লায়ন এ ফাইনালিস্ট হিসেবে  নির্বাচিত হয়।

বড় শুটিং ইউনিট নিয়ে ঢাকা থেকে এত দূরে বগুড়ায় কাজ করতে কষ্ট হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন শুটিং এর প্রয়োজনে দূর দূরান্তে তো যেতেই হয়, এতে কষ্টের কি আছে? আর কর্তৃপক্ষ যথেষ্ট সহযোগিতা করেছেন। তারা বলেছেন যা সত্য তাই প্রকাশ করতে, ব্যবসায়িক স্বার্থে ভুল তথ্য উপস্থাপন না করতে এবং কোন কিছু ফলাও করে প্রচার না করতে।

মম ইনের বিজ্ঞাপনটির নির্মাণকারী সংস্থা স্টিডিফাস্ট, যার কর্ণধার সনামধন্য কথাসাহিত্যিক আফরোজা পারভীন।

তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন দায়িত্বপূর্ণ পদে কর্মজীবনের সমাপ্তি শেষ করেছেন ঠিকই কিন্তু তার লেখনী থেমে থাকেনি। তিরিশোর্ধ বছরের লেখক জীবনে তার অর্জন ৭২টি প্রকাশিত গ্রন্থ, বেশ কয়েকটি টিভি নাটক, অসংখ্য পুরস্কার এবং সম্মাননা। চাকরীজীবন শেষে এখন তার সময় কাটছে কিভাবে জানতে চাইলে তিনি জানান তিনি তার সপূর্ণ  সময় বায় করছেন শিল্প সাহিত্য নিয়েই। একদিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশবিদ্যালয় এর অধীনে জহির রায়হানের চলচ্চিত্রের উপর পিএইচডি করছেন, নিয়মিত সম্পাদনা করে চলেছেন রক্তবীজ শিল্প ও সাহিত্য ভিত্তিক ওয়েব পোর্টাল, আর ব্যক্তিগত লেখালেখিতো আছেই।

মম ইন করতোয়া নদীর তীরবর্তী ও বগুড়া রংপুর রোডে অবস্থিত একটি সুদৃশ্য ফাইভ ষ্টার খ্যাত হোটেল ও রিসোর্ট যাতে রয়েছে নিজস্ব হেলিপ্যাড ও হেলিকপ্টার, বিজনেস সেন্টার, কনফারেন্স রুম, মানসম্পন্ন রেস্টুরেন্ট, সুইমিং পুল ও জাকুজি, হ্রদ, অত্যাধুনিক ফোর কে প্রজেকশন ক্ষমতা সম্পন্ন মুভি থিয়েটার, প্রসারিত লবি, জিমনেশিয়াম, স্পা ও নিজস্ব হস্তশিল্পে সজ্জিত গিফট শপ।

বিজ্ঞাপনটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাদমান সামির ও সিস্কি ক্লাসেন। এছাড়াও অন্নান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন এসএম তালিম কুমার ও পিনু জামান। সাদমান সামির ইতিমধ্যে ৪টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন এবং নিয়মিত টিভি নাটক ও বিজ্ঞাপনে অভিনয় করছেন। নেদারল্যান্ড থেকে আসা সিস্কি ক্লাসেন বাংলাদেশে একটি আন্তর্জাতিক এনজিও এর জন্য কাজ করছেন। তিনি বলেন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের পরদিনই শুটিং এর জন্য তাকে বগুড়ায় চলে আসতে হয়েছিল। মম ইনের আতিথেয়তা, বগুড়ার দই আর  মহাস্থানগড়ের সৌন্দর্য তাকে বিমোহিত করলেও রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কথা ভুলতে পারছিলেন না।  

বিজ্ঞাপনটির পরিচালনা করেছেন জহিরুল হাসান, যিনি মুম্বাই এর সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ থেকে ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন বিষয়ে পড়ালেখা করেছেন এবং একশত এর বেশি টেলিভিশন প্রোডাকশন নির্মাণ করেছেন। তিনি মম ইন সম্পর্কে বলেন, 'মম ইন হোটেল ও রিসোর্ট এর কর্তৃপক্ষ বিশ্বাস করেন বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গে পর্যটন শিল্পের বিকাশে মম ইন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে এবং এজন্য মম ইন তার সেবামান ও সুবিধাগুলির উন্নতি সাধনে অবিরত থাকবে আমরা এই প্রত্যাশা করছি'।

বিস্তারিত খবর

ইউটিউবে কর্মরত প্রতিভাবান এক বাংলাদেশির গল্প

 প্রকাশিত: ২০১৭-০৮-০৯ ০১:৪৩:১৪

প্রযুক্তির ব্যবহারে দেশ এগিয়ে চলেছে। বলা হয়, এখন ইন্টারনেট যুগে বাংলাদেশ। সামনে বিশাল সম্ভাবনার দিগন্ত। এই সম্ভাবনায় প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে চলেছেন দেশের অনেক তরুণ। এই তরুণরা বহির্বিশ্বে নিজ পারদর্শিতায় বাংলাদেশকেই ঊর্ধ্বে তুলে ধরছেন। ইউটিউব, গুগল ও আন্তর্জাতিক অনেক মাধ্যমে তরুণদের সাফল্যগাঁথা মুগ্ধ করে আমাদের। তেমনি এক তরুণের গল্প পড়ুন ।

সিলেটের মৌলভীবাজারের প্রতিভাবান এই তরুণের নাম মিনহাজ হুসাইন। মিনহাজ এখন ইউটিউবে চাকরি করছেন। ইউটিউবের নতুন অফিস Kings Cross এ কর্মরত রয়েছেন।

বাংলাদেশের মাঝারি মানের একজন ছাত্র গ্রামের স্কুল থেকে এস এস সি পাশ করে (জিপিএ ৩.৪০, বিজ্ঞান বিভাগ ২০০৪ সাল) নিজ প্রতিভা গুণে এখন লন্ডনে ইউটিউবের মতো প্রতিষ্ঠানে চাকরিরত। যা চমকে দেওয়ার মতোই ঘটনা।

তার অন্যান্য পড়াশোনা সম্পর্কে তরুণ মিনহাজ নিজেই বললেন, ‘২০০৬ সালে লংলা আধুনিক ডিগ্রি কলেজ থেকে আইএসসি (জিপিএ ৩.৮০), এর পর IELTS দিয়ে ভর্তি হয়ে হলাম Brit College London-এ Higher National Diploma in Computer Science বিষয় নিয়ে। এরপর বার্মিংহাম সিটি ইউনিভার্সিটিতে বিএসসি শেষ করলাম Computer Science and Network Security নিয়ে।

তিনি জানান, ছোটবেলা থেকেই ‘ইলেক্ট্রনিক্স’ এর প্রতি তীব্র আগ্রহ ছিল তার। বাবার শাসনে বিপত্তি হলেও সাপোর্ট ছিল মায়ের।

প্রাসঙ্গিক আরো নানা বিষয়ে আলাপ হলো মিনহাজ হুসাইন এর সঙ্গে। আলাপকালে খোলাখুলি অনেক কথাই জানালেন আলোকিত এই তরুণ। পাঠকদের জন্য তা এখানে তুলে ধরা হলো:

ইউটিউবে কীভাবে, কেমন করে শুরু?:
এমএসসি সেকেন্ড ইয়ারে থাকতে এক সেমিনারে পরিচয় হল গুগল ইউকে লি. এর এক প্রোডাক্ট ম্যানেজারের সাথে। প্রতি বছর সামারে ‘গুগল ইউকে’ যুক্তরাজ্যে ইন্টার্ন প্রোগ্রাম অফার করে, মেয়াদ ৬ মাস। আবেদন করি ইন্টার্ন প্রোগ্রামের জন্যে, সে ভদ্রলোকের রেফারেন্স দিয়ে। ২ সপ্তাহ পর ইমেইলে আমাদের ইন্টারভিউ’র তারিখ জানানো হল। ইন্টারভিউ নেওয়া হবে অনলাইনে। ২ জন গুগল অফিসিয়াল, একজন লেডি ও একজন ভদ্রলোক নিজেদের পরিচয় পর্ব শেষে আমার সারা জীবনের অর্জিত জ্ঞানের চরম পরীক্ষা নেওয়া শুরু করলেন, এমন সব প্রশ্ন করছেন যা আমার গুগলে কাজ করার শখ তিলে তিলে মিটিয়ে দিচ্ছে, আমি তো শিউর আমার এখানেই শেষ। তবে সেটা মনে মনে, তাদের বুঝতে দেইনি। এমন সব প্রশ্ন শুনে আমি ভেবে পাইনা গুগলের সাথে এসবের কি সম্পর্ক? সব শেষের প্রশ্ন ছিল ‘টেল মি আ জোক’। কি জোক বলেছিলাম তা আজ আর মনে নেই, তবে ওদের মুখে কিঞ্চিৎ হাসি দেখতে পেয়েছিলাম, এটুকু বেশ মনে আছে। ইন্টারভিউ শেষে, আমাকে বলা হল নেক্সট ৭ বিজনেস ডে’র ভেতর সিদ্ধান্ত জানানো হবে। ঠিক এক সপ্তাহ পর একটা মেইল এলো। আমাকে সিলেক্ট করা হয়েছে, গুগল অফিসে গিয়ে হাজিরা দিতে হবে। গেলাম, আমার মত যারা সিলেক্ট হয়েছে সবাইকে এক একটা গ্রুপে ভাগ করে টাস্ক দেওয়া হলো। অর্থাৎ কয়েকটা টিম করা হলো। ৬ মাস পর সকল টিমের ফাইনাল পরীক্ষা হবে এবং ১০ টা টিমের মধ্যে অনলি একটা টিমকে গুগলে পার্মানেন্ট জব দেওয়া হবে।

ইউটিউবে চাকরি নিয়ে বলুন:
আমাকে দেওয়া হল YouTube UK & Ireland এর কপিরাইট/DMCA ডিপার্টমেন্ট। কারণ আমার টাস্ক/Exam রেজাল্ট এর ভিত্তিতে ইউটিউবই আমার জন্যে বেটার। ২০১৩ থেকে আজও আছি। এখন আমরা চলে এসেছি ইউটিউব এর নতুন অফিস Kings Cross এ। যার নাম YouTube Space London। এর পাশেই গড়ে উঠছে সুবিশাল ভবন, আগামীতে এখানেই চলে আসবে Google HQ ।

কি ধরনের কাজ করতে হয় আপনাকে?:বিশাল প্ল্যাটফর্ম ইউটিউব, তবে এর হেড কোয়ার্টার ক্যালিফোর্নিয়ার মতো সকল ক্ষমতা আমাদের হাতে নেই। আমরা যারা DMCA (Digital Millennium Copyright Act) অর্থাৎ কপিরাইট এর কেইসগুলো দেখি, আমাদের হাতে অন্য কোন ক্ষমতা নেই। এই যেমন কারো চ্যানেল সাসপেন্ড হলে সেটা Reinstate করা, বা কেউ কোন চ্যানেল রিপোর্ট করলে সেটা ডাউন করার এখতিয়ার আমাদের নেই। তার জন্য আছে আমাদের Enforcement Department।

দেশে জনপ্রিয় সামাজিক মাধ্যমের একটি ইউটিউব। অনেকের ধারণা ইউটিউবের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন সহজ। আপনি কী বলেন?:ইউটিউব নিঃসন্দেহে জনপ্রিয় এবং নিয়মিত ডলার আয়ের একটি চমৎকার উপায়। পৃথিবীব্যাপী প্রতিনিয়ত এর পরিধি বেড়েই চলেছে, পাশাপাশি এর অপব্যবহার ও অন্যান্য কারণে এর রুলস রেগুলেশনও পরিবর্তিত হয়। আমার কাজের কিছু বিষয় পরিষ্কার করে বললে ধারণা পাবেন।

১। কেউ আপনার ভিডিও কপি করে আপলোড দিয়েছে, আপনি সেটা আমাদের কাছে রিপোর্ট করলেন যথাযথভাবে। আমরা আপনার অভিযোগ যাচাই করে দেখবো। সত্যতা পেলে আমরা সেই অপরাধীকে একটা নোটিশ দিয়ে ঐ ভিডিওটি রিমুভ করে দেবো, আবার আমরা তাকে একটা চান্স দেবো যেন সে যদি প্রমাণ করতে পারে সে ভিডিওটি কপি করেনি, সে ক্ষেত্রে ১০ দিনের সময়সীমা আমরা বেঁধে দেই।

২। কেউ Take Down Notice দিয়ে একটা ভিডিও রিমুভ করলো, অন্য পার্টি সে সিদ্ধান্ত না মেনে আমাদের কাছে আপিল করল, এক্ষেত্রে আমাদের অনেক সূক্ষ্মভাবে এই অভিযোগ যাচাই করে সিদ্ধান্তে উপনীত হতে হয়। এই রকম কাজের জন্যে আমাদের Automatic System (Bot/Robot) এর সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারি না।

৩। কারো চ্যানেলে একটা ভিডিও আপলোড করার সাথে সাথে আমাদের Automatic System (Bot/Robot) তা স্ক্যান করে স্ক্যান রেজাল্ট এর ভিত্তিতে সে নিজেই অ্যাকশন নিয়ে নেয়। তারপরও আমাদের সেই সিদ্ধান্তগুলোকে আবার যাচাই করতে হয়, আমরা চাইনা একটা সামান্য ত্রুটির কারণে কারো কষ্টের সৃষ্ট ইউটিউব চ্যানেল ক্ষতিগ্রস্ত হোক।

৪। ‘গুগল ইউকে’তে যেহেতু জনবল একটু কম, সেখানে আমরা নিজেদের ডিউটির ফাঁকে সমস্ত সাইটকে র‍্যান্ডমভাবে স্ক্যান করি, খুঁজে বের করি Offensive Content অর্থাৎ Hate Speech, Sexually Suggestive Content, Child-Drug Abuse, Selling or Promoting Illegal Materials, Terrorist Extremism ইত্যাদি। এসবকে এক কোথায় বলা হয় YouTube Community Guideline।

৫। এইসব হচ্ছে প্রধান কাজ। তার বাইরেও অনেক কিছু করি, বিশেষ করে বাংলাদেশি YouTuber-দেরকে অনেক ছাড় দেই, তবে সেটা অবশ্যই কোন মেজর নীতি ভঙ্গের বিরুদ্ধে নয়। যদিও সেটা প্রকাশ করি না বা কাউকে বুঝতে দেই না, এতে আমার চাকরি তো যাবে, সাথে জেলও হতে পারে। সম্প্রতি যে ব্যাপারটা লক্ষ্য করলাম সেটা হচ্ছে কিছু বখে যাওয়া, অশিক্ষিত ও অর্ধশিক্ষিত ছেলে সহজ পথে টাকা উপার্জনের নেশায় কিছু চরম সেক্সুয়ালি ভিডিও/কারো পার্সোনাল ভিডিও সাইতে আপলোড করছে, আর ভিউও হচ্ছে। এদের মধ্যে কিছু ভিডিও YouTube এর নীতিমালা সরাসরি ভঙ্গ করে না, আর এই সীমাবদ্ধতাকেই ওরা কাজে লাগাচ্ছে। এই সব ভিডিও দেখে আমাদের উঠতি/তরুণ সমাজ ধ্বংস হচ্ছে, কুপথে পা বাড়াচ্ছে। গত ২/৩ সপ্তাহে নিজের সামান্য ক্ষমতা আর একটু চালাকি করে এমন কিছু Sexually Explicit ভিডিও রিমুভ করলাম, প্রায় ৩০০ এর মত হবে। সেগুলোর মধ্যে ছিলো কারো মোবাইল থেকে চুরি যাওয়া ভিডিও, কারো ফেসবুক এর পার্সোনাল ভিডিও।

৬। গত কিছু দিন থেকে HelpAid Foundation (Justice For Women) এর চেয়ারম্যান, ‘ইফ্রিত যাহিন কুঞ্জ’ আপু আমাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটা প্রাইভেট ভিডিও’র লিঙ্ক দিয়ে সেটা রিমুভ করতে হেল্প চান। সেটা রিমুভ করতে গিয়ে দেখি একই ভিডিও আরও হাজার জন আপলোড করেছে, পুরো ১ দিন ১ রাত জেগে সবগুলো ভিডিও ডাউন করলাম। Justice For Women, গ্রুপে বেশির ভাগ কেস থাকে নারীদের। এক্স বয়ফ্রেন্ড পার্সোনাল ভিডিও/MMS/Pictures ইউটিউবে লিক করে দিয়েছে, সেখানে আমি ছাড়া আর কেউ নেই ঐ সব রিমুভ করার।

এই ভাবে চোখের সামনে কোন অন্যায় দেখলে সাধ্যমত চেষ্টা করি সেটা বন্ধ করতে কিংবা তার ক্ষয়ক্ষতি সর্বনিম্ন করতে।

এলএবাংলাটাইমস/ওয়াই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধু শুধু একটি নাম নয়, একটি আদর্শ

 প্রকাশিত: ২০১৭-০৬-১৫ ০২:১০:০৯

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান শুধু কোন একটি নাম নয়। বঙ্গবন্ধু একটি ইতিহাস, বঙ্গবন্ধু একটি আদর্শ। বঙ্গবন্ধু একটি বিশ্বাসের নাম। ১৯৬৬ সালে বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ ‘ছয় দফা’ হতে শুরু করে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ, বাংলার আপামর জনতা অকুণ্ঠ বিশ্বাস দেখিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর প্রতি। বঙ্গবন্ধু বাঙালির মুক্তির ইতিহাস। বঙ্গবন্ধু আমাদের মন ও মননের প্রতীক। বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে ঠিক এভাবেই অনুভূতি প্রকাশ করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য বায়েজিদ কোতোয়াল।

এলএবাংলা টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বায়েজিদ বলেন, ছোটবেলায়ই তিনি রেডিও টেলিভিশনে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শুনে মুগ্ধ হয়ে যেতেন। এভাবে বঙ্গবন্ধুর প্রতি তার আগ্রহ বাড়তে থাকে। স্বপ্ন দেখেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নের। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার প্রথম বর্ষ থেকেই তিনি জড়িত হন ছাত্র রাজনীতির সাথে। আর ক্রমেই ছাত্রলীগের নিবেদিত প্রাণ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পরিচিতি পায় বায়েজিদ। তার এই পরিশ্রমের স্বীকৃতিও দিলেন ঐতিহ্যবাহী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। তাকে দিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যকরী সদস্য পদের মর্যাদা। তিনি বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন হতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করেন।

একই সাথে তাকে যারা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পরিবারের একজন হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন বায়েজিদ।       

বিস্তারিত খবর

ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক হলেন নেত্রকোনার কৃতি সন্তান রোকনুজ্জামান মাসুম

 প্রকাশিত: ২০১৭-০৬-০৪ ০২:৩৫:২০

সদ্য ঘোষিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সহ-সম্পাদক হিসেবে মনোনীত হয়েছেন। পরিশ্রমের স্বীকৃতি পাওয়ায় বেশ সন্তুষ্ট তিনি। এ সম্পর্কে মাসুম বলেন, অনেকদিন ধরে ছাত্রলীগের রাজনীতি করছি। এবার পোস্ট পাওয়ায় বেশ ভালো লাগছে। এই আনন্দ বলে বোঝানো যাবে না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্বধর্ম ও সংস্কৃত বিভাগে অধ্যয়নরত এ শিক্ষার্থী জীবনের অনেকটা সময় কাটিয়েছেন গ্রামে।
স্কুল জীবন শেষ করেছেন তার নিজ এলাকা নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া থানার সান্দিকোনা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে। তখন থেকেই গ্রামের গরিব-দুঃখী মানুষের কষ্ট-দুর্দশা দেখে তাদের জন্য কিছু করতে চাইতেন। কিন্তু উপযুক্ত ভিত্তি না পাওয়ায় তখনকার সময় তেমন কিছু করা হয়ে উঠেনি । তবে স্বপ্নটা তার মনের মধ্যেই ছিল। ফলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি হয়েই যোগ দেন ছাত্রলীগের রাজনীতিতে। অবশেষে একটি মজবুত ভিত্তি তৈরির দিকে ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছেন নেত্রকোনার এ সন্তান। 
মাসুম তার ভবিষ্যত ইচ্ছা সম্পর্কে বলেন, আমি আসলে মানুষের জন্য কিছু করার একটা প্ল্যাটফর্ম চাচ্ছিলাম। সামান্য কিছু করতে এটা প্রয়োজন হয়না, তবে অনেক বড় কিছু করার জন্য প্ল্যাটফর্ম দরকার। আর সে কারণেই ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িত হওয়া। জানিনা কতদূর যেতে পারবো, তবে যেতে পারলে আমার এলাকার সাধারণ মানুষের জন্য অনেক কিছু করার চেষ্টা করবো।

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রে ‘সাহসী নারী’র পুরষ্কার পেলেন বাংলাদেশি মেয়ে

 প্রকাশিত: ২০১৭-০৩-৩০ ০৬:৪৫:২১

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প ও রাজনীতি বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি অব স্টেট থমাস এ. শ্যাননের হাত থেকে পুরস্কার নিলেন বাংলাদেশের ‘কন্যা সাহসিকা’ শারমিন আক্তার।

বুধবার (২৯ মার্চ) বেলা ১১টায় মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে শারমিনের হাতে ‘ইন্টারন্যাশনাল উইমেন অব কারেজ (আইডব্লিউওসি) অ্যাওয়ার্ড’ শীর্ষক এ পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১৩ জন নারীকে এবার সাহসিকতা পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। শারমিনকে এ সম্মানজনক পুরস্কার দেওয়া হয়েছে বাল্যবিয়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে বিশেষ ভূমিকা রাখার জন্য।

২০০৭ সাল থেকে প্রতিবছর বিশ্বের নারীদের অসাধারণ সাহসিকতা ও নেতৃত্বের স্বীকৃতি স্বরূপ এ পুরস্কার দেওয়া হয়ে থাকে। এ পর্যন্ত বিশ্বের ৬০টি দেশ থেকে শতাধিক নারী পেয়েছেন এ পুরস্কার।

অনুষ্ঠানে ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প বলেন, এই সাহসী নারীদের সঙ্গে একই মঞ্চে উপস্থিত থাকতে পারা আমার জন্য খুব সম্মানের। আমি বিশ্বাস করি বিশ্বকে পরিবর্তন ও উন্নয়নের পথে প্রত্যেক পুরস্কারগ্রহীতা অসম্ভব সব বাধা অতিক্রম করেছেন। সমন্বিত ও ব্যক্তিগত সাহসিকতার মাধ্যমে আমাদের বিশ্বকে নিরাপদ রাখতে নারী হিসেবে আমাদের অবশ্যই একসঙ্গে দাঁড়ানো অব্যাহত রাখা উচিৎ।

যেখানে নারীরা পিছিয়ে থাকে, সেখানে পুরো বিশ্বই পিছিয়ে থাকে উল্লেখ করে ফার্স্ট লেডি বলেন, আমাদেরকে নারীর ক্ষমতায়ন এবং জাতি ও নৃ-গোষ্ঠী নির্বিশেষে সকল মানুষের সম্মানের জন্য কাজ অব্যাহত রাখতে হবে, সব সময় মনে রাখতে হবে যে আমরা একসঙ্গে একটিই জাতি – মানব জাতি – এবং আমাদের প্রত্যেকেরই বিশ্বের কাছে তুলে ধরার মতো স্বকীয় প্রতিভা ও সহজাত গুণ রেয়েছে।

বিস্তারিত খবর

গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেন কিশোরগঞ্জের পাপিয়া ইসলাম রুপু

 প্রকাশিত: ২০১৭-০১-১২ ০৮:১৬:১৯

ঐতিহ্যবাহী গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হলেন কিশোরগঞ্জের পাপিয়া ইসলাম রুপু। আগামী এক বছরের জন্য রুপু কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পেলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জীব বিজ্ঞান অনুষদ অধিভুক্ত গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের মেধাবী ছাত্রী পাপিয়া রুপু ২০১১-১২ সেশনে ভর্তি হন বস্ত্র পরিচ্ছদ ও বয়নশিল্প বিভাগে। তার বাড়ি কিশোরগঞ্জের ভৈরব থানায়। জিল্লুর রহমান সরকারি মহিলা কলেজের প্রাক্তন ছাত্রী রুপুর ছাত্ররাজনীতির সূচনা গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের মাধ্যমে।  

পরিচ্ছন্ন ছাত্ররাজনীতি, বিনয়সুলভ আচরণ, সাহসিকতা ও ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে পরিচিত তিনি। ছাত্রলীগ ছাড়াও রুপু বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ, ভৈরব এর  সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ, ভৈরব এর সহ- সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। একই সাথে তিনি ভৈরবের লিও ক্লাব অব বেইলি গার্ডেন’র ট্রেজারার হিসেবেও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন।

সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার পর এলএ বাংলাটাইমসকে দেওয়া এক স্বাক্ষাতকারে রুপু নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করে বলেন,“ছাত্রলীগ আমার স্বপ্ন। জাতির জনকের নিজ হাতে গড়া এই সংগঠনে কাজ করার সুযোগ পেয়ে আমি গর্বিত ও আনন্দিত। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়েই সারাটা জীবন রাজনীতির সাথে থাকতে চাই”। সেইসাথে তাকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন রুপু।   
উল্লেখ্য, গত ২৬শে নভেম্বর ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আগামী এক বছরের জন্য নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়।

বিস্তারিত খবর

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পেলেন শাবির ১২ শিক্ষার্থী

 প্রকাশিত: ২০১৬-০১-১২ ১৩:০৯:১৯

স্নাতক পর্যায়ে বিভিন্ন অনুষদে সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপ্ত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পেয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই সেশনের ১২ জন মেধাবী শিক্ষার্থী।

গত ৬ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এই মেধাবী শিক্ষার্থীদের হাতে পদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত ২০১১ সালের শিক্ষার্থীরা হলেন পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের পঙ্কজ কুমার দাস, ফুড ইজ্ঞিনিয়ারিং অ্যান্ড টি টেকনোলজি বিভাগের মুক্তা রায়, অর্থনীতি বিভাগের নওশীন চৌধুরী, বন ও পরিবেশ বিদ্যা বিভাগের ফারজানা ফেরদৌস, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সিরাজ উদ্দিন তফাদার, জেনেটিকস ইজ্ঞিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের জাবেদ ফয়সাল।

স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত ২০১২ সালের শিক্ষার্থীরা হলেন পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের জসির আহমেদ, অর্থনীতি বিভাগের অমিত রায়, বন ও পরিবেশ বিদ্যা বিভাগের আনোয়ার হোসাইন, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগে স্বরুপ সাহা, জেনেটিকস ইজ্ঞিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের রাজিয়া সুলতানা, কেমিক্যাল ইজ্ঞিনিয়ারিং অ্যান্ড পলিমার সায়েন্স বিভাগের কবির আহমেদ চৌধুরী।

ওই দিন দেশের ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক পর্যায়ের প্রতিটি অনুষদে সর্বোচ্চ নম্বরপ্রাপ্ত ২০১১ সালের ৭৪ জন ও ২০১২ সালের ৯২ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে স্বর্ণপদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক পর্যায়ে প্রতিটি অনুষদে সর্বোচ্চ নম্বরপ্রাপ্তরা এই পদকের জন্য মনোনীত হন। দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মেধাবী শিক্ষার্থীদের উৎসাহ দিতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ২০০৬ সাল থেকে প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক দিয়ে আসছে।

বিস্তারিত খবর

ব্রোক ব্রাউন বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা তরুণ

 প্রকাশিত: ২০১৫-০৬-১১ ১০:১৪:৩৯

এ মুহুর্তে বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা তরুণ তিনি। তার উচ্চতা কতো জানেন? মাত্র ৭ ফুট ১ দশমিক ৫ ইঞ্চি বা ২১৭ দশমিক ১৭ সেন্টিমিটার! ব্রোক ব্রাউন নামের এ তরুণের বাস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যের জ্যাকসনে।

সম্প্রতি গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের স্বীকৃতি পেয়েছেন ১৬ বছর বয়সী এ তরুণ।
 গিনেজ বুকের স্বীকৃতি পাওয়ায় স্বাভাবিক ভাবেই উচ্ছ্বাসিত ব্রোক। তিনি তার ফেসবুক পেজে লেখেন, ‘আমি যে বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা তরুণ বিষয়টি এখন স্বীকৃত।’


বিস্তারিত খবর

মঙ্গলগ্রহে যাচ্ছেন চাঁদপুরের মেয়ে

 প্রকাশিত: ২০১৫-০১-০৪ ১২:৪১:২০

এবার মঙ্গলগ্রহে যাচ্ছেন বাংলাদেশের চাঁদপুরের মেয়ে লুলু ফেরদৌস। একটি ডাচ প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে ২০২৫ সাল নাগাদ সেখানে বসতি গড়ার কার্যক্রম চলছে।প্রথম দফায় নাম ঘোষিত মাত্র চারজনের একজন ৩৫ বছর বয়সী লুলু ফেরদৌস।তিনি বাংলাদেশের ভূতত্ত্ব বিভাগের সাবেক পরিচালক অহিদুর রহমান খানের মেয়ে। মা রেজিয়া সুলতানা একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। বাড়ি চাঁদপুর সদর উপজেলার উত্তর বালিয়া গ্রামে।জানা যায়, ছোটবেলা থেকেই লুলুর মহাকাশ নিয়ে আগ্রহ। সে লক্ষ্যে ২০০৭ সালে পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে তিনি এয়ার ট্রান্সপোর্টেশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেন। যোগ দেন নাসার বিশেষ গবেষক হিসেবে।মঙ্গলগ্রহে যাত্রার এই প্রকল্পে প্রথম দফায় দুই লাখেরও বেশি আবেদন জমা পড়েছিল। মোট ২৪ জন নভোচারী নিয়ে মঙ্গলের উদ্দেশে দীর্ঘ সাত মাসের যাত্রা শুরু হবে।নাম ঘোষিত চারজনের একজন হওয়া লুলু ফেরদৌস এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘এটি আমাকে দারুণভাবে আলোড়িত করেছে। এই প্রকল্পে শুধু একমুখী টিকিট দেওয়া হলেও আমি বিচলিত নই। আমি এটাকে উপভোগ করছি। আমার পরিবার শুনে অবাক হয়েছিল। প্রথমে আমাকে না করলেও, আমি জানি তারা এক সময় আমাকে নিয়ে গর্ব করবেন।’বাছাই করা নভোচারীদের মহাকাশ যান চালনার প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। সেখানে অবস্থান করে কীভাবে নিজেকে বিরূপ আবহাওয়ায় টিকিয়ে রাখা যায়, সেই প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে।উত্তর বালিয়া গ্রামের জাহিদ হোসেন খান বলেন, "লুলু ফেরদৌসের বাবা-মা ঢাকার মোহাম্মদপুরে থাকেন। চাকরির সুবাদে লুলু ফেরদৌস থাকেন যুক্তরাষ্ট্রে। তার একমাত্র ছোট ভাই ইমরান সিঙ্গাপুরে পড়াশোনা করছেন।"বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান বলেন, "এটি আমাদের জন্য গর্বের। লুলু ফেরদৌস চাঁদপুরের কৃতী সন্তান। আমরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি সেই দিনটির জন্য, যেদিন তার প্রচেষ্টা সফল হবে। আমরা জাঁকজমকভাবে দিনটি পালন করব।"

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত