যুক্তরাষ্ট্রে আজ রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 03:16pm

|   লন্ডন - 09:16am

|   নিউইয়র্ক - 04:16am

  সর্বশেষ :

  কক্সবাজারে বিএনপি প্রার্থীর গাড়িতে গুলি, শতাধিক আহত   বিএনপি নেতা মাহবুব উদ্দিন খোকন গুলিবিদ্ধ   ১০ মিনিটেই ক্যান্সার শনাক্তের প্রযুক্তি আবিস্কার বাংলাদেশি বিজ্ঞানীর   নির্বাচনে ভোট কক্ষ থেকে সরাসরি সম্প্রচার নয়: সিইসি   যুক্তরাষ্ট্রে কলেজে হিজাব পরায় মুসলিম ছাত্রী বহিষ্কার   ড. কামালের গাড়িতে হামলার তদন্ত হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   সার্কের সভা থেকে ভারতীয় কূটনীতিকের ওয়াকআউট   হোয়াইট হাউজের ভারপ্রাপ্ত চিফ অব স্টাফ মুলভানে   ১৭ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতির সাক্ষাৎ চেয়ে ঐক্যফ্রন্টের চিঠি   জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি অস্ট্রেলিয়ার   স্বপ্নের সিনেমায় বাংলাদেশকে দেখবে   রোমে সিলেটী নাগরী বর্ণমালার আনুষ্ঠানিক মোড়ক উন্মোচন   সুষ্ঠু ভোটের জন্য সরকারকে চাপ দেওয়া উচিত : এইচআরডাব্লিউ   বেআইনি আদেশ মানবেন না: পুলিশকে ড. কামাল   জীবননগরে বিএনপির থানা কার্যালয়সহ ২০টি নির্বাচনী অফিসে অগ্নিসংযোগ!

মূল পাতা   >>   প্রবাসী কমিউনিটি

নিজেদের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানালো টাইম টেলিভিশন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি, নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-১০-০৪ ১৪:৩১:৫২

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: নিজেদের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানিয়েছে টাইম টেলিভিশন। গণামাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে কর্তৃপক্ষ এর নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে নিজেদের বক্তব্য তুলে ধরেছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অতি সম্প্রতি একটি চিহ্নিত মহল সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার সাম্প্রতিক বই বিতর্কে টাইম টেলিভিশন ও এর প্রধান আবু তাহেরকে জড়িয়ে বিভিন্ন ধরনের অহেতুক ভূয়া ভিত্তিহীন খবর প্রকাশ করছে। একটি হোমমেইড নাম পরিচয়হীন ভিডিওতে বিভিন্নজনের সাথে জড়িত করা হয়েছে টাইম টেলিভিশনের নাম।

আমরা মিথ্যা,ভিত্তিহীন এধরনের চক্রান্তের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। টাইম টেলিভিশন দ্যার্থহীনভাবে বলতে চায় যে, বাংলাদেশের কোন রাজনৈতিক দলের পৃষ্টপোষকতা বা সমর্থন আমাদের মিশন বা ভিশন নয়।

একান্তই সংবাদ মাধ্যম হিসেবে খবর পরিবেশন করাই হচ্ছে আমাদের কাজ। বাংলাদেশের কোন রাজনৈতিক দল বা গোষ্টির সুবিধভোগিও নই আমরা। ষড়যন্ত্র করা কোন সংবাদ মাধ্যমের কাজ নয়। অতি সম্প্রতি একটি মহল টাইম টেলিভিশন ও বাংলা পত্রিকার জনপ্রিয়তায় ইর্শ্বান্নিত হয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারে মেতে উঠেছে।

আমরা পরিস্কারভাবে বলতে চাই যে, বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা যুক্তরাষ্ট্রে আসার পর ঘটনার পেছনের ঘটনা জানার জন্য একটি জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যম হিসেবে আমরা একাধিকবার তার সাথে যোগাযোগ করেছি তার একটি সাক্ষাতকারের জন্য।

এক্ষেত্রে এস কে সিনহা বার বার বলেছেন তিনি বই লেখার কাজে ব্যস্ত। লেখা শেষ হওয়ার পরই সাক্ষাতকারের বিষয়টি চিন্তা করবেন তিনি।

বইটি শেষ হওয়ার পর এস কে সিনহা বিবিসিকে সাক্ষাতকার দিয়েছেন প্রথম। এই অবস্থায় তার সাথে আবারো যোগাযোগ করা হলে তিনি তার নিউজার্সীর বাসায় টাইম টেলিভিশনকে সাক্ষাতকার দিতে রাজী হন। যে সাক্ষতকারটি অত্যন্ত পেশাদারিত্বের সাথে লক্ষ লক্ষ দর্শকদের সামনে পরিবেশন করেছে টাইম টেলিভিশন।

 একটি গনমাধ্যম হিসেবে দর্শক শ্রোতাদের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকেই এই সাক্ষাতকারটি প্রচার করা হয়েছে।  এর বেনিফিশিয়ারী কে এটা আমাদের বিবেচ্য বিষয় নয়।

একটি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমাদের দায়বদ্ধতা হচ্ছে পাঠক বা দর্শকদের কাছে। কোন রাজনৈতিক দল বা গোষ্ঠির স্বার্থে কোন খবর বা অনুষ্ঠান প্রচার আমাদের নীতিমালা পরিপন্থী।

বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধ বিষয়ে বিচারপতি এস কে সিনহা তার মতামত স্পষ্টভাবেই তুলে ধরেছেন টাইম টেলিভিশনে প্রচারিত সাক্ষাতকারে। যেখানে তিনি যুদ্ধাপরাধের বিচারে কোর্টের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে এটাকে স্বচ্ছ বলে মন্তব্য করেছেন। 

আমরা আবারো বলতে চাই একটি মিডিয়া হিসেবে দর্শক শ্রোতা পাঠকদের চাহিদা ও সাংবাদিকতার নীতিমালাকেই মেনে চলবে টাইম টেলিভিশন ও বাংলা পত্রিকা।

এক্ষেত্রে কারো কুমন্ত্রনা বা অপ্রপ্রচার কোনভাবেই আমাদের নীতিমালা থেকে বিচ্যুত করতে পারবে না।

যুক্তরাষ্ট্র হচ্ছে আইনের দেশ। এখানে প্রত্যেকের মত প্রকাশের স্বাধীনতা দিয়েছে এদেশের সংবিধান। তবে তথ্য প্রমান ছাড়া কেউ যদি টাইম টেলিভিশন, বাংলা পত্রিকা বা এর কোন কর্মকর্তাকে নিয়ে মিথ্যা,অহেতুক ও বিভ্রান্তিকর খবর বা বিবৃতি প্রকাশ করেন তাহলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নেবে বাংলা পত্রিকা ও টাইম টেলিভিশন।


এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৪৫৪ বার

আপনার মন্তব্য