যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ১৯ অগাস্ট, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 10:41am

|   লন্ডন - 05:41am

|   নিউইয়র্ক - 12:41am

  সর্বশেষ :

  পুড়ে যাওয়া বস্তি যেন দর্শনীয় স্থান!   ডেঙ্গু: চব্বিশ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১৭০৬   আসামের এনআরসি ও কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল: নেপথ্যে মোদির মুসলিমবিদ্বেষ   কাশ্মীর ইস্যুতে আরব দেশগুলোর নীরবতার নেপথ্য কারণ কী?   কাবুলে বিয়ের অনুষ্ঠানে হামলা, নিহত ৬৩   মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর সোহেল’র ইন্তেকাল   ভারতের পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডার এখন ফ্যাসিস্ট মোদির হাতে : ইমরান খানের হুঁশিয়ারি   রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসীদের সাথে গুলি বিনিময়ে এক সেনাসদস্য নিহত   বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাংলাদেশ কল্পনা করা যায় না: মুক্তিযোদ্বা ডা: সিরাজুল ইসলাম   ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২২৪   কাশ্মীরে বিধি-নিষেধ দ্রুত তুলে দেওয়ার আহ্বান ওআইসির   অরল্যানডোতে বঙ্গবন্ধুর প্রতি সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা   আ.ন.ম শফিকুল হকের মৃত্যুতে আনোয়ার শাহদাতের শোক   মনের সুখই আসল সুখ   পাইলট যেভাবে বিমানটিকে ভুট্টা ক্ষেতে নামালেন

মূল পাতা   >>   প্রবাসী কমিউনিটি

বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ইতালির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি লুৎফর রহমান খানের দশম মৃত্যুবার্ষিকী

ইসমাইল হোসেন স্বপন, নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-৩১ ১৪:১৫:০৯

ইসমাইল হোসেন স্বপন: ইতালিতে ‘মুকুটহীন সম্রাট’ ছিলেন লুৎফর রহমান খান। বাংলাদেশ এসোসিয়েশন ইতালির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি লুৎফর রহমান খানের দশম মৃত্যুবার্ষিকী। দশ বছর আগে ঠিক আজকের এই দিনে তিনি ‘না ফেরার দেশে’ পাড়ি জমান। সত্যিকার অর্থেই তিনি ছিলেন কমিউনিটিতে ‘পাইওনিয়ার’, হাজার হাজার প্রবাসীর নির্ভরযোগ্য ‘পথ প্রদর্শক’। ২০০৯ সালের ৩০ জুলাই সবাইকে কাঁদিয়ে রাজধানী রোমের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজণিত কারণে অনেকটা অকালেই জীবনাবসান ঘটে ইতালির মেহনতী জনতার সবচাইতে কাছের এই মানুষটির।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে সর্বোচ্চ ডিগ্রী নেয়া শেষে আশির দশকের মাঝামাঝি লুৎফর রহমান খানের রোমে আগমন। ঐ সময় ইতালিতে ছিল সীমিত সংখ্যক বাংলাদেশির বসবাস। অভিবাসীরা যখন নিজ নামে লাইসেন্স করে বৈধ ব্যবসা-বানিজ্য করার অনুমতি পেতো না দেশটিতে, তখন লুৎফর রহমান খান ইতালিয়ান ন্যাশনাল পার্লামেন্ট হাউজের সামনে টানা ১৭ দিন অনশন ধর্মঘট করে ন্যায়সঙ্গত দাবী আদায় করতে সক্ষম হন। এই বীর বাংলাদেশির সংগ্রামী আন্দোলনের সোনালী ফসল হিসেবে প্রবাসীরা প্রথমবারের মতো তখন নিজ নিজ নামে বৈধ ব্যবসা (লিগ্যাল বিজনেস) শুরু করে ইতালিতে। 

‘সাদা মনের মানুষ’ লুৎফর রহমান খান খেটে খাওয়া প্রবাসীদের সবচাইতে কাছের মানুষ হিসেবে বরাবরই সাদামাটা জীবন যাপন করেন ইতালিতে। যে কোন লোভ-লালসার উর্ধ্বে থেকে বিদেশ বিভুঁইয়ে আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন স্বদেশী ভাই-বোনদের কল্যাণে। অবিস্মরণীয় সব অবদান সত্বেও এই মুকুটহীন সম্রাটের স্মৃতির প্রতি যথার্থ সম্মান জানাতে বরাবরই উদাসীন ইতালীর বহুদা বিভক্ত বাংলাদেশ কমিউনিটি। রোমের বাংলাদেশ দূতাবাসের দায়িত্বহীনতাও এক্ষেত্রে নেক্কারজনক। জন্মস্থান বাংলাদেশের পাবনার বেড়া উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামে দাফন সম্পন্ন হয় লুৎফর রহমান খানের।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৯৯ বার

আপনার মন্তব্য