যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 05:32am

|   লন্ডন - 12:32am

|   নিউইয়র্ক - 07:32pm

  সর্বশেষ :

  মিয়ানমার কারও কথা শোনে না : পররাষ্ট্রমন্ত্রী   পরীক্ষা ছাড়া ভর্তিকে কেন্দ্র করে ঢাবিতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের হাতাহাতি   ১৮টি অমুসলিম উপাসনালয়ের অনুমোদন দিচ্ছে আরব আমিরাত   দেশে দুর্নীতি মহামারী আকার ধারণ করেছে : মওদুদ   লাইবেরিয়ায় ধর্মীয় স্কুলে আগুন, নিহত ৩০   ১৮ দিনেও খালেদা জিয়ার সাক্ষাৎ পাননি স্বজনরা, উদ্বেগ   নিউইয়র্কে ইন্টারন্যাশনাল সীরাত কনভেনশন শনিবার   নিউইয়র্কে বিয়ানীবাজার এডুকেশন এন্ড ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্টের ক্রিকেট টুনার্মেন্ট সম্পন্ন   ওয়াশিংটন ডিসিতে শুদ্ধ উচ্চারণ ও আবৃত্তি সংগঠন ‘সমস্বর’-এর আত্মপ্রকাশ   বাফলা চ্যারিটির ফান্ড রাইজিং ডিনার রবিবার   দক্ষিণ কোরিয়ার রাজনীতিবিদরা মাথা ন্যাড়া করছেন   বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আরো ভাগাভাগি হচ্ছে, গণমাধ্যমে আসছে না: আরেফিন সিদ্দিক   ‘জাবির অর্থ কেলেঙ্কারি ফাঁসকারী ছাত্রলীগ নেতারা হুমকির সম্মুখীন’   খালেদা কিছুই দেননি, হাসিনা আমাদের সম্মানিত করেছেন: আল্লামা শফী   রাখাইনে আরও ৬ লাখ রোহিঙ্গা গণহত্যার চরম ঝুঁকিতে : জাতিসংঘ

মূল পাতা   >>   বিনোদন

নিউইয়র্কে মিস নেপাল প্রতিযোগিতার বিচারক হলেন ইঞ্জিনিয়ার হানিপ

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-২৩ ১৪:৩০:১৯

 আপডেট: ২০১৯-০৮-২৩ ১৪:৩৩:৫৫

নিউজ ডেস্ক: নিউইয়র্কে নেপালিদের মন জয় করলেন পিপল এন টেকের প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার আবুবকর হানিপ। নর্থ আমেরিকার জনপ্রিয় আয়োজন মিস নেপাল প্রতিযোগিতায় প্রথমবারের মতো কোনো বাংলাদেশি হিসেবে বিচারকের আসন অলংকৃত করেন তিনি। শনিবার লং আইল্যান্ড সিটির মেলরোজ বলরুমে অনুষ্ঠিত মিস নেপাল নর্থ আমেরিকা ২০১৯-এ যুক্তরাষ্ট্র ও নেপাল থেকে আসা খ্যাতিমান ব্যক্তিত্বদের সাথে বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আবুবকর হানিপ।
আয়োজনে নর্থ আমেরিকার বিভিন্ন শহর থেকে ১৬ জন প্রতিযোগী অংশ নেন। এদের মধ্যে মিস নেপাল-এর মুকুট অর্জন করেন নিউইয়র্কের প্রতিযোগী শ্রীয়া গাজুরেল। প্রথম রানার আপ হন কানাডার ভ্যানকুভারের আস্থা পান্ডে ও দ্বিতীয় রানার আপ হন ম্যাচাচুসেটসের প্রতিযোগী কৃতী কেসি।
অনুষ্ঠানে পিপল এন টেকের আবুবকর হানিপ ছাড়াও নেপালি বিচারক ছিলেন মিস নেপাল ওয়ার্ল্ড ২০১৮ বিজয়ী শ্রীঙ্খলা খাতিওয়াদা, নেপাল কমিউনিটির সামাজিক উদ্যোক্তা রাজু শ্রেষ্ঠ, জনপ্রিয় নেপালি রক এন্ড রোল শিল্পী আদ্রিয়ান প্রধান, কমিউনিটি নেতা ও লামা একাউন্টিংয়ের প্রতিষ্ঠাতা নামগেল লামা এবং এটর্নি বাসু ডি ফুলারা।  
দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে শত শত প্রতিযোগী থেকে কয়েকদফা বাছাই করে ১৬ জনকে মিস নেপাল-এর গ্রান্ড ফিনালের জন্য মনোনীত করা হয়। এদের জন্য অনলাইনেও ভোট নেয়া হয়। হাজার হাজার নেপালি তাদের পছন্দের প্রতিযোগীকে ভোট দেন। সর্বশেষ বাছাইকৃত ১৬ জনকে বিভিন্ন পর্যায়ে গ্রুমিং শেষে প্রস্তুত করা হয় মূল মঞ্চের জন্য। গ্রান্ড ফিনালের কোরিওগ্রাফার ছিলেন মিস নেপাল ওয়ার্ল্ড ২০১০ মুকুট জয়ী সদিচ্ছা শ্রেষ্ঠ।
অনুষ্ঠানে তিন বিজয়ীর হাতে পুরস্কার তুলে দেন আবুবকর হানিপ। এ সময় বিজয়ীদের আরও পুরস্কৃত করেন টিভি সাংবাদিক ও উপস্থাপক হাসানুজ্জামান সাকী, এনআরবি কানেক্ট টিভির পরিচালক আরিফুল ইসলাম ও পিপল এন টেকের হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজার মিলন মনিরুজ্জামান।
অনুষ্ঠানে ইঞ্জিনিয়ার আবুবকর হানিপ বলেন, পিপল এন টেক যুক্তরাষ্ট্রে বিভিন্ন কমিউনিটির সাড়ে পাঁচ হাজার অভিবাসীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে ৮০ হাজার থেকে দুই লাখ ডলার বেতনে চাকরি দিয়েছে। তারা অনেকেই আগে অড জব করতেন। কিন্তু আজ তারা সুপ্রতিষ্ঠিত। তিনি জানান, নেপালি কমিউনিটির কয়েকশ শিক্ষার্থীকে পিপল এন টেক উন্নত বেতনে চাকরি পাইয়ে দিয়েছে।
মিস নেপাল নর্থ আমেরিকা প্রতিযোগিতায় ইঞ্জিনিয়ার আবুবকর হানিপ বিচারক হওয়ায় এবং পিপল এন টেক অনুষ্ঠানে তিন বিজয়ীকে আইটি স্কলারশীপ প্রদান করায় আয়োজকরা ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ভূঁয়সী প্রশংসা করেন। তারা বলেন, পিপল এন টেক ও ইঞ্জিনিয়ার হানিপ শুধু বাংলাদেশিদেরই নয়, অন্যান্য দেশের কমিউনিটির পাশাপাশি অসংখ্য নেপালিকে অড জব থেকে মুক্তি দিয়েছেন। নেপালিরাও এখন অনেকে পিপল এন টেক থেকে আইটি প্রশিক্ষণ নিয়ে ভাল বেতনে সম্মানজনক পেশায় নিজেদের নিয়োজিত করতে সক্ষম হয়েছেন। অনুষ্ঠানে নেপালি বিশিষ্ট ব্যক্তিরা তাদের বক্তৃতায় পিপল এন টেক ও ইঞ্জিনিয়ার আবুবকর হানিপকে এজন্য ধন্যবাদ জানান।    

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১০৩ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত