যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 02:07pm

|   লন্ডন - 08:07am

|   নিউইয়র্ক - 03:07am

  সর্বশেষ :

  নজরদারিতে ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপি জোটের নেতারা   হাত-পাবিহীন একজন ‍আলোকচিত্রীর স্বপ্ন ছোঁয়ার গল্প   এত কিছু করেও শেষ রক্ষা পাচ্ছেন না নাজমুল হুদা!   সাভারে আগুনে অর্ধশতাধিক ঘর পুড়ে ছাই   আমাকে উৎখাত করলে ব্রেক্সিট সহজ হবে না : থেরেসা মে   কোমর ব্যথায় করণীয়   ‘বেগম খালেদা জিয়া : হার লাইফ, হার স্টোরি’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন   আলোচনায় ইলিয়াস আলীর ছেলে ব্যারিস্টার আবরার   ড. কামালের কাছে মনোনয়ন ফরম জমা দিলেন রেজা কিবরিয়া   ভিডিও কনফারেন্সে প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন তারেক, আ.লীগের অভিযোগ   দেশ ছাড়ছেন ভেনেজুয়েলার সুন্দরীরা   জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ফ্রান্সজুড়ে বিক্ষোভ, নিহত ১   খাশোগি হত্যার পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই: ট্রাম্প   ‘একজনের কারণে তিস্তা চুক্তি হলো না’   চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালাস চেয়ে খালেদা জিয়ার আপিল

মূল পাতা   >>   বিনোদন

হালদা নিয়ে তিশার অভিজ্ঞতা

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-৩০ ১৪:৩৮:৩৯

নিউজ ডেস্ক: ১ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে তৌকীর আহমেদ পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘হালদা’। এতে বিশেষ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা। কেমন ছিল তার কাজের অভিজ্ঞতা, জানা যাক এই অভিনেত্রীর কাছ থেকে।

কেমন আছেন?
আমি খুবই ভালো আছি।

‘হালদা’ সিনেমায় আপনি হাসু চরিত্রে অভিনয় করেছেন, কাজের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?
কাজের অভিজ্ঞতা অবশ্যই অনেক ভালো। একটা ভালো গল্পে কাজ করতে কে না চায়। হালদার গল্পটা খুব সুন্দর।

তৌকীর আহমেদ ভাই অনেক ভালো এবং বড় আর্টিস্ট। সেই সঙ্গে মোশাররফ ভাই ছিলেন, দিলারা আন্টি, ফজলুর রহমান বাবু, জাহিদ ভাই ছিলেন। তৌকীর ভাই যত্ন নিয়ে খুব ভালো একটি কাজ করেছেন।

এখানে কাজ করে আমার খুবই ভালো লেগেছে। অনেক বড় ক্যানভাসে এবং কাস্টিং নিয়ে কাজটা হয়েছে।  ভালো চরিত্রে কাজ করতে পেরে আমি আনন্দিত।

এখানে আমি হাসু চরিত্রে কাজ করেছি। এতে হালদা নদীর প্রতিচ্ছবি হিসেবে মেয়েটিকে ব্যবহার করা হয়েছে। আশা করছি, দর্শকের ভালো লাগবে।

‘হালদা’ নিয়ে দর্শকের কেমন সাড়া প্রত্যাশা করছেন?
আমার ব্যক্তিগত প্রত্যাশা অনেক ভালো। কারণ আমি সিনেমা করি দর্শকের ভালোলাগার জন্য। আমার আজকের অবস্থানটা তৈরি করে দিয়েছেন দর্শক। আমি চেষ্টা করেছি ভালো কাজ করার। সিনেমা মুক্তি পাওয়ার আগে তো কিছুই বলা যায় না। আশা করছি, দর্শক আমার চরিত্রটা পছন্দ করবেন।

সম্প্রতি আপনি কাঠমান্ডুতে গিয়েছিলেন, সেখানকার অভিনেত্রী মনীষা কৈরালার সঙ্গে দেখা করেছেন। অনেক ছবি তুলেছেন.. অভিজ্ঞতাটা যদি শেয়ার করেন?
আমি গিয়েছিলাম মূলত বেড়াতে। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর একটা অনুষ্ঠান ছিল চলচ্চিত্র উৎসবের‘একাদেশমা আন্তর্জাতিক শর্টফিল্ম ফেস্টিভ্যাল’।

সেখানে তিন দিনের অনুষ্ঠানের স্বল্পদৈর্ঘ্য বিভাগে বিচারক হিসেবে বলিউড অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা ছিলেন। ফারুকীও ছিল। সেই সুযোগে কাঠমান্ডু শহরটা ঘুরেছি। মনীষা কৈরালার সঙ্গে দেখা হয়েছে। কথা বলেছি, ছবি তুলেছি। খুব ভালো একটা সময় কেটেছে।

১৯৯৫ তে বিটিভির নতুনকুঁড়িতে আপনি শুরু করে এখন রূপালী পর্দায় কাজ করছেন। এই জার্নিটা কেমন?
নতুনকুঁড়িতে আমি গোল্ড কাপ পেয়েছিলাম। সেই ছোট আমি এখন অনেক বড় হয়েছি, বড় পর্দায় কাজ করছি। মানুষ আমার কাজ দেখে পছন্দ করছে। এটা খুবই ভালোলাগে। নিঃসন্দেহে এই জার্নিটা বেশ ভালো। এক পা দু পা করে এগিয়ে এসেছি। ভালো লাগে।

এই মুহূর্তে আর কী কাজ করছেন?
এখন কিছু কাজ করছি। তারচেয়ে বরং হালদা সিনেমার প্রচারণা নিয়ে সময় দিচ্ছি। অন্য কাজের কথা এই মুহূর্তে ভাবছি না।

নুসরাত ইমরোজ তিশাকে মানুষ আলাদাভাবে চেনে, জানে ও পছন্দ করে; এটা ভেবে কী অনুভূতি হয়?
আমি মনে করি, এটা আল্লাহর অশেষ মেহেরবানী। মানুষ যে আমাকে আলাদাভাবে চেনে এবং ভালোবাসে, এটাকে আমি আল্লাহর বিশেষ ব্লেসিং হিসেবেই দেখি।


এলএবাংলাটাইমস//এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৫৬১ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত