যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ১৮ Jul, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 12:40am

|   লন্ডন - 07:40pm

|   নিউইয়র্ক - 02:40pm

  সর্বশেষ :

  জনসম্মুখে এলো থাইল্যান্ডের ক্ষুদে ফুটবলাররা   ফ্লোরিডায় যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা   লাঞ্ছনা-হামলার বিচার না হলে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা   দুর্নীতিবাজদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিচ্ছেন অর্থমন্ত্রী : মির্জা ফখরুল   আগাম নির্বাচনের হুমকি থেরেসা মে’র সমর্থকদের   উড়ো চিঠিতে ইউজিসি চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকি   বাংলাদেশ ব্যাংকের গাফিলতি পেলে দায় সরকারের : অর্থ প্রতিমন্ত্রী   বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত হচ্ছেন আর্ল রবার্ট মিলার   বৃহত্তর ঢাকা সমিতি ইতালির বর্ণাঢ্য শিক্ষা সফর অনুষ্ঠিত   নিজের বেতন কমানোর ঘোষণা দিলেন মেক্সিকোর নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট   মুসলিম কিশোরদের ধর্মীয় শিক্ষা নিষিদ্ধ করল চীন   দেশ থেকে বছরে ১ লাখ কোটি টাকা পাচার হচ্ছে : মাহমুদুর রহমান মান্না   খালেদার অসুস্থতা নিয়ে বিএনপি নোংরা রাজনীতি করেছে : কাদের   মক্কায় বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু   পুলিশবাহী মাইক্রো বাসের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত ৩

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

ব্রেক্সিট নিয়ে টেরিজা মে’র সঙ্গে মতবিরোধ, ২ মন্ত্রীর পদত্যাগ

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-০৯ ০১:৫৭:৪১

নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সঙ্গে ‘মতবিরোধের’ কারণে পদত্যাগ করেছেন ব্রেক্সিট বিষয়ক মন্ত্রী ডেভিড ডেভিস ও তার দপ্তরের উপমন্ত্রী স্টিভেন বেকার। ব্রেক্সিট পরিকল্পনা মন্ত্রিসভার থেরেসা অনুমোদন পাওয়ার মাত্র দুই দিনের মাথায় আজ  রোববার পদত্যাগ করলেন তারা।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার বিষয়ে দর কষাকষির দায়িত্ব দিয়ে ডেভিড ডেভিসকে ২০১৬ সালে মন্ত্রিসভায় আনেন টেরিজা মে।

পদত্যাগপত্রে ডেভিস লিখেছেন, প্রধানমন্ত্রী মে যে নীতি আর কৌশল নিয়ে অগ্রসর হচ্ছেন তাতে যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছাড়তে পারবে বলে তার মনে হচ্ছে না।

জবাবে থেরেসা মে লিখেছেন, শুক্রবার মন্ত্রিসভার সম্মতি পাওয়া প্রস্তাবকে যে ভাষায় ডেভিস বর্ণনা করেছেন, তার সঙ্গে তিনি একমত নন।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ডেভিস সরে যাওয়ায় তিনি দুঃখ পেয়েছেন। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে আসার জন্য যে দায়িত্ব তিনি এতদিন পালন করেছেন, সেজন্য তাকে ধন্যবাদ জানাতে চান।

ব্রেক্সিট কী?
২০১৬ সালের গণভোটে যুক্তরাজ্যের জনগণ ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে ভোট দেয়। এই বিচ্ছেদকেই বলা হচ্ছে ব্রেক্সিট, যা ২০১৯ সালের মার্চের মধ্যে শেষ করতে দুই পক্ষের মধ্যে দর কষাকষি চলছে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৩৫৫ বার

আপনার মন্তব্য