যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 07:26am

|   লন্ডন - 01:26am

|   নিউইয়র্ক - 08:26pm

  সর্বশেষ :

  নিউইয়র্কে নববর্ষ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের শুভেচ্ছা বিনিময়   প্যারেডের থ্রিডি প্রদর্শনীর মাধ্যমে বাফলার ফান্ডরাইজিং অনুষ্ঠিত   নিউ ইয়র্কে মুসলমানদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র, গ্রেপ্তার ৪   আরব আমিরাতে অবৈধ অভিবাসীকে আশ্রয় দিলে এক লাখ দিরহাম জরিমানা   টয়লেট টিস্যুতে ‘আল্লাহ’, বিক্ষুব্ধ যুক্তরাজ্যের মুসলিমরা   ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচন   বিশ্বের শীর্ষ ১০০ চিন্তাবিদের তালিকায় শেখ হাসিনা   শান্তি ও মানবাধিকারের অনন্য আশ্রয়ভূমি ফ্রান্স   কারাগারে ‘মারা গেছেন’ মসজিদে নববীর এক ইমাম   ক্যালিফোর্নিয়ায় বাংলাদেশি খুদে শিক্ষার্থীর চমক, ৯ বছরেই কলেজে   আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে মোস্তাফিজ   সালমান খানকে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন তিনি   কৃষ্ণ সাগরে দুই জাহাজে আগুন, নিহত ১০   প্যাটারসন সিটির পাবলিক স্কুলে হালাল ফুড   আর্জেন্টাইন ফুটবলারসহ দুজনকে নিয়ে বিমান নিখোঁজ

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

ইস্তাম্বুলের জঙ্গলে জামাল খাসোগির লাশ!

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-১০-১৮ ১৬:০০:৪০

নিউজ ডেস্ক: তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত বেলগ্র্যাড জঙ্গলে তুরস্কের একটি অনুসন্ধানকারী দল বৃহস্পতিবার সকালে সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগির লাশের সন্ধানে অভিযান চালিয়েছে। খবর তুর্কি দৈনিক ইয়ানি সাফাকের।

সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যার পর হত্যাকারীরা যে গাড়ি নিয়ে বের হয়েছে সেটি এই বেলগ্রাড জঙ্গলের এদিকে এসছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

এর আগে সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনসুলেটর ভেতরেই হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে তুর্কি পুলিশ সূত্র ও সরকারি প্রসিকিউটর অফিসে কর্মকর্তারা।

সূত্রটি বলেছে, তারা একটি ১১ মিনিটের অডিও রেকর্ডিংয়ের মাধ্যমে জানতে পেরেছেন যে সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর খাশোগিকে মারধর করা হয়েছিল। রেকর্ডিংটি কনস্যুলেট বিল্ডিংয়ের  ‘এ’ এবং ‘বি’ ব্লক দুটি থেকে পাওয়া স্পষ্ট কণ্ঠস্বর রয়েছে। যা ভবনটির প্রবেশদ্বারের অংশ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

তুরস্কের কর্তৃপক্ষ কনস্যুলেট এবং কনসাল জেনারেলের বাসভবন অনুসন্ধানের একদিন পর তথ্যটি আসে। এছাড়া অনুসন্ধানের সময় সালাহ মুহাম্মদ আল-তুউবিগী যিনি নাইফ আরব ইউনিভার্সিটির একটি ময়না তদন্ত বিশেষজ্ঞ তার আঙ্গুলের ছাপ পেয়েছেন।

খাশোগিকে হত্যার জন্য ১৫ সদস্যের যে সৌদি হিট স্কোয়াড গঠন করা হয়েছিল তিনি তাদের মধ্যে অন্যতম একজন। তার আঙ্গুলের ছাপ কনস্যুলেটে একটি বৈদ্যুতিক সকেট চারপাশে পাওয়া যায়।

‘সি-ব্লক’ নামে কনস্যুলেট এলাকার বিশেষ মনোযোগ দেওয়া হয়েছে।এটা শুধুমাত্র কূটনৈতিক কর্মকর্তাদের জন্য নির্দিষ্ট ছিল। কনসুলেটের সি-ব্লকের ভেতরেই খাসোগিকে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে শক্ত প্রমাণ পাওয়া গেছে। এছাড়া এই ব্লক থেকেই হিট স্কোয়াডের ১৫ জন থেকে ৬ জনের আঙ্গুলের ছাপ পাওয়া গেছে। 

পাবলিক প্রসিকিউটর অফিসে সূত্র জানায়, কেউ জাল পাসপোর্টে তুরস্কে প্রবেশ করেনি। এদের বেশ কয়েকজন কূটনৈতিক পাসপোর্ট ব্যবহার করে তুরস্কে এসেছেন বলে মনে করা হয়।

সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যাকাণ্ডটি সাত মিনিটে সম্পন্ন হয়েছে এবং তাকে জীবিত থাকাবস্থায়ই কেটে টুকরো টুকরো করা হয়। তুর্কি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে এ কথা জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক অনলাইন সংবাদ মাধ্যম মিডলইস্ট আই।

অনলাইনটি বলছে, খাসোগি হত্যাকাণ্ডের সময় রেকর্ডকৃত অডিও সম্পূর্ণ শুনেছেন এমন একজন সূত্র তাদের এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্রে প্রকাশ, খাসোগিকে ইস্তাম্বুলের সৌদি দূতাবাসের কনসুল জেনারেলের অফিস থেকে টেনেহিঁচড়ে পরবর্তী আরেকটি রুমের একটি টেবিলে নেয়া হয়। ভবনটির নিচে থাকা লোকজন এ সময় তার কান্না শুনতে পান।

‘তাকে (খাসোগিকে) জিজ্ঞাসাবাদের কোনো উদ্যোগ ছিল না, বরং তাকে হত্যা করতেই তারা এসেছিল’, জানায় সূত্রটি।

উল্লেখ্য, খাসোগিকে হত্যা করতে ১৫ জন সেদিন সৌদি দূতাবাসে এসেছিল বলে বিভিন্ন সূত্রে খবর বেরিয়েছে। তাদের একজন সালাহ মুহাম্মদ আল তুবাইগি বলে চিহ্নিত করা গেছে, যিনি সৌদি নিরাপত্তা বিভাগের ফরেনসিক প্রধান। এদিন তারা একটি প্রাইভেট বিমানে করে আঙ্কারায় এসে নামেন।

খাসোগি ২ অক্টোবর প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্রের জন্য তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে যান। সেদিনই ওই ব্যক্তিরাও সেখানে প্রবেশ করেন।

সূত্রটি আরো জানিয়েছে, কান্না থামাতে খাসোগিকে ইনজেকশন দেয়া হয়। এরপর তিনি নিরব হয়ে যান। খাসোগি জীবিত থাকতেই তার দেহ কেটে টুকরো করতে থাকেন তুবাইগি। এ হত্যাকাণ্ডটি সময় নেয় মাত্র সাত মিনিট।

তুবাইগি যখন দেহটি কাটছিলেন তখন তিনি মিউজিক শুনছিলেন। তখন দলের অন্য সদস্যদেরও তিনি তখন গান শুনতে বলেন।

‘আমি যখন এ কাজ করি তখন আমি গান শুনি। আপনারাও এটা করতে পারেন’, তুবাইগির এ কথাগুলোও রেকর্ড পাওয়া গেছে বলে সূত্রটি জানিয়েছে।

তিন মিনিটের এ কথোপকথনের অডিওটি তুরস্কের সংবাদপত্র ডেইলি সাবাহকে দেয়া হলেও তারা এখনো তা প্রকাশ করেনি বলে সূত্রের দাবি।

২০০৪ সালে লন্ডনভিত্তিক সৌদি সংবাদপত্র আশারাক আল-আউসাতকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তুবাইগি একটি মোবাইল ক্লিনিকের কথা জানিয়েছিলেন যেখানে হজ করতে এসে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের কিভাবে ৭ মিনিটে ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়।

সংবাদপত্রটি জানিয়েছিল, ওই ক্লিনিকটি মূলত তুবাইগির ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হয় এবং এটি সাধারণত অপরাধমূলক স্থানে সংঘটিত হত্যাকাণ্ডের ময়না তদন্ত করে থাকে।

গত ২ অক্টোবর দূতাবাসটিতে প্রবেশের পর নিখোঁজ হন খাসোগি। কিন্তু দূতাবাস থেকে জানানো হয় তিনি প্রবেশের কিছুক্ষণ পরই বের হয়ে গেছেন। অবশ্য তারা এর সপক্ষে তেমন কোনো প্রমাণ উপস্থাপন করতে পারেনি। তারা বলছে সে সময় সিটিটিভি ক্যামেরাগুলো কাজ করছিল না।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১৪০৪ বার

আপনার মন্তব্য