যুক্তরাষ্ট্রে আজ বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 12:44am

|   লন্ডন - 06:44pm

|   নিউইয়র্ক - 01:44pm

  সর্বশেষ :

  প্রার্থিতা বিষয়ে রিট : তৃতীয় বেঞ্চের বিচারপতির প্রতি খালেদার অনাস্থা   নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করবে না সরকার: কাদের   তুরস্কে ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ৯, আহত ৪৭   ইলিয়াসপত্নী লুনার মনোনয়ন স্থগিত   মনে হচ্ছে পুলিশ ধানের শীষের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী : বিএনপি   নাসার অ্যাপস প্রতিযোগিতায় শীর্ষ চারে বাংলাদেশ   চট্টগ্রামে আমীর খসরুর গণসংযোগকালে হামলা   নির্বাচন কমিশন থেকে ফেরার পথে বিএনপি নেতা আটক   ব্রাজিলে গির্জায় গোলাগুলি, নিহত ৫   ২৪ ডিসেম্বর মাঠে নামছে সেনবাহিনী   আটকে গেল ২ বিএনপি নেতার নির্বাচন   নেতৃত্ব হারাতে পারেন থেরেসা মে   টুঙ্গিপাড়া থেকে নির্বাচনী প্রচার শুরু শেখ হাসিনার   অনুমোদন পেল বেঙ্গল গ্রুপের নতুন ব্যাংক   দাবানলে সর্বহারা মার্কিন মাহিলার পাশে বাফলা

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

কানাডায় মুসলিম বিদ্বেষ বেড়েছে

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-১২-০১ ০৪:১৯:০৮

নিউজ ডেস্ক: কানাডায় গত বছর হেট ক্রাইম বা ঘৃণাজনিত অপরাধ ৪৭ ভাগ বেড়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির পরিসংখ্যান সংস্থার প্রকাশিত তথ্যানুসারে, ওই অপরাধের মূল লক্ষ্যবস্তু হয়েছে মুসলমান, ইহুদি এবং কৃষ্ণাঙ্গ মানুষজন। খবর রয়টার্সের।

স্ট্যাটিসটিকস কানাডার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুসলমানদের লক্ষ্য করে ২০১৭ সালে ঘৃণাজনিত অপরাধ সবচেয়ে বেশি বেড়েছে। ওই বছর দেশটির কিউবেক প্রদেশে একটি মসজিদে গণ গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে।

মুসলমানদের লক্ষ্য করে ঘৃণাজনিত অপরাধ দ্বিগুণ বেড়ে ১৩৯ থেকে ৩৪৯ হয়েছে। যেখানে কৃষ্ণাঙ্গদের লক্ষ্য করে ঘৃণাজনিত অপরাধ ৫০ শতাংশ বেড়ে ২১৪ থেকে ৩২১ হয়েছে। আর ইহুদিদের বিরুদ্ধে ঘৃণাজনিত অপরাধ ২২১ থেকে বেড়ে ৩৬০ হয়েছে।

তবে এ ধরনের অপরাধ বৃদ্ধির প্রবণতা ২০১৮ সালেও অব্যাহত রয়েছে কি না তা জানা যায়নি।

ন্যাশনাল কাউন্সিল অব কানাডিয়ান মুসলিমস-র নির্বাহী পরিচালক ইহসান গার্দি বলেছেন, এই সংখ্যা দেখে আমরা হতবাক হয়ে গেছি এবং একইসঙ্গে আমরা অবাকও হইনি। হঠাৎ করেই এ ধরনের অপরাধ সংঘটন বৃদ্ধি পায়নি।

অ্যাডভোকেসি গ্রুপ অ্যান্টি-হেট নেটওয়ার্কের একজন বোর্ড সদস্য আমিরা এলগাওয়াবি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে যা ঘটছে কানাডা তা থেকে মুক্ত নয়। সীমান্ত দিয়ে কেবল মানুষ এবং পণ্যই নয় ধ্যান-ধারণাও আসে।

উল্লেখ্য, গত বছর কুইবেকের মসজিদে ওই নির্বিচারে গুলিবর্ষণের পর দেশটির সরকার ইসলামভীতি নিয়ে কাজ করতে একটি প্রস্তাব পাস করে। এরপর দেশটিতে মুসলিমবিরোধী মনোভাব আরও বৃদ্ধি পায়।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৪৯৫ বার

আপনার মন্তব্য