যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ১৯ অগাস্ট, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 01:23am

|   লন্ডন - 08:23pm

|   নিউইয়র্ক - 03:23pm

  সর্বশেষ :

  পদ্মা সেতু নির্মাণের মেয়াদ ও ব্যয় দুটোই বাড়ছে   ডেঙ্গুতে আরো ৫ জনের মৃত্যু   ৩০ বছরে তলিয়ে যেতে পারে জাকার্তা   গ্রীনল্যান্ড বিক্রির প্রস্তাব হাস্যকর : ড্যানিশ প্রধানমন্ত্রী   গ্রীনল্যান্ড বিক্রির প্রস্তাব হাস্যকর : ড্যানিশ প্রধানমন্ত্রী   ভার্জিনিয়াতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিনা মূল্যে স্বাস্থ্যসেবা   গভীর চক্রান্তে হজ্জ, মুসলিম সেজে বোরকা পরে মদিনায় মহিলা সেকশনে পুরুষ ই’হুদী চর   পুড়ে যাওয়া বস্তি যেন দর্শনীয় স্থান!   ডেঙ্গু: চব্বিশ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১৭০৬   আসামের এনআরসি ও কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল: নেপথ্যে মোদির মুসলিমবিদ্বেষ   কাশ্মীর ইস্যুতে আরব দেশগুলোর নীরবতার নেপথ্য কারণ কী?   কাবুলে বিয়ের অনুষ্ঠানে হামলা, নিহত ৬৩   মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর সোহেল’র ইন্তেকাল   ভারতের পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডার এখন ফ্যাসিস্ট মোদির হাতে : ইমরান খানের হুঁশিয়ারি   রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসীদের সাথে গুলি বিনিময়ে এক সেনাসদস্য নিহত

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

যুক্তরাষ্ট্রে ফাঁসির সময় পাশে ইমাম চেয়েও পাননি দণ্ডিত মুসলিম

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০২-০৯ ১২:০১:১২

নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের অ্যালাবামা অঙ্গরাজ্যে ফাঁসির সময় পাশে ইমাম চেয়েও পাননি এক দণ্ডিত মুসলিম।

বৃহস্পতিবার ৪২ বছর বয়সী ডোমিনিক ‘হাকিম’রে নামের এই ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সময় তার পাশে ইমাম রাখার অনুরোধ দেশটির সুপ্রিম কোর্ট ৫-৪ ভোটে প্রত্যাখ্যান করেন বলে জানিয়েছে ‘আল জাজিরা’।

রে’র আইনজীবীদের যুক্তি, অ্যালাবামার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর নীতি খ্রিস্টানদের অনুকূলে। কারণ এই নীতি অনুসারে কোনও খ্রিস্টানের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সময় তার পাশে একজন যাজক থাকতে পারেন। দণ্ডিত ব্যক্তির মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত তিনি তার পাশে থাকতে এবং প্রার্থনা করতে পারেন।

এই বিষয়ে ‘কাউন্সিল অন আমেরিকান ইসলামিক রিলেশন্স’র অ্যালাবামা শাখার সরকার বিষয়ক সমন্বয়ক আলি মাসুদ জানান, এক্ষেত্রে অন্য উপায় অবলম্বন করা যেতো।

তিনি টেলিফোনে কাতার-ভিত্তিক গণমাধ্যমটিকে বলেন, একদিকে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত খ্রিস্টানরা জীবনের শেষ মুহূর্তে ধর্মীয় উপদেশ শুনতে পারবে। অন্যদিকে মুসলিমরা পারবে না। আমরা মনে করি এটা এক ধরনের ধর্মীয় বৈষম্য।

রে’র মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের বিষয়ে ‘ডিপার্টমেন্ট অব কারেকশন্স’র একজন মুখপাত্র ইমেইল বার্তায় রয়টার্স নিউজ এজেন্সিকে জানান, স্থানীয় সময় রাত ১০টা ১২ মিনিটে প্রাণনাশক ইনজেকশন প্রয়োগের মাধ্যমে তার মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়। তাৎক্ষণিক আর কিছুই জানানো হয়নি।

বার্মিংহাম নিউজসহ একাধিক গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, একজন ইমাম পাশের রুম থেকে তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া দেখেন। সরকার পক্ষের আইনজীবীরা জানান, নিরাপত্তার জন্য শুধু কারাগারের কর্মীদেরকে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সময় থাকার অনুমতি আছে।

রে’কে ১৯৯৯ সালে ১৫ বছর বয়সী টিফ্যানি হারভিলে নামের এক কিশোরীকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। এই কিশোরী ১৯৯৫ সালের জুলাই মাসে তার বাসা থেকে নিখোঁজ হয়।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৭৮৪ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত

সাম্প্রতিক খবর