যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ২১ অগাস্ট, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 01:10am

|   লন্ডন - 08:10pm

|   নিউইয়র্ক - 03:10pm

  সর্বশেষ :

  ‘মৃত’ চিতাবাঘের ছবি তুলতে গিয়ে!   সিটি করপোরেশনের ওষুধ মশা সন্তান উৎপাদন করছে: রিজভী   গ্রেনেড হামলার দায় খালেদা জিয়া এড়াতে পারেন না : তথ্যমন্ত্রী   ইহুদিরা অত্যন্ত আনুগত্যহীন: ট্রাম্প   কাশ্মীরে খুলে দেওয়া হয়েছে স্কুল, শিক্ষার্থী নেই   ঢাকায় ডেঙ্গু রোগী কমেছে ২ শতাংশ   মর্মে মর্ম ধ্বনি’-নিয়ে সুজিত মোস্তফা আসছেন সিডনীতে   মিয়ানমারে প্রচণ্ড সংঘর্ষ, নিহত ১৯ জন   বাংলাদেশ বুদ্ধিষ্ট সোসাইটি অফ ক্যালিফোর্নিয়ার নতুন কমিটি গঠিত   ওষুধে লাভ হয় না, আল্লাহ আমাদের বাঁচাচ্ছে: হাইকোর্ট   প্রধানমন্ত্রীকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ মোদির   বুধবার ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার ১৫তম বার্ষির্কী   হিন্দুদের নিয়ে মন্তব্য করে মালয়েশিয়ায় তোপের মুখে জাকির নায়েক   আমি একজন ভারতীয় হিসেবে গর্বিত নই, সাক্ষাৎকারে অমর্ত্য সেন   ইটালির প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

পদত্যাগ করলেন থেরেসা মে

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৬-০৮ ১০:৪৬:৫৭

নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন দল কনজারভেটিভ পার্টির প্রধানের পদ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগ করেছেন থেরেসা মে। স্থানীয় সময় শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে দল থেকে সরে দাঁড়ান তিনি। ফলে নিয়মানুযায়ী প্রধানমন্ত্রী পদও আর থাকছে না তার।

তবে এখনই প্রধানমন্ত্রীত্ব ছাড়ছেন না মে। কনজারভেটিভ পার্টি তাদের নতুন নেতা নির্বাচন না করা পর্যন্ত তিনি এই দায়িত্ব পালন করে যাবেন। কয়েক সপ্তাহ আগেই পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছিলেন মে। সে সময় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বেক্সিট ইস্যু সফল করতে ব্যর্থ হওয়ার অনুতাপ প্রকাশ করেছিলেন তিনি।

তিনবার বেক্সিট ভোটে হেরে যাওয়ায় ব্যাপক চাপের মুখে ছিলেন মে। এদিকে, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন জানিয়েছেন, থেরেসা মে সরে যাওয়ার পর তিনি নির্বাচনে লড়বেন। অনেকদিন ধরেই ডাউনিং স্ট্রিট থেকে প্রধানমন্ত্রী মের পদত্যাগ দাবি করে আসছেন টোরি এমপিরা।

মে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণার পর কনজারভেটিভ দলের ১১ এমপি দলীয় প্রধান হওয়ার লড়াইয়ে নেমেছেন। যিনি জিতবেন তিনিই হবেন দেশটির পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী।

জুলাইয়ের শেষের দিকে নতুন দলীয় প্রধানের নাম ঘোষণা হতে পারে। এই সময়ের মধ্যে মে দলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

এর আগে পদত্যাগের ঘোষণায় মে বলেছিলেন, বেক্সিট সফল করতে আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। কিন্তু পর পর তিনবার ব্যর্থ হয়েছি। এছাড়া গত মে মাসে টোরি এমপিদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী মের এক বৈঠকের পরই পদত্যাগের বিষয়ে সম্মতি জানান তিনি। সে সময়ই পরবর্তী নির্বাচনের সময়সীমাও জানিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মে।

গত বছরের শেষের দিকে একটি আস্থা ভোটে থেরেসা মের দল কনজারভেটিভ পার্টির এমপিদের ভোটে কোন রকমে উতরে গিয়েছিলেন তিনি। সামান্য ভোটের ব্যবধানে তিনি জয়ী হয়েছিলেন।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৭৫ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত