যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 12:16pm

|   লন্ডন - 06:16am

|   নিউইয়র্ক - 01:16am

  সর্বশেষ :

  দেশের বেকার সমস্যা সমাধানে বিদেশিকর্মী কমানোর দাবি ডাকসু ভিপির   পাপিয়া সম্পর্কে তথ্য দিচ্ছেন ভুক্তভোগীরা   এবার ইরানের ভাইস প্রেসিডেন্ট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত   খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর   লেখক-সাংবাদিক মাওলানা রশীদ আহমদ এর লেখা দু'টি বই এখন বাজারে।   করোনা আতঙ্কে ওমরাহ যাত্রীদের প্রবেশ স্থগিত করল সৌদি আরব   বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে ভারত ছাড়ার নির্দেশ   শচীন আমাকে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় ফেলেছেন: ইনজামাম   শপথ নিলেন আতিক-তাপস   যুক্তরাষ্ট্রের উইসকোনসিন রাজ্যে বিয়ার কোম্পানিতে বন্দুক হামলা, নিহত ৬   দিল্লিতে মৃত্যুর মিছিল, মৃতের সংখ্যা ৩৪   দিল্লিতে মুসলামনের ওপর হামলা, ৮৫ বছরের আকবরিকেও পুড়িয়ে মারল   মোদিকে আমন্ত্রণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতি অবমাননা: আসিফ নজরুল   দিল্লিতে সহিংসতায় আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানো সেই বিচারপতিকে মধ্যরাতে বদলী করা হলো   পিলখানার হত্যাকাণ্ডে খালেদার সম্পৃক্ততা পাওয়া যাবে: কাদের

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

ডেথ সার্টিফিকেটও পাচ্ছে না কাশ্মীরিরা

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৯-০৬ ১৫:০৭:৪০

নিউজ ডেস্ক: ৩৭০ ধারা বাতিলের পর থেকেই কাশ্মীরের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ হচ্ছে। এসব বিক্ষোভ দমাতে নির্বিচারে গুলি ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ছে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী। সাথে চলছে লাঠিপেটা। এসব ঘটনায় গত ১ মাসে বেশ কয়েকজন কাশ্মীরির মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে বহু মানুষ।

আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হলেও যাদের মৃত্যু হচ্ছে তাদের ডেথ সার্টিফিকেট দেওয়া হচ্ছে না হাসপাতাল থেকে। কেন্দ্রীয় সরকারের নিষেধাজ্ঞার কারণেই কাশ্মীরের কোনো হাসপাতাল নিহতেদের ডেথ সার্টিফিকেট দিতে পারছে না।

মাথায় জখম নিয়ে শ্রীনগরের ‘শের-ই কাশ্মীর ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্স’ (এসকেআইএমএস)-এ ভর্তি ছিল সৌরার আসরার আহমেদ খান (১৭)। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ভেন্টিলেশনে দেওয়া হয়। তার পরেও বাঁচানো যায়নি আসরারকে।

বুধবার ভোরে তার দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। স্থানীয় কবরস্থানে বিশেষ নিরাপত্তায় পরিবারের কয়েকজন সদস্যের উপস্থিতিতে দাফনও হয়। কিন্তু হাসপাতাল থেকে কোনো ডেথ সার্টিফিকেট দেওয়া হয়নি। পুরনো কাশ্মীরের বিস্তীর্ণ এলাকায় কার্ফু জারি করে পুলিশ ভ্যানে দেহ নিয়ে যাওয়া হয় কবরস্তানে। পরিবারকে বলে দেওয়া হয়, সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কোনো কথা বলা যাবে না।

কিন্তু কী ভাবে জখম হয়েছিল একাদশ শ্রেণির ছাত্র আসরার? স্থানীয়রা জানাচ্ছেন, ৫ অগস্ট ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করা হয়, আর তার পরের দিন সৌরায় বিক্ষোভ দেখাতে রাস্তায় নামেন মানুষ। কেউ পাথর ছোড়েনি, আগুন দেয়নি। শুধুই স্লোগান দিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছিল। নিরাপত্তা বাহিনী হঠাৎই কাঁদানে গ্যাস ছুড়তে থাকে। কাঁদানে গ্যাসের একটা গোলা খুব কাছ থেকে মাথায় লাগার পরে লুটিয়ে পড়ে আসরার। তবে স্থানীয়দের এই দাবি মানছে না প্রশাসন।

সেনা বাহিনীর ১৫ নম্বর কোরের জিওসি-র সঙ্গে যৌথ সাংবাদিক বৈঠকে পুলিশের এডিজি (আইনশৃঙ্খলা) মুনির খান বলেন, ৪ অগস্টের পর থেকে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে কোথাও কোনো অসামরিক নাগরিক মারা যাননি। আমি নিশ্চিত, বিক্ষোভকারীদের ছোড়া ইটেই জখম হয়েছিল আসরার।

ডাক্তাররা অবশ্য জনান্তিকে বলছেন, কাঁদানে গ্যাসের গোলার ঘায়ে আসরারের মাথার একটা দিক থেঁতলে গিয়েছিল। তবে প্রশাসনের নির্দেশে তার পরিবারকে ডেথ সার্টিফিকেট দেওয়া হয়নি।

আসরারের দেহ নিয়ে যাতে বিক্ষোভ না-হয়, তার জন্য পুরনো কাশ্মীরের একটা বড় এলাকা জুড়ে এ দিন কার্ফু জারি করা হয়। এলাকায় ঢোকার সব রাস্তায় চেকপোস্ট বসানো হয়। বাইরের লোক এবং সাংবাদিকদের ওই এলাকায় ঢোকা নিষিদ্ধ করা হয়।

আসরারের ভাই শাকির খান বলেন, সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলে আমরা বিপদ বাড়াতে চাই না। এখনও ওরা দেহ কেড়ে নিতে পারে। ও মারা গিয়েছে ,আত্মীয়রা অনেকেই জানে না।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১৪৬ বার

আপনার মন্তব্য

সাম্প্রতিক খবর