যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 08:09am

|   লন্ডন - 02:09am

|   নিউইয়র্ক - 09:09pm

  সর্বশেষ :

  বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের দৃষ্টান্ত নেই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী   সেনাপ্রধানসহ মিয়ানমারের ৪ কর্মকর্তার ওপর ফের মার্কিন নিষেধাজ্ঞা   দিল্লির দূষণ নিয়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামির অবাক করা বক্তব্য   নাগরিকত্ব বিলের প্রতিবাদে উত্তাল ত্রিপুরা, মোবাইল-ইন্টারনেট সেবা বন্ধ   নিউ জার্সিতে বন্দুকধারীর গুলিতে পুলিশসহ ৬ জন নিহত   সান দিয়াগোতে বিজয় মেলা আগামী শনিবার   প্রথম দিনের শুনানিতে আদালতে চুপচাপ সু চি   ভারতে ভিসার অতিরিক্ত সময় থাকলে বাংলাদেশি মুসলিমদের জরিমানা ২১০০০, হিন্দুদের ১০০   গণতান্ত্রিক দেশের তালিকায় নেই বাংলাদেশ   নো এনআরসি, নো ডিভাইড অ্যান্ড রুল: মমতা   ৩৮ আরোহী নিয়ে চিলির বিমান নিখোঁজ   ছাত্রদল সন্দেহে ২ শিক্ষার্থীকে হল থেকে বের করে দিল ছাত্রলীগ   নায়ক থেকে খলনায়ক সু চি   ‘সু চির জন্য দোয়া করতাম, তিনি আজ খুনিদের পক্ষে’   খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে সিএনএন ভবনের সামনে ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির বিক্ষোভ

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

মোদির কাছে রাজনৈতিক আশ্রয় চাইলেন পাকিস্তানি রাজনীতিক

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-১১-২১ ১১:৫৭:১০

নিউজ ডেস্ক: রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে আবেদন করেছেন যুক্তরাজ্যে নির্বাসিত পাকিস্তানের মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্টের (এমকিউএম) প্রধান আলতাফ হোসেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্প্রচারিত লন্ডনের বাড়ি থেকে দেয়া এক ভাষণে ভারত সরকারের কাছে এ অনুরোধ জানান তিনি।

চলতি মাসের প্রথমদিকে দেয়া ওই ভাষণে নিজের পাশাপাশি সহযোগীদেরও ভারতে রাজনৈতিক আশ্রয় কামনা করেন করাচিভিত্তিক রাজনৈতিক এ সংগঠনটির নির্বাসিত এ নেতা।

৯ নভেম্বর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্প্রচারিত ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, যদি ভারত ও প্রধানমন্ত্রী মোদি আমাকে ভারতে আসার অনুমতি দেয় ও সহযোগীদেরসহ আমাকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেয়, তাহলে সহযোগীদের নিয়ে আমি ভারতে আসতে প্রস্তুত; কারণ সেখানে আমার দাদা-দাদীর কবর রয়েছে, আমার হাজারো আত্মীয়-স্বজনের কবর ভারতে। আমি তাদের কবর জিয়ারত করতে চাই।

রাজনৈতিক আশ্রয় পেলে কোনো ধরনের রাজনীতিতে জড়াবেন না বলেও নিজের ভাষণে ভারত সরকারকে আশ্বস্ত করেন আলতাফ হুসেইন।

বর্তমানে ব্রিটিশ নাগরিক আলতাফ হুসেইন গত ২৭ বছর ধরে যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন। সেখানে সহিংসতা উস্কে দেয়ার একটি মামলায় তিনি জামিনে আছেন।

মানি লন্ডারিং ও সহিংসতা উস্কে দেয়ার অভিযোগে যুক্তরাজ্যে তিনি দুইবার গ্রেফতার হয়েছিলেন।

২০১৬ সালের আগস্টে ‘পাকিস্তান বিরোধী মন্তব্যের কারণে’ তার প্রতিষ্ঠিত দল এমকিউএম-পাকিস্তান তার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে। তারপর থেকে এমকিউএম-লন্ডন দলের প্রধান হিসেবে আছেন মোহাজের হিসেবে পরিচিত ভারত থেকে পাকিস্তানে যাওয়া এ নেতা।

এর আগে পাকিস্তানকে ‘পৃথিবীর জন্য ক্যান্সার’ বলে অভিহিত করে দেশটির সেনাবাহিনীর চাপে পড়েন তিনি। বিতর্কিত মন্তব্য করায় তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ ও সন্ত্রাসবাদ উসকে দেয়ার অভিযোগ এনে মামলা করে দেশটির পুলিশ।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১৭৪ বার

আপনার মন্তব্য