Updates :

        ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের কারণে বাচ্চাদের স্বাস্থ্য নিয়ে শঙ্কায় অভিভাবকরা

        করোনা মোকাবিলায় নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি: সিডিসি

        প্রাক্তন সামরিক সদস্য ও গৃহহীনদের সেবায় নিয়োজিত ভিলেজ ফর ভেটস

        ভাড়াটিয়া উচ্ছেদ নিষেধ আইনের সময়সীমা শেষ, হুমকিতে লাখো মানুষ

        ক্যালিফোর্নিয়ায় সেপ্টেম্বরে চতুর্থ স্টিমুলাস চেক প্রদান শুরু

        ফ্লোরিডায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, দৈনিক আক্রান্তের রেকর্ড

        এবার গণপরিবহন চালু

        জাপান, মালয়েশিয়া এবং থাইল্যান্ডে রেকর্ড সংখ্যক করোনা সংক্রমণ

        শ্রমিকদের কর্মস্থলে ফেরাতে এবার গণপরিবহন চালু

        প্রতারণার অভিযোগ থেকে রেহাই পেলেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশী এমপি আপসানা

        ‘এই বাংলার মাটিতে আর আসবো না’

        ক্ষুদ্র গ্রাহকদের ঋণ মওকুফের প্রক্রিয়া সহজ করছে এসবিএ

        গারসেটির বাসভবনে বিক্ষোভকারীরা ছুঁড়লো আবর্জনা ও টয়লেট পেপার

        ক্যালিফোর্নিয়া ছেড়ে যাচ্ছেন বাসিন্দারা, বসতি গড়ছেন নেভাদায়

        লস এঞ্জেলেসে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক

        দুই দিনের জন্য বন্ধ হলো মিরপুর স্টেডিয়াম

        ঢাকার পথে অসংখ্য কর্মজীবী মানুষ

        বাইডেন প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ২ মার্কিন মুসলিম

        সালমান শাহের রুমে ঢুকে স্মৃতি ছুঁয়ে এসেছেন সাইমন

        বকেয়া টাকা চাওয়ায় ঝালমুড়িওয়ালাকে পেটালেন ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা

গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ প্রায় ৩ লাখ করোনায় আক্রান্ত

গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ প্রায় ৩ লাখ করোনায় আক্রান্ত

প্রায় দীর্ঘ ৮ মাস ধরে মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত গোটা বিশ্ব। করোনার কারণে অচল হয়ে পরা অর্থনৈতিক চাকাকে সচল করতে এখন লকডাউন তুলে নেয়া হয়েছে বেশিরভাগ দেশেই।

মহামারী প্রতিরোধে জারি করা কঠোর বিধি-নিষেধগুলো শিথিল করা হয়েছে দেশে দেশে।

এতে ভাইরাসটির বিস্তার ফের প্রকোট আকার ধারণ করেছে। প্রতিদিনই নতুন রেকর্ড হচ্ছে আক্রান্তের সংখ্যায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে নতুন করে আরও ২ লাখ ৯২ হাজার মানুষের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) দৈনিক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এসব আক্রান্তের বেশিরভাগই সংক্রমণ ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকায়। মৃত্যুর দিক থেকে এ দেশগুলোর অবস্থান শীর্ষে রয়েছে। গত একদিনে বিশ্বজুড়ে মারা গেছে ৬ হাজার ৮১২ জন।

ডব্লিউএইচও জানাচ্ছে, গত ২৪ জুলাই ছিল একদিনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর রেকর্ডে সবোর্চ্চ। এদিন বিশ্বজুড়ে দুই লাখ ৮৪ হাজার ১৯৬ জন আক্রান্ত হন এবং মারা যান ৯ হাজার ৭৫৩ জন।

বিষয়টির ওপর আশঙ্কা প্রকাশ করে ডব্লিউএইচও বলছে, জুলাইয়ে গড়ে করোনায় দৈনিক মৃত্যু ছিল ৪ হাজার ৬০০ জন। জুলাইয়ে তা হয় ৫ হাজার ২০০। আগস্টে তা আরও বাড়তে পারে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত