যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ১৯ Jun, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 10:35pm

|   লন্ডন - 05:35pm

|   নিউইয়র্ক - 12:35pm

  সর্বশেষ :

  বাংলাদেশের নতুন সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ   ট্রাম্পের সাথে বৈঠকের পর আবারো চীনে কিম   এবারের বিশ্বকাপের প্রথম লাল কার্ড পেলেন সানচেজ   রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে আসছেন জাতিসংঘ মহাসচিব ও বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্ট   ২১ জুলাই প্রধানমন্ত্রীর গণসংবর্ধনা   ফেরি ডুবে ইন্দোনেশিয়ায় নিখোঁজ ১২৮   খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে সরকার সময়ক্ষেপন করছে : মির্জা ফখরুল   রেমিট্যান্সে ভ্যাট আরোপ হয়নি : এনবিআর   নিউজিল্যান্ডে সুন্দরী প্রতিযোগিতায় প্রথমবারের মতো হিজাবি তরুণী   নাম পরিবর্তন করল মেসিডোনিয়া   ২০২৬ বিশ্বকাপের আয়োজক যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো-কানাডা   ফ্লোরিডায় ৪ সন্তানকে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যা   তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি   পাকিস্তানিদের গোলায় জম্মু ও কাশ্মীরে ৪ বিএসএফ নিহত   নাপলি আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

২০ কোটি ডলারের ব্ল্যাক হক হেলিকপ্টার কিনছে সৌদি আরব

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৩ ২৩:৫৮:৪০

নিউজ ডেস্ক: মার্কিন সেনাবাহিনী সৌদি আরবকে ইউএইচ-৬০এম মডেলের ১৭টি ব্ল্যাক হক হেলিকপ্টার দেয়ার চুক্তি করেছে। এসব হেলিকপ্টার পেতে সৌদি আরবকে ২০ কোটি ডলার খরচ করতে হবে। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

১৭টি হেলিকপ্টারের মধ্যে আটটি পাবে সৌদি ন্যাশনাল গার্ড বাহিনী আর বাকি নয়টি পাবে সৌদি রাজকীয় বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী। ২০২২ সালের মধ্যে সৌদি আরবকে এসব হেলিকপ্টার সরবরাহ করা হবে।

১৯৭৯ সালের দিক থেকে মার্কিন সেনারা ইউএইচ-৬০এম মডেলের ব্ল্যাক হক হেলিকপ্টার ব্যবহার করে আসছে। এ হেলিকপটারকে যুদ্ধ, তল্লাশি কিংবা উদ্ধারের মতো বহুমুখী অভিযানে ব্যবহার করা যায়। পাশাপাশি ব্ল্যাক হক হেলিকপ্টারকে কমান্ড অ্যান্ড কন্ট্রোল সিস্টেম হিসেবেও ব্যবহার করা যায়।

কী চান সৌদি যুবরাজ সালমান, কেন ব্যক্তিগত সশস্ত্রবাহিনী

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান একটি ব্যক্তিগত সশস্ত্রবাহিনী গড়ে তুলেছেন। ‘আল সাইফ আল-আজরাব’ নামে একটি নিজস্ব এলিট বাহিনী যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে শক্তিশালী ‘ব্ল্যাকওয়াটার’ বাহিনীর সহায়তায় গড়ে তোলা হয়েছে। এ বাহিনীর সব কার্যক্রম তদারকি করেন যুবরাজ সালমান নিজেই এবং তার কাছেই এ বাহিনী কার্যক্রমের রিপোর্ট পেশ করে থাকে। বিশেষ এ বাহিনীর সদস্য সংখ্যা পাঁচ হাজার।

বিশেষ এই বাহিনীর নামকরণ করা হয়েছে দ্বিতীয় সৌদি রাজপ্রতিষ্ঠাতা ইমাম তুর্কি বিন আবদুল্লাহ বিন মোহাম্মদ আল সউদের তলোয়ারের নামানুসারে। আরবি ‘আল সাইফ আল-আজরাব’ অর্থ হল ‘এমন তরবারি যেটি রক্তের দাগে মরিচা ধরেছে’।

কথিত আছে ইমাম তুর্কি একবার তার তলোয়ারের ওপর মরিচা জমতে দেখে সেটিকে আল-আজরাব নাম দেন। সৌদি আরবের জাতীয় পতাকায় কালেমা তাইয়্যেবার নিচে যে তলোয়ারের ছবি রয়েছে সেটিও এই তলোয়ার। তলোয়ারটি ১৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাহরাইনে সংরক্ষিত ছিল।

যুবরাজ সালমান রাজপরিবারের ভিন্ন মতাবলম্বীদের দমন করতে এই এলিট বাহিনীকে ব্যবহার করছেন বলেও জানা গেছে। আর গেলো নভেম্বরে দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে প্রিন্স শীর্ষ কর্মকর্তাদের গ্রেপ্তারের সময় ওই বাহিনীকে ব্যবহার করেন যুবরাজ সালমান।

২০১৫ সালের জানুয়ারিতে বাদশাহ সালমান দায়িত্ব নেয়ার পর একটি এলিট ফোর্স হিসেবে আল আজরাব সোর্ড ব্রিগেড গঠন করা হয়। সামরিক বাহিনীর বিভিন্ন পদমর্যাদার পাঁচ হাজার সদস্য নিয়ে গঠিত হয়েছে এই বাহিনী। সেনা, নৌ, বিমান ও রাজকীয় বাহিনীর সদস্যদের মধ্য থেকে নেয়া হয়েছে তাদের। এই বিশেষ বাহিনীর তদারকি করেন ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান।

প্যারাস্যুট, দাঙ্গা দমন, স্নাইপার, বিস্ফোরক, স্কুবা ডাইভিংসহ উচ্চপর্যায়ের সব ধরনের সামরিক প্রশিক্ষণ দেয়া হয় বাহিনীর সদস্যদের। এই বাহিনীর দায়িত্ব কী বা কী উদ্দেশ্যে এটি গঠন করা হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। তবে বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন, স্পর্শকাতর ও সরাসরি রাজকার্য সম্পৃক্ত কাজ করে এরা।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৩৪১ বার

আপনার মন্তব্য