যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ১৮ Jun, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 01:42pm

|   লন্ডন - 08:42am

|   নিউইয়র্ক - 03:42am

  সর্বশেষ :

  খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে সরকার সময়ক্ষেপন করছে : মির্জা ফখরুল   রেমিট্যান্সে ভ্যাট আরোপ হয়নি : এনবিআর   নিউজিল্যান্ডে সুন্দরী প্রতিযোগিতায় প্রথমবারের মতো হিজাবি তরুণী   নাম পরিবর্তন করল মেসিডোনিয়া   ২০২৬ বিশ্বকাপের আয়োজক যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো-কানাডা   ফ্লোরিডায় ৪ সন্তানকে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যা   তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি   পাকিস্তানিদের গোলায় জম্মু ও কাশ্মীরে ৪ বিএসএফ নিহত   নাপলি আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত   ইমরানের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় শতবর্ষী নারী!   নিয়মিত রোজা রাখেন ১১৮ বছরের বৃদ্ধ   বাংলাদেশে পালিত হচ্ছে শবে কদর   জাতীয় পার্টি মহাজোটে নেই, আর কখনও মহাজোটে থাকবেও না : এরশাদ   কারাগারে জীর্ণশীর্ণ খালেদা জিয়া!   বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে নয় ইউনাইটেডে চিকিৎসা নিতে চান খালেদা জিয়া

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

লাশ ফিরতে সময় লাগবে : রাষ্ট্রদূত

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-১৪ ১২:১১:৪৯

নিউজ ডেস্ক: নেপালে ইউএস-বাংলার বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ দেশে পাঠাতে এক সপ্তাহ থেকে তিন সপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন কাঠমান্ডুতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাশফি বিনতে শামস।

বুধবার (১৪ মার্চ) নেপালের একটি হাসপাতালে দুর্ঘটনায় হতাহতদের খোঁজ নিতে গিয়ে তিনি সাংবাদিকদের একথা বলেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘ফরেনসিক বিভাগের ময়নাতদন্ত শেষ করতে আরও চার দিন সময় লাগবে। তারপর তারা স্বজনদের তালিকার সঙ্গে মিলিয়ে তথ্য নিশ্চিত করে মরদেহের পরিচয় নিশ্চিত করবেন। মরদেহ ফেরত পাঠাতে পরে হয়তো আরও দু-এক দিন বেশি লাগতে পারে।’

এছাড়া পুড়ে যাওয়ার কারণে যাদের মরদেহ শনাক্ত করতে ডিএনএ মেলানোর দরকার হবে। তাদের ক্ষেত্রে তিন সপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

মাশফি বিনতে শামস আরও বলেন, সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত ১৮ জনের ময়নাতদন্ত শেষ হয়েছে। মরদেহ শনাক্ত করার পর দেশে কিভাবে পাঠানো হবে তা নিয়ে বাংলাদেশ ও নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পর্যায়ে আলোচনা চলছে।

হতাহতদের স্বজনদের সহযোগিতা না করার অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি বলেন, দূতাবাস ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা সার্বক্ষণিক হাসপাতালে থাকছেন। দূতাবাসে একটি কো-অর্ডিনেশন সেন্টার খোলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ঢাকা থেকে ৬৭ জন যাত্রীসহ ৭১ জন আরোহী নিয়ে সোমবার দুপুরে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে নামার সময় ইউএস-বাংলার ফ্লাইট বিএস ২১১ রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে এবং আগুন ধরে যায়। এতে ৫১ জন আরোহী নিহত হন।

মঙ্গলবার রাতে ব্রিফিংয়ে ইউএস-বাংলার মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম বলেন, উড়োজাহাজে চার ক্রুসহ ৩৬ জন বাংলাদেশি ছিলেন। এদের ২৬ জন নিহত হয়েছেন। উড়োজাহাজের ক্রুরা সবাই নিহত হয়েছেন।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৬১৯ বার

আপনার মন্তব্য