যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 05:11pm

|   লন্ডন - 11:11am

|   নিউইয়র্ক - 06:11am

  সর্বশেষ :

  শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে নতুন বিতর্ক উস্কে দিলেন প্রিয়া!   বেতন দেয়ার রেকর্ড গড়েছে বার্সেলোনা   ত্যাগীরা মনোনয়নে অগ্রাধিকার পাবেন: কাদের   ব্রেক্সিটনিয়ে ভোটাভুটিতে বিশাল ব্যবধানে হেরেছেন থেরেসা মে   সাংবাদিক আমানুল্লাহ কবীর আর নেই   শাহনাজের বাইক উদ্ধার, আসামি আটক   হিউসটন প্রবাসী মঈন চোধুরীর ইন্তেকাল   মাওলানা আব্দুল মতীন ফাউন্ডেশন, সিলেট এর কার্যকরী কমিটি গঠন সম্পন্ন   এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সিনেটর   বিশ্বব্যাংকের সম্ভাব্য প্রেসিডেন্টের তালিকায় ইভাঙ্কা-হ্যালি   রাজধানীতে অভিনব কায়দায় নারী বাইক রাইডারের স্কুটি ছিনতাই   মিয়ানমার রাষ্ট্রদূতকে তলব   আবারও ক্রিকেট মাঠে মৃত্যু, শোকস্তব্ধ সতীর্থরা   টিআইবির প্রতিবেদন মনগড়া : ইসি   রাতেই ব্যালটে সিল ৬৬% আসনে, জাল ভোট পড়েছে ৮২ শতাংশ: টিআইবি

মূল পাতা   >>   লন্ডন

ইন্টারনেটে টিউলিপকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছিলো

SM, নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৬-০৬-১২ ০০:৪৬:০২

ব্রিটিশ এমপি টিউলিপ সিদ্দিক

SM: ইন্টারনেটে হত্যার হুমকি পেয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ এমপি টিউলিপ সিদ্দিক ।
সানডে টাইমসকে সম্প্রতি টিউলিপ বলেন, ‘ভয়ঙ্কর সব হুমকি আমাকে দেওয়া হয়েছে। তুমি হিজাব পরো না কেন? ‘পারলে তোমাকে খুন করতাম’- এরকম কথাও শুনতে হয়েছে।’ সানডে টাইমস তার এই বক্তব্য ৫ জুন প্রকাশ করে।
এবারই নয়। এর আগেও অনলাইনে প্রথম তাকে আজেবাজে কথা বলা হয় ২০১৪ সালে, যখন নিউ হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে লেবার পার্টির হয়ে তার নির্বাচনের প্রচার চলছিল। সে সময় তাকে কথা শুনতে হয়েছিল বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হওয়ার কারণে।
টিউলিপ সানডে টাইমসকে বলেন, ‘আমাকে বলা হয়েছিল, ‘তোমার মত নামের কাউকে হ্যাম্পস্টেডের তরুণ ভোটাররা কখনোই ভোট দেবে না।’
প্রথমবার পার্লামেন্ট সদস্য হওয়ার পর গত এপ্রিলে প্রথম সন্তানের মা হওয়ার আগে যখন চারদিক থেকে অভিনন্দন বার্তা পাচ্ছেন, তখনও টুইটারে বাজে মন্তব্যের শিকার হতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
এ ধরনের বিদ্বেষ মোকাবিলায় হাউস অব কমন্সে নিজেদের মধ্যে একটি আনঅফিসিয়াল সাপোর্ট গ্রুপ তৈরি করার কথাও জানিয়েছেন টিউলিপ।
প্রসঙ্গত, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগ্নি টিউলিপ সিদ্দিক। তিনি লন্ডনের মিচামে জন্মগ্রহণ করেন। তার শৈশব কেটেছে বাংলাদেশ, ভারত এবং সিঙ্গাপুরে। ১৫ বছর বয়স থেকে তিনি হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্নে বাস করছেন। এই এলাকায় স্কুলে পড়েছেন ও কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। লন্ডনের কিংস কলেজ থেকে পলিটিক্স, পলিসি এন্ড গভর্নমেন্ট বিষয়ে তার স্নাতকোত্তর ডিগ্রি রয়েছে। মাত্র ১৬ বছর বয়সে লেবার পার্টির সদস্য হওয়া টিউলিপ অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল গ্রেটার লন্ডন অথরিটি এবং সেইভ দ্য চিলড্রেনের সঙ্গেও কাজ করেছেন। ২০১০ সালে ক্যামডেন কাউন্সিলে প্রথম বাঙালি নারী কাউন্সিলর নির্বাচিত হন তিনি।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৭৯৪ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত