যুক্তরাষ্ট্রে আজ বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 09:36pm

|   লন্ডন - 03:36pm

|   নিউইয়র্ক - 10:36am

  সর্বশেষ :

  নির্বাচন পেছানোর বিষয়ে পরে জানাবে ইসি   বিল ক্লিনটনের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের বিষয়ে মুখ খুললেন মনিকা   হামাস-ইসরাইল অস্ত্রবিরতি : প্রতিবাদে ইসরাইলি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ   রেকর্ড পরিমাণ মার্কিন নাগরিক আশ্রয় চাইছে কানাডায়   শ্রীলঙ্কায় নবনিযুক্ত প্রধানমন্ত্রী রাজাপাকসের প্রতি সংসদের অনাস্থা   আটক রেখে নির্বাচন হতে পারে না : খালেদা জিয়া   যৌনকর্মীদের পুনর্বাসনে হাইকোর্টের রোল   নয়াপল্টনে বিএনপি কর্মীদের সাথে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ   ধানের শীষ বিজয়ী করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার অঙ্গীকার ইতালি বিএনপির   নরসিংদী-৫ মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রবাসী সাংবাদিক জুয়েল   তনুশ্রী আমার সঙ্গে লেসবিয়ান সেক্স করেছেন : রাখি   আংটির নকশা করলেন অ্যাপলের প্রধান ডিজাইনার, দাম কত?   ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সিএনএনের মামলা   নির্বাচন পেছানোর আর সুযোগ নেই : সিইসি   ইসরায়েলের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা ফিলিস্তিনের

মূল পাতা   >>   লস এঞ্জেলেস

খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে লস এঞ্জেলেসে আলোচনা ও মতবিনিময়

প্রেস বিজ্ঞপ্তি, নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২০ ১৫:৩৮:৫৫

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: গত ১৯ জুন মঙ্গলবার ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র উদ্যোগে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে এক আলোচনা ও মতবিনিময় সভার অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্হিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য, অবিভক্ত ঢাকা সিটির সাবেক ডেপুটি মেয়র ও ঢাকা মহানগর বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা জনাব আব্দুস সালাম। হলিউডের অভিজাত রেঁস্তোরা বলিউড ক্যাফের ব্যাংকুয়েট হলে আয়োজিত এ আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় বিএনপির নেতাকর্মীরা ছাড়াও লস এঞ্জেলেসের প্রবাসী কম্যুনিটির বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দ সহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসীরা উপস্হিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির সভাপতি মোঃ আঃ বাছিত। অনুষ্ঠানের শুরুতে নেতাকর্মীদের সাথে প্রধান অতিতির পরিচয় করিয়ে দেন সাধারন সম্পাদক বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু। এরপরে ফুল দিয়ে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে প্রধান অতিথিকে বরণ করে নেন দলের অন্যতম যুগ্ম-সম্পাদক বদরুল মাসুদ। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেছেন ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব আব্দুস সালাম বলেন, আজ আমাদের দেশনেত্রীকে বিনা দোষে, সম্পূর্ণ বেইআইনিভবে গায়ের জোরে একটি মিথ্যা মামলায় কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। এটা বানোয়াট মামলা। এটা সরকারের একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন বাস্তবায়নের নীলনকশা ছাড়া আর কিছুই না। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভাল নয়, তিনি অসুস্থ। অযথা অন্য হাসপাতালের কথা বলে বিতর্ক তৈরি করা হচ্ছে। এর আগেও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী কারাগারে থাকা অবস্থায় বিদেশে চিকিৎসা নিয়েছেন। এখন অনেক এমপি-মন্ত্রী, যাদের জেল-জরিমানা হয়েছে, তারাও কিন্তু বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া শান্ত  থেকে নেতাকর্মীদের গণতান্ত্রিক আন্দোলন বেগবান করার নির্দেশ দিয়েছেন। বিএনপি ছাড়া গ্রহণযোগ্য কোনো নির্বাচন হবে না। আরেকটি ৫ জানুয়ারি বাংলাদেশের মানুষ দেখতে চায় না। দীর্ঘদিনের অসুস্থতার পরও উনার (খালেদা জিয়ার) মনোবল চাঙা আছে। কারণ উনি জানেন আগামী দিনের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় বিএনপিকেই নেতৃত্ব দিতে হবে। বাধাবিপত্তি আসবে, সংগ্রাম করে যেতে হবে। বিএনপির দুর্দিনে আমাদের একজন নেতাকর্মীকেও নিজেদের দলে টেনে নিতে পারেনি সরকার। আমরা খুব আশাবাদী, দেশে জাতীয় ঐক্য তৈরি হবে। আমাদেরও ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আমরা সেই দিনের অপেক্ষায় আছি, যে দিন বেগম খালেদা জিয়া কারামুক্ত হবেন এবং তারেক রহমান বীরের বেশে দেশে ফিরবেন।


ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির সভাপতি মোঃ আঃ বছিত বলেন, দেশের জন্য বেগম খালেদা জিয়া অনেক ত্যাগ আর কষ্ট স্বীকার করে যাচ্ছেন। দেশনেত্রী যখন অবরুদ্ধ অবস্থায় তার কার্যালয় থেকে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিলেন, ঠিক এমনি সময়ে ছোট ছেলের মৃত্যু সংবাদ পান। মায়ের সামনে ছেলের লাশ, কত কষ্টের ভাবা যায়! তার বড় ছেলে আজ নির্বাসিত অবস্থায় আছেন। স্বামী হারিয়েছেন শত্রুর হাতে, বড় ছেলে দেশের বাইরে আর তিনি কারাগারে কষ্টে দিনাতিপাত করছেন।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুল চৌধুরী বলেন, গত প্রায় ৩৭ বছর ধরে বেগম খালেদা জিয়া প্রতিটি রমজানে, প্রতিটি ঈদে বাংলাদেশের মানুষের পাশে ছিলেন। বাংলাদেশের মানুষের পাশে ছিলেন। কিন্তু আজকে বাংলাদেশে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত স্বৈরাচার, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত অবৈধ, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ব্যাংক ডাকাত, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত এ দুর্নীতিবাজ সরকারের মিথ্যে মামলায় আমাদের দেশনেত্রীকে আটকে রাখা হয়েছে। শুধু তাই নয় আপনারা দেখেছেন, আইনের যে গতি, আইনের যে প্রভাব সেটাকেও জোর করে অন্যভাবে ব্যবহার করেছে এ দুর্নীতিবাজ সরকার, এ অবৈধ সরকার।

দলের যুগ্ম-সম্পাদক সৈয়দ নাসির জেবুল বলেন, ব্যাংকগুলোতে মানুষ টাকা রাখে টাকা নিরাপদে রাখার জন্য। আজকে  প্রতিদিন ব্যাংকগুলো লুট হচ্ছে। এর অনেক খবর পত্রিকার পাতায় আসে অনেক খবর আসে না। যে খবর পত্রিকার পাতায় আসে না সেগুলো জনগণ জানতে পারে না। সরকারের এমপি, মন্ত্রীদের ভাব দেখে মনে হয় তারা ব্যাংকগুলোকে মানিব্যাগের মত ব্যবহার করছে। আমরা দেখলাম কয়েকদিন আগে এ অবৈধ অর্থমন্ত্রী বলেছেন, গত দশ বছরে নাকি বাংলাদেশে জিনিসপত্রের কোনো মূল্য বৃদ্ধি হয়নি। এ অবৈধ অর্থমন্ত্রীর এ কথাটি সঠিক না বেঠিক সেটা পর্যালোচনা করার ভার বাংলাদেশের আঠারো কোটি মানুষের। তারা বিবেচনা করবে আজকে তারা তথাকথিত উন্নয়নের নামে কিভাবে লুটপাট করছে। এটি জনগণের সামনে পরিষ্কার।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ খান বলেন, আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থার যে অবস্থা তাতে শিক্ষার্থীদের যে ভবিষ্যৎ সেটাও অনুমান করা যায়। ভোট ব্যবস্থার কি অবস্থা সেটা কিছুদিন আগে আপনারা খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে দেখেছেন। আওয়ামী লীগের নেত্রী কথায় কথায় বলেন তিনি নাকি বাংলাদেশে ভোটের আর ভাতের নিশ্চয়তা দিয়েছেন, ভোট আর ভাতের কি অবস্থা তিনি করেছেন তা দেশের দিকে তাকালেই বোঝা যায়। বিএনপির আমলে চালের কেজি ১৫ টাকা ছিল, সে চালের কেজি এখন ৭০/৭২ টাকা । ভোটের কি অবস্থা করেছে সেটা বাংলাদেশের জনগণও বলছে এবং বাংলাদেশের যে বিদেশি বন্ধু আছে তারাও বলছে। দেশের যে কী অবস্থা সেটা রাজনৈতিক নেতা কর্মীরা যেমন বুঝতে পেরেছে তেমনি দেশের জনগণও বুঝতে পেরেছে। এ অবস্থা থেকে দেশকে, দেশের মানুষকে, দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে বের করে আনতে বৃহত্তর ঐক্যের প্রয়োজন। স্বৈরাচার পতনের এ যুদ্ধে আমাদের জয়লাভ করতে হলে আমাদের সকল পর্যায়ে ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে আয়োজিত আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় উপস্হিত ছিলেনঃ মোঃ আঃ বাছিত, বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু, সৈয়দ দেলোয়ার হোসেন দিলির, নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাঞ্চন, খন্দকার আলম, আবুল ইব্রাহিম, মুর্শেদুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান শাহীন, সালাম দাঁড়িয়া, মানিক চৌধুরী, মাতাব আহমদ, আব্দুল হাকিম, মিশর নুন, আবু তাহের সাজু, এ আর মাহবুবুল হক, মুরাদ হামিদ খান সানী, সাইদ আবেদ নিপু, ফারুক সরকার, খন্দকার তসলিম, মোঃ সামছুল ইসলাম, জহিরুল কবির হেলাল, মোঃ শাহজাহান, হাসানুজ্জামান মিজান, বাদল, সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল, মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল, মারুফ খান, ইলিয়াস মিয়া, লায়েক আহমেদ, বদরুল আলম মাসুদ, শাহীন হক, শাহতাব কবির ভূঁইয়া শান্ত, নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী, হোসেন আহমেদ,রেজাউল হায়দার চৌধুরী, হুমায়ুন কবির, মিজানুর রহমান, খসরু রানা, শাহানুর কবির ভুঁইয়া শুভ্র, আজমউদ্দিন চৌধুরী দুলাল, সুমেন আহমেদ, রেজাউল করিম জামিল, জুয়েল আহমেদ, কামরুল হাসান তরুন, মিকায়েল খান রাসেল, খায়রুল ইসলাম, তানভীর আহমেদ, জাভেদ বখত্ , আবদুল মোতালেব, আলতাফ হোসেন, আহসান আহমেদ, মিল্টন খান, ওমর ফারুক, কামাল হোসেন, ফয়সল হোসেন সিদ্দিক, আমজাদ হোসেন, খোরশেদ আলম রতন, জিল্লুর রহমান চৌধুরী, তারেক খান, রওনক সালাম, তাসনুভা বেগম, রুহুল আমিন বাবু, সাজ্জাদ পারভেজ, হেলাল মজুমদার, ইসলাম উদ্দিন, শাহেদ আহমেদ, সিদ্দিক আহমেদ, জুনেল আহমেদ, মোঃ গোলাম সারোয়ার হোসেন, ইলিয়াস শিকদার, আবুল বাশার, আবদুল আহাদ, আবদুল হাকিম, কামরুল আলম চৌধুরী, গিয়াস আহমদ, মজিবর রহমান, ফখরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, মোঃ শামীম উদ্দিন, আবদুল মুনিম, আশিকুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আবদুল হাসিব বাবুল, আবদুল কাদির, মাঈনুল আহমেদ, রিপন চৌধুরী, এড. নুরুল হক, জামিল আহমেদ, মোঃ রহমান রফিক, সফিকুল ইসলাম পলাশ, আবুল কালাম আজাদ, মোঃ মুকুল, আবদুল্লাহ আল ফরহাদ, এনাম চৌধুরী, মোঃ আলম খোকন, সৈয়দ আলী আক্তার, রফিকুল আলম চৌধুরী প্রমুখ।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১০৭২ বার

আপনার মন্তব্য

সাম্প্রতিক খবর