যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 09:24am

|   লন্ডন - 03:24am

|   নিউইয়র্ক - 10:24pm

  সর্বশেষ :

  নিউইয়র্কে নববর্ষ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের শুভেচ্ছা বিনিময়   প্যারেডের থ্রিডি প্রদর্শনীর মাধ্যমে বাফলার ফান্ডরাইজিং অনুষ্ঠিত   নিউ ইয়র্কে মুসলমানদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র, গ্রেপ্তার ৪   আরব আমিরাতে অবৈধ অভিবাসীকে আশ্রয় দিলে এক লাখ দিরহাম জরিমানা   টয়লেট টিস্যুতে ‘আল্লাহ’, বিক্ষুব্ধ যুক্তরাজ্যের মুসলিমরা   ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচন   বিশ্বের শীর্ষ ১০০ চিন্তাবিদের তালিকায় শেখ হাসিনা   শান্তি ও মানবাধিকারের অনন্য আশ্রয়ভূমি ফ্রান্স   কারাগারে ‘মারা গেছেন’ মসজিদে নববীর এক ইমাম   ক্যালিফোর্নিয়ায় বাংলাদেশি খুদে শিক্ষার্থীর চমক, ৯ বছরেই কলেজে   আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে মোস্তাফিজ   সালমান খানকে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন তিনি   কৃষ্ণ সাগরে দুই জাহাজে আগুন, নিহত ১০   প্যাটারসন সিটির পাবলিক স্কুলে হালাল ফুড   আর্জেন্টাইন ফুটবলারসহ দুজনকে নিয়ে বিমান নিখোঁজ

মূল পাতা   >>   মধ্যপ্রাচ্য

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ইরাকের বিখ্যাত ‘আল-নুরি’ মসজিদ

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৭-০৭-২৬ ০৯:৪৩:২৭

ঐতিহাসিক ‘আল-নুরি’ মসজিদ। ছবি: সংগৃহীত

নিউজ ডেস্ক: জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মসুলে অবস্থিত ঐতিহাসিক ‘আল-নুরি’ মসজিদ গুঁড়িয়ে দিয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির সরকারি বাহিনী। তবে এ দাবি প্রত্যাখ্যান করে নিজস্ব সংবাদমাধ্যম ‘আমাক’-এ এক বিবৃতিতে আইএস বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় মসজিদটি ধ্বংস হয়েছে।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল আবাদি এক বিবৃতিতে বলেছেন, পরাজয় নিশ্চিত দেখে সবকিছু ধ্বংস করছে আইএস। মসুলে নিকটবর্তী সেনাবাহিনী দেখে তারা আল-নুরি মসজিদ উড়িয়ে দিয়েছে। তিনি এই মসজিদ ধ্বংসকে এক অপূরণীয় ক্ষতি বলেও বর্ণনা করেন।
এদিকে, মসুল অভিযানে অংশ নেওয়া এক ইরাকি সেনা কর্মকর্তা দাবি করেন, মসুল শহরে সেনাবাহিনী ঢোকার পরপরই আইএস ওই মসজিদ ধ্বংস করে। ধ্বংসের পর মসজিদটির বর্তমান অবস্থা। ছবি: উপগ্রহ থেকে নেওয়া

আইএসের বার্তা সংস্থা ‘আমাক’ এক বিবৃতিতে জানায়, গতকাল ২১ জুন বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের বিমান থেকে ফেলা এক বোমার আঘাতে ওই মসজিদ উড়ে যায়। তবে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা আইএসের এই দাবিকে এক হাজার শতাংশ মিথ্যা বলে আখ্যা দিয়েছেন।
মসুল ও ইরাকের বিখ্যাত স্থাপনাটি আইএস গুঁড়িয়ে দিয়েছে দাবি করে ইরাকে অবস্থনরত জ্যেষ্ঠ মার্কিন কমান্ডর মেজর জেনারেল জোসেফ মার্টিন বলেছেন, বিষয়টি শুধু মসুলের জনগণই নয়, পুরো ইরাকবাসীর বিরুদ্ধে চালানো অপরাধ।
বিমান থেকে তোলা ছবিতে দেখা গেছে, লম্বা মিনারওয়ালা মসজিদটির একটি ছোট্ট ধ্বংসাবশেষ কেবল অবশিষ্ট রয়েছে। মসজিদটি প্রার্থনাকেন্দ্র ছাড়াও প্রাচীন গ্রন্থ সংগ্রহশালা ও গবেষণাকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হতো। মসজিদটি ঐতিহ্যবাহী মসুল শহরের একেবারে কেন্দ্রে অবস্থিত ছিল। ২০১৪ সালে এই মসজিদ থেকেই আইএসপ্রধান আবু বকর আল বাগদাদি ‘খিলাফত’ ঘোষণা করেছিলেন।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৫৩৮ বার

আপনার মন্তব্য