যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 11:18pm

|   লন্ডন - 06:18pm

|   নিউইয়র্ক - 01:18pm

  সর্বশেষ :

  জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন   আমেরিকারপ্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের প্রমাণ মিলেছে   খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া শপথ নেয়ার প্রশ্নই আসে না: মওদুদ   তারেক-জোবাইদার ব্রিটেনের ৩ ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ দিল ঢাকার আদালত   ভারতের নির্বাচনে বাংলাদেশে যে প্রভাব পড়তে পারে   নুসরাত হত্যা : আ.লীগ নেতা রুহুল আমিন আটক   দেশের গণমাধ্যম স্বাধীনভাবে কাজ করছে : তথ্যমন্ত্রী   গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সূচকে দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ   আল্লাহর রহমতে আ.লীগের জনপ্রিয়তা আরও বেড়েছে : প্রধানমন্ত্রী   নতুন চমক নিয়ে আসছেন এআর রহমান   ইতালিতে বারবিকিউয়ের আগুন থেকে দাবানল, দুই শিক্ষার্থীকে ২৭ মিলিয়ন ইউরো জরিমানা   দেশেই উৎপাদন হবে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ গাড়ি   বিমানবন্দরে অস্ত্র গুলিসহ উপজেলা চেয়ারম্যান আটক   নুসরাতকে নিয়ে ছোট ভাই রায়হানের আবেগঘন স্ট্যাটাস   কৌশলগত ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল উত্তর কোরিয়া

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

ভোলায় নদী ভাঙন রোধে চলছে ৫৫১ কোটি টাকার কাজ

ভোলা প্রতিনিধি, নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৯-১৪ ১৪:০৯:০০

ভোলা প্রতিনিধি: ভোলার দৌলতখান ও বোরহানউদ্দিন (ভোলা-২ আসন) উপজেলায় প্রমত্ত মেঘনা নদীর ভাঙন রোধে ৫৫১ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ এগিয়ে চলছে। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাস্তবায়নে ফোল্ডার ৫৬/৫৭ রক্ষা প্রকল্পের মাধ্যমে ভাঙনকবলতি এ দুটি উপজেলার প্রায় সাড়ে ৯ কিলোমিটার নদীর তীর এলাকা সংরক্ষণ করা হচ্ছে। ব্লক ও জিও ব্যাগ স্থাপনের মাধ্যমে ২০১৬ সালের নভেম্বরে শুরু হওয়া কাজ ২০১৯ সালের জুনের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

ইতোমধ্যে প্রকল্পের ৫১ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ফলে চলতি বর্ষা মৌসুমে বেশ কয়েকটি এলাকা প্লাবন থেকে রক্ষা পেয়েছে। এ ছাড়া এ দুটি উপজেলার নদী নিয়ন্ত্রণে আরো ১১ শ কোটি টাকার ২টি প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।

ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার যখনই রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করে, তখনই অবহেলিত এলাকায় উন্নয়ন হয়। নদী ভাঙন ছিল এ এলাকার মানুষের প্রধান সমস্যা। কিন্তু বর্তমান সরকারের সময়ে সে সমস্যা থেকে মুক্তি পেয়েছে মানুষ। এখন নদী শাসনের কাজ এগিয়ে চলায় মানুষের মধ্যে আতঙ্ক কেটে গিয়ে নিরাপত্তা বিরাজ করছে।

এমপি মুকুল আরো বলেন, দৌলতখান উপজেলার লঞ্চঘাট এলাকা থেকে রাধা বল্লব চৌকিঘাট পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার এলাকার নদী ভাঙন রক্ষায় প্রায় ৩ শ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, ভোলা-২ আসন নিয়ে গঠিত দৌলতখান ও বোরহানউদ্দিন উপজেলায় নদীর তীর রক্ষায় মোট ৫০ লাখ ২৬ হাজার ৯৩২টি সিসি ব্লক এবং ১৪ লাখ ৫৪ হাজার ৬৭২টি জিও ব্যাগ স্থাপন করা হবে। ইতোমধ্যে ২৭ লাখ ৩৩ হাজার ৫৭৬টি ব্লক এবং ৫ লাখ ৫২ হাজার ২৬৩টি জিও ব্যাগ তৈরি হয়েছে।এর মধ্যে সকল জিও ব্যাগ নদীর তীরে স্থাপন সম্পন্ন হয়েছে। ব্লক স্থাপনও চলছে। দৌলতখান উপজেলার মাছ বাজার এলাকা থেকে উন্নয়ন কাজ শুরু হয়ে ভবানীপুর, সৈয়দপুর, মাইনকা, বাটামারা এলাকা হয়ে বোরহানউদ্দিনের পক্ষিয়া ইউনিয়ন পর্যন্ত মেঘনা পাড়ের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় কাজ হবে। এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে এখানকার ফসলি জমি, বাড়ি-ঘর, বিভিন্ন স্থাপনাসহ ২ হাজার কোটি টাকারও বেশি সম্পদ স্থায়ীভাবে রক্ষা পাবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকোশলী বাবুল আক্তার বলেন, এ প্রকল্পের মোট ২২টি প্যাকেজের মধ্যে সবগুলোর কাজ চলমান রয়েছে। সাধারণত জিও ব্যাগ স্থাপনের পরই তীরে ব্লক স্থাপন করা হয়। গত অর্থবছরে কাজের ৪৬ ভাগ সম্পন্ন করার টার্গেট থাকলেও তা ৫১ ভাগ হয়েছে। তাই নির্ধারিত সময়ের আগেই এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন সম্ভব হবে বলে তিনি মনে করেন।

বাবুল আক্তার বলেন, এ প্রকল্পের মাধ্যমে এখানে প্রায় ২ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। এ ছাড়া নদীর তীর সংরক্ষণ সম্পন্ন হওয়ায় ভাবানীপুর, সৈয়দপুর, পক্ষীয়া ও মাইনকা এলাকার লক্ষাধিক মানুষ চলতি বর্ষায় এর সুফল ভোগ করছেন।


এলএবাংলাটাইমস/এন/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৬১০ বার

আপনার মন্তব্য