যুক্তরাষ্ট্রে আজ বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 12:59am

|   লন্ডন - 06:59pm

|   নিউইয়র্ক - 01:59pm

  সর্বশেষ :

  রাষ্ট্রদূত মার্শার উপর হামলার জের: নানকের ভিসা বাতিল, সেনাপ্রধানের স্ত্রীর আবেদন প্রত্যাখান!   আস্থাভোটে টিকে গেলেন থেরেসা মে   প্রার্থিতা বিষয়ে রিট : তৃতীয় বেঞ্চের বিচারপতির প্রতি খালেদার অনাস্থা   নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করবে না সরকার: কাদের   তুরস্কে ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ৯, আহত ৪৭   ইলিয়াসপত্নী লুনার মনোনয়ন স্থগিত   মনে হচ্ছে পুলিশ ধানের শীষের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী : বিএনপি   নাসার অ্যাপস প্রতিযোগিতায় শীর্ষ চারে বাংলাদেশ   চট্টগ্রামে আমীর খসরুর গণসংযোগকালে হামলা   নির্বাচন কমিশন থেকে ফেরার পথে বিএনপি নেতা আটক   ব্রাজিলে গির্জায় গোলাগুলি, নিহত ৫   ২৪ ডিসেম্বর মাঠে নামছে সেনবাহিনী   আটকে গেল ২ বিএনপি নেতার নির্বাচন   নেতৃত্ব হারাতে পারেন থেরেসা মে   টুঙ্গিপাড়া থেকে নির্বাচনী প্রচার শুরু শেখ হাসিনার

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

আলোচনায় ইলিয়াস আলীর ছেলে ব্যারিস্টার আবরার

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-১১-১৮ ০৯:৩৫:২০

নিউজ ডেস্ক: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-২ (বিশ্বনাথ-ওসমানীনগর) আসনে ধানের শীষ প্রতীক পেতে দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন নিখোঁজ বিএনপি নেতা ও স্থানীয় সাবেক ইলিয়াস আলীর সহধর্মিনী তাহসিনা রুশদীর লুনা ও বড় ছেলে ব্যারিস্টার আবরার ইলিয়াস অর্ণব। গত বৃহস্পতিবার ঢাকার নয়াপল্টনস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে মা ও নিজের দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দেন আবরার। এর আগে এই আসনে লুনাই ছিলেন বিএনপির একক মনোনয়ন প্রত্যাশী।

এদিকে, মা-ছেলের মনোনয়ন ফরম জমা দেওয়ায় বিশ্বনাথ-ওসমানীনগরের সর্বত্র ইলিয়াসপতœী তাহসিনা রুশদীর লনা ও পুত্র আবরারকে নিয়ে চলছে নানা আলোচনা। সিলেট-২ আসনের রাজনীতিতে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা।

বিএনপির একটি সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা নিয়ে একটি জটিলতা রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দফতর পদ থেকে সদ্য অবসরে যাওয়া ইলিয়াসপতœী তাহসিনা রুশদীর লুনার। তাই কৌশলগত কারণে সিলেট-২ আসনে বিএনপির মনোনয়নের জন্য তাহসিনা রুশদীর লুনা ও তার পুত্র ব্যারিস্টার আবরার ইলিয়াস অর্ণবের পৃথক দুটি দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দেয়া হয়েছে। যদি কোনো কারণে লুনা নির্বাচনে অংশ না নিতে পারেন, তাহলে এই আসন থেকে তার বড় পুত্র আবরাব ইলিয়াস অর্ণব নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। আর আবরারও যদি কোনো কারণে নির্বাচন করতে না পারেন তাহলে তার বিকল্প প্রার্থী হিসেবেই নিখোঁজ ইলিয়াস আলীর ছোট ভাই আছকির আলীকে চিন্তা করছেন দলের নেতাকর্মীরা। এলাকায় জনশ্রুতি রয়েছে আছকির আলীর পক্ষেও সংগ্রহ করা হয়েছে দলীয় মনোনয়ন ফরম। তবে, এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে তাহসিনা রুশদীর লুনা বলেন, এই আসনে আমার নির্বাচন করার ইচ্ছে, ছেলে করবে না। একটা কৌশল হিসেবে আবরার মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছে। আমার ছেলের দাখিলকৃত দলীয় মনোনয়ন ফরমে উল্লেখ রয়েছে- যদি কোনো কারণে আমি (লুনা) নির্বাচন করতে না পারি, তবে সে (আবরার) এই আসনে নির্বাচন করবে।

নিজের মনোনয়ন বাতিল হবার মতো কোনো কারণ রয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এমন আশংকা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের উপর শতভাগ আশ্বস্ত হবার মতো কিছু নেই। সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন হলে বিএনপির সকল প্রার্থী বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে বলে তিনি আশাবাদী।

সিলেট-২ আসনের ভোটাররা ইলিয়াস আলীর বেশ আবেগতাড়িত। তাই এই আসনে তাহসিনা রুশদীর লুনা অথবা পুত্র আবরার ইলিয়াস অর্নব প্রার্থী হলে ভোট বিপ্লব ঘটবে বলে আশাবাদী বিএনপির নেতাকর্মীরা। এছাড়া লুনার পরিবর্তে আবরার ইলিয়াস যদি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তাহলে ভোটের সমীকরণ হবে জটিল, এমনটাই মনে করছেন সাধারণ ভোটাররা।

বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক বশির আহমদ বলেন, যদি কোনো কারণে ম্যাডামের (লুনার) মনোনয়ন বাতিল করা হয়, সে ক্ষেত্রে ইলিয়াসপুত্রই হবেন এই আসানে বিএনপির কান্ডারি। আমাদের কাছে তারা আমাদের পরিবার। তাদের পরিবারের যেই প্রার্থী হবেন তাকেই বিজয়ী করতে আমরা প্রাণান্ত পরিশ্রম করবো।

এলএবাংলাটাইমস/এন/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৪৯৪ বার

আপনার মন্তব্য