যুক্তরাষ্ট্রে আজ রবিবার, ২৬ মে, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 08:09pm

|   লন্ডন - 03:09pm

|   নিউইয়র্ক - 10:09am

ব্রেকিং নিউজ >>   আমি ইফতারে যাব : মমতা

  সর্বশেষ :

  সংবিধান সমুন্নত রাখতে জনগণের ঐক্য প্রয়োজন: ড. কামাল   আমি ইফতারে যাব : মমতা   ইফতারে যোগ দিয়ে চমকে দিলেন নেদারল্যান্ডসের রাজা   শেখ হাসিনার নির্দেশ উপেক্ষা করে দলের বিরুদ্ধে শাজাহান খান   মোদির জয়ের পরই ভারতে নারীসহ ৩ মুসলিমকে নির্যাতন   ইরানকে ঠেকাতে সৌদিকে অস্ত্র দিচ্ছেন ট্রাম্প   প্রথম মুসলিম প্রধানমন্ত্রী পেতে পারে ব্রিটেন!   এবারের বাজেট ৫ লাখ কোটি টাকার ওপরে: প্রধানমন্ত্রী   শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলায় নিহতদের স্মরণে সিডনিতে শোক   পদত্যাগ করছেন রাহুল গান্ধী   খালেদার মুক্তির সঙ্গে সংসদে যোগ দেয়ার সম্পর্ক নেই : ফখরুল   ভারতের নতুন সরকারের আমলে তিস্তা চুক্তি হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী   পশ্চিমবঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ, বিজেপি নেতা গুলিবিদ্ধ   পদত্যাগের ঘোষণা দিলেন থেরেসা মে   মোদির গুজরাটে ভয়াবহ আগুন, নিহত ১৮

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

আলোচনায় ইলিয়াস আলীর ছেলে ব্যারিস্টার আবরার

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-১১-১৮ ০৯:৩৫:২০

নিউজ ডেস্ক: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-২ (বিশ্বনাথ-ওসমানীনগর) আসনে ধানের শীষ প্রতীক পেতে দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন নিখোঁজ বিএনপি নেতা ও স্থানীয় সাবেক ইলিয়াস আলীর সহধর্মিনী তাহসিনা রুশদীর লুনা ও বড় ছেলে ব্যারিস্টার আবরার ইলিয়াস অর্ণব। গত বৃহস্পতিবার ঢাকার নয়াপল্টনস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে মা ও নিজের দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দেন আবরার। এর আগে এই আসনে লুনাই ছিলেন বিএনপির একক মনোনয়ন প্রত্যাশী।

এদিকে, মা-ছেলের মনোনয়ন ফরম জমা দেওয়ায় বিশ্বনাথ-ওসমানীনগরের সর্বত্র ইলিয়াসপতœী তাহসিনা রুশদীর লনা ও পুত্র আবরারকে নিয়ে চলছে নানা আলোচনা। সিলেট-২ আসনের রাজনীতিতে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা।

বিএনপির একটি সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা নিয়ে একটি জটিলতা রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দফতর পদ থেকে সদ্য অবসরে যাওয়া ইলিয়াসপতœী তাহসিনা রুশদীর লুনার। তাই কৌশলগত কারণে সিলেট-২ আসনে বিএনপির মনোনয়নের জন্য তাহসিনা রুশদীর লুনা ও তার পুত্র ব্যারিস্টার আবরার ইলিয়াস অর্ণবের পৃথক দুটি দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দেয়া হয়েছে। যদি কোনো কারণে লুনা নির্বাচনে অংশ না নিতে পারেন, তাহলে এই আসন থেকে তার বড় পুত্র আবরাব ইলিয়াস অর্ণব নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। আর আবরারও যদি কোনো কারণে নির্বাচন করতে না পারেন তাহলে তার বিকল্প প্রার্থী হিসেবেই নিখোঁজ ইলিয়াস আলীর ছোট ভাই আছকির আলীকে চিন্তা করছেন দলের নেতাকর্মীরা। এলাকায় জনশ্রুতি রয়েছে আছকির আলীর পক্ষেও সংগ্রহ করা হয়েছে দলীয় মনোনয়ন ফরম। তবে, এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে তাহসিনা রুশদীর লুনা বলেন, এই আসনে আমার নির্বাচন করার ইচ্ছে, ছেলে করবে না। একটা কৌশল হিসেবে আবরার মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছে। আমার ছেলের দাখিলকৃত দলীয় মনোনয়ন ফরমে উল্লেখ রয়েছে- যদি কোনো কারণে আমি (লুনা) নির্বাচন করতে না পারি, তবে সে (আবরার) এই আসনে নির্বাচন করবে।

নিজের মনোনয়ন বাতিল হবার মতো কোনো কারণ রয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এমন আশংকা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের উপর শতভাগ আশ্বস্ত হবার মতো কিছু নেই। সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন হলে বিএনপির সকল প্রার্থী বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে বলে তিনি আশাবাদী।

সিলেট-২ আসনের ভোটাররা ইলিয়াস আলীর বেশ আবেগতাড়িত। তাই এই আসনে তাহসিনা রুশদীর লুনা অথবা পুত্র আবরার ইলিয়াস অর্নব প্রার্থী হলে ভোট বিপ্লব ঘটবে বলে আশাবাদী বিএনপির নেতাকর্মীরা। এছাড়া লুনার পরিবর্তে আবরার ইলিয়াস যদি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তাহলে ভোটের সমীকরণ হবে জটিল, এমনটাই মনে করছেন সাধারণ ভোটাররা।

বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক বশির আহমদ বলেন, যদি কোনো কারণে ম্যাডামের (লুনার) মনোনয়ন বাতিল করা হয়, সে ক্ষেত্রে ইলিয়াসপুত্রই হবেন এই আসানে বিএনপির কান্ডারি। আমাদের কাছে তারা আমাদের পরিবার। তাদের পরিবারের যেই প্রার্থী হবেন তাকেই বিজয়ী করতে আমরা প্রাণান্ত পরিশ্রম করবো।

এলএবাংলাটাইমস/এন/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৬২৬ বার

আপনার মন্তব্য