যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ২০ মে, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 05:28am

|   লন্ডন - 12:28am

|   নিউইয়র্ক - 07:28pm

  সর্বশেষ :

  নারী সহকর্মীদের ধর্ষণ করতে তালিকা তৈরি যুক্তরাষ্ট্র নৌবাহিনীর নাবিকদের   ভাড়া করা নেতৃত্বে চলছে বিএনপি : হাছান মাহমুদ   খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছি : খন্দকার মাহবুব   কৃষক বাঁচাতে চাল আমদানি বন্ধ করতে সংসদীয় কমিটির সুপারিশ   রোজা রেখে দায়িত্ব পালনের সময় ঢাকায় ট্র্যাফিক কনস্টেবলের মৃত্যু   হামলার জেরে ছাত্রলীগের ৫ নেতাকর্মী বহিষ্কার   পাকিস্তানিদের ভিসা দেয়া বন্ধ করেছে বাংলাদেশ   সততার বিরল দৃষ্টান্ত: সেতুর কাজ শেষ করেও ৭০০ কোটি টাকা ফেরত দিলো কোম্পানি   হন্ডুরাসে ব্যক্তিগত বিমান বিধ্বস্তে নিহত পাঁচ   মন্ত্রিসভায় দপ্তর পুনর্বণ্টন   যুক্তরাষ্ট্র-ইরান যুদ্ধাতঙ্ক, জরুরি বৈঠক ডেকেছেন সৌদি বাদশাহ   রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে হরিলুট: তদন্ত কমিটি গঠন   ইউরোপেও যাচ্ছে সাতক্ষীরার আম   ২৫ টাকার ইনজেকশন ১৫০০ টাকায় বিক্রি   চলমান মামলা নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করা যাবে : আইনমন্ত্রী

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

২০২৪ সালে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৫-১৪ ১৩:৩৯:১৫

নিউজ ডেস্ক: বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ‘বাংলাদেশ ২০২৪ সালে এলডিসি থেকে বেড়িয়ে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে।

মঙ্গলবার ভারতের নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত দু’দিনব্যাপী ‘ডব্লিউটিও মিনিস্টারিয়াল মিটিং অফ ডেভেলপিং কান্ট্রিজ-২০১৯’ এ বক্তৃতাকালে তিনি একথা বলেন। ভারতের বাণিজ্য, শিল্প ও বেসামরিক বিমান চলাচলমন্ত্রী সুরেশ প্রভূ অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। বিশ্বের ২৩টি উন্নয়নশীল দেশের মন্ত্রীগণ এ সভায় যোগদান করেছেন।

টিপু মুনশি বলেন, ‘বাংলাদেশ ২০২৪ সালে এলডিসি থেকে বেড়িয়ে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবে। তখন বিশ্ববাণিজ্যের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ডব্লিউটিও’র সহযোগিতা প্রয়োজন হবে বাংলাদেশের। বাংলাদেশ বিশ্বয়কর উন্নয়নে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ পরিচালনার দায়িত্বভার গ্রহণ করে ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে ডিজিটাল মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার ঘোষণা দিয়েছিলেন। আজ তা সম্ভব হয়েছে। ২০২১ সালের আগেই বাংলাদেশ ডিজিটাল মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবার পর সকল দেশের আন্তরিক সহযোগিতা প্রয়োজন। বিশ্ববাণিজ্য আলোচনায় এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর সক্রিয় অংশগ্রহণ প্রয়োজন। বহুপাক্ষিক বাণিজ্য ব্যবস্থায় চলমান সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে তা সমাধানে ভবিষ্যৎ করনীয় নির্ধারণে ডব্লিউটিওকে বলিস্ট ভূমিকা রাখতে হবে।’

পরে টিপু মুনশি আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতের বাণিজ্য, শিল্প ও বেসামরিক বিমান চলাচলমন্ত্রী সুরেশ প্রভূর সাথে একান্ত বৈঠক করেন। এসময় তিনি ভারতের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্য উন্নয়নের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন। বাণিজ্যমন্ত্রী বাংলাদেশের বিভিন্ন পণ্যের উপর ভরত কর্তৃক আরোপিত এট্রি ডাম্পিং ডিউটি প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান। বাংলাদেশে আরো বেশি বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বড় ধরনের ব্যবসায়িক অংশিদারিত্বের ভিত্তি স্থাপন করা সম্ভব।’ তিনি বাংলাদেশ থেকে তৈরি পোশাক আমদানি করার জন্য ভারতের প্রতি আহ্বান জানান।

ভারতের বাণিজ্য, শিল্প ও বেসামরিক বিমান চলাচলমন্ত্রী সুরেশ প্রভূ বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসা করে বলেন, ‘বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য উন্নয়নে ভারত সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে।’

উল্লেখ্য, ইনফরমাল মিটিং অফ দি ডব্লিউটিও মিনিস্টার্স শিরোনামে এ মিটিংয়ে যোগদানের উদ্দেশ্যে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি গত ১১ মে ঢাকা ত্যাগ করেন। আগামী ১৫ মে তিনি দেশে ফিরবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

 

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১৭ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত