যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ১৭ Jun, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 11:39pm

|   লন্ডন - 06:39pm

|   নিউইয়র্ক - 01:39pm

  সর্বশেষ :

  নিউজিল্যান্ডে উড়োজাহাজের সংঘর্ষে ২ পাইলট নিহত   কী কথা হলো মোদি-ইমরানের?   ঢাকায় বস্তিতে সাড়ে ৬ লাখ মানুষের বাস   দুর্ঘটনায় মৃত্যু নয়, সীমান্তে বাংলাদেশিদের হত্যা করা হয় : মির্জা ফখরুল   উজবেকিস্তান পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি   মোহাম্মদ বিন সালমানের বোন ফ্রান্সে বিচারের মুখোমুখি   ‘ইমরান খান ধর্মের প্রতি আন্তরিক’   দুর্নীতি ও অর্থ পাচার নিয়ে সংসদে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ   প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে বাবুনগরীর প্রতিবাদ   চট্টগ্রামে ১০ হাজার ইয়াবাসহ পুলিশের এসআই আটক   নিজেকে নির্দোষ দাবি করলেন ক্রাইস্টচার্চে হামলাকারী   ওমান উপসাগরে ট্যাংকারে হামলায় ইরান দায়ী: মার্কিন সামরিক বাহিনী   আবারও সৌদি বিমানবন্দরে হুতিদের হামলা   ঋণনির্ভর বাজেট জনগণের পকেট কাটবে: ফখরুল   প্রয়োজনেই বড় বাজেট: প্রধানমন্ত্রী

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

‘ঢাকার ৯৩ শতাংশ ফার্মেসি মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখে’

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৬-১০ ১৫:৩২:১১

নিউজ ডেস্ক: রাজধানী ঢাকার ৯৩ শতাংশ ফার্মেসি মালিকই মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখেন। তারা ওষুধগুলো ফেরত না দিয়ে অথবা ফেরত না দিতে পেরে ভোক্তাকে ঠকানোর কাজটি করে থাকেন বলে জানিয়েছেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের বহুল আলোচিত উপ-পরিচালক মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার।

শাহরিয়ার আরো বলেন, এ ক্ষেত্রে ভোক্তাদেরও কিছু দায় দায়িত্ব রয়েছে। তারা বিশ্বাস করেই সব কিছু কেনেন। আমি ভোক্তাদের বলবো, আপনার ওষুধ কেনার আগে অথবা অন্যান্য কিছু পণ্য কেনার আগে গায়ে লেখা মেয়াদ দেখে নিন। অথবা কেনার আগে জিজ্ঞাসা করুন ওষুধটি অথবা পণ্যটির মেয়াদ আছে কি না।

‘বিশ্ব নিরাপদ খাদ্য দিবস’ উপলক্ষে সোমবার সকালে রাজধানীর ফার্মগেটের খামার বাড়িতে আ কা মু গিয়াস উদ্দিন মিলকী মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে মোহাম্মদ শাহরিয়ার এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ সুপার মার্কেট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিযার জানান, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখার দায়ে ভোক্তা আইনের বিভিন্ন ধারায় অনেক প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করার পাশাপাশি কয়েকটি সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এই ধরনের প্রতারণা রোধে অধিদফতরের পক্ষ থেকে সারা দেশেই তদারকি টিম গঠন করা হয়েছে। তদারকি টিম কখনো ক্রেতা সেজে, আবার কখনো ঝটিকা অভিযানের মাধ্যমে ফার্মেসিগুলোর কার্যক্রম নজরদারির আওতায় রেখেছে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সুপারমার্কেট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি বলেন, সরকারের নানামুখী পদক্ষেপের ফলে বাংলাদেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। খাদ্যসংকট নিয়ে দুশ্চিন্তা না থাকলেও এখন নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বক্তারা বলেন, খাদ্য পরিবাহিত রোগে আক্রান্ত হয়ে বছর প্রতি বিশ্বে ৪ লাখ ২০ হাজার মানুষ প্রাণ হারায়। এর আর্থিক ক্ষতিও প্রচুর। আর নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করার বিষয়টি কারও একক দায়িত্ব না। এ ক্ষেত্রে ভোক্তাকেও সতর্ক হতে হবে।

গত ৭ জুন সারা বিশ্বে ‘বিশ্ব নিরাপদ খাদ্য দিবস’ পালিত হয়। এবারই প্রথম বেসরকারিভাবে দিনটি পালন করছে বাংলাদেশ সুপারমার্কেট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন। এ উপলক্ষে ওই দিন থেকেই সারা দেশের সুপার মার্কেটগুলোয় সপ্তাহব্যাপী ‘ভোক্তা সেবা সপ্তাহ’ পালিত হচ্ছে। এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে সুপারমার্কেট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নিয়াজ রহিম, সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন ছাড়াও নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, বিএসটিআইয়ের প্রতিনিধি ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১১২ বার

আপনার মন্তব্য