যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 02:03am

|   লন্ডন - 09:03pm

|   নিউইয়র্ক - 04:03pm

  সর্বশেষ :

  বদলে গেল বাংলা বর্ষপঞ্জি, নতুন নিয়মে বুধবার ৩১ আশ্বিন   এ পি জে আবদুল কালাম: কিংবদন্তি হয়ে ওঠার গল্প   পাকিস্তান সফরে প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটন   আবরার হত্যা: অভিযুক্তদের স্থায়ী বহিষ্কারাদেশ না আসা পর্যন্ত ক্লাসে ফিরবে না শিক্ষার্থীরা   তুহিনকে বাবার কোলে পরিবারের সদস্যরা হত্যা করেছে : পুলিশ   ফতুল্লায় শিশু সন্তানকে ছাদ থেকে ফেলে মারল মা   মেক্সিকোতে বন্দুকধারীদের অতর্কিত হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত   আবরার হত্যার প্রতিবাদে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশীদের বিক্ষোভ   চাকরি করেন স্ত্রী, ৩ বছর ধরে অফিস করেন স্বামী   দারিদ্র্য বিমোচনের গবেষণায় অর্থনীতির নোবেল   রাসূলুল্লাহ (সা.) এর ৫ গুরুত্বপূর্ণ উপদেশ   জেরুসালেমের গভর্নরকে ধরে নিয়ে গেছে ইসরাইলি পুলিশ   সীমান্তে স্থলমাইন স্থাপনের তথ্য অস্বীকার করেছে মিয়ানমার   দেশ থেকে ৯ লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে : মেনন   ভারতে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ১২ জন নিহত

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

জামিনে মুক্তি পেলেন আ.লীগের সাবেক এমপি রানা

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৭-০৯ ০৭:১২:৫৯

নিউজ ডেস্ক: দীর্ঘ ৩৪ মাস কারাভোগের পর অবশেষে জামিনে মুক্তি পেলেন টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক সাংসদ আমানুর রহমান খান রানা।

মঙ্গলবার সকাল পৌনে ৯টায় টাঙ্গাইল জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি। এর আগে মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায়ও উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়েছিলেন তিনি। টাঙ্গাইল জেলা কারাগারের জেলার আবুল বাশার এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রায় ৩৪ মাস কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পেয়ে রানা রাজধানীর ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দেয়ার জন্য ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। এর আগে সোমবার, ৮ জুলাই, দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় রানার জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

গত ১৪ মার্চ মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় হাইকোর্ট থেকে ৬ মাসের জামিন পান রানা। পরবর্তীতে সেটি বহাল রাখে আপিল বিভাগ। কিন্তু দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় জামিন না পাওয়ায় মুক্তি পান নি।

উল্লেখ্য, আওয়ামী লীগের টাঙ্গাইল জেলা কমিটির সদস্য ফারুক আহমেদকে ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের তৎকালীন এমপি আমানুর রহমান খান রানা ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর আত্মসমর্পণ করলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

গত বছরের ৩ মে স্থানীয় দুই যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুন হত্যা মামলাতেও তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। টাঙ্গাইল সদরের বাঘিলের যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুন ২০১২ সালের ১৬ জুলাই টাঙ্গাইল শহরে এসে নিখোঁজ হন। মামুনের বাবা এক বছর পর আদালতে হত্যা মামলা করেন। এই মামলার তিন আসামি আদালতে জবানবন্দি দিয়ে বলেন, সাংসদ আমানুরের নির্দেশে যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুনকে হত্যা করে লাশ নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হয়।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১২৯ বার

আপনার মন্তব্য