যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ১৯ অগাস্ট, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 10:41am

|   লন্ডন - 05:41am

|   নিউইয়র্ক - 12:41am

  সর্বশেষ :

  পুড়ে যাওয়া বস্তি যেন দর্শনীয় স্থান!   ডেঙ্গু: চব্বিশ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১৭০৬   আসামের এনআরসি ও কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল: নেপথ্যে মোদির মুসলিমবিদ্বেষ   কাশ্মীর ইস্যুতে আরব দেশগুলোর নীরবতার নেপথ্য কারণ কী?   কাবুলে বিয়ের অনুষ্ঠানে হামলা, নিহত ৬৩   মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর সোহেল’র ইন্তেকাল   ভারতের পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডার এখন ফ্যাসিস্ট মোদির হাতে : ইমরান খানের হুঁশিয়ারি   রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসীদের সাথে গুলি বিনিময়ে এক সেনাসদস্য নিহত   বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাংলাদেশ কল্পনা করা যায় না: মুক্তিযোদ্বা ডা: সিরাজুল ইসলাম   ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২২৪   কাশ্মীরে বিধি-নিষেধ দ্রুত তুলে দেওয়ার আহ্বান ওআইসির   অরল্যানডোতে বঙ্গবন্ধুর প্রতি সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা   আ.ন.ম শফিকুল হকের মৃত্যুতে আনোয়ার শাহদাতের শোক   মনের সুখই আসল সুখ   পাইলট যেভাবে বিমানটিকে ভুট্টা ক্ষেতে নামালেন

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

ফরিদপুরে আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে, ২ জন নিহত

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-১০ ১৩:৩৯:২০

নিউজ ডেস্ক: ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার বিকালে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় দুই জন নিহত ও অন্তত ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

নিহতরা হলেন-রওশন মিয়া (৫২) ও তুহিন মিয়া (২২)। এ দুজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় ফরিদপুর

মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকাল সাড়ে ৬টায় তাদের মৃত্যু হয়।

আহতদের মধ্যে যাদের অবস্থা গুরুতর তারা হলেন, গোলাম মওলা (৩০), গোলাম রসুল বিপ্লব (২৫), আনিস মিয়া (২৪) ও রায়হান মিয়াকে (৬৫)।

আহতদের ৬ জনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ৪ জনকে নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, গত ৪ থেকে ৫ বছর ধরে এলাকার আধিপত্য বিস্তার নিয়ে কাইচাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঠান্ডু মিয়ার সঙ্গে কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য হানিফ মিয়া হৃদয়ের বিরোধ চলে আসছিল।

আগে একটি হত্যা মামলার কারণে হানিফ মিয়া এলাকা ছাড়া হয়ে ছিলেন। আসন্ন ঈদে তিনি এলাকায় ফিরতে চাইলে প্রতিপক্ষের লোকজন বাধা প্রদান করে। এসময় প্রতিপক্ষের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে হানিফ মিয়া ও তার গ্রুপের।

এক পর্যায়ে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। গোলাগুলিতে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

হামলার খবর পেয়ে পুলিশ সুপারসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা হাসপাতালে ছুটে যান। ফরিদপুর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে রাখা হয়েছে।

নগরকান্দা থানার ওসি মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, হামলার পর আসামীরা যাতে পালিয়ে যেতে না পারে সেজন্য বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোষ্ট বসানো হয়েছে।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১২০ বার

আপনার মন্তব্য