যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ০৫ Jun, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 03:11pm

|   লন্ডন - 10:11am

|   নিউইয়র্ক - 05:11am

  সর্বশেষ :

  দেশে ১০ জেলায় বজ্রপাতে ২২ জনের মৃত্যু   লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে বৃহস্পতিবার কারফিউ থাকছে না: শেরিফ   জর্জ ফ্লয়েড হত্যা: বিক্ষোভে ট্রাম্পের মেয়ের সমর্থন   করোনায় রানা প্লাজার মালিকের মৃত্যু   দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৩৫, নতুন শনাক্ত ২৪২৩   রবিবার ফেসবুক ও ইস্টাগ্রাম লাইভে আসছেন পাপী মনা   যেভাবে করোনাভাইরাস থেকে নিজেকে এবং পরিবারকে সুরক্ষিত রাখবেন   বিশ্বব্যাপী একদিনে করোনা থেকে সুস্থ দেড় লাখ, মৃত্যু সাড়ে ৫ হাজার   ক্যালিফোর্নিয়ায় বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের অগ্রভাগে তরুণরা   প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের স্বাস্থ্য পরীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশ   পুলিশের বাজেট বাড়ছে না, ব্ল্যাক কমিউনিটি বরাদ্দ পাবে ২৫০ মিলিয়ন ডলার   করোনায় একদিনে গেল আরও ৪৬ প্রাণ, আক্রান্ত ৫৮ হাজার ২৩৪   যেভাবে বর্ণবাদের ইতিহাসে নাম লেখাল যুক্তরাষ্ট্র   এখনো চলছে বর্ণবাদ   যুক্তরাষ্ট্রের পতন কি অনিবার্য!

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

আবরার হত্যা : অবশেষে গ্রেফতার ছাত্রলীগ নেতা অমিত সাহা

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-১০-১০ ০৭:৩৬:৪৮

নিহত বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ ও হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত গ্রেফতারকৃত বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের উপ-আইনবিষয়ক সম্পাদক অমিত সাহা

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ প্রকেৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত ও মামলার বহুল আলোচিত আসামি ছাত্রলীগ নেতা অমিত সাহাকে অবশেষে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় রাজধানীর সবুজবাগ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত অমিত সাহা বুয়েট ছাত্রলীগের উপ-আইনবিষয়ক সম্পাদক। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত আবরার হত্যার ঘটনায় ১৪ জনকে গ্রেফতার করলো পুলিশ।

এদিকে ছাত্রলীগ নেতা অমিত সাহাকে গ্রেফতারের কথা নিশ্চিত করেছে ডিএমপি’র গোয়েন্দা ও অপরাধতথ্য বিভাগ। গ্রেফতারকৃত অমিত বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৬তম ব্যাচের ছাত্র।

উল্লেখ্য, আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যার পর আলোচনার শীর্ষে উঠে আসেন অভিযুক্ত অমিত সাহা। তিনি বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের উপ-আইনবিষয়ক সম্পাদক। আবরার হত্যাকারণ্ডর পর থেকেই পলাতক ছিলেন তিনি। ঘটনার দিন বুয়েটের শের-ই বাংলা হলে তার কক্ষেই ডেকে নিয়ে প্রথমে পেটানো হয় আবরার ফাহাদকে।

এদিকে আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে অমিত সাহা প্রত্যক্ষভাবে জড়িত অভিযোগ করে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা জানান, আবরার ফাহাদ হলে আছেন কিনা সে বিষয়ে প্রথম খোঁজ নিয়েছিলেন শাখা ছাত্রলীগের উপ-আইনবিষয়ক সম্পাদক অমিত সাহা। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় অমিত সাহা আবরারের এক বন্ধুকে ইংরেজি অক্ষরে ‘আবরার ফাহাদ হলে আছে কিনা তা জানতে চেয়ে মেসেজ দেন।

মেসেজের এক ঘণ্টার মধ্যেই শের-ই বাংলা হলের ছাত্রলীগ নেতারা আবরারকে ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে এনে লাঠি, চাপাতি ও স্ট্যাম্প দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৩২১ বার

আপনার মন্তব্য