যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ২৩ Jul, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 03:56pm

|   লন্ডন - 10:56am

|   নিউইয়র্ক - 05:56am

  সর্বশেষ :

  জার্মান থেকে অবসরই নিয়ে ফেললেন ওজিল   টরোন্টোতে ১৫ জনকে গুলি, হামলাকারীসহ নিহত ২   ওয়েস্ট ইন্ডিজে বাংলাদেশের দাপুটে জয়   মাহমুদুর রহমান ইউনাইটেডে ভর্তি, দেখতে গেলেন ফখরুল   জাপানে তাপদাহে ৩০ জনের মৃত্যু   মসজিদে নববীর সাবেক ইমাম ও মুসাইদ আত তাইয়ার গ্রেফতার   গরু চোরাচালানি সন্দেহে ভারতে মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা   কাবুল বিমানবন্দরের প্রবেশ পথে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১১   বিনামূল্যে চিকিৎসা পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা   কুষ্টিয়ায় ছাত্রলীগের হামলায় মাহমুদুর রহমান গুরুতর আহত   বৃহৎ শ্রমবাজারে কর্মী যাওয়া নেমে এসেছে অর্ধেকে   ভালো ব্যবসার জন্য প্রয়োজন দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা : নিউইয়র্কে বিজনেস ডেভোলেপমেন্ট ওয়ার্কশপে বক্তারা   ধর্ষণের ভয়ে ভারত যাচ্ছেন না সুইজারল্যান্ডের এক নম্বর তারকা   রাজধানীতে বাড়ির নিচে ‘গুপ্তধন’   ইরানে সন্ত্রাসী হামলায় ১০ সেনা নিহত

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

আজ বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১০ ১২:৩৭:৩৭

নিউজ ডেস্ক: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস বুধবার (১০ জানুয়ারি)। পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তন করেন।

এর আগে তিনি পাকিস্তান থেকে লন্ডন যান। তারপর দিল্লি হয়ে ঢাকা ফেরেন। দিবসটি পালন উপলক্ষে আওয়ামী লীগ ও দলটির সহযোগী সংগঠনসহ বিভিন্ন দল ও সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিবসটি উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন।

জাতির জনক পাকিস্তান থেকে ছাড়া পান ১৯৭২ সালের ৭ জানুয়ারি ভোরে। ইংরেজি ক্যালেন্ডারের হিসেবে দিনটি ছিল ৮ জানুয়ারি। বঙ্গবন্ধুকে বিমানে তুলে দেওয়া হয়। সকাল সাড়ে ৬টায় তিনি পৌঁছান লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে। বেলা ১০টার পর থেকে তিনি কথা বলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড হিথ, তাজউদ্দিন আহমদ এবং ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীসহ অনেকের সঙ্গে। পরে ব্রিটিশ বিমান বাহিনীর একটি বিমানে করে ৯ জানুয়ারি দেশের পথে যাত্রা করেন।

১০ তারিখ সকালে তিনি দিল্লিতে অবতরণ করেন। সেখানে ভারতের রাষ্ট্রপতি ভিভি গিরি, প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী, মন্ত্রিসভার সদস্য, তিন বাহিনী প্রধানসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি এবং দেশটির জনগণের কাছ থেকে উষ্ণ অভ্যর্থনা লাভ করেন সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের জনক শেখ মুজিবুর রহমান।

বঙ্গবন্ধু ভারতের নেতৃবৃন্দ এবং জনগণকে মুক্তিযুদ্ধে তাদের অকৃপণ সাহায্যের জন্য আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান। তার এই স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকে আখ্যায়িত করেন ‘অন্ধকার হতে আলোর পথে যাত্রা হিসেবে।’

বঙ্গবন্ধু ঢাকা এসে পৌঁছান ১০ জানুয়ারি। ১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয়ের পর বাঙালি জাতি তাকে প্রাণঢালা সংবর্ধনা জানানোর জন্য অপেক্ষায় ছিল। আনন্দে আত্মহারা লাখ লাখ মানুষ ঢাকা বিমানবন্দর থেকে রেসকোর্স ময়দান পর্যন্ত তাকে স্বতঃস্ফূর্ত সংবর্ধনা জানান। বিকাল পাঁচটায় রেসকোর্স ময়দানে প্রায় ১০ লাখ লোকের উপস্থিতিতে তিনি ভাষণ দেন। সশ্রদ্ধচিত্তে তিনি সবার ত্যাগের কথা স্মরণ করেন, সবাইকে দেশ গড়ার কাজে উদ্বুদ্ধ করেন।


এলএবাংলাটাইমস/এন/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৬২৬ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত