যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ২২ মে, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 05:08am

|   লন্ডন - 12:08am

|   নিউইয়র্ক - 07:08pm

  সর্বশেষ :

  দ্বিতীয় বিয়ে বাধ্যতামূলক যেখানে   চীনে মসজিদে মসজিদে জাতীয় পতাকা ওড়ানোর নির্দেশ   করাচিতে দাবদাহে হিট-স্ট্রোকে ৬৫ জনের মৃত্যু   যুদ্ধক্ষেত্রে সর্বাধুনিক এফ-৩৫ উড়িয়েছে ইসরায়েল   মিলানে ছাত্রলীগের আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল   নিউজার্সিতে কুলাউড়া এসোসিয়েশনের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত   তথাকথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এবার ৯ জেলায় নিহত ১২   আর্জেন্টিনার চূড়ান্ত দল ঘোষণা   মাদকের আন্ডারওয়ার্ল্ডে ১৪১ গডফাদার   মদিনায় বিমান দুর্ঘটনা থেকে বাঁচলেন ১৫১ বাংলাদেশি   রাজীবের দুই ভাইকে কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আদেশ স্থগিত   বান্দরবানে পাহাড় ধসে ৪ শ্রমিক নিহত   ইবাদতের মৌসুম মাহে রমজান   শান্তিনিকেতনে শুক্রবার হাসিনা-মোদি-মমতার সাক্ষাৎ   ইরানের ওপর ‘ইতিহাসের বড় নিষেধাজ্ঞা’ দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

ভেরিফিকেশনে গিয়ে ফুল-মিষ্টি দিয়ে পুলিশ সুপারের শুভেচ্ছা!

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-২০ ১২:০১:৪৭

নিউজ ডেস্ক: বিসিএস ক্যাডারে নিয়োগের সুপারিশ পাওয়া ১২ জনের ভেরিফিকেশন করতে গিয়ে ফুল ও মিষ্টি দিয়ে তাদের শুভেচ্ছা জানিয়ে এসেছে পুলিশ। বুধ থেকে শনিবার (১৭ থেকে ২০ জানুয়ারি) বরিশালের উজিরপুর উপজেলার ৯ জন ও বানারীপাড়া উপজেলার ৩ জনের বাসায় ফুল ও মিষ্টি নিয়ে যান জেলা পুলিশের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (উজিরপুর সার্কেল) মো. আকরামুল হাসান। ব্যতিক্রমী এমন উদ্যোগে মুগ্ধ সুপারিশ পাওয়া ১২ জনের অভিভাবকরাও।

৩৬তম বিসিএসে নিয়োগের সুপারিশ পেয়েছেন উজিরপুরের মইনুল ইমরান রানা, উম্মে সালমা তানিয়া, শাহজালাল নাইম, জাহিদুল ইসলাম, ইমরান হোসেন সোহাগ, সাদিয়া আফরিণ জুলি, মোর্শেদা আক্তার মিমি, সীমা মন্ডল ও এজেডএম খালিদ হাসান সৈকত এবং বানারীপাড়া উপজেলার মো. মিলন মিয়া, সাবিহা মেহবুবা লিয়া ও মাহমুদুল হাসান।

উজিরপুরের দক্ষিণ বড়াকোঠা গ্রামের সীমা মন্ডল বলেন, ‘পুলিশ ভেরিফিকেশনে নানা ধরনের হয়রানির কথা শুনেছি। আমি কিছুটা শঙ্কিত ছিলাম। তবে আমার ক্ষেত্রে ভেরিফিকেশনে এসে পুলিশ ফুল ও মিষ্টি দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে গেছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘শুনেছি, ওই পুলিশ কর্মকর্তা খোঁজ-খবর নেওয়ার পর মিষ্টি নিয়ে বাসায় আসেন এবং ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এ ঘটনায় আমি ও আমার পরিবার মুগ্ধ।’

নিয়োগের সুপারিশ পাওয়া একই গ্রামের আরও একজন বলেন, ‘আমি ভাবতেও পারিনি, পুলিশ কর্মকর্তা মিষ্টি নিয়ে বাসায় এসে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাবেন। সত্যিই এটি আমার জীবনের স্মরণীয় ঘটনা হয়ে থাকবে।’

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আকরামুল হাসান বলেন, ‘নিয়োগের সুপারিশ পাওয়া ৯ জনের বাড়ি আমার থানার মধ্যে। সুপারিশপ্রাপ্তদের মধ্যে পুলিশ ভেরিফিকেশন নিয়ে ভীতি ও নেতিবাচক ধারণা থাকে। সে ধারণা ভেঙে দিতে আমি তাদের শুভেচ্ছা জানাতে গিয়েছিলাম।’ তিনি আরও বলেন, ‘কয়েক লাখ পরীক্ষার্থীর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে উজিরপুর উপজেলার ৯ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়ে চাকরিতে নিয়োগের সুপারিশ পেয়েছেন। নিঃসন্দেহে তারা অনেক মেধাবী। সেজন্যও তাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো।’


এলএবাংলাটাইমস/এন/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১৩৩৫ বার

আপনার মন্তব্য