যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 12:07pm

|   লন্ডন - 07:07am

|   নিউইয়র্ক - 02:07am

  সর্বশেষ :

  আলোচনায় চেয়ে মোদিকে ইমরানের চিঠি   অন্তর্জ্বালা থেকে মনগড়া ও ভুতুড়ে কথা বলেছেন সিনহা : কাদের   ফিলিপাইনে ভূমিধস, ১২ জনের মৃত্যু   বিশ্বে প্রতি ৫ সেকেন্ডে ১ শিশু মারা যায়   ঢাকায় পুলিশের লাঠিপেটায় বাম জোটের ঘেরাও কর্মসূচি পণ্ড   বাংলাদেশে বছরে একলাখ লোক ক্যান্সারে মারা যায়   রোহিঙ্গাদের জন্য বিশ্বব্যাংকের ৪১০ কোটি টাকা সহায়তা   অনুপস্থিতিতেই বিচার চলবে খালেদা জিয়ার   বাংলা প্রেসক্লাব ইতালির সংবর্ধনায় সুন্দর সমাজ গঠনে সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান   ১৭তম নজরুল সম্মেলনে আজীবন সম্মাননা পেলেন ইকবাল বাহার চৌধুরী   ভারতে এবার বিক্রি হবে গোবর, গো-মূত্রের সাবান   নাজিব রাজাক গ্রেপ্তার   মুক্তি পেলেন নওয়াজ শরিফ   দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে ইয়েমেনের ৫২ লাখ শিশু   কওমির দাওরায়ে হাদিস সনদকে মাস্টার্সের সমমান প্রদান

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

রাজধানীতে বস্তিতে অগ্নিকাণ্ড, নিমেষেই ছাই হলে গেল ৪ হাজার ঘর

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-১২ ০৬:০৩:১৮

নিউজ ডেস্ক: সোমবার ভোরে রাজধানীর ১২ নম্বর সেকশনের বস্তিতে আগুন লাগলে প্রায় চার হাজার ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ছবি : ফোকাস বাংলা

আকস্মিক আগুনে পুড়ে গেছে রাজধানীর মিরপুর ১২ নম্বর সেকশনে অবস্থিত ইলিয়াস আলী মোল্লা বস্তির প্রায় চার হাজার ঘর।

আজ সোমবার ভোর ৪টায় ওই বস্তিতে হঠাৎ আগুন ধরে যায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে ফায়ার সার্ভিসের ২১টি ইউনিট। সকাল ৭টা ২২ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে ততক্ষণে পুড়ে গেছে চার হাজার ঘর।

ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক দেবাশীষ বর্ধন এনটিভি অনলাইনকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক শাকিল নেওয়াজ বলেন, ইলিয়াস আলি মোল্লা বস্তির প্রায় ৫০ ভাগ ঘর  আগুনে সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনই বলা সম্ভব না। কারণ অনুসন্ধানে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণ করবে।

তদন্ত কমিটির প্রধান ও ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক দেবাশীষ বর্ধন এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে গেছে ৪৫ ভাগের বেশি ঘর। ওই বস্তিতে মোট আট হাজার ঘর ছিল বলে আমরা জানতে পেরেছি। তার মানে প্রায় চার হাজার ঘর পুড়ে গেছে। তবে আগুন লাগার কারণ আমরা এখনো নিশ্চিত হতে পরেনি।’

কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে জানতে চাইলে এই কর্মকর্তা বলেন, ‘বহু টাকার জিনিসপত্র ক্ষতি হয়েছে বলে আমরা ধারণা করছি। তবে নির্দিষ্ট করে এখুনি বলতে পারছি না। আমাদের তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন জমা দিলেই আসলে আমরা নির্দিষ্ট করে বলতে পারব কী পরিমাণ ক্ষতি সেখানে হয়েছে।’

আগুনে এখন পর্যন্ত একজন নারীর দগ্ধ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ওই বস্তির বাসিন্দা পোশাক শ্রমিক রাফিয়া বেগম জানালেন, দীর্ঘদিন ধরে এই বস্তিতে বাস করছিলেন তিনি। তাঁর ঘরে যেসব জিনিসপত্র ছিল তার কিছুই বের করতে পারেননি। তিনি বলেন, ‘সব ছাই হয়ে গেছে। আমার মেয়ের বই-খাতা, জামা-কাপড়সহ ঘরের আর কিচ্ছু নেই। আমাগোর দিকে আল্লাহরও নজর নেই। আমি এখন কী করব? চোখে অন্ধকার দেখছি।’


এলএবাংলাটাইমস/এন/এলআরটি 

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৭৮৮ বার

আপনার মন্তব্য