যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 04:49pm

|   লন্ডন - 11:49am

|   নিউইয়র্ক - 06:49am

  সর্বশেষ :

  আইসিসি মিয়ানমারে এলে বন্দুক ধরবো : উইরাথু   ২০ বছর পর পার্লামেন্টে ফিরলেন আনোয়ার ইব্রাহিম   নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলে পাল্টা ব্যবস্থার হুমকি সৌদির   চার দিনের সফরে সৌদি আরব যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী   একাদশ সংসদ নির্বাচনের জন্য ৭০০ কোটি টাকা অনুমোদন   খাশোগি নিখোঁজের ‘বিশ্বাসযোগ্য তদন্ত’ চায় যুক্তরাজ্য-ফ্রান্স-জার্মানি   গ্রামের একটি তৃণমূল বীরের বাদ্যযন্ত্র নিয়ে কাহিনী   অনুভবে নজরুল: জ্যাকসন হাইটসে শতদলের মনোজ্ঞ অনুষ্ঠান   হলিউডে দুর্গাপূজা আগামী ১৯, ২০ ও ২১ অক্টোবর   প্র‌তিভার সন্ধা‌নে ইতা‌লীতে শুরু হ‌চ্ছে দি রাইজিং স্টার   এবার মুম্বাইয়ে বাংলাদেশিদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক অবস্থান   ড. ইউনুসের কারণে পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন করেনি বিশ্বব্যাংক : শেখ হাসিনা   অবশেষে বিএনপিকে নিয়ে ‘জাতীয় ঐক্য ফ্রন্ট’র আত্মপ্রকাশ, বিকল্পধারা আউট   খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেও বিচার চলবে   চট্টগ্রামে পাহাড় ও দেয়াল ধসে ৪ জনের মৃত্যু

মূল পাতা   >>   নিউইয়র্ক

প্রবাসে বাংলা সংস্কৃতি বিকাশে সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে : এটর্নী মঈন চৌধুরী

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-২৭ ১৩:২৯:২২

নিউজ ডেস্ক: প্রবাসে বাংলা সংস্কৃতি সংরক্ষণ ও বিকাশে বাংলাদেশ সরকারকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান এটর্নী মঈন চৌধুরী। গত ২৩ শে ডিসেম্বর শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় জ্যামাইকাস্থ স্টার পার্টি হলে বাংলাদেশ-আমেরিকা কালচারাল একাডেমী আয়োজিত শীতের পিঠা উৎসব এর উদ্ভোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ডেমোক্রেটিক পার্টির  ডিস্ট্রিক্ট লিডার এট-লার্জ এর্টনী এট ল’  মঈন চৌধুরী এই মন্তব্য করেন।

সংগঠনের সভাপতি পারভীন বানুর সভাপতিত্বে ও শেখ সিরাজ এর সঞ্চালনায় পিঠা উৎসবে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাঃ রোমানা সবুর, নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সভাপতি ডাঃ ওয়াজেদ এ খান, নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি  মাহফুজুর রহমান, এবিএম সালাহ্উদ্দিন সহ আরো অনেকে।

প্রধান অতিথি এর্টনী মঈন চৌধুরী তাঁর বক্তব্যে আরো বলেন, যে দেশের সংস্কৃতি যত বেশি সমৃদ্ধ সেই দেশ তত বেশি উন্নত, আমরা বাংলাদেশী হিসেবে বাংলাদেশের সাহিত্য ও সংস্কৃতি নিয়ে গর্ববোধ করতে পারি। এই সংস্কৃতি সংরক্ষণ করার দায়িত্ব আমাদের সকলের। আমরা যদি সংরক্ষণ করতে না পারলে ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে তা হারিয়ে যাবে। প্রবাসে শত ব্যস্ততার মাঝেও যারা এই সংস্কৃতিকে কাজে কর্মে বাচিয়ে রেখেছেন তাদের প্রতি আমরা সবাই কৃতজ্ঞ। বাংলাদেশের বিশাল একটি জনগোষ্ঠী প্রবাসে স্থায়ীভাবে বসবাস করছে বিধায় বাংলাদেশ সরকারের উচিত প্রবাসে বাংলা সংস্কৃতি বিকাশে, সংরক্ষণে এবং প্রচারে বিভিন্ন সংগঠনকে প্রবাসী মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে সর্বাত্মকভাবে সহযোগিতা প্রদান করা। অন্যথায় হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি অদূর ভবিষ্যতে নতুন প্রজন্মের কাছে পৌছানো কষ্টসাধ্য হবে পড়বে।

পিঠা উৎসবে আগত সকল অতিথিকে বিভিন্ন ধরনের সুস্বাদ্যু পিঠা পরিবেশন করা হয় এবং স্থানীয় শিল্পীবৃন্দের প্রাণবন্ত মনোঞ্জ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পিঠা উৎসবকে উপভোগ্য করে তুলা হয়।


এলএবাংলাটাইমস/এনওয়াই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৯৭৮ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত

সাম্প্রতিক খবর