যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 06:27pm

|   লন্ডন - 12:27pm

|   নিউইয়র্ক - 07:27am

  সর্বশেষ :

  জামায়াত বিলুপ্তির প্রস্তাব, যা বললেন ওবায়দুল কাদের   আইএসে যোগ দেওয়া ব্রিটিশ-বাংলাদেশিকে ফিরতে দেওয়া হবে না   পানি চুরি!   কাশ্মিরে যে কোনও পদক্ষেপ নিতে সেনাবাহিনীকে মোদির অনুমতি   আখেরি মোনাজাতে শেষ হল ইজতেমার প্রথম পর্ব   যুক্তরাষ্ট্রে শিকাগোর শিল্পাঞ্চলে বন্দুক হামলায় নিহত ৫   নাইজেরিয়ায় বন্দুকধারীদের গুলিতে ৬৬ জন নিহত   সোনালী কাবিন’র কবি আল মাহমুদ আর নেই, বাদ জোহর জানাযা   ভাইরাল হতে গিয়ে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার   আর প্রধানমন্ত্রিত্ব চাই না: ডয়েচে ভেলেকে শেখ হাসিনা   কাশ্মিরে পুলিশ বাসে হামলায় নিহত ৪২   সোহরাওয়ার্দী মেডিকেলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড   তিনদিনের সফরে জার্মানিতে প্রধানমন্ত্রী   নির্বাচন চ্যালেঞ্জ করে ঐক্যফ্রন্টের ৭৪ প্রার্থীর মামলা   বাংলাদেশে ই-পাসপোর্ট আসছে জুনে

মূল পাতা   >>   খেলাধুলা

ফের বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক সাকিব

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-১০ ১৩:২৫:৫২

নিউজ ডেস্ক: টেস্ট অধিনায়কত্ব হারালেন মুশফিকুর রহিম। তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের কাঁধে ফের তুলে দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়কত্ব। তার সহকারী করা হয়েছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নতুন কার্যনির্বাহী পরিষদের দ্বিতীয় সভা ছিল আজ রোববার। দ্বিতীয় সভাতেই বড় পরিবর্তন আনল বিসিবি। মুশফিকের সহকারী ছিলেন তামিম ইকবাল। ফলে অধিনায়ক ও সহকারী অধিনায়কত্বের দুটি পদেই পরিবর্তন আনল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, ‘আগামী সিরিজ থেকে আমাদের টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন সাকিব আল হাসান। সহ-অধিনায়ক হচ্ছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।’

এর আগেও সাকিব আল হাসান বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৯ থেকে ২০১১ পর্যন্ত সাকিবের নেতৃত্বে ৯টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। ১টিতে জয় বাদে ৮টিতেই হেরেছে বাংলাদেশ।

২০০৯ সালের জুলাই-আগস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর করেছিল বাংলাদেশ। মাশরাফির নেতৃত্বে ওয়েস্ট ইন্ডিজ গেলেও প্রথম টেস্ট খেলার সময় হাঁটুর চোটে ছিটকে যান অধিনায়ক। পরবর্তীতে সাকিব দায়িত্ব নেন। ২০১১ সালের আগস্টে জিম্বাবুয়ে সফরে যায় বাংলাদেশ। সাকিবের নেতৃত্বে জিম্বাবুয়েতে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল বাংলাদেশ। দেশে ফেরার পর বেশ কিছু ‘বিতর্কের’ কারণে সাকিবকে অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে মুশফিকের হাতে তুলে দেওয়া হয় দায়িত্ব।

২০১১ সালে দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর পর্যন্ত ৩৪ ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছেন মুশফিক। তার হাত ধরে বাংলাদেশ জিতেছে সর্বোচ্চ ৭টি ম্যাচ। ৯টি ড্র করলেও হেরেছে ১৮টিতে। মুশফিকের অধিনায়কত্ব কেন নেই তার সুস্পষ্ট কোনো ব্যাখ্যা দেননি বোর্ড প্রধান, ‘বিশেষ কোন কারণ যে নেই তা নয়। তবে থাকলে সেই সব কারণ বলা যাচ্ছে না। আমরা মনে করেছি এখানে একটা পরিবর্তন হওয়ার দরকার। ব্যাটিংয়ে সে মনোযোগ দিক।’

বোর্ড সভাপতি জানিয়েছেন, মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে কথা বলে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

বলার অপেক্ষা রাখে না দক্ষিণ আফ্রিকার ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনায়ই মুশফিকুর রহিম তার অধিনায়কত্ব হারিয়েছেন। ব্লুমফন্টেইন টেস্টের প্রথম দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে দল নির্বাচন নিয়ে অনেক মন্তব্য করেছিলেন। যেগুলো পছন্দ হয়নি অনেকেরই!

সাকিব ও মাহমুদউল্লাহ কতদিনের জন্য দায়িত্ব পেয়েছেন, তা নির্দিষ্ট করেননি বোর্ড সভাপতি। তবে বলেছেন, ‘আমরা যে পরিকল্পনা করেছি…শুধু এখনকার সময় দেখলে তো হবে না। সামনে আগামী চার-পাঁচ বছরের জন্য আমরা যে পরিকল্পনা সেট করেছি, তারই একটা পদক্ষেপ এটি। অন্যান্য জায়গায়ও পরিবর্তন আসবে।’

শ্রীলঙ্কা সিরিজে মাশরাফি বিন মুর্তজার কাছ থেকে টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব পান সাকিব আল হাসান। এবার সাকিবের কাঁধে সাদা পোশাকের দায়িত্ব।


এলএবাংলাটাইমস/এস/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৩৮৯ বার

আপনার মন্তব্য