যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ১৮ অগাস্ট, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 04:48pm

|   লন্ডন - 11:48am

|   নিউইয়র্ক - 06:48am

  সর্বশেষ :

  সবচেয়ে বেশি আয় স্কারলেট জোহানসনের   শিক্ষার্থীদের নিঃশর্ত মুক্তি দেয়ার দাবি ড. কামালের   ছাত্র আন্দোলনে ‘গুজব’ ছড়ানোর অভিযোগে কফিশপের মালিক ফারিয়া রিমান্ডে   এবার ট্রাম্পের পুত্রবধূর বিরুদ্ধে অভিযোগ   যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে চীন!   হ্যান্ডশেক না করা সেই সুইডিশ তরুণী মামলায় জিতলেন   ভারতে বন্যা ও ভূমিধসে নিহত ৮ শতাধিক   পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, শপথ শনিবার   মিলানে শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন   নিউজিল্যান্ডে বাড়ি কিনতে পারবে না বিদেশিরা   লিবিয়ায় হত্যার দায়ে ৪৫ জনের মৃত্যুদণ্ড   কোটা সংস্কার আন্দোলন : ইডেন কলেজছাত্রী ৩ দিনের রিমান্ডে   বঙ্গবন্ধু হত্যায় খালেদাও জড়িত: প্রধানমন্ত্রী   ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বাজপেয়ী আর নেই   আমেরিকার বিপক্ষে তুরস্কের সঙ্গে জার্মান

মূল পাতা   >>   টুকিটাকি

নিশ্চিত মৃত্যু জেনেও প্রেমিকাকে বিয়ে, অতঃপর…

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-০৫ ১১:২৮:০৭

নিউজ ডেস্ক: সাদা গাউন গায়ে জড়িয়ে অক্সিজেন মাস্ক লাগিয়ে হাসপাতালের বেডে শুয়েছিলেন ক্যানসার আক্রান্ত কনে। হাসপাতালেই উপস্থিত হন বর, দুই পরিবারের আত্মীয়স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবরা। কনের হাতে আংটি পরালেন বর। বরের দিকে গভীর দৃষ্টিতে তাকিয়ে বলেন, আই ডু।

বিয়ে সম্পন্ন হবার সঙ্গে সঙ্গে অক্সিজেন মাস্ক লাগানো অবস্থাতেই দুহাত তুলে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন কনে। কিছুক্ষণ পরই কনের শরীর আরো খারাপ হতে শুরু করে। শেষমেশ বিয়ের ঠিক ১৮ ঘণ্টা পরেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন নববধূ।

প্রেমিকা হিথার মোসহেরের নিশ্চিত মৃত্যু জেনেও হাসপাতালে বিয়ে করেন ডেভিড মোসহের। গত বছরের ২২ ডিসেম্বর ঘটে যাওয়া এই অভূতপূর্ব ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাটের হার্টফোর্ড শহরের ফ্যান্সি হাসপাতাল ও মেডিকেল সেন্টারের চিকিৎসক ও কর্মীরা। হিথার বেঁচে নেই কিন্তু তার বিয়ের ছবি ভাইরাল হয়ে ঘুরছে নেট দুনিয়ায়।

২০১৫ সালে হিথারের সঙ্গে প্রথম দেখা হয়েছিল ডেভিডের। প্রথম দর্শনেই প্রেম। দিনে দিনে প্রেমেরে সম্পর্ক আরো গভীর হয়। যেদিন হিথারকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়ার পরিকল্পনা করেন ডেভিড, ঠিক সেদিনই জানা যায় হিথার স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত। তবু বিয়ের প্রস্তাব দেন ডেভিড।

প্রেমিকার এই কঠিন অবস্থায় তার পাশে থাকতে চান ডেভিড। তার শেষ সময়টাকে আনন্দে ভরিয়ে দিতে চান তিনি। প্রথমে তারা ঠিক করেন ডিসেম্বরের ৩০ তারিখ বিয়ে করবেন। কিন্তু হিথারের শারীরিক পরিস্থিতি দ্রুতই খারাপ হচ্ছিল। চিকিৎসকরা জানান, হিথারের হাতে খুব বেশি সময় নেই। তাই হাসপাতালেই ২২ ডিসেম্বর বিয়ের আয়োজন করা হয়।

ডেভিড বলেন, আমি তাকে তীব্র যন্ত্রণায় ছটফট করতে দেখেছি। কিন্তু বিয়ের পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত বেঁচে থাকার আশা ছাড়েনি হিথার। তার মতো কেউ কখনো ভালবাসতে পারবে না আমায়। যেখানে বিয়ের শপথ নিয়ে একসঙ্গে থাকার কথা ছিল আমাদের, সেখানে আমি আমার স্ত্রীকে চিরদিনের বিদায় জানালাম।


 এলএবাংলাটাইমস/টি/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৮৯৩ বার

আপনার মন্তব্য