যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 11:12pm

|   লন্ডন - 06:12pm

|   নিউইয়র্ক - 01:12pm

  সর্বশেষ :

  জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন   আমেরিকারপ্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের প্রমাণ মিলেছে   খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া শপথ নেয়ার প্রশ্নই আসে না: মওদুদ   তারেক-জোবাইদার ব্রিটেনের ৩ ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ দিল ঢাকার আদালত   ভারতের নির্বাচনে বাংলাদেশে যে প্রভাব পড়তে পারে   নুসরাত হত্যা : আ.লীগ নেতা রুহুল আমিন আটক   দেশের গণমাধ্যম স্বাধীনভাবে কাজ করছে : তথ্যমন্ত্রী   গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সূচকে দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ   আল্লাহর রহমতে আ.লীগের জনপ্রিয়তা আরও বেড়েছে : প্রধানমন্ত্রী   নতুন চমক নিয়ে আসছেন এআর রহমান   ইতালিতে বারবিকিউয়ের আগুন থেকে দাবানল, দুই শিক্ষার্থীকে ২৭ মিলিয়ন ইউরো জরিমানা   দেশেই উৎপাদন হবে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ গাড়ি   বিমানবন্দরে অস্ত্র গুলিসহ উপজেলা চেয়ারম্যান আটক   নুসরাতকে নিয়ে ছোট ভাই রায়হানের আবেগঘন স্ট্যাটাস   কৌশলগত ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল উত্তর কোরিয়া

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

সংলাপে সমাধান না হলে আঙ্গুল বাঁকা করা হবে : ঐক্যফ্রন্ট

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-১১-০৬ ০৯:৪৬:২১

নিউজ ডেস্ক: সংলাপে সমাধান না আসলে আঙ্গুল বাঁকা করা হবে। শেখ হাসিনাকে এখনি গদি ছাড়তে হবে। এই অবৈধ সরকার নির্বাচনটাকেও খেয়ে ফেলেছে। শেখ হাসিনাকে সংসদ ভেঙে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ও খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ সাত দফা দাবি মেনে নিতেই হবে, তা না হলে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে।

মঙ্গলবার (০৬ নভেম্বর) দুপুরে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভায় এসব কথা বলেন বক্তারা।

বক্তারা বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি প্যারোলে নয়, নিঃশর্ত দিতে হবে। খালেদা জিয়াকে কারাগারে নির্বাচন হবে না। সংলাপ চলবে খালেদার আবার প্রধানমন্ত্রী হবেন। খালেদা জিয়ার মুক্তি প্যারোলে নয়, নিঃশর্ত দিতে হবে। খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে নির্বাচন হবে না। সংলাপ চলবে খালেদার আবার প্রধানমন্ত্রী হবেন।

তারা আরও বলেন, দুর্নীতি, লুন্ঠন, অনিরাপত্তা, অস্থিতিশীলতা, সন্ত্রাস, আইনের শাসন ও ন্যায় বিচারের অনুপস্থিতিতে মানুষ আজ উৎকন্ঠিত, অস্থির ও জর্জরিত। জনগণের ভোটাধিকার লুন্ঠিত। জনপ্রতিনিধিত্বহীন সরকার বল প্রয়োগের মাধ্যমে ক্ষমতায় বসে আছে। ফলে দেশে গণতন্ত্র নেই। দুর্নীতি ও লুন্ঠনের মাধ্যমে ক্ষমতাসীনরা জাতীয় সম্পদ কুক্ষিগত ও দেশের সম্পদ বাইরে পাচার করছে।

বক্তারা বলেন, চারদিকে শুধু লুটপাট আর খাওয়া। ব্যাংক থেকে কোটি কোটি টাকা লুট করা হয়েছে। এই অবৈধ সরকার নির্বাচনটাকেও খেয়ে ফেলেছে। শেখ হাসিনাকে দাবি মেনে নিতেই হবে, তা না হলে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে।

সরকারের পদত্যাগ,নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন, খালেদা জিয়াসহ সব রাজবন্দির নিঃশর্ত মুক্তি এবং সাত দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এর মধ্যেই সমাবেশ স্থল জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। সকাল থেকে দলে দলে ঐক্যফ্রন্টের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশ করেন। বিশেষ করে বিএনপি নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে মুখর হয়ে উঠেছে সোহরাওয়ার্দী এলাকা। তাদের হাতে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ছবি সম্বলিত ফেস্টুনও দেখা যায়। দেখা যায় খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগানযুক্ত ব্যানারও।

রাজধানীসহ ঢাকার আশাপাশের জেলা থেকে আগত নেতাকর্মীরা খন্ড খন্ড মিছিল ও নানা স্লোগানে সমাবেশস্থলে জড়ো হয়েছেন। তারা স্লোগানে স্লোগানে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানাচ্ছেন। ‘বন্দি আছে আমার মা, ঘরে ফিরে যাবো না’, ‘হামলা করে আন্দোলন- বন্ধ করা যাবে না’- ইত্যাদি স্লোগান দিতে দেখা গেছে বিএনপি নেতাকর্মীদের।

দুপুর একটার পর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান নেতাকর্মীদের ভিড়ে পরিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। এর ফলে আশপাশে প্রতিটি সড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। রাজধানীর প্রেসক্লাব এলাকার সড়কটিতে এ মুহূর্তে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। অন্যদিকে শাহবাগমুখী যানবাহনগুলো এখন বন্ধ রয়েছে।

জনসভায় সভাপতিত্ব করছেন-বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, প্রধান অতিথির বক্তব্য দেবেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখবেন জেএসডি সভাপতি আসম আবদুর রব। সমাবেশে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতারা, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের নেতারা বক্তব্য দেবেন। জনসভা শুরু হওয়ার পর ইতোমধ্যে বক্তব্য রাখেন আফরোজা আব্বাস, শফিউল বারী বাবু, রাজিব আহসান প্রমুখ।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৩২০ বার

আপনার মন্তব্য