যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 11:46pm

|   লন্ডন - 06:46pm

|   নিউইয়র্ক - 01:46pm

  সর্বশেষ :

  ডিসেম্বর থেকে লন্ডন-ঢাকা রুটে বাড়ছে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট   এরদোগানের প্রশংসায় জাতিসংঘ মহাসচিব   চীনের সেনাবাহিনীর ওপর যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ   ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পুনঃসংশোধনের দাবি সুজনের   চট্টগ্রামের অস্ত্রধারী সেই ছাত্রলীগ নেতার অস্ত্র উদ্ধার   ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা, নিহত ২৪   ক্ষমতা জনগণের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার লক্ষ্যেই জাতীয় ঐক্য : ড. কামাল   মালয়েশিয়ায় ৫৫ অবৈধ বাংলাদেশি আটক   আলোচনায় চেয়ে মোদিকে ইমরানের চিঠি   অন্তর্জ্বালা থেকে মনগড়া ও ভুতুড়ে কথা বলেছেন সিনহা : কাদের   ফিলিপাইনে ভূমিধস, ১২ জনের মৃত্যু   বিশ্বে প্রতি ৫ সেকেন্ডে ১ শিশু মারা যায়   ঢাকায় পুলিশের লাঠিপেটায় বাম জোটের ঘেরাও কর্মসূচি পণ্ড   বাংলাদেশে বছরে একলাখ লোক ক্যান্সারে মারা যায়   রোহিঙ্গাদের জন্য বিশ্বব্যাংকের ৪১০ কোটি টাকা সহায়তা

>>  লস এঞ্জেলেস এর সকল সংবাদ

যুবলীগের উদ্যোগে ক্যালিফোর্নিয়ায় ঐক্যবদ্ধভাবে শোক দিবস পালন

গত ১৯ আগস্ট রোববার লস এঞ্জেলেসের বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকা লিটল বাংলাদেশের বাংলাদেশ একাডেমী মিলনায়তনে ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগ ও লসএঞ্জেলেস সিটি যুবলীগের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী যথাযথ শোক ও শ্রদ্ধায় পালন করা হয়। আলোচনা সভা ও দোয়ার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সংগ্রামী যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জনাব মন্‌জুর আলম শাহীন। দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বীর

বিস্তারিত খবর

লং বিচ কাইট ফেস্টিভ্যাল-এর ৫ম আসর ১২ আগস্ট

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৬ ১৪:৩৩:৪৫

লং বিচ কাইট ফেস্টিভ্যাল এর ৫ম আসর বসছে আগামী ১২ আগস্ট রবিবার। লস এঞ্জেলেসে প্রতি বছর এই উৎসবটি আয়োজন করে প্যাসিফিক কাইট ক্লাব, লং বিচ, ক্যালিফোর্নিয়া। এবারের উৎসব সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৬টা পর্যন্ত 5400 E Ocean Blvd. Long Beach, CA-90803 এই ঠিকানায় অনুষ্ঠিত হবে ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন ডা. মো. আমীর খসরু।

সম্পূর্ণ ভিন্ন ধারার এই আয়োজনে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী ঘুড়ি ওড়ানো উপভোগ করেন প্রবাসীরা।

এবারের আয়োজনেও সকল প্রবাসী বাংলাদেশিদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্যাসিফিক কাইট ক্লাবের চেয়ারম্যান ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন, কো-চেয়ারম্যান সওকত আলম, আহ্বায়ক খায়রুজ্জামান মামুন ও যুগ্ম আহ্বায়ক সৈয়দ নাসির উদ্দিন জেবুল।

উৎসব আয়োজনে নানা দায়িত্বে রয়েছেন উপদেষ্টা সাইদ আবেদ নিপু, ওমর হাসান, ইশতিয়াক চিশতী, জসীম হক, নিজাম ইসলাম, সোহরাব চৌধুরী, ইফতেখার মাহমুদ ও মাবুব তুহিন, প্রচার সম্পাদক মানজুর আহমদ (অপু), কোষাধ্যক্ষ মো. সেলিম। আপ্যায়নে মনির, সানজিদা রহমান (পিয়া), সুমী আহসান, ওয়াহিদা হাবিব, শেখ হাসান (স্বপন) ও সোহেল খান। পাবলিক রিলেশনে শ্যামল মজুমদার, আসাদ জামান (রাসেল), পাশা আব্দুল্লাহ, রেখা চৌধুরী ও লাভলী ইয়মমিন। কাইট ডিস্ট্রিবিউশনে সাব্বির আহমদ, সালেহ আহমদ প্রিন্স, সংকর সরকার ও শেখ মামুন। খেলাধুলায় আব্দুল আলীম, তুহিন ইসলাম, টিটু মজুমদার, মাহতাব কবির শান্ত, আরিফ হোসেন ও বশির আখতার। সদস্য হিসেবে আছেন জাহিদুল মাহমুদ জামি, আব্দুল বাসিত, মাহদী সাবিন সেলিম, তাপস নন্দী, বিল্লাল, মিলন, ছাবিন রহমান, জুয়েল রহমান, শহীদ নার্গিস, উচ্ছল কাজী, মো. ফজলুল ফকির, দেব বড়ুয়া, শ্যামল, লিপু, জাহঙ্গীর ও ফিরোজ আলম।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব ক্যালিফোর্নিয়ার যৌথ সভা অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১১ ০৬:১২:৫৭

লস এঞ্জেলেসে বৃহত্তর সিলেট প্রবাসীদের সামাজিক সংগঠন ‘জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব ক্যালিফোর্নিয়া’র নবনির্বাচিত কমিটি ও বর্তমান কমিটির এক যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি আনোয়ার হোসেন রানার সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি সৈয়দ নাসির উদ্দিন জেবুলের পরিচালনায় ৯ জুন সোমবার রাত ১০টায় স্থানীয় আগ্রা রেস্টুরেন্টে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।


সভায় বর্তমান ও নবনির্বাচিত কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভার শুরুতে নবনির্বাচিত কমিটিকে শুভেচ্ছা ও স্বাগত জানান বর্তমান সভাপতি আনোয়ার হোসেন রানা।

উক্ত সভায় আগামী ১৫ জুলাই জালালাবাদের সাধারণ সভার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। সাধারণ সভাটি  দুপুর ১টায়  উডল্যান্ড হিলসের আনারবাগ রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হবে। এই সভায় নতুন কমিটিকে সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়া, উপদেষ্টা পরিষদ পুনর্গঠন ও অভিষেক অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন নিয়ে আলোচনা করা হবে বলে জানানো হয়। উক্ত সাধারণ সভায় সকল জালালাবাদবাসীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সংগঠনের সভাপতি ও সেক্রেটারি।


যৌথ সভা থেকে জানানো হয়, নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান আগামী ১২ আগস্ট রবিবার সন্ধ্যায়
ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট ইউর্নিভার্সিটি নর্থ রিজ-এর হল রুমে অনুষ্ঠিত হবে। সভায় অভিষেক অনুষ্ঠানের অতিথি, শিল্পী ও ম্যগাজিন বাস্তবায়নের জন্য দায়িত্ব বণ্টন করা হয়।


উল্লেখ্য, সম্প্রতি জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব ক্যালিফোর্নিয়া’র নতুন কমিটি গঠিত হয়েছে। কমিটির নেতৃবৃন্দ হচ্ছেন: প্রেসিডেন্ট- আসাদুজ জামান, ভাইস প্রেসিডেন্ট (১)- নাসির সৈয়দ জেবুল, ভাইস প্রেসিডেন্ট (২)- লায়েক আহমদ, সাধারণ সম্পাদক: বদরুল আলম মাসুদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক- জহির উদ্দিন, অর্থ সম্পাদক- মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক: সিদ্দিকুর রহমান, সহকারী সাংগঠনিক সম্পাদক- মুরাদ আহমদ, যুব বিষয় সম্পাদক- মো. মইনুল হক, সাংস্কৃতিক সম্পাদক- সুমন আহমদ, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক- আমিনুল ইসলাম পাপ্পু, নির্বাহী সদস্যরা হচ্ছেন : মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ নজরুল আলম, মাহতাব আহমেদ, মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ, হাফিজ সুবহান ও মোহাম্মদ আব্দুল হাকিম।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট যুবলীগের থ্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও অভিষেক সম্পন্ন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-০৭ ১৪:২১:৪৮

গত শনিবার ৩০জুন ও রবিবার ১ জুলাই লস এঞ্জেলেসে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ক্যালিফর্নীয়া শাখার প্রথম ত্রী-বার্ষিক সম্মেলন ও অভিষেক ২০১৮। লস এঞ্জেলেসের বাংলাদেশী পাড়া লিটল বাংলাদেশ সন্নিহিত হুবার্ট কলেজ মিলনায়তনে এক জাঁক জমকপুর্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে অভিষেক সম্পন্ন অভিষেক অনুষ্ঠানে ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগ ও লস এঞ্জেলেস সিটি আওয়ামী যুবলীগকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়।

ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী যুবলীগের থ্রি-বার্ষিক সম্মেলন উপলক্ষে নিউ ইয়র্ক থেকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক এ কে এম তারিকুল হায়দার চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসাবে এবং যুগ্ম আহ্বায়ক বাহার খন্দকার সবুজ প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ফ্লোরিডা ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি দায়ান চৌধুরী ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ খোরশেদ।

৩০ জুন শনিবার সন্ধ্যায় নর্থ হলিউডের একটি ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্টের কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। নিউ ইয়র্ক থেকে আগত যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক এ কে এম তারিকুল হায়দার চৌধুরীর নেতৃত্বে সম্মেলন পর্বটি পরিচালনা করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক বাহার খন্দকার সবুজ। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কাউন্সিলরের উপস্থিথিতে সর্ব সম্মতিক্রমে সুবর্ন  নন্দী তাপসকে সভাপতি ও সাইফুল চৌধুরী কে সাধারণ সম্পাদক করে ক্যালিফোর্নিয়া  ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের ৩১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষনা করা হয়। একি প্রক্রিয়ায় মোঃ আলমগীর হোসেনকে সভাপতি ও হাবিবুর রহমান ইমরানকে সাধারণ সম্পাদক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট লস এঞ্জেলেস সিটি আওয়ামী যুবলীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়।  

১ জুলাই রবিবার সন্ধ্যায় লিটল বাংলাদেশের হুবার্ড কলেজ মিলনায়তনে  এক জাঁক জমক ও আড়ম্ভরপূর্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক এ কে এম তারিকুল হায়দার চৌধুরী উপস্থিত অতিথিদের সামনে নবগঠিত কমিটি দুটি পরিচয় করিয়ে দেন।   লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশি কম্যুনিটির  বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, সংগঠনের সমার্থক ও আওয়ামী পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতে উক্ত অভিষেক অনুষ্ঠানে বিকালে উৎফুল্লতার প্রতীক গুচ্ছ বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে অভিষেক অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের আহ্ববায়ক এ কে এম তারিকুল হায়দার চৌধুরী। তারপর বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় ও আওয়ামী যুবলীগের দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন দলীয় নেতৃবৃন্দ। মুল অনুষ্ঠানের প্রারম্ভে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ সমূহ  কোরআন, গীতা, বাইবেল ও ত্রিপিটক থেকে পাঠ করা হয়। তারপর মুক্তিযুদ্ধে নিহত, ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতা পূর্ব ও পরে সকল গন আন্দোলনে নিহত সকল মানুষের জন্য, ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট নিহত বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সকল সদস্য, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত সকলের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এবং পরিশেষে দেশ ও জাতির কল্যান কামনা করে দোয়া করা হয়। দোয়া অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের উর্ধতন সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মিয়া আব্দুর রব। তারপর শহীদদের স্মরনে এক মিনিট নিরবত পালন করা হয়। উক্ত অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রায় অর্ধ ডজন মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক এ কে এম তারিকুল হায়দার চৌধুরী মঞ্চে ডেকে নবনির্বাচিত ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের এবং একই সাথে নবনির্বাচিত লস এঞ্জেলেস সিটি কমিটির পরিচয় করিয়ে দেওয়ার পর পরই কম্যুনিটির বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। তাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য
 বাংলার বিজয় বহরের মুজিব সিদ্দিকী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, ক্যালিফোর্নীয়া শাখার সভাপতি তৌফিক সোলায়মান খান তুহিন, আবু হানিফা, মোফাজ্জল হোসেন মফু, আব্দুল খালেক, এম বাবুল হোসেন, হানিফ সিদ্দিকী, ক্যালিফোর্নীয়া আওয়ামী যুবলীগের উপদেষ্টা কে এম তৌহিদুজ্জামান, ক্যালিফোর্নীয়া আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ক্যালিফোর্নীয়া আওয়ামী যুবলীগের উপদেষ্টা মেসবাহ খান ফারুক, ক্যালিফোর্নীয়া আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন আহমেদ ও সিনিয়র সহ সভাপতি আমীর হোসেন সরদার ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ক্রান্তির পক্ষে শওকাত চৌধুরী সহ ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের সহ সভাপতি নুর আলম সিদ্দিকী শেখ সাদি, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামল মজুমদার ও লস এঞ্জেলেস সিটি কমিটির সভাপতি আলমগীর হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান ইমরানসহ আরও অনেকে বক্তব্য রাখে।  

ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের নবনির্বাচিত সভাপতি সুবর্ন নন্দী তাপসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অভিষেক অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করে সংগঠনের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলন চৌধুরী।

অভিষেক অনুষ্ঠানস্থলে আওয়ামীলীগের নির্বাচনি প্রতীক ঐতিহ্যবাহী একটি দৃষ্টিনন্দন নৌকা স্থাপন করা হয়েছিল। স্থানীয় শিল্পী পঙ্কজ দাসের তৈরি নৌকাটি সকলের কাছে প্রশংসিত হয়েছে। মূলত উক্ত নৌকা প্রতীকটির মোড়ক উম্মোচন করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগ আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের বাইরে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ২০১৯ সালের অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করল।

শায়লা রুমি, রেহানা চুন্নুর সঙ্গীত ও একঝাঁক কিশোরীর নৃত্য পরিবেশনার মধ্য দিয়ে এক মনজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পর মধ্যরাতে সমাপ্ত হয় ক্যালিফোর্নীয়া আওয়ামী যুবলীগে এই জম কালো অভিষেক অনুষ্ঠান। 


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির সমাবেশ

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২৪ ০৬:০২:৪০

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি ক্যালিফোর্নিয়া শাখা গত ২০ শে জুন রাতে হলিউডের স্টার অব ইন্ডিয়া রেস্টুরেন্টে এক সভার আয়োজন করে। সংগঠনের সভাপতি শামসুজ্জোহা বাবলুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমানের পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, ঢাকার সাবেক ডেপুটি মেয়র, ঢাকা মহানগর বিএনপি'র সাবেক সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির উপদেষ্টা ও কমিউনিটি নেতা ড. জয়নুল আবেদীন, আবুল ইব্রাহিম ও মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আব্দুস সালাম বলেন, স্বাধীনতার ঘোষক বীরমুক্তিযোদ্ধা, সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান মাত্র আড়াই বছরে বাংলাদেশকে একটি তলাহীন ঝুড়ি থেকে উন্নয়নশীল দেশের সারিতে এনে দাঁড় করিয়েছিলেন। বিশ্বের মানচিত্রে বাংলাদেশের উত্থান দেখে হিংসায় ঝড়যন্ত্রকারীরা তাকে হত্যা করে দেশের অগ্রগতি রুখে দেয়। অন্যথায় আরো কয়েক বছর সময় পেলে তিনি দেশকে সিঙ্গাপুর মালয়েশিয়ার মত উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে পারতেন। তার সততা, দেশপ্রেম, দেশের জন্য জনগণের জন্য ১৯ দফার মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন, বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের মাধ্যমে দেশ ও জনগণের মাঝে একতা তাকে বিপুল জনপ্রিয়তা এনে দেয়। জিয়াউর রহমানের কারণেই আজ আওয়ামী লীগ রাজনীতি করতে পারছে। কারণ বঙ্গবন্ধু হত্যার পর বাকশালের কারণে সব রজনৈতিক দল নিষিদ্ধ হয়ে যায়। এর মধ্যে আওয়ামী লীগও ছিলো। পরবর্তীতে জিউয়াউ রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবর্তন করে তাদেরকে রাজনীতির সুযোগ করে দেন। কিন্তু দু:খজনকভাবে আজ আওয়ামী লীগ বিএনপি ও জিউয়াউর রহমানের পরিবারের সাথে নিষ্ঠুর আচরণ করছে।

সভায় অডিয়েন্সের পক্ষ থেকে দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে বিএনপির আন্দোলন সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে আব্দুস সালাম বলেন, আপনারা দেখতেই পারছেন, রাস্তায় নামলেই হামলা করছে পুলিশ। বাড়ি বাড়ি গিয়ে নিরীহ লোকদের গ্রেফতার করছে, রিমান্ড দিচ্ছে। এমনকি নির্বিচারে হত্যা করছে। এই পরিস্থিতিতেও বিএনপি যথাসম্ভভ আন্দোলন সংগ্রাম করে যাচ্ছে।

দেশে গণতন্ত্রের লেশমাত্র নেই মন্তব্য করে আব্দুস সালাম বলেন, আমরা বারবার আওয়ামীলীগের প্রতি সমঝোতার আহ্বান জানিয়েছি। একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য অতীতের সবকিছু ভুলে একসাথে বসার অনুরোধ করেছি। কিন্তু আওয়ামী লীগ সাড়া দেয়নি। তারা একের পর এক ষড়যন্ত্র করেই যাচ্ছে।

এসময় তিনি প্রবাসীদের প্রতি দল ও দেশের প্রতি বিশ্বস্ততা ও নেত্রীর মুক্তির আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাবার আহবান জানান।

লস এঞ্জেলেসে বিএনপির গ্রুপিং প্রসঙ্গে প্রধান অতিথি বলেন, আমরা সবাই জিয়াউর রহমানের আদর্শের সৈনিক আমাদেরকে একতাবদ্ধ থাকতে হবে। দেশের এই ক্রান্তিকালে আমাদের নিজেদের মধ্যে বিভেদ না রেখে একতাবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এসময় তিনি ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির সিনিয়র নেতৃবৃন্দকে গ্রুপিং দ্বন্দ্ব মেটানোর দায়িত্ব দেন।

ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমান তার বক্তব্যে দেশনেত্রী, সাবেক প্রধান মন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে কনসুলেটের সামনে এবং থার্ড স্ট্রিটে সভাসমাবেশ এ ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির আন্দোলোনের সক্রিয় ভূমিকা এবং বিভিন্ন সময় কংগ্রেসম্যানদের সাথে যোগাযোগ করে দেশের পরিস্থিতি তুলে ধরে যে সকল কর্মসুচী পালন করা হয় তার বিবরণ তুলে ধরেন।

সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলায়ত করেন আফজাল হোসেন শিকদার। প্রধান অতিথির হাতে দলের নের্তৃবৃন্দ ক্রেস্ট ও ফুল তুলে দেন। অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবী জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির সহসভাপতি সাইফুল আনসারী চপল, আহসান হাফিজ রুমি, জুনেল আহমেদ, আফজাল হোসেন শিকদার, অপু সাজ্জাদ, শওকত হোসেন আনজিন, আশরাফুল আলম হেলাল। যুগ্ম সম্পাদক: মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান জুয়েল, আলমগীর হোসেন, দেলোয়ার চৌধুরী, মোহাম্মদ কামাল হোসেন তরুণ, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক শাহাদাত হোসেন শাহীন (রাজশাহী-১ আসনে বিএনপির সংসদ সদস্য মনোননয় প্রত্যাশী), লোকমান হোসেন, যুব বিষয়ক সম্পাদক: কোহিনুর রহমান,  স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক: মেহেদী হাসান, শিক্ষা সম্পাদক: সাঈদ খান।

সভার এক পর্যায়ে এলএ বাংলাটাইমসের সিইও আব্দুস সামাদ উপস্থিত হলে সভার উপস্থাপক ও ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমান তাঁকে একজন তরুণ কমিউনিটি একটিভিস্ট হিসেবে ও স্যোশাল ওয়ার্কার হিসেবে সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেন।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির সহসভাপতি নুরুল ইসলাম, মার্শাল হক, ইলিয়াস শিকদার, এলেন ইলিয়াস খান, আমজাদ হোসেন, মোঃ রফিক, মেহেদী হাসান, বাদল খান, মোহাম্মদ সেলিম রেজা পিন্টু, যুগ্ম সম্পাদক রনি জামান, আসাদুজ্জামান রাজু, সহসম্পাদক খন্দকার জাভেদ, হোসেন লিটু, শেখ সেলিম, হেলাল আহমেদ ভূইয়াঁ, মোহাম্মদ শাহানুর, মোহাম্মদ ফরিদ আহমেদ, দপ্তর সম্পাদক: আবু তাহের সাজু, সহ দপ্তর সম্পাদক: মোশাররফ হোসেন ইমন, কোষাধক্ষ: মোঃ আব্দুল মান্নান, সহ কোষাধক্ষ্: আক্তার মাতুব্বর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: মোঃ শফিকুল ইসলাম পলাশ, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: আবুল কায়সার, তত্ব ও প্রযুক্তি সম্পাদক: শাহ নেওয়াজ, সহ তত্ব ও প্রযুক্তি সম্পাদক: এ কে এম আসিফ, ক্রীড়া সম্পাদক: ইফতেখার হোসেন ফাহিম, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক: হাফেজ মোহাম্মদ বেলাল, সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক: মাহতাব কবির ভূঁইয়া, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক: মোঃ মিজানুর রহমান, সহ সাংস্কৃতিক সম্পাদক: সোহেল মিয়া, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক:ফেরদৌস কবির সুজন, সহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক: রাজু ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা: ফরিদা বেগম, সহ মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা: মনিরা মিজান, আইন বিষয়ক সম্পাদক: ওমর ফারুক,  সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক: সারোয়ার সুমন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদকঃ আবুল খায়ের, সহ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদকঃ ইয়াসির আরাফাত মুন্না, সমাজ কল্যাণ সম্পাদকঃ মোঃ খসরু রানা, সহ সমাজ কল্যাণ সম্পাদকঃ তানভীর আহমেদ, মো: কবির আহাদ ও ইশানা ফারহানা পলি প্রমুখ।

সভা শেষে স্টার অব ইন্ডিয়া রেস্টুরেন্টের সৌজন্যে সবার জন্য রাতের ডিনারের ব্যবস্থা ছিলো।

বিস্তারিত খবর

১ জুলাই ক্যালিফোর্নিয়া আওয়ামী যুবলীগের সম্মেলন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২১ ১৫:৩২:৫১

ক্যালিফোর্নিয়া আওয়ামী যুবলীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে।আগামী ১ জুলাই রোববার বিকাল ৫টায় হলিউডের চার্চ অব সায়ন্টোলোজি, ৪৮১০ সানসেট ব্যুলেভার্ড, লসএঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নীয়া- ৯০০২৭ ঠিকানায়  এই ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।
 
সম্মেলন উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের আহ্ববায়ক এ কে এম তারিকুল হায়দার চৌধুরী প্রধান অতিথি এবং যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক বাহার খন্দকার সবুজ প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত থাকবেন।

একই সাথে লস এঞ্জেলেস সিটি আওয়ামী যুবলীগ ও ভ্যালি সিটি যুবলীগেরও কমিটি গঠিত হবে।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে লস এঞ্জেলেসে আলোচনা ও মতবিনিময়

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২০ ১৫:৩৮:৫৫

গত ১৯ জুন মঙ্গলবার ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র উদ্যোগে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে এক আলোচনা ও মতবিনিময় সভার অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্হিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য, অবিভক্ত ঢাকা সিটির সাবেক ডেপুটি মেয়র ও ঢাকা মহানগর বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা জনাব আব্দুস সালাম। হলিউডের অভিজাত রেঁস্তোরা বলিউড ক্যাফের ব্যাংকুয়েট হলে আয়োজিত এ আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় বিএনপির নেতাকর্মীরা ছাড়াও লস এঞ্জেলেসের প্রবাসী কম্যুনিটির বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দ সহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসীরা উপস্হিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির সভাপতি মোঃ আঃ বাছিত। অনুষ্ঠানের শুরুতে নেতাকর্মীদের সাথে প্রধান অতিতির পরিচয় করিয়ে দেন সাধারন সম্পাদক বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু। এরপরে ফুল দিয়ে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে প্রধান অতিথিকে বরণ করে নেন দলের অন্যতম যুগ্ম-সম্পাদক বদরুল মাসুদ। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেছেন ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব আব্দুস সালাম বলেন, আজ আমাদের দেশনেত্রীকে বিনা দোষে, সম্পূর্ণ বেইআইনিভবে গায়ের জোরে একটি মিথ্যা মামলায় কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। এটা বানোয়াট মামলা। এটা সরকারের একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন বাস্তবায়নের নীলনকশা ছাড়া আর কিছুই না। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভাল নয়, তিনি অসুস্থ। অযথা অন্য হাসপাতালের কথা বলে বিতর্ক তৈরি করা হচ্ছে। এর আগেও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী কারাগারে থাকা অবস্থায় বিদেশে চিকিৎসা নিয়েছেন। এখন অনেক এমপি-মন্ত্রী, যাদের জেল-জরিমানা হয়েছে, তারাও কিন্তু বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া শান্ত  থেকে নেতাকর্মীদের গণতান্ত্রিক আন্দোলন বেগবান করার নির্দেশ দিয়েছেন। বিএনপি ছাড়া গ্রহণযোগ্য কোনো নির্বাচন হবে না। আরেকটি ৫ জানুয়ারি বাংলাদেশের মানুষ দেখতে চায় না। দীর্ঘদিনের অসুস্থতার পরও উনার (খালেদা জিয়ার) মনোবল চাঙা আছে। কারণ উনি জানেন আগামী দিনের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় বিএনপিকেই নেতৃত্ব দিতে হবে। বাধাবিপত্তি আসবে, সংগ্রাম করে যেতে হবে। বিএনপির দুর্দিনে আমাদের একজন নেতাকর্মীকেও নিজেদের দলে টেনে নিতে পারেনি সরকার। আমরা খুব আশাবাদী, দেশে জাতীয় ঐক্য তৈরি হবে। আমাদেরও ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আমরা সেই দিনের অপেক্ষায় আছি, যে দিন বেগম খালেদা জিয়া কারামুক্ত হবেন এবং তারেক রহমান বীরের বেশে দেশে ফিরবেন।


ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির সভাপতি মোঃ আঃ বছিত বলেন, দেশের জন্য বেগম খালেদা জিয়া অনেক ত্যাগ আর কষ্ট স্বীকার করে যাচ্ছেন। দেশনেত্রী যখন অবরুদ্ধ অবস্থায় তার কার্যালয় থেকে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছিলেন, ঠিক এমনি সময়ে ছোট ছেলের মৃত্যু সংবাদ পান। মায়ের সামনে ছেলের লাশ, কত কষ্টের ভাবা যায়! তার বড় ছেলে আজ নির্বাসিত অবস্থায় আছেন। স্বামী হারিয়েছেন শত্রুর হাতে, বড় ছেলে দেশের বাইরে আর তিনি কারাগারে কষ্টে দিনাতিপাত করছেন।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুল চৌধুরী বলেন, গত প্রায় ৩৭ বছর ধরে বেগম খালেদা জিয়া প্রতিটি রমজানে, প্রতিটি ঈদে বাংলাদেশের মানুষের পাশে ছিলেন। বাংলাদেশের মানুষের পাশে ছিলেন। কিন্তু আজকে বাংলাদেশে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত স্বৈরাচার, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত অবৈধ, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ব্যাংক ডাকাত, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত এ দুর্নীতিবাজ সরকারের মিথ্যে মামলায় আমাদের দেশনেত্রীকে আটকে রাখা হয়েছে। শুধু তাই নয় আপনারা দেখেছেন, আইনের যে গতি, আইনের যে প্রভাব সেটাকেও জোর করে অন্যভাবে ব্যবহার করেছে এ দুর্নীতিবাজ সরকার, এ অবৈধ সরকার।

দলের যুগ্ম-সম্পাদক সৈয়দ নাসির জেবুল বলেন, ব্যাংকগুলোতে মানুষ টাকা রাখে টাকা নিরাপদে রাখার জন্য। আজকে  প্রতিদিন ব্যাংকগুলো লুট হচ্ছে। এর অনেক খবর পত্রিকার পাতায় আসে অনেক খবর আসে না। যে খবর পত্রিকার পাতায় আসে না সেগুলো জনগণ জানতে পারে না। সরকারের এমপি, মন্ত্রীদের ভাব দেখে মনে হয় তারা ব্যাংকগুলোকে মানিব্যাগের মত ব্যবহার করছে। আমরা দেখলাম কয়েকদিন আগে এ অবৈধ অর্থমন্ত্রী বলেছেন, গত দশ বছরে নাকি বাংলাদেশে জিনিসপত্রের কোনো মূল্য বৃদ্ধি হয়নি। এ অবৈধ অর্থমন্ত্রীর এ কথাটি সঠিক না বেঠিক সেটা পর্যালোচনা করার ভার বাংলাদেশের আঠারো কোটি মানুষের। তারা বিবেচনা করবে আজকে তারা তথাকথিত উন্নয়নের নামে কিভাবে লুটপাট করছে। এটি জনগণের সামনে পরিষ্কার।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ খান বলেন, আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থার যে অবস্থা তাতে শিক্ষার্থীদের যে ভবিষ্যৎ সেটাও অনুমান করা যায়। ভোট ব্যবস্থার কি অবস্থা সেটা কিছুদিন আগে আপনারা খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে দেখেছেন। আওয়ামী লীগের নেত্রী কথায় কথায় বলেন তিনি নাকি বাংলাদেশে ভোটের আর ভাতের নিশ্চয়তা দিয়েছেন, ভোট আর ভাতের কি অবস্থা তিনি করেছেন তা দেশের দিকে তাকালেই বোঝা যায়। বিএনপির আমলে চালের কেজি ১৫ টাকা ছিল, সে চালের কেজি এখন ৭০/৭২ টাকা । ভোটের কি অবস্থা করেছে সেটা বাংলাদেশের জনগণও বলছে এবং বাংলাদেশের যে বিদেশি বন্ধু আছে তারাও বলছে। দেশের যে কী অবস্থা সেটা রাজনৈতিক নেতা কর্মীরা যেমন বুঝতে পেরেছে তেমনি দেশের জনগণও বুঝতে পেরেছে। এ অবস্থা থেকে দেশকে, দেশের মানুষকে, দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে বের করে আনতে বৃহত্তর ঐক্যের প্রয়োজন। স্বৈরাচার পতনের এ যুদ্ধে আমাদের জয়লাভ করতে হলে আমাদের সকল পর্যায়ে ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবীতে আয়োজিত আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় উপস্হিত ছিলেনঃ মোঃ আঃ বাছিত, বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু, সৈয়দ দেলোয়ার হোসেন দিলির, নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাঞ্চন, খন্দকার আলম, আবুল ইব্রাহিম, মুর্শেদুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান শাহীন, সালাম দাঁড়িয়া, মানিক চৌধুরী, মাতাব আহমদ, আব্দুল হাকিম, মিশর নুন, আবু তাহের সাজু, এ আর মাহবুবুল হক, মুরাদ হামিদ খান সানী, সাইদ আবেদ নিপু, ফারুক সরকার, খন্দকার তসলিম, মোঃ সামছুল ইসলাম, জহিরুল কবির হেলাল, মোঃ শাহজাহান, হাসানুজ্জামান মিজান, বাদল, সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল, মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল, মারুফ খান, ইলিয়াস মিয়া, লায়েক আহমেদ, বদরুল আলম মাসুদ, শাহীন হক, শাহতাব কবির ভূঁইয়া শান্ত, নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী, হোসেন আহমেদ,রেজাউল হায়দার চৌধুরী, হুমায়ুন কবির, মিজানুর রহমান, খসরু রানা, শাহানুর কবির ভুঁইয়া শুভ্র, আজমউদ্দিন চৌধুরী দুলাল, সুমেন আহমেদ, রেজাউল করিম জামিল, জুয়েল আহমেদ, কামরুল হাসান তরুন, মিকায়েল খান রাসেল, খায়রুল ইসলাম, তানভীর আহমেদ, জাভেদ বখত্ , আবদুল মোতালেব, আলতাফ হোসেন, আহসান আহমেদ, মিল্টন খান, ওমর ফারুক, কামাল হোসেন, ফয়সল হোসেন সিদ্দিক, আমজাদ হোসেন, খোরশেদ আলম রতন, জিল্লুর রহমান চৌধুরী, তারেক খান, রওনক সালাম, তাসনুভা বেগম, রুহুল আমিন বাবু, সাজ্জাদ পারভেজ, হেলাল মজুমদার, ইসলাম উদ্দিন, শাহেদ আহমেদ, সিদ্দিক আহমেদ, জুনেল আহমেদ, মোঃ গোলাম সারোয়ার হোসেন, ইলিয়াস শিকদার, আবুল বাশার, আবদুল আহাদ, আবদুল হাকিম, কামরুল আলম চৌধুরী, গিয়াস আহমদ, মজিবর রহমান, ফখরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, মোঃ শামীম উদ্দিন, আবদুল মুনিম, আশিকুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আবদুল হাসিব বাবুল, আবদুল কাদির, মাঈনুল আহমেদ, রিপন চৌধুরী, এড. নুরুল হক, জামিল আহমেদ, মোঃ রহমান রফিক, সফিকুল ইসলাম পলাশ, আবুল কালাম আজাদ, মোঃ মুকুল, আবদুল্লাহ আল ফরহাদ, এনাম চৌধুরী, মোঃ আলম খোকন, সৈয়দ আলী আক্তার, রফিকুল আলম চৌধুরী প্রমুখ।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেসে বুদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-২০ ০৩:২৯:৩৯

মহামানব গৌতম বুদ্ধের ধর্ম ও দর্শন বিশ্বশান্তির প্রতীক। গৌতম বুদ্ধের জন্ম, বোধিজ্ঞান প্রাপ্তি এবং মহাপরিনির্বাণ লাভ তিনটি ঘটনা বুদ্ধ পূর্ণিমা বা বৈশাখী পূর্ণিমা তিথিতে  হয়েছিল। তাই বুদ্ধ পূর্ণিমার প্রতিপাদ্য ও গুরুত্ব বিশ্ব বৌদ্ধ জাতির কাছে অত্যন্ত শ্রদ্ধার, গৌরব ও সম্মানের।  বুদ্ধের ত্রি-স্মৃতি বিজড়িত বুদ্ধ পূর্ণিমার গুরুত্ব ও তাঁর শান্তির বাণী জগত কল্যাণে প্রচার এবং অনুধাবন করার প্রত্যয়ে লস এঞ্জেলেস বুদ্ধ বিহার এর উদ্যোগে Lemon Grove Recreation Center মিলনায়তনে “২৫৬২ বুদ্ধবর্ষ বুদ্ধের ত্রি-স্মৃতি বিজড়িত বুদ্ধ পূর্ণিমা” উদযাপিত হয়।

গত ১৬জুন শনিবার দিনব্যাপী অনুষ্ঠান মালায় রনি বডুয়ার পরিচালনায় সকাল বেলা সংঘদান ও ধর্মালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন শ্রীমৎ সুমনতিষ্য মহাথের, প্রধান জ্ঞাতি ছিলেন শরৎ চন্দ্র বুদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভেনারেবল কোলিত মহাথের, প্রধান ধর্মালোচক ছিলেন ক্যালিফর্নিয়া বোধি বিহারের অধ্যক্ষ ড. করুণানন্দ মহাথের এবং সদ্ধর্ম আলেচনায় অংশ গ্রহন করেন সম্বোধি বিহারের অধ্যক্ষ ড. লোকানন্দ মহাথের, ভদন্ত রতনজ্যোতি মহাথের, ভদন্ত সানাতা বিহারী, ভদন্ত বিজ্ঞানন্দ মহাথের এবং উপগুপ্ত থের।



অনুষ্ঠানের শুরুতে বাবু মানবেন্দ্র বড়ুয়া শীল প্রার্থনা করেন । উদ্বোধনী ভাষণ প্রদান করেন, লস এঞ্জেলেস বুদ্ধ বিহার পরিচালনা পরিষদের সহ সভাপতি বাবু প্রিয় রনজ্ন বড়ুয়া , শুভেচ্ছা বক্তব্য বাখেন বাবু জয় বড়ুয়া দেবু এবং  টুটুল  বড়ুয়া। এর পর বৌদ্ধ ভিক্ষুগণ শীল প্রদানের মধ্যদিয়ে মহামানব গৌতম বুদ্ধের অমৃতময় বাণীর প্রয়োগ ও উপকারিতা বিশ্লেষণ করেন।


বিকাল ৩টায় যীশু বডুয়ার উপস্থাপনায় বুদ্ধ পূর্ণিমার মূল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কনসোলেট জেনারেল জনাব প্রিয়তোষ সাহা মহোদয়। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট  চিকিৎসক প্রীতিশ বড়ুয়া। অনুষ্ঠানের শুরুতে ভিক্ষুসংঘ ও অতিথিদের পুষ্পস্তবক দিয়ে বরণ করেন লিপু বড়ুয়া ও তপু বড়ুয়া । স্বাগত ভাষণ  রাখেন লস এঞ্জেলেস বুদ্ধ বিহার পরিচালনা পরিষদের সিনিয়র সহ সভাপতি ডা: সুরজিৎ বড়ুয়া। সম্পাদকীয় বক্তব্য রাখেন এঞ্জেলেস বুদ্ধ বিহার পরিচালনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অজিতানন্দ বড়ুয়া।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বাবু অশোক বড়ুয়া।

বিশেষ অতিথির ভাষণে বলেন “বিদেশের মাটিতে শত কর্মব্যস্থতার মধ্যেও স্বধর্ম ও স্বকীয় সংস্কৃতির চর্চা ও অনুশীলন অত্যন্ত গৌরব আর আনন্দের”।

প্রধান অতিথি জনাব প্রিয়তোষ সাহা মহোদয় তাঁর ভাষণে আরে বলেন বৌদ্ধ “জাতি অত্যন্ত শান্তপ্রিয়। তাঁরা মহামানব বুদ্ধের দান, শীল আর প্রজ্ঞা অনুশীলন করেন। বুদ্ধের শিক্ষা বর্তমান প্রজন্মে কাছে  ছড়িয়ে দিলে যুদ্ধের বিনিময়ে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে। তাই ধর্মীয় অনুভূতি ও সংস্কৃতি চর্চার জন্যে লস এঞ্জেলেস সিটিতে একটি বাংলাদেশী বৌদ্ধ বিহারের প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য। এ ছাড়া বাংলাদেশে মুক্তি যুদ্ধে বৌদ্ধদের অবদানের কথাও তিনি তুলে ধরেন”।



আলোচনা সভা শেষে লস এঞ্জেলেস বুদ্ধ বিহার পরিচালনা পরিষদের  সভাপতি ভদন্ত সুমনতিষ্য মহাথের তার ভাষণের মধ্যদিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

বেলা ৫ টায় মিসেস সোমা বড়ুয়া ও কবিতা বড়ুয়ার যৌথ উপস্থাপনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠানে লস এঞ্জেলেস  এর ক্ষুদে সংগীত শিল্পীবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন। তারা হলেন ঋতু,দিশা, দিপাসেন, রাজশ্রী, প্রীতম, প্রীতিশ, অতিশ, মৃত্যুন্জয়, সৌম্য, কোমি, অনিরুদ্ধ, অনির্বাণ, আরিয়ান, স্মৃতি, সোমা, সাথী, শর্মিলা, মল্লিকা, বীণা, নীলা, সংগীতা, তৃষা, কবিতা, প্রানেশ, রনি ও অপু বড়ুয়া ।
সংগীত পরিচালনা করেন সাথী বড়ুয়া । বাদ্য যন্ত্রে ছিলেন বাবু শিমুল বড়ুয়া ও শ্রীনাথ বিশ্বাস। সার্বিক অনুষ্ঠানের তত্বাবধান করেন বাবু রানা,সুমন,অমিরণ,নয়ন ও প্রতীম, বড়ুয়া ।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপি'র দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-০৬ ১৫:৫৮:৩১

প্রবাসী বাংলাদেশী ও ধর্মপ্রাণ মুসলিমদের সম্মানে গত রবিবার লস এঞ্জেলেসের শ্যাটো রিক্রিয়েশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হলো বিএনপি'র ইফতার মাহফিল ২০১৮। ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি আয়োজিত এ ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রবাসী কম্যুনিটির বিশিষ্ট নাগরিকগণ ছাড়াও দল-মত নির্বিশেষে শত-শত প্রবাসী বাংলাদেশী ও বিএনপি'র বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী, সমর্থক, শুভাণুধ্যায়ীসহ বিপুল সংখ্যক মানুষের আগমণে অনুষ্ঠানস্হল যেন পরিণত হয় প্রবাসীদের এক মিলনমেলায়। এদিন ইফতারের পূর্বে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাৎবার্ষিকী ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া'র মুক্তি ও সুস্হতা কামনায় বিশেষ দোয়া করা হয়।

অনুষ্ঠানে অতিথিদের উদ্দেশ্যে ঢাকার নয়াপল্টন দলীয় কার্যালয় থেকে সরাসরি টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিএনপি'র সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ। অনুষ্ঠানে দোয়ার পর্বে পবিত্র কোরআন থেকে তফসীর ও তর্জমা করেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ জনাব জিয়াউর রহমান এবং দোয়া পরিচালনা করেন আন্তর্জাতিকখ্যাতি সম্পন্ন ক্বারী জনাব আবু বক্কর সিদ্দিক কালাম। অতিথিদের উদ্দেশ্যে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাঞ্চন।

দোয়া ও ইফতার অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ খান। ইফতার মাহফিলকে সাফল্যমন্ডিত করে তোলার জন্য বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি-ক্যালিফোর্নিয়া শাখা'র সভাপতি মো: আব্দুল বাছিত ও সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু এবং ইফতার আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক মাহবুবুর রহমান শাহীন ও সদস্য-সচিব শাহতাব কবীর ভূঁইয়া শান্ত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র ইফতার মাহফিলে লসএঞ্জেলেসের বিশিষ্ট কম্যুনিটি লিডার ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক অঙ্গনের প্রতিনিধিদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন- মেজর এনামুল হামিদ, শিপার চৌধুরী, ড: মাহবুব খান, নজরুল আলম, প্রফেসর আলী আকবর, মুজিব সিদ্দিকী, মমিনুল হক বাচ্চু, জয়নাল আবেদিন, কর্ণেল ওমর হুদা, সামসুদ্দিন মানিক, খন্দকার আলম, মোসলেম খান, আনোয়ার হোসেন রানা, আনিসুর রহমান, শহিদুল ইসলাম, আহমেদ ফয়সল তুহিন, মারুফ ইসলাম, ইলিয়াস শিকদার, আশরাফ আকবর, ময়েজউদ্দিন, লেফট্যানেন্ট জিয়াউল ইসলাম, স্বরাজ ভুইয়া, মানিক চৌধুরী, আবুল হাসনাত রায়হান, মোহাম্মদ আলী ভাই, কাজী মাশহুরুল হুদা, আবদুল হান্নান, সাঈদুল হক সেন্টু, আঞ্জুমান আরা শিউলী, মামুন লস্কর, চুন্নু মল্লিক, আশরাফ মিলন, মো: হাকিম, মো: মুনিম, এম হোসেন বাবু, সামি নোবেল, আসিফ শুভ সহ আরও অনেকেই।

বিএনপি'র নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন মোঃ আঃ বাছিত, বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু, সৈয়দ দেলোয়ার হোসেন দিলির, নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাঞ্চন, মুর্শেদুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান শাহীন, সালাম দাঁড়িয়া, মাতাব আহমদ, আব্দুল হাকিম, মিশর নুন, আবু তাহের সাজু, এ আর মাহবুবুল হক, মুরাদ হামিদ খান সানী, সাইদ আবেদ নিপু, ফারুক সরকার, খন্দকার তসলিম, মোঃ সামছুল ইসলাম, জহিরুল কবির হেলাল, মোঃ শাহজাহান, হাসানুজ্জামান মিজান, বাদল, সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল, মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল, মারুফ খান, ইলিয়াস মিয়া, লায়েক আহমেদ, বদরুল আলম মাসুদ, শাহীন হক, শাহতাব কবির ভূঁইয়া শান্ত, নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী, হোসেন আহমেদ, রেজাউল হায়দার চৌধুরী, হুমায়ুন কবির, মিজানুর রহমান, খসরু রানা, শাহানুর কবির ভুঁইয়া শুভ্র, আজমউদ্দিন চৌধুরী দুলাল, সুমেন আহমেদ, রেজাউল করিম জামিল, জুয়েল আহমেদ, কামরুল হাসান তরুন, মিকায়েল খান রাসেল, খায়রুল ইসলাম, তানভীর আহমেদ, জাভেদ বখত্ , আবদুল মোতালেব, আলতাফ হোসেন, আহসান আহমেদ, মিল্টন খান, ওমর ফারুক, কামাল হোসেন, ফয়সল হোসেন সিদ্দিক, আমজাদ হোসেন, খোরশেদ আলম রতন, জিল্লুর রহমান চৌধুরী, তারেক খান, রওনক সালাম, তাসনুভা বেগম, রুহুল আমিন বাবু, সাজ্জাদ পারভেজ, হেলাল মজুমদার, ইসলাম উদ্দিন, শাহেদ আহমেদ, সিদ্দিক আহমেদ, জুনেল আহমেদ, মোঃ গোলাম সারোয়ার হোসেন, আবুল বাশার, আবদুল আহাদ, আবদুল হাকিম, কামরুল আলম চৌধুরী, গিয়াস আহমদ, মজিবর রহমান, ফখরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, মোঃ শামীম উদ্দিন, আবদুল মুনিম, আশিকুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আবদুল হাসিব বাবুল, আবদুল কাদির, মাঈনুল আহমেদ, রিপন চৌধুরী, এড. নুরুল হক, জামিল আহমেদ, মোঃ রহমান রফিক, সফিকুল ইসলাম পলাশ, আবুল কালাম আজাদ, মোঃ মুকুল, আবদুল্লাহ আল ফরহাদ, এনাম চৌধুরী, মোঃ আলম খোকন, সৈয়দ আলী আক্তার, রফিকুল আলম চৌধুরি প্রমুখ।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী লীগের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৬-০৪ ০৪:০৯:২২

গত ১ জুন শুক্রবার লসএঞ্জেলেস সাইন্টোলজি চার্চের একটি অডিটোরিয়ামে ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামিলীগের বাৎসরিক ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় ।

চার্চ ও সাইন্টোলজির অত্যন্ত মনোরম পরিবেশে সুশৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে ইফতারটি অনুষ্ঠিত হয় । সাজানো পরিপাটি হল রুমটিতে প্রায় শতাধিক রোজাদার ইফতার করেন ।

ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামিলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক টি জাহান কাজল ও আলী আহমেদ ফারিসের সঞ্চালনায় আগত অতিথিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন স্টেট আওয়ামিলীগের সভাপতি শফিকুর রহমান ও সাধারণ সমপাদক ডাঃ রবি আলম । শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন লসএঞ্জেলেসে নিযুক্ত বাংলাদেশ কনসাল জেনারেল বাবু প্রিয়তোষ সাহা ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামিলীগের উপদেষ্টা মুস্তাইন দারা বিল্লাহ । দোয়া পরিচালনা করেন ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ টিটু ।

ইফতার মাহফিলে আওয়ামিলীগ,মহিলালীগ ও যুবলীগের নেতা কর্মীরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কমিউনিটির বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ । উল্ল্যেখযোগ্যদের মধ্য উপস্থিত ছিলেন বাফলা সভাপতি নজরুল আলম,আনন্দমেলার প্রধান সংগঠক মোহাম্মদ আলী,ন্যেইবারহুড কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম ও ফয়সল তুহিন। উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী মশরুল হুদা,সাধারণ সম্পাদক লস্কর মামুন এবং স্টেট মহিলা কমিশনার ড্যানি তাইয়েব ।

এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর আওয়ামিলীগের সদস্য সাজেদা বেগম,স্টেট আওয়ামিলীগ নেতা মিয়া আব্দুর রব ,মোহাম্মদ শামীম হোসেন, জাকির খান , জহির আহম্মেদ পান্না ,জামাল হোসেন,সামিউল বেলাল,মহিলা আওয়ামিলীগ সভাপতি সাহানা পারভীন,স্টেট যুবলীগ সভাপতি কামরুল হাসান,সাধারণ সম্পপাদক সোহেল আহমেদ,আজিজ আহমেদ,আফরোজ আলম,একরামুল হক বাবু,রুবেল আহমেদ প্রমুখ ।

সার্বিক অনুষ্ঠানটির তত্ত্বাবধায়ন করেন সিটি আওয়ামিলীগের সভাপতি মাহতাব টিপু । আওয়ামিলীগের পক্ষ থেকে জানানো হয় আগামীতে কমিউনিটির প্রত্যাশা মোতাবেক আরো সুন্দর ও সুপরিসরে বাৎসরিক ইফতারের আয়োজন করা হবে ।

উল্লেখ্য, আওয়ামিলীগের বিভক্তি কাটিয়ে উঠে এবারই প্রথম সুন্দর করে ইফতারের আয়োজন করা হলো ।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া আওয়ামী যুবলীগের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৫-০২ ১৩:৫৩:৩১

গত ৩০ এপ্রিল ২০১৮ সোমবার সন্ধ্যায় ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন বাংলাদেশ থেকে আগত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ  কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ-কমিটির সম্মানিত সদস্য প্রলয় সমদ্দার বাপ্পী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উনার সহধর্মিনী বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মানিত সদস্য দীপিকা রানী সমদ্দার। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের বিপ্লবী সাধারন সম্পাদক ডা: রবি আলম।
মতবিনিময় সভাটির শুরুতেই বাংলাদেশ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত বাজানো হয়।  জাতীয় সংগীত বাজানোর সময় উপস্হিত সুধীজন নিরবে দাড়িয়ে সম্মান প্রদর্শন করেন। ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের এ মতবিনিময় সভার সভাপতিত্ব করেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের সংগ্রামী আহ্বায়ক সূবর্ন নন্দী তাপস।

সভার শুরুতেই বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আমেরিকান প্রেসক্লাবের সদস্য এবং লস-এন্জেলেস সিটি আওয়ামী যুবলীগের অন্যতম উপদেষ্টা শ্যামল মজুমদার, এরপর একে একে বক্তব্য রাখেন আনন্দ মেলার প্রধান উদ্যোক্তা মোহাম্মদ আলী, ভ্যালী আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান ইমরান, ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল আলম চৌধুরী, লস-এন্জেলেস সিটি আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহাতাবউদ্দিন টিপু  , ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট মহিলা আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সিনিয়র সভানেত্রী হাসিনা বানু, ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের অন্যতম উপদেষ্টা তৌহিদ্দুজামান খান এবং দীর্ঘদিনের আওয়ামী পরিবারের সদস্য জনাব বিক্রমউদ্দিন। প্রধান বক্তা ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ডা: রবি আলম, প্রধান অতিথি এবং বিশেষ অতিথিকে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে উনার বক্তব্য শুরু করেন। উনার বক্তব্যে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে সামনের নির্বাচনে জয়লাভ করবার আশা ব্যক্ত করেন। উন্নয়নের গতি অব্যাহত রাখবার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য দীপিকা রানী সমদ্দর আয়োজদের এই আয়োজনটি করবার জন্য ধন্যবাদ জানান।

 প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে আসছে নির্বাচনে প্রবাসীদের কি করণীয় তা বিশেষভাবে উল্লেখ করেন। তিনি নিজ পরিবারের সদস্যরা যেন আওয়ামী লীগকে ভোট প্রদান করেন তা নিশ্চিত করার আহ্বান জানান। তিনি বাংলাদেশের তৃনমূল পর্যায়ের গ্রামের সাধারন মানুষগুলোর কাছাকাছি গিয়ে দেশের উন্নয়নের কথা বলার পরামর্শ দেন। উনি উল্লেখ করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে অভুতপূর্ব উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে এবারের নির্বাচনে জয়ী হওয়া জরুরি। আয়োজকদের ধন্যবাদ  জ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে উনি উনার মূল্যবান বক্তব্য শেষ করেন। সভার সভাপতি ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক সূবর্ন নন্দী তাপস বাংলাদেশ থেকে আগত অতিথিদের অনেক কষ্ট স্বীকার করে আসবার জন্য ধন্যবাদ জানান। উনি আগত সুধীজনদের ধন্যবাদ জানান এই কর্মদিবসে উপস্হিত থেকে মতবিনিময় সভাটিকে সাফল্যমন্ডিত করবার জন্য।
 মতবিনিময় সভাটিতে উপস্হিত ছিলেন লস-এন্জেলেস সিটি আওয়ামী যুবলীগের অন্যতম সদস্য শায়লা রুমী, ক্যালিফোর্নিয়া মহিলা আওয়ামীলীগের খুশী আহমেদ, অংকন শিল্পী পংকজ দাস,যার মনোরম ব্যানারটি শোভা পাচ্ছিল, আনন্দ মেলার জনাব ডুলী। মতবিনিময় সভাটির সন্চালনের দায়িত্বে ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের অন্যতম সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার আহমেদ। সার্বিক সহযোগিতায় ছিল আওয়ামী পরিবার নৈশভোজের মধ্যদিয়ে মধ্যরাতের কিছু আগে আয়োজনটি শেষ হয়।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বাঙালি একটি বীরের জাতি : বাফলা'র প্যারেডে কংগ্রেসম্যান

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৪-০৪ ১৬:০৪:৪৩

বাংলাদেশ থেকে হাজার হাজার মাইল দূরে এই আমেরিকার মেগাসিটি লস এঞ্জেলেস গত দুইদিন হয়ে উঠেছিল যেন বাংলাদেশেরই প্রতিচ্ছবি। গত ৩১ মার্চ ও ১ এপ্রিল লস এঞ্জেলেসের প্রবাসীরা মেতেছিল উৎসবে; উৎসাহ আর উদ্দীপনা ছিলো সর্বত্র। বিপুল সংখ্যক প্রবাসীদের অংশগ্রহণে অত্যন্ত জমকালো, রঙিন, বর্ণাঢ্য ও বিশাল '১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যাল - ২০১৮' অনুষ্ঠিত হয়ে গেল।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে গত এক দশক যাবৎ প্রবাসীদের নিয়ে বর্ণাঢ্য প্যারেড ও ফেস্টিভ্যালের আয়োজন করে আসছে বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অফ লস এঞ্জেলেস (বাফলা)। এবছরও দুই দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যাল - ২০১৮ সফলভাবে শেষ হলো। বর্ণালী ও বর্ণাঢ্য এ আয়োজনে সমগ্র লস এঞ্জেলেসের বাংলাদেশী কমিউনিটি যেন রূপ নিয়েছিল প্রবাসীদের মিলনমেলায়।৩১ মার্চ শনিবার অনুষ্ঠিত হয় ১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড। দুপুর ৩টায় নরম্যান্ডি এবং থার্ড স্ট্রীট থেকে প্যারেড শুরু হয়ে 'লিটিল বাংলাদেশ' ঘুরে ভার্জিল মিডিল স্কুলে গিয়ে শেষ হয়। প্যারেডে লস এঞ্জেলেসের রাজপথে নেমেছিল মানুষের ঢল। বাংলাদেশ ও আমেরিকার পতাকা, লাল-সবুজ পোষাক পরে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশীর উপস্থিতিতে উক্ত প্যারেডে অনেক বিদেশী নাগরিকদেরও অংশ নিতে দেখা যায়। আমেরিকা ও বাংলাদেশের বিভিন্ন থিম নিয়ে চমৎকার করে সাজানো একাধিক ফ্লোটস, বর্ণিল পদযাত্রা,  ঢোল, ব্যান্ড দল ও ঘোড়ার গাড়ি নিয়ে প্যারেডটি হয়ে উঠেছিল সত্যিই অত্যন্ত আকর্ষণীয়। বিশালাকৃতির স্ট্যাচু অফ লিবার্টি, শহীদ মিনার, স্মৃতি সৌধ, গ্রামীণ বিভিন্ন সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের সমারোহ ইত্যাদি ছিল এবারের প্যারেডের বিশেষ আকর্ষণ।
 
১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড মার্শাল ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়ার ৩৪ কংগ্র্যাশনাল ডিস্ট্রিকের ইউএস কংগ্রেসম্যান জিমি গোমেজ। এছাড়াও ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর পদপ্রার্থী আন্তোনিও ভিয়াররাইগোসা, সানদিয়াগোর সাবেক কংগ্রেসম্যান জিম বেটস্, বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল  প্রিয়তোষ সাহা, কেপিসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ডঃ কালী প্রদীপ চৌধুরী, ঢাকা হোমসের চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন এবং অন্যান্য সরকারি ঊর্ধতন করমকর্তা, গণ্যমান্য ব্যক্তিরা, বাফলা'র বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ও বাংলাদেশী কম্যুনিটির নেতাদের সাথে প্যারেডে উপস্হিত ছিলেন। আরও উপস্হিত ছিলেন বাফলা'র সাবেক প্রেসিডেন্ট ও ক্যাবিনেট সদস্যরা।
এসময় কংগ্রেসম্যান জিমি গোমেজ বলেন, বাঙালি একটি বীরের জাতি। ১৯৭১ সালে ৯ মাস যুদ্ধ করে নিজেদের মাতৃভূমিকে স্বাধীন করেছে। আজ ৪৭ বছর পর আমেরিকায়ও তারা নিজের দেশের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করছে এই বণ্যাঢ্য আয়োজনে। এটি তাদের জন্য অত্যন্ত গৌরবের। আমিও একটি দেশেরে স্বাধীনতা দিবসের প্যারেডে এখানে আসতে পেরে গর্ববোধ করছি।

প্যারেডে সবার সামনে ছিল বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের বিশাল বড় সাইজের দুটি পতাকা।  ৩টি ঘোড়া বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র এবং বাফলা'র পতকা বহন করে, এছাড়াও প্যারেডে ছিল একটি সুসজ্জিত ঘোড়ার গাড়ি, বাংলাদেশ ও আমেরিকার পতাকা সম্বলিত ১২টি হার্লে ডেভিডসন মোটরবাইক, লস এঞ্জেলেসে পুলিশ ডিপার্টমেন্টের ৩টি ও শেরিফ ডিপার্টেমেন্টের ১টি কনভার্টেবল কার। বাফলা'র সকল সদস্য সংগঠনের সবাই পায়ে হেঁটে প্যারেডে অংশ গ্রহণ করেন। বিনোদনের জন্য প্যারেডের সাথে ছিলেন ২জন ঢোলবাদক, ভার্জিল মিডিল স্কুলের ব্যন্ড দল ও একটি ইয়ুথ সাংস্কৃতিক দল, তারা বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে ও কসরত দেখিয়ে সবাইকে আনন্দ দেয়। প্যারেডে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশীরা সবাই জাতীয় পতাকা, বিভিন্ন ধরণের প্ল্যাকার্ড, লাল-সবুজের পোষাক পরে নারী-পুরুষ, যুবক-তরুণ-তরুণী, শিশু-কিশোরসহ সব সবয়সের প্রবাসী বাংলাদেশীরা অংশ নেন। এবারের প্যারেডে প্রচুর বিদেশী নাগরিককেও লাল-সবুজের পতাকা হাতে অংশ নিতে দেখা যায়। এসময় রাস্তার দু’পাশের বিদেশী নাগরিকরা জড়ো হয়ে হাত নেড়ে প্যারেডকে অভিনন্দন জানায়।

প্যারেড উপলক্ষে পুরো লস এঞ্জেলেসজুড়ে ছিল সাজ সাজ রব। প্যারেডের জন্য  পৃথিবীর অন্যতম বিনোদন নগরী ও ক্যালিফোর্নিয়ার গুরুত্বপূর্ণ এই শহরের মূল সড়কটি  ৪ ঘণ্টা বন্ধ করে রাখে সিটি কর্তৃপক্ষ। এবার প্রথমবারের মতো ‘বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’ নামে বাংলাদেশী আমেরিকান নতুন প্রজন্মের একদল শিশু বঙ্গবন্ধুর বিশাল প্রতিকৃতি ও ব্যানার নিয়ে প্যারেডে অংশ নেয়।

প্যারেডের পর ফেস্টিভ্যালের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত এবং বাফলা'র থিম সং দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। তিনটি সঙ্গীত বাজানোর সাথে সাথে যুক্তরাষ্ট্র, বাংলাদেশ ও বাফলার পতাকা উত্তোলন করা হয়। বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন কন্সাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা। যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা উত্তোলন করেন কংগ্রেসম্যান জিমি গোমেজ  এবং বাফলার পতাকা উত্তোলন করেন প্রেসিডেন্ট নজরুল আলম। এসময় উপস্থিত সবাই দাঁড়িয়ে জাতীয় সংগীত ও পতাকার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন। এরপর অতিথিরা সকলে মিলে পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে ১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যাল ২০১৮-র উদ্বোধন ঘোষণা করা করেন। এসময় মুসলিম, হিন্দু ও খ্রিষ্ট ধর্মের তিনটি ধর্মগ্রসন্থ পবিত্র কোরআন, গিতা ও বাইবেল থেকে পাঠ করা হয়।
বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যালে দুইদিনব্যাপি বিভিন্ন ফরম্যাল ইভেন্ট ছাড়াও শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্যারেডের পরে অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ সেমিনার। এবারের সেমিনারের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল 'What Examples do We want to present now for our Younger Generation'; সেমিনারটি পরিচালনা করেন আনিসুর রহমান। ১ম দিনেই প্রবাসীদের ভীড় ছিল মেলার বিভিন্ন স্টলগুলোতে। জমে উঠেছিল আড্ডা ও গান-গল্প। বিভিন্ন দেশি মুখরোচক খাবার, গহনা, হস্তশিল্পসহ রকমারী পণ্যের স্টল ছিল মেলায়। এদিন অত্যন্ত চমৎকারভাবে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন রশনি আলম। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শিল্পীরা নাচ-গান-কবিতায় মাতিয়ে তুলেছিলেন দর্শক ও অতিথিদের। সাংস্কৃতিক পর্বের মূল দায়িত্বে ছিলেন বাফলা'র কালচারাল সেক্রেটারী আঞ্জুমান আর শিউলি। ১ম দিনের বিশেষ অতিথি শিল্পী ছিলেন জনপ্রিয় মিউজিক স্টার শাহ মাহবুব। তার কণ্ঠে গানের যাদুতে দর্শক-শ্রোতারা যেন হারিয়ে গিয়েছিলেন সুরের জগতে।
বাফলা'র প্রেসিডেন্ট নজরুল আলম তাঁর বক্তব্যে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, যার নেতৃত্বে ৯ মাসের মুক্তিযোদ্ধের পর দেশ স্বাধীন হয়েছিল শেখ মুজিবুর রহমান, শহিদ প্রেসিডেন্ট মেজর (অব.) জিয়াউর রহমান, মুক্তিযোদ্ধের প্রধান সেনাপতি মেজর (অব.) এম এ জি ওসমানী, জাতীয় চার নেতাসহ  একাত্তরের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। সকল মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা জ্ঞাপন করেন। উপস্থিত সবাইকে প্যারেডে অংশ গ্রহণের জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। বাফলা'র কেবিনেট সদস্য, সাবেক ও বর্তমান নেতৃবৃন্দসহ যারা প্যারেড আয়োজনে সহযোগিতা করেছেন সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি তাঁর বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদ এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ করে বাফলা'র সকল সদস্য, প্রবাসী কমিউনিটি, প্যারেডের অতিথি, সাংবাদিক, সংস্কৃতি কর্মীসহ উপস্থিত সবাইকে এই সুন্দর আয়োজনকে সফল করার জন্য বাফলা'র পক্ষ থেকে ধন্যবাদ এবং সকলকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা জানান।

শেষদিন অনুষ্ঠান পরিচলনায় ছিলেন লস এঞ্জেলেসের জনপ্রিয় এমসি সাজিয়া হক মিমি। তার প্রাণবন্ত উপস্হাপনা দর্শক-শ্রোতা-অতিথিদের প্রশংসা কুঁড়িয়েছে। তাকে সাথে ছিলেন আরেক জনপ্রিয় এমসি মিঠুন চৌধুরী। এদিন বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। প্যারেডে অংশগ্রহণকারী সেরা তিনটি সংগঠনকে ট্রফি দেয়া হয়। এবার কম্যুনিটিতে ভাল কাজ ও সার্ভিসের স্বীকৃতিস্বরূপ 'বাফলা পদক' প্রদান করা হয় বাফলার সাবেক ২ বারের প্রেসিডেন্ট, প্রবীন কমিউনিটি একটিভিস্ট, ডেন্টিস্ট ডা. আবুল হাসেম। উল্লেখ্য, প্রথম বাফলা পদক প্রদান করা হয় চ্যানেল আইয়ের ব্যাস্থাপনা পরিচালক শায়েখ সিরাজকে।

সন্ধ্যায় অনুষ্ঠান স্থলে আসেন লস এঞ্জেলেসের দু'বার নির্বাচিত মেয়র এবং বর্তমানে ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর পদপ্রার্থী আন্তোনিও ভিয়াররাইগোসা। সদর দরজায় গিয়ে তাঁকে স্বাগত জানান বাফলার প্রেসিডেন্ট নজরুল আলম ও তাঁর পরিষদ এবং ট্রাস্টি বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, কমিশনার মুজিব সিদ্দিকী। প্রধান অতিথিকে ফুলের মালা গলায় পরিয়ে বরণ করে নেন নতুন প্রজন্মের বাংলাদেশী আমেরিকান শেখ জিব্রান| 

ভার্জিল মিডল স্কুল মাঠে বাফলার মেলার সাজগোজ দেখে মেয়র অভিভূত হন এবং উনি সম্বোদনকারীদের ও প্রাক্তন সভাপতি সামসুদ্দিন মানিককে সাথে নিয়ে প্রায় ৫০ টা বুথের প্রতিটা প্ৰদৰ্শন করেন এবং সবার সাথে মত বিনিময় করেন এবং শত শত দর্শক উনার সাথে ছবি উঠাতে গেলে মেয়র নিজে তাদের ক্যামেরা হাতে নিয়ে সেলফি ছবি উঠান| তারপর শিপার চৌধুরী ও অন্যান্ন প্রাক্তন সভাপতিদের সাথে মতবিনিময়ের পর মেয়রকে নিয়ে নেতৃবৃন্দ মঞ্চে উঠে যান |

সভাপতি আলম অপূর্বভাবে প্রধান অতিথিকে পরিচয় করিয়ে দিয়ে কমিশনার মুজিব সিদ্দিকীকে বক্তব্য রাখতে বললে উনি মেয়র লিটল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ কমিউনিটিকে কিভাবে সহযোগিতা করেছিলেন তার সংক্ষিপ্ত তথ্য প্রকাশ করেন| তারপর প্রাক্তন সভাপতি ডা. হাশেম ও জনাব চৌধুরী অতিথির ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং প্রধান অতিথিকে গভর্নর নির্বাচনে কমিউনিটির পক্ষ থেকে  সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন |

প্রধান অতিথি "আসসালামু আলাইকুম" ও বাংলায় "শুভ সন্ধ্যা" বলে তার ভাষণ শুরু করলে শত শত উপস্থিতি আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে করতালি দিতে থাকে| তিনিদিনশেষে অনেক কাজের ফাঁকে এখানে আসতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করেন| "লিটল বাংলাদেশ" তৈরির ব্যাপারে উনি বাফলার প্যারেড ২০০৭ দেয়া প্রতিশ্রূতি রাখতে পেরে বেশ খুশি হয়েছিলেন বলে জানান| মেয়র হিসাবে তিনি যা উন্নয়ন করেছিলেন তার উল্লেখ করেন| তিনি বলেন, সব জাতির ও ধর্মের লোক এদেশে বসবাস করার অধিকার রয়েছে ও তাদের মেধা ও শ্রমের বিনিয়োগের  কারণেই ক্যালিফর্নিয়া বিশ্বের ৭ম ধনী দেশ। তিনি বলেন প্রত্যেক অভিভাসীদের এদেশে স্বাধীন ভাবে বসবাস করার অধিকার আছে| তিনি ক্যালিফর্নিয়ার নির্বাচনে গভর্নর হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কথা উল্লেখ করে উপস্থিত সবার সহযোগিতার আবেদন করলে দর্শশ্রোতাতারা উল্লাসপূর্ণ করতালি দিয়ে প্রধান অতিথিকে আশ্বস্ত করেন|
অনুষ্ঠানে বাফলার পক্ষ থেকে সম্মানসূচক ক্রেস্ট প্রদান করা হয় বাফলার সাবেক প্রেসিডেন্ট শিপার চৌধুরী, খন্দকার আলম ও ড. শাহ আলমকে। এছাড়াও সাংস্কৃতিক আয়োজনে পারফর্ম করতে বাংলাদেশ থেকে আসা কন্ঠশিল্পী শুভ্রদেব ও জিনাত আরা মুনা এবং নিউইয়র্ক আসা জনপ্রিয় শিল্পী শাহ মাহবুবকে বাফলার পক্ষ থেকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

প্যারেড ও ফ্যাস্টিভ্যাল উপলক্ষে প্রকাশিত হয় বাফলার বার্ষিক ম্যাগাজিন ‘অপরাজেয়’। অনুষ্ঠানের প্রাইম টাইমে উপস্থাপক মঞ্চে ডাকেন বাফলার পাবলিক রিলেশন অফিসার, এবারের ম্যাগাজিন কমিটির কোঅর্ডিনেটর ও এলএ বাংলা টাইমসের সিইও আব্দুস সামাদকে। তিনি মঞ্চে উঠে প্রেসিডেন্ট নজরুল আলম ও ম্যাগাজিন কমিটির সদস্যদের নিয়ে ফিতা কেটে ম্যাগাজিনের মোড়ক উন্মোচন করেন। উল্লেখ্য, এবারের ম্যাগাজিনে বাণী দিয়েছেন বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুদজ্জামান নূর, ব্রাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদ, লস এঞ্জেলেসে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা, ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট এবং মার্কিন সিনেটর, কংগ্রেসম্যান, এলএ সিটি মেয়রসহ যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের বিভিন্ন কর্তা ব্যক্তিরা।

এবারই প্রথম স্থানীয় শিল্পী যারা বাফলার বিভিন্ন প্রগ্রামে গান পরিবেশন করেন তাদেরকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। বিভিন্ন সময় বাফলার প্রগ্রামে মেডিক্যাল সহযোগিতার জন্য ‘বাংলাদেশ মেডিক্যাল এসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকাকে (বিএমএএনএ)’ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

ফেস্টিভ্যালে চলাকালীন বিভিন্ন সময় অন্যান্যের মধ্যে গান পরিবেশন করেন জনপ্রিয় শিল্পী রেহানা মল্লিক, আরজিন কামাল, উপমা সাহা, সোনিয়া বড়ুয়া, ও নতুন প্রজন্মের ব্যান্ড শিল্পী আসিফ ইসলাম শুভ। বেশ কিছু চমৎকার নৃত্য পরিবেশন করেন স্থানীয় শিল্পীরা। গ্রুপ ডান্স পরিবেশন করে জারা ও তার দল। এছাড়াও স্হানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় বিভিন্ন জনপ্রিয় দেশাত্মবোধক গান পরিবেশিত হয়। শেষদিনের অন্যতম অতিথি শিল্পী ছিলেন বাংলাদেশ থেকে আগত জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী জিনাত আরা মুনা। তার গান দর্শক-শ্রোতাদের আনন্দ দেয়। প্রধান অতিথি শিল্পী ছিলেন বাংলাদেশের আধুনিক গানের যুবরাজকখ্যাত তুমুল জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী শুভ্রদেব । তার মিউজিক ও ড্যান্স দর্শক-শ্রোতাদের মন ভরিয়ে দেয়।

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে বাফলা পদকপ্রাপ্ত শায়েখ সিরাজ এবার বাংলাদেশের স্বাধীনতা পদক পাওয়ায় তাঁকে অভিনন্দন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ।

১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যালের মিডিয়া পার্টনার ছিল জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল 'বাংলা ভিশন' ও লসএঞ্জেলেসের ১ম ডিজিটাল বাংলানিউজ পোর্টাল 'এল এ বাংলা টাইমস'। সবকিছু মিলে অত্যন্ত সফল একটি প্যারেড ও ফেস্টিভ্যাল আবারও লস এঞ্জেলেসবাসীকে উপহার দিয়েছে বাফলা।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যাল শুরু আজ : লিটল বাংলাদেশে সাজ সাজ রব

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-৩১ ১১:১৪:০৩

আজ ৩১ মার্চ শনিবার শুরু হচ্ছে লস এঞ্জেলেসের ঐতিহ্যবাহী ১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যাল ২০১৮। ২ দিনব্যাপী এই আয়োজন শেষ হবে আগামীকাল ১ এপ্রিল রবিবার। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে  বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অব বাংলাদেশে (বাফলা)’র উদ্যোগে আয়োজিত দুই দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানকে ঘিরে সাজ সাজ রব বিরাজ করছে বাংলাদেশী অধ্যুষিত লিটল বাংলাদেশ এলাকায়।

এই আয়োজনকে ঘিরে হাজার হাজার প্রবাসী বাংলাদেশী লস এঞ্জেলসের রাজপথে নামবেন রঙ-বেরঙের পোশাক আর লাল-সবুজের পতাকা হাতে নিয়ে। অংশ নেবেন বিদেশীরাও। তাই কম্যুনিটিতে এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনা।

গত এক দশকের বেশীকাল যাবৎ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে সুদূর প্রবাসে এই আমেরিকার অন্যতম প্রধান শহর মেগাসিটি লস এঞ্জেলেসের প্রাণকেন্দ্রে হাজার হাজার প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে জমকালো প্যারেডের আয়োজন করে আসছে বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অফ লস এঞ্জেলেস (বাফলা)। ঐতিহ্যবাহী ‘বাংলাদেশ ডে প্যারেড’ আজ প্রবাসীদের তথা সমগ্র বাংলাদেশীদের জন্য গর্বের বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

এ বছর বাংলাদেশ ডে প্যারেডে আমন্ত্রিত অতিথিরা হচ্ছেন সিনেটর ডায়ান ফেইনস্টাইন, লস এঞ্জেলেস সিটির জননন্দিত মেয়র এরিক গারসেটি, কংগ্রেসম্যান ব্র‍্যাড শেরম্যান, কংগ্রেসম্যান জিমি গোমেজ, বাংলাদেশের মাননীয় কনসাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা, ডেপুটি চিফ হোরেস ফ্রাঙ্ক, এলএ কাউন্টির বোর্ড সুপাভাইজার হিলডা সলিস প্রমুখসহ ক্যালিফোর্ণিয়া স্টেট এবং ফেডারেল গভর্নমেন্টের বেশ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

২ দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে প্রবাসী বাংলাদেশী ছাড়াও মার্কিন প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিসহ ভিন্ন দেশী প্রবাসীরাও অংশ নেবেন। সকল অনুষ্ঠান সবার জন্য জন্য উন্মুক্ত থাকবে। অনুষ্ঠানের পাশাপাশি থাকবে বিভিন্ন প্রকার বাংলাদেশি পণ্য, বই ও মুখরোচক খাবারের স্টল।

অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক আয়োজনে পারফর্ম করতে বাংলাদেশ থেকে এসেছেন আধুনিক বাংলা গানের অন্যতম জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী শুভ্রদেব ও জিনাত আরা মুনা, নিউইয়র্ক থেকে এসেছেন জনপ্রিয় শিল্পী শাহ মাহবুব।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি থাকবে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, প্রকাশিত হবে বাফলা'র বার্ষিক ম্যাগাজিন ’অপরাজেয়’। থাকছে নাগরিক সচেতনতা ও শিক্ষামূলক সেমিনার ইত্যাদি। স্বাধীনতা দিবসের এই ফেস্টিভ্যালে দেশীয় হস্তশিল্প, বই, খেলনা, দেশি মুখরোচক খাবার, গহনা, আবাসন ও বিনিয়োগ প্রকল্পসহ রকমারী ধরনের ও পণ্যের স্টল থাকবে।

১৫২ নর্থ ভারমন্ট এভিন্যুতে, ভার্জিল মিডল স্কুলে অনুষ্ঠিতব্য দুই দিনব্যাপী এই জমকালো আয়োজন সকলের জন্য উন্মুক্ত; থাকবে প্যারেড থেকে ফেস্টিভ্যাল গ্রাউন্ড পর্যন্ত ফ্রি শাটল সার্ভিস ও পর্যাপ্ত গাড়ি পার্কিংয়ের সুব্যবস্হা।

এবছর মিডিয়া পার্টনার থাকবেন বাংলা ভিশন ও এল এ বাংলা টাইমস্।

এবছর বাংলাদেশ ডে ফেস্টিভ্যালে আইয়ুব বাচ্চুর অংশ নেয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত ভিসা সংক্রান্ত জটিলতায় তিনি আসতে পারছেন না।

২ দিনের এই ঝাকজমকপূর্ণ আয়োজনে সকল প্রবাসী বাংলাদেশিদের সবান্ধব ও সপরিবারে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বাফলার প্রেসিডেন্ট নজরুল আলম ও জেনারেল সেক্রেটারি ইঞ্জিনিয়ার শহিদ আলমসহ বর্তমান ক্যাবেনটের সদস্যবৃন্দ।


এলএবাংলাটাইমস/এলএ/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বাফলার ১২তম প্যারেডকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি মহাসচিবের শুভেচ্ছা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-৩০ ১৪:২২:০৪

বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অব লস এঞ্জেলেস (বাফলা)’র আয়োজনে লস এঞ্জেলেসে প্রতিবারের ন্যায় ও অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আড়ম্বরপূর্ণ ২ দিনব্যাপী ‘বাংলাদেশ ডে প্যারেড অ্যান্ড ফ্যাস্টিভ্যাল’। আগামী ৩১ মার্চ শনিবার ও ১ এপ্রিল রবিবার লিটল বাংলাদেশ এলাকায় আয়োজিত এই অনুষ্ঠানমালার সব ধরণের প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাফলা কর্তৃপক্ষ।

এদিকে বাফলার বিভিন্ন কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রী ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। এবারের প্যারেড অ্যান্ড ফেস্টিভ্যাল উপলক্ষে প্রকাশিতব্য ম্যাগাজিন ‘অপরাজেয়’তে দেওয়া বাণীতে তাঁরা বাফলার এমন উদ্যোগকে স্বাগত ও শুভেচ্ছা জানান এবং দেশের উন্নতি ও সমৃদ্ধিতে প্রবাসীদের সহযোগিতা কামনা করেন।

এবার অপরাজেয়'তে বাণী দিয়েছেন বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুদজ্জামান নূর, ব্রাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদ, লস এঞ্জেলেসে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা, ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট এবং মার্কিন সিনেটর, কংগ্রেসম্যান, এলএ সিটি মেয়রসহ যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের বিভিন্ন কর্তা ব্যক্তিরা।

বাফলার পাবলিক রিলেশন সেক্রেটারি ও এবারের ম্যাগাজিন কমিটির কোঅর্ডিনেটর আব্দুস সামাদ বলেন, বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন ব্যক্তিদের এসব শুভেচ্ছা বানী পাওয়াতে লস এঞ্জেলেস প্রবাসীরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। এই মূল্যায়ন বাফলার কার্যক্রমকে আরও গতিশীল করবে বলে আমি মনে করি।

২ দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে প্রবাসী বাংলাদেশী ছাড়াও মার্কিন প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিসহ ভিন্ন দেশী প্রবাসীরাও অংশ নেবেন। সকল অনুষ্ঠান সবার জন্য জন্য উন্মুক্ত থাকবে। অনুষ্ঠানের পাশাপাশি থাকবে বিভিন্ন প্রকার বাংলাদেশি পণ্য, বই ও মুখরোচক খাবারের স্টল।

অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক আয়োজনে পারফর্ম করতে বাংলাদেশ থেকে আসবেন আধুনিক বাংলা গানের অন্যতম জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী শুভ্রদেব ও জিনাত আরা মুনা, নিউইয়র্ক থেকে আসবেন জনপ্রিয় শিল্পী শাহ মাহবুব।

২ দিনের এই ঝাকজমকপূর্ণ আয়োজনে সকল প্রবাসী বাংলাদেশিদের সবান্ধব ও সপরিবারে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বাফলার প্রেসিডেন্ট নজরুল আলম ও জেনারেল সেক্রেটারি ইঞ্জিনিয়ার শহিদ আলমসহ বর্তমান ক্যাবেনটের সদস্যবৃন্দ।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

হলিউডে ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের ৪৮তম মহান স্বাধীনতা দিবস উদ্‌যাপন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-৩০ ০৫:৪৩:৩০

আনন্দঘন পরিবেশে ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগ গত ২৬শে মার্চ ২০১৮,সোমবার সন্ধ্যায় লস এন্জেলেস সিটি আওয়ামী যুবলীগ এবং ভ্যালী আওয়ামী যুবলীগের সার্বিক সহযোগিতায় লস এন্জেলেসের চার্চ অফ সাইন্টোলজিতে উদযাপন করলো ৪৮তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। অনুষ্ঠানটির সভাপতিত্ব করেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক শ্রী সুবর্ন নন্দী তাপস এবং সন্চালনের দায়িত্বে ছিলেন অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব খন্দকার আহমেদ।

শুরুতেই পবিত্র ধর্ম গ্রন্থ থেকে পাঠ করা হয়। অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব শেখ পলাশ পবিত্র কোরআনের আয়াত পাঠ করে শোনান এবং শ্রী শ্রীনাথ বন্ধু বিশ্বাস পবিত্র গীতা থেকে পাঠ করেন।
অনুষ্ঠানটি ছিল দু'ভাগে বিভক্ত,প্রথম পর্বে ছিল স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা এবং দ্বিতীয় পর্বে ছিল সাংকৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের প্রারম্ভেই বাংলাদেশের এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত বাজানো হয়,এসময় অভ্যাগত অতিথিসহ আওয়ামী পরিবারের সকল সদস্যবৃন্দ দাঁড়িয়ে সম্মান প্রদর্শণ করেন। তিরিশ লক্ষ শহীদের আত্নত্যাগ এবং দু'লক্ষ মা-বোনের সম্মানের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার জন্য উনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সুধীজনদের মাঝে উপস্হিত মহান বীর মুক্তিযাদ্ধা জনাব মজিবর রহমান খোকা সহ সকল মুক্তযোদ্ধাদের সম্মানার্থে দাঁড়িয়ে এবং ব্যাপক করতালির মাধ্যমে অভিনন্দিত করা হয়।
স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের শুরুতেই আলোচনায় অংশ নেয় নতুন প্রজন্মের শিশু-কিশোর। তন্বী নন্দী স্বাধীনতা সংগ্রামের সেইসব ভয়ার্ত দিনগুলির কথা শ্রদ্ধাসহ স্মরন করে। নতুন প্রজন্মের আরেক আলোচক আলভী আহমেদ '৭০ এর ঐতিহাসিক নির্বাচন,৭ই মার্চের বঙ্গবন্ধুর কালজয়ী ভাষন এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস তুলে ধরে। এ প্রজন্মের শিশু-কিশোররা প্রমান করে দেয় যে,তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জন্ম নিলেও বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস তারা জানে।

আলোচনা ও সাংকৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের সংগ্রামী নেতা আহ্বায়ক এ.কে.এম.তারিকুল হায়দার চৌধুরী এবং প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জনাব মন্জুরুল আলম শাহীন ভাই।উনারা এ'অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন এবং ইচ্ছা থাকা সত্বেও ব্যস্ততার কারনে উপস্হিত থাকতে পারেন নি বলে দুংখ প্রকাশ করেছেন। নিউইর্য়ক থেকে দু'জনেই তাদের মূল্যবান বক্তব্য দেন। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক জনাব তারিকুল হায়দার চৌধুরী টেলিফোনে উপস্হিত নেতা-কর্মী এবং অভ্যাগত অতিথিদের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা দেন। উনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্ত করে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে জয়ী হতে কাজ করবার আহবান জানান। তিনি আরো ঘোষণা দেন যে সুবর্ন নন্দী তাপসই হচ্ছেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক এবং ২৯শে এপ্রিল সম্মেলন করবার পরামর্শ দেন।

প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিউইর্য়ক থেকে মধ্যরাতের কিছু পরে টেলিফোনের মাধ্যমে ওনার মূল্যবান বক্তব্য প্রদান করেন। সুবর্ন নন্দী তাপস এর নেতৃত্বে ক্যালিফোর্নিয়াতে শক্তিশালী একটি যুবলীগ গঠনে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
পরিশেষে স্বল্প সময়ের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সফরে আসা ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের 'স্বাধীনতা দিবস' এর অনুষ্ঠানে আসবার আমন্ত্রণ গ্রহন করে উপস্থিত থাকতে পারেন নি বলে দুংখ প্রকাশ করেছেন। মুল মন্চ থেকে একে একে মূল্যবান বক্তব্য রাখেন লস এন্জেলেস সিটি আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক জনাব আলমগীর হোসেন,ভ্যালী আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক জনাব হাবিবুর রহমান ইমরান,ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব শেখ পলাশ,ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের অন্যতম উপদেষ্টা জনাব তৌহিদুজ্জামান খান,লস এন্জেলেস সিটি আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব মাহাতাবউদ্দিন টিপু,ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হাসিনা বানু।
এছাড়াও আরো বক্তব্য রাখেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের অন্যতম  সহ-সভাপতি জনাব ফারুক খান। গেষ্ট অব অনারে ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ড:রবিউল আলম উনার বক্তৃতায় '৭০ এর নির্বাচন পুর্ববর্তী এবং পরবর্তীতে পশ্চিমা শাসক গোষ্ঠির ষড়যন্ত্রের কথা উপস্হিত নেতা,কর্মী এবং অভ্যাগত অতিথিদের জানিয়ে দেন। ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক শ্রী সুবর্ন নন্দী তাপস উপস্হিত নেতা,কর্মী এবং অতিথিদের ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে আলোচনা সভাটির সমাপ্তি হয়।

উপস্হিত নেতা,কর্মী ও অতিথিদের মাঝে যারা ছিলেন, ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি জনাব সোহেল রহমান বাদল,যুবলীগের ইলিয়াস শিকদার,সিটি আওয়ামী যুব লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব বাবু ভুইয়া,ভ্যালী আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শ্রী অনির্বান সাহা টিটো,ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের স্বাস্হ্য বিষয়ক সম্পাদিকা ড:মাহমুদা আলম কলি,ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট মহিলা আওয়ামী লীগের কেয়া পলাশ,খুরশিদা আক্তার।আরো যারা ছিলেন বেঙ্গলী আমেরিকান হিন্দু সোসাইটির বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব তিন বারের সভাপতি শ্রী অমর হাওলাদার। বরাবরের মত ছবি ফ্রেমে বন্দী করে রাখবার কঠিন দায়িত্বে ছিলেন ফটো সাংবাদিক শ্রী সুখেন্দ্র পাল।
দ্বিতীয় পর্বে ঘন্টাব্যাপী দেশাত্ববোধক এবং আধুনিক গান পরিবেশন করেন লস এন্জেলেসের খ্যাতিমান সঙ্গীত শিল্পী উপমা সাহা।'সব ক'টা জানালা খুলে দাও না ওরা আসবে চুপি চুপি' এই কালজয়ী গানটি দিয়ে আনন্দময় স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেসে বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যাল : আর বাকী দুইদিন, ব্যাপক প্রস্তুতি

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-২৮ ১৪:৪১:০৯

আর মাত্র ২ দিন পরেই শুরু হতে যাচ্ছে লসএঞ্জেলেসের ঐতিহ্যবাহী বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যাল ২০১৮। দুইদিনব্যাপী নানান আয়োজনের মাধ্যমে বর্ণিল সাজে সজ্জিত হয়ে উঠবে সমগ্র 'লিটিল বাংলাদেশ' এলাকা। হাজার হাজার প্রবাসী বাংলাদেশীরা লসএঞ্জেলসের রাজপথে নানা উৎসবে, রঙে ও ঢঙে উদযাপন করবে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস। তাই প্রবাসী বাংলাদেশী কম্যুনিটিতে সাধারন নাগরিকদের মাঝে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যালকে ঘিরে এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনা।

গত এক দশকের বেশীকাল যাবৎ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে সুদূর প্রবাসে এই আমেরিকার অন্যতম প্রধান শহর মেগাসিটি লস এঞ্জেলেসের প্রাণকেন্দ্রে হাজার হাজার প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে জমকালো প্যারেডের আয়োজন করে আসছে বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অফ লস এঞ্জেলেস (বাফলা)। ঐতিহ্যবাহী 'বাংলাদেশ ডে প্যারেড' আজ প্রবাসীদের তথা সমগ্র বাংলাদেশীদের জন্য গর্বের বিষয়ে পরিণত হয়েছে। আগামী ৩১ মার্চ ও ১ এপ্রিল শনিবার ও রবিবার অনুষ্ঠিতব্য দুই দিনব্যাপী এ বিপুল আয়োজনের সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। ১ তারিখ ইস্টার সান ডে'র ছুটি থাকায় এবছর 'বাংলাদেশ ডে' প্যারেড অনুষ্ঠিত হবে ৩১ তারিখ শনিবার।


এ বছর বাংলাদেশ ডে প্যারেডে আমন্ত্রিত সম্মানিত অতিথিরা হচ্ছেন সিনেটর ডায়ান ফেইনস্টাইন, লস এঞ্জেলেস সিটির জননন্দিত মেয়র এরিক গারসেটি, কংগ্রেসম্যান ব্র‍্যাড শেরম্যান, কংগ্রেসম্যান জিমি গোমেজ, বাংলাদেশের মাননীয় কনসাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা, ডেপুটি চিফ হোরেস ফ্রাঙ্ক, এলএ কাউন্টির বোর্ড সুপাভাইজার হিলডা সলিস প্রমুখসহ ক্যালিফোর্ণিয়া স্টেট এবং ফেডারেল গভর্নমেন্টের বেশ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

দুই দিনব্যাপী এই জামজমকপূর্ণ আয়োজনে আগত অতিথি শিল্পীরা ছাড়াও অনেক প্রবাসী শিল্পীরা বিভিন্ন পারফর্মেন্স করবেন। প্রবাসীদের মন মাতাতে বাংলাদেশ থেকে আসছেন আধুনিক বাংলা গানের অন্যতম জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী শুভ্রদেব, যার অসংখ্য-অগণিত গান ও জাদুকরী সুরের মাধ্যমে শুভ্রদেব বাংলাদেশের মানুষের মনে স্হান করে নিয়েছে। পাশাপাশি নিউইয়র্ক থেকে আসবেন হালের দুইজন জনপ্রিয় শিল্পী জিনাত আরা মুনা ও শাহ মাহবুব, এরা দুজনই বর্তমানে দর্শকশ্রোতাদের মাঝে বেশ সাড়া জাগিয়েছেন। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি থাকবে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, প্রকাশিত হবে বাফলা'র বার্ষিক ম্যাগাজিন 'অপরাজেয়', থাকছে নাগরিক সচেতনতা ও শিক্ষামূলক সেমিনার ইত্যাদি। স্বাধীনতা দিবসের এই ফেস্টিভ্যালে দেশীয় হস্তশিল্প, বই, খেলনা, দেশি মুখরোচক খাবার, গহনা, আবাসন ও বিনিয়োগ প্রকল্পসহ রকমারী ধরনের ও পণ্যের স্টল থাকবে। ১৫২ নর্থ ভারমন্ট এভিন্যুতে, ভার্জিল মিডল স্কুলে অনুষ্ঠিতব্য দুই দিনব্যাপী এই জমকালো আয়োজন সকলের জন্য উন্মুক্ত; থাকবে প্যারেড থেকে ফেস্টিভ্যাল গ্রাউন্ড পর্যন্ত ফ্রি শাটল সার্ভিস ও পর্যাপ্ত গাড়ি পার্কিংয়ের সুব্যবস্হা। এবছর মিডিয়া পার্টনার থাকবেন বাংলা ভিশন ও এল এ বাংলা টাইমস্‌। এবছর বাংলাদেশ ডে ফেস্টিভ্যালে আইয়ুব বাচ্চুর অংশ নেয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত ভিসা সংক্রান্ত জটিলতায় তিনি আসতে পারছেন না। গত ২৫ মার্চ বাফলা'র ইসি মিটিংয়ে একথা জানিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন বাফলার প্রেসিডেন্ট জনাব নজরুল আলম। তিনি জানান, আইয়ুব বাচ্চু আসবেন এ জন্য আমরা শেষ পর্যন্ত সর্বাত্নক চেষ্টা করেছি। কিন্তু ভিসার জটিলতায় তা সম্ভব হচ্ছেনা। জানা যায়, ক্যালিফোর্ণিয়ার বাংলাদেশ ডে প্যারেডসহ আরও আটটি স্টেট এ বাচ্চুর পূর্ব ঘোষিত সকল অনুষ্ঠান বাতিল অথবা পিছিয়ে দেয়া হয়েছে।

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশী কম্যুনিটির যেকোন সমস্যায় বাফলা নিঃস্বার্থভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়। দল-মত, ধর্ম-বর্ণ সবকিছুর ঊর্ধ্বে থেকে বাফলা কম্যুনিটির সুখ-দুঃখে প্রকৃত বন্ধু হিসাবে নিজেদের প্রমাণিত করতে পেরেছে। এছাড়া বাংলাদেশের বাইরে বিশ্বের কোনও বৃহৎ নগরীতে বাংলাদেশকে নিয়ে এত বড় বর্ণিল ও বর্ণাঢ্য আয়োজন ধারাবাহিকভাবে একমাত্র বাফলা'ই করে থাকে, সেটি আজ সর্ব স্বীকৃত। হিংসা ও হানাহানির এই পৃথিবীকে  ভালবাসা দিয়ে যত্ন করে গড়ে তুলবার জন্যে নিরলস কাজ করছে বাফলা। পৃথিবীময় ঘৃনার বিরুদ্ধে ভালোবাসার বাণী ছড়িয়ে দিতে অগ্নি মশাল নিয়ে দাঁড়িয়েছে বাফলা। মানুষের প্রতি মানুষের সম্মান এবং ভালবাসার ব্রতী নিয়ে এগিয়ে চলছে বাফলা।

মাতৃভূমি বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উদযাপনকে সামনে রেখে, বাফলা'র বর্তমান প্রেসিডেন্ট নজরুল আলম তার ক্যাবিনেট ও বাফলার সকল সদস্যের পক্ষ থেকে প্রবাসের সকলকে ১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিভ্যালে সপরিবারে ও সবান্ধবে যোগদান করার আহবান জানিয়েছেন।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৩-১০ ১০:৪১:১৬

৭ই মার্চ বুধবার সন্ধ্যায় ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ এবং সদ্য ইউনেস্কো কতৃক  'বঙ্গবন্ধুর' ভাষন 'World Documentary Of Heritage' সংরক্ষনের ঘোষনায় আলোচনা সভা এবং সংগীত সন্ধ্যার আয়োজন করে বিনোদনের রাজধানীখ্যাত লস-এন্জেলেসের হডিউডের প্রানকেন্দ্রের Church Of Scientology এর মিলনায়তনে।

বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে ঐতিহাসিক এই দিনটির উৎযাপন শুরু হয়।’

একক সংগীত পরিবেশন করেন লস-এন্জেলেসের প্রখ্যাত শিল্পী আবুল কালাম আজাদ। তিনি একের পর এক গন-সংগীত,দেশাত্ববোধক এবং স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের গান গেয়ে উপস্হিত সুধীজনদের মুগ্ধ করেন,উনার সংগীত মনে করিয়ে দেয় নয় মাসের স্বাধীনতা সংগ্রামের সেই দিনগুলোর কথা।অনেককেই উনার কন্ঠের সাথে তাল মিলিয়ে গান গাইতে দেখা যায়।

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা নির্মনেন্দু গুনের বিখ্যাত কবিতাটি আবৃত্তি করেন শিউলী মিজান,উপস্হিত সুধীজন আবেগ আপ্লুত হয়ে উপভোগ করেন উনার আবৃত্তি। বঙ্গবন্ধুকে স্মরন করে আজমিরী রওশন আবৃত্তি করেন। প্রানবন্ত এবং আন্তরিকতার সাথে পর্বটি পরিচালনা করেন জনাব শাহীন মিজান।



 আলোচনার শুরুতেই বক্তব্য রাখেন স্হানীয় অন লাইন পত্রিকার সাংবাদিক জনাব হানিফ সিদ্দিকী,এরপর একে একে বক্তব্য রাখেন সিটি আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক জনাব আলমগীর হোসেন,ভ্যালী যুব লীগের ইমরান আহমেদ,অভ্যাগত অতিথিদের মধ্য থেকে জনাব আবদুর রাজ্জাক,বীর মুক্তিযাদ্ধা জনাব ছামছুল আলম রানা,ক্যালিফোর্নিয়্ ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের অন্যতম আহ্বায়ক জনাব শেখ পলাশ,ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের জৈষ্ঠ যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব খন্দকার আহমেদ,ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ড:রবি আলম,অন্যতম সহ-সভাপতি জনাব নাজমুল চৌধুরী,সহ-সভাপতি জনাব আনিসুর রহমান,বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সহ-সভাপতি জনাব মিজান শাহীন এবং সর্বশেষ বক্তা হিসেবে ছিলেন বয়োজৈষ্ঠ যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সবার শ্রদ্ধাভাজন জনাব মোস্তাইন দারা বিল্লাহ। আলোচকরা ৭ই মার্চের আলেচনায় বার বার ঐ ঐতিহাসিক দিনটির কথা স্বরন করেছেন।কেউ রেশকোর্স মায়দানে স্বশরীরে উপস্হিত থেকে বঙ্গবন্ধুর বক্তৃতা শোনার অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করেছেন,কেউ ঐতিহাসিক বক্তৃতাকেই স্বাধীনতার ঘোষনা বলে উল্লেখ করেছেন।বক্তাদের অনেকেই মনে করেন এই ঐতিহাসিক বক্তৃতা শূধু স্বাধীনতার ঘোষনাই নয়,ছিল স্বাধীন বাংলাদেশ পরবর্তী রূপরেখা বা নির্দশনা।

আলোচনা অনুষ্ঠানটি সুনিপুণভাবে সন্চালন করেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব তোফাজ্জল হোসেন কাজল।

মন্চ সাজানো হয়েছিল জাতির পিতা  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এবং উনার সুযোগ্যা কন্যা বাংলাদেশের মাননীয় প্রধান মন্ত্রি শেখ হাসিনার নয়নাভিরাম প্রতিকৃতি দিয়ে,যা সত্যি প্রশংসনীয় এবং উপস্হিত সুধীজন দ্বারা সমাদৃত।
আলোচনা সভায় উপস্হিত ছিলেন সিটি যুব লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব বাবু ভূইয়া,ষ্টেট মহিলা আওয়ামী লীগের কেয়া,খুরশিদা আক্তার।ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক তপস নন্দী বাংলাদেশে সফররত থাকায়,উনি উপস্হিত ছিলেন না।

সার্বিক দায়িত্বে ছিলেন সিটি আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব মাহাতাবউদ্দিন টিপু।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

লস এন্জেসে কথাসাহিত্যিক শওকত আলীর স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০২-০৬ ১২:০৭:৪৪

এক ভাব গম্ভীর্য পরিবেশে লস এন্জেসের সাহিত্য প্রেমীরা স্মরন করলো সদ্য প্রয়াত নিভৃতচারী, বাংলাদেশের অন্যতম কথাসাহিত্যিক শওকত আলীর। অজানা অনেক তথ্য সমৃদ্ধ জ্ঞানগর্ভ আলোচনা ও স্মরনে উপকৃত হলো এন্জোলিনোর বাংলা ভাষাভাষী সাহিত্যনুরাগীরা। আর এ স্মরন সভার আয়োজনকারী নতুন সংগঠন 'ক্রান্তি' নতুন এক ধারার অগ্রনী ভুমিকা পালন করে সাহিত্যনুরাগীদের কাছে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হলো।

গত শনিবার ৩রা ফেব্রুয়ারী ২০১৮ 'ক্রান্তি:সেন্টার ফর বাংলাদেশ ডায়ালক,ইউ এস এ' র আয়োজনে লস এন্জেলেসের 'লেমন গ্রোব রিকক্রিয়েশন সেন্টার'এ স্মরন সভার পাশাপাশি উনার 'গ্রন্থ প্রদশর্নীর' আয়োজন আরেকটি উল্লেখযোগ্য দিক,যা সত্যি বিরল এবং নতুন সংযোজন।

এক মিনিট নীরবতা পালনের মধ্য দিয়ে স্মরন সভার শুরু হয়। সূচনা বক্তব্যের মধ্য দিয়ে  স্মরন সভার শুরু হয়। সূচনা বক্তব্য রাখেন ক্রান্তির সভাপতি বীর মুক্তিযাদ্ধা শ্রদ্ধেয় জনাব মুজিবর রহমান খোকা।

তৃষা ভাওয়াল সদ্য প্রয়াত কথা সাহিত্যিক শওকত আলীর সংক্ষিপ্ত জীবনী নিয়ে আলোকপাত করেন,উপস্হিত সুধীজন পিনপতন নিস্তব্ধতার মাঝে খুঁজে পান নতুন করে সদ্য হারানো এই কথা সাহিত্যিককে। যা কোনদিনই পূরন হবার জন্য। উনি যুগের পর যুগ বেঁচে থাকবেন পাঠকের মাঝে।

'প্রদোষে প্রাকৃতজন' উপন্যাস নিয়ে তরুন কথা সাহিত্যিক স্বকৃত নোমানের 'ইতিহাসের সংগে কল্পনার সংযোগ' শিরোনামে একটি লেখা তার অনুমতি নিয়ে পড়ে শোনানো হয়। পড়ে শোনান ক্রান্তির নির্বাহী পরিচালক শীলা মুস্তাফা।

শওকত আলীকে নিয়ে স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন ক্রান্তির পরিচালক শামীম রেজা। জনাব সামছুল ইসলাম 'ওয়ারিশ' উপন্যাস নিয়ে আলোচনা করেন,যা সদ্য প্রয়াত শওকত আলীর অনবদ্য সৃষ্টি। হাসিনা বানু কবিতা আবৃত্তি করেন,উনাকে স্মরন করে।

শওকত আলীর 'দক্ষিনায়নের দিন' উপন্যাস নিয়ে বাংলাদেশের নতুন প্রজন্মের কথা সাহিত্যিক ইমতিয়াজ শামীমের 'এইখানে প্রকৃত মানুষ' শিরোনামে একটি লেখা,উনার অনুমতি সাপেক্ষে পাঠ করা হয়। পাঠ করে শোনান বীর মুক্তিযাদ্ধা,সংগঠনটির সভাপতি জনাব মুজিবর রহমান খোকা।

শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন ক্রান্তির সহ-সভাপতি জনাব মোবারক হোসেন।

'লড়াই' উপন্যাস নিয়ে আলোচনা করেন ক্রান্তির অর্থ বিষয়ক পরিচালক জনাব জাহাংগীর বিশ্বাস।

স্মরন সভায় সুধীজনদের আসবার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে ক্রান্তির সাংগঠনিক পরিচালক জনাব সিদ্দিকুর রহমান স্মরন সভাটির সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেসে সড়ক দুর্ঘটনায় এক বাংলাদেশীর মর্মান্তিক মৃত্যু!

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-২৩ ১৮:৩৩:১৭

ক্যালিফোর্নিয়ায় লস এঞ্জেলেসে সড়ক দুর্ঘটনায় এক বাংলাদেশী মর্মান্তিক ভাবে নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম আবুল কালাম আজাদ (৫৫)।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সময় রোববার (২১ জানুয়ারি) রাত সাড়ে আটটার দিকে ক্যালিফোর্নিয়ার অরেঞ্জ কাউন্টির ওয়েস্ট মিনিস্টার এলাকার ৪০৫ নং ফ্রিওয়ে সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।পেশায় ট্যাক্সিচালক আজাদ তার যাত্রীবিহীন ট্যাক্সির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে আঘাত হানে। এতে তার ট্যাক্সিটি দুমরে মুচরে যায় এবং ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

আবুল কালাম আজাদ ১৯৮৯ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া স্টেটের লস এঞ্জেলেসে বসবাস করে আসছিলেন। লস অ্যাঞ্জেলেসে স্ত্রী তামান্না রিমি, দুই ছেলে আজাদ অন্তু (২১) ও আবু আজাদ সন্তু (১৭)
নামে দুই ছেলে রয়েছে। নিহত আজাদের দেশের বাড়ি জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার পলাশতলা গ্রামে। গ্রামের বাড়িতেও তার দ্বিতীয় স্ত্রী ও দুই ছেলে রয়েছে।

ইউনাইটেড ট্যাক্সি কোম্পানির পক্ষ থেকে পরিচালনা পর্ষদের সদস্য শামসুল আরেফিন হাসিব, কমিউনিটি নেতা আব্দুল মান্নান, মো: শাহ জালাল সহ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ নিহতের বাসায় গিয়ে শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের স্বান্তনা ও সমবেদনা জানিয়েছেন। আজাদের মরদেহ দেশে পাঠানো হবে বলে পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে।

বিস্তারিত খবর

নির্বাচনী ইশতেহার লঙ্ঘন করে লস এঞ্জেলেসে প্রেসক্লাব নির্বাচন

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-২৩ ০১:৪৭:৩৯

লস এঞ্জেলেসে লিটল বাংলাদেশ প্রেসক্লাব নির্বাচন নিয়ে প্রবাসী কমিউনিটিতে অসন্তোষ ও বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, গত রবিবার বিকেলে স্থানীয় আপন বাজার মিলনায়তনে নবগঠিত লিটল বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষ্যে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন নিয়ে মিটিংয়ে হঠাৎ করে ভোট গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তৎক্ষণাৎ ভোট গ্রহণ শেষে কমিটিও ঘোষণা করা হয়। কিন্তু এই কমিটি গঠন নিয়ে সচেতন মহলে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, ব্যক্তি বিশেষের স্বার্থসিদ্ধির লক্ষ্যে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে এই কমিটি গঠিত হয়েছে।

অভিযোগে জানা যায়, লস এঞ্জেলেসে দীর্ঘদিন ধরে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি বসবাস করে আসছেন। এখানে অনেক বাংলা ভাষাভাষি মিডিয়া এবং দেশের বিভিন্ন মিডিয়ার প্রতিনিধিসহ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সাংবাদিক রয়েছেন। কিন্তু  এতদিন কমিউনিটিতে কেনো প্রেসক্লাব গড়ে উঠেনি। প্রবাসীরা প্রয়োজনে কোনো সংবাদ সম্মেলন করতে চাইলে কোনো প্লাটফর্ম ছিলো না। তাই একটি প্রেসক্লাবের খুবই প্রয়োজন ছিলো কমিউনিটির। সম্প্রতি প্রিন্ট, অনলাইন ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে একটি প্রেসক্লাব গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এ উদ্দেশ্যে একটি আহ্বায়ক কমিটিও গঠিত হয়। তাদের মাধ্যমে একটি নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়।

উক্ত কমিশন পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষ্যে গত ১০ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করে।  এতে বলা হয়-  ১৭ ডিসেম্বর-৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত ভোট সংক্রান্ত কারণে সদস্য পদ গ্রহণ করা হবে। চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে ৭ জানুয়ারি ২০১৮। মনোনয়নপত্র বিতরণ ৭ জানুয়ারি-১৪ জানুয়ারি ২০১৮। মনোনয়নপত্র দাখিল ২১ জানুয়ারি। মনোনয়ন প্রত্যাহার ২৮ জানুয়ারি। চূড়ান্ত প্রার্থীর তালিকা ঘোষণা করা হবে ৩১ জানুয়ারি ২০১৮। এবং ৪ ফেব্রুয়ারি রবিবার দুপুর ১২টা-বিকেল ৪টা পর্যন্ত নির্বাচনে ভোট গ্রহণের কথা ছিলো।  

কিন্তু গত রবিবার অনুষ্ঠিত মিটিংয়ে এই ইশতেহারের কিছুই মানা হয়নি। আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের কথা থাকলেও হঠাৎ মিটিং ডেকে উপস্থিতিদের নিয়ে ভোট গ্রহণ করা হয়। মিটিং সূত্রে জানা যায়, ইতোমধ্যে মাত্র ৪ জন সাংবাদিক সদস্যপদ গ্রহণ করেছেন। কিন্তু ভোট প্রদান করেন ১২ জন। নির্বাচন কমিশনের শর্ত অনুযায়ী সদস্য ফরম নিয়ে সদস্য হওয়ার কথা থাকলেও ৪ জনের বেশি তা করেননি। এছাড়া উপস্থিত অন্যদের মধ্যে অনেকেই ভিজিটর ছিলেন। তারাও ভোট দেন। এজন্য কমিউনিটিতে এই নির্বাচন নিয়ে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

প্রবাসীরা বলছেন, যেখানে সৃজশীলতার চর্চা হওয়ার কথা, প্রেসক্লাবের মতো সংগঠনে এরকম একটি নির্বাচন অগ্রহণযোগ্য।

নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কেউ কেউ বলছেন, ব্যক্তি বিশেষের স্বার্থে একরকম একটি ঘটনার সৃষ্টি হয়েছে। যেখানে সুষ্ঠু একটি নির্বাচনের লক্ষ্যে পূর্ণ ইশতেহার শিডিউল করা ছিলো সেখানে হঠাৎ করে এরকম কমিটি গঠন কোনোভাবেই কাম্য নয়। এটি নিছক লোক দেখানো নির্বাচন। এরকম হলে তারা নির্বাচন না দিলেও পারতেন।

কমিটি গঠনের পর বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত সংবাদকে বানোয়াট বলে আখ্যায়িত করেছেন প্রেসক্লাব সংশ্লিষ্ট অনেকে। তারা বলছেন, মানুষকে মিটিংয়ের কথা বলে ডেকে এনে হঠাৎ করে ভোট আয়োজন কোনো নির্বাচন হতে পারে না। উপস্থিত অনেকে কিছু বুঝে উঠার আগেই তারা এই কাজ সম্পন্ন করে।

অনেক খ্যাতনামা মিডিয়া ব্যক্তিত্ব এই ঘটনার পর লিটল বাংলাদেশ প্রেসক্লাব থেকে নিজেদের সরিয়ে নিয়েছেন।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেসে পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৮ ১৬:১৩:০৩

লস এঞ্জেলেসে বেঙ্গলি আমেরিকান হিন্দু সোসাইটির উদ্যোগে প্রথমবারের মতো পৌষ সংক্রান্তি পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত রবিবার দুপুর ১২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভেননাইস সিটির উডলি পার্কে এই উৎসবে নারী-পুরুষ, শিশুসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রবাসীরা অংশ নেন।

প্রবাসী মহিলারা নানা ধরণের পিঠা নিয়ে উৎসবে অংশ গ্রহণ করেন। পরে সবার মধ্যে ফ্রি পিঠা পরিবেশন করা হয়।


উৎসবের মূল উদ্যোক্তা ছিলেন সুখেন্দ্র পাল ও রত্না পাল। সহযোগিতায় ছিলেন ওমর হালদার ও পঙ্কজ দাস।

অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট আইনজীবি এমি ঘোষ। পরিচালনা করেন লস এঞ্জেলেসের জনপ্রিয় উপস্থাপক মিঠুন চৌধুরী।
 

দেশি বিভিন্ন স্বাদের পিঠা নিয়ে উৎসবে অংশগ্রহণ করেন লায়লা, রত্না, জয়া সরকার, শান্তনা, বিলকিস, চামেলী ও রিনা প্রমুখ।

আয়োজকরা জানান, আগামী বছর আরও পরিসরে এই উৎসব আয়োজন করা হবে।


উৎসবের শেষের দিকে খেলাধুলা ও আনন্দ আয়োজন করা হয়। এতে পুরুষ, মহিলা ও শিশুদের জন্য পৃথক খেলা অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কারও বিতরণ করেন আয়োজকরা। সবার জন্য ডিনারের ব্যবস্থাও ছিল পিঠা উৎসেবে।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বাংলাদেশ ডে প্যারেড উপলক্ষে বাফলার ফান্ড রাইজিং অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৮ ১৫:৪৪:১৮

প্রতিবারের ন্যায় এবারও বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে লস এঞ্জেলেসে আগামী ৩১ মার্চ শনিবার ১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড এন্ড ফেস্টিভ্যাল আয়োজন করেছে ‘বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অব লস এঞ্জেলেস-বাফলা’। এ উপলক্ষে গত রবিবার স্থানীয় গার্ডেন সুইট হোটেলের বলরুমে ফান্ড রাইজিং ডিনার অনুষ্ঠিত হয়। 

এতে বাফলা’র এক্সিকিউটিভ কমিটি, এডভাইজারি বোর্ড, বোর্ড অব ট্রাস্টি এবং বাফলার বিভিন্ন সদস্য সংগঠনসহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসী অংশ নেন। লম্বা উইকএন্ড থাকায় প্রচুর প্রবাসীদের উপস্থিত হন ফান্ড রাইজিং ডিনারে।

অনুষ্ঠানে প্যারেডের জন্য ৩৫ হাজার ডলার সংগৃহিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাফলা কর্তৃপক্ষ।

বিকেল ৫টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানের সূচনা হয় বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত এবং বাফলা সংগীতের মাধ্যমে। প্রথম পর্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাফলা সভাপতি নজরুল আলম। এসময় তিনি বাফলার ক্যাবিনেট মেম্বারদের মঞ্চে ডেকে সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেন।

বক্তব্যের শুরুতে তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের সকল শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। ফান্ড রাইজিং ডিনারে অংশ নেওয়ার জন্য উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা এই দিবসের প্যারেড হচ্ছে প্রবাসে আমাদের জাতীয় গর্বের বিষয়। লস এঞ্জেলেসের মতো সিটির প্রধান সড়কে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উড়িয়ে কর্মসূচি পালন নিশ্চয়ই কম বড় ব্যাপার নয়। এই আয়োজন করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত।

এসময় তিনি প্যারেডে অংশগ্রহণের জন্য সকল প্রবাসীদের আহ্বান জানান এবং সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সহযোগিতার অনুরোধ করেন।

২য় পর্বে বাফলার এক্সিকিউটিভ কমিউনিটির সদস্যদের এক এক করে মঞ্চে আসন গ্রহণ করে সবাই নিজ নিজ অনুদান প্রদান করেন। এরপর যথারীতি বিভিন্ন সংগঠন, ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বাফলার ফান্ডে অনুদান জমা হয়।

বাফলা ক্যাবিনেটের পক্ষ থেকে প্যারেডের ফান্ডে ১০ হাজার ডলার প্রদান করা হয়।

বিভিন্ন সংগঠনের অনুদান প্রদানের সময় ব্যারোমিটারের মাধ্যমে সবার অনুদানের পরিমাণ স্ক্রিনে প্রদর্শন করা হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন তরঙ্গ অব ক্যালিফোর্নিয়ার  প্রেসিডেন্ট শিপার চৌধুরী, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব ক্যালিফোর্নিয়া’র প্রেসিডেন্ট আনওয়ার হোসেন রানা, বিএনপির (একাংশ) সেক্রেটারি বদরুল চৌধুরী শিপলু, উত্তরণের প্রতিষ্ঠাতা ডা. আবুল হাসেম, আমেরিকান এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার এন্ড আর্কিটেক্ট (অ্যাবে)-এর প্রেসিডেন্ট সাইফুল হক, মুসলিম উম্মাহ অব নর্থ আমেরিকা (মুনা)-এর প্রেসিডেন্ট আকবর আশরাফ,  গ্রেটার ফরিদপুরের সেন্টু হক ও চিটাগাং ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের ইলিয়াস টাইগার প্রমুখ।

সবশেষে অতিথিদের জন্য ডিনার এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিল। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মিতালী কাজল, রেহানা মল্লিক, উপমা সাহা, বাফলার সেক্রেটারি শহিদ আলম। কবিতা আবৃত্তি করেন রশনী আলম। ডান্স পরিবেশন করেন নতুন প্রজন্মের শিল্পী শিমরিন।

ফান্ড রাইজিং ডিনারের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ক্যাবিনেটের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোর্শেদুল ইসলাম। পরিচালনা করেন বাফলার সেক্রেটারি শহিদ আলম ও কালচারাল সেক্রেটারি আন্জুমান আরা শিউলি।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ট্রাম্পের 'ফেক নিউজ অ্যাওয়ার্ড' ঘোষণা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৮ ১২:২২:৩৩

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথম সারির কয়েকটি মার্কিন সংবাদমাধ্যমকে ‘সবচেয়ে অসৎ এবং ভুয়া সংবাদমাধ্যম’ হিসেবে আখ্যায়িত করে ‘ফেক নিউজ অ্যাওয়ার্ড’ ২০১৭ ঘোষণা করেছেন ।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বুধবার টুইটারে ‘ফেক নিউজ অ্যাওয়ার্ড’ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন। নিজ দল রিপাবলিকান পার্টির ওয়েবসাইটে তিনি ১১ বিজয়ীর একটি তালিকাও দিয়েছেন । সেই ওয়েবসাইটের লিংক ট্রাম্প তার টুইটেও দিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের মূল ধারার সংবাদমাধ্যমগুলোর সমালোচনা করে আসা ট্রাম্প গত ৩ জানুয়ারিতে তার ভাষায় ‘ফেক’ সংবাদমাধ্যমগুলোকে আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কৃত করার ঘোষণা দিয়েছিলেন। সে অনুযায়ী বুধবার রাতে তিনি এ পুরস্কার বিজীয়দের নাম ঘোষণা করলেন।

ট্রাম্পের ঘোষণা অনুযায়ী প্রথম পুরস্কার পেয়েছে অন্যতম প্রভাবশালী সংবাদপত্র ‘দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস’। আর এতে নিয়মিত কলাম লেখক ও  অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার জয়ী পল ক্রুগমানকেও শীর্ষে রেখেছেন তিনি। তালিকার ১০ম স্থানেও নিউ ইয়র্ক টাইমস পত্রিকার নাম রয়েছে।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছে এবিসি নিউজ। এছাড়া তৃতীয়, ষষ্ঠ, সপ্তম ও নবম স্থানে রয়েছে  সিএনএনের নাম। অর্থাৎ ১১ টির মধ্যে চারটি পুরস্কারই পেয়েছে এই সংবাদমাধ্যম। তালিকায় চতুর্থ স্থানে টাইম ম্যাগাজিন, পঞ্চম ওয়াশিংটন পোস্ট ও অষ্টম স্থানে নিউজ উইকের নাম রয়েছে।

১১তম বিজয়ী হিসেবে কোনো নাম উল্লেখ না করে বলা হয়েছে ‘রাশিয়া কলিউশন’। অর্থাৎ ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনী প্রচারে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ বা জড়িত থাকার বিষয়ে প্রকাশিত সংবাদসমূহের কথা বলা হয়েছে।

এই রুশ হস্তক্ষেপের বিষয় নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে তোলপাড় চলেছে। এ নিয়ে ট্রাম্পের ব্যাপক সমালোচনা হয় এবং এজন্য ট্রাম্প তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতি। এটিকে কেন্দ্র করে হোয়াইট হাউসের চিফ স্ট্র্যাটেজিস্টের পদ থেকে বিদায় নিতে হয় স্টিভ ব্যাননকে।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের কর্মী সভা অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৮ ১২:১৯:২৬

গত ১৪ই জানুয়ারী রবিবার সন্ধ্যায় ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগ, সিটি যুবলীগ এবং ভ্যালী যুবলীগ লস-এন্জেলেসের সুনামধন্য আলাউদ্দিন রেষ্টুরেন্টে আয়োজন করে বিশেষ কর্মী সভার। কর্মী সভায় উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের সুবর্ন নন্দী তাপস, খন্দকার ইমতিয়াজ আহমেদ ইমু, তৌহিদুজ্জামান খান, ফারুক খান, সাইফুল আলম চৌধুরী, শেখ পলাশ , শচীন মজুমদার, হাবিবুর রহমান (ইমরান),আলমগীর হোসেন, রনি খান, বাবু ভুঁইয়ান, মো বাবুল শিকদার, মুহাম্মদ ইলিয়াস শিকদার, মোনামি শামস খান, শায়লা রুমী সহ আরও অনেকে। আয়োজিত এই কর্মী সভার প্রধান অতিথি হয়ে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ঘনিষ্ট রাজনৈতিক সহচর এবং সহকর্মী শরীয়তপুরের কৃতি সন্তান মরহুম এডভোকেট আবিদুর রেজা খানের পুত্র দীর্ঘদিন যাবত লস-এন্জেলেস প্রবাসী জনাব হাসান রেজা খান।

ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার আহমেদের সঞ্চালনে শুরুতেই প্রানবন্ত বক্তব্য রাখেন ভ্যালী আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক জনাব ইমরান আহমেদ, এরপর বক্তব্য রাখেন সিটি আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক জনাব আলমগীর হোসেন, স্বল্পদীর্ঘ বক্তৃতায় উনি দেশের উন্নয়নের কথা উল্লেখ করেন। ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব সাইফুল আলম চৌধুরীও উনার মূল্যবান বক্তৃতা প্রদান করেন।এই কর্মী সভায় আমন্ত্রণ গ্রহন করে আসবার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান। আরো যারা তাদের মূল্যবান বক্তব্য দিয়েছেন তারা হলেন ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের উপদেষ্টা জনাব তৌহিদউজ্জামান খান, ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের উপদেষ্টা, ষ্টেট আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সাধারন সম্পাদক জনাব ফারুক খান। উপস্হিত সুধীজনের মধ্য থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন টরেন্স সিটি থেকে আগত জনাব শাহীন।

সভার প্রধান বক্তা ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব শেখ পলাশ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে স্বাধীনতা যুদ্ধে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্তী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধীর আবদানের কথা যুবলীগ নেতাকর্মীদের মনে করিয়ে দেন। অধীর আগ্রহে অপেক্ষার পর গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতিচারন বক্তব্য দেন সবার বয়োজেষ্ঠ, বঙ্গবন্ধুর এবং মরহুম আবিদুর রেজা খানের রাজনৈতিক সহচর শরিয়তপুরের শ্রী রামনাথ নন্দী। উনি আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান প্রয়াত নেতা আবদুর রাজ্জাকের সাথে রাজনীতি করবার বিরল স্মৃতির কথা আবেগময় ভাষায় বর্ননা করেন। স্বাধীনতা পূর্ব এবং মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পরিস্তিতির কথা উল্লেখ করে, সেইসব দিনগুলির ঐক্যের মত যুবলীগের সবাইকে নতুন করে ঐক্যবদ্ধ হবার উদ্দাত্ত আহ্বান জানিয়ে উনি উনার মূল্যবান বক্তব্য শেষ করেন।

প্রধান অতিথি জনাব হাসান রেজা খান ক্যালিফোর্নিয়াতে আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনগুলোকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবার আহবান জানান, উনি বলেন 'বিভাজন প্রতিপক্ষকে শক্তিশালী হতে সাহায্য করে',তাই তিনি মনে করে নির্বাচনী বৈতরনী পার করতে হলে ঐক্যের কোন বিকল্প নেই। উনার বাবা আগরতলা মামলায় বঙ্গবন্ধুর আইনজীবি হয়ে মামলা লড়েছেন বলে সবাইকে অবহিত করেন। স্বাধীনতা পরবর্তী ধ্বংসস্তুপ থেকে দেশকে বঙ্গবন্ধু কিভাবে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন তার বর্ননা দেন। যার ধারাবাহিকতায় দেশ আজ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে তা তিনি উল্লেখ করেন। এ কর্মী সভায় সব নেতা কর্মীরা সামনের ২০১৮ সনের নির্বাচনের উপর গুরুত্ব আরোপ করে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবার আহ্বান জানায়। কর্মীসভার সভাপতি ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট যুবলীগের আহ্বায়ক সূবর্ন নন্দী তাপস এর শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ বক্তৃতার মধ্য দিয়ে রাত অব্দী চলা সভাটির পরিসমাপ্তি ঘটে নৈশভোজের মধ্য দিয়ে।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মোস্তাফিজুর রহমান বাবুলের সাথে ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির মতবিনিময়

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১২ ১২:৫০:২৬

গত ৬ই জানুয়ারী সন্ধ্যায় হলিউডের স্টার অব ইন্ডিয়া রেস্টুরেন্টে ৯০ এর ছাত্র-গণ আন্দোলনের সংগ্রামী ছাত্রনেতা ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ সম্পাদক জনাব মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন। এ সময় তিনি বলেন, ৫ই জানুয়ারীর হঠকারিতার মধ্য দিয়ে এ অনির্বাচিত সরকার দেশ থেকে গণতন্ত্র ও নির্বাচনকে নির্বাসনে পাঠিয়েছে। এর পর থেকে দেশে একটিও সত্যিকার নির্বাচন হয়নি। এ সরকারের অধীনে কোন সুষ্ঠু নির্বাচন কথা জনগণ বিশ্বাস করে না। জনগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের ও তার প্রতিফলনের নিশ্চয়তা চায়। তাই জনগণকে সাথে নিয়ে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের পরিবেশ তৈরী করে বি এন পি'কে নির্বাচনে যেতে হবে। তার মধ্য দিয়ে দেশে গণতন্ত্র ও জনগণের সরকারের কাছে ক্ষমতা ফিরিয়ে আনা সম্ভব। সরকারকে সেই দাবি মানতে বাধ্য করতে প্রয়োজন ১৯৯০ সালের মত দুর্বার আন্দোলন। গণতন্ত্রমনা সকল দল ও কর্মী, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, আইনজীবী, শিক্ষক-কর্মকর্তা সকলকে নিয়ে ৯০ এর মত রাজপথে দুর্বার গণতান্ত্রিক আন্দোলনের বিকল্প নেই। তিনি এ সময় ৯০এর আন্দোলনের বিভিন্ন প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন। তিনি দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতির অতীত বর্তমান তুলে ধরে বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় এই প্রবাস থেকেই প্রবাসীদের ভূমিকা রাখার আহবান জানান।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল জাতীয় নির্বাহী কমিটির পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সহ সম্পাদক জনাব মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি সাংগঠনিক বিষয়ে জানতে আগ্রহ প্রকাশ করলে দলের সহ সভাপতি জনাব অপু সাজ্জাদ ১৯৯০ সালে ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি গঠনের প্রেক্ষ্যাপট ও পরবর্তী কার্যক্রম তুলে ধরেন। দলের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক নিয়াজ মোহাইমেন ২০১২ সালে সম্মেলনের সাংগঠনিক কার্যক্রম থেকে শুরু করে ২০১৭ সালের কর্মী সম্মেলনের মধ্য দিয়ে বর্তমান কমিটি গঠনের প্রয়োজনীয়তা ও প্রেক্ষ্যাপট তুলে ধরেন। কমিটির মেয়াদের পর ক্ষমতা কুক্ষিগত না রেখে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সকলের অংশ গ্রহণের সুযোগ রেখে ঐক্যবদ্ধভাবে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনার উপর জোর দেওয়া হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্নিয়া শাখার সভাপতি সামসুজ্জোহা বাবলু, সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমান, সহ সভাপতি নিয়াজ মোহাইমেন, জুনেল আহমেদ, আফজাল হোসেন শিকদার, অপু সাজ্জাদ, যুগ্ম সম্পাদক মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান জুয়েল,যুব বিষয়ক সম্পাদক: কোহিনুর রহমান প্রমুখ। ৯০ এর ছাত্র-গণ আন্দোলনের সংগ্রামী ছাত্রনেতা ও বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব ক্যালিফোর্নিয়ার সভাপতি জনাব শামসুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি নেতৃবৃন্দ ৫ই জানুয়ারি গনতন্ত্র হত্যা দিবসে এক বিবৃতিতে, একটি অনির্বাচিত সরকারকে এভাবে দীর্ঘদিন ক্ষমতা টেনে নেওয়াকে দেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান সমূহের উপর চরম হুমকি দাবি করে অবিলম্বে পদত্যাগ করে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন- বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্নিয়া শাখার সভাপতি শামসুজ্জোহা বাবলু, সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমান, সহসভাপতি নিয়াজ মোহাইমেন, সাইফুল আনসারী চপল, আহসান হাফিজ রুমি, জুনেল আহমেদ, নুরুল ইসলাম, সবুর খান মামুন, মার্শাল হক, আফজাল হোসেন শিকদার, হাসানুজ্জামান মিজান, মিশর নুন, অপু সাজ্জাদ, শওকত হোসেন আনজিন, মোহাম্মদ মঞ্জু, আবুল হাসনাত মন্টু চৌধুরী, ইলিয়াস শিকদার, আমজাদ হোসেন, মোঃ রফিক, মেহেদী হাসান, আশরাফুল আলম হেলাল, এলেন ইলিয়াস খান, বাদল খান, মোহাম্মদ সেলিম রেজা পিন্টু, যুগ্ম সম্পাদক: ফারুক হাওলাদার, রনি জামান, মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান জুয়েল, আলমগীর হোসেন, আসাদুজ্জামান রাজু, দেলোয়ার চৌধুরী, সহ সাধারণ সম্পাদক: খন্দকার জাভেদ, হোসেন লিটু, শেখ সেলিম, হেলাল আহমেদ ভূইয়াঁ, মোহাম্মদ শাহানুর, মোহাম্মদ ফরিদ আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক: শাহাদাত হোসেন শাহীন, লোকমান হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক: নয়ন বড়ুয়া, দপ্তর সম্পাদক: আবু তাহের সাজু, সহ দপ্তর সম্পাদক: মোশাররফ হোসেন ইমন, কোষাধক্ষ্: মোঃ আব্দুল মান্নান, সহ কোষাধক্ষ্: আক্তার মাতুব্বর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: মোঃ শফিকুল ইসলাম পলাশ, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: আবুল কায়সার, তত্ব ও প্রযুক্তি সম্পাদক: শাহ নেওয়াজ, সহ তত্ব ও প্রযুক্তি সম্পাদক: এ কে এম আসিফ, ক্রীড়া সম্পাদক: ইফতেখার হোসেন ফাহিম, যুব বিষয়ক সম্পাদক: কোহিনুর রহমান,  স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক: মেহেদী হাসান, শিক্ষা সম্পাদক: সাঈদ খান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক: হাফেজ মোহাম্মদ বেলাল, সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক: মাহতাব কবির ভূঁইয়া, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক: মোঃ মিজানুর রহমান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক: শাহনাজ বুলবুল, সহ সাংস্কৃতিক সম্পাদক: সোহেল মিয়া, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক:ফেরদৌস কবির সুজন, সহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক: রাজু ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা: ফরিদা বেগম, সহ মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা: মনিরা মিজান, আইন বিষয়ক সম্পাদক: ওমর ফারুক,  সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক: সারোয়ার সুমন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদকঃ আবুল খায়ের, সহ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদকঃ ইয়াসির আরাফাত মুন্না, সমাজ কল্যাণ সম্পাদকঃ মোঃ খসরু রানা, সহ সমাজ কল্যাণ সম্পাদকঃ তানভীর আহমেদ প্রমুখ।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত