যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ২০ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 10:51am

|   লন্ডন - 04:51am

|   নিউইয়র্ক - 11:51pm

  সর্বশেষ :

  বাংলাদেশ স্পোর্টস কাউন্সিল অব আমেরিকা’র কমিটি ঘোষণা   রোহিঙ্গা সংকট দ্রুতগতিতে বাড়ছে, জরুরি সহায়তা প্রয়োজন : বিশ্বব্যাংক   ভেরিফিকেশনে গিয়ে ফুল-মিষ্টি দিয়ে পুলিশ সুপারের শুভেচ্ছা!   দেশের রেডিওতে শুদ্ধ বাংলা ব্যবহারের নির্দেশ   দ্বিতীয় মেয়াদেও প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী হবেন সিসি   ভুয়া খবরের প্রচার ঠেকাতে ‘বিশ্বস্ত সংবাদমাধ্যম’র র‍্যাংকিং করবে ফেসবুক   কঙ্গোতে বিদ্রোহীদের হামলায় ২২ সেনা নিহত   যুক্তরাষ্ট্রে সরকার ব্যবস্থায় অচলাবস্থা, নেপথ্য কারণ   টাওয়ার হ্যামলেটসকে ‘ট্রাম্পমুক্ত এলাকা’ ঘোষণা : নেতৃত্বে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কাউন্সিলর   সিলেটে অর্থমন্ত্রীর গাড়ির ধাক্কায় ১০ জন আহত   নাইজেরিয়ায় আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ১২   জাতিসংঘের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ   রাজশাহীতে প্রথম ফ্লাইওভার নির্মাণের সিদ্ধান্ত   তহবিল সংকটের কারণে ফের শাটডাউনের শঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্র   ফিলিস্তিনকে সাড়ে ৪ কোটি ডলার খাদ্য সহায়তা দেবে না যুক্তরাষ্ট্র

>>  লস এঞ্জেলেস এর সকল সংবাদ

লস এঞ্জেলেসে পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত

লস এঞ্জেলেসে বেঙ্গলি আমেরিকান হিন্দু সোসাইটির উদ্যোগে প্রথমবারের মতো পৌষ সংক্রান্তি পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত রবিবার দুপুর ১২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভেননাইস সিটির উডলি পার্কে এই উৎসবে নারী-পুরুষ, শিশুসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রবাসীরা অংশ নেন।

প্রবাসী মহিলারা নানা ধরণের পিঠা নিয়ে উৎসবে অংশ গ্রহণ করেন। পরে সবার মধ্যে ফ্রি পিঠা পরিবেশন করা হয়।

বিস্তারিত খবর

বাংলাদেশ ডে প্যারেড উপলক্ষে বাফলার ফান্ড রাইজিং অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৮ ১৫:৪৪:১৮

প্রতিবারের ন্যায় এবারও বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে লস এঞ্জেলেসে আগামী ৩১ মার্চ শনিবার ১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড এন্ড ফেস্টিভ্যাল আয়োজন করেছে ‘বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অব লস এঞ্জেলেস-বাফলা’। এ উপলক্ষে গত রবিবার স্থানীয় গার্ডেন সুইট হোটেলের বলরুমে ফান্ড রাইজিং ডিনার অনুষ্ঠিত হয়। 

এতে বাফলা’র এক্সিকিউটিভ কমিটি, এডভাইজারি বোর্ড, বোর্ড অব ট্রাস্টি এবং বাফলার বিভিন্ন সদস্য সংগঠনসহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসী অংশ নেন। লম্বা উইকএন্ড থাকায় প্রচুর প্রবাসীদের উপস্থিত হন ফান্ড রাইজিং ডিনারে।

অনুষ্ঠানে প্যারেডের জন্য ৩৫ হাজার ডলার সংগৃহিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাফলা কর্তৃপক্ষ।

বিকেল ৫টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানের সূচনা হয় বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সংগীত এবং বাফলা সংগীতের মাধ্যমে। প্রথম পর্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাফলা সভাপতি নজরুল আলম। এসময় তিনি বাফলার ক্যাবিনেট মেম্বারদের মঞ্চে ডেকে সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেন।

বক্তব্যের শুরুতে তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের সকল শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। ফান্ড রাইজিং ডিনারে অংশ নেওয়ার জন্য উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা এই দিবসের প্যারেড হচ্ছে প্রবাসে আমাদের জাতীয় গর্বের বিষয়। লস এঞ্জেলেসের মতো সিটির প্রধান সড়কে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উড়িয়ে কর্মসূচি পালন নিশ্চয়ই কম বড় ব্যাপার নয়। এই আয়োজন করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত।

এসময় তিনি প্যারেডে অংশগ্রহণের জন্য সকল প্রবাসীদের আহ্বান জানান এবং সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সহযোগিতার অনুরোধ করেন।

২য় পর্বে বাফলার এক্সিকিউটিভ কমিউনিটির সদস্যদের এক এক করে মঞ্চে আসন গ্রহণ করে সবাই নিজ নিজ অনুদান প্রদান করেন। এরপর যথারীতি বিভিন্ন সংগঠন, ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বাফলার ফান্ডে অনুদান জমা হয়।

বাফলা ক্যাবিনেটের পক্ষ থেকে প্যারেডের ফান্ডে ১০ হাজার ডলার প্রদান করা হয়।

বিভিন্ন সংগঠনের অনুদান প্রদানের সময় ব্যারোমিটারের মাধ্যমে সবার অনুদানের পরিমাণ স্ক্রিনে প্রদর্শন করা হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন তরঙ্গ অব ক্যালিফোর্নিয়ার  প্রেসিডেন্ট শিপার চৌধুরী, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব ক্যালিফোর্নিয়া’র প্রেসিডেন্ট আনওয়ার হোসেন রানা, বিএনপির (একাংশ) সেক্রেটারি বদরুল চৌধুরী শিপলু, উত্তরণের প্রতিষ্ঠাতা ডা. আবুল হাসেম, আমেরিকান এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার এন্ড আর্কিটেক্ট (অ্যাবে)-এর প্রেসিডেন্ট সাইফুল হক, মুসলিম উম্মাহ অব নর্থ আমেরিকা (মুনা)-এর প্রেসিডেন্ট আকবর আশরাফ,  গ্রেটার ফরিদপুরের সেন্টু হক ও চিটাগাং ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের ইলিয়াস টাইগার প্রমুখ।

সবশেষে অতিথিদের জন্য ডিনার এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিল। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মিতালী কাজল, রেহানা মল্লিক, উপমা সাহা, বাফলার সেক্রেটারি শহিদ আলম। কবিতা আবৃত্তি করেন রশনী আলম। ডান্স পরিবেশন করেন নতুন প্রজন্মের শিল্পী শিমরিন।

ফান্ড রাইজিং ডিনারের কো-অর্ডিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ক্যাবিনেটের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোর্শেদুল ইসলাম। পরিচালনা করেন বাফলার সেক্রেটারি শহিদ আলম ও কালচারাল সেক্রেটারি আন্জুমান আরা শিউলি।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ট্রাম্পের 'ফেক নিউজ অ্যাওয়ার্ড' ঘোষণা

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৮ ১২:২২:৩৩

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথম সারির কয়েকটি মার্কিন সংবাদমাধ্যমকে ‘সবচেয়ে অসৎ এবং ভুয়া সংবাদমাধ্যম’ হিসেবে আখ্যায়িত করে ‘ফেক নিউজ অ্যাওয়ার্ড’ ২০১৭ ঘোষণা করেছেন ।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বুধবার টুইটারে ‘ফেক নিউজ অ্যাওয়ার্ড’ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন। নিজ দল রিপাবলিকান পার্টির ওয়েবসাইটে তিনি ১১ বিজয়ীর একটি তালিকাও দিয়েছেন । সেই ওয়েবসাইটের লিংক ট্রাম্প তার টুইটেও দিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের মূল ধারার সংবাদমাধ্যমগুলোর সমালোচনা করে আসা ট্রাম্প গত ৩ জানুয়ারিতে তার ভাষায় ‘ফেক’ সংবাদমাধ্যমগুলোকে আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কৃত করার ঘোষণা দিয়েছিলেন। সে অনুযায়ী বুধবার রাতে তিনি এ পুরস্কার বিজীয়দের নাম ঘোষণা করলেন।

ট্রাম্পের ঘোষণা অনুযায়ী প্রথম পুরস্কার পেয়েছে অন্যতম প্রভাবশালী সংবাদপত্র ‘দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস’। আর এতে নিয়মিত কলাম লেখক ও  অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার জয়ী পল ক্রুগমানকেও শীর্ষে রেখেছেন তিনি। তালিকার ১০ম স্থানেও নিউ ইয়র্ক টাইমস পত্রিকার নাম রয়েছে।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছে এবিসি নিউজ। এছাড়া তৃতীয়, ষষ্ঠ, সপ্তম ও নবম স্থানে রয়েছে  সিএনএনের নাম। অর্থাৎ ১১ টির মধ্যে চারটি পুরস্কারই পেয়েছে এই সংবাদমাধ্যম। তালিকায় চতুর্থ স্থানে টাইম ম্যাগাজিন, পঞ্চম ওয়াশিংটন পোস্ট ও অষ্টম স্থানে নিউজ উইকের নাম রয়েছে।

১১তম বিজয়ী হিসেবে কোনো নাম উল্লেখ না করে বলা হয়েছে ‘রাশিয়া কলিউশন’। অর্থাৎ ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনী প্রচারে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ বা জড়িত থাকার বিষয়ে প্রকাশিত সংবাদসমূহের কথা বলা হয়েছে।

এই রুশ হস্তক্ষেপের বিষয় নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে তোলপাড় চলেছে। এ নিয়ে ট্রাম্পের ব্যাপক সমালোচনা হয় এবং এজন্য ট্রাম্প তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতি। এটিকে কেন্দ্র করে হোয়াইট হাউসের চিফ স্ট্র্যাটেজিস্টের পদ থেকে বিদায় নিতে হয় স্টিভ ব্যাননকে।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের কর্মী সভা অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১৮ ১২:১৯:২৬

গত ১৪ই জানুয়ারী রবিবার সন্ধ্যায় ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগ, সিটি যুবলীগ এবং ভ্যালী যুবলীগ লস-এন্জেলেসের সুনামধন্য আলাউদ্দিন রেষ্টুরেন্টে আয়োজন করে বিশেষ কর্মী সভার। কর্মী সভায় উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের সুবর্ন নন্দী তাপস, খন্দকার ইমতিয়াজ আহমেদ ইমু, তৌহিদুজ্জামান খান, ফারুক খান, সাইফুল আলম চৌধুরী, শেখ পলাশ , শচীন মজুমদার, হাবিবুর রহমান (ইমরান),আলমগীর হোসেন, রনি খান, বাবু ভুঁইয়ান, মো বাবুল শিকদার, মুহাম্মদ ইলিয়াস শিকদার, মোনামি শামস খান, শায়লা রুমী সহ আরও অনেকে। আয়োজিত এই কর্মী সভার প্রধান অতিথি হয়ে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ঘনিষ্ট রাজনৈতিক সহচর এবং সহকর্মী শরীয়তপুরের কৃতি সন্তান মরহুম এডভোকেট আবিদুর রেজা খানের পুত্র দীর্ঘদিন যাবত লস-এন্জেলেস প্রবাসী জনাব হাসান রেজা খান।

ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার আহমেদের সঞ্চালনে শুরুতেই প্রানবন্ত বক্তব্য রাখেন ভ্যালী আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক জনাব ইমরান আহমেদ, এরপর বক্তব্য রাখেন সিটি আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক জনাব আলমগীর হোসেন, স্বল্পদীর্ঘ বক্তৃতায় উনি দেশের উন্নয়নের কথা উল্লেখ করেন। ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব সাইফুল আলম চৌধুরীও উনার মূল্যবান বক্তৃতা প্রদান করেন।এই কর্মী সভায় আমন্ত্রণ গ্রহন করে আসবার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান। আরো যারা তাদের মূল্যবান বক্তব্য দিয়েছেন তারা হলেন ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের উপদেষ্টা জনাব তৌহিদউজ্জামান খান, ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের উপদেষ্টা, ষ্টেট আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সাধারন সম্পাদক জনাব ফারুক খান। উপস্হিত সুধীজনের মধ্য থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন টরেন্স সিটি থেকে আগত জনাব শাহীন।

সভার প্রধান বক্তা ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক জনাব শেখ পলাশ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে স্বাধীনতা যুদ্ধে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্তী শ্রীমতি ইন্দিরা গান্ধীর আবদানের কথা যুবলীগ নেতাকর্মীদের মনে করিয়ে দেন। অধীর আগ্রহে অপেক্ষার পর গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতিচারন বক্তব্য দেন সবার বয়োজেষ্ঠ, বঙ্গবন্ধুর এবং মরহুম আবিদুর রেজা খানের রাজনৈতিক সহচর শরিয়তপুরের শ্রী রামনাথ নন্দী। উনি আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান প্রয়াত নেতা আবদুর রাজ্জাকের সাথে রাজনীতি করবার বিরল স্মৃতির কথা আবেগময় ভাষায় বর্ননা করেন। স্বাধীনতা পূর্ব এবং মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পরিস্তিতির কথা উল্লেখ করে, সেইসব দিনগুলির ঐক্যের মত যুবলীগের সবাইকে নতুন করে ঐক্যবদ্ধ হবার উদ্দাত্ত আহ্বান জানিয়ে উনি উনার মূল্যবান বক্তব্য শেষ করেন।

প্রধান অতিথি জনাব হাসান রেজা খান ক্যালিফোর্নিয়াতে আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনগুলোকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবার আহবান জানান, উনি বলেন 'বিভাজন প্রতিপক্ষকে শক্তিশালী হতে সাহায্য করে',তাই তিনি মনে করে নির্বাচনী বৈতরনী পার করতে হলে ঐক্যের কোন বিকল্প নেই। উনার বাবা আগরতলা মামলায় বঙ্গবন্ধুর আইনজীবি হয়ে মামলা লড়েছেন বলে সবাইকে অবহিত করেন। স্বাধীনতা পরবর্তী ধ্বংসস্তুপ থেকে দেশকে বঙ্গবন্ধু কিভাবে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন তার বর্ননা দেন। যার ধারাবাহিকতায় দেশ আজ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে তা তিনি উল্লেখ করেন। এ কর্মী সভায় সব নেতা কর্মীরা সামনের ২০১৮ সনের নির্বাচনের উপর গুরুত্ব আরোপ করে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবার আহ্বান জানায়। কর্মীসভার সভাপতি ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট যুবলীগের আহ্বায়ক সূবর্ন নন্দী তাপস এর শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ বক্তৃতার মধ্য দিয়ে রাত অব্দী চলা সভাটির পরিসমাপ্তি ঘটে নৈশভোজের মধ্য দিয়ে।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

মোস্তাফিজুর রহমান বাবুলের সাথে ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির মতবিনিময়

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১২ ১২:৫০:২৬

গত ৬ই জানুয়ারী সন্ধ্যায় হলিউডের স্টার অব ইন্ডিয়া রেস্টুরেন্টে ৯০ এর ছাত্র-গণ আন্দোলনের সংগ্রামী ছাত্রনেতা ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ সম্পাদক জনাব মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন। এ সময় তিনি বলেন, ৫ই জানুয়ারীর হঠকারিতার মধ্য দিয়ে এ অনির্বাচিত সরকার দেশ থেকে গণতন্ত্র ও নির্বাচনকে নির্বাসনে পাঠিয়েছে। এর পর থেকে দেশে একটিও সত্যিকার নির্বাচন হয়নি। এ সরকারের অধীনে কোন সুষ্ঠু নির্বাচন কথা জনগণ বিশ্বাস করে না। জনগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের ও তার প্রতিফলনের নিশ্চয়তা চায়। তাই জনগণকে সাথে নিয়ে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের পরিবেশ তৈরী করে বি এন পি'কে নির্বাচনে যেতে হবে। তার মধ্য দিয়ে দেশে গণতন্ত্র ও জনগণের সরকারের কাছে ক্ষমতা ফিরিয়ে আনা সম্ভব। সরকারকে সেই দাবি মানতে বাধ্য করতে প্রয়োজন ১৯৯০ সালের মত দুর্বার আন্দোলন। গণতন্ত্রমনা সকল দল ও কর্মী, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, আইনজীবী, শিক্ষক-কর্মকর্তা সকলকে নিয়ে ৯০ এর মত রাজপথে দুর্বার গণতান্ত্রিক আন্দোলনের বিকল্প নেই। তিনি এ সময় ৯০এর আন্দোলনের বিভিন্ন প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন। তিনি দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতির অতীত বর্তমান তুলে ধরে বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় এই প্রবাস থেকেই প্রবাসীদের ভূমিকা রাখার আহবান জানান।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল জাতীয় নির্বাহী কমিটির পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সহ সম্পাদক জনাব মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি সাংগঠনিক বিষয়ে জানতে আগ্রহ প্রকাশ করলে দলের সহ সভাপতি জনাব অপু সাজ্জাদ ১৯৯০ সালে ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি গঠনের প্রেক্ষ্যাপট ও পরবর্তী কার্যক্রম তুলে ধরেন। দলের সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক নিয়াজ মোহাইমেন ২০১২ সালে সম্মেলনের সাংগঠনিক কার্যক্রম থেকে শুরু করে ২০১৭ সালের কর্মী সম্মেলনের মধ্য দিয়ে বর্তমান কমিটি গঠনের প্রয়োজনীয়তা ও প্রেক্ষ্যাপট তুলে ধরেন। কমিটির মেয়াদের পর ক্ষমতা কুক্ষিগত না রেখে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সকলের অংশ গ্রহণের সুযোগ রেখে ঐক্যবদ্ধভাবে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনার উপর জোর দেওয়া হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্নিয়া শাখার সভাপতি সামসুজ্জোহা বাবলু, সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমান, সহ সভাপতি নিয়াজ মোহাইমেন, জুনেল আহমেদ, আফজাল হোসেন শিকদার, অপু সাজ্জাদ, যুগ্ম সম্পাদক মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান জুয়েল,যুব বিষয়ক সম্পাদক: কোহিনুর রহমান প্রমুখ। ৯০ এর ছাত্র-গণ আন্দোলনের সংগ্রামী ছাত্রনেতা ও বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব ক্যালিফোর্নিয়ার সভাপতি জনাব শামসুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি নেতৃবৃন্দ ৫ই জানুয়ারি গনতন্ত্র হত্যা দিবসে এক বিবৃতিতে, একটি অনির্বাচিত সরকারকে এভাবে দীর্ঘদিন ক্ষমতা টেনে নেওয়াকে দেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান সমূহের উপর চরম হুমকি দাবি করে অবিলম্বে পদত্যাগ করে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন- বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্নিয়া শাখার সভাপতি শামসুজ্জোহা বাবলু, সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমান, সহসভাপতি নিয়াজ মোহাইমেন, সাইফুল আনসারী চপল, আহসান হাফিজ রুমি, জুনেল আহমেদ, নুরুল ইসলাম, সবুর খান মামুন, মার্শাল হক, আফজাল হোসেন শিকদার, হাসানুজ্জামান মিজান, মিশর নুন, অপু সাজ্জাদ, শওকত হোসেন আনজিন, মোহাম্মদ মঞ্জু, আবুল হাসনাত মন্টু চৌধুরী, ইলিয়াস শিকদার, আমজাদ হোসেন, মোঃ রফিক, মেহেদী হাসান, আশরাফুল আলম হেলাল, এলেন ইলিয়াস খান, বাদল খান, মোহাম্মদ সেলিম রেজা পিন্টু, যুগ্ম সম্পাদক: ফারুক হাওলাদার, রনি জামান, মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান জুয়েল, আলমগীর হোসেন, আসাদুজ্জামান রাজু, দেলোয়ার চৌধুরী, সহ সাধারণ সম্পাদক: খন্দকার জাভেদ, হোসেন লিটু, শেখ সেলিম, হেলাল আহমেদ ভূইয়াঁ, মোহাম্মদ শাহানুর, মোহাম্মদ ফরিদ আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক: শাহাদাত হোসেন শাহীন, লোকমান হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক: নয়ন বড়ুয়া, দপ্তর সম্পাদক: আবু তাহের সাজু, সহ দপ্তর সম্পাদক: মোশাররফ হোসেন ইমন, কোষাধক্ষ্: মোঃ আব্দুল মান্নান, সহ কোষাধক্ষ্: আক্তার মাতুব্বর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: মোঃ শফিকুল ইসলাম পলাশ, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: আবুল কায়সার, তত্ব ও প্রযুক্তি সম্পাদক: শাহ নেওয়াজ, সহ তত্ব ও প্রযুক্তি সম্পাদক: এ কে এম আসিফ, ক্রীড়া সম্পাদক: ইফতেখার হোসেন ফাহিম, যুব বিষয়ক সম্পাদক: কোহিনুর রহমান,  স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক: মেহেদী হাসান, শিক্ষা সম্পাদক: সাঈদ খান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক: হাফেজ মোহাম্মদ বেলাল, সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক: মাহতাব কবির ভূঁইয়া, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক: মোঃ মিজানুর রহমান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক: শাহনাজ বুলবুল, সহ সাংস্কৃতিক সম্পাদক: সোহেল মিয়া, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক:ফেরদৌস কবির সুজন, সহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক: রাজু ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা: ফরিদা বেগম, সহ মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা: মনিরা মিজান, আইন বিষয়ক সম্পাদক: ওমর ফারুক,  সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক: সারোয়ার সুমন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদকঃ আবুল খায়ের, সহ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদকঃ ইয়াসির আরাফাত মুন্না, সমাজ কল্যাণ সম্পাদকঃ মোঃ খসরু রানা, সহ সমাজ কল্যাণ সম্পাদকঃ তানভীর আহমেদ প্রমুখ।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বাফলার ফান্ডরাইজিং ডিনার আগামী রবিবার

 প্রকাশিত: ২০১৮-০১-১০ ১৩:১৩:৩১

প্রতিবারের ন্যায় বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অব লস এঞ্জেলেস-বাফলা’র বাংলাদেশ ডে প্যারেড এন্ড ফ্যাস্টিভাল-২০১৮ উপলক্ষে বার্ষিক ফান্ডরাইজিং ডিনার আগামী ১৪ জানুয়ারি রবিবার অনুষ্ঠিত হবে। এতে বাফলার সকল স্তরের নেতৃবৃ্ন্দ ও সদস্যসহ সবাইকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন বাফলা কর্তৃপক্ষ।
 
ফান্ডরাইজিং ডিনারের সূচি নিম্নরূপ :
তারিখ : ১৪ জানুয়ারি ২০১৮। রবিবার
সময় : বিকেল ৫টা থেকে রাত ১০টা
ভেন্যু : গার্ডেন সুইট হোটেলের বলরুম, ঠিকানা- 681 South Western Avenue, Los Angeles, CA 90006
প্রবেশমূল্য : ৩০ ডলার (Per Person)।

বিস্তারিত খবর

উগ্রবাদ ও সন্ত্রাসবাদ রোধে ধর্ম চর্চা বাড়াতে হবে : লস এঞ্জেলেসে বড়দিন উৎসবে কন্সাল জেনারেল

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-২৯ ০০:৩১:১৩

যথাযথ মরযাদা ও ধর্মীয় ভাব গাম্ভীর্যে লস এঞ্জেলেসে খৃষ্টান ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড়ো ধর্মীয় উৎসব বড়দিন পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে  আনন্দময় এক আয়োজন করে বাংলাদেশী খৃষ্টান ফেলোশীপ অব ক্যালিফোর্নিয়া (বিসিএফসি)। ২৫শে ডিসেম্বর বিকেলে ট্রিনিটি ইপিস্কোপ্যাল চার্চে এই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতি বছর বড়দিন উৎসব উপলক্ষে খ্রিষ্টানদের ঘরে ঘরে বয় আনন্দধারা। বহুবর্ণ আলোকসজ্জায় সাজানো হয় চার্চ ও ঘরসহ নানা স্থাপনা। সাজানো হয় গোশালা ও ক্রিসমাস ট্রি। পাপীকে নয়, ঘৃণা করো পাপকে- এই আহ্বান নিয়ে যিশুখ্রিষ্ট এদিন আসেন এই পৃথিবীতে। তাই খ্রিষ্টান সমপ্রদায় নানা আনুষ্ঠানিকতায় পালন করেন এই উৎসব। ধর্মীয় গান, কীর্তন, অতিথি আপ্যায়ন আর পরমানন্দে দিনটি উদযাপিত হয়।

খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, ঈশ্বরের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য একজন নারীর প্রয়োজন ছিল। সেই নারীই কুমারী মেরি-মুসলমানদের কাছে যিনি পরিচিত বিবি মরিয়ম হিসেবে। ধর্ম বিশ্বাস বলে, ‘ঈশ্বরের অনুগ্রহে ও অলৌকিক ক্ষমতায়’ মেরি কুমারী হওয়া সত্ত্বেও গর্ভবতী হন। ঈশ্বরের দূতের কথামতো শিশুটির নাম রাখা হয় যিশাস, যা বাংলায় ‘যিশু’। আজ থেকে দুই হাজার ১৩ বছর আগে জেরুজালেমের বেথলেহেম শহরের এক গোয়ালঘরে জন্ম হয়েছিল যিশুর। শিশুটি কিন্তু মোটেও সাধারণ শিশু ছিল না। ঈশ্বর যাঁকে পাঠানোর কথা বলেছিলেন মানবজাতির মুক্তির জন্য। যিশু নামের সেই শিশুটি বড় হয়ে পাপের শৃঙ্খলে আবদ্ধ মানুষকে মুক্তির বাণী শোনালেন। তিনি বললেন, ‘ঘৃণা নয়, ভালোবাসো। ভালোবাসো সবাইকে, ভালোবাসো তোমার প্রতিবেশীকে, এমনকি তোমার শত্রুকেও। মানুষকে ক্ষমা করো, তাহলে তুমিও ক্ষমা পাবে। কেউ তোমার এক গালে চড় মারলে তার দিকে অপর গালটিও পেতে দাও।’ তিনি বললেন, ‘পাপীকে নয়, ঘৃণা করো পাপকে। গরিব-দুঃখীদের সাধ্যমতো সাহায্য করো, ঈশ্বরকে ভয় করো।’ যিশুর কথা শুনে অনেকে তাদের মন ফেরাল। রাষ্ট্রীয়, ধর্মীয় এবং সমাজনেতারা এসব সহ্য করতে পারলেন না। যিশুখ্রিষ্টকে তারা তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবতে শুরু করলেন। তারা যিশুকে বন্দী করে ক্রুশে বিদ্ধ করে হত্যা করলেন। যিশুর জন্মের অনেক বছর পর থেকে খ্রিষ্টানরা এ দিনটিকে আনন্দ ও মুক্তির দিন হিসেবে পালন করতে শুরু করেন। ৪৪০ সালে পোপ এ দিবসকে স্বীকৃতি দেন। তবে উৎসবটি জনপ্রিয়তা পায় মধ্যযুগে। সে সময় এর নাম হয় ‘ক্রিসমাস ডে’।

লস এঞ্জেলেসে অনুষ্ঠিত এই উৎসবকে ঘিরে এক মিলনমেলা বসে খৃষ্ট ধর্মবালম্বীদের। এতে অংশ নেন অন্যান্য ধর্মাবলম্বীরাও। অনুষ্ঠানের শুরুতে খৃষ্টান প্রতিনিধিদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়ে অংশ নেন সবাই। এরপর অনুষ্ঠিত হয় পিঠা পর্ব।

তারপর লস এঞ্জেলেসে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান আয়োজকরা। তিনি এই উতসব উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী বক্তব্যে কন্সাল জেনারেল সবাইকে বড়দিনের শুভেচ্ছা জানান। তিন বলেন, যিশু খ্রিস্টের জন্ম হয়েছিল শান্তির বাণী নিয়ে। তিনি সাবিইকে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির শিক্ষা দিয়েছিলেন। আমরা যদি সম্মীলিতভাবে এই শিক্ষাকে সামনে রেখে এগিয়ে যেতে পারি তাহলে পৃথিবীতে শান্তির হাওয়া নেমে আসবে।

বিশ্ব পরিস্থিতি তুলে ধরে প্রিয়তোষ সাহা বলেন, বর্তমান বিশ্ব এক কঠিন পরিস্থিতর মধ্য দিয়ে অতিবাহিত হচ্ছে। দেশে ধর্মের নামে উগ্রবাদ, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। এত্থেকে উত্তরণের জন্য ধর্ম চর্চা বাড়াতে হবে।  ধর্ম সবসময়ই মানুষকে সহনশীল করে তুলে।

প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, প্রবাসীরা আমাদের সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। আমি মনে করি, আপনারা বহির্বিশ্বে দেশের দূত হিসেব কাজ করছেন। আপনাদের প্রতি আমার অনুরোধ, আপনাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকেও দেশের সাথে সম্পৃক্ত করতে হবে। কন্সাল জেনারেল এসময় দেশে বেশি বেশি বিনিয়োগ করার জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশ একটি উদার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। বর্তমান শেখ হাসিনা সরকার দেশে সব দল-মত ও ধর্মের মানুষের সহাবস্থান নিশ্চিত করেছে। এভাবে সম্মিলীতভাবে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। এসময় তিনি প্রবাসীদের সব ধর্মীয় অনুষ্ঠানে কন্সাল জেনারেলের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হবে বলে জানান।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানের পর পবিত্র উপাসনা পরিচালনা করেন ট্রিনিটি এপিস চার্চের সহকারী পুরহিত রেভাঃ বিরবল হালদার।উপাসনায় সহযোগিতায় ছিলেন মনি বোস। প্রার্থনা করেন মিসেস রোজী সরকার। এরপরে পবিত্র প্রভুর ভোজ অনুষ্ঠিত হয় এবং সকল খ্রিষ্টান সম্প্রদায় সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।

প্রার্থনার সময় পুরহিত রেভাঃ বিরবল হালদার বলেন, বড়দিনকে ঘিরে দীর্ঘ ১ মাস ধরে ঘরে ঘরে গিয়ে ধর্মের বাণী প্রচার করা হয়েছে। আজ  চূড়ান্ত উৎসব পালিত হচ্ছে। এসময় তিনি উপস্থিত সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা ও অতিথিদের ধন্যবাদ জানান। এই উৎসবের সুযোগ করে দেওয়ার জন্য চার্চ কর্তৃপক্ষকেও তিনি ধন্যবাদ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন (বিসিএফসি) এর সহ-সভানেত্রী সোফিয়া কেকা মণ্ডল।

মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শিশুদের পরিবেশনা, মহিলাদের দলীয় নৃত্য প্রভৃতি আয়োজন দিয়ে সাজানো ছিল অনুষ্ঠানটি।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রথম পর্বে ছিল শিশুদের পরিবেশণায় অংশগ্রহণ করেন অক্ষর বোস, মেলিসা অন্তরা, নীল হালদার, বেথেল রায় ও শ্রেষ্ঠ কর্মকার।

এরপরে অনুষ্ঠিত হয় বড়দের পর্ব। প্রথমে মহিলাদের অংশগ্রহণে দলীয় নৃত্য পরিবেশন। সঙ্গীত পরিবেশন করেন ফ্লোরেন্স নীতু হালদার। দ্বৈত নৃত্য পরিবেশন করেন হৃদি ও গল্প। কবিতা আবৃত্তি করেন জনি হালদার। একক নৃত্য পরিবেশন করেন রিমি মধু। দলীয় লোক সঙ্গীত পরিবেসন করেন মিন্টু  বৈদ্য ও তার দল। একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন শ্যামল পল। সমাপনিতে একটি দেশের গান পরিবেশন করেন জেমস হালদার সাবু।

সবশেষে উপস্থিত সবার জন্য আয়োজন ছিল নৈশ ভোজের। নৈশভোজে অতিথিসহ উপস্থিত সবাই অংশ নেন। এসময় শিশুদের বিনোদনের জন্য সান্টা উপস্থিত হন তার উপহার সামগ্রী নিয়ে এবং সব শিশুদের উপহার বিতরণ করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বিসিএফসি সাধারণ সম্পাদক মিঃ হিমাংশু ব্যানেট। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জুলি হালদার। অনুষ্ঠানের সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন জন হালদার।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

কন্সাল জেনারেলের অনুপস্থিতিতে লস এঞ্জেলেসে বিজয় বহর

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-২১ ১৫:১৬:২৯

বাংলাদেশের ৪৬তম বিজয় দিবস উপলক্ষে ৭ম বারের মতো বিশাল বিজয় বহর ও মোটর শোভাযাত্রা করল লস এঞ্জেলেসের বাংলাদেশি প্রবাসীরা। জাকজমকপূর্ণ শতাধিক গাড়ির এই বহরে অংশ নেন বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ ও তরুণ-বৃদ্ধ, ‍মুক্তিযোদ্ধাসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। লাল-সবুজের পতাকা হাতে লাল-সবুজ রঙের পাঞ্জাবী-শাড়ি, সাথে নানা ধরণের প্ল্যাকার্ডে বাংলাদেশকে উপস্থাপন করেন প্রবাসীরা। গত রবিবার লস এঞ্জেলেসের লিটল বাংলাদেশ এলাকায় এই শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।

আয়োজকরা জানিয়েছেন, এবারের শোভাযাত্রাটি অাগের সব বছরের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। অন্য সব বছরের তুলনায় এবারের আয়োজনে সবচেয়ে বেশি উপস্থিতি ছিল। 
 
শোভাযাত্রায় অংশ নেন মার্কিন কংগ্রেসম্যান ও সিটি কাউন্সিল প্রেসিডেন্টসহ বিশিষ্টজনেরা। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী সকাল ১১টা থেকে শ্যাটো রিক্রিয়েশন সেন্টারের সামনে জড়ো হতে থাকেন নারী-পুরুষ, তরুণ-শিশুসহ সব বয়সের প্রবাসীরা। সবার হাতে ছিল বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা এবং রং বেরঙের ফেস্টুন-প্ল্যাকার্ড। বেশির ভাগের পরণে ছিল লাল-সবুজ রঙের পোষাক।

উপস্থিতি বাড়ার সাথে সাথে সবাই সারিবদ্ধভাবে গাড়িগুলো রাস্তায় দাঁড় করাতে থাকেন। দুপুর ১২টায় উদ্বোধনী পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানের এই পর্ব পরিচালানায় ছিলেন আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক মুজিব সিদ্দিকী। এসময় তিনি সবাইকে শুভেচ্ছা ও স্বাগত জানান। বিজয় বহরে উপস্থিত হওয়ার জন্য সবার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেস ওম্যান জুডি চু, কংগ্র্যাসম্যান জিমি গোমেজ, এলএ কাউন্সিল মেম্বার মিচ ও ফারেল, এলএ কাউন্টির চিফ অব ফায়ার, কোরিয়ান কমিউনিটির নেতা কমিশনার চেংলি ও ইলাইনিলি, শাহজাহান চৌধুরী, লিন্ডা ল্যকুড।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ একটি কঠিন সময় পার করে মহান বিজয় ও স্বাধীনতা অর্জন করেছে। আজ এই বিজয়ের উদযাপন নিঃসন্দেহে অনেক আনন্দের। আমরাও বাংলাদেশিদের এমন আয়োজনে অংশ নিতে পেরে আনন্দিত। বাংলাদেশী কমিউনিটির প্রশংসা করে তারা বলেন,  লিটল বাংলাদেশ কমিউনিটি আসলে ‘লিটল’ নয়, এটি দিনদিন ‘বিগার’ হচ্ছে। দিনদিন এর ব্যপ্তি বাড়ছে। এখানকার বাংলাদেশ কমিউনিটি একটি শক্তিশালী কমিউনিটিতে পরিণত হয়েছে।

শোভাযাত্রা উপলক্ষে লস এঞ্জেলেস ট্রাফিক বিভাগ ঐ এলাকার রাস্তা বন্ধ করে দেয়, শুধু শোভাযাত্রার গাড়ি চলালচল করে। এরপর দুপুর ২টায় ফিতা কেটে ও পায়রা উড়িয়ে শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন এলএ সিটি কাউন্সিল প্রেসিডেন্ট ও প্যারেড মার্শাল হার্ব জে উয়েসন। এরপর  প্যারেড কমান্ডার ছিলেন মেজর সাইফ কুতুবী তার অনুমতি নিয়ে প্যারেড শুরু করেন। গাড়ির বহরটি পুরো লিটল বাংলাদেশ এলাকা ঘুরে আবার শ্যাটো রিক্রিয়েশন সেন্টারে এসে শেষ হয়। প্যারেড চলাকালে বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা রাস্তায় পাশে দাঁড়িয়ে প্যারেডকে স্বাগত জানান।

মোটর শোভাযাত্রার বিশেষ আকর্ষণ ছিল আমেরিকার দামি ব্র্যান্ডের ১০/১২টি মোটরসাইকেল। যার নেতৃত্বে ছিলেন বিডি মোটরিস্ট মেহেদী হাসান। যেগুলো প্যারেডের সামনে অবস্থান করে। বহরে আরও আকর্ষণ ছিল ব্রান্ড নিউ ১০টা জিপ। যা স্পন্সর করে এলএ ভিলেজ।

ইংল্যান্ড ইম্পেয়ার এলাকা থেকে বিশাল একটি বহর নিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেন ‘চন্দ্রবিন্দ’ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। 

শোভাযাত্রায় কন্সাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও তিনি আসেনি। তার বদলে কমার্শিয়াল কন্সাল আল মামুনকে পাঠান।কন্সাল জেনারেল উপস্থিত না হওয়ায় প্রবাসীরা ক্ষোব্ধ হন। এব্যাপারে এলএ বাংলাটাইমস থেকে কন্সাল জেনারেলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দুজন প্রতিনিধি লস এঞ্জেলেসে থাকায় তাদের প্রটোকলে ব্যস্ত ছিলাম, তাই এই বিজয় শোভাযাত্রায় অংশ নিতে পারিনি।’ এছাড়াও আমন্ত্রিত হয়ে সাবেক খাদ্যমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এর আসার কথা থাকলেও তিনি আসেন নি। তবে তিনি বিজয় বহরের উদ্দেশ্যে একটি ভিডিও বার্তা পাঠান।

এবারের শোভাযাত্রায় আরও অংশ নেন কোরিয়ান কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ। তারাও বাংলাদেশের  এমন আয়োজনে অভিভূত হন। তারা বলেন, আমরা সবসময় বাংলাদেশি কমিউনিটির পাশে ছিলাম, আগামীতেও থাকব।

এরপর আয়োজকদের পক্ষ থেকে লাঞ্চ পরিবেশন করা হয়।

বিকেল ৬টা থেকে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের শুরুতে বিজয় বহর আয়োজক কমিটির বিগত দিনের বিভিন্ন কার্যক্রমের উপর একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। তথ্যচিত্র প্রদর্শনীর দায়িত্বে ছিলেন মিকায়েল খান রাসেল। এরপর জাতীয় কণ্ঠশিল্পী মিতালী কাজলসহ স্থানীয় শিল্পীরা গান পরিবেশন করে। বিশেষ করে স্থানীয় ব্যান্ড ‘স্বরাজ’-এর পরিবেশনা সবাইকে মুগ্ধ করে।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীতের পাশাপাশি বাংলাদেশি আমেরিকান নতুন প্রজন্মের শিশুরা গান, কবিতা ও অভিনয় পরিবশেন করে। রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত চলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপস্থান করেন জনপ্রিয় উপস্থাপক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মিঠুন চৌধুরী এবং মডেল কন্যা সাদিয়া হক মিমি। অনুষ্ঠান চলাকালে শ্যাটো সেন্টার কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।
 
বিজয় বহর উপলক্ষে বিভিন্ন মিডিয়া ব্যক্তিত্বকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বিজয় দিবসে ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির সভা

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-২১ ০০:৩০:১৭

বিজয় দিবস উপলক্ষে গত সোমবার ১৮ই ডিসেম্বর বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্নিয়া শাখা স্থানীয় বাংলাদেশ একাডেমী মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করে। সংগঠনের সভাপতি জনাব শামসুজ্জোহা বাবলুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জনাব এম ওয়াহিদ রহমান এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ থেকে আগত বি এন পি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক, ঢাকা জেলা বি এন পী'র সভাপতি সাবেক সাংসদ ডাঃ দেওয়ান মোঃ সালাহউদ্দিন বাবু।
বিশেষ অতিথি হিসাবে ছিলেন বিএনপির উপোদেস্টা ,কমিউনিটি নেতা মুক্তিযুদ্বা ড: জয়নাল আবেদিন এবং কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব আবুল ইব্রাহিম। বক্তব্য রাখেন ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির সাবেক সাধারন সন্পাদক সিনিয়ন সহ-সভাপতি নেয়াজ মোহাইমেন ,সহ- সভাপতি সাইফুল আনসারি চপল, নুরুল ইসলাম,আফজাল হোসেন শিকদার,মুক্তিযাদ্ধা আবুল খায়র,আহসান হাফিজ রুমি,জুনেল আহমেদ,মার্শাল হক,শওকত হোসেন আনজিন,মো:দেলোয়ার চৌধুরী , আবুল হাসনাত মন্টু চৌধুরী, রফিকুজ্জামান জুয়েল, নয়ন বড়ুয়া প্রমখ।প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাঃ দেওয়ান মোঃ সালাহউদ্দিন বাবু  বাংলাদেশের বর্তমান আর্থ-সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি তুলে ধরে বলেন ,এই ভাবে গুম-খুন করে ক্ষমতায় টিকে থাকা যাবে না। তিনি বলেন, পদ্মা সেতু সহ বিভিন্ন প্রজেক্টে সরকার বারংবার বাজেট পরিবর্তন করে খরচ প্রাথমিক থেকে দ্বিগুন, দ্বিগুন থেকে চারগুন বাড়িয়ে নিয়ে শুভঙ্করের ফাঁকিতে দুর্নীতি করছে। প্রশাসনে দলীয় করণের যে সুফল এই স্বৈরাচারী সরকার ভোগ করছে সময়মত সেটাই তাদের জন্য কাল হয়ে দাঁড়াবে। একটি মাত্র নিরপেক্ষ নির্বাচনেই এই স্বৈরাচারের পতন ঘটবে এবং সে দিন আর দূরে নেই। সরকারের কাছে গোয়েন্দা রিপোর্ট রয়েছে আগামী নির্বাচনে তাদের ভরাডুবি হবে। নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে তারা সর্বোচ্চ চল্লিশটি আসন পাবেনা। তাই সরকার চায় না বি এন পি নির্বাচনে আসুক। কিন্তু বি এন পি নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত। সরকার যথা সময়ে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে বাধ্য হবে। আর তার মধ্য দিয়ে দেশ এই গণতন্ত্রহীনতা থেকে মুক্তি পাবে। সভায় বিশেষ অতিথি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডঃ জয়নুল আবেদীন মুক্তিযুদ্ধ এর স্মৃতি চারণ করে বলেন সারাদেশে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল এর নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ থেকে আধুনিক টুলস ব্যবহার করে দলের পক্ষে প্রচারণা চালিয়ে যেতে পারে। সংবাদ মাধ্যমের উপর সরকারের বাকশালী- স্বৈরাচারী আচরণ সাধারণ জনগণকে বিক্ষুব্ধ করে তুলছে। মানুষ গুম-খুন-দুর্নীতি-ব্যাংক ডাকাতির বিরুদ্ধে রায় দেবার জন্য অপেক্ষায় ,আর  বিএনপিকে সেই সুযোগটা কাজে লাগাতে নির্বাচনে যায়া ছাড়া বিকল্প নাই।আরো উপস্হিত ছিলেন হাসানুজ্জামান মিজান, মিশর নুন, অপু সাজ্জাত ইলিয়াস শিকদার, আমজাদ হোসেন, মোঃ রফিক, মেহেদী হাসান, আশরাফুল আলম হেলাল, এলেন ইলিয়াস খান, বাদল খান, মোহাম্মদ সেলিম রেজা পিন্টু, যুগ্ম সম্পাদক: ফারুক হাওলাদার, রনি জামান,আলমগীর হোসেন, আসাদুজ্জামান ,খন্দকার জাভেদ, হোসেন লিটু, শেখ সেলিম, হেলাল আহমেদ ভূইয়াঁ, মোহাম্মদ শাহানুর, মোহাম্মদ ফরিদ আহমেদ, শাহাদাত হোসেন শাহিন,দপ্তর সম্পাদক: আবু তাহের সাজু, মোশাররফ হোসেন ইমন, মোঃ আব্দুল মান্নান, আক্তার মাতুব্বর, প্মোঃশফিকুল ইসলাম পলাশ, আবুল কায়সার, এ কে এম আসিফ, ইফতেখার হোসেন ফাহিম, কোহিনুর রহমান,  স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক: মেহেদী হাসান, সাঈদ খান, হাফেজ মোহাম্মদ বেলাল, রহমান,শাহনাজ বুলবুল প্রমুখ।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া আওয়ামী লীগের বিজয় দিবস উদ্‌যাপন

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-১৯ ১৩:৫৩:৩৬

১৫ই ডিসেম্বর ২০১৭ শুক্রবার সন্ধ্যায় লস-এন্জেলেসের বাংলাদেশ একাডেমী মিলনায়তনে ৪৬তম মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ আয়োজন করে বিজয় দিবসের তাৎপর্যমূলক আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সংগীত সন্ধ্যার।

প্রথম পর্বে ছিল আলোচনা সভা, সভার শুরুতেই পবিত্র কোরআন শরীফের সূরা ফাতেহা এবং অন্যান্য ধর্ম গ্রন্থ থেকে পাঠ করা হয়। তিরিশ লক্ষ শহীদ,বঙ্গবন্ধুর পরিবার, চার জাতীয় নেতা এবং সদ্য পরোলোকগত চট্টগ্রামের বর্ষিয়ান নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর আত্নার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের পর পরই শুরু হয় বিজয় দিবসে তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা। অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য দিতে গিয়ে ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের অন্যতম সহ-সভাপতি জনাব আনিসুর রহমান '৭১র ১৬ই ডিসেম্বরের ব্যক্তিগত স্মৃতিচারন করেন।ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভানেত্রী হাসিনা বানুর ভয়াল স্মৃতির কথাই মনে করিয়ে দেয় কি ভয়ার্ত ছিল '৭১র সেইসব দিনগুলি। ষ্টেট মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শাহানা পারভীন উনার পরিবারের উপর নির্মম অত্যাচারের কথা অশ্রু সজল নয়নে বর্ননা করেন। সিটি যুব লীগের আহ্বায়ক আলমগীর হোসেন বিজয় দিবসের তাৎপর্যমূলক বক্তব্য রাখেন।


ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক সৈয়দ ইকরামুল হক বাবু সদ্য প্রয়াত চট্টগ্রামের বর্ষিয়ান নেতা এবং সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বলেন যে,উনি শুধু রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ছিলেন না, ছিলেন রাজনীতির বিশ্ববিদ্যালয়। অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার ইমতিয়াজ আহমেদ বিজয় দিবসের তাৎপর্যের উপর আলোকপাত করে বলেন 'আজ আমরা শূধু বিজয়ের কথা বলব'। ষ্টেট আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক সুবর্ন নন্দী তাপস এই বিজয়ের দিনে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে সজাক থাকার আহ্বান জানান এবং ঐক্যবদ্ধভাবে এক হয়ে কাজ করবার উপর গূরুত্ব আরোপ করেন। ডা:রবি আলম তার বক্তব্যে মেহনতী মানুষের জয়ের কথা পুনরায় উল্লেখ করেন। উনি প্রধান বক্তা হিসেবে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ যেন আবার ক্ষমতায় যায় তার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

প্রধান অতিথি জনাব মোস্তাইন দারা বিল্লা উনার নাতিদীর্ঘ ভাষনে সবাইকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানান।

এছাড়াও মূল্যবান বক্তব্য রাখেন প্রাক্তন ষ্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব সোহেল রহমান বাদল, প্রাক্তন ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক জনাব ফারুক খান। জনাব তোফাজ্জল কাজলের প্রানবন্ত সন্চালনে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানের সভাপতি ষ্টেট আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জনাব শাহীন মিজানের ধন্যবাদ  জ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে প্রথম পর্বের সমাপ্তি হয়।
বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানের এই পৌষের মনোরম সন্ধ্যায় আরো যারা উপস্হিত থেকে অনুষ্ঠানকে অলংকৃত করেছেন,তারা হলেন লস-এন্জেলেস সিটি আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক জনাব মহাতাব টিপু, ষ্টেট মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদিকা বৈশাখী, ভ্যালী যুবলীগের আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান ইমরান, মহিলা আওয়ামী লীগের মনিকা আহমেদ এবং শহরের গন্যমান্য সুধীজন।

দ্বিতীয় পর্বে মনোজ্ঞ সংগীত সন্ধ্যায় দেশাত্ববোধক গান পরিবেশন করেন নতুন প্রজন্মের স্হানীয় শিল্পী তাবাসুম আলম। এরপর যারা সংগীতে হল পূর্ন মিলনায়তন মাতিয়ে রাখেন তারা হলেন লস-এন্জেলেসের খ্যাতনামা সংগীত শিল্পী জনাব আবুল কালাম আজাদ, অন্জলী রায় চৌধুরী, রনি চৌধুরী এবং অন্যান্য স্হানীয় শিল্পীবৃন্দ। এই মনোজ্ঞ সংগীত সন্ধ্যার পর্ব পরিচালনা করেন শিউলী মিজান, উনার সন্চলনা সবাইকে মুগ্ধ করে। সন্ধ্যা থেকে রাত অব্দী এই উপভোগ্য অনুষ্ঠানটি নৈশ ভোজের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।


এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

আনিসুল হকের মৃত্যুতে ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের শোক সভা ও দোয়া মাহফিল

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৮ ২৩:১১:৩০

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, নন্দিত টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব, সফল উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী, মোহাম্মদী গ্রুপের চেয়ারম্যান জনাব আনিসুল হকের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে কোরআন তেলাওয়াত ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

গত ৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগ লিটল বাংলাদেশের আলাদিন রেষ্টুরেন্টে আওয়ামী পরিবারের সবাইকে নিয়ে আনিসুল হকের মৃত্যুতে শোক সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক সাইদ হক বাবুর পরিচালনায় এবং ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের আহ্বায়ক সুবর্ন নন্দী তাপসের সভাপতিত্বে শোক সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা সোহেল রহমান বাদল, প্রধান বক্ত হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক ডাঃ রবি আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের উপদেষ্টা তৌহিদুজ্জামান খান, ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শামীম আহমেদ, সহ-সভাপতি ফারুক খান, সহ-সাধারণ সম্পাদক দিদার আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক টি জাহান কাজল, সিটি আওয়ামীলীগের সভাপতি মাহাতাবউদ্দিন টিপু, মহিলা আওয়ামীলীগের মনিকা আহমেদ সহ অসংখ্য নেতাকর্মী।

বিস্তারিত খবর

San Fernando Valley তে ভয়াবহ দাবানল, উদ্বাস্তু ১ লক্ষের বেশি বাসিন্দা

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৭ ১৪:০৭:৪৬

গত মঙ্গলবার রাত ৪ টার দিকে Sylmar’এর পাদদেশ থেকে এক প্রলয়ঙ্করী দাবানল শুরু হয়। দমকা বাতাসে প্রচণ্ড গতিতে পুরো এলাকায় ছড়িয়ে এই অপ্রতিরোধ্য দাবানল। বাতাসের গতি বেশি থাকায় অগ্নিনির্বাপক কর্মীরাও আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে খুব একটা সুবিধা করে উঠতে পারে নি। গত দুই দিনের আগ্রাসী এই দাবানলে San Fernando Valley’ র ১ লক্ষেরও বেশি বাসিন্দা উদ্বাস্তু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।    

প্রলয়ঙ্করী এই দাবানলে ১২ হাজার ৬০৫ একর এলাকা আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়, সেইসাথে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয় কমপক্ষে ৩০ টি বাড়ি। অগ্নিনির্বাপক কর্মীরা প্রবল বাতাসের কারণে বাঁধার সম্মুখীন হয়। কিছু কিছু এলাকায় ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৮০ কিলোমিটারের বেশি গতিতে বাতাস প্রবাহিত হয়েছে বলে জানান, আবহাওয়া অফিস।

বেঁচে থাকতে wildland এলাকার বাসিন্দাদের গতকাল একচোখ খোলা রেখে ঘুমানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন, লস এঞ্জেলেস কাউন্টির অগ্নিনির্বাপক প্রধান Darly Osby. সেইসাথে গতকাল রাতে বাতাসের গতিবেগ বাড়বে বলেও আশংকা প্রকাশ করেছিলেন লস এঞ্জেলেস ফায়ার বিভাগের ঊর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা।

ফায়ার ব্রিগেডের পাইলটরা হেলিকপ্টারের সাহায্যে অনবরত অগ্নিনির্বাপণ করার চেষ্টা করেন। বাসিন্দারা তাদের ক্ষয়ক্ষতি পরিমাপ করার চেষ্টা করছেন বলে জানান গণমাধ্যমগুলো। তবে এখনো অব্দি প্রকৃত ক্ষয়ক্ষতির হিসাব পাওয়া যায় নি। গত দুইদিন ভয়াবহ দাবানলে পাহাড়ের পাদদেশের বাসিন্দাদের চোখে ঘুম ছিল না। আগ্রাসী এই তাণ্ডবে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।


এলএবাংলাটাইমস/এলএ/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

গাঁজা চাষ ও বিক্রির বৈধতা দিল লস এঞ্জেলেস সিটি

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৭ ১৪:০১:২২

গতকাল বুধবার গাঁজা চাষ ও বিক্রির বৈধতা বিষয়ে একটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। আর এতে পরবর্তী বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে গাঁজা বৈধ করার পক্ষে ভোট দিল লস এঞ্জেলেস সিটি কাউন্সিল। ফলে আমেরিকার সবচেয়ে বড় শহর হিসেবে আমোদকর গাঁজা সেবনের বৈধতা পেতে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী লস এঞ্জেলেস সিটি। 
 
তবে সিটি কাউন্সিল প্রেসিডেন্ট Herb Wesson’র অফিস থেকে জানা যায়, যত দ্রুত সম্ভব মেয়র Eric Garcetti স্বাক্ষরের পরই নিয়মটি কার্যকর করা হচ্ছে। এবং এই বিষয়ে তারা আশাবাদী।

গাঁজা বৈধতার সিদ্ধান্তে আমেরিকার অন্যত্র লস এঞ্জেলেস সিটি মডেল হয়ে থাকবে, ভবিষ্যৎদ্বানী করে সিটি প্রেসিডেন্ট Wesso বলেন, “অন্যান্য সিটিগুলো এই বৈধতার বিষয়ে লস এঞ্জেলেসের দিকে তাকিয়ে আছে”।

লস এঞ্জেলেস রেগুলেশন অনুযায়ী আবাসিক এরিয়ার আশপাশে পট ব্যবসা সীমাবদ্ধ থাকবে। এবং স্কুল, লাইব্রেরি ও পার্ক বাফার জোন হিসেবে সেট আপ দেওয়া হবে।


এলএবাংলাটাইমস/এলএ/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : এক অবিস্মরণীয় ইতিহাস, লস এঞ্জেলেসে স্বীকৃতি উদযাপন

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০১ ১৪:১৫:২৯

৭ই মার্চ ১৯৭১ বাঙালির জাতীয় জীবনে এক অবিস্মরণীয় দিন। এ দিন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাঙালির ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যান) লাখো জনতার সমাবেশে তাঁর জাতির উদ্দেশে এক গুরুত্বপূর্ণ ভাষণ রাখেন- ইতিহাসখ্যাত ৭ই মার্চের ভাষণ। তৎকালীন পাকিস্তানের জনগণই শুধু নয়, সারা বিশ্বের মানুষ ঔৎসুক্য নিয়ে তাকিয়ে ছিল- বঙ্গবন্ধু তাঁর ভাষণে কী বলেন। ঢাকায় তখন বিদেশি সব গুরুত্বপূর্ণ পত্রপত্রিকা ও সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধিরা উপস্থিত। পাকিস্তান রাষ্ট্রের জন্য সেটি ছিল এক অন্তিম মুহূর্ত। অপরদিকে, স্বাধীনতার চেতনায় উদ্দীপ্ত বাঙালি জাতির জন্য ছিল পাকিস্তানি ঔপনিবেশিক শাসন-শোষণের শৃঙ্খল ছিন্ন করে জাতীয় মুক্তি বা স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর চূড়ান্ত সংগ্রামের আহ্বান।

৭ই মার্চ নির্ধারিত সময়ে বঙ্গবন্ধু বিক্ষোভে উত্তাল রেসকোর্সের লাখো জনতার সভামঞ্চে এসে উপস্থিত হন। হৃদয়ে তাঁর বাঙালির হাজার বছরের মুক্তির আন্দোলন, সংগ্রাম ও স্বপ্ন। মাথার ওপর আকাশে ঘুরছিল পাকিস্তানি যুদ্ধবিমান। এমনি এক সন্ধিক্ষণে তিনি তাঁর ১৮ মিনিটের সংক্ষিপ্ত অথচ জগৎবিখ্যাত ভাষণ রাখলেন। অসাধারণ এর বক্তব্য। যেমনি সারগর্ভ, ওজস্বী ও যুক্তিযুক্ত, তেমনি তির্যক, তীক্ষ্ণ ও দিক-নির্দেশনাপূর্ণ। অপূর্ব শব্দশৈলী, বাক্যবিন্যাস ও বাচনভঙ্গি। একান্তই আপন, নিজস্ব বৈশিষ্ট্যমন্ডিত। বঙ্গবন্ধু তাঁর ভাষণে পাকিস্তানের ২৩ বছরের রাজনৈতিক ইতিহাস ও বাঙালিদের অবস্থা ব্যাখা, পাকিস্তান রাষ্ট্রের সঙ্গে বাঙালিদের দ্বন্দ্বের স্বরূপ তুলে ধরা, শান্তিপূর্ণভাবে বাঙালিদের অধিকার আদায়ের চেষ্টা, অসহযোগ আন্দোলনের পটভ‚মি ব্যাখ্যা ও বিস্তারিত কর্মসূচি ঘোষণা, সারা বাংলায় প্রতিরোধ গড়ে তোলার নির্দেশ, প্রতিরোধ সংগ্রাম শেষাবধি মুক্তিযুদ্ধে রূপ নেয়ার ইঙ্গিত, শত্রুর মোকাবেলায় গেরিলা যুদ্ধের কৌশল অবলম্বন, যে কোনো উসকানির মুখে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার ওপর গুরুত্বারোপ, ইত্যাদি কিছুর পর ঘোষণা করেন- ‘… ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোলো। তোমাদের যা কিছু আছে তাই নিয়ে শত্রুর মোকাবেলা করতে হবে… এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম। জয় বাংলা।’

দীর্ঘ ৪৬ বছর পরে হলেও জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতিবিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো প্যারিসে অনুষ্ঠিত এর দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে ৩০ অক্টোবর ২০১৭ তারিখ বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে ‘বিশ্ব ঐতিহ্য দলিল’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে তা সংস্থাটির ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টার’-এ অন্তর্ভুক্ত করেছে। জাতিসংঘের মতো বিশ্বসংস্থার এ সিদ্ধান্ত নিঃসন্দেহে একটি ঐতিহাসিক ঘটনা।এর উদযাপন চলছে দেশে বিদেশে। এরই অংশ হিসেবে গত ২৫ নভেম্বর শনিবার লস এঞ্জেলেসে বর্ণাঢ্য শুভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। লিটল বাংলাদেশ সাইন এলাকায় এই শোভাযাত্রা শেষে কনসুলেট জেনারেল অফিসে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

কনসুলেট জেনারেলের উদ্যোগে আয়োজিত এই  শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভায় অংশ নেন ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এছাড়াও আওয়ামীলীগের সমর্থক নয় কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসেন- এমন অনেককে এই কর্মসূচিতে উপস্থিত হতে দেখা যায়।

আলোচনা সভার শুরুতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয় এবং বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ করা হয়। মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের সকল শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র মন্ত্রীর প্রেরিত বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। এরপর বঙ্গবন্ধুর সেই ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের ভিডিও প্রদর্শন করা হয়।

ডেপুটি কন্সাল জেনারেল আল-মামুন-এর পরিচালানায় শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভায় উপস্হিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুর রহমান, সহ-সভাপতি শামীম আহমেদ ও জাকির খান, সাংগঠনিক সম্পাদক তোফাজ্জল কাজল, যুগ্ম সম্পাদক দিদার আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা মো. আলাউদ্দিন, মিয়া আব্দুর রব, ফরহাদ হোসাইন, পশ্চিম অঞ্চল যুবলীগ সভাপতি কামরুল হাসান, সোহেল আহমেদ, আব্দুল আজিজ,  আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি মোঃ শাহ্‌ আলম খান চোধুরী, মিজান আজাদ, তাওয়াজ্জাল জাহান কাজল, ড. রুবি হোসাইন, ড. মোয়াজ্জেম হোসাইন, মহিলা আওয়ামী লীগের নীনা শারমিন মুক্তা, মনিকা, ক্যালিফোর্নিয়া টেষ্ট আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক সূবর্ন  নন্দী তাপস, স্টেট যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক খন্দকার আহমেদ ইমু,  সিটি যুব লীগের আহ্বায়ক আলমগীর হোসেন, ড্যানি তৈয়ব, সোহেল রহমান বাদল ও ঢাকা থেকে আগত মিসেস সাজেদা। তবে শুভাযাত্রার তুলনায় কনসুলেট জেনারেল অফিসে আলোচনা সভায় উপস্থিতি ছিল অনেক কম।

উপস্থিত দলীয় নেতৃবৃন্দ সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ইউনেস্কোকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং কন্সাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহা উপস্থিত সকলকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সবশেষে কন্সাল জেনারেলের পক্ষ থেকে সবাইকে মিষ্টিমুখ করানো হয়।


এলএবাংলাটাইমস/এলএ/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি উদযাপনে লস এঞ্জেলেসে শোভাযাত্রা

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-২৮ ০৫:৫৮:৫২

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টার-এ অন্তর্ভূক্তির মাধ্যমে বিশ্ব প্রামান্য ঐতিহ্যের স্বীকৃতি লাভের অসামান্য অর্জন উপলক্ষে লস এঞ্জেলেসে কনসুলেট জেনারেলের উদ্যোগে এক আনন্দ শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গত ২৫ নভেম্বর শনিবার বিকেলে লিটল বাংলাদেশ এলাকায় এই শোবাযাত্রা শেষে কনসুলেট জেনারেল অফিসে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে কনসাল জেনারেল প্রিয়তোষ সাহাসহ কনসুলেট অফিসের কর্মকর্তা ও ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামীলীগ, যুবলীগের নেতাকর্মীরাসহ প্রবাসী বাংলাদেশিরা অংশ নেন।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, যার ভাষণে লক্ষ কোটি বাঙালী দেখেছিল স্বাধীনতার স্বপ্ন, যে ভাষনের শেষে ছিল স্বাধীনতার ষ্পষ্ট ঘোষণা, যিনি এভাবেই শেষ করেছিলেন, "এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম"। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই ভাষন (UNESCO) ইউনেস্কো স্বীকৃতি দিয়েছে তাদের 'World's Documentary Heritage'এ। জাতির জনকের এই ভাষণকে স্বীকৃতি দেওয়ায় আমরা সংস্থাটির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

আলোচনা সভা পরিচালনা করেন  ডেপুটি কন্সু্ল জেনারেল আল-মামুন।

শোভাযাত্রায় অন্যানে্যর মধ্যে  উপস্হিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শামীম আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক তোফাজ্জল কাজল, যুগ্ম সম্পাদক দিদার আহমেদ, মহিলা আওয়ামী লীগের মনিকা, ক্যালিফোর্নিয়া টেষ্ট আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক সূবর্ন  নন্দী তাপস, সিটি আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক আলমগীর হোসেনসহ সিটি যুবলীগের অসংখ্য নেতাকর্মীসহ আওয়ামী পরিবারের অসংখ্য নেতা ও কর্মীবৃন্দ।

'জয় বাংলা' য় মুখরিত ছিল এক ঘন্টাব্যাপী পথ শোভাযাত্রা। স্বল্প সময়ের এই আয়োজনে বিশিষ্ট জনেরা বক্তব্য রাখেন। পথ শোভা যাত্রার বিশেষ আকর্ষণ ছিল বঙ্গবন্ধুর সেই ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক (১৯৭১ সনের) ভাষণ, যা আজ বিশ্ব নন্দিত, যা শোভা যাত্রাটির গুরুত্ব অনেক বৃদ্ধি করেছিল। যার উদ্যোক্তা ছিলেন স্টেট আওয়ামী যুগলীগের আহ্বায়ক সুবর্ন  নন্দী তাপস। সর্বাত্মক সহযোগিতায় ছিলেন ষ্টেট যুবলীগের সংগ্রামী যুগ্ম-আহ্বায়ক খন্দকার আহমেদ ইমু,  সিটি আওয়ামী যুব লীগের সংগ্রামী আহ্বায়ক আলমগীর হোসেনসহ যুবলীগের অসংখ্য নেতাকর্মী।


এলএবাংলাটাইমস/এলএ/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

রংপুরে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলার ঘটনায় বেঙ্গলী আমেরিকান হিন্দু সোসাইটির নিন্দা ও প্রতিবাদ

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-২৩ ০১:২৬:৫৫

বাংলাদেশের রংপুরে হিন্দুদের উপর হামলাকে পরিকল্পিত বলে আখ্যায়িত করেছে বেঙ্গলী আমেরিকান হিন্দু সোসাইটি। লস এঞ্জেলেসে সভা ও মানববন্ধন করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানিয়েছেন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। 

অমর হালদারের সভাপতিত্বে, পংকজ দাসের পরিচালনায় এবং বিপুল চৌধুরীর উপস্থাপনায় প্রতিবাদ সভায় হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান সকল ধর্মের অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী লিটল বাংলাদেশের কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়ে তীব্র নিন্দা জানান এবং ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সবধরনের ক্ষতিপুরনসহ দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক স্বাস্তী প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জনান।

প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত অনেকের মধ্যে প্রতিবাদী বক্তব্য রাখেন শ্রীনাথ বন্ধু বিশ্বাস, ফারুক খান, অসীম কুমার দাম, ডাঃ রবি আলম, হাবিবুর রহমান ইমরান, আলমগীর হোসেন, আশীষ নাথ, বাবুল হোসেন, আবু হানিফা, সাইফুল চৌধুরী, মিঠুন চৌধুরী, শংকর সরকার, নেপাল পাল, শ্যামল মজুমদার, নিত্যানন্দ কর্মকার, জাহিদ হাসান পিন্টু সহ আরও অনেকে। প্রধান বক্তা হিসেবে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন ডঃ সুকৃত মুখার্জি।

এতো অল্প সময়ের মধ্যে বিপুলসংখ্যক মানুষ উপস্থিত হয়ে প্রতিবাদ জনানোর জন্য সভাপতি অমর হালদার সবাইকে ধন্যবাদ জানান এবং ভবিষ্যেত যেন এধরনের সন্ত্রাসী ধটনা আর না ঘটে তার জন্য বাংলাদেশের জনগন ও সরকারের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রাখার জোর দাবী জনান।
উল্লেখ্য, ফেসবুকে ইসলাম ধর্মকে কটূক্তি করে পোস্ট করার অভিযোগ এনে গত ৫ নভেম্বর রংপুর সদর উপজেলার খলেয়া ইউনিয়নের শলেয়াশাহ গ্রামের স্থানীয় আলমগীর নামে এক ব্যবসায়ী গঙ্গাচড়া থানায় আইসিটি আইনে এ মামলা দায়ের করেন।  এ নিয়ে গত ১০ নভেম্বর (শুক্রবার) ঠাকুরবাড়ি গ্রামে স্থানীয় মুসল্লি ও গ্রামবাসীর সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে এক যুবক নিহত হন। এ ঘটনায় হিন্দু সম্প্রদায়ের আটটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ এবং ভাঙচুরসহ লুটপাট করা হয়।

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপি'র অফিস উদ্বোধন ও তারেক রহমানের জন্মদিন পালন

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-২২ ১০:২২:৪৮

জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির ক্যালিফোর্নিয়া শাখার উদ্যোগে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মদিন উদযাপিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে গত সোমবার সন্ধ্যায় লস এঞ্জেলেসে এক আলোচনা সভার আয়োজন করে সংগঠনটি। এতে তারেক রহমানের জন্মদিনের কেক কাটেন দলীয় নেতা-কর্মীরা।  এর আগে লস এঞ্জেলেসের  প্রাণকেন্দ্রে ফিতা কেটে ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির কার্যালয় উদ্বোধন করা হয়। লস এঞ্জেলেসে এটাই  বিএনপির প্রথম কার্যালয়।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্নিয়া শাখার সভাপতি শামসুজ্জোহা বাবলুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা শেষে জনাব তারেক রহমানের সুস্বাস্থ্য কামনা করা দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্নিয়া শাখার সভাপতি শামসুজ্জোহা বাবলু। পরে উপস্থিত সকল নেতা কর্মী ও শুভানুধ্যায়ীদের আপ্যায়ন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতি নিয়াজ মোহাইমেন, সাইফুল আনসারী চপল, আহসান হাফিজ রুমি, জুনেল আহমেদ, নুরুল ইসলাম, সবুর খান মামুন, মার্শাল হক, আফজাল হোসেন শিকদার, হাসানুজ্জামান মিজান, মিশর নুন, অপু সাজ্জাদ, শওকত হোসেন আনজিন, মোহাম্মদ মঞ্জু, আবুল হাসনাত মন্টু চৌধুরী, ইলিয়াস শিকদার, আমজাদ হোসেন, মোঃ রফিক, মেহেদী হাসান, আশরাফুল আলম হেলাল, এলেন ইলিয়াস খান, বাদল খান, মোহাম্মদ সেলিম রেজা পিন্টু, যুগ্ম সম্পাদক: ফারুক হাওলাদার, রনি জামান, মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান জুয়েল, আলমগীর হোসেন, আসাদুজ্জামান রাজু, দেলোয়ার চৌধুরী, সহ সাধারণ সম্পাদক: খন্দকার জাভেদ, হোসেন লিটু, শেখ সেলিম, হেলাল আহমেদ ভূইয়াঁ, মোহাম্মদ শাহানুর, মোহাম্মদ ফরিদ আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক: শাহাদাত হোসেন শাহীন, লোকমান হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক: নয়ন বড়ুয়া, দপ্তর সম্পাদক: আবু তাহের সাজু, সহ দপ্তর সম্পাদক: মোশাররফ হোসেন ইমন, কোষাধক্ষ্: মোঃ আব্দুল মান্নান, সহ কোষাধক্ষ্: আক্তার মাতুব্বর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: মোঃ শফিকুল ইসলাম পলাশ, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক: আবুল কায়সার, তত্ব ও প্রযুক্তি সম্পাদক: শাহ নেওয়াজ, সহ তত্ব ও প্রযুক্তি সম্পাদক: এ কে এম আসিফ, ক্রীড়া সম্পাদক: ইফতেখার হোসেন ফাহিম, যুব বিষয়ক সম্পাদক: কোহিনুর রহমান,  স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক: মেহেদী হাসান, শিক্ষা সম্পাদক: সাঈদ খান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক: হাফেজ মোহাম্মদ বেলাল, সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক: মাহতাব কবির ভূঁইয়া, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক: মোঃ মিজানুর রহমান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক: শাহনাজ বুলবুল, সহ সাংস্কৃতিক সম্পাদক: সোহেল মিয়া, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক:ফেরদৌস কবির সুজন, সহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক: রাজু ইসলাম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা: ফরিদা বেগম, সহ মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা: মনিরা মিজান, আইন বিষয়ক সম্পাদক: ওমর ফারুক,  সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক: সারোয়ার সুমন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদকঃ আবুল খায়ের, সহ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদকঃ ইয়াসির আরাফাত মুন্না, সমাজ কল্যাণ সম্পাদকঃ মোঃ খসরু রানা, সহ সমাজ কল্যাণ সম্পাদকঃ তানভীর আহমেদ প্রমুখ।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

লসএঞ্জেলেসে প্রথম বারের মত আওয়ামী যুবলীগের ৪৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্‌যাপন

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-১৫ ০৩:২২:১১

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে লসএঞ্জেলেসের লিটল বাংলাদেশে প্রথম বারের মত আওয়ামী যুবলীগের ৪৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদাপিত হয়। ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগ এবং শাখা সংগঠন ভ্যালী সিটি যুবলীগের উদ্দোগে ১১ নভেম্বর শনিবার বাংলাদেশ একাডেমী মিলনায়তনে আলোচনা ও সঙ্গীতানুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হয়।

সংগঠনের আহ্বায়ক সুবর্ন নন্দী তাপসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথী হিসাবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মুস্তাইন দারা বিল্লা, প্রধান বক্তা ছিলেন ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ রবী আলম, বিশেষ অতিথি ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি জনাব শাহিন মিজান ও ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের উপদেষ্টা তৌহিদুজ্জামান খান। এছাড়াও মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন স্বাধীনতা উত্তর বাংলা ব্যান্ড সঙ্গীতের জন্ম দাতা, সঙ্গীত বিপ্লবের নেতা ডাঃ নাসির আহমেদ অপু, ক্যালিফোর্নিয়া আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়কত্রয় খন্দকার ইমতিয়াজ আহমেদ ইমু, সাইদ ইকরামুল হক বাবু, শেখ পলাশ ও ভ্যালী সিটি আওয়ামী যুবলীগের আহ্বায়ক হাবীবুর রহমান ইমরান।

আলোচনা সভা চলাকালীন ঢাকা থেকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মন্‌জুর আলম শাহীন টেলিফোনে কেন্দ্রীয় যুবলীগের শুভেচ্ছা পাঠিয়ে বক্তব্য রাখেন। এবং নিউ ইয়র্ক থেকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক বাহার খন্দকার সবুজ শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। আলোচনা সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে পাঠ করেন নাজমুল হক সুজন ও পবিত্র গীতা থেকে পাঠ করেন শ্রীনাথ বন্ধু বিশ্বাস। বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় সঙ্গীত বাঁজিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করা হয়। তারপর জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার, আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা ও মুক্তিযুদ্ধের প্রধানতম সংগঠক শেখ ফজলুল হক মনিসহ মহান ভাষা আন্দোলন, ও মহান মুক্তিযুদ্ধ সহ নিপীড়িত বাঙ্গালীর অধিকার আদায়ের জন্য গড়ে ওঠা সমগ্র আন্দোলন সংগ্রামে নিহত সকল শহীদদের প্রতি এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

 সংগঠনের অপর যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল আলম চৌধুরীর পরিচালনায় লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশি কম্যুনিটি সংগঠকদের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশের ব্যান্ড সঙ্গীতের জনক ডাঃ নাসির আহমেদ অপু, লস এঞ্জেলেসে আনন্দমেলার উদ্যোক্তা ও চীফ কো অর্ডিনেটর খান মোহাম্মদ আলী, বেঙ্গলী আমেরিকান হিন্দু সোসাইটির সভাপতি অমর হালদার, ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও উপদেষ্টা সোহেল রহমান বাদল, সহ সভাপতি মেজবাহ খান ফারুক, ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহানা পারভিন ও সহ সভাপতি হাসিনা বানু, ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামী যুবলীগের উপদেষ্টা তওহীদুজ্জামান, যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার ইমতিয়াজ আহমেদ ইমু, সাইদ ইকরামুল হক বাবু ও শেখ পলাশ এবং ভ্যালী সিটি যুবলীগের আহ্বায়ক হাবীবুর রহমান ইমরান।

লস এঞ্জেলেস এ এই প্রথমবারের মত আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করা হয়। প্রথম বারের এই উদযাপনকে স্মরনীয় করে রাখার জন্যে ক্যালিফোর্নীয়া আওয়ামীলীগ তথা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগে গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখার জন্য এবং ক্যালিফোর্নীয়া আওয়ামী যুবলীগ গঠনে নজিরবিহীন ভূমিকা রাখার জন্যে যুক্ত রাষ্ট্র আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মুস্তাইন দারাবিল্লাকে এবং ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ডাঃ রবী আলমকে বিশেষ যুবসম্মাননা প্রদান করা হয়। একইসাথে শাখা সংগঠন হিসাবে লস এঞ্জেলেস সিটি যুবলীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়। আলমগীর হোসেনকে আহ্বায়ক ও বাবু ভুইয়াঁ ও বাবুল হোসেনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে এগার সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষনা করা হয়।

নবগঠিত লস এঞ্জেলেস সিটি যুবলীগের আহ্বায়ক আলমগীর হোসেন শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, লস এঞ্জেলেসের ঐতিহাসিক বৈশাখী মেলার অন্যতম আয়োজক কাজি মানিক ও কমরেড রব, আনন্দ মেলা আয়োজকদের অন্যতম শাহেদ খান ঢুলি, মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন আহমেদ, বিলকিস পারভিন, বিশিষ্ট চিকিৎসক ও ক্যালিফোর্নীয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের স্বাস্থ্য সম্পাদিকা ডাঃ মাহমুদা কলি, মহিলা সম্পাদিকা ও সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব শিউলি মিজান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিদার আহমেদ ও মহিলা আওয়ামীলীগের মনিকা আহমেদ, লস এঞ্জেলেস সিটি আওয়ামীলীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন টিপু, সাংবাদিক লেখক তপন দেব নাথ এবং বিশিষ্ট মুখাভিনেতা মশহুরুল হুদা, বিপুল চৌধুরী, রত্না পালসহ আরও অনেকে। সুখেন্দ্র পাল নিষ্ঠার সাথে সমগ্র অনুষ্ঠানটির ছবি ধারণ করে। আয়োজনের দ্বিতীয় পর্বে ছিল লস এঞ্জেলেসের জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী সোনিয়া খুকুর একক পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সঙ্গীতানুষ্ঠান। নৈশভোজে আপ্যায়নের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

বিস্তারিত খবর

লসএঞ্জেলেস সিটি যুবলীগের কমিটি গঠন

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-১৪ ০৮:৫৮:৩৪

গত ১১ ই নভেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট যুবলীগ এবং ভ্যালী যুবলীগের যৌথ উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত অনুষ্টানে লসএন্জেলস সিটি যুবলীগের একটি আহ্ববায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের আহ্বায়ক সুবর্ন নন্দী তাপস ও যুগ্ম-আহ্বায়ক খন্দকার ইমতিয়াজ আহমেদ ইমু , সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, সাইদ ইকরামুল হক বাবু ও শেখ পলাশ।

নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটির আহ্ববায়ক হয়েছেন আলমগীর হোসেন  ও যুগ্ন আহ্ববায়ক হয়েছেন বাবু ভূইয়া।

ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট যুবলীগের আহ্বায়ক সুবর্ন নন্দী তাপস এর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম-আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম চৌধুরীর পরিচালানায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের অন্যতম উপদেষ্টা মুস্তাঈন দ্বারা বিল্লাহ। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক জনাব ডাক্তার রবি আলম।

অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহীন মিজান, ক্যালিফোর্নিয়া যুবলীগের সম্মানিত উপদেষ্টা তৌহিদুজ্জামান খান ও ভ্যালী যুবলীগের আহ্বায়ক হাবীবুর রহমান ইমরান। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী ও স্বাধীনতার পক্ষের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী।

বিস্তারিত খবর

রোহিঙ্গাদের জন্য লস এঞ্জেলেসে বিবিএফএর ফান্ড রাইজিং

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-১৩ ১৭:৫০:৫৬

লস এঞ্জেলেসের আর্টেসিয়ায় বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সহায়তার জন্য অর্থ সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ ব্রেস্টফিডিং ফাউন্ডেশন (বিবিএফ)। গত ১০ নভেম্বর শুক্রবার স্থানীয় লিটল ঢাকা রেস্টুরেন্টে  এ উপলক্ষে এক ফান্ড রাইজিং ডিনার অায়োজন করেন বিবিএফ-এর আমেরিকান এম্বাসেডর ও ইউরোপের কয়েকটি দেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তি শাহানা পারভিন। তিনি তাঁর ফ্রেন্ড ও ফ্যামিলি মেম্বারদের নিয়ে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। 

এসময় রোহিঙ্গাদের সহায়তার জন্য ৫ হাজার ৪ শ ডলার তহবিল সংগৃহিত হয়। অনুষ্ঠানে সহযোগিতা করেন শাহানা পারভিনের স্বামী প্রকৌশলী শফিক রহমান ও লিটিল ঢাকা রেস্টুন্ট।

অনুষ্ঠান পরিচালনায় শাহানা পারভিন সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। এসময় তিনি  বাংলাদেশ ব্রেস্টফিডিং ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন কার্যক্রমের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে শিশুদের মাতৃদুগ্ধ পান করার বিষয়ে সচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে ১৯৮৯ সালে বাংলাদেশ ব্রেস্টফিডিং
ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু হয়।  তাছাড়া, বাংলাদেশের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সচেতনতামূলক বিভিন্ন আন্দোলনেও সংগঠনটির অংশগ্রহণ রয়েছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিবিএফের কার্যক্রম অত্যন্ত গতিশীলতার সাথে চলমান রয়েছে। গ্রামের মায়েদের স্বাস্থ্য সচেতনতা, নবজাতকের স্বাস্থ নিয়ে কাজ করছে তারা। এসময় তিনি বলেন, ইউনেস্ক বলে থাকে জন্মের পর শিশুদের শাল দুধ খাওয়ার প্রয়োজন নেই। বাস্তবে শালদুধ নবজাতকের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শাল দুধ শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি সহ আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।


ফান্ড রাইজিং সম্পর্কে তিনি বলেন, বর্তমানে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিবিএফের ৪টি টিম কাজ করছে। এখানে আমরা আজ ৫ হাজার ৪০০ ডলার সংগ্রহ করেছি, অতিশীঘ্রই আমরা একটা টিম নিয়ে বাংলাদেশে যাব। সেখানে গিয়ে রোহিঙ্গাদের জন্য এই সহায়তা দেওয়া হবে।


অনুষ্ঠান শেষে অতিথিদের জন্য ডিনারের ব্যবস্থা করা হয়। ডিনার শেষে গান পরিবেশন করেন জনপ্রিয় শিল্পী সাদিয়া রহমত উল্লাহ শিম্মী, তরুণ প্রজন্মের প্লে-বেক শিল্পী আদনান খান।

শাহানা পারভিনের দেশের বাড়ি রংপুরের কুড়িগ্রামে। সেখানেও তিনি প্রতি বছর নিজ উদ্যোগে এলাকার দরিদ্র মানুষদের নানা সহযোগিতা করেন বলে জানান।

বিস্তারিত খবর

৪র্থ বর্ষে ‘এলএ বাংলাটাইমস’ : স্বপ্ন আমাদের বহুদূর

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-১০ ১৩:৫৯:৫৪

আজ ১০ নভেম্বর ৪র্থ বর্ষে পা রাখলো ‘এলএ বাংলাটাইমস’।  ‘সত্যের সাথে প্রবাসীদের পাশে’ এই স্লোগানকে ধারণ করে ২০১৪ সালের ৯ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিম উপকূলীয় অঞ্চল ক্যালিফোর্নিয়ার লস এঞ্জেলেস থেকে যাত্রা শুরু হয় ‘এলএ বাংলাটাইমস’-এর। হাঁটি হাঁটি পা পা করে এটি এখন এখানকার প্রবাসী বাংলাদেশিদের মুখপত্রে রূপ নিয়েছে। এজন্য এলএ বাংলাটাইমস’ পরিবার যেমন গর্বিত তেমনি কৃতজ্ঞ লস এঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশি কমিউনিটি ও দেশ-বিদেশের অগণন পাঠকের কাছে। যাদের ভালোবাসা এবং সহযোগিতায় ‘এলএ বাংলাটাইমস’ এতদূর এগিয়ে এসেছে।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সবময় ‘এলএ বাংলাটাইমস’ প্রবাসীদের সুখ-দুঃখ, আনন্দ-বেদনা, জীবনযাত্রা, সমস্যা-সম্ভাবনা ও প্রবাসীদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সংবাদ ও ফিচার প্রচার করতে সচেষ্ট ছিল। এতে বাংলাদেশসহ বহির্বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা প্রবাসীদের সাথে একটি মজবুত সেতুবন্ধন গড়ে ওঠে। এর মাধ্যমে দেশ-বিদেশে ব্যাপক জনপ্রিয়তাও লাভ করে পোর্টালটি। তাই এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয় “সেতুবন্ধনের ৩ বছর”।

৩ বছরের দীর্ঘ এই পথ পরিক্রমায় সঞ্চিত আছে নানা উপাখ্যান। যেমন আছে আনন্দের স্মৃতি তেমনি আছে অনেক তিক্ত অভিজ্ঞতা। ফেলে আসা সময়গুলোতে অনেক বাধা-বিপত্তিও পাড়ি দিতে হয়েছে ‘এলএ বাংলাটাইমস’কে। তবুও সবসময় আমাদের পাশে যারা ছিলেন সবার প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞতা। আনন্দঘন এই দিনে সবার প্রতি আমাদের প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

পেছন ফিরে দেখা :
দীর্ঘদিন ধরে লস এঞ্জেলেস তথা ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাস করে আসছেন বাংলাদেশী প্রাবাসী ও অবিভাসীরা। সময়ের পরিক্রমায় এখানে গড়ে উঠেছে এক বিশাল কমিউনিটি। দৈনন্দিন জীবনযাপনে এখানকার প্রবাসীরা গড়ে তুলেছেন নিজস্ব জীবনপদ্ধতি। দেশীয় কৃষ্টির আদলে গড়ে উঠেছে একটি সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডল। যাকে কেন্দ্র করে বসবাস করছেন প্রায় ৫০ হাজার বাংলাদেশী।

প্রবাসীরা এখানে পড়ালেখা, চাকুরি ও ব্যাবসা-বণিজ্যসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সব সেক্টরে অংশগ্রহণ করছেন সাফল্যের সাথে। এখানকার প্রকৃতি, পরিবেশ, জীবনপদ্ধতির অনুসরণ করে নিজস্ব একটি ধারা তৈরী করে ফেলেছেন বাংলাদেশীরা। তাই মার্কিন এই সমাজেও স্বত:স্ফুর্ত ও স্বাভাবিকভাবে বাস করছেন তারা। বসবাসের এই ধারাবাহিকতায় এখানে গড়ে উঠেছে অসংখ্য শিক্ষা, সামাজিক, সাংস্কৃতি, ক্রীড়া এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন। তেমনি গণযোগাযোগের জন্যও প্রতিষ্ঠিত হয়েছে একাধিক গণমাধ্যমের। যা দেশের সাথে প্রবাসীদের একটি যুগসূত্র তৈরী করে দিয়েছে। তেমনি প্রবাসী কমিউনিটির সকল সংবাদ প্রকাশ ও তথ্য সরবরাহে ভূমিকা রাখছে। ‘এলএ বাংলা টাইমস’ সেই ধারাবাহিকতারই একটি প্রয়াস।

বিশিষ্টজনের শুভেচ্ছা :
‘এলএ বাংলাটাইমস’র ৩য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শু‌ভেচ্ছা জানিয়েছেন দেশ-বিদেশের  বি‌ভিন্ন শ্রে‌ণি পেশার অসংখ্য মানু‌ষজন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে; ‘এলএ বাংলাটাইমস’কে ভিডিওবার্তায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন গণপ্রজান্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মোহিত এমপি ও কেপিসি গ্রুপের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট সমাজসবেক ডা. কালীপ্রদীপ চৌধুরী। এছাড়াও প্রবাসী কমিউনিটির বিভিন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং সংগঠনও এলএ বাংলাটাইমসের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

গতকাল ৩য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন ব্যক্তি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টসহ বিভিন্ন মাধ্যমে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এর আগেও ১ম ও ২য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মার্কিন সিনেটর, কংগ্রেসম্যান, এলএ সিটি মেয়র, এলএ সিটি কাউন্সিল প্রেসিডেন্ট এবং ক্যা‌লি‌ফো‌র্নিয়া স্টেট কন্ট্রলারসহ বিশিষ্টজনদের শুভেচ্ছায় ধন্য হয়েছে এলএ বাংলাটাইমস পরিবার। এরকম গু‌ণিজ‌নের শুভেচ্ছা পে‌য়ে এলএ বাংলাটাইমস পরিবার আন‌ন্দিত ও গ‌র্বিত। সবার এমন ভা‌লোবাসায় এলএ বাংলাটাইমস অ‌নেক দূর এ‌গি‌য়ে যেতে দৃঢ় প্রত্যয়ী।

স্বপ্ন আমাদের বহুদূর :
৩ ছর ধরে একটি নিউজপোর্টাল ধারাবাহিকভাবে পরিচালিত হয়ে আসা নিশ্চয়ই সামান্য কথা নয়। এই যাত্রা যেমন ছিল সুখকর, আনন্দঘন ও উপভোগ্য তেমনি কিছু বাঁধা-বিপত্তিও ছিল যাত্রা পথে। কিন্তু আমাদের সংকল্পের দৃঢ়তা এবং সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য উদ্দেশ্য আমাদেরকে বিপথগামী করেনি। বিশ্বব্যাপী কমিউনিটির মুখ উজ্জ্বল করতে আমরা ছিলাম প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। তাই দুই বছরে সাফল্যের অনেক চিহ্ন রেখেছে এলএ বাংলা টাইমস। বছরব্যাপী কমিউনিটির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ ও তথ্য নিরেপেক্ষতার সাথে সবার সামনে তুলে ধরেছে। তাই সর্বমহলে প্রসংশিত হয়েছে এলএ বাংলা টাইমস। এজন্য আমরা সবার প্রতি কৃতজ্ঞ। আশা করি, সবার সেই সহযোগিতা ও আন্তরিকতা অব্যাহত থাকবে আগামী দিনগুলোতেও।

আমরা সব সংকীর্ণতাকে পিছনে ফেলে একটি মসৃন গতি নিয়ে এগিয়ে যেতে চাচ্ছি। তবুও নানা সীমাবদ্ধতার কারণে ইচ্ছে থাকা সত্বেও অনেক কিছু করা সম্ভব হয় না। তবে আমরা সবসময় সত্য, ন্যায়, সামজিকতা ও মানবতার দিক বিবেচনা করে কাজ করতে চেষ্টা করছি। সব ধরণের হিংসা-বিদ্বেষ, হানাহানি, গ্রুপিং থেকে আমরা নিজেদের সরিয়ে রাখতে চেষ্টা করি। একটি সুন্দর সমাজ ও সম্প্রীতিপূর্ণ কমিউনিটি গড়ার কাজে আমরা সবার সহযোগী হতে চাই।

৩ বছরে আমাদের অর্জন :
গত ৩ বছরে  ‘এলএ বাংলাটাইমস’ অর্জন করেছে বেশ কিছু সাফল্যের স্মারক। কমিউনিটির শ্রেষ্ঠ মিডিয়া হিসেবে স্বীকৃতি, কমিউনিটির সকল সামাজিক কাজে অংশগ্রহণ এবং প্রবাসীদের স্বার্থে সব কাজে অগ্রবর্তী কিংবা সহযোগী ছিলো  ‘এলএ বাংলাটাইমস’। কমিউনিটির প্রায় সকল আয়োজনে মিডিয়া পার্টনার হিসেবেও তাই সবাই এলএ বাংলাটাইমসে গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করেছেন। এজন্য প্রবাসী কমিউনিটিসহ দেশ-বিদেশের অসংখ্য পাঠকের ভালোবাসায় ধন্য ‘এলএ বাংলাটাইমস’ পরিবার।

রমজান মাসে ইফতার মাহফিল আয়োজন এবং বিভিন্ন দিবসের আয়োজনসহ নানাবিধ সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করে আসছে  ‘এলএ বাংলাটাইমস’। দেশে চ্যারিটির কাজ করার জন্য গত ২য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান বাদ দেওয়া হয়। এরপর সিইও আব্দুস সামাদ দেশে গিয়ে বেশকিছু প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করেন। এর আগে ১ম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে একটি ঝমকালো অনুষ্ঠান ছিলো  ‘এলএ বাংলাটাইমস’র জন্য একটি মাইলফলক। যেটি অনুষ্ঠিত হয়েছিলো লস এঞ্জেলেসের শ্যাটো রিক্রিয়েশন সেন্টারে। যেখানে বাংলাদেশ থেকেও এসেছিলেন গণ্যমান্য অতিথিরা।

সিইও’র শুভেচ্ছা :
‘এলএ বাংলাটাইমস’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে প্রবাসী কমিউনিটিসহ দেশ-বিদেশের সকল পাঠক ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পোর্টালের সিইও আব্দুস সামাদ। তিনি এক শুভেচ্ছা বার্তায় বলেন, অসংখ্য পাঠকের ভালোবাসা এবং কমিউনিটির সবার সহযোগিতায় আমরা এতদূর এগিয়ে এসেছি। এর পুরো কৃতিত্ব আমি উৎসর্গ করছি আমাদের সকল পাঠকদেরকে। দিনদিন এরকম ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পদক্ষেপে এগিয়ে যাচ্ছে ‘এলএ বাংলাটাইমস’। তবে সেই যাত্রা অব্যাহ রাখতে প্রয়োজন আপনাদর আন্তরিকতাতও  ভালোবাসা। আশা করি আমরা সেই ভালোবাস ও সহযোগিতা সবসময় সাথে পাবো।


এলএবাংলাটাইমস/এলএ/এলআরটি   



বিস্তারিত খবর

আজ ‘এলএ বাংলাটাইমস’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী : সেতুবন্ধনের ৩ বছর

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-০৯ ১৫:৪৮:৪৬

আজ ৯ নভেম্বর ‘এলএ বাংলাটাইমস’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিম উপকূল থেকে প্রকাশিত সর্বাধিক জনপ্রিয় এই বাংলা অনলাইন নিউজপোর্টালটি ৩ বছর অতিক্রম করল। ২০১৪ সালের এই দিনে ‘সত্যের সাথে প্রবাসীদের পাশে’ এই স্লোগানকে ধারণ করে  আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছিল ‘এলএ বাংলাটাইমস’। 
দেশ-বিদেশের অগণিত পাঠকের ভালোবাসায় হাঁটিহাঁটি পা পা করে আগামীকাল ৪র্থ বর্ষে পদার্পন করবে পোর্টালটি। 
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই শুভ লগ্নে আমাদের সকল লেখক, পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা, শুভাকাঙ্ক্ষী, শুভানুধ্যায়ীসহ সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বাংলাদেশি ও বাংলা ভাষাভাষীদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও প্রাণঢালা অভিনন্দন।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই আমরা প্রবাসীদের সুখ-দুঃখ, আনন্দ-বেদনা, জীবনমান, সমস্যা-সম্ভাবনা ও প্রবাসীদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সংবাদ ও ফিচার প্রচার করতে সচেষ্ট ছিলাম। এতে বাংলাদেশসহ বহির্বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা প্রবাসীদের সাথে একটি মজবুত সেতুবন্ধন গড়ে ওঠে । তাই এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আমরা প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছি “সেতুবন্ধনের ৩ বছর”।
আমরা আশা করি, সবার সহযোগিতা ও ভালোবাসায় আরও অনেকদূর এগিয়ে যাবো। সবাইকে ধন্যবাদ। সাথে থাকুন। 
 ৪র্থ বর্ষে পদার্পন উপলক্ষে আগামীকাল পড়ুন আমাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর বিশেষ প্রতিবেদন।

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্র পশ্চিমাঞ্চল মহিলালীগের নতুন কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-০৮ ১৪:৩২:৩১

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র পশ্চিমাঞ্চল আওয়ামী মহিলালীগের (একাংশ) নতুন কমিটি বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামী মহিলালীগের অনুমোদন লাভ করেছে। এ উপলক্ষে গত রবিবার ৫ নভেম্বর লস এঞ্জেলেসের অদূরে রেডল্যান্ড সিটিতে অনুমোদিত নতুন কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয় ৷ নবগঠিত এই কমিটির সভাপতি ডাঃ কমল কলি হোসেন (রূবী) তার পূর্ণাঙ্গ কমিটির সদস্যদের পরিচয় করিয়ে দেন ৷ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া এস্টেট আওয়ামিলীগের সভাপতি শফিকুর রহমান, সহসভাপতি জাকির খান, যুবলীগ এস্টেট সভাপতি কামরুল হাসান, এস্টেট সেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি শাহ আলম চৌধুরী,  এস্টেট যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সোহেল আহমেদ, এস্টেট যুবলীগের নেতা আজিজ আহমেদ ও আফরোজ আলম রুবেল আহমেদ প্রমুখ ৷ অনুষ্ঠানে নেতৃবৃন্দ আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতি ডাঃ কমল কলি হোসেন (রূবী)’র নেতৃত্বে অত্রাঞ্চলে মহিলালীগের কার্যক্রম আরো বেগবান হবে। এসময় সবাই দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার অঙ্গীকার করেন ৷   অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের জন্য ডাঃ রূবী নৈশ ভোজের ব্যবস্থা করেন ৷

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেসে জেল হত্যা দিবস পালিত

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-০৮ ১৪:১৭:৩৩

বাংলাদেশের ইতিহাসে এক কলংক ও শোকের অধ্যায় হচ্ছে জাতীয় চার নেতার জেল হত্যা। সেদিন জেলের নিরাপত্তার বেষ্টনী ভেঙ্গে খুনি মোস্তাক বাহিনী জাতীয় চার নেতাকে জেল খানায় হত্যা করে জাতিকে মেধা শুন্য করতে চেয়েছিল। বছরের পরিক্রমায় আবারও ফিরে এলো দিনটি। সেই দিন স্মরণে লস এঞ্জেলেসে ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, মহিলালীগ ও শ্রমিক লীগের যৌথ উদ্যোগে জাতীয় জেল হত্যা দিবস পালিত হয়েছে। গত ৪ নভেম্বর স্হানীয় বাংলাদেশ একাডেমী মিলনায়তন এই অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাওলানা আব্দুল হক, ত্রিপিটক পাঠ করেন লিপু বড়ুয়া, বাইবেল থেকে পাঠ করেন এন্টোনি গোমেজ। মাওলানা আব্দুল হক বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবার সহ প্রয়াত জাতীয় চার নেতার আত্মার মাগফেরাত এবং দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় দোয়া পরিচালনা করেন। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি জাকির খান, ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট যুবলীগ সভাপতি কামরুল হাসান, সহ-সভাপতি আজিজ মুহাম্মদ হাই, ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি শাহ আলম চৌধুরী, সহ-সভাপতি আমির হোসেন সর্দার, সাংগাঠনিক সম্পাদক আরেফিন বাবলু, ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট মহিলালীগ সভানেত্রী ডাক্তার কমল কলি রুবী হোসেন, বিশিষ্ট   মুক্তিযোদ্ধা ডাক্তার মোয়াজেম হোসেন, কমিউনিটির সর্বজন শ্রদ্ধেয় কমিউনিটি লিডার মমিনুল হক বাচ্চু। সকলের তাদের বক্তব্যে প্রয়াত জাতীয় চার নেতার কর্মময় জীবনের স্মৃতিচারন করেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক হিসেবে তাদের ভূমিকা তুলে ধরেন। এবং স্বাধীনতা পরবর্তী জীবনের স্মৃতিচারন করেন। অনুষ্টানে উপস্হিত ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট আওয়ামী লীগ, যুবলীগ,স্বেচ্ছাসেবকলীগ, মহিলালীগ, শ্রমিক লীগের সকল স্তরের নেতৃবৃন্দ ও মিডিয়া ব্যক্তিত্বসহ স্বাধীনতার স্বপক্ষের সর্বসাধারণ। অনুষ্ঠানে সভাপাতিত্ব করেন ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট আওয়ামীলীগের সম্মানিত সভাপতি শফিকুর রহমান। সভাপতি তার সমাপনী বক্তব্যে প্রয়াত জাতীয় চার নেতার কর্মময় জীবনের স্মৃতিচারন করেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক হিসেবে তাদের ভূমিকা তুলে ধরেন। এবং স্বাধীনতা পরবর্তী জীবনের স্মৃতিচারন করেন।উপস্হিত সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান অনুষ্টানে উপস্হিত হবার জন্য।
অনুষ্টান পরিচালনা করেন ক্যালিফোর্নিয়া স্টেইট আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলী আহমেদ ফারিস, সহযোগিতায় ছিলেন  স্বেচ্ছাসেবকলীগের যীশু বড়ুয়া।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি  

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেসে বিএনপির উদ্যোগে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত

 প্রকাশিত: ২০১৭-১১-০৮ ১২:৩১:২৭

ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বর 'জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস' উপলক্ষ্যে লস এঞ্জেলেসের প্রবাসী বাংলাদেশী অধ্যুষিত 'লিটিল বাংলাদেশে' ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি আয়োজিত এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ৭ নভেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা, বুদ্ধিজীবী, ছাত্র, ব্যবসায়ী, শিক্ষক, আইনজীবী, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ছাড়াও বিএনপি'র বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মীগণ ও সাধারণ প্রবাসীরা উপস্হিত ছিলেন। আলোচনা সভার সভাপতিত্ব করেন ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সভাপতি জননেতা মো: আ: বাছিত এবং সঞ্চালনা করেছেন ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম চৌধুরী শিপ্‌লু। এদিন বিএনপির সভায় সদ্য প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি আবদুর রহমান বিশ্বাস ও সাবেক মন্ত্রী এমকে আনোয়ারের রূহের মাগফিরাত কামনায় বিশেষ দোয়া ও মুনাজাত করা হয়েছে।

আলোচনা পর্বে ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সভাপতি মো: আ: বাছিত বলেন, ১৯৭৫ সালের এই দিনে আধিপত্যবাদী চক্রের সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে আমাদের জাতীয় স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্র রার দৃঢ় প্রত্যয় বুকে নিয়ে সিপাহী-জনতা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে রাজপথে নেমে এসেছিল। তাদের ঐক্যবদ্ধ বিপ্লবের মাধ্যমেই রক্ষা পায় সদ্য অর্জিত বাংলাদেশের স্বাধীনতা। কয়েকদিনের দুঃস্বপ্নের প্রহর শেষে সিপাহী-জনতা ক্যান্টনমেন্টের বন্দিদশা থেকে মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্র ও বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের  প্রবর্তক, স্বনির্ভর বাংলাদেশের স্বপদ্রষ্টা এবং বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সফল রাষ্ট্রনায়ক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বীর উত্তমকে মুক্ত করে দেশ পরিচালনার গুরুদায়িত্ব অর্পণ করে। তাই ৭ নভেম্বর আমাদের জাতীয় জীবনের এক অনন্য ঐতিহাসিক তাৎপর্যমন্ডিত দিন।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম চৌধুরী শিপ্‌লু বলেন, সিপাহী-জনতার বিপ্লবের মাধ্যমেই এ দেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হয়েছিল। চালু হয়েছে বহুদলীয় গণতন্ত্র। বন্ধ হয়েছে একদলীয় বাকশালী শাসনব্যবস্থা। এর সুফল এখন আওয়ামী লীগসহ সকল রাজনৈতিক দলগুলো পাচ্ছে। আজ ইনু সাহেবরা বড় বড় কথা বলেন, একদলীয় বাকশাল সরকার থাকলে তারাও এদেশে রাজনীতি করার সুযোগ পেতেন না। মন্ত্রী হতে পারতেন না। তিনি আরো বলেন, সরকার জানে এদেশের মানুষ তাদের ভোট দিবে না। তাই তারা ৫ জানুয়ারির মতো যেনতেন প্রহসনের ভোটারবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। কিন্তু তাদের এ উদ্দেশ্য সফল হবে না। এদেশের মানুষ আবার তাদের ভোটের অধিকার ফিরে পেতে বিএনপিকেই ভোট দিবে।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র যুগ্ম-সম্পাদক সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল বলেন, এ সরকার পুলিশের ভয় দেখিয়ে ক্ষমতাকে দীর্ঘ করতে চায়। কিন্তু এদেশের মানুষ আওয়ামী লীগকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। পুলিশের উদ্দেশ্যেও আমরা বলতে চাই, দেশনেত্রীর গাড়িবহরে হামলা করল আওয়ামী লীগ আর আপনারা মামলা দিলেন বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে। যারা এ ধরনের কাজ করছেন তাদেরও বিচার এদেশে একদিন হবেই। আর দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, আপনারা ঐক্যবদ্ধ হন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি ক্ষমতায় আসবেই।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ খান বলেন, ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর সিপাহী-জনতার সম্মিমিলিত বিপ্লবে নস্যাৎ হয়ে গিয়েছিল স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব বিরোধী ষড়যন্ত্র। আধিপত্যবাদ ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তির আগ্রাসন থেকে রা পায় বাংলাদেশ। এদিন সিপাহী-জনতা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ঢাকা সেনানিবাসের বন্দিদশা থেকে মুক্ত করে এনেছিল তৎকালীন সেনাপ্রধান ও স্বাধীনতার ঘোষক মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমানকে। ৭ নভেম্বরের ঘটনা এক বিরল ও অনন্যসাধারণ ঘটনা। স্বাধীনতা আর সার্বভৌমত্ব রার শপথে দৃপ্ত কোটি মানুষের মিছিলের দিন ৭ নভেম্বর। ঐতিহাসিক বিপ্লব সফল না হলে জাতি হিসেবে আমরা আবার পরাধীন হয়ে থাকতাম।

ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসের আলোচনায় অংশ নিয়ে ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির নেতৃবৃন্দরা বলেন, যতোদিন এই দেশ থাকবে ততোদিন মানুষের অন্তরে বেঁচে থাকবেন শহীদ জিয়াউর রহমান। এদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন শহীদ জিয়া। একনায়কতন্ত্রে বিশ্বাসীদের কাছে ও আধিপত্যবাদীদের কাছে এক আতংকের নাম দেশপ্রেমিক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান। আর তাই শহীদ জিয়ার পরিবারের প্রতি বর্তমান অবৈধ আওয়ামী সরকারের এতো জুলুম ও নির্যাতন। তবে জাতীয়তাবাদী চেতনায় উদ্বুদ্ধ দেশপ্রেমিক মানুষ বিএনপির পতাকাতলে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আছে। আগামী দিনে নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের মাধ্যমে দেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও সাধারণ মানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিত করা হবে। একদলীয় বা একতরফা নির্বাচনে আর কোনভাবেই পার হতে দেওয়া হবে না বলে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারন করেন নেতৃবৃন্দ।

৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসের আলোচনা সভায় উপস্হিত ছিলেনঃ মোঃ আঃ বাছিত, মোঃ হান্নান, সরোয়ার আহমদ, মানিক চৌধুরী, মুর্শেদুল ইসলাম, বদরুল আলম চৌধুরী শিপ্‌লু, আবু তাহের সাজু, ফারুক সরকার, এ আর মাহবুবুল হক, জহিরুল কবীর হেলাল, অপু সাজ্জাদ, মিশর নুন, মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল, সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল, লায়েক আহমেদ, বদরুল আলম মাসুদ, মারুফ খান, ইলিয়াস মিয়া, শাহতাব কবীর ভূইয়া শান্ত, শাহীন হক, হোসেন আহমেদ, মিয়াকেল খান রাসেল, মিজানুর রহমান, আমজাদ চৌধুরী দুলাল, রেজাউল হায়দার চৌধুরী, নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী, মিল্টন খান, জাভেদ বখ্‌ত, খসরু রানা, ফয়সাল সিদ্দিক, খোরশেদ আলম রতন, রুহুল আমিন বাবু, জিল্লুর রহমান চৌধুরী, আবুল মোতালেব, সাজ্জাদ পারভেজ, হেলাল মজুমদার, ইসলাম উদ্দিন, জুনেল আহমদ, শাহেদ আহমদ, তানভীর আহমেদ, শাহানুর কবীর ভূইয়া, আবদুল হাকিম, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, আবু তাহের সাজু, ফুয়াদ, নুর, মঈনুল আহমেদ, সামসুল ইসলাম, ফারুক সরকার, রেজাউল করিম জামিল, এহসান হক, ওমর ফারুক, কামাল হোসেন, আবদুল কাদির, নজরুল ইসলাম, ইহসান আহমেদ,হুমায়ূন কবীর, নাসের, রাশেদ, কবীর প্রমুখ।

এলএবাংলাটাইমস/এল/এলআরটি

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত