যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ০৮ এপ্রিল, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 02:34pm

|   লন্ডন - 09:34am

|   নিউইয়র্ক - 04:34am

  সর্বশেষ :

  ১১ সপ্তাহ লকডাউনের পর উন্মুক্ত উহান   যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১৯৭০ জনের প্রাণহানি   ‘ওয়াইএমসিএ’র ছাঁটাইকৃত কর্মীদের চাকরির ঘোষণা দিলেন লস এঞ্জেলেস মেয়র   করোনা ঠেকাতে বাধ্যতামূলক মাস্ক পড়ার নিয়ম করল সান বার্নার্ডিনো কাউন্টি   করোনায় কমেছে লস এঞ্জেলেসের সকল প্রকার অপরাধঃ এলএ পুলিশ চীফ   কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৬৯; আক্রান্ত ৬ হাজার ৯১০   গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ জেলা লকডাউন   বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের নাতি ছাত্রলীগের সেক্রেটারি   পুলিশের মহাপরিদর্শক হচ্ছেন বেনজীর, র‌্যাব মহাপরিচালক মামুন   করোনাভাইরাস: বিশ্বব্যাপী সুস্থ হয়ে উঠেছে ৩ লাখ মানুষ   ফ্রান্সে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়ালো   নিউইয়র্কে মর্গে জায়গা নেই, ফ্রিজে লাশ রাখার সিদ্ধান্ত   সিঙ্গাপুরে একদিনে ৪৭ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত   বিশ্বনবীর মিম্বর থেকে করোনা নিয়ে যা বললেন শাইখ সুদাইস   এখন থেকে লস এঞ্জেলেসের যে কোন বাসিন্দা করোনা টেস্ট করাতে পারবে

>>  লস এঞ্জেলেস এর সকল সংবাদ

‘ওয়াইএমসিএ’র ছাঁটাইকৃত কর্মীদের চাকরির ঘোষণা দিলেন লস এঞ্জেলেস মেয়র


পুরো লস এঞ্জেলেস জুড়ে চলছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের ভয়ানক সংক্রমণ। প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বাড়ছে ভাইরাসটিতে সংক্রমিত ও মৃত লোকের সংখ্যা।


আর এই ভয়াবহ পরিস্থিতি সামাল দিতে রাত দিন কাজ করে যাচ্ছে লস এঞ্জেলস মেয়র এরিক গারসেট্টি।

বিস্তারিত খবর

করোনায় কমেছে লস এঞ্জেলেসের সকল প্রকার অপরাধঃ এলএ পুলিশ চীফ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ২০:৪৪:৩৬


প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে পুরো লস এঞ্জেলেস জুড়ে অপরাধের পরিমাণ কমেছে। গতকাল সোমবার এমন দাবি করে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি পুলিশ প্রধান মিশেল মুর। 


কাউন্টি পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়, সামগ্রিকভাবে লস এঞ্জেলেসের সংগঠিত অপরাধের চিত্র ২৩ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। গত মাসের অপরাধমূলক কাজের সাথে তুলনায় করে এমন তথ্যন জানায় পুলিশ বিভাগ। 

তবে মুর বলেন, সকল ধরণের অপরাধের মাত্রা কমলেও এখনো পর্যন্ত অটো চুরির সংক্রান্ত অপরাধ আগের মতোই আছে। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটির প্রভাব তাদের উপর পড়েনি। 

সেইসাথে গত মার্চ মাস থেকে শুরু হওয়া সামাজিক-দূরত্ব ও বাড়িতে থাকার নির্বাহী আদেশও এই ক্ষেত্রে কাজ করেছে বলে জানান তারা। এ সমস্ত ব্যবস্থা শুরু হওয়ার পর থেকে এই শহরে প্রায় প্রতিটি অপরাধ যথেষ্ট পরিমাণে হ্রাস পেয়েছে। পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে এমনটা দাবি করা হয় সংবাদ সম্মেলনে। 

মুর বলেন, ট্রাফিক সংঘর্ষ ও ট্রাফিক সম্পর্কিত অপরাধ যেমন ডিইউআই এবং হিট-এন্ড-রান সংক্রান্ত ঘটনাগুলোও হ্রাস পেয়েছে। ঘটেছে। রাস্তায় যানজট কম থাকায় আরও বেশি গতি বৃদ্ধি পেয়েছে। 

তবে একটা বিষয়ে উদ্বেগ রয়েছে বলে জানান তারা। লোকেরা বাড়িতে বেশি থাকায় পারিবারিক সহিংসতা বাড়তে পারে, এমন আশঙ্কা করছেন পুলিশ। অবশ্য এখনও পর্যন্ত এমনটি হয়নি। 

গত বছরের একই সময়ের তুলনায় এখন পারিবারিক সহিংসতা ১১ শতাংশ কমেছে। তবুও, তিনি সহিংসতা ক্ষতিগ্রস্থদের মনে করিয়ে দিয়েছিলেন যে এখনও আশ্রয়কেন্দ্র এবং পরামর্শ সেবা রয়েছে।

/এলএ বাংলা টাইমস/ 

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৬৯; আক্রান্ত ৬ হাজার ৯১০

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ১৯:৪১:১৮


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসে) লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪৭ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় মরণব্যাধী এই ভাইরাসে নতুন করে প্রাণ হারায় ২২ জন।


প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৩৬০ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হন ৫৫০ জন। 

এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন ২১৩ জন ও পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্ত হন ৫৮ জন। লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বেড়ে চলছে।

খুব দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত মারা যায় ১৮ জন। অবশ্য গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে মৃতের খবর পাওয়া যায়নি।

আজ মঙ্গলবার কাউন্টিতে ভাইরাসটি সংক্রমণের এই সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে এলএ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগ। গতকাল সোমবারের সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য পরিচালক জানান, লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে এই সপ্তাহে মৃতের হার বেড়েছে। এই সপ্তাহে মৃতের হার ২.৩ শতাংশ। অবশ্য গত সপ্তাহে এই হার ছিল ১.৮ শতাংশ।   


সম্প্রতি বারবারা জানান, এলএ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৬৭টি প্রতিষ্ঠান নিয়ে কাজ করছে তারা। এর মধ্যে নার্সিংহোম, পুলিশ বিভাগ, জেলখানা থেকে শুরু করে রয়েছে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান। 

তাছাড়া, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে ক্যালিফোর্নিয়াতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ হাজার ৪৬০ জন। আর ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারান ৪৩৪ জন। এর মধ্যে এলএ কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৬ হাজার ৩৬০ জন, মৃতের সংখ্যা ১৪৭ জন।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৯৩১ জন, আর মারা যায় ১৫ জন। রিভারসাইড কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ১ হাজার ১৬ জন, মৃতের সংখ্যা ২৮ জন। সান ভারনারডিনো কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৫৩০ জন, মৃতের সংখ্যা ১৬। ভেনটুরা কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ২২৬ জন, মোট মারা যায় ৬ জন। আর সান ডিয়েগো কাউন্টিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৪০৪ জন, মারা ১৯ জন।

আর যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৯৫ হাজার ৬১২ জন। এর মধ্যে শুধু নতুন করে আক্রান্ত হন ২৮ হাজার ৬০৮ জন। আর মৃতের সংখ্যা ১২ হাজার ৭৯০ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে। তাছাড়া, এলএ বাংলা টাইমসের অনুসন্ধানে এখনো পর্যন্ত প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে লস এঞ্জেলেসে বা তার আশেপাশের কাউন্টিতে কোন বাংলাদেশির আক্রান্ত বা মৃতের খবর পাওয়া যায়নি।


লস এঞ্জেলেস কাউন্টি ও ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাসকারী সকল বাংলাদেশি বাঙালিকে নগর প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশ মেনে নিরাপদে ঘরে থাকার আহ্বান। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই। একসাথে মিলে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ করি। সেইসাথে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি, ক্যালিফোর্নিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ আপডেট দেখতে চোখ রাখুন লস এঞ্জেলেসের বাংলা মুখপত্র এলএ বাংলা টাইমসে।অনুরোধে লস এঞ্জেলেস বাংলা টাইমস।

বিস্তারিত খবর

এখন থেকে লস এঞ্জেলেসের যে কোন বাসিন্দা করোনা টেস্ট করাতে পারবে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ১১:১৮:৩৯


এখন থেকে লস এঞ্জেলেসে বসবাসকারী যে কেউ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের টেস্ট করাতে পারবে। অবশ্য এতোদিন প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি শনাক্তকরণের টেস্ট সীমিত পরিসরে করা হতো।

গতকাল সোমবার থেকে এই সীমাবদ্ধতার বিষয়টি তুলে নেন লস এঞ্জেলেস মেয়র এরিক গারসেট্টি। অবশ্য তিনি আগেই বলেছিলেন, টেস্ট এর এই কার্যক্রম পুরো লস এঞ্জেলেস জুড়ে বিস্তৃত করা হবে। সেই কথা রাখলেন নগরীর এই দায়িত্বশীল মেয়র। 

কাউন্টির জনস্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার জানান, গতকাল রবিবার পর্যন্ত কাউন্টি জুড়ে ৩২ হাজারের বেশি লোক প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের টেস্ট করেন। আর মোট এই সংখ্যার মধ্যে ১৪ শতাংশ মানুষের শরীরে ভাইরাসটির সংক্রমণ পাওয়া যায়। 

উল্লেখ্য, এতোদিন পর্যন্ত কাউন্টির করোনা সনাক্তকরণ টেস্ট কার্যক্রম সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বাসিন্দাদের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল। যাদের বয়স ৬৫ বা তার বেশি। 

সেইসাথে ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, দীর্ঘস্থায়ী ফুসফুসের রোগ বা মাঝারি থেকে গুরুতর হাঁপানিসহ নানাবিধ স্বাস্থ্য জটিলতায় থাকা ব্যক্তিদের এই সুবিধা প্রদান করা হচ্ছিল। 

পরীক্ষা করতে আগ্রহী যে কোনও ব্যক্তিকে প্রথমে স্ক্রিনিং ওয়েবসাইটে, coronavirus.lacity.org/testing. নিবন্ধন করতে হবে।

/এলএ বাংলা টাইমস/

বিস্তারিত খবর

এবার করোনা আক্রান্ত হলেন সান ভারনারডিনোর ৫ ফায়ার ফাইটার

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ১১:০৫:৫৫


প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস কাউকেই যেন ছাড়ছে না। মরণব্যাধী এই ভাইরাসটিতে এবার সংক্রমিত হলেন সান ভারনারডিনো কাউন্টির ৩ অগ্নিনির্বাপণ কর্মী (ফায়ার ফাইটার)। 


গতকাল সোমবার সান ভারনারডিনো কাউন্টি অগ্নিনির্বাপক কর্তৃপক্ষ এমন তথ্য জানায়। কাউন্টির অগ্নিনির্বাপণের দায়িত্বে থাকা এই সংস্থা জানান, নতুন করে তাদের ৩ জন  ফায়ার ফাইটার প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন। এর আগে আক্রান্ত হয়েছিলেন ২ জন। 

ফায়ার ফাইটারদের মধ্যে এতো দ্রুত ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ায় তারা আতঙ্কিত। সেইসাথে শঙ্কাও প্রকাশ করেন। কর্তৃপক্ষ জানায়, আক্রান্ত কর্মীদের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

সেইসাথে তাদের পর্যবেক্ষণও করা হচ্ছে বলে জানান দমকল কর্তৃপক্ষ। সান বার্নার্ডিনো কাউন্টি ফায়ার প্রোটেকশন ডিসট্রিক্ট ও ডাগেট ফায়ার ডিপার্টমেন্টে থাকা কর্মীদের মধ্যে এই নতুন সংক্রমিতদের পাওয়া যায়। 

দমকলকর্মীদের নতুন করে সংক্রমিত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয় শনিবার। কাউন্টির ‘অল হ্যাজার্ড রিজিওনাল ইন্সিডেন্ট ম্যানেজমেন্ট টিম’ প্রকাশিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমন তথ্য জানানো হয়।     

স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা সম্ভাব্য নমুনায়নের নির্ধারণের জন্য দমকলকর্মীদের ভ্রমণ এবং মেলামেশার বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করছে।

গতকাল সোমবার সান ভারনারডিনো কাউন্টি ও স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বশেষ তথ্য মতে, কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৩০ জন। আর ভাইরাসটির সংক্রমণে এখনো পর্যন্ত ১৬ জনের মৃত্যুর বিষয়ে রেকর্ড করা হয়েছে। 

/এলএ বাংলা টাইমস/ 

বিস্তারিত খবর

অনুমোদনহীন চায়না কীট বিক্রি বন্ধ করে দিল লস এঞ্জেলেস কাউন্টি কর্তৃপক্ষ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ১১:০২:১৭


পুরো লস এঞ্জেলেস জুড়ে চলছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের ভয়াবহ সংক্রমণ। আর মানুষের এই ভয় পাওয়ার সুযোগ কাজে লাগিয়ে প্রতারণা করে ব্যবসা করছিল এক চায়না কোম্পানি। 


গত শুক্রবার থেকে লস এঞ্জেলেস জুড়ে মাত্র ৩৯ ডলারে করোনা শনাক্তকরণ কীট বিক্রি করছিল কোম্পানিটি। 

ঘরে বসেই আপনি এই কীট দিয়ে শনাক্ত করতে পারবেন প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। এমন আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপন দেখে অনেকেই সংগ্রহ করে চায়না কোম্পানির এই কীট।

সেইসাথে ব্যবসার প্রসার বাড়াতে কোম্পানিটি তৈরি করে ফেডারেল সরকারের দেওয়া এক জাল অনুমোদন। আর এভাবেই অনলাইন ভিত্তিক কীট ব্যবসার নামে প্রতারণা করে যাচ্ছিল কোম্পানিটি। 

কিন্তু বেশি দেন চালাতে পারেনি তাদের এই সুখের ব্যবসা। স্বল্প সময়েই ধরা পড়ে কাউন্টি প্রশাসনের হাতে। বিষয়টি আদালত পর্যন্ত চলে যায়। আর এতে করে বন্ধ হয়ে যায় তাদের সুখের এই ব্যবসা। 

এই বিষয়ে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি এটর্নি জানান, যে সমস্ত গ্রাহকদের ঠকিয়ে তারা এ সমস্ত কীট বিক্রি করেছে। খুব শীঘ্রই তারা গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিবে বলে জানিয়েছে। 

সিটি অ্যাটর্নি মাইক ফিউয়ার আরও জানান, চীনের বায়োটেকনোলজি সংস্থা ইয়াইকন জেনোমিক্স ইনক নামের প্রতিষ্ঠান মানবতার দুর্দিনে এমন জঘন্য কাজ করে। 

অবশ্য তাদের অনলাইন ওয়েবসাইটটি এখন আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাদের দাবি ছিল, তারা করোনাভাইরাস সংক্রমণ সনাক্ত করতে রক্তে ‘অ্যান্টিবডি’গুলির উপস্থিতির মাধ্যমে আত্মবিশ্বাসের সাথে স্ক্রিন করতে পারে। 

/এলএ বাংলা টাইমস/ 
  

বিস্তারিত খবর

করোনার এই দুঃসময়েও আপনাকে চাকরি দিতে খুঁজছে যারা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৬ ২৩:০৫:৩৬


সারা বিশ্ব জুড়ে এখন চলছে প্রাণঘাতী করোনার ভয়াবহ সংক্রমণ। আর এতে করে বেড়ে গেছে বেকারত্ব। 


আর্থিক মন্দার এই সময়ে চাকরি হারিয়েছেন অনেকে। কাউকে করা হয়েছে প্রত্যাহার। বেতন দিতে পারবেন না এই ভয়ে অনেক প্রতিষ্ঠান আবার তার কর্মীদের ছাঁটাই করে দিচ্ছে। 

আন্তর্জাতিক এই দুর্যোগে তাই বৃদ্ধি পেয়েছে বেকারত্ব। বৃদ্ধি পেয়েছে চাকরি না পাওয়ার সম্ভাবনা। 

আর দুর্যোগের এই সময়ে আপনাকে চাকরি দিতে, আপনার চাকরি পেতে সহায়তা করছে দুটি ওয়েবসাইট। তাই বেকারত্ব ঘুচাতে বা চাকরি পেতে ঘুরে আসতে পারেন ওয়েবসাইট দুটিতে। 

https://www.indeed.com/career-advice/coronavirus-job-resources?From =here_to_help   

আর অন্যটি হচ্ছে https://www.andro.ai/

আশা করি খুব দ্রুত আপনার বেকারত্ব ঘুচে যাবে। 


/এলএ বাংলা টাইমস/   

বিস্তারিত খবর

করোনা নিয়ে আরও নিষেধাজ্ঞা জারি করতে যাচ্ছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৬ ২১:৫৭:০৫


পুরো লস এঞ্জেলেস কাউন্টি জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। অবশ্য এই সমস্যা এখন পুরো বিশ্বব্যাপী। 


ভাইরাসটির সংক্রমণ ঠেকাতে এখনো পর্যন্ত লস এঞ্জেলস মেয়র এরিক গারসেট্টি জারি করেছে নানা নিষেধাজ্ঞা। ঘরে থাকার নির্বাহী আদেশ থেকে শুরু করে অপ্রয়োজনীয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নিষেধাজ্ঞা কি করেনি। 

কিন্তু এবার আরো কঠোর হতে যাচ্ছেন লস এঞ্জেলস মেয়র। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বন্ধ করতে যাচ্ছেন একটু দূরে গিয়ে শপিং করা বা ঘুরতে যাওয়া। 

সেইসাথে আশেপাশের প্রতিবেশির বাসায় বেরাতে বা ঘুরতে যাওয়ায়ও নিষেধাজ্ঞা জারি করতে যাচ্ছেন তিনি।

আজ সোমবার এসোসিয়েটেড প্রেসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন খবর জানান লস এঞ্জেলেস মেয়র এরিক গারসেট্টি। 

সেইসাথে এখন থেকে প্রতিদিন বিকাল সোয়া ৫ টায় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসটি নিয়ে ব্রিফিং করবেন বলে জানান। অবশ্য এই ব্রিফিং তিনি আগেও করতেন। কিন্তু এবার সময় বেঁধে নির্দিষ্ট করে দিয়েছেন।  

উল্লেখ্য, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে এখনো পর্যন্ত মারা যায় ১৪৭ জন। আর প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৩৬০ জন। 

/এলএ বাংলা টাইমস/

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেস চিড়িয়াখানায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করল কর্তৃপক্ষ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৬ ২০:৫০:৪০


এবার প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে লস এঞ্জেলেস চিড়িয়াখানায় নিরাপত্তা ব্যবস্থার জোরদার করল কর্তৃপক্ষ। 


চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানায়, এখানে কর্মরত স্টাফ ও প্রাণীদের জন্য এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হচ্ছে। নিউইয়র্কে চিড়িয়াখানায় একটি বাঘের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্তের ঘটনায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানান তারা।   

নিউইয়র্কের ব্রংস চিড়িয়াখানায় ‘নাদিয়া’ নামের একটি বাঘের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়। চার বছর বয়সী ওই বাঘটির শুকনো কাশি হয়েছে। আশা করা হচ্ছে বাঘটি সেরে উঠবে।

তাছাড়া, চিড়িয়াখানায় নাদিয়া ছাড়াও আরও পাঁচটি বাঘ ও সিংহের মধ্যে শ্বাসযন্ত্রের অসুস্থতা দেখা দিয়েছিল বলে জানিয়েছে ইউনাইটেড স্টেটস ডিপার্টমেন্ট অব অ্যাগ্রিকালচার (ইউএসডিএ)। তবে চিড়িয়াখানার অন্য প্রাণীদের মধ্যে এ ধরনের লক্ষণ দেখা যায়নি।

বিষয়টি নিয়ে লস এঞ্জেলেস চিড়িয়াখানার চিফ পশুচিকিত্সক এবং প্রাণীস্বাস্থ্য  পরিচালক ডমিনিক কেলার জানান এক সমস্যার কথা। তিনি বলেন, আমি মনে করি এখানে সবচেয়ে বড় অসুবিধা হল আমরা জানি না প্রাণীদের মধ্যে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কেমন হবে। বিষয়টি আমাদের কাছে একেবারেই নতুন।

উল্লেখ্য, এর আগে বিড়ালের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছিল। এরপর প্রথম বাঘের শরীরে ধরা পড়ল সেই ভাইরাস।

/এলএ বাংলা টাইমস/

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪৭; আক্রান্ত ৬ হাজার ৩৬০

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৬ ২০:১০:২১


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসে) লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪৭ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় মরণব্যাধী এই ভাইরাসে নতুন করে প্রাণ হারায় ১৫ জন।


প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৩৬০ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হন ৪২০ জন। 

এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন ২১৩ জন ও পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্ত হন ৫৮ জন। লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বেড়ে চলছে।

খুব দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত মারা যায় ১৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে ২ জনের মৃতের খবর পাওয়া যায়।

আজ সোমবার কাউন্টিতে ভাইরাসটি সংক্রমণের এই সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে এলএ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগ।

আজ সোমবারের সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য পরিচালক জানান, লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে এই সপ্তাহে মৃতের হার বেড়েছে। এই সপ্তাহে মৃতের হার ২.৩ শতাংশ। অবশ্য গত সপ্তাহে এই হার ছিল ১.৮ শতাংশ।   

তাছাড়া, সম্প্রতি লস এঞ্জেলেস কাউন্টির স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার জানান, মৃতদের মধ্যে ৭ জনের বয়স ছিল ৬৫ বৎসরের উপরে। সেইসাথে তাদের নানা স্বাস্থ্য জটিলটা ছিল। আর ৩ জনের বয়স ছিল ৪১ থেকে ৬৫ টির মধ্যে। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের মধ্যে ১ জনের বয়স ১৮ থেকে ৪০ এর মধ্যে বলে জানান স্বাস্থ্য বিভাগের এই পরিচালক। 
সেইসাথে ঐ সংবাদ সম্মেলনে বারবারা জানান, এলএ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৬৭টি প্রতিষ্ঠান নিয়ে কাজ করছে তারা। এর মধ্যে নার্সিংহোম, পুলিশ বিভাগ, জেলখানা থেকে শুরু করে রয়েছে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান। 

তাছাড়া, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে ক্যালিফোর্নিয়াতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ হাজার ৯৯৩ জন। আর ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারান ৩৭৮ জন। এর মধ্যে এলএ কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৬ হাজার ৩৬০ জন, মৃতের সংখ্যা ১৪৭ জন।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৮৮২ জন, আর মারা যায় ১৪ জন। রিভারসাইড কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৯৪৬ জন, মৃতের সংখ্যা ২৫ জন। সান ভারনারডিনো কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৩৭৩ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩। ভেনটুরা কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ২২১ জন, মোট মারা যায় ৬ জন। আর সান ডিয়েগো কাউন্টিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৩২৬ জন, মারা ১৯ জন।

আর যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৬৬ হাজার ১১২ জন। এর মধ্যে শুধু নতুন করে আক্রান্ত হন ২৯ হাজার ৪৩৯ জন। আর মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ৮৫৯ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে। তাছাড়া, এলএ বাংলা টাইমসের অনুসন্ধানে এখনো পর্যন্ত প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে লস এঞ্জেলেসে বা তার আশেপাশের কাউন্টিতে কোন বাংলাদেশির আক্রান্ত বা মৃতের খবর পাওয়া যায়নি।
লস এঞ্জেলেস কাউন্টি ও ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাসকারী সকল বাংলাদেশি বাঙালিকে নগর প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশ মেনে নিরাপদে ঘরে থাকার আহ্বান। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই। একসাথে মিলে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ করি। সেইসাথে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি, ক্যালিফোর্নিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ আপডেট দেখতে চোখ রাখুন লস এঞ্জেলেসের বাংলা মুখপত্র এলএ বাংলা টাইমসে।অনুরোধে লস এঞ্জেলেস বাংলা টাইমস।

বিস্তারিত খবর

জেনে নিন লস এঞ্জেলেসের কোন কোন প্রতিষ্ঠান প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৫ ২৩:১৩:২৯


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টির সর্বত্র। মরণব্যাধী এই ভাইরাসটির সংক্রমণ থেকে বাদ যাচ্ছে কাউন্টিতে থাকা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও পেশাজীবীরাও। 


গত সপ্তাহে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান কাউন্টির একজন স্বাস্থ্যকর্মী। লস এঞ্জেলেসে বিভিন্ন নার্সিং হোমে প্রায় প্রতিদিনি নার্স ও চিকিৎসা সেবার কাজে নিয়োজিত কর্মীদের আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে। 

কাউন্টির একজন পুলিশ কর্মকর্তাও প্রাণ হারান এই করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে। সংক্রমণ ঠেকাতে পুলিশ বিভাগ নিয়েছে নানা উদ্যোগ।  

লস এঞ্জেলেস স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুসারে, এখন পর্যন্ত যে সমস্ত প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছে তার তালিকা তুলে ধরা হলঃ

০১। ইউনিয়ন রেসকিউ মিশন


০২। লস এঞ্জেলেস কাউন্টি জেল - টুইন টাওয়ারস

০৩। ওয়ার্টহ্যাম সাপোর্টেড লিভিং, ইনগলউড

০৪। মাইলস্টোনস রাঞ্চ, মালিবু

০৫। ক্যানন হিউম্যান সার্ভিসেস, লস এঞ্জেলেস

০৬। এমবিশন ক্যালিফোর্নিয়া ইনক, বারব্যাঙ্ক

০৭। কেনসিংটন অ্যাসিস্টড লিভিং, রেডন্ডো বিচ

০৮। আলামেডা কেয়ার সেন্টার, বারব্যাঙ্ক

০৯। বেলমন্ট ভিলেজ (হলিউড), হলিউড

১০। গার্ডেন ক্রেস্ট রিহ্যাব, লস এঞ্জেলেস

১১। কাউন্ট্রি ভিলা সাউথ কনভলসেন্ট, লস এঞ্জেলেস

১২। বেল কনভোলসেন্ট, বেল

১৩। কান্ট্রি ভিলা প্যাভিলিয়ন নার্সিং সেন্টার, লস এঞ্জেলেস

১৪। হলিউড প্রিমিয়ার, হলিউড

১৫। এল রাঞ্চো ভিস্তা হেলথকেয়ার সেন্টার, পিকো রিভেরা

১৬। বেরিয়ার ওক অন সানসেট, লস এঞ্জেলেস

১৭। উইন্ডসর কেয়ার সেন্টার, শেভিট হিলস

১৮। আইসেনবার্গ ভিলেজ, রিসেডা

১৯। সিলভেরাদো বেভারলি প্লেস, লস এঞ্জেলেস

২০। এলডেন টেরেস, লস এঞ্জেলেস

২১। গ্রোভ পোস্ট অ্যাকিউট (পাইন রিজ), সিলেমার

২২। নিউ ভিস্তা নার্সিং এন্ড রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টার, সানল্যান্ড

২৩। মেরিনা পয়েন্টে হেলথকেয়ার ও সাবসিট, কালভার সিটি

২৪। বেলমন্ট ভিলেজ, রাঁচো পালোস ভার্দেস

২৫। ভার্নন হেলথকেয়ার সেন্টার, লস এঞ্জেলেস

২৬। প্যাসিফিক হোম কেয়ার, কারসন

২৭। সানরাইজ অ্যাসিস্টড লিভিং স্টুডিও সিটি, স্টুডিও সিটি

২৮। দ্যা রিহ্যাবিলিয়েশন সেন্টার অব সান্টা মনিকা, সান্টা মনিকা

২৯। মোশন পিকচার এবং টেলিভিশন ফান্ড, উডল্যান্ড হিলস

৩০। বিচউড পোস্ট-অ্যাকিউট অ্যান্ড রিহ্যাব, সান্তা মনিকা

৩১। ক্যাসা দে লা ভিক্টোরিয়া, ল্যানকাস্টার

৩২। ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট প্রিজন, ল্যানকাস্টার

৩৩। স্যালভেশন আর্মি (উইন্টার শেল্টার ও ওয়ে ইন শেল্টার)

করোনাভাইরাস সংক্রমিত প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা প্রসঙ্গে লস এঞ্জেলেস স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, নাগরিকদের সচেতন করতে এই প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা করা হয়েছে। এতে করে নাগরিকরা বুঝতে পারবে, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি থেকে কেউ মুক্ত নয়। 

সেইসাথে কোন প্রতিষ্ঠানের মাত্র একজন কর্মীও যদি প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন, তবে এই তালিকায় তাদের নাম উঠে বলে জানায় স্বাস্থ্য বিভাগ। 

/এলএ বাংলা টাইমস/   

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; রিভারসাইডের এক নার্সিংহোমেই আক্রান্ত কমপক্ষে ৩০ রোগী ও নার্স

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৫ ২১:৪১:৩৮


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ জোয়ারের পানির মতো বেড়ে চলেছে পুরো ক্যালিফোর্নিয়া জুড়ে। আর এই সংক্রমণের মাত্রা বাড়িয়ে দিল রিভারসাইড কাউন্টির একটি নার্সিং হোম। 


রিভারসাইড কাউন্টির এই নার্সিং হোমে মরণব্যাধী এই ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন কমপক্ষে ৩০ জন রোগী। সেইসাথে রয়েছে হাসপাতালটিতে কর্মরত নার্সও। যদিও নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ ঠিক কতজন নার্স আক্রান্ত হয়েছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে তার সুনির্দিষ্ট কোন সংখ্যা বলেননি। শুধু বলেন যে, এখানে কর্মরত কয়েকজন নার্স আক্রান্ত হয়েছে। 

আজ রবিবার ক্যালিফোর্নিয়া স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা এটাকে পুরো স্টেট জুড়ে কোন প্রতিষ্ঠানে আক্রান্ত সর্বোচ্চ সংখ্যা বলে উল্লেখ করেন। সেইসাথে তারা বিষয়টি নিয়ে বেশ উদ্বেগ ও শঙ্কা প্রকাশ করেন। 

রিভারসাইডের ৮১৭১ ম্যাগনোলিয়া এভিনিউতে অবস্থিত এই  বর্ধিত কেয়ার হাসপাতালে আরও কেউ মরণব্যাধী এই ভাইরাসটিতে আক্রান্ত কিনা তা নির্ধারণের চেষ্টা করা হচ্ছে। আর এই কাজটি করছেন রিভারসাইড ইউনিভার্সিটি হেলথ সিস্টেমের স্বাস্থ্যকর্মীরা। 

উল্লেখ্য, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে ক্যালিফোর্নিয়াতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয় ১৩ হাজার ৬৪৯ জন। আর ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারান ৩১৯ জন। এর মধ্যে এলএ কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৫ হাজার ২৭৭ জন, মৃতের সংখ্যা ১১৭ জন।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৭৮৬ জন, আর মারা যায় ১৪ জন। রিভারসাইড কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৬৩৮ জন, মৃতের সংখ্যা ১৫ জন। সান ভারনারডিনো কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৩৫৩ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩। ভেনটুরা কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ১৮৯ জন, মোট মারা যায় ৬ জন। আর সান ডিয়েগো কাউন্টিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১১২ জন, মারা ১৭ জন।

/এলএ বাংলা টাইমস/

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩২; আক্রান্ত ৫ হাজার ৯৪০

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৫ ২১:১৪:০৯


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসে) লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১৭ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় মরণব্যাধী এই ভাইরাসে নতুন করে প্রাণ হারায় ১৫ জন।


প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ৯৪০ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হন ৬৬৩ জন। এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন ১৯৮ জন ও পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্ত হন ৫৮ জন। লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বেড়ে চলছে।

খুব দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত মারা যায় ১৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে ২ জনের মৃতের খবর পাওয়া যায়।

আজ রবিবার কাউন্টিতে ভাইরাসটি সংক্রমণের এই সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে এলএ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগ।

তাছাড়া, গতকাল লস এঞ্জেলেস কাউন্টির স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার জানান, মৃতদের মধ্যে ৭ জনের বয়স ছিল ৬৫ বৎসরের উপরে। সেইসাথে তাদের নানা স্বাস্থ্য জটিলটা ছিল। আর ৩ জনের বয়স ছিল ৪১ থেকে ৬৫ টির মধ্যে। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের মধ্যে ১ জনের বয়স ১৮ থেকে ৪০ এর মধ্যে বলে জানান স্বাস্থ্য বিভাগের এই পরিচালক। সেইসাথে ঐ সংবাদ সম্মেলনে বারবারা জানান, এলএ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৬৭টি প্রতিষ্ঠান নিয়ে কাজ করছে তারা। এর মধ্যে নার্সিংহোম, পুলিশ বিভাগ, জেলখানা থেকে শুরু করে রয়েছে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান। 

তাছাড়া, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে ক্যালিফোর্নিয়াতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ হাজার ৩৭ জন। আর ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারান ৩৪৭ জন। এর মধ্যে এলএ কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৫ হাজার ৯৪০ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩২ জন।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৮৩৪ জন, আর মারা যায় ১৪ জন। রিভারসাইড কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৭৯৯ জন, মৃতের সংখ্যা ১৯ জন। সান ভারনারডিনো কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৩৭২ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩। ভেনটুরা কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ২২১ জন, মোট মারা যায় ৬ জন। আর সান ডিয়েগো কাউন্টিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ২০৯ জন, মারা ১৮ জন।

আর যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ৬৭৩ জন। এর মধ্যে শুধু নতুন করে আক্রান্ত হন ২৫ হাজার ৩১৬ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৯ হাজার ৬১৬ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে। তাছাড়া, এলএ বাংলা টাইমসের অনুসন্ধানে এখনো পর্যন্ত প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে লস এঞ্জেলেসে বা তার আশেপাশের কাউন্টিতে কোন বাংলাদেশির আক্রান্ত বা মৃতের খবর পাওয়া যায়নি।

লস এঞ্জেলেস কাউন্টি ও ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাসকারী সকল বাংলাদেশি বাঙালিকে নগর প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশ মেনে নিরাপদে ঘরে থাকার আহ্বান। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই। একসাথে মিলে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ করি। সেইসাথে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি, ক্যালিফোর্নিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ আপডেট দেখতে চোখ রাখুন লস এঞ্জেলেসের বাংলা মুখপত্র এলএ বাংলা টাইমসে।অনুরোধে লস এঞ্জেলেস বাংলা টাইমস।

বিস্তারিত খবর

করোনা মোকাবেলায় লস এঞ্জেলেসকে অর্থ সহায়তা দিবে সঙ্গীতশিল্পী পিঙ্ক

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ২১:২৬:২২


পুরো লস এঞ্জেলেস জুড়ে চলছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বশেষ তথ্যমতে, এলএ কাউন্টিতে মরণব্যাধী এই ভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মারা যায় ১১৭ জন। আর আক্রান্ত হয়েছে ৫ হাজারের বেশি। 


প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রাণপণ যুদ্ধ করে যাচ্ছেন লস এঞ্জেলেস মেয়র এরিক গারসেট্টি। এবার লস এঞ্জেলেস মেয়রের করোনা মোকাবেলার তহবিলে আর্থিক অনুদান দেওয়ার ঘোষণা দেন সঙ্গীত শিল্পী পিঙ্ক। ৫ লক্ষ ডলার অনুদান দিবেন বলে ঘোষণা দেন গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত এই সঙ্গীত শিল্পী। 

অবশ্য তিনি মোট ১০ লক্ষ ডলার অনুদান দেওয়ার ঘোষণা করেন। বাকি ৫ লক্ষ ডলার অনুদান দিবেন ফিলাডেলফিয়ায় অবস্থিত টেম্পল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের ইমারজেন্সি ফান্ডে। সেখানে তার মা দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছে বলে জানান তিনি। 
সম্প্রতি প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন ৪০ বৎসর বয়সী এই সঙ্গীত লেখক ও শিল্পী। সেইসাথে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন টার শিশু ছেলে। বর্তমানে তারা দুইজনেই আইসোলেশনে রয়েছেন। 

করোনাভাইরাসে শনাক্তের পর গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসে এমন ঘোষণা দেন এই সঙ্গীত শিল্পী। সেইসাথে ভাইরাসটি নিয়ে কাজ করা সারা বিশ্বের চিকিৎসকদের শ্রদ্ধা জানান তিনি। 

/এলএ বাংলা টাইমস/   

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১৭; আক্রান্ত ৫ হাজার ২৭৭

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ১৯:৫৯:৩২


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসে) লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১৭ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় মরণব্যাধী এই ভাইরাসে নতুন করে প্রাণ হারায় ২৮ জন।


প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ২৭৭ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হন ৭১১ জন। এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন ১৭১ জন ও পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্ত হন ৩৭ জন। লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বেড়ে চলছে।

খুব দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত মারা যায় ১৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে ৩ জনের মৃতের খবর পাওয়া যায়।

আজ শনিবার কাউন্টিতে ভাইরাসটি সংক্রমণের এই সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে এলএ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগ। 

তাছাড়া, গতকাল লস এঞ্জেলেস কাউন্টির স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার জানান, মৃতদের মধ্যে ৭ জনের বয়স ছিল ৬৫ বৎসরের উপরে। সেইসাথে তাদের নানা স্বাস্থ্য জটিলটা ছিল। আর ৩ জনের বয়স ছিল ৪১ থেকে ৬৫ টির মধ্যে। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের মধ্যে ১ জনের বয়স ১৮ থেকে ৪০ এর মধ্যে বলে জানান স্বাস্থ্য বিভাগের এই পরিচালক। 

সেইসাথে ঐ সংবাদ সম্মেলনে বারবারা জানান, এলএ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৬৭টি প্রতিষ্ঠান নিয়ে কাজ করছে তারা। এর মধ্যে নার্সিংহোম, পুলিশ বিভাগ, জেলখানা থেকে শুরু করে রয়েছে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান। তাছাড়া, প্রাণঘাতী 
এই ভাইরাসটিতে ক্যালিফোর্নিয়াতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ হাজার ৬৪৯ জন। আর ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারান ৩১৯ জন। এর মধ্যে এলএ কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৫ হাজার ২৭৭ জন, মৃতের সংখ্যা ১১৭ জন।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৭৮৬ জন, আর মারা যায় ১৪ জন। রিভারসাইড কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৬৩৮ জন, মৃতের সংখ্যা ১৫ জন। সান ভারনারডিনো কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৩৫৩ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩। ভেনটুরা কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ১৮৯ জন, মোট মারা যায় ৬ জন। আর সান ডিয়েগো কাউন্টিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১১২ জন, মারা ১৭ জন।

আর যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ১০ হাজার ১৩৩ জন। এর মধ্যে শুধু নতুন করে আক্রান্ত হন ৩২ হাজার ৯৭২ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৮ হাজার ৪৪২ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে। তাছাড়া, এলএ বাংলা টাইমসের অনুসন্ধানে এখনো পর্যন্ত প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে লস এঞ্জেলেসে বা তার আশেপাশের কাউন্টিতে কোন বাংলাদেশির আক্রান্ত বা মৃতের খবর পাওয়া যায়নি।   

লস এঞ্জেলেস কাউন্টি ও ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাসকারী সকল বাংলাদেশি বাঙালিকে নগর প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশ মেনে নিরাপদে ঘরে থাকার আহ্বান। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই। একসাথে মিলে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ করি। সেইসাথে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি, ক্যালিফোর্নিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ আপডেট দেখতে চোখ রাখুন লস এঞ্জেলেসের বাংলা মুখপত্র এলএ বাংলা টাইমসে।অনুরোধে লস এঞ্জেলেস বাংলা টাইমস।

বিস্তারিত খবর

করোনা সংক্রমণের মধ্যেই ভূমিকম্প হল রিভারসাইড ও লস এঞ্জেলেসে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০৯:৫০:০১


সারা বিশ্ব জুড়ে চলছে এখন প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। আর যুক্তরাষ্ট্রে এর আক্রমণ আরও ভয়াবহ হয়ে উঠেছে গত কয়েক দিন ধরে। এর মধ্যেই ক্যালিফোর্নিয়ার রিভারসাইড কাউন্টিতে হয়ে গেল ভূমিকম্প।


মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ অনুসারে, কমপক্ষে সাতটি ভূমিকম্পের ঝাকনি ছড়িয়ে পড়েছে রিভারসাইড কাউন্টিতে। গতকাল শুক্রবারে সংগঠিত এই ভূমিকম্প লস অ্যাঞ্জেলস পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছিল বলে জানায় বিশেষজ্ঞরা। 

ইউএসজিএস জানায়, সবচেয়ে শক্তিশালী প্রথম ভূমিকম্পটির মাত্রা ছিল ৪.৯। সন্ধ্যা ৬ টা ৫৩ মিনিটে আঘাত করে। যার মারাত্মক আঘাত পড়ে আনজার প্রায় ১০ মাইল দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং লা কুইন্টার ১৬ মাইল দক্ষিণ-পশ্চিমে। 

পরে একই অঞ্চলে আরও ছয়টি ভূমিকম্প দ্রুত গতিতে আঘাত করে। যার মাত্রা ছিল ৩.২ থেকে ২.৬ পর্যন্ত। 

সান্তা ক্যালারিটা, হলিউড, হেস্পেরিয়া, করোনা এবং সান দিয়েগোতে বসবাসকারী লোকেরা এমন ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে বলে জানায়।

ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থলে এটি বেশ শক্তিশালী ছিল বলে জানা যায়। ইউএসজিএস জানায়, শুরুতে এটি খুব শক্তিশালী ছিল। তবে  সংস্থাটি কোন ধরণের ক্ষয়ক্ষতি বা আঘাতের কোনও খবর প্রত্যাশা করেনি।

/এলএ বাংলা টাইমস/

বিস্তারিত খবর

১৬টি ‘ফারমার্স মার্কেট’ চালু করার অনুমতি দিলেন এলএ মেয়র

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৪ ০১:২২:৩৯



কয়দিন আগে সামাজিক দূরত্বের নির্দেশনা না মানায় লস এঞ্জেলেস কাউন্টির সমস্ত ফারমার্স মার্কেট বন্ধ করে দিয়েছিলেন মেয়র এরিক গারসেট্টি। কিভাবে সামাজিক দূরত্বের নিয়ম মেনে এই ব্যবসা পরিচালনা করা যায় এই বিষয়ে একটি প্রস্তাবনা চেয়েছিলেন তিনি।


আজ শুক্রবার লস এঞ্জেলেস কাউন্টির ১৬টি ফারমার্স মার্কেট চালু করার অনুমতি দেন তিনি। জানান সাপ্তাহিক ছুটি শেষে চালু হবে নগরীর এই ১৬টি মার্কেট।   

সেইসাথে অপ্রয়োজনীয় চারটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে চালু রাখায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে নগর কর্তৃপক্ষ। এই বিষয়ে মেয়র ঘোষণা করেন, সিটি অ্যাটর্নি চারটি অপ্রয়োজনীয় ব্যবসার বিরুদ্ধে ফৌজদারি অভিযোগ দায়ের করেছে। 

তিনি জানান, তারা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালু রেখেছে। লস এঞ্জেলেসের এই দুর্যোগে তাদের কাছ থেকে কার্যকর সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে না। 

পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, অপ্রয়োজনীয় ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে করা এই মামলার তালিকায় একটি স্মোকিং শপও রয়েছে। যা নগরীর ২৭ টি তালিকাভুক্ত অপ্রয়োজনীয় ব্যবসার একটি।  

গত সপ্তাহে এল.এ. তে পাঁচ হাজার করোনভাইরাস পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং এই সপ্তাহে ১ 16,০০০ ছিল, মেয়র বলেছিলেন। তিনি বলেন, আগামী সপ্তাহে আবার পরীক্ষার সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে এবং প্রতিদিন ৩,৫০০ চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে তিনি জানান।

/এলএ বাংলা টাইমস/

বিস্তারিত খবর

করোনা টেস্ট করাতে আরও তিনটি কেন্দ্র চালু করল এলএ মেয়র

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৩ ২৩:৫৯:০৪


প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের টেস্ট করাতে আরও তিনটি নতুন পরীক্ষা কেন্দ্র চালু করল লস এঞ্জেলেস মেয়র। আজ শুক্রবার সকালে এই তিনটি কেন্দ্র চালু করা হয়। 

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি শনাক্তকরণের জন্য পরীক্ষা কার্যক্রম আরও বিস্তৃত করা হবে গত সপ্তাহে এমন তথ্য জানিয়েছিলেন মেয়র এরিক গারসেট্টি। সেইসাথে আজ সকালেও তিনি এমন পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা আরও বাড়বে বলে জানান।  

নতুন এই কেন্দ্র তিনটি হ'ল পোমোনা ফেয়ারপ্লেক্স, সাউথ বে গ্যালারিয়া এবং অ্যান্টেলোপ ভ্যালি মলে। তবে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটির পরীক্ষা কেবল অ্যাপয়েন্টমেন্টের মাধ্যমে করা হয়। তাই যে কেউ সেখানে গিয়ে পরীক্ষা করাতে চাইলে আপনাকে ফিরে আসতে হবে। 

সেইসাথে নর্থরিজ, লং বিচ, ল্যাঙ্কাস্টার এবং পাসাডেনাতে আরও কিছু কেন্দ্র চালু করার কাজ চলছে। কেন্দ্রগুলো খুব দ্রুত চালু হচ্ছে বলে জানান কাউন্টির এই দায়িত্বশীল মেয়র। অবশ্য ল্যানকাস্টার এবং গ্রেনডেলের কেন্দ্র দুটি ইতোমধ্যে চালু রয়েছে।

এখনো পর্যন্ত কাউন্টির করোনা সনাক্তকরণ পরীক্ষা সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বাসিন্দাদের মধ্যে সীমাবদ্ধ। যাদের বয়স ৬৫ বা তার বেশি। সেইসাথে ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, দীর্ঘস্থায়ী ফুসফুসের রোগ বা মাঝারি থেকে গুরুতর হাঁপানিসহ নানাবিধ স্বাস্থ্য জটিলতায় রয়েছে তাদের আপাতত এই সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে। 

পরীক্ষা করতে আগ্রহী যে কোনও ব্যক্তিকে প্রথমে স্ক্রিনিং ওয়েবসাইটে, coronavirus.lacity.org/testing. নিবন্ধন করতে হবে।


/এলএ বাংলা টাইমস/

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৯; আক্রান্ত ৪ হাজার ৫৬৬

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৩ ২২:৪৭:০৯


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসে) লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৯ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় মরণব্যাধী এই ভাইরাসে নতুন করে প্রাণ হারায় ১১ জন।


প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৩৭৬ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হন ৫২১ জন। এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন ১৫৩ জন ও পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্ত হন ৩৭ জন। লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বেড়ে চলছে।

খুব দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত মারা যায় ১১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে ২ জনের মৃতের খবর পাওয়া যায়।

আজ শুক্রবার কাউন্টিতে ভাইরাসটি সংক্রমণের এই সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে এলএ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগ। 

তাছাড়া, আজ দুপুর ১টায় লস এঞ্জেলেস কাউন্টির স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার জানান, মৃতদের মধ্যে ৭ জনের বয়স ছিল ৬৫ বৎসরের উপরে। সেইসাথে তাদের নানা স্বাস্থ্য জটিলটা ছিল। আর ৩ জনের বয়স ছিল ৪১ থেকে ৬৫ টির মধ্যে। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের মধ্যে ১ জনের বয়স ১৮ থেকে ৪০ এর মধ্যে বলে জানান স্বাস্থ্য বিভাগের এই পরিচালক। 

সেইসাথে আজকের এই সংবাদ সম্মেলনে বারবারা জানান, এলএ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৬৭টি প্রতিষ্ঠান নিয়ে কাজ করছে তারা। এর মধ্যে নার্সিংহোম, পুলিশ বিভাগ, জেলখানা থেকে শুরু করে রয়েছে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান। তাছাড়া, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে ক্যালিফোর্নিয়াতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজার ৫৭৩ জন। আর ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারান ২৮৫ জন। এর মধ্যে এলএ কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৪ হাজার ৫৬৬ জন, মৃতের সংখ্যা ৮৯ জন।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৭১১ জন, আর মারা যায় ১৩ জন। রিভারসাইড কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৬৩৮ জন, মৃতের সংখ্যা ১৫ জন। সান ভারনারডিনো কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৩৫৩ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩।ভেনটুরা কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ১৮৯ জন, মোট মারা যায় ৬ জন। আর সান ডিয়েগো কাউন্টিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১১২ জন, মারা ১৭ জন।

আর যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৭৭ হাজার ১৬১ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৭ হাজার ৩৯২ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে। তাছাড়া, এলএ বাংলা টাইমসের অনুসন্ধানে এখনো পর্যন্ত প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে কোন বাংলাদেশির আক্রান্ত বা মৃতের খবর পাওয়া যায়নি।   

লস এঞ্জেলেস কাউন্টি ও ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাসকারী সকল বাংলাদেশি বাঙালিকে নগর প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশ মেনে নিরাপদে ঘরে থাকার আহ্বান। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই। একসাথে মিলে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ করি। সেইসাথে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি, ক্যালিফোর্নিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ আপডেট দেখতে চোখ রাখুন লস এঞ্জেলেসের বাংলা মুখপত্র এলএ বাংলা টাইমসে।অনুরোধে লস এঞ্জেলেস বাংলা টাইমস।

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; তাপমাত্রা পরীক্ষার পর এবার মাস্ক পড়বে লস এঞ্জেলেস পুলিশ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০২ ২৩:২২:০৪


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসের) সংক্রমণ ঠেকাতে ও নিজেদের সুরক্ষার কথা ভেবে এবার মাস্ক পড়ার নিয়ম চালু করল লস এঞ্জেলেস পুলিশ বিভাগ। অবশ্য মরণব্যাধী ভাইরাসটির হাত থেকে বাঁচতে সাময়িক সময়ের জন্য এই নিয়ম চালু করা হয়। 


আজ বৃহস্পতিবার এলএ পুলিশ সদস্যদের মাস্ক ব্যবহার করার বিষয়টি গণমাধ্যমে নিশ্চিত করে লস এঞ্জেলেস পুলিশ বিভাগের চীফ মাইকেল মোর। 

সেইসাথে এলএ পুলিশ বিভাগের সদস্যদের প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার নতুন তথ্য প্রকাশ করে পুলিশ প্রধান। তিনি জানান, এখনো পর্যন্ত সবমিলিয়ে মোট ৩৫ জন পুলিশ সদস্য ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন। অবশ্য গত সপ্তাহে এই আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২৬ জন। সেই হিসেবে এই সপ্তাহে আক্রান্ত হন মোট ৯ জন। 

লস এঞ্জেলেস পুলিশ সদস্যদের প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটির হাত থেকে বাঁচাতে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে পুলিশ বিভাগ। সম্প্রতি পুলিশ বিভাগে চালু করা হয় তাপমাত্রা পরীক্ষা করার ব্যবস্থা। ডিউটি শুরু কিংবা শিফট পরিবর্তনের আগে প্রতিটা পুলিশ সদস্যকে শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করতে হচ্ছে। 

যদিও এখন পর্যন্ত ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়ে লস এঞ্জেলেস পুলিশ বিভাগের কোন সদস্য মারা যায়নি। তবে আজকেই প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারান রিভারসাইড কাউন্টি পুলিশের এক ডেপুটি। তাছাড়া, অন্য একটি কাউন্টিতে প্রাণ হারান পুলিশ বিভাগের এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা। 

/এলএ বাংলা টাইমস/      

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৮; আক্রান্ত ৪ হাজার ৪৫

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০২ ২১:১১:১৫


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসে) লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৮ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় মরণব্যাধী এই ভাইরাসে নতুন করে প্রাণ হারায় ১৩ জন।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৪৫ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হন ৫৩৪ জন। এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন ১৩৯ জন ও পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্ত হন ৩৭ জন। লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বেড়ে চলছে।

খুব দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত মারা যায় ৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে ১ জনের মৃতের খবর পাওয়া যায়।

আজ বৃহস্পতিবার কাউন্টিতে ভাইরাসটি সংক্রমণের এই সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে এলএ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগ। তাছাড়া, আজ দুপুর ১টায় লস এঞ্জেলেস কাউন্টির স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার জানান, মৃতদের মধ্যে ১২ জনের বয়স ছিল ৬৫ বৎসরের উপরে। সেইসাথে তাদের নানা স্বাস্থ্য জটিলটা ছিল। আর ১ জনের বয়স ছিল ৪১ থেকে ৬৫ টির মধ্যে।

গতকাল তিনি জানান, এলএ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে মৃতের হার এখনো পর্যন্ত ১.৮ শতাংশ। বারবার এই মৃত্যুহারকে দেশটির জাতীয় মৃত্যুহারের চেয়ে কিছুটা বেশি বলে উল্লেখ করেন।

তাছাড়া, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে ক্যালিফোর্নিয়াতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১১ হাজার ৩৩ জন। আর ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারান ২৪০ জন। এর মধ্যে এলএ কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৪ হাজার ৪৫ জন, মৃতের সংখ্যা ৭৮ জন।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৬৫০ জন, আর মারা যায় ১৩ জন। রিভারসাইড কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৪২৯ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩ জন। সান ভারনারডিনো কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ২৫৪ জন, মৃতের সংখ্যা ৬। ভেনটুরা কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ১৬০ জন, মোট মারা যায় ৫ জন। আর সান ডিয়েগো কাউন্টিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৪৯ জন, মারা ১৫ জন।

আর যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৪৪ হাজার ৮৭৭ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৬ হাজার ৭০ জন।

লস এঞ্জেলেস কাউন্টি ও ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাসকারী সকল বাংলাদেশি বাঙালিকে নগর প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশ মেনে নিরাপদে ঘরে থাকার আহ্বান। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই। একসাথে মিলে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ করি। সেইসাথে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি, ক্যালিফোর্নিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ আপডেট দেখতে চোখ রাখুন লস এঞ্জেলেসের বাংলা মুখপত্র এলএ বাংলা টাইমসে।অনুরোধে লস এঞ্জেলেস বাংলা টাইমস। 
 

বিস্তারিত খবর

নৌ হাসপাতাল ‘ইউএসএনএস মার্সি’ ধ্বংসের চেষ্টা, হামলাকারী গ্রেফতার

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০১ ২৩:৩৮:০৯


গতকাল মঙ্গলবার লস এঞ্জেলেস পোর্টে অবস্থান করা মার্কিন নৌবাহিনীর হাসপাতাল ‘ইউএসএনএস মার্সি’ ধ্বংসের উদ্দেশ্যে হামলা চালায় এক ব্যক্তি। এদুয়ার্দো মোরেনো নামের ঐ ব্যক্তি পেশায় একজন ট্রেন ইঞ্জিনিয়ার। 

৪৪ বৎসর বয়স্ক এই ব্যক্তি পোর্টে অবস্থা করা নৌ হাসপাতালটিকে লক্ষ্যবস্তু করে একটি ট্রেন লাইনচ্যুত করে ছেড়ে দেয়। অবশ্য হামলা করে পালাতে সক্ষম হননি তিনি। সেখানে দায়িত্বপালন করা তহল পুলিশ দুষ্ট এই ইঞ্জিনিয়ারকে ধরে ফলে। 

ফায়ার বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, গতকালের ঘটনায় কোন হতাহত হয়নি। তবে এতো বিশাল একটি বগি মার্সিতে আঘাত করলে কি ঘটত টা কেবল সৃষ্টিকর্তাই জানে। 

এদিকে লস এঞ্জেলেস গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, টানা দুই দফা জিজ্ঞাসাবাদে হামলার কথা স্বীকার করেন মধ্যবয়স্ক এই ইঞ্জিনিয়ার। গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, হামলা কারী এই ইঞ্জিনিয়ারের ধারণা সরকার কোন গোপন উদ্দেশ্যে লস এঞ্জেলেস পোর্টে নৌ বাহিনীর এই হাসপাতালটি নিয়ে আসে। আর তাই তিনি এমন হামলা চালান। 

উল্লেখ্য, রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্যালিফোর্নিয়ার প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে ৮টি হাসপাতাল নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছিল। হাসপাতাল নির্মাণের যাবতীয় সরঞ্জামাদি ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ক্যালিফোর্নিয়া পাঠানোর কড়া হুশিয়ারি দিয়েছিলেন তিনি। 

সেইসাথে মার্কিন নৌ হাসপাতাল ‘ইউএসএনএস মার্সি খুব দ্রুত লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে পৌছায় এই বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছিল। পরে রাষ্ট্রপতির নির্বাহী আদেশে হাসপাতালটি খুব দ্রুত পাঠানোর নির্দেশ দেয় পেন্টাগন। গত শুক্রবার লস এঞ্জেলেস পোর্টে আসা এই হাসপাতালটি পরদিন শনিবার থেকেই চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করেছিল। 

/এলএ বাংলা টাইমস/      

বিস্তারিত খবর

আপনার করোনা চিকিৎসায় লস এঞ্জেলেস কাউন্টির যত ব্যবস্থা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০১ ২১:৫৭:৩২


আপনি কি জ্বর, সর্দি, কাশি কিংবা তীব্র শ্বাস কষ্টে ভুগছেন? প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস আপনার মধ্যে বাসা বেঁধেছে, এমন সন্দেহ হচ্ছে কি? ভাইরাসটি নিয়ে আপনার মধ্যে স্বাভাবিক মনঃপীড়া বা মানসিক যন্ত্রনা আছে কি? কিংবা এই বিষয়ে কোন জিজ্ঞাসা? 


তাহলে দুশ্চিন্তার কোন কারণ নেই। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি নিয়ে আপনার যত জিজ্ঞাসা কিংবা সংক্রমিত হলে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করে রেখেছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি। লস এঞ্জেলেস কাউন্টি কর্তৃপক্ষ, কাউন্টির স্বাস্থ্যবিভাগ ও সিসিডি সবাই মিলে কাজ করছে আপনাকে ভাইরাসটি সম্পর্কে সচেতন করতে। এবং প্রয়োজনীয় সেবা দিতে। আর আপনি যদি লস এঞ্জেলেসের বাসিন্দা হয়ে থাকেন, পড়তে পারেন এলএ বাংলাটাইমসের এই আর্টিকেল। এক নজর দেখে নিতে পারেন আপনার সেবায় কত ব্যবস্থা করে রেখেছে কাউন্টি কর্তৃপক্ষ। 

প্রথমে শুরু করি লস এঞ্জেলেস কাউন্টি কর্তৃপক্ষ দিয়ে। আপনার সেবায় মেয়র এরিক গারসেট্টি রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছে। দায়িত্বশীল এই মেয়র প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে এই তীব্র সংক্রমণে নাগরিক সেবা দিতে চালু করেছে একটি পোর্টাল। https://corona-virus.la/ মেয়রের উদ্যোগে চালু করা এই পোর্টালে গিয়ে আপনি কাউন্টিতে করোনার সংক্রমণ সম্পর্কে আপনি অনেক কিছু জানতে পারবেন। 

তাছাড়া, ভাইরাসটি সম্পর্কে যে কোন কিছু জানতে কল করতে পারেন মেয়রের চালু করা হেল্প ডেস্কের এই ২১৩- ৯৭৮- ১০২৮ নম্বরে। আর যদি আপনার মধ্যে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের তীব্র সংক্রমণ থেকে থাকে। তাহলে করোনাভাইরাসের টেস্ট করাতে আপনি সেখানে রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন। যদিও এখনো পর্যন্ত টেস্ট করানোর এই সেবা সীমিত পরিসরে কাজ করছে। তবে মেয়র জানান, এই সপ্তাহে টেস্ট কার্যক্রম বিস্তৃত করা হবে। লস এঞ্জেলেসের সবাই এই টেস্ট করাতে পারবে। 

বর্তমানে সীমিত এই কার্যক্রমে কিছু শর্ত বেঁধে দেওয়া হয়েছে। তারা বলছে, বয়স ৬৫ টির বেশি, নানাবিধ স্বাস্থ্য জটিলটা রয়েছে, কোয়ারেন্টিতে ৭ দিন অতিক্রান্ত হয়েছে শুধু এমন ব্যক্তিকেই এখন এই টেস্ট করা হচ্ছে। তবে আর কয়েক দিন পর সবাই এই টেস্ট করাতে পারবে। 

ইমারজেন্সি নম্বরঃ তাছাড়া, যাদের মধ্যে ভাইরাসটির লক্ষণ/উপসর্গ প্রবল তাদের জন্য চালু করা হয়েছে জরুরী এই সেবা। এমন ব্যক্তিরা কল করতে পারেন ৯১১ নম্বরে।         

তাছাড়া, সপ্তাহের প্রতিদিন ২৪ ঘণ্টা সেবা দিতে লস এঞ্জেলেস স্বাস্থ্য বিভাগ চালু করেছে একটি হেল্প সেন্টার। আপনার যে কোন জিজ্ঞাসা বা প্রশ্ন করতে কল করতে পারেন ২১১ নম্বরে।  

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৫; আক্রান্ত ৩ হাজার ৫১৮

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০১ ২০:০২:১২


প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসে) লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৫ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় মরণব্যাধী এই ভাইরাসে নতুন করে প্রাণ হারায় ১১ জন।


প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৫১৮ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হন ৫১৩ জন। এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হন ১৩৩ জন ও পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্ত হন ৩৩ জন। লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বেড়ে চলছে।

খুব দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত মারা যায় ৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে নতুন করে ৩ জনের মৃতের খবর পাওয়া যায়। 

আজ বুধবার কাউন্টিতে ভাইরাসটি সংক্রমণের এই সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে এলএ কাউন্টি স্বাস্থ্য বিভাগ। তাছাড়া, আজ দুপুর ১টায় লস এঞ্জেলেস কাউন্টির স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার জানান, মৃতদের মধ্যে ৯ জনের বয়স ছিল ৬৫ বৎসরের উপরে। সেইসাথে তাদের নানা স্বাস্থ্য জটিলটা ছিল। আর ২ জনের বয়স ৬৫ টির নিচে বলে জানান।  

তাছাড়া, নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ৫ জন ‘হোমলেস পিপল’ রয়েছে বলে জানান কাউন্টির স্বাস্থ্য বিভাগের এই পরিচালক। গতকাল তিনি জানান, এলএ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে মৃতের হার এখনো পর্যন্ত ১.৮ শতাংশ। বারবার এই মৃত্যুহারকে দেশটির জাতীয় মৃত্যুহারের চেয়ে কিছুটা বেশি বলে উল্লেখ করেন। 

তাছাড়া, প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে ক্যালিফোর্নিয়াতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯ হাজার ৬৪০ জন। আর ভাইরাসের কবলে প্রাণ হারান ২০৭ জন। এর মধ্যে এলএ কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৩ হাজার ৫১৮ জন, মৃতের সংখ্যা ৬৫ জন। 

অরেঞ্জ কাউন্টিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মোট আক্রান্ত ৬০৬ জন, আর মারা যায় ১০ জন। রিভারসাইড কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ৩৭১ জন, মৃতের সংখ্যা ১৩ জন। সান ভারনারডিনো কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ১৮৩ জন, মৃতের সংখ্যা ৬। ভেনটুরা কাউন্টিতে মোট আক্রান্ত ১৪৯ জন, মোট মারা যায় ৫ জন। আর সান ডিয়েগো কাউন্টিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৭৩৪ জন, মারা ৯ জন। 

আর যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৮৮ হাজার ১৭২ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৩ হাজার ৮৭৩ জন। 

লস এঞ্জেলেস কাউন্টি ও ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাসকারী সকল বাংলাদেশি বাঙালিকে নগর প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশ মেনে নিরাপদে ঘরে থাকার আহ্বান। আসুন আমরা সবাই সচেতন হই। একসাথে মিলে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ করি। সেইসাথে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি, ক্যালিফোর্নিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ আপডেট দেখতে চোখ রাখুন লস এঞ্জেলেসের বাংলা মুখপত্র এলএ বাংলা টাইমসে।অনুরোধে লস এঞ্জেলেস বাংলা টাইমস।  

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে রেস্টুরেন্টে গ্রোসারি পণ্য বিক্রির অনুমোদন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-৩১ ২২:০২:২৫


লস এঞ্জেলেস কাউন্টির রেস্টুরেন্টগুলো এখন ক্রেতাশূন্য। প্রাণঘাতী কভিড-১৯ (করোনাভাইরাসের) সংক্রমণ ঠেকাতে কাউন্টির জারি করা নির্বাহী আদেশে এমন অবস্থা তৈরি হয়। ফলে প্রতিদিন ব্যবসায়ে লস গুণতে হচ্ছে রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীদের। 


আর তাই রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীদের এই আর্থিক ক্ষতির কথা চিন্তা করে এক অসাধারণ উদ্যোগ নিল লস এঞ্জেলেস কাউন্টি পাবলিক হেলথ বিভাগ। এই ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে রেস্টুরেন্টের ফাঁকা কর্নারে গ্রোসারি পণ্য বিক্রি করার অনুমোদন দিল পাবলিক হেলথ। আজ মঙ্গলবার রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীদের এমন অনুমতি দেওয়ার বিষয়ে গণমাধ্যমে মেইল পাঠায় পাবলিক হেলথ বিভাগ। 

আর এই বিষয়ে একটি গাইডলাইন তৈরি করছে পাবলিক হেলথ কর্তৃপক্ষ। জানা যায়, এই গাইডলাইনের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীদের সাহায্য করতে চাচ্ছে স্বাস্থ্য বিভাগ। 

কাউন্টিতে চলমান নির্বাহী আদেশের ফলে, অনেকদিন থেকে রেস্টুরেন্টে বসে খেতে পারছে না ক্রেতারা। এতে করে বিপাকে পড়ে রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীরা। এলএ বাংলা টাইমসের অনুসন্ধানে জানা যায়, আর্থিক ক্ষতি সামলাতে না পেরে গত সপ্তাহে কাউন্টির অনেক রেস্টুরেন্ট বন্ধ হয়ে। 

আর্থিক ক্ষতির এই চিত্র লক্ষ্য করা যায় বাংলাদেশি মালিকানাধীন বাঙালি পাড়ার রেস্টুরেন্টগুলোতেও। সেখানকার কমপক্ষে ৮-১০টি রেস্টুরেন্টে গিয়ে এই চিত্র লক্ষ্য করা যায়। তাছাড়া, এতোদিন রেস্টুরেন্টে গ্রোসারি পণ্য বিক্রি করা যাবে কিনা এই বিষয়ে অনিশ্চয়তায় ছিল ব্যবসায়ীরা। স্বাস্থ্য বিভাগের এই অনুমোদনে রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীদের এই অনিশ্চয়তা দূর হল। 

সেইসাথে স্বাস্থ্যবিভাগের এমন প্রশংসনীয় সিদ্ধান্তে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা আর্থিক ক্ষতিও কিছুটা কাটিয়ে উঠবে বলে আশা করা যাচ্ছে। 

/এলএ বাংলা টাইমস/            

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত