যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ৩০ মে, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 11:13am

|   লন্ডন - 06:13am

|   নিউইয়র্ক - 01:13am

  সর্বশেষ :

  জেনে নিন, রিয়েল আইডি ও ক্যালিফোর্নিয়া ডিএমভি কী?   ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনায় মৃত ছাড়িয়েছে ৪ হাজার   বড় পরিসরে ব্যবসা চালুর আশা করছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি   ক্যালিফোর্নিয়ার আইনপ্রণেতাদের বেতন এবছর বাড়ছে না   করোনায় একদিনে গেল আরও ৪৮ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৯ হাজার ৭৭৪   বেকার বীমা জালিয়াতি কী? শাস্তি হবে কেমন?   নিজের গড়া দল থেকে বহিষ্কার হলেন মাহাথির মোহাম্মদ   দেশে একদিনে সর্বোচ্চ ২০২৯ জন শনাক্ত, মৃত্যু ১৫   ভারতে করোনা সন্দেহে বাংলাদেশি যুবককে পিটিয়ে হত্যা   নিউজিল্যান্ডকে করোনামুক্ত ঘোষণা   দেশে ১ জুন থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান চলাচল শুরু   সৌদিআরবে গোলাগুলিতে ৬ জন নিহত   লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশীকে গুলি করে হত্যা করল মানবপাচারকারীরা   আন্তর্জাতিক গানে কণ্ঠ দিলেন বাংলাদেশি ৩ তরুণ   লস এঞ্জেলেস কাউন্টির কিছু জেলে করোনা আক্রান্ত ৪০ শতাংশ

>>  লস এঞ্জেলেস এর সকল সংবাদ

জেনে নিন, রিয়েল আইডি ও ক্যালিফোর্নিয়া ডিএমভি কী?


রিয়েল আইডি হচ্ছে নতুন ধরনের ব্যক্তি শনাক্তকরণ কার্ড যেটি ক্যালিফোর্নিয়া ডিপার্টমেন্ট অব মোটর ভিহকলস (ডিএমভি) ইস্যু করে থাকে। রাজ্যের বাসিন্দাদের সম্পর্কে আরও বেশি তথ্য নিশ্চিত করতে ও কাউকে যাচাই-বাছাইয়ের নতুন ফেডারেল নিয়মে এটি থাকা খুব প্রয়োজন। 


১) ওল্ড আইডি ও রিয়েল আইডির মধ্যে পার্থক্য কী?

আগের ক্যালিফোর্নিয়া ড্রাইভার’স লাইসেন্স এবং আইডেন্টিফিকেশন কার্ডস বা ওল্ড আইডি ফেডারেল মানদণ্ড বজায় রাখে না। অপরদিকে নতুন রিয়েল আইডি পূর্বের চেয়ে বেশি নিরাপদ ও ফেডারেল মানসম্পন্ন বলে জানানো হচ্ছে।

২) কেন রিয়েল আইডি

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনায় মৃত ছাড়িয়েছে ৪ হাজার

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৯ ১৬:০৪:০৯


শুক্রবার পর্যন্ত করোনাভাইরাসে ক্যালিফোর্নিয়ায় ৪ হাজারের বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন। এদিকে অর্থনৈতিক অচলাবস্থা কাটাতে ধীরে ধীরে কাউন্টিগুলো সচল করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।


যদিও ক্যালিফোর্নিয়ায় মৃতের সংখ্যা এখনো মিশিগান, নিউ জার্সি ও নিউ ইয়র্কের তুলনায় এখনো অনেক কম। তবে হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে এবং সংক্রমণ ছড়াতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। নিউ ইয়র্কে মৃতের সংখ্যা ২৯ হাজার ছাড়িয়েছে, নিউ জার্সিতে ১১ হাজার ৫ শ ও মিশিগানে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৪ শ জনের।

ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনা সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি হয়েছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে। বৃহস্পতিবারও সেখানে মারা গেছেন ৪৯ জন। মোট সংখ্যা এখন দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ২৪১ জনে। অর্থাৎ রাজ্যে মোট করোনায় মোট মৃতের প্রায় অর্ধেকই লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে। এছাড়া আক্রান্ত ৫০ হাজারের বেশি। সেখানে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডও সচল হচ্ছে ধীরে ধীরে।

লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে ইতোমধ্যে শপিংমল ও চার্চ খুলে দেওয়া হয়েছে কঠোর সামাজিক দূরত্ব মানার শর্তে। বিস্তৃত পরিসরে ব্যবসা চালুর জন্যও রাজ্যের কাছে আবেদন করেছে কাউন্টি কর্তৃপক্ষ। এ ব্যাপারে শুক্রবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

এদিকে সান ফ্রান্সিসকো মেয়র লন্ডন ব্রিড বৃহস্পতিবার শহর সচল করার পরিকল্পনা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সংকটের এই সময়ে সবকিছু সচলে নতুন ধাপে প্রবেশ করাটা স্বস্তির। আমরা এখন এমন ধাপে রয়েছি যেখান থেকে অর্থনীতি পুনরায় শুরু করতে পারি।

শহরটি ইনডোর সার্ভিস, স্পোর্টস গেমস, উৎসব ও বিভিন্ন কম গুরুত্বপূর্ণ মেডিকেল সার্ভিস চালুর চিন্তাভাবনা করছে। এছাড়া আগস্টের মাঝামাঝি সময়ে স্কুল, বার, ট্যাটু পার্লার সচলের কথা ভাবা হচ্ছে।

এদিকে প্লেসার কাউন্টি নিজেদের সচলে আরও একটু এগিয়ে। সেখানে জিম, নেইল সেলুন, এন্টারটেইনমেন্ট ভেন্যু ও অন্যান্য খেলা শুরু করার জন্য পিটিশন দায়ের করেছে রাজ্যে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ


বিস্তারিত খবর

বড় পরিসরে ব্যবসা চালুর আশা করছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৯ ১৫:০১:২২



লস এঞ্জেলেস কাউন্টি কর্মকর্তারা আশা করছেন সেখানের রেস্টুরেন্টগুলো ডাইন-ইন এর জন্য খুলে দেওয়া ও হেয়ার সেলুন বা বারবার শপ উন্মুক্তের ব্যাপারে শুক্রবারই সিদ্ধান্তের অগ্রগতি হবে। এর আগে বুধবার কাউন্টিটি রাজ্যের কাছে আবেদন জানায়, শর্ত-পূরণ করায় যাতে সেখানে ধীরে ধীরে বড় পরিসরে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চালু করা যায়।


ইতোমধ্যে ৪৭টি কাউন্টি এ ধরনের অনুমোদন পেয়েছে। এরমধ্যে লস এঞ্জেলেস কাউন্টির আশেপাশের কাউন্টিগুলোও রয়েছে। ভেনচারা কাউন্টির আবেদন অনুমোদন পেয়েছে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে।

লস এঞ্জেলেস  কাউন্টি সুপারভাইজর ক্যাথরিন বার্জার এক বিবৃতিতে আশার কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, স্থানীয় তথ্য যাচাই করে দেখা যায় আমরা করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। আমরা সামনের ধাপগুলোর জন্য প্রস্তুত। 

গভর্নর গেভিন নিউসাম বলছেন, কাউন্টিসমূহে ব্যবসা সচল করা হলেও করোনা হুমকি এখনো কাটিয়ে উঠা যায়নি। তবে পরিস্থিতির স্থিতিশীলতার জন্য স্বাস্থ্য-কর্মীরা বাহাবা পাবেন। মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমরা সবেমাত্র পরিস্থিতি মোকাবিলা করা শুরু করেছি।

তবে অর্থনীতি চালুর পরও কিছু কিছু কাউন্টি পুনরায় পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে। এ সপ্তাহে সোনোমা কাউন্টি সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে খুচরা দোকান, হেয়ার সেলুন ও প্রার্থনালয় বন্ধ রাখার। যদিও এটি প্রথম কাউন্টিগুলোর একটি যেটি বিস্তৃত পরিসরে ব্যবসা চালু করে। তবে পরবর্তীতে আক্রান্তের হার দ্বিগুণ হতে থাকে।

সান্তা ক্লেরা কাউন্টির হেলথ অফিসার ডক্টর সারা কোডি আশঙ্কা জানিয়েছেন, ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা বৃদ্ধি পেতে পারে যদি দ্রুত একসাথে খুব বেশি ব্যবসায়িক খাত উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। 

বিস্তৃত পরিসরে অর্থনীতি সচলে লস এঞ্জেলেস কাউন্টি শর্ত পূরণ করেছে বলে জানিয়েছে। প্রতি এক লাখ বাসিন্দায় ২৫ জনের কম গত ১৪ দিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অথবা  শতকরা ৮ জনের কম করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে শেষ সাত দিনে।

তবে কাউন্টিগুলো ব্যবসা সচলে অন্যতম মর্ত হচ্ছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে যথাসময়ে ব্যবস্থা নেওয়ার সক্ষমতা থাকা। লস এঞ্জেলেস কাউন্টি এ ব্যাপারেও নিজের অবস্থান জানিয়েছে। 

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ



বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়ার আইনপ্রণেতাদের বেতন এবছর বাড়ছে না

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৯ ১২:১৩:৩৪



ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের  আইনপ্রণেতা ও অন্যান্য শীর্ষ নির্বাচিত কর্মকর্তারা এ বছর বেতন বৃদ্ধি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। বিগত ৫ বছরের মধ্যে এবারই প্রথম এমনটা হতে যাচ্ছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে ক্রমবর্ধমান সংকট রাজ্যে এমন পরিস্থিতি তৈরি করেছে। এবার বাজেট ঘাটতি ও বেকারত্ব বৃদ্ধি অবস্থার অবনতি ঘটিয়েছে।


সরকারি পদগুলোর বেতন নির্ধারণ করে দ্য ক্যালিফোর্নিয়া কমপেনশন কমিশন। বৃহস্পতিবার কমিশন সর্বসম্মতভাবে চলতি বর্ষে বেতন কাঠামো অপরিবর্তিত রাখার ব্যাপারে সর্বসম্মতভাবে ঐক্যমত্যে পৌঁছায়। 

এতে গভর্নর গেভিন নিউসামের বেতন দাঁড়াবে ২ লাখ ১০ হাজার ডলারে। রাজ্যের আইনপ্রণেতারা বছরে পাবেন ১ লাখ ১৫ হাজার ডলার। এছাড়া লেফটেন্যান্ট গভর্নরের পদের স্যালারি হচ্ছে ১ লাখ ৫৭ হাজার ও অ্যাটর্নি জেনারেল ১ লাখ ৮২ হাজার ডলার বেতন পাবেন।

এর আগে গভর্নর নিউসাম জানিয়েছিলেন, করোনাভাইরাসের কারণে বাজেট ঘাটতি ও অর্থনৈতিক মন্দার কারণে রাজ্যের কর্মচারীরে বেতনের শতকরা ১০ ভাগ কেটে রাখা হবে। এতে অন্তর্ভুক্ত থাকবে গভর্নরের নিজের বেতনও।

তবে কমিশন সদস্যরা বলছেন, এই বেতন বাড়ানো বা কমানো পরিস্থিতি মোকাবিলায় খুব বেশি ভূমিকা রাখবে না। রাজ্যের অর্থনৈতিক অবস্থা এতটাই নাজুক। ভোটের আগে কমিশন সদস্য নিকোল রাইস বলেন, আমরা এখানে যে সিদ্ধান্ত নেব তাতে অর্থনীতির খুব একটা হেরফের হবে না।

আইন-প্রণেতারা প্রায় ৫৪.৩ বিলিয়ন ডলার বাজেট ঘাটতি মোকাবিলা করছেন। গভর্নর নিউসাম এ কারণে শিক্ষাসহ গুরুত্বপূর্ণ অনেক খাতে বাজেট কর্তন করতে বাধ্য হচ্ছেন। সর্বশেষ ২০১২ সালে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন থেকে ৫% অর্থ কেটে নেওয়ার ঘটনা ঘটেছিল।


/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ



বিস্তারিত খবর

করোনায় একদিনে গেল আরও ৪৮ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৯ হাজার ৭৭৪

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৯ ০১:২৫:০২


প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ৪৮ জন। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,২৪১ জনে। ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯ হাজার ৭৭৪ জন। 


এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,৬৬৬ জন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে লং বীচে মারা যায় ৮১ জন। পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ৯০০ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৮২ জন।

বৃহস্পতিবার  কাউন্টির ভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার। ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত ১,২৯ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এই এলাকায় গতকাল নতুন  ৫ জন শনাক্ত হয়েছেন

পুরো ক্যালিফোর্নিয়াতে করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৩ হাজার ৭৯৭ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু নতুন করে আক্রান্ত হয় ২,৪২২ জন। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মোট ৪ হাজার ৩৯ জন। আজকে নতুন করে মারা যান ৮৬ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লক্ষ ৬৮ হাজার ৪৬১ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৩হাজার ৩৩০ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে।

/এলএল/ বাংলা টাইমস/এন/এইচ


বিস্তারিত খবর

বেকার বীমা জালিয়াতি কী? শাস্তি হবে কেমন?

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৮ ১৭:৪৮:৩৫


মিথ্যা বা ভুল তথ্য দিয়ে  ক্যালিফোর্নিয়ার এমপ্লয়মেন্ট ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্ট থেকে বেকার বীমা সুবিধা আদায় হলো এক ধরনের জালিয়াতি। এ ধরনের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত হলে রাজ্যের আইনানুসারে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। হতে পারে বড় ধরনের শাস্তি।


যেসব কারণে বেকার বীমা (আনএমপ্লয়মেন্ট ইনস্যুরেন্স) জালিয়াতি হিসেবে গণ্য হবে:

১) কর্মক্ষেত্র থেকে ফিরে আনএমপ্লয়মেন্ট ইনস্যুরেন্স বা ইউআই সুবিধা নেওয়া অথচ কাজ ও মজুরি নিয়ে রিপোর্ট না করা।
২) যে সপ্তাহে কাজ চালু ছিল সে রিপোর্ট না করা।
৩) পার্ট-টাইম জব করা কিন্তু আয় নিয়ে রিপোর্ট না করা ও সুবিধা নেওয়া অব্যাহত রাখা।
৪) স্বল্পস্থায়ী কাজে জড়িত থাকলেও তা না জানানো।
৫) ইউআই সুবিধা নিতে গিয়ে ভুল তথ্য দেওয়া।


এ অপরাধের জন্য যেসব শাস্তি হতে পারে:

১) সরকারি বিধি মোতাবেক আইনানুগ ব্যবস্থা।
২) জেল অথবা কারাদণ্ড।
৩) যেসব ইউআই সুবিধা নেওয়া হয়েছে তা ফিরিয়ে দেওয়া ও জরিমানা। 
৪) ভবিষ্যতের জন্য কালো তালিকাভুক্ত করা।


তাই এ ধরনের শাস্তি এড়াতে সপ্তাহে সপ্তাহে কর্মহীন বা কাজে নিয়োজিত থাকলে তা জানাতে হবে। কর্মক্ষেত্রের চুক্তি ও বেতন সবকিছু স্পষ্টভাবে রিপোর্ট করতে হবে। রোববার থেকে শনিবার সার্টিফিকেশন সপ্তাহ হিসেবে গণ্য।

আর কেউ যদি ভেবে থাকেন ভুলে এ ধরনের অপরাধ করে ফেলেছেন তাহলে দ্রুত তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ


বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেস কাউন্টির কিছু জেলে করোনা আক্রান্ত ৪০ শতাংশ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৮ ১৪:২৮:২৬



করোনাভাইরাস সংক্রমণ মারাত্মক হওয়ায় লস এঞ্জেলেস কাউন্টির জেলগুলোতে পুরোদমে ভাইরাস শনাক্তের চিন্তাভাবনা চলছে। কোথাও কোথাও জেলের কয়েদিদের শতকরা ৬০ ভাগের আক্রান্তের হদিস মিলেছে।


কেসটিকের নর্থ কাউন্টি কারেকশনাল ফ্যাসিলিটিতে ৬০০ কারাবন্দি রয়েছেন। তাদের মধ্যে শতকরা ৪০ জন করোনা টেস্টে পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। তবে অনেকেরই লক্ষ্মণ প্রকাশ পায়নি। হার্ড ইমিউনিটি প্রভাব ফেলতে শুরু করেছে এমনটাই সংবাদ সম্মেলনে বুধবার জানিয়েছেন শেরিফ অ্যালেক্স ভ্যালিউনেভা।

এই পুলিশ কর্মকর্তার মতে করোনা উপসর্গের সংখ্যা কমে যাওয়ায় জেলগুলোর পরিস্থিতি আগের চেয়ে ভালো। তিনি বলেন, এক সপ্তাহ পূর্বে আমরা ঠিক বিপরীত অবস্থানে ছিলাম। 

তবে হার্ড ইমিউনিটির বিপক্ষেও বলছেন কেউ কেউ। রিফর্ম এলএ জেল’স এর ফাউন্ডার ও চেয়ারওম্যান প্যাট্রিসি কুলারস। তিনি বন্দিদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিয়ে মহামারির শুরু থেকে সোচ্চার ছিলেন ও কাজ করেছেন। প্যাট্রিসি বলেন হার্ড ইমিউনিটির চিন্তাভাবনা ‘মূর্খের মতো’ ও ‘ঝুঁকিপূর্ণ’।

হার্ড ইমিউনিটি কীভাবে অর্জিত হতে পারে তা নিয়ে রয়েছে বিতর্ক। লস আলমস ন্যাশনাল ল্যাবরেটরি এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে। রিপোর্টে বলা হয়, যদি করোনা আক্রান্ত একজন ছয়জনকে ভাইরাসটি সংক্রমিত করে থাকে। তবে হার্ড ইমিউনিটি গড়ে উঠার শতকরা ৮২ ভাগ সম্ভাবনা রয়েছে। জেলেখানাগুলো তুলনামূলক দ্রুত সংক্রমণ ছড়ায়।

ক্যালিফোর্নিয়ার লমপোক ও টার্মিনাল আইল্যান্ড প্রিজনে এ পর্যন্ত ১৮০০ বন্দি করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ১০ জন। লস এঞ্জেলেস কাউন্টির জেলগুলোতে ১ হাজারের বেশি করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন ২৫০ জনের মতো  শেরিফ বিভাগে নিয়োজিতরা। মারা গেছেন একজন নার্সও।

জেলগুলোর মোট বন্দির ৫ হাজার ১ শ জন রয়েছেন কোয়ারেন্টাইনে। যা মোট জনসংখ্যার ৪০ ভাগ। এছাড়া যেহেতু অনেকেরই করোনা লক্ষণ প্রকাশ পাচ্ছে না। তাই মোট সংক্রমিত বন্দির সংখ্যা নিশ্চিত করেই বলা যাচ্ছে না। 

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ



বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেসের বাসিন্দাদের আবাসন খরচে ১০০ মিলিয়ন সহায়তার প্রস্তাব

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৮ ১৩:০৪:৪৪



লস এঞ্জেলেস সিটি কাউন্সিল প্রেসিডেন্ট নুরি মার্টিনেজ বুধবার এক প্রস্তাব দায়ের করছেন যাতে করোনাভাইরাসের জরুরি সহায়তা ফান্ড থেকে শহরের আবাসন খরচে সাহায্য করা যায়। ফেডারেল ফান্ডিং থেকে এই ১০০ মিলিয়ন সহায়তা চাওয়া হয়েছে।


করোনাভাইরাস সংক্রান্ত তহবিল থেকে লস এঞ্জেলেস ৬৯৪ মিলিয়ন ডলার সহায়তা গ্রহণ করবে। এর মধ্যে ১০০ মিলিয়ন ডলারের মাধ্যমে বাড়িওয়ালা, ভাড়াটিয়া ও লিজ হোল্ডারদের সাহায্যের প্রস্তাব করা হয়েছে।

নুরি মার্টিনেজ জানান জুলাইয়ের ১ তারিখ থেকে এই সংক্রান্ত সহায়তা শুরুর কথা চিন্তা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, মহামারির শুরু থেকে সিটি কাউন্সিল ও মেয়র এরিক গ্যারসেটি একটি কথাই ভাবছেন। তা হলো বাসিন্দাদের নিরাপত্তা। স্বাস্থ্যের পাশাপাশি তাদের অন্যান্য কল্যাণ ও হাউজিং নিয়ে ভাবতে হবে।

এদিকে মেয়র  গ্যারসেটি জানিয়েছেন, প্রায় ৫০ হাজার পরিবার করোনাকালীন আবাসন খরচ সুবিধা পাবেন। তবে এতে ক্ষতিগ্রস্তদের প্রমাণ করতে হবে মহামারির কারণে তাদের আয় মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রেন্টারস রিলিফ প্রোগ্রামে আরও বেশি মানুষকে অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা চলছে বলে জানান তিনি।

কেউ যদি এই সহায়তা কার্যক্রমে অংশ নিতে চায় তাহলে hcidla.org ওয়েবসাইটে গিয়ে অর্থ সহায়তা দিতে পারে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ


বিস্তারিত খবর

পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ নিহতের প্রতিবাদে লস এঞ্জেলেসে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৮ ১২:০৭:৪৭



জর্জ ফ্লোয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের পুলিশি নির্যাতনে মৃত্যুর ঘটনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-জুড়ে বইছে নিন্দার ঝড়। বিভিন্ন  রাজ্যে হয়েছে বিক্ষোভ। বুধবার বিকেলে লস এঞ্জেলেসের হল অব জাস্টিসের বাইরে বাসিন্দারা প্রতিবাদ করেন। সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে যায় ১০১ ফ্রি ওয়ে।

সন্ধ্যার দিকে তা বিশৃঙ্খল ও সহিংসতায় রূপ নেয়। এতে আহত হয়েছেন অন্তত একজন। আহত ব্যক্তিকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফায়ার ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র নিকোলাস প্রাঞ্জ।

সোমবারের ওই ঘটনার ভিডিওতে দেখা যায়, ফ্লোয়েড নামের যুবককে হাঁটু দিয়ে চেপে ধরে নির্যাতন করছেন মিনোপোলিস পুলিশ কর্মকর্তা। ওই কৃষ্ণাঙ্গ যুবক বাঁচার আকুতি জানিয়ে বলছিলেন, আমি নিঃশ্বাস নিতে পারছি না। পরে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এরপরই শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ চলছে। কোথাও তা সহিংসতায় রূপ নিয়েছে। লস এঞ্জেলেসের পুলিশ ডিপার্টমেন্টের প্রধান মাইকেল মুর বলেন, ভিডিওতে যা দেখেছি তা বিরক্তিকর ও তা আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার মূলনীতির সঙ্গে যায় না।

লস এঞ্জেলেস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট মানুষের আস্থা অর্জন করতে প্রতিদিন কাজ করে যাচ্ছে। তবে এ ধরনের ঘটনা পুলিশকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে বলে জানান তিনি।

ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার লস এঞ্জেলেস চ্যাপ্টারে প্রতিবাদকারীরা গেল কয়েক বছরে পুলিশি নির্যাতনে মৃতদের স্মরণ করেন। এরমধ্যে রয়েছেন ক্রিস্টোফার ডি’আন্দ্রে মিশেলও। টরেন্স পুলিশ ২০১৮ সালের ৯ ডিসেম্বর তাকে গুলি করে একটি গাড়ি চুরির অভিযোগের ঘটনায়।  

আন্দোলনকারীরা রাত পর্যন্ত আলমেদা স্ট্রিট ও আলিসো স্ট্রিটে জড়ো হয়েছিলেন। তবে কাউকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে কি না তা নিশ্চিত নয়। লস এঞ্জেলেস কাউন্টি শেরিফ অ্যালেস ভেলুয়েনেভা টুইটে, শান্তিপূর্ণ সমাবেশের জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ


বিস্তারিত খবর

করোনায় একদিনে গেল আরও ৫৩ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৮ হাজার ৭০০

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১৯:০১:০২



প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ৫৩ জন। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,১৯৫ জনে। ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৮ হাজার ৭০০ জন। 

এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,৬০৫ জন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে লং বীচে মারা যায় ৭৫ জন। পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৮৩ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৮২ জন।

আজ বুধবার  কাউন্টির ভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার। ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত ১,২৪ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এই এলাকায় গতকাল নতুন  ৪ জন শনাক্ত হয়েছেন

পুরো ক্যালিফোর্নিয়াতে করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১ হাজার ৩৪৭ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু নতুন করে আক্রান্ত হয় ১,৫৭১ জন। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মোট ৩ হাজার ৯৫৩ জন। আজকে নতুন করে মারা যান ১০১ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লক্ষ ৪৪ হাজার ২০১ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ২ হাজার ০০৮ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে।

/এলএল/ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

আগেভাগেই সচল হচ্ছে ক্যালিফোর্নিয়া, 'বিপদের' আশঙ্কা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১৭:৪৬:৫৫



করোনাভাইরাস ভয়াবহ সংক্রামক রোগ। একজন থেকে খুব সহজেই ছড়াতে পারে অন্যদের মধ্যে। তাই এখনই ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক আয়োজন সচল করার সমালোচনা করেছেন সান্তা ক্লেরা কাউন্টির হেলথ অফিসার ডক্টন সারা কডিসহ আরও কিছু বিশেষজ্ঞ। 

সারা কডি বোর্ড অব সুপারভাইজারসকে মঙ্গলবার বলেন, এই সিদ্ধান্তের ফলে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়বে। তার মতে সমাজের সকল সেক্টর সচল করে দেওয়া ঝুঁকিপূর্ণ। এসব ক্ষেত্রে রাজ্যের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন কডি।

সান্তা ক্লেরা কাউন্টিতে জনসংখ্যা প্রায় ১.৯ মিলিয়ন। এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে প্রতিনিধিত্ব করা কডি বলেন, এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে আরও অন্তত ১৪দিন অপেক্ষা করা উচৎ ছিল। কারণ করোনা রোগীর উপসর্গ এ সময় পর্যন্ত প্রকাশ না পেয়ে থাকতে পারে।

পুনরায় সচলের বিরুদ্ধে নয় স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তবে তাদের মতে  সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য সময় নিতে হয়। গভর্নর গেভিন নিউসাম মঙ্গলবার হেয়ার সেলুন, বারবারশপ ও এ জাতীয় ব্যবসা চালুর কথা ঘোষণা করার পরই এ ধরনের প্রতিক্রিয়া এলো।

সারা কডি বলেন, দ্রুত সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলে আমরা স্পষ্ট করে কিছু দেখতে পাই না। পরিবর্তন চোখে পড়ে না আমাদের। এমনভাবে সামাজিক ও অর্থনৈতিক কার্যক্রম শুরু করা উচিত যাতে সবকিছু নিরাপদ থাকে।
ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের সর্বশেষ ঘোষণা অনুসারে, বিভিন্ন প্রার্থনালয় ও জনসমাবেশে মানুষেরা জড়ো হতে পারবেন। তবে তা সংখ্যায় এক শ জন ও ধারণক্ষমতার শতকরা ২৫ ভাগের বেশি হতে পারবে না।


/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে যা যা খোলা থাকছে, যেসব থাকছে বন্ধ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৭ ১৩:১৩:৫২



ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনাভাইরাসের মূল কেন্দ্র হিসেবে বিবেচিত লস এঞ্জেলেস কাউন্টি। এ পর্যন্ত প্রায় ২১০০ মানুষ কাউন্টিতে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। অন্যান্য কাউন্টি দ্রুত খুলে দেওয়া হলেও লস এঞ্জেলেস অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করছে ধীর প্রক্রিয়ায়।

তবে মঙ্গলবার কাউন্টি কর্মকর্তারা করোনা সতর্কতা নিয়ম কিছুটা শিথিল করেছেন। এতে খুচরা বিকিকিনি ছাড়াও বেশ কিছু বিনোদন সুবিধা পাওয়া যাবে।

নতুন নির্দেশনা অনুসারে খোলা থাকছে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো। তবে মসজিদ, গির্জা বা সিনাগগ ধারণ ক্ষমতার মাত্র ২৫ শতাংশ প্রার্থনাকারীকে একসঙ্গে ভিতরে অবস্থানের অনুমতি দিতে পারবে। অথবা এ সংখ্যা হতে পারবে সর্বোচ্চ ১০০ জন বা তার চেয়ে কম।

এছাড়া খুচড়া দোকান, শপিংমলগুলো ক্রেতাদের জায়গা দিতো পারবে ধারণ ক্ষমতার শতকরা ৫০ ভাগ। ড্রাইভ ইন মুভি থিয়েটারগুলো সচলের সুযোগ রয়েছে। হোম ওনার্ন্স অ্যাসোসিয়েশন এর মালিকানাধীন  পুল, হট টাব খোলা রাখা যাবে।

আন্দোলন বা সভা সমাবেশের ক্ষেত্রে ঘটনাস্থলের ধারণ ক্ষমতার মাত্র শতকরা ২৫ ভাগ প্রতিবাদকারী  জড়ো হতে পারবেন। সংখ্যায় যা হতে পারবে সর্বোচ্চ একশ জন বা এরচেয়ে কম।

তবে এখনো বন্ধ থাকবে, বার-নাইটক্লাব, জিম, ফিটনেস সেন্টার, মুভি থিয়েটার, লাইভ ভেন্যু, স্পোর্টস স্টেডিয়াম, ফেস্টিভ্যাল স্পেস, পাবলিক পুল, ইন্ডোর মিউজিয়াম, কমিউনিটি সেন্টার ইত্যাদি।
এছাড়া, ৬৫ বা তার চেয়ে বেশি বয়সের বাসিন্দারা ও যারা শারীরিকভাবে দুর্বল তাদের ঘরেই থাকতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়া যাবে না।

স্বাস্থ্য সতর্কতা হিসেবে,  সবাইকে মানতে হবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশনা, মাস্ক পরতে হবে। স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে।

লস এঞ্জেলেস কাউন্টি বোর্ড সুপারভাইজার ক্যাথরিন বার্জার বলেন, এই পদক্ষেপ ব্যবসা সচল ও লস এঞ্জেলেস কাউন্টিকে ইতিবাচকভাবে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।


/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

করোনায় একদিনে গেল আরও ২৭ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৭ হাজার ৮২২

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৬ ২৩:৩৩:৪২



প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ২৭ জন। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,১৪৩ জনে। ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৭ হাজার ৮২২ জন। 

এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,৫৮২ জন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে লং বীচে মারা যায় ৭৩ জন। পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫৩ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৮২ জন।

আজ মঙ্গলবার  কাউন্টির ভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার। ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত ১,২০ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এই এলাকায় গতকাল নতুন  ৭ জন শনাক্ত হয়েছেন

পুরো ক্যালিফোর্নিয়াতে করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৯ হাজার ৭৭৬ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু নতুন করে আক্রান্ত হয় ২,৭৫০ জন। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মোট ৩ হাজার ৮৫২ জন। আজকে নতুন করে মারা যান ৪০ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লক্ষ ২৫ হাজার ২৭৫ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ১০০ হাজার ৫৭২ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়ায় চার্চ ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রার্থনালয় খুলতে গাইডলাইন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৬ ১৩:৪০:১৪



চার্চ, মসজিদসহ অন্যান্য ধর্মীয় প্রার্থনালয় খুলতে বেশ চাপে ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর গেভিন নিউসাম। সোমবার এ সংক্রান্ত একটি নীতিমালা প্রকাশ পেয়েছে। যেখানে সবাইকে মাস্ক পরা ও সর্ব্বোচ্চ এক শ জনকে একসাথে প্রবেশে সুপারিশ করা হয়েছে।

চার্চ, মসজিদ, সিনাগগ খুলে দেওয়ার ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কাউন্টি অনুমতি দিতে পারবে। ঘরে থাকার নির্দেশনা জারির পর গত মার্চ থেকে এসব বন্ধ আছে। বেশ কয়েকটি চার্চ নিজেদের কার্যক্রম শুরুর  জন্য আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল।

কত তাড়াতাড়ি চার্চগুলোর চালু হবে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। যেসব কাউন্টিতে করোনার প্রাদুর্ভাব কম ও ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে রয়েছে তারা দ্রুত চার্চ খুলে দিতে পারে। লস এঞ্জেলেস কাউন্টির মতো কিছু কাউন্টি সময় নিবে। কারণ সেখানে করোনা বেশি ছড়িয়েছে।

গাইডলাইনে বলা হয়েছে, ধর্মানুরাগীরা যেন মাস্ক পরেন, একই বই ও খাবার প্লেট ব্যবহার না করেন। এছাড়া বিয়ে, অন্তেষ্টিক্রিয়াসহ জমায়েত এড়িয়ে চলতে অনুরোধ করা হয়েছে। সতর্ক করা হয়েছে, সাবধান না হলে ভাইরাস আবারও ছড়িয়ে পড়তে পারে।

তবে কিছু কিছু গির্জা জানিয়েছে, তারা দ্রুতই উন্মুক্ত হতে ইচ্ছুক নয়। সান ফ্রান্সিসকো থার্ড ব্যাপটিস্ট চার্চের যাজক আমস ব্রাউন বলেন, আমরা এখনই চার্চে ফিরে যেতে আগ্রহী নই। তিনি রাজ্যের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানান।

এতে সাধারণ মানুষের ক্ষতি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

করোনায় একদিনে গেল আরও ১২ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৬ হাজার ১৮

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৫ ১৮:৩৪:৪০



প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ১২ জন। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,১১৬ জনে। ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬ হাজার ১৮ জন। 

এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,৫৮২ জন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে লং বীচে মারা যায় ৭৩ জন। পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৪৮ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৮২ জন।

আজ সোমবার  কাউন্টির ভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার। ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত ১,১৩ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এই এলাকায় গতকাল নতুন  ১ জন শনাক্ত হয়েছেন

পুরো ক্যালিফোর্নিয়াতে করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৫ হাজার ৬৭২ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু নতুন করে আক্রান্ত হয় ১,১৮৬ জন। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মোট ৩ হাজার ৮১২ জন। আজকে নতুন করে মারা যান ২২ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লক্ষ ০৪ হাজার ৭৫ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ৯৯ হাজার ৭৫৪ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়া পুরোপুরি খুলে দিতে লস এঞ্জেলেসে বিক্ষোভ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৫ ১৫:১৫:৫২


লস এঞ্জেলেসে দ্য ক্যাথেড্রাল অব আওয়ার লেডিতে রোববার জড়ো হয়েছিলেন বিক্ষোভকারীরা। তাদের দাবি ছিলো ক্যালিফোর্নিয়ার ব্যবসা বাণিজ্য পুরোদমে সচল করা। এছাড়া চার্চ ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া।

করোনা মহামারিকে উপেক্ষা করে হাজার হাজার আন্দোলনকারী লস এঞ্জেলেস সিটি হলের বাইরে জড়ো হন। তারা যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা উড়াতে থাকেন ও  মৌলিক অধিকারের স্বাধীনতা চেয়ে স্লোগান দেন। প্রতিবাদকারীরা গভর্নর গেভিন নিউসামের নিন্দা করেন ও ট্রাম্পকে পুনরায় নির্বাচিত করতে আহ্বান জানান।

কনজারভেটিভ রেডিও টক শো হোস্ট ডেনিস প্রেজারকে বিক্ষোভে বক্তৃতা দিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়। প্রেজার ক্যালিফোর্নিয়া পুরোদমে সচলের ব্যাপারে সমর্থন জানান।

একইদিন সকালে ক্যাথেড্রাল অব আওয়ার লেডিতে জড়োকারীরা চার্চ খুলে দেওয়ার দাবি জানান যাতে তারে সেখানে প্রার্থনা করতে পারেন।

এদিকে শুক্রবার গেভিন নিউসাম বলেন,  ধর্মীয় প্রার্থনালয়গুলো  খুলে দেওয়ার ব্যাপারে সোমবান নীতিমালা প্রকাশ করবে ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্য।

বড় পরিসরে ক্যালিফোর্নিয়ার ব্যবসা-বাণিজ্য খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও লস এঞ্জেলেস কাউন্টি নূন্যতম শর্তগুলো পূরণ করতে পারেনি। তাই সেখানে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড এখনই পুরোদমে শুরু হবে না। যদিও বিচ, কার ওয়াশ ও ম্যানুফেকচারিং শর্ত সাপেক্ষে চালু হয়েছে।

ইতোমধ্যে পার্শ্ববর্তী অরেঞ্জ ও ভেনচারা কাউন্টিতে শপিংমল ও রেস্টুরেন্টে ডাইন-ইন উন্মুক্ত হয়েছে।

রোববারে ক্যালিফোর্নিয়ায় সংক্রমণ বেড়ে দাঁড়ায় ৯২,৭১০ জনে। রাজ্যে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩,৭৪৪ জনে। রাজ্যে করোনাভাইরাস সবচেয়ে বেশি ছড়িয়েছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

করোনায় একদিনে গেল আরও ১৪ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৪ হাজার ৯৮৮

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৪ ২১:২১:৪৯



প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ১৪ জন। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,১০৪ জনে। ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৪ হাজার ৯৮৮ জন। 

এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,৫৫৩ জন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে লং বীচে মারা যায় ৭১ জন। পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৩১ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৮০ জন।

আজ রোববার  কাউন্টির ভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার। ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত ১,১২ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এই এলাকায় গতকাল নতুন  ১ জন শনাক্ত হয়েছেন

পুরো ক্যালিফোর্নিয়াতে করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪হাজার ৪৮৬ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু নতুন করে আক্রান্ত হয় ২,৬৩০জন। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মোট ৩ হাজার ৭৯০ জন। আজকে নতুন করে মারা যান ৪০ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লক্ষ ৮৬ হাজার ৪৩৬ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ৯৯ হাজার ৩০০ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

খুব শিগগিরই ক্যালিফোর্নিয়া সচলের ৩য় ধাপ শুরু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৪ ১৪:৪৬:৪২



করোনাভাইরাস মহামারিতে বেশ কয়েক সপ্তাহ লকডাউন বজায় থাকে ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যে। এরপর অর্থনৈতিক অচলাবস্থা কাটাতে তা শিথিল করা হয়। দ্বিতীয় ধাপে রেস্টুরেন্টসহ আরও কিছু ব্যবসা সচলের সুযোগ কাউন্টিগুলোকে দেওয়া হয় শর্তসাপেক্ষে।

এবার খুব দ্রুতই তৃতীয় ধাপে ক্যালিফোর্নিয়ার জীবনযাত্রা নিয়ে আসার   চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। মারাত্মক করোনা সংক্রমিত লস এঞ্জেলেসসহ কাউন্টিগুলো পাঁচ ধাপে স্বাভাবিক কর্মকাণ্ডে ফিরে যাবে বলে পরিকল্পনা করা হয়েছিল। তবে এক্ষেত্রে কোনো নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়নি।


গত বৃহস্পতিবার থেকে অধিকাংশ রেস্টুরেন্ট খাবার ডেলিভারি ছাড়াও ডাইনিং খুলে সেবা দিচ্ছে। তবে তৃতীয় ধাপের অনেক ব্যবসা সচল করা হয়নি। কের্ন কাউন্টির প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা রায়ান আলসপ এক বক্তব্যে এ সম্পর্কে ইঙ্গিত দিয়েছেন।


রায়ান আলসপ বলেন, গভর্নর নিউসাম ও তার দল জানিয়েছে চলতি মাসের শেষের দিকে ক্যালিফোর্নিয়াকে তৃতীয় ধাপে সচল করার ইচ্ছা তাদের রয়েছে। আমরা চাই ব্যবসাসহ সব কিছু স্বাভাবিকতা ফিরে পাক।

এসব ব্যবসার মধ্যে রয়েছে সেলুন, জিম, ট্যাটু শপ, লাইব্রেরি, চার্চ ও মুভি থিয়েটার।

ক্যালিফোর্নিয়া জুনে তৃতীয় ধাপে প্রবেশ করতে পারে বলে এর আগে গেভিন নিউসাম মন্তব্য করেছিলেন। তবে স্বাস্থ্য সতর্কতা বিবেচনায় কিছু কাউন্টি এখন এ পদক্ষেপ থেকে বিরত থাকবে।

ক্যালিফোর্নিয়া সফলভাবে তৃতীয় ধাপ সম্পূর্ণ করতে পারলে চতুর্থ ধাপে কনসার্ট ও স্টেডিয়ামে গণজমায়েত এর মতো অনুষ্ঠানগুলো স্বাভাবিক করা হবে।


/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ


বিস্তারিত খবর

করোনায় একদিনে গেল আরও ৪১ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৪ হাজার ৫৫

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৩ ১৮:২৬:২৯



প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ৪১ জন। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,০৯০ জনে। ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৪ হাজার ৫৫ জন। 

এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,৫১৩ জন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে লং বীচে মারা যায় ৭০ জন। পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮০৫ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৭৯ জন।

আজ শনিবার কাউন্টির ভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার। ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত ১,১১ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এই এলাকায় গতকাল নতুন কেউ শনাক্ত হননি।

পুরো ক্যালিফোর্নিয়াতে করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯২ হাজার ২৯৪ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু নতুন করে আক্রান্ত হয় ১,৭০৬ জন। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মোট ৩ হাজার ৭৫০ জন। আজকে নতুন করে মারা যান ৬২ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লক্ষ ৬৫ হাজার ৯০২ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ৯৮ হাজার ৯৬৫ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে।


/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ


বিস্তারিত খবর

জনসংখ্যা ঘনত্ব ও দরিদ্রতার কারণে লস এঞ্জেলেসে কঠিন হচ্ছে করোনা যুদ্ধ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৩ ১৫:৪৮:৩২



ক্যালিফোর্নিয়ার বেশিরভাগ কাউন্টি বড় পরিসরে দোকান ও ব্যবসা-বাণিজ্য চালু করলেও লস এঞ্জেলেস অন্যদের সঙ্গে যোগ দিতে পারেনি।

অন্যতম জনবহুল এই কাউন্টিতে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা অন্য যেকোনো কাউন্টি থেকে অনেক বেশি। এমনকি গভর্নর গেভিন নিউসাম করোনা নিয়ম শিথিল করলেও সে শর্তে উতরে যেতে পারেনি লস এঞ্জেলেস কাউন্টি।

আগামী ৪ জুলাইয়ের আগে বড় পরিসরে এই কাউন্টিতে কর্মকাণ্ড শুরু হবে না বলেই ধারণা করা যায়।

ক্যালিফোর্নিয়ার মোট করোনা আক্রান্তের প্রায় অর্ধেকই লস এঞ্জেলেসের বাসিন্দা। এবং মোট মৃতের ৫৫ শতাংশ এই কাউন্টিতে ঘটেছে।

অতি সম্প্রতি কাউন্টির করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টির করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনক।

জনসংখ্যা ঘনত্ব লস এঞ্জেলেসের আরও একটি প্রকট সংকট। কাউন্টির আবাসিক সেবাকেন্দ্র ও নার্সিং হোমগুলো করোনা সংক্রমণের মূল কেন্দ্র। যদিও সব নার্সিং হোমে আগ্রাসীভাবে এখনো করোনা টেস্ট সম্ভব হয়নি।

 দরিদ্রতার কারণে  আবাসিক সংকট থাকায় ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় করোনা ছড়িয়েছে বেশি। মারা গেছে অর্ধেকেরও বেশি মানুষ। 

তবে সংক্রমণের শুরুর দিকে নর্দার্ন ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনা প্রাদুর্ভাব ছিল  তুলনামূলক মারাত্মক। এরপর লস এঞ্জেলেস এর বেভারলি হিলস, বেল এয়ার, ব্রেন্টনউডে করোনা ছড়াতে থাকে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়ার করোনা পরিস্থিতি রিপাবলিকানরা দেখছে নির্বাচনের ইস্যু হিসেবে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৩ ১৪:৩২:৫০



করোনা পরিস্থিতিতে নানা বিষয়ে দ্বিধাবিভক্ত রাজনৈতিক অঙ্গন। অর্থনীতি স্বাভাবিক করতে যেমন ব্যবসা-বাণিজ্য সচল করা প্রয়োজন। তেমনি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের দায়-দায়িত্ব অনেকটাই বর্তায় ক্যালিফোর্নিয়ান গভর্নর গেভিন নিউসামের নীতি নির্ধারণী সিদ্ধান্তের ওপর। এদিকে ক্যালিফোর্নিয়ার রিপাবলিকানরা রাজ্য সচলের বিষয়টি দেখছেন রাজনৈতিক ইস্যু হিসেবে।

অরেঞ্জ কাউন্টিতে নভেম্বরে মিশন ভিজেও কাউন্সিলম্যান গ্রেগ রাথস লড়বেন ডেমোক্রেটিক রিপ্রেজেন্টেটিভ কেটি পোর্টারের বিরুদ্ধে। কাউন্টির বিচ বন্ধে নিউসামের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তিনি ইতোমধ্যে মামলা করেছিলেন।
গ্রেগ রাথস বলেন, অরেঞ্জ কাউন্টি এরচেয়ে বেশি কিছু দাবি করে।

এছাড়া সেন্ট্রাল ভ্যালিতে কাউন্সিলম্যান টেড হোজ ' ট্রাস্ট দ্য ভ্যালি' নামে ক্যাম্পেইন শুরু করেন। গেভিন নিউসামের কাছে তার চাওয়া কাউন্টি যেন নিজ নিরপত্তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিজেই নিতে পারে।

তিনি বলেন, সেন্ট্রাল ভ্যালির শহরগুলো লস এঞ্জেলেস, সান দিয়াগো ও সান ফ্রান্সিসকো থেকে ভিন্ন। তাদের জন্য নেওয়া সিদ্ধান্তগুলো এখানের বাসিন্দাদের জন্য যথাযথ নাও হতে পারে।

লাগুনা বিচে ডেমোক্রেটিক হারলি রাউডার বিরুদ্ধে লড়ছেন মিশেল স্টিল।নিউসামের ধাপে ধাপে অর্থনীতি ধীরগতিতে চালুর সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন তিনি। তার মতে ব্যবসায়ীরা তাদের প্রতিষ্ঠান থেকে কর্মচারী ছাঁটাই করতে বাধ্য হচ্ছেন।

যেখানে আশঙ্কা করা হচ্ছে রাজ্যে দ্রুত সবকিছুই স্বাভাবিক করে দিলে দ্বিতীয় দফায় আবার ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পেতে পারে। তবে সেখানে রিপাবলিকানরা ভোটারদের বেকারত্ব ও অর্থনৈতিক শঙ্কার কথা জানাচ্ছেন।

ক্যালিফোর্নিয়ায় রিপাবলিকানদের মতামত যেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কথারই প্রতিধ্বনি। ট্রাম্প করোনার বিরুদ্ধে জয় দাবি করে ইতোমধ্যেই রাজ্যগুলো বড় পরিসরে অর্থনৈতিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ড চালুর নির্দেশ দিয়েছেন। তবে ডেমোক্র্যাটরা ক্যালিফোর্নিয়ায় শক্তিশালী ও ট্রাম্প অজনপ্রিয়। তাই রিপাবলিকানরা করোনা পরিস্থিতিকে রাজ্যটিতে রাজনৈতিক ইস্যু করতে চাইছেন।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ



বিস্তারিত খবর

করোনায় একদিনে গেল আরও ৩৫ প্রাণ, আক্রান্ত ৪৩ হাজার ৫২

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২২ ১৮:১৮:১৯



প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ৩৫ জন। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,০৪৯ জনে। ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৩ হাজার ৫২ জন। 
এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,৪৯৫ জন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে লং বীচে মারা যায় ৬৮ জন। পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭৯০ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৭৯ জন।
আজ শুক্রবার কাউন্টির ভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার। ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত ১,১১ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এই এলাকায় গতকাল নতুন কেউ শনাক্ত হননি।
পুরো ক্যালিফোর্নিয়াতে করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯০হাজার ১০৭ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু নতুন করে আক্রান্ত হয় ১,৯০৬ জন। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মোট ৩ হাজার ৬৮৩ জন। আজকে নতুন করে মারা যান ৬৪ জন।
যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লক্ষ ৪২ হাজার ৭১৭ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ৯৭ হাজার ৫৩৯ জন।
সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে নার্সিং হোমে পর্যাপ্ত করোনা টেস্ট হচ্ছে না

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২২ ১৬:১৭:২৯


করোনাভাইরাসে লস এঞ্জেলেসের নার্সিং হোমগুলোতে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা আশঙ্কাজনক। এমন অবস্থায় কাউন্টি কর্মকর্তকরা গত মাসে কথা দিয়েছিলেন সব নার্সিং হোমের বাসিন্দা ও স্টাফদের করোনা পরীক্ষা করবেন। তবে এ পর্যন্ত মাত্র তিনভাগের একভাগ নার্সিং হোমে করোনা পরীক্ষা শেষ হয়েছে।


নার্সিং হোমগুলো ভয় করছে এর ফলে, করোনা আক্রান্ত অনেককেই শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না। করোনা আরও মারাত্মকভাবে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

কাউন্টির আবাসিক সুবিধাগুলোতে করোনা মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যেই ১০০০ হাজার ছাড়িয়েছে। যার অধিকাংশই ঘটেছে নার্সিং হোমে।

ক্যালিফোর্নিয়া অ্যাসোসিয়েশন অব লং টার্ম কেয়ার মেডিসিন এর প্রেসিডেন্ট ডক্টর মাইকেল ওয়াসারম্যান বলেন, সঠিক পলিসি গ্রহণ না করলে এখানে আরও মানুষ মারা যাবে।

লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে চারশ এর মতো আবাসিক সেবাকেন্দ্র রয়েছে। করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর হতে সেসব সেবাকেন্দ্রে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে থাকে। তখন যাদের করোনা উপসর্গ ছিল শুধু তাদেরই পরীক্ষা করা হয়। এতে লক্ষ্মণ প্রকাশ না পাওয়া করোনা রোগীদের মাধ্যমে করোনা ছড়ালে সেবাকেন্দ্রগুলোর সবার করোনা পরীক্ষার কথা জানায় কাউন্টি।

কিন্তু সোমবার কাউন্টি কর্তৃপক্ষ জানায়, মাত্র ১৪১টি আবাসিক সেবাকেন্দ্রে করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। করোনা মারাত্মকভাবে ছড়িয়ে পড়েছিল এমন নার্সিং হোমগুলোতে সবার টেস্ট সম্পূর্ণ হয়।

লস এঞ্জেলেস কাউন্টি হেলথ ডিরেক্টর বারবারা ফেরেরা যত দ্রুত সম্ভব স্যাম্পল টেস্টের কথা জানান।

করোনা উপদ্রুত নয় এমন নার্সিং হোমগুলোতে সপ্তাহে দুবার করে করোনা পরীক্ষার ওপরও জোর দিয়েছেন কোনো কোনো বিশেষজ্ঞ।


/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ




বিস্তারিত খবর

করোনায় একদিনে গেল আরও ৪৬ প্রাণ, আক্রান্ত ৪২ হাজার ৩৭

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২১ ১৮:১৬:২৯



প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টিতে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ৪৬ জন। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২,০১৬ জনে। ভাইরাসটিতে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪২ হাজার ৩৭ জন। 

এর মধ্যে লং বীচ এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ১,৪০০ জন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে লং বীচে মারা যায় ৬৫ জন। পাসাডেনা এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭৮৪ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৭৭ জন।

আজ বৃহস্পতিবার কাউন্টির ভাইরাস সংক্রমণের সর্বশেষ তথ্য প্রকাশ করে স্বাস্থ্য পরিচালক বারবারা ফেরার। ভাইরাসটিতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ‘লিটল বাংলাদেশ’ এলাকায় এখনো পর্যন্ত আক্রান্ত ১,১১ জন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটিতে এই এলাকায় গতকাল নতুন ২ জন শনাক্ত হয়েছেন।

পুরো ক্যালিফোর্নিয়াতে করোনাভাইরাসে এখনো পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮৮ হাজার ১১৬ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শুধু নতুন করে আক্রান্ত হয় ২,২৩১ জন। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান মোট ৩ হাজার ৬১৬ জন। আজকে নতুন করে মারা যান ১০৪ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লক্ষ ১৭ হাজার ৬৯০ জন। আর মোট মৃতের সংখ্যা ৯৬ হাজার ১৮৪ জন।

সুপ্রিয় পাঠক, প্রতিবেদনটি লেখার আগ পর্যন্ত সর্বশেষ তথ্য নিয়ে এই সংবাদ প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতিনিয়ত লাইভ আপডেটের জন্য আপনারা চোখ রাখতে পারেন আমাদের করোনা ট্র্যাকিং টুলে।


/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ



বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেসে অনলাইনে বাড়ছে যৌন নির্যাতন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২১ ১৬:০০:৫৩


করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সবাইকে ঘরেই অবস্থান করতে হচ্ছে। শিশুরাও অনলাইনে সময় কাটাচ্ছে বেশি। লস এঞ্জেলেসের আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাগুলো জানাচ্ছে, এ সময়টাতে বেড়েছে অনলাইনে যৌন নির্যাতন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও অন্যান্য অনলাইন প্লাটফর্মে যৌন হেনস্তার মতো কনটেন্ট বাড়ছে।

যৌন অপরাধেযুক্তরা মহামারির সুযোগ নিয়ে বিভিন্ন ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করছে যা অনৈতিক ও ক্ষতিকর। দ্য ন্যাশনাল সেন্টার ফর মিসিং অ্যান্ড এক্সপ্লয়টেড চিলড্রেন এ সংক্রান্ত প্রায় ৪.১ মিলিয়ন  রিপোর্ট গ্রহণ করেছে শুধুমাত্র এপ্রিল মাসেই। মার্চ মাসে এ সংখ্যা ছিল ২ মিলিয়নের কিছু বেশি।

সংস্থাটির কর্মকর্তা শেহহান জানান, মহামারির এই সময়ে অনলাইনে যৌন অপরাধের মতো বিষয় সারাবিশ্বেই আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর জন্য বাড়তি চাপ হয়ে দেখা দিয়েছে।

দ্য লস এঞ্জেলেস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট এর ইন্টারনেট ক্রাইম এগিনিস্ট চিলড্রেন ইউনিট এ সংক্রান্ত অপরাধের প্রায় তিন হাজার সুপারিশ নিয়েছে, এপ্রিলে যা মার্চে ছিল মাত্র ১৩৫৫টি। ইউনিট কমান্ডার লেফটন্যান্ট অ্যান্থনি কাটো এ তথ্য জানিয়েছেন।

পুলিশের মুখপাত্র জস রুবেনস্টাইন বলেন, এই ইউনিটের অনেককে করোনা সংকটে অন্য দায়িত্ব দিতে হয়েছে। তবে শিশুদের অনলাইনে নির্যাতন করছে এমন যে কাউকে বিচারের আওতায় আনতে পুলিশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

ইন্টারনেটর নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ অ্যালিসিয়া কোয়াকেউইচ বলেন, এমন একটা পরিস্থিতি তৈরি হবে তা অনুমানযোগ্য ছিল। আইসোলেশনের সময়টায় শিশুরা মানসিকভাবে বেশি অনিরাপদ থাকে। অপরাধীরা এই সুযোগটা নেয়।

ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও বিভিন্ন গেমিং প্ল্যাটফর্মে শিশুদের নানা প্ররোচনায় ফেলে অশালীন ছবি ও ভিডিও পাঠাতে এবং পরবর্তীতে তাদের সামাজিকভাবে হেয়, বিব্রত করতে চেষ্টা করে অপরাধীরা। এক্ষেত্রে পিতামাতার সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

/এলএ বাংলা টাইমস/এন/এইচ


বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত