যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ০৮ এপ্রিল, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 03:00pm

|   লন্ডন - 10:00am

|   নিউইয়র্ক - 05:00am

  সর্বশেষ :

  ১১ সপ্তাহ লকডাউনের পর উন্মুক্ত উহান   যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১৯৭০ জনের প্রাণহানি   ‘ওয়াইএমসিএ’র ছাঁটাইকৃত কর্মীদের চাকরির ঘোষণা দিলেন লস এঞ্জেলেস মেয়র   করোনা ঠেকাতে বাধ্যতামূলক মাস্ক পড়ার নিয়ম করল সান বার্নার্ডিনো কাউন্টি   করোনায় কমেছে লস এঞ্জেলেসের সকল প্রকার অপরাধঃ এলএ পুলিশ চীফ   কভিড-১৯; লস এঞ্জেলেসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৬৯; আক্রান্ত ৬ হাজার ৯১০   গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ জেলা লকডাউন   বঙ্গবন্ধুর খুনি মাজেদের নাতি ছাত্রলীগের সেক্রেটারি   পুলিশের মহাপরিদর্শক হচ্ছেন বেনজীর, র‌্যাব মহাপরিচালক মামুন   করোনাভাইরাস: বিশ্বব্যাপী সুস্থ হয়ে উঠেছে ৩ লাখ মানুষ   ফ্রান্সে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়ালো   নিউইয়র্কে মর্গে জায়গা নেই, ফ্রিজে লাশ রাখার সিদ্ধান্ত   সিঙ্গাপুরে একদিনে ৪৭ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত   বিশ্বনবীর মিম্বর থেকে করোনা নিয়ে যা বললেন শাইখ সুদাইস   এখন থেকে লস এঞ্জেলেসের যে কোন বাসিন্দা করোনা টেস্ট করাতে পারবে

>>  মধ্যপ্রাচ্য এর সকল সংবাদ

সৌদিতে বাংলাদেশিদের খাবার সরবরাহ করবে কনস্যুলেট

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবেও এর প্রকোপ দেখা দিয়েছে। এরই মধ্যে দেশটির ৯ শহরে কারফিউ জারি করা হয়েছে। কর্মহীন হয়ে পড়েছেন অসংখ্য শ্রমিক। এ অবস্থায় দেশটির বিভিন্ন শহরে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা চরম খাদ্য সংকটে পড়েছেন। তাদের সহযোগিতা করবে দেশটির জেদ্দায় অবস্থিত বাংলাদেশ কনস্যুলেট।

এ বিষয়ে কাউন্সেলর ও কার্যালয় প্রধান মোহাম্মদ কামরুজ্জামান ভুঁঞা জানান, দেশটিতে করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় কনস্যুলেট থেকে সোমবার (০৬ এপ্রিল) একটি জরুরি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।  এতে উল্লেখ করা হয়, করোনাভাইরাসের

বিস্তারিত খবর

মক্কা-মদিনায় ২৪ ঘণ্টার কারফিউ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০২ ১১:১৬:২৬

রোনাভাইরাসের সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই জোরদার করতে মুসলমানদের পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় এবার ২৪ ঘণ্টার কারফিউ জারি করেছে সৌদি আরব। বৃহস্পতিবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

সৌদি আরবে করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত এক হাজার ৭০০ জন আক্রান্ত হয়েছে। এদের মধ্যে মারা গেছে ১৬ জন।

এর আগে মক্কা, মদিনা, জেদ্দা ও রিয়াদে বেলা ৩টা থেকে সকাল ৬ পর্যন্ত কারফিউ  জারি ছিল। এছাড়া সৌদির অন্যান্য অঞ্চল থেকে এই চারটি এলাকায় প্রবেশে কড়াকড়ি নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছিল।

বৃহস্পতিবার বিবৃতিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, জরুরি সেবাকর্মীরা এই কারফিউর আওতামুক্ত থাকবেন। এছাড়া স্থানীয়রা খাদ্যপণ্য কেনা ও জরুরি চিকিৎসা সেবা নেওয়ার ক্ষেত্রে কারফিউ চলাকালে ছাড় পাবেন। এ সময় মক্কা  ও মদিনার বাসিন্দারা তাদের গাড়িতে কেবল এক জন সঙ্গী রাখতে পারবেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এমই

বিস্তারিত খবর

কভিড-১৯: এখনই হজের পরিকল্পনা না করার পরামর্শ সৌদির

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০১ ০৪:০০:২৮

এখনই হজের পরিকল্পনা না করে মুসল্লিদের করোনা ভাইরাস মহামারি পরিস্থিতি স্পষ্ট হওয়ার আগ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বললো সৌদি আরব।

বুধবার (১ এপ্রিল) সৌদি আরবের হজ এবং ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানায় কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে মার্চ মাসের শুরুতে বছরব্যাপী চলা ওমরাহ স্থগিত করেছে সৌদি আরব। এ অভূতপূর্ব এ সিদ্ধান্তের কারণে আসন্ন হজ নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

এ বছর জুলাই মাসের শেষদিকে অনুষ্ঠেয় এ হজে পবিত্র শহর মক্কা ও মদিনায় ছুটে যাওয়ার কথা রয়েছে প্রায় ২৫ লাখ মানুষের। এটিই দেশটির আয়ের অন্যতম উৎস।

দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আল-এখবারিয়ায় এক বিবৃতিতে হজ এবং ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ সালেহ বেনতেন বলেন, ‘হজ এবং ওমরাহ পালনে ইচ্ছুকদের সেবায় সম্পূর্ণ প্রস্তুত সৌদি আরব। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা একটি বৈশ্বিক মহামারিতে রয়েছি, মুসলমান ও নাগরিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় জাগ্রত এ রাজ্য। তাই হজের চুক্তির আগে পরিস্থিতি ঠিক হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করার জন্য সব দেশে আমাদের মুসলমান ভাইদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি আমরা।’

ওমরাহর পাশপাশি আন্তর্জাতিক যাত্রীবাহী সব ফ্লাইট অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করেছে সৌদি আরব। গত সপ্তাহে মক্কা ও মদিনাসহ বেশ কয়েকটি শহরে আসা-যাওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের উচ্চাভিলাষী অর্থনৈতিক সংস্কার কর্মসূচিতে পর্যটকের সংখ্যা বাড়ানোর পরিকল্পনার মেরুদণ্ড এবং সৌদি আরবের জন্য বড় ব্যবসার উৎস এ হজ।

আধুনিক সময়ে হজ বাতিলের ঘটনা নজিরবিহীন হলেও উচ্চঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলগুলো থেকে হজযাত্রী আগমনে বিধিনিষেধ ছিল আগেও। ইবোলা প্রাদুর্ভাবের সময়ও এমন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল।

সৌদি আরবে এখন পর্যন্ত দেড় হাজার মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ১০ জন।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

কাতারে করোনাভাইরাসে প্রথম বাংলাদেশির মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-৩১ ১২:১৩:৩৭


এই প্রথম কাতারে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এটি কাতারে করোনা ভাইরাসজনিত প্রথম মৃত্যুর ঘটনা।

মৃত বাংলাদেশি দীর্ঘদিন কাতারে বসবাস করে আসছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর। তার নাম দিলীপ কুমার দেব। তিনি দীর্ঘমেয়াদী রোগে ভুগছিলেন।

গত ১৬ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। রোগ ধরা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছিল এবং হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরে তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও যত্ন প্রদান করা হয়েছিল।

এই বাংলাদেশির মৃত্যুতে কাতারে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিহতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও সহানুভূতি জ্ঞাপন করেছে। তারা এই মৃত্যুতে গভীর শোকও প্রকাশ করে।

এদিকে দিলীপের মৃত্যুতে রোববার কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদকে ডেকে নিয়ে গিয়ে সমবেদনা জানান কাতারের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লোলওয়াহ বিনতে রশিদ আল খাতর।

উল্লেখ্য, কাতারে এখন পর্যন্ত ৬৯৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। একজনের মৃত্যু হয়েছে। আর সুস্থ হয়ে উঠেছে ৫১ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এমই

বিস্তারিত খবর

করোনায় অবৈধ প্রবাসীরাও পাবেন সরকারি চিকিৎসা : সৌদি বাদশা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-৩০ ১১:১৫:১১

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) ইতোমধ্যে ১৯৫টিরও বেশি দেশে শনাক্ত হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রতিনিয়ত বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। গতকাল রবিবার পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় নিহত হয়েছেন ৩৩ হাজার ৯৮০ জন। এছাড়া এখন পর্যন্ত ৭ লাখ ২১ হাজার ২৯৩ জন এই প্রাণঘাতী ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। অপরদিকে, হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ লাখ ৫১ হাজার ৪ জন।

এদিকে সৌদি আরবে করোনাভাইরাস আক্রান্ত যেকোনও ব্যক্তি, এমনকি অবৈধ প্রবাসীদেরও চিকিৎসার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির বাদশা সালমান বিন আব্দুল আজিজ।

সোমবার (৩০ মার্চ) সৌদির স্বাস্থ্যমন্ত্রী তৌফিক আল-রাবিয়া এ তথ্য জানিয়েছেন।

সৌদির স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ দেখা গেলে সবাইকেই বাদশাহ সালমানের নতুন আদেশের অধীনে চিকিৎসা নেয়ার জন্য বিনা সংকোচে সরকারি-বেসরকারি যেকোনও হাসপাতালে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ) আল-রাবিয়ার উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, এদের মধ্যে সৌদির নাগরিক এবং বৈধ ভিসাধারী বা অবৈধ প্রবাসীরা অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, করোনার সংক্রমণ এড়াতে এ ব্যবস্থা অনুসরণ করে প্রয়োজনীয় সেবা নেয়ার ওপর জোর দিয়েছেন বাদশাহ সালমান। বর্তমানে সৌদি আরবে কয়েক হাজার প্রবাসী আইনি জটিলতায় তথা শ্রম মন্ত্রণালয়ের ধার্যকৃত লেভি ফিসহ বিভিন্ন সমস্যায় রেসিডেন্স কার্ড বা আকামা নবায়ন করতে না পেরে অবৈধ নাগরিক হয়ে আছেন। তাদের মনে এতদিন শঙ্কা ছিল, করোনা আক্রান্ত হলে কোথায় যাবেন, কী করবেন। কিন্তু সৌদি বাদশাহর এই আদেশের মাধ্যমে সেসব ভয় দূর হয়ে গেল।

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে সৌদিতে ইতোমধ্যেই সরকার ঘোষিত ২১ দিনের আংশিক কারফিউয়ের সঙ্গে আরও কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। জেদ্দায় কারফিউয়ের সময়সীমা আরও বাড়ানো হয়েছে। সন্ধ্যা ৭টার পরিবর্তে বিকেল ৩টা থেকে পরদিন সকাল ৬টা পর্যন্ত জেদ্দার কারফিউয়ের সময় নির্ধারণ করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। রোববার থেকেই এই আদেশ কার্যকর হয়েছে।

এর আগে, গত ২৬ মার্চ থেকে সৌদির অন্যতম পবিত্র ও ব্যস্ততম এলাকা মক্কা, মদিনা ও রাজধানী রিয়াদে বিকেল ৩টা থেকে পরদিন সকাল ৬টা পর্যন্ত কারফিউ কার্যকর করা হয়। ২৩ মার্চ থেকে দেশটিতে ২১ দিনের আংশিক কারফিউ শুরু হয়। তখন সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত কারফিউয়ের সময় ঘোষণা করা হয়েছিল। পরে মক্কা, মদিনা, রিয়াদ ও সর্বশেষ জেদ্দায় সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে।

সৌদিতে এ পর্যন্ত প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৪৫৩ জন, মারা গেছেন আটজন।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

জেদ্দা লকডাউন, কাবা-নববীতে নতুন নিয়ম

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-৩০ ০৬:৩২:২৬

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ঘোষিত ২১ দিনের আংশিক কারফিউতে আরও কড়াকড়ি আরোপ করেছে সউদি আরব সরকার। এ ছাড়া বর্তমান পরিস্থিতিতে মক্কায় মসজিদুল হারাম ও মদিনায় মসজিদে নববীতে আজান-নামাজে আপাতত একাধিক মুয়াজ্জিন ও ইমাম রাখা হবে না বলে নতুন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।
সউদী আরবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এখন থেকে জেদ্দায় কারফিউয়ের সময় বাড়িয়ে সন্ধ্যা ৭টার পরিবর্তে বিকেল ৩টা থেকে পরদিন সকাল ৬টা পর্যন্ত করা হয়েছে।
এদিকে সউদি আরবের দুই পবিত্র স্থান মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববীতে একাধিক মুয়াজ্জিন ও ইমাম রাখার সিদ্ধান্ত থেকে আপাতত সরে এসেছে সরকার। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই দুই পবিত্র স্থানে মুয়াজ্জিন ও ইমামের সংখ্যা কমিয়ে দেওয়া হবে। জরুরি পরিস্থিতিতে হারামাইন কর্তৃপক্ষ পরামর্শের আলোকে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।
কাবা শরিফের প্রধান ইমাম শায়খ ড. আব্দুর রহমান সুদাইসি পরামর্শের আলোকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে পর্যালোচনা করে এক জরুরি নির্দেশনা জারি করেন। জানা গেছে, মসজিদুল হারামে প্রতিদিন আজানের জন্য দুজন মুয়াজ্জিন ও নামাজের জামাতের জন্য একজন ইমাম নিয়োজিত থাকবেন।
সৌদি আরবে করোনাভাইরাসে রোববার পর্যন্ত ১২ হাজার ৯৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৮ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬৬ জন।


এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি




বিস্তারিত খবর

'করোনা আল্লাহর শাস্তি' বলায় সৌদিতে ৪ জন গ্রেফতার

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৯ ১৩:১৪:৫৩

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস আল্লাহর শাস্তি, এমন দাবি করে ফেসবুকে পোস্ট দেয়ায় চার ব্যক্তিকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে সৌদি আরব। ইতিমধ্যে ওই চার ব্যক্তি গ্রেফতার করা হয়েছে।

দেশটির পাবলিক প্রসিকিউশন টুইটারে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানায়, সামাজিক মাধ্যমে করোনা নিয়ে বিভ্রান্তিকর পোস্ট দেওয়ায় তিন ব্যক্তিকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে।

সৌদির পাবলিক প্রসিকিউশন আরো জানায়, এক ভিডিও বার্তায় করোনাসংকট নিয়ে বিদ্রূপ এবং বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দেওয়া ব্যক্তিকেও গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের নাম প্রকাশ হয়নি। তবে দেশটির সামাজিম মাধ্যমে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের পরিচয় নিয়ে জল্পনা চলছে।

ধারণা করা হচ্ছে, গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে একজন প্রখ্যাত কোরআন তেলাওয়াতকারী খালেদ আল- শাহরি। যিনি এক ভিডিও বার্তায় বিপর্যয় এবং মহামারীকে আল্লাহর শাস্তি বলে উল্লেখ করেছেন।

তবে তার অনুসারীরা বলেছেন,এই ভিডিও বার্তা দুই বছর আগের।

এছাড়া ধারণা করা হচ্ছে গ্রেফতার হওয়া আরেক ব্যক্তির নাম ইব্রাহিম আল-দুওয়াইশ, যিনি দেশটির একজন ধর্মপ্রচারক। গত বৃহস্পতিবার তিনি সামাজিক মাধ্যমে করোনা ভাইরাস নিয়ে বিতর্কিত পোস্ট করেছেন বলে অভিযোগ উঠে।

গ্রেফতার হওয়া আরেক ব্যক্তি খালেদ আবদুল্লাহ, তিনি করোনা নিয়ে বিভ্রান্তি কর টুইটারে পোস্ট করেন বলে অভিযোগ। তবে গ্রেফতার হওয়া চতুর্থ ব্যক্তি সম্পর্কে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

এখন পর্যন্ত সৌদি আরবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ২০৩ জন, মারা গেছে ৪ জন।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এমই

বিস্তারিত খবর

সৌদি আরবের একাধিক শহরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৯ ১০:১৭:০৬

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদসহ একাধিক শহরে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে। এতে দুই বেসামরিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটি।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থামাতে পুরো দেশে তিন সপ্তাহের কারফিউ জারি করেছে সৌদি সরকার। এরই মধ্যে শনিবার রাতে এসব ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়। খবর ডনের।

হামলার জন্য ইয়েমেনের হুতিদের দায়ী করে সৌদি সরকার জানিয়েছে, তাদের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সফলভাবে ক্ষেপণাস্ত্রগুলো ধ্বংস করেছে। রিয়াদ ও ইয়েমেন সংলগ্ন শহর লক্ষ্য করে বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়।

এর আগেও হুতি অসংখ্যবার সৌদির অভ্যন্তরে ড্রোন, রকেট ও শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে।

তবে গত সেপ্টেম্বর থেকে এসব হামলা থেকে দূরে ছিল সংগঠনটি। গত বছর সৌদি আরবের তেলক্ষেত্রে ভয়াবহ ড্রোন হামলা চালায় হুতি। এতে দেশটির তেল উৎপাদন অর্ধেকে নেমে এসেছিল। এরপর থেকেই আর বড় কোনো হামলা চালায়নি হুতিরা।

শনিবারের হামলা নিয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে সৌদি আরবের সরকারি বার্তা সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ)।

এতে বলা হয়, রাজধানী রিয়াদ ও জিজান শহরকে লক্ষ্য করে দুটি ব্যালিস্টিক মিসাইল হামলা হয়েছে। তবে এগুলোকে সফলভাবে ধ্বংস করা হয়েছে। এর ধ্বংসাবশেষ থেকে দুই বেসামরিক নাগরিক আহত হয়েছেন। তবে হুতিদের পক্ষ থেকে এখনো দায় স্বীকার করা হয়নি।

এলএবাংলাটাইমস/এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

কাতারে করোনাভাইরাসে বাংলাদেশির মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৮ ১৯:৪৫:৪১


কাতারে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম কোনো ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। আর মারা যাওয়া ব্যক্তি বাংলাদেশি নাগরিক বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে কাতারের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কিউএনএ'র বরাতে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, মারা যাওয়া বাংলাদেশির বয়স ৫৮ বছর। তিনি দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন।

এদিকে শুক্রবার (২৮ মার্চ) দেশটিতে নতুন আরও ২৮ জন কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। যার মাধ্যমে কাতারে এ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা পাঁচশ ৯০ জনে দাঁড়িয়েছে।

অন্যদিকে সিঙ্গাপুরে আরও দুই বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মাধ্যমে দেশটিতে মোট ৭ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত হলেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এমই

বিস্তারিত খবর

করোনাভাইরাস: ২১ দিনের লকডাউন দক্ষিণ আফ্রিকা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৭ ১০:৩৯:৩১

দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপতি সিরিল রামাফোসা করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে আজ শুক্রবার থেকে ২১ দিনের লকডাউন করার ঘোষণা করেছেন।

সোমবার রাষ্ট্রপতি জাতির উদ্দেশ্য দেয়া ভাষনে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে এ লকডাউনের ঘোষণা দেন তিনি। এ লকডাউন ১৬ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত চলবে।

দেশে নাটকীয়ভাবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ও সংক্রমণ থেকে জাতিকে রক্ষা করতে ২১ দিন পুরো দক্ষিণ আফ্রিকা লকডাউন থাকবে।

এসময় দক্ষিণ আফ্রিকান সকল নাগরিক অবশ্যই ঘরের বাইরে যাবেনা, সবাই নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করবে।

এসময় সরকার জনগণের ঘরে ঘরে খাদ্য সরবরাহ করবে। লকডাউনের সময় ঔষধের দোকান, খাবারের দোকান, জরুরী মেডিকেল টিম, পুলিশ, ট্রাফিক, সিকিউরিটি, ফায়ার বিগ্রেড, খাদ্যপণ্য সরবাহে নিয়োজিত যানবাহন, খাদ্য দ্রব্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, এটিএম খোলা থাকবে।

এছাড়া অন্য সকল দোকান ও শপিংমল বন্ধ রাখতে হবে।

রাষ্ট্রপতি আগামী ২১ দিন লকডাউনটি মেনে চলার জন্য জনগণের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানান। দেশব্যাপী জনগণ যাতে লকডাউনটি মেনে চলে এটি নিশ্চিত করার জন্য সেনাবাহিনীকে মোতায়েন করা হয়েছে বলে রাষ্ট্রপতি ভাষণে উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য,গত এক সপ্তাহ আগে রাষ্ট্রপতি রামাফোসা করোনাভাইরাসের সংক্রমণের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকাকে একটি জাতীয় বিপর্যয়ের রাষ্ট্র ঘোষণা করেছিলেন। ৩ মার্চ দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছিল দেশটির কোয়াজুলু নাটাল প্রদেশে। শনাক্ত ব্যক্তিটি ছিল ইতালি ফেরত।

এরপর থেকে প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকে কভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা। যা গতকাল পর্যন্ত গত ২৪ দিনে আক্রান্ত হয়েছে ৯২৭ জন। যার অধিকাংশই স্থানীয়ভাবে সংক্রমিত।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, প্রথম আক্রান্ত ৫ জন সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন। অন্য আক্রান্তরা যথাযথ চিকিৎসা নিচ্ছে এবং কেউ মারাত্মক ঝুঁকিতে নেই।

এদিকে করোনাভাইরাসের মারাত্মক ঝুঁকিতে রয়েছে জোহানসবার্গ ও কেপটাউন। বর্তমানে শুধু মাত্র জোহানসবার্গে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪০০ এর ওপরে। আর কেপটাউনে ২০০ এর ওপরে।

করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার কারণে মারাত্মকভাবে ঝুঁকিতে রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায় বসবাসকারী প্রায় ৩ লাখ বাংলাদেশি প্রবাসী।


এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

করোনার ভয়ে ইরাক ছেড়েছে ফ্রান্স ও ব্রিটিশ সেনারা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৭ ০৯:২৮:৩৭

করোনা আতঙ্কে ইরাক থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে ফ্রান্স। এর আগে একই কারণে গত সপ্তাহে ইরাকে মোতায়েন সেনাদের সরিয়ে নিয়েছে ব্রিটেনও। একই কারণ দেখিয়ে চেক সামরিক বাহিনীও ইরাক থেকে তাদের সেনাদল সরিয়ে নিয়েছে।

ফ্রান্সের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, করোনাভাইরাস আতংকে সেনাদের সাময়িকভাবে সব ফরাসি সেনা ইরাক ত্যাগ করবে। দেশটির সশস্ত্র বাহিনী মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের প্রেক্ষিতেই সেনা প্রত্যাহার হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। মন্ত্রণালয় থেকে একটি বিবৃতিও দেয়া হয়েছে।

আপাতত সেনা ফিরিয়ে আনবে ফ্রান্স। তবে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে বিমান হামলা অব্যাহত থাকবে।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর মুখপাত্র দেশটিত আস সাবাহ সংবাদপত্রকে জানিয়েছেন, ফরাসি সেনারা এরইমধ্যে ইরাক ত্যাগ করেছে।


এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সৌদিতে কারফিউ আরও কঠোর

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৭ ০৮:৪৩:২৯

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সৌদি আরবে কারফিউ আরও কঠোর করা হয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে নাগরিকদের কারফিউ মেনে বাড়ির ভেতর থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দেশটিতে নতুন করে আরও ১১২ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত দেশটিতে করোনাভাইরাসে মৃত মানুষের সংখ্যা তিনে পৌঁছেছে। দেশটিতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ১২-তে পৌঁছেছে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মেদ আল আবদুল্লালি বলেন, ‘ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং আমাদের নাগরিকদের স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করতে আমরা আমাদের যথাসাধ্য চেষ্টা করছি। দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে তৃতীয় ব্যক্তি মারা গেছেন। মারা যাওয়া ওই ব্যক্তি বিদেশি এবং তিনি হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছিলেন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩৩ জনের বেশি সুস্থ হয়েছে।’

দেশটির কর্মকর্তারা বলছেন, মক্কা, মদিনা ও রিয়াদে যাওয়ার সব রাস্তা সুরক্ষাব্যবস্থার নিয়ন্ত্রণাধীন। এখানে এমন লোকেরা আছে, যারা কারফিউটি মেনে চলার সিদ্ধান্ত সম্পর্কে বেপরোয়া এবং তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।


দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন, বাজার নিয়ন্ত্রণের নতুন নিয়ম হয়েছে। এখন ভিড় এড়িয়ে অনলাইনে কেনাকাটার ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার থেকে রিয়াদ, মক্কা, মদিনায় বর্ধিত কারফিউ জারি করা হয়েছে, যা বেলা তিনটা থেকে শুরু হয়েছে, যা আগে সন্ধ্যা সাতটা থেকে শুরু হতো। গত সোমবার কিং সালমান এক আদেশ দেন, যাতে সাধারণ মানুষের চলাফেরা সন্ধ্যা সাতটা থেকে সকাল ছয়টা পর্যন্ত বন্ধ রাখার কথা বলা হয়।

সৌদি থেকে ফেরা ১০ হাজারের বেশি হাজিকে কোয়ারেন্টিন করেছে তুরস্ক। সেখান থেকে ফেরা একজনকে করোনাভাইরাসের রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলাইমান সয়লু সৌদির বিরুদ্ধে তথ্য না দিয়ে অন্ধকারে রাখার অভিযোগ তুলেছেন। দেশটি থেকে ফেরার পর হাজিদের মধ্যে করোনাভাইরাসের রোগী পাওয়ার পর দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানিয়েছে দেশটি। গতকাল সয়লু বলেন, তুরস্কসহ কোনো দেশকেই করোনাভাইরাসের ঝুঁকি সম্পর্কে জানায়নি সৌদি আরব।


এম/এইচ/টি

বিস্তারিত খবর

মক্কা-মদিনা লকডাউন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৫ ১১:০৪:২১


করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে মক্কা, মদিনা ও রাজধানী রিয়াদ লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমান। বুধবার তিনি এক ফরমানে এ ঘোষণা দেন।

সৌদি গেজেট জানিয়েছে, দেশের ১৩টি প্রদেশের মানুষকে তাদের এলাকা ছেড়ে অন্য এলাকায় যেতে বা অন্য প্রদেশে যাতায়াতের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন বাদশাহ। বৃহস্পতিবার থেকে এ আদেশ কার্যকর হবে। রাজকীয় আদেশে মক্কা, মদিনা ও রিয়াদের সীমানায় কাউকে প্রবেশ বা সেখান থেকে কাউকে বের হওয়ার ব্যাপারেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

এর আগে রোববার মক্কা, মদিনা ও রিয়াদে সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত ২১ দিনের জন্য কারফিউ জারি করা হয়েছিল। নতুন আদেশে এই সময় আরো এগিয়ে এনে বেলা ৩টা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে এই আদেশ কার্যকর হবে।

সৌদি আরবে এ পর্যন্ত ৯০০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন দুজন।

বিস্তারিত খবর

করোনাভাইরাস প্রকোপের মধ্যেই ইরানে ভয়াবহ বন্যা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৫ ০৩:৩১:৩৫

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রকোপের মধ্যেই ভয়াবহ বন্যা দেখা দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরানে। ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে এ বন্যার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে।

দেশাটর যেসব প্রদেশে বন্যা দেখা দিয়েছে সেগুলো হচ্ছে, পূর্ব আজারবাইজান, বুশেহর, চাহারমাহাল-বাখতিয়ারি, দক্ষিণ খোরাসান, খোরাসান রাজাভি, উত্তর খোরাসান, খুজিস্তান, সেমনান, সিস্তান-বালুচিস্তান, ফার্স, কাজভিন, কোম, কেরমান, কুহকিলুয়েহ-বুয়েরআহমান, গুলিস্তান, গিলান, মাজান্দারান, মধ্যপ্রদেশ ও হরমুজগান।

এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার জন্য দেশের প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট ইসহাক জাহাঙ্গিরি বন্যা দুর্গত প্রদেশগুলোর উদ্ধার ও ত্রাণ সংস্থাগুলোকে পূর্ণ প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন।

এছাড়া, পানিতে তলিয়ে যাওয়া এলাকাগুলোর ফসল ও অবকাঠামোর ক্ষতি সর্বনিম্ন পর্যায়ে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ারও নির্দেশ দেন ইরানের ভাইস প্রেসিডেন্ট।

এদিকে, ইরানের রেডক্রিসেট সোসাইসির ত্রাণ ও উদ্ধার কমিটির প্রধান কর্মকর্তা মুর্তজা সালিমি জানিয়েছেন, তার কর্মীরা বন্যা দুর্গত ১৯টি প্রদেশে ব্যাপক উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেছে। সারাদেশের ৬১টি শহর ও গ্রাম এবং ৯টি পাহাড়ি এলাকায় ১০০টি উদ্ধারকারী দল পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মধ্যে জরুরি খাদ্য, ওষুধ ও ত্রাণ বিতরণ চলছে বলেও জানিয়েছেন রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির এই কর্মকর্তা।

ইরানের সড়ক ও নগর উন্নয়নমন্ত্রী মোহাম্মাদ ইসলামি বলেছেন, বন্যা দুর্গত এলাকাগুলোর রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বন্যার পানিতে আটকে পড়া মানুষদের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাগুলো মেরামতের কাজ দ্রুতগতিতে চলছে বলেও জানান তিনি।

বিস্তারিত খবর

সৌদি আরবে আক্রান্ত ৭৬৭, চলছে কারফিউ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৫ ০১:৩৩:৩৭

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনায় সৌদি আরবে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৭৬৭জন।

মঙ্গলবার (২৪মার্চ) সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, একদিনেই  ২০৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। নতুন করে আক্রান্ত হওয়া ২০৫ জনের মধ্যে ৮২ জন জেদ্দায়, ৬৯ জন রিয়াদে, ১২ জন আল বাহা, ৮ জন বিসা, ৮ জন নাজরান, ৬ জন আবহা, ৬ জন কাতিফ, ৬ জন দাম্মাম, ৩ জন জিজান, ২ জন খোবর, ২ জন দাহরান ও একজন মদীনায় রয়েছেন।

করোনার বিস্তার রোধে শুরু থেকেই সতর্ক রয়েছে সৌদি প্রশাসন। মঙ্গলবার থেকে চলছে কারফিউ। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত (২১দিন) চলবে এই কারফিউ। কেউ কারফিউ অমান্য করলে ১০ হাজার রিয়াল জরিমানার বিধান রয়েছে। ফলে কারফিউ শরু হওয়ার পর নীরব হয়ে গেছে সৌদির ব্যস্ত শহরগুলো।

তবে, নিচের ১৪ শ্রেণির ব্যক্তি ও খাত এই কারফিউয়ের আওতামুক্ত:

১. নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সুপার মার্কেট, ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, মাংস, সবজি বিক্রি ও উৎপাদনের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

২. যারা স্বাস্থ্য ও ফার্মেসি খাতে কর্মরত।

৩. গণমাধ্যমকর্মীরা।

৪. খাদ্যদ্রব্য ও চিকিৎসা সামগ্রী আমদানি ও এ জাতীয় পণ্য পরিবহণ সংশ্লিষ্ট কর্মীরা।

৫. অনলাইনে পণ্য বিক্রির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মীরা।

৬. হোটেল, মোটেল ও বোর্ডিংয়ের কর্মীরা।

৭. পেট্রোল পাম্প ও জরুরি বিদ্যুৎ পরিষেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

৮. আর্থিক পরিষেবাদাতা ও জরুরি ইন্স্যুরেন্স সেবাদাতা কোম্পানির কর্মীরা।

৯. টেলিকমিউনিকেশন ও ইন্টারনেট সেবাদাতা কোম্পানির কর্মীরা।

১০. শারিকা মিয়াহ (রাষ্ট্রীয় পানি কোম্পানি)-এর কর্মীরা।

১১. নিরাপত্তা সংস্থা , স্বাস্থ্য দপ্তরসহ সরকারি পরিষেবাদাতা যানবাহন চলাচল করতে পারবে।

১২. জরুরি ওষুধ ও খাদ্য সামগ্রী বহন করা যানবাহন চলাচল করতে পারবে।

১৩. এসময়ে মুয়াজ্জিনরা শুধু মসজিদে আজান দেওয়ার জন্য মসজিদে যাওয়া-আসা করতে পারবেন।

১৪. কূটনৈতিক মিশনে ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থায় কর্মরতরা জরুরি প্রয়োজনে তাদের কর্মস্থলে যাওয়া-আসা করতে পারবেন।

এদিকে, রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে সৌদি আরবে বসবাসরত বাংলাদেশিদের কারফিউ চলার সময় সব নিয়মকানুন মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বিস্তারিত খবর

এবার সৌদি আরবেও কারফিউ জারি

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৩ ০১:৫৩:১০


চীনের করোনা ভাইরাস একে একে ছড়িয়ে পড়েছে গোটা বিশ্বে। দিনে দিনে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে সৌদি আরবেও। আর দেশটির করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে এবার কারফিউ জারির ঘোষণা দিলো সৌদি বাদশাহ।

সোমবার সন্ধ্যা থেকে পুরো সৌদি আরবে কারফিউ জারি করার ঘোষণা দিয়েছেন বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ। আগামী একুশ দিনের জন্য প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা থেকে পরদিন ভোর ছয়টা পর্যন্ত এই কারফিউ জারি থাকবে বলে এক বিবৃতিতে সৌদি প্রেস এজেন্সির বরাত দিয়ে জানিয়েছে রয়েল কোর্ট ।

রবিবার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, এ পর্যন্ত সৌদিতে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রন্ত হয়েছে ৫১১ জন। নতুন করে ১১৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া খবর পাওয়ার পর বাদশাহ সালমান দেশটিতে কারফিউ জারির ঘোষণা দেন।

বিস্তারিত খবর

মক্কা-মদিনা ছাড়া সৌদি আরবের সব মসজিদে নামাজ বন্ধ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-১৮ ০৩:৫৭:৫২


মহামারি করোনাভাইরাসের (কোভিড ১৯) প্রদুর্ভাবে এবার সৌদি আরবের সব মসজিদে নামাজ বন্ধ রাখার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তবে মক্কার মসজিদ আল-হারাম ও মদিনার মসজিদে নববীতে নামাজা আদায় করা যাবে।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) সৌদি প্রেস এজেন্সির বরাত দিয়ে সৌদি গেজেট জানায়, দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় সংগঠন দ্য কাউন্সিল অব স্কলার্স এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সৌদি গেজেট এক প্রতিবেদনে লিখেছে, ইসলামি শরিয়াহ অনুযায়ী সম্ভাব্য ক্ষতি কমাতে মসজিদে জুমাসহ সব ধরনের নামাজের জামাত বন্ধ রাখার সুযোগ রয়েছে। যেহেতু করোনাভাইরাস অতি সংক্রামক হওয়ায় বড় ধরনের ঝুঁকি এড়াতে কাউন্সিল মসজিদ সাময়িক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।  তবে নামাজ বন্ধ থাকলেও সব মসজিদ থেকে আগের মতোই আজান দেওয়া হবে।

মহামারি করোনাভাইরাসে সৌদি আরবে বুধবার (১৮ মার্চ) পর্যন্ত ১৭১ আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৬ জন।

বিশ্বের ১৬৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড ১৯। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ২ লাখ মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজার ৯৮৭ জনের।

 

বিস্তারিত খবর

আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিল করছে সৌদি আরব

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-১৪ ০১:৫৮:৩৩

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আগামীকাল রবিবার থেকে দু'সপ্তাহের জন্য সকল আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে শনিবার এমনটি জানানো হয়েছে।

শুক্রবার সৌদি আরবে করোনা ভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন আরো ৬২ জন। এ নিয়ে দেশটি করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৮৬ জনে দাঁড়িয়েছে।

সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, রবিবার সকাল ১১টা থেকে এই বাতিল আদেশ কার্যকর হবে। তবে বিশেষ কারণে এই দু'সপ্তাহ কিছু কিছু ফ্লাইট চলাচল করবে ।

এই সপ্তাহের শুরুতে ইউরোপিয় ইউনিয়ন এবং বিশ্বের ১২টি দেশের সঙ্গে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিল করে সৌদি আরব।

বিস্তারিত খবর

সৌদি আরবের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাস বন্ধ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-০৯ ০৫:০৫:০৫


করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে দেশজুড়ে স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস বন্ধ ঘোষণা করেছে সৌদি আরব।

রোববার দেশটির তেলসমৃদ্ধ কাতিফ প্রদেশে অচলাবস্থা ঘোষণা করা হয়। দেশটিতে শনাক্ত হওয়া ১৫ জন করোনা ভাইরাস আক্রান্তের বেশিরভাগই রয়েছেন এই প্রদেশে।

মোট ১৫ জন করোনা ভাইরাস আক্রান্তের মধ্যে একজন মার্কিন নাগরিক রয়েছেন, যিনি ইতালি এবং ফিলিপাইন ভ্রমণ করেছেন। এছাড়া সোমবার ৯টি দেশে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সৌদি আরব যার মধ্যে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, কুয়েত এবং মিশর।

শিয়া মুসলিম অধ্যুষিত কাতিফ প্রদেশে চার জনের মধ্যে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার কারণে সেখানে সকল কর্মকাণ্ড বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটির দুটি মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে যে, এতে তেল উৎপাদনের উপর কোন প্রভাব পড়বে না।

কিন্তু এই সিদ্ধান্ত কাতিফে এক ধরণের অসন্তোষ তৈরি করতে পারে। সুন্নি নিয়ন্ত্রিত সৌদি সরকারের সাথে শিয়া সংখ্যালঘুদের বিবাদের অন্যতম অংশ কাতিফ, যেখানে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন যে, তারা বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে সরকার।

"ভাইরাসটির বিস্তার ছড়াতে সব সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে," এক বিবৃতিতে এ খবর জানিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তবে শুধু নিরাপত্তা ও প্রাদেশিক কর্মকাণ্ড চলবে বলেও জানানো হয়।

মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে, কাতিফে চলাচল সীমিত করা হলেও বাসিন্দারা ঘরে ফেরার এবং বাণিজ্যিক সরবরাহ চালাতে পারবে।

স্থানীয় এক বাসিন্দা জানিয়েছেন যে, কাতিফে সিমেন্টের তৈরি ব্লক দিয়ে রাস্তা বন্ধ করা হয়েছে এবং কর্মকাণ্ড স্থগিত ঘোষণার পর মুদি দোকানে ব্যাপকহারে কেনাকাটা করেছে বাসিন্দারা।

সৌদি কর্তৃপক্ষ এর আগে জানিয়েছিল যে, আক্রান্তরা হয় ইরান কিংবা ইরাক ভ্রমণ করেছে কিংবা যারা ওই দেশগুলো ভ্রমণের পর আক্রান্ত হয়েছে তাদের সংস্পর্শে এসেছে।

এদিকে কাতিফে অচলাবস্থা তৈরির জের ধরে সৌদি আরবের সাথে ইরানের উত্তেজনা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের সময় সৌদির নাগরিকদের প্রবেশ করতে দেয়ার কারণে তেহরানের নিন্দা জানিয়েছে রিয়াদ।

সোমবার আক্রান্তদের মধ্যে মার্কিন পর্যটককে রিয়াদের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আক্রান্ত অন্যদের মধ্যে রয়েছেন এক সৌদি নাগরিক যিনি কাতিফে অন্য এক আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে এসে আক্রান্ত হন এবং বাহরাইনের দুই নারী যারা সম্প্রতি ইরাক থেকে ফিরেছেন।

দেশটির বিনোদন কর্তৃপক্ষ বলেছে, ভাইরাসের কারণে সোমবার উইন্টার ওয়ান্ডারল্যান্ড বন্ধ থাকবে।

এরইমধ্যে ইরানের সাথে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সৌদি আরব। ইরানের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৯৪ জন মারা গেছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, নতুন আক্রান্তদের মধ্যে তিন জন নারী সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাত হয়ে ইরান থেকে ফেরা এক ব্যক্তির সংস্পর্শে আসার কারণে আক্রান্ত হয়েছে। ওই ব্যক্তি ইরান ভ্রমণের তথ্য গোপন করেছিল বলে জানানো হয়।

রোববার নেয়া সতর্কতার অংশ হিসেবে মসজিদে সব ধরণের কোরআন ও শিক্ষামূলক কর্মকাণ্ড বন্ধ করা হয়েছে।

রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, পরবর্তী নোটিশ না দেয়া পর্যন্ত সব সরকারি ও বেসরকারি স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকাণ্ড সোমবার থেকে বন্ধ থাকবে। তবে দূর শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া হবে।

আল আরাবিয়া টিভি জানায়, ২৩ মার্চ দেশটির সবচেয়ে বড় খেলাধুলার অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সেটি পিছিয়ে দেয়া হয়েছে।

রোববার বাহরাইন, কুয়েত এবং আরব আমিরাতের সাথে স্থল সীমান্ত পারাপারও বন্ধ করা হয়েছে। তিনটি বিমানবন্দরে যাত্রী পরিবহনও সীমিত করা হয়েছে। ১৪টি দেশের পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে কাতার।

কুয়েতে রোববার আরো দুই ব্যক্তি নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে। সব মিলিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৬৪ জনে। ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ১০ মিলিয়ন দিনার তহবিল ঘোষণা করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বিস্তারিত খবর

শিরশ্ছেদ হতে পারে সৌদি বাদশাহর ভাই-ভাতিজার!

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-০৭ ০৬:৫১:৫৪

সৌদি রাজপরিবারের জ্যেষ্ঠ দুই সদস্যকে শুক্রবার ভোরেই আটক করেন কালো পোশাক পরা নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। অভ্যুত্থান চেষ্টার অভিযোগে বাদশাহ সালমানের ছোট ভাই প্রিন্স আহমেদ বিন আবদুল আজিজ ও ভাতিজা মোহাম্মদ বিন নায়েফকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের খবরে দাবি করা হয়, রাজকীয় আদালত তাদের বিরুদ্ধে বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে সিংহাসনচ্যুত করতে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনেছে। এতে তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড কিংবা শিরশ্ছেদও হতে পারে।

নিজের সিংহাসনে আরোহনের ক্ষেত্রে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না রাখতেই এই আটক অভিযান বলে ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়।

প্রিন্স আহমেদ ও বিন নায়েফের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ আনা হয়েছে। ২০১৭ সাল পর্যন্ত সৌদি সিংহাসনের উত্তরসূরি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন বিন নায়েফ। তার ছোট ভাই নওয়াফ বিন নায়েফকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

ক্ষমতা সুসংহত করতে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ধরপাকড় অভিযানে সর্বশেষ আটক হলেন আহমেদ ও বিন নায়েফ।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক র‌্যান্ড কর্পোরেশনের নীতিবিশ্লেষক বেকা ওয়াসের ব্লুমবার্গকে বলেন, যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছেন। তার উত্থানের ক্ষেত্রে সব হুমকি ইতিমধ্যে তিনি সরিয়ে দিয়েছেন। পাল্টা প্রতিক্রিয়া ছাড়াই তার সমালোচকদের হত্যা করছেন।

‘আর ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করতে এটা তার আরও বড় পদক্ষেপ। তাকে যাতে অতিক্রম করার চেষ্টা করা না হয়, রাজপরিবারের সদস্যদের তিনি সেই বার্তা দিতে চেয়েছেন নতুন এই ধরপাকড়ের মাধ্যমে,’ বললেন এই বিশ্লেষক।

আল-জাজিরার সাংবাদিক জামাল এলশায়াল বলেন, সৌদি রাজপরিবারের দুই জ্যেষ্ঠ সদস্যের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। কী কারণে যে এই গ্রেফতার, তা জোর দিয়ে বলা যাচ্ছে না। আর এ বিষয়ে কিছু বলা অপ্রয়োজনীয়। কারণ সেখানে স্বচ্ছতা ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা বলতে কিছু নেই।

তিনি বলেন, যে দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তারা সৌদির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের অন্যতম। দীর্ঘ সময় তারা স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারছেন না। কাজেই অভ্যুত্থান চেষ্টার যে অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে আনা হয়েছে, তা খুবই অসম্ভব ও কঠিন। তারা আগে থেকেই মারাত্মক বিধিনিষেধের মধ্যে রয়েছেন।

নিউইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, এর একটি সম্ভাব্য মতলব হতে পারে বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজের বয়স। তিনি এখন ৮৪ বছরে রয়েছেন। বাবার মৃত্যু কিংবা সিংহাসন ত্যাগের আগে সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের আটকে রাখতে চাচ্ছেন উত্তরসূরি মোহাম্মদ বিন সালমান।

রাজপরিবারে প্রিন্স আহমেদ বিশেষ মর্যাদা বহন করেন। কারণ বাদশাহ সালমানের একমাত্র জীবিত আপন ভাই তিনি। আর বাদশাহ আবদুল আজিজের জীবত সন্তানদের মধ্যে একজন তিনি। কাজেই শাসক পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্যদের মধ্যে তার ব্যাপক কদর রয়েছে।

এর আগে নিজের ভাইকে সিংহাসনের উত্তরসূরি মনোনয়ন দিতেন সৌদি শাসকরা। কিন্তু বাদশাহ সালমান প্রথমবারের মতো ২০১৭ সালে নিজের ছেলেকে এই পদে বসান।

২০১৮ সালে লন্ডনে বিক্ষোভকারীদের মুখোমুখি হওয়ার সময় সৌদি আরবের বর্তমান নীতির সমালোচনা করার পর থেকে প্রিন্স আহমেদকে প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ভাবতে শুরু করেন যুবরাজ।

বিক্ষোভকারীরা তখন ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন বিমান হামলার বিরুদ্ধে স্লোগান দিচ্ছিলেন। কাজেই প্রতিবেশী দেশটিতে মানবিক সংকটের দায় নেয়ার ক্ষেত্রে বাকি রাজপরিবারের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখে চলছেন প্রিন্স আহমেদ।

এক ভিডিওতে রাজপরিবারের নাম নিয়ে তাকে বলতে শোনা গেছে, আল-সৌদে এসব কি হচ্ছে? এসবের জন্য বাদশাহ ও তার সন্তানই দায়ী। এরপরে ইন্টারনেটে ক্ষুব্ধ সৌদিরা প্রিন্স আহমেদের আনুগত্য মেনে চলার প্রতিশ্রুতি দেন।

কিন্তু দ্রুতই এটা পরিষ্কার হয় যে সিংহাসনের উত্তরসূরি হওয়ার কোনো ইচ্ছা তার নেই। একটি বিবৃতি ইস্যু করে তিনি বলেন, তার মন্তব্য ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

পরবর্তী বসন্তে তিনি দেশে ফিরে যান। বিমানবন্দরে প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানকে আলিঙ্গন করেন। ভাইয়ের ছেলের সঙ্গে উষ্ণ সম্পর্ক রেখে আসতেই দেখা গেছে তাকে।

রাজপরিবারের যেসব সদস্যদের অবাধ্য হিসেবে বিবেচনা করছেন যুবরাজ, তাদের সঙ্গে যে আচরণ করা হয়েছে, প্রিন্স আহমেদের ক্ষেত্রে প্রথমে তেমনটি ঘটতে দেখা যায়নি। তিনি অনেকটা স্বাধীনভাবেই দেশে ফিরে আসা ও চলাচলের সুযোগ পান।

বুধবার তিনি অবকাশ থেকে ফিরে আসেন এবং পরের দিনেই গ্রেফতার হন। ক্ষমতাসীন আল-সৌদ পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্যদের নিয়ে গঠিত হাইয়াতুল বাইয়ার তিন সদস্যের একজন তিনি। ২০১৭ সালে মোহাম্মদ বিন সালমানকে যখন সিংহাসনের উত্তরসূরি করা হয়, তখন প্রিন্স আহমেদ তার বিরোধিতা করেন।

প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নায়েফ ছিলেন সাবেক যুবরাজ। ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে তার চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। তাকে মোহাম্মদ বিন সালমানের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবেই বিবেচনা করা হয়ে আসছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকালে তিনি দেশের তিন সশস্ত্র বাহিনী নিয়ন্ত্রণ করেছেন। যার মধ্যে সেনাবাহিনী ও ন্যাশনাল গার্ড বাহিনীও রয়েছে। কাজেই ক্ষমতার লড়াইয়ে তিনি তাৎপর্যপূর্ণ সুবিধা পাবেন বলেই মনে করা হচ্ছে।

এছাড়াও তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠ। মার্কিন গোয়েন্দা বাহিনীর সঙ্গে তার বেশ জানাশোনা আছে। রাজপরিবারের মধ্যে যেটাকে সম্পদ হিসেবেই বিবেচনা করা হচ্ছে।

২০১৭ সালে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান কেবল তাকে ক্ষমতাচ্যুতই করেননি, ব্যাপক অপমান ও লাঞ্ছনাও দিয়েছেন। নিজের পদ থেকে সরে দাঁড়াতে বর্তমান যুবরাজের সহযোগীরা তাকে শারীরিকভাবে জবরদস্তি করেছেন।

তাকে দীর্ঘ সময় আটক রাখার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় চিকিৎসাবঞ্চিত করা হয়েছে। বিন নায়েফের সম্পদ জব্দ করা হয়। আর সামাজিকমাধ্যমে তার বিরুদ্ধে প্রচার চালানো হয়, তিনি ব্যথানাশকে আসক্ত।

তার ক্ষমতা কেড়ে নেয়া হয় এবং স্বাধীন চলাচল বন্ধ করা হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কালো উর্দি ও মাস্ক পরা লোকজন রিয়াদে তার ডেজার্ট ক্যাম্পে আসেন এবং তাকে ও তার ছোটভাইকে তুলে নিয়ে যান। এসময় তার বাড়িঘর তল্লাশি ও যোগাযোগ লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়।

তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহীতার অভিযোগ তোলা হয়েছে। রাজপরিবারের অবাধ্য সদস্যদের গ্রেফতার যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নিত্য অভ্যাস। মূলত ক্ষমতা সুসংহত করতেই তিনি এই ধরপাকড় চালাচ্ছেন বলে সমালোচকদের দাবি।

সাম্প্রতিক দিনগুলোতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে দেখা যাচ্ছে সৌদি আরবকে। বিদেশি ওমরাহ যাত্রীদের দেশটিতে ঢুকতে বাধা দেয়া হচ্ছে। চলতি বছরে হজ পালনকে সামনে রেখে সেই সংকট বড় আকার নিতে পারে।

বিস্তারিত খবর

সৌদিতে প্রথমবারের মত করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-০৩ ০১:৫৫:৫২


সৌদি আরবে প্রথমবারের মতো করোনাভাইরাস আক্রান্ত এক ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়েছে।

সোমবার সৌদি আরবের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আরব নিউজ এ তথ্য জানিয়েছে।

আক্রান্ত ওই ব্যক্তি সম্প্রতি ইরান ভ্রমণ করেছিলেন। তাকে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হয়েছে এবং তার সাথে যাদের যোগাযোগ ছিল তাদের সবার বিভিন্ন শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে সর্বপ্রথম করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির খোঁজ পাওয়া যায় সংযুক্ত আরব আমিরাতে। পরে বাহরাইন, কুয়েত, লেবানন ও মালয়েশিয়াতেও করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়।

মঙ্গলবার পর্যন্ত সারাবিশ্বে ৩ হাজার ১১৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। বিশ্বের ৭৬টি দেশ ও অঞ্চলে ৯০ হাজার ৫০৬ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ৪৮ হাজার মানুষ চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে করোনাভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে। প্রতিনিয়ত এই ভাইরাসে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এর মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান ও ইতালি।

বিস্তারিত খবর

পুতিন, ম্যার্কেল ও ম্যাক্রোঁর সঙ্গে বসছেন এরদোয়ান

 প্রকাশিত: ২০২০-০২-২৩ ০৫:১৩:৫৭


সিরিয়া ও লিবিয়া ইস্যুতে প্রভাবশালী বিশ্বনেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। আগামী ৫ মার্চ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল এবং ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে এ বৈঠকে মিলিত হবেন তিনি। শনিবার তুরস্কের ইজমিরে এক অনুষ্ঠানে এরদোয়ান এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে সিরিয়ার ইদলিব পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার ফোনে পুতিন, ম্যার্কেল ও ম্যাক্রোঁর সঙ্গে কথা বলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। ওই ফোনালাপের বিষয়ে এরদোয়ান বলেন, ইদলিবের বিষয়টি আফরিনের মতোই গুরুত্বপূর্ণ। এ বিষয়গুলো নিয়ে কথা বলতে আগামী ৫ মার্চ আমরা মিলিত হবো।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, তার দেশের অভিযান কুর্দি বিদ্রোহীদের দখলে থাকা এলাকাগুলোতে শান্তি ফিরিয়ে এনেছে। ইদলিবেও একইভাবে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে চায় আঙ্কারা। আশা করি, এখানেও আমরা সফল হবো যাতে আমাদের ও সিরীয় ভাইদের স্বার্থ রক্ষা করা সম্ভব হয়।

এর আগে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি তুর্কি পার্লামেন্টে দেওয়া ভাষণে প্রয়োজনে সিরিয়ায় সামরিক অভিযান চালানোর হুঁশিয়ারি দেন এরদোয়ান। তিনি বলেন, ইদলিবে তুর্কি সামরিক অবস্থানের আশপাশ থেকে সিরীয় সেনাদের প্রত্যাহার করা না হলে ফেব্রুয়ারির শেষে সেখানে অভিযান চালাবে আঙ্কারা।

এরদোয়ান বলেন, তুরস্কের আর একজন সেনাও যদি আক্রান্ত হয় তাহলে আসাদ বাহিনীর ওপর হামলা চালাবে আঙ্কারা। যেকোনও মূল্যে স্থল কিংবা আকাশপথে; যেকোনও স্থানে এ হামলা চালানো হবে। যেকোনও মূল্যে সেখানে নিরাপত্তা জোন প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

ইদলিবের আকাশপথ বেশ কয়েক বছর ধরে নিয়ন্ত্রণ করছে আসাদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক রাশিয়া। তবে এ মাসে আসাদ বাহিনী ১৩ তুর্কি সেনাকে হত্যার পর পাল্টা জবাব হিসেবে সিরিয়ার শতাধিক স্থাপনায় হামলা চালায় তুরস্ক। পাল্টা আঘাত অব্যাহত রাখার হুঁশিয়ারি দেন এরদোয়ান। এ নিয়ে মস্কোর সঙ্গেও আঙ্কারার সম্পর্কে টানাপড়েন তৈরি হয়। সম্প্রতি আঙ্কারায় ক্ষমতাসীন দল একে পার্টির সমাবেশেও এ নিয়ে কথা বলেন এরদোয়ান। এদিন তিনি বলেন, তুর্কি সেনাদের ওপর হামলার জন্য আসাদ বাহিনীকে চড়া মূল্য দিতে হবে।

ইরানি মিলিশিয়া ও রাশিয়ার বিমান হামলার মাধ্যমে দেশজুড়ে নিজের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় মরিয়া সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ইরান ও রাশিয়ার পৃষ্ঠপোষকতায় এক সামরিক অভিযান শুরু করে আসাদ বাহিনী। দখল করে নেয় বহু শহর ও গ্রাম। ইরান, রাশিয়া ও আসাদ বাহিনীর সমন্বিত হামলার মুখে ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায় পাঁচ লক্ষাধিক মানুষ। এমনিতেই সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে শরণার্থী হওয়া ৩৬ লাখ মানুষ প্রতিবেশী দেশ তুরস্কে আশ্রয় নিয়েছে। ফলে আসাদ বাহিনীর নতুন নতুন অভিযানে আরও বেশি শরণার্থীর বোঝা বহনে রাজি নয় আঙ্কারা। অন্যদিকে ইরান-রাশিয়ার পৃষ্ঠপোষকতায় যেকোনও মূল্যে দেশজুড়ে আধিপত্য বিস্তারে উদগ্রীব আসাদ বাহিনী। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি, রয়টার্স।

বিস্তারিত খবর

পরমাণু চুক্তি থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা ইরানের

 প্রকাশিত: ২০২০-০১-০৬ ০৯:৫৯:৪৩


২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তি থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে ইরান। কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার জেরে রোববার তেহরান এ ঘোষণা দিয়েছে।

এক বিবৃতিতে ইরান জানিয়েছে,পারমাণবিক কর্মসূচিতে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ, মজুদ, গবেষণা বা উন্নয়ন সীমিত রাখার শর্ত তারা আর মেনে চলবে না।

এদিকে, চুক্তির ইউরোপীয় পক্ষ-জার্মানি, ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্য চুক্তি মেনে চলার জন্য ইরানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

জার্মানি বলেছে, ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ শুরু করলেই ইরানের সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যাবে।

২০১৫ সালে পারমাণবিক কর্মসূচি সীমিত করার শর্তে ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ফ্রান্স, রাশিয়া ও চীনের ঐতিহাসিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তি স্বাক্ষরের পর ইরানের ওপর থেকে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে যুক্তরাষ্ট্র। তবে ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর ২০১৭ সালে চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেয় হোয়াইট হাউজ। এরপরই ইরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

বিস্তারিত খবর

মার্কিন কংগ্রেসের মুসলিম ২ নারী সদস্যকে নিষিদ্ধ করেছে ইসরাইল

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-১৬ ১১:১৭:৩৬

মার্কিন কংগ্রেসে ডেমোক্র্যাট দলের মুসলিম দুই নারী সদস্য ইলহান ওমর এবং রাশিদা তালিবের সফরে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ইসরাইল। এ দু’জন আগামী সপ্তাহে অধিকৃত পশ্চিম তীর এবং পূর্ব জেরুসালেম সফরে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কথায় ইসরাইল তাদেরকে বাধা দেয়ার এ পদক্ষেপ নিয়েছে- এমনটাই বলছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।

ইলহান ওমর এবং রাশিদা তালিবকে ইসরাইলে প্রবেশ করতে দিলে দেশটির ‘বড় ধরনের দুর্বলতা’ প্রকাশ পাবে বলে ট্রাম্প এক টুইটে মন্তব্য করেছিলেন।

এরপরই বৃহস্পতিবার ইসরাইলের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএনকে ওই দুই নারীর সেদেশে প্রবেশ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত জানান। ইসরাইলের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ও এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘যারা সফর করতে এসে ইসরাইল রাষ্ট্রের ক্ষতি করার অভিপ্রায় রাখে তাদেরকে দেশে ঢুকতে দেয়াটা অচিন্তনীয়।’

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুও এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘ওই দুই কংগ্রেস নারী সদস্যের ফন্দি হচ্ছে, কেবলই ইসরাইলের ক্ষতি করা এবং ইসরাইল-বিরোধিতা উস্কে দেয়া।’

অথচ গত মাসেই যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ইসরাইলের রাষ্ট্রদূত রন ডার্মার বলেছিলেন, ডেমোক্র্যাটিক দলের ওই দুই নারীকে মার্কিন কংগ্রেসের প্রতি সম্মান প্রদর্শনস্বরূপ এবং ইসরাইল-আমেরিকার বন্ধুত্বের খাতিরে সফরের অনুমতি দেয়া হবে।

আর এখন ইসরাইল সে কথাই উল্টে দিল। ইসরাইলের হারেৎজ পত্রিকা জানিয়েছে, বুধবার নেতানিয়াহু পররাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিলের প্রধান এবং অ্যাটর্নি জেনারেলের সাথে বৈঠকের পর বৃহস্পতিবার বিবৃতি দিয়ে তার সিদ্ধান্ত জানালেন।

ওমর ইলহান এবং রশিদ তালিব দুইজনই ইসরাইলের ঘোর সমালোচক। দুইজনই ইসরাইলকে বয়কটের আন্দোলনকে সমর্থন করেছেন।

ইসরাইলের আইনে এ আন্দোলনের সমর্থকদের সফর নিষিদ্ধ করার বিধান আছে।

ইসরাইলের এ পদক্ষেপকে কংগ্রেসের জন্য অবমাননাকর আখ্যা দিয়েছেন নিউ জার্সির কংগ্রেস সদস্য টম মালিনোয়াস্কি।

ওদিকে, ম্যাসাচুসেটসের সিনেটর এবং প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়নপ্রত্যাশী প্রার্থী এলিজাবেথ ওয়ারেন ইসরাইলের পদক্ষেপকে ‘লজ্জাজনক’ বলে নিন্দা করেছেন এবং একজন মার্কিন কংগ্রেস সদস্যের বিরুদ্ধে ‘নজিরবিহীন’ পদক্ষেপ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

বিস্তারিত খবর

দুবাইয়ে বাংলাদেশি পুরুষ ও নারীর ৭ বছরের কারাদণ্ড

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৬-২৯ ১১:৫৫:০৯

মানবপাচার ও যৌনব্যবসায় বাধ্য করার অভিযোগে দুবাইয়ে এক বাংলাদেশি পুরুষ ও এক নারীর সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির একটি আদালত এই রায় দিয়েছে বলে শনিবার গালফ নিউজ জানিয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে আল মুতাইনা এলাকার একটি আবাসিক ভবন থেকে ১৫ বছরের এক বাংলাদেশি কিশোরীকে দড়ি দিয়ে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। পরে জানা যায়, ওই কিশোরীকে পেটানো হতো এবং তাকে যৌনব্যবসায় বাধ্য করা হতো।

ওই ঘটনায় ভবনের বাইরে থেকে ৩০ বছরের এক বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, হর আল আঞ্জ এলাকার একটি ফ্ল্যাট থেকে ৩৩ বছরের আরেক বাংলাদেশি নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের দুজনের বিরুদ্ধে মানবপাচারের অভিযোগ আনা হয়। আদালত সাজা শেষে তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে।

এছাড়া যৌন নিপীড়নের অভিযোগে পুরুষকে এক  বছর অতিরিক্ত কারাদণ্ড এবং যৌন ব্যবসার অভিযোগে ওই নারীকে অতিরিক্ত ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, পাসপোর্টে বয়স পরিবর্তন করে কাজ দেওয়ার কথা বলে ওই কিশোরীকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিয়ে এসেছিল বাংলাদেশি ওই নারী ও পুরুষ। পরে তাকে একটি ফ্ল্যাটে আটকে রেখে যৌন ব্যবসায় বাধ্য করা হয়। পরে এক পাকিস্তানির মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ ফ্ল্যাটটিতে অভিযান চালায়। সেখানে থেকে আরেক বাংলাদেশি নারী ও এক ইন্দোনেশীয় নারীকে উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ আরো জানিয়েছে, উদ্ধার করা কিশোরীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে কিশোরীটি মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছে।

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত