যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 05:26pm

|   লন্ডন - 12:26pm

|   নিউইয়র্ক - 07:26am

  সর্বশেষ :

  প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক, অন্তর্দ্বন্দ্বে নির্বাচন স্থগিতের নির্দেশ আদালতের   তুরস্কে চলছে বিশ্বের সবচেয়ে ছোট কুরআন প্রদর্শনী   যেসব খাবারের সঙ্গে ক্যানসারের সম্পর্ক রয়েছে   মেসিকে ছাড়াই কোপার পরিকল্পনা আর্জেন্টিনার!   বিন সালমানের অপসারণ চাইলেন সৌদির ওলামা পরিষদ   ‘যত বার ওর অফিসে গিয়েছি, তত বারই চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেছেন’   প্রতি দুইদিনে একজন বিলিয়নার তৈরি করে চীন   ভারতে নারীরাই তাদের অধিকারের বিরোধী!   বিকল্পধারা থেকে বি. চৌধুরী ও মাহী চৌধুরীকে বহিষ্কার   ভারতে রাবণ বধ দেখতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ৫০   প্যাটারসনে বাংলাদেশ কমিউনিটি অব নিউজার্সির শোকসভা ও দোয়া মাহফিল   সিলেটের বিশিষ্ট আলেম প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমানের ইন্তেকাল   ইস্তাম্বুলের জঙ্গলে জামাল খাসোগির লাশ!   নিরাপত্তারক্ষীর গুলিতে কান্দাহারের গভর্নর-পুলিশপ্রধান-গোয়েন্দাপ্রধান নিহত   যুক্তরাজ্যসহ তিন দেশের সৌদি সম্মেলন বয়কট

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

বিএনপিকে ঠেকাতে গিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, ১ জন নিহত

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০২-০৮ ০৫:০২:০৬

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে একই স্থানে অবস্থান নেওয়ার সময় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের নেতাকর্মীদের সংর্ঘষ হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার শেল ও শটগানের গুলি ছুড়েছে। এ ঘটনায় কমপক্ষে ২০ জন আহত হন। পরে আহতদের কয়েকজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা সুমন মিয়া (৩০) নামের একজনকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় আরও তিন জন ঢামেকে ভর্তি আছেন।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টার দিকে উপজেলার কাঞ্চন সেতুর পশ্চিম পাশে এ সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে। নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারুক হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।  সুমন মিয়ার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন রূপগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন। সুমনের বাবার নাম মনু মিয়া।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে যাতে কোনও নাশকতা সৃষ্টি না হয় সেজন্য কাঞ্চন পৌরসভা যুবলীগ সভাপতি রফিক ও  সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুলের নেতৃত্ব আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা অবস্থান নেন। একই এলাকায় রাস্তার আরেক পাশে অবস্থান নেন রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান ভুইয়ার সমর্থকরা। উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবুল বাশার টুকুও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। এসময় দুই পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হলে পুলিশ রাস্তার মাঝে অবস্থান নিয়ে দুই পক্ষকে সরে যেতে নির্দেশ দেন। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি অবনতি ঘটলে পুলিশ দুই পক্ষকে ধাওয়া করে লাঠিচার্জ করে এবং টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারুক হোসেন জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৩০ রাউন্ড টিয়ার শেল, প্রায় ৭০ রাউন্ড শটগানের গুলি ও ৪৯৭ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে। এ ঘটনায় পুলিশসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে।


এলএবাংলাটাইমস/এন/এলআরটি 

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৮৭১ বার

আপনার মন্তব্য