যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ২০ অগাস্ট, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 03:00pm

|   লন্ডন - 10:00am

|   নিউইয়র্ক - 05:00am

  সর্বশেষ :

  স্তন্যপান করিয়ে বিপন্ন শিশুকে বাঁচালেন আর্জেন্টিনার পুলিশ কর্মকর্তা   হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু   সরকার কোনো আন্দোলনকে দানা বেঁধে উঠতে দেবে না : এরশাদ   বিয়ের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিলেন প্রিয়াঙ্কা-নিক   ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার আন্দোলনে নিহত ১৬৬   প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন ইমরান খান   ফাইনালে পারল না বাংলাদেশি মেয়েরা   মুক্তিযোদ্ধা ছাড়া সব কোটা বাতিল হচ্ছে : নাসিম   জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান আর নেই   সবচেয়ে বেশি আয় স্কারলেট জোহানসনের   শিক্ষার্থীদের নিঃশর্ত মুক্তি দেয়ার দাবি ড. কামালের   ছাত্র আন্দোলনে ‘গুজব’ ছড়ানোর অভিযোগে কফিশপের মালিক ফারিয়া রিমান্ডে   এবার ট্রাম্পের পুত্রবধূর বিরুদ্ধে অভিযোগ   যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে চীন!   হ্যান্ডশেক না করা সেই সুইডিশ তরুণী মামলায় জিতলেন

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

‘ইহুদি জাতীয় রাষ্ট্র’ বিল পাস করেছে ইসরাইলি পার্লামেন্ট

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৭-১৯ ০২:১৫:৪১

নিউজ ডেস্ক: বিতর্কিত ‘ইহুদি জাতীয় রাষ্ট্র’ বিল পাস করেছে ইসরাইলি পার্লামেন্ট নেসেট। ইসরাইলি আরব সংসদ সদস্যদের বিরোধিতা সত্ত্বেও বুধবার বিলটি পাস করা হয়। অন্যরা সমালোচনা করলেও ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী এটিকে ‘ঐতিহাসিক মুহূর্ত’ বলে উল্লেখ করেছেন। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিতর্কিত এই আইনের ফলে ইসরাইলের জাতীয় স্বার্থেই বসতি স্থাপন আরো বাড়াতে পারবে তেলআবিব। এ ছাড়া দেশটির অফিসিয়াল ভাষা হিসেবে আরবির মর্যাদাও কমে যাবে।

এ ছাড়া নতুন আইন অনুযায়ী ‘পূর্ণাঙ্গ ও সমন্বিত’ জেরুজালেম হবে ইসরাইলের রাজধানী।

প্রসঙ্গত, এর আগেই বিলটিতে অনুমোদন দেয় ইসরাইলি মন্ত্রিসভা। বুধবার নেসেটে পাস হওয়ার মাধ্যমে সেটি আইনে পরিণত হলো।

ইসরাইলি আরব সংসদ সদস্যরা এই আইনের নিন্দা জানিয়েছেন। কিন্তু দেশটির ডানপন্থী সরকার বলছে, হহুদিদের ঐতিহাসিক জন্মস্থান হলো ইসরাইল এবং নিজেদের ব্যাপারে স্বাধীন সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার তাদের রয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, আট ঘণ্টার উত্তপ্ত আলোচনার পর বিলটি সংসদে পাস হয়। বিলটির পক্ষে ভোট দেন ৬২ জন সংসদ সদস্য। আর বিপক্ষে ভোট পড়ে ৫৫টি।

ইসরাইলি প্রেসিডেন্ট ও অ্যাটর্নি জেনারেলের আপত্তি জানানোর পর বিলটি থেকে কিছু অনুচ্ছেদ বাদ দেওয়া হয়েছে। যেমন- ইহুদিরাই একমাত্র সম্প্রদায় এমন একটি অনুচ্ছেদ বাদ দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ৯০ লাখ ইসরাইলি জনসংখ্যার ২০ শতাংশ ইসরাইলি আরব। আইন অনুযায়ী তাদের সমান অধিকারের কথা বলা হলেও তাদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে বিবেচনা করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়া শিক্ষা, চাকরি, স্বাস্থ্য ও বাসস্থানসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তারা বৈষম্যের শিকার বলে অভিযোগ রয়েছে।

ইসরাইলি আরব এমপি আহমেদ তিবি বলেছেন, এই বিল পাসের ফলে ইসরাইলে গণতন্ত্রের মৃত্যু হলো।

আর মানবাধিকার বিষয়ক এনজিও আদালাহ বলেছে, এর ফলে বর্ণবাদী নীতির মাধ্যমে জাতিগত শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিষ্ঠিত হবে।

এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৭৫৭ বার

আপনার মন্তব্য