যুক্তরাষ্ট্রে আজ বুধবার, ২৩ মে, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 12:41am

|   লন্ডন - 07:41pm

|   নিউইয়র্ক - 02:41pm

  সর্বশেষ :

  ইতালিতে চার বাংলাদেশির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ   দূতাবাসের মাধ্যমে আগামী নির্বাচনে বিদেশ থেকে ভোট দিতে চান প্রবাসীরা   পুলিৎজারজয়ী ঔপন্যাসিক ফিলিপ রোথ আর নেই   যুক্তরাষ্ট্রের এক শীর্ষ কূটনীতিককে বহিষ্কার করল ভেনেজুয়েলা   মাদকবিরোধী অভিযানের নামে ক্রসফায়ার নিয়ে বিএনপির গভীর সংশয়   অস্ত্রসহ সুন্দরবনের ৫৭ বনদস্যুর আত্মসমর্পণ   মন্ত্রীদের বেতন কমাচ্ছে মালয়েশিয়া   তামিলনাড়ুতে দূষণ বিরুধী বিক্ষোভে গুলি, নিহত ৯   কথিত বন্দুকযুদ্ধ অব্যাহত, এবার নিহত ৭   চলে গেল মুক্তামনি   দ্বিতীয় বিয়ে বাধ্যতামূলক যেখানে   চীনে মসজিদে মসজিদে জাতীয় পতাকা ওড়ানোর নির্দেশ   করাচিতে দাবদাহে হিট-স্ট্রোকে ৬৫ জনের মৃত্যু   যুদ্ধক্ষেত্রে সর্বাধুনিক এফ-৩৫ উড়িয়েছে ইসরায়েল   মিলানে ছাত্রলীগের আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ক্যারোলাইনায় কারাগারে দাঙ্গা, ৭ জন নিহত

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৮-০৪-১৬ ১৩:১৯:৪৪

নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ক্যারোলাইনা রাজ্যের একটি কারাগারে দাঙ্গায় অন্তত সাতজন নিহত ও ১৭ জন আহত হয়েছে।

স্থানীয় সময় রোববার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে এ দাঙ্গার ঘটনা ঘটে বলে কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে সিএনএ ও নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে।

দক্ষিণ ক্যারোলাইনার সংশোধন বিভাগের মুখপাত্র জেফরি টেইলন জানান, বিশপভিলে লি কারেকশনাল ইনস্টিটিউশনের ওই দাঙ্গায় কোনো পুলিশ কর্মকর্তা কিংবা কারাগারের কোনো কর্মী আহত হননি।

তিনি জানান, সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় কারাবন্দীদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয় এবং তা প্রায় আট ঘণ্টা ধরে চলে। নিরাপত্তা কর্মকর্তারা সংঘর্ষ থামানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। অবশেষে রাত ৩টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

কি কারণে বন্দীরা সংঘর্ষে জড়িয়েছে সে সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। কর্মকর্তারা তাৎক্ষণিক হতাহতদের পরিচয় জানাতে পারেননি। সাংবাদিকদের তারা জানিয়েছেন, বেশিরভাগ বন্দী ছুরিকাঘাত কিংবা মারধরের ফলে নিহত হয়েছে।

লি সংশোধন কেন্দ্র স্থাপিত হয় ১৯৯৩ সালে। এর বন্দী ধারণ ক্ষমতা প্রায় ১ হাজার ৬৫০ জন। দক্ষিণ ক্যারোলাইনার সবচেয়ে বিপজ্জনক কারাগার হিসেবে চিহ্নিত এটি। সেখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা অত্যন্ত কঠোর। তা সত্ত্বেও মাঝেমধ্যে সেখানে সংঘর্ষ বা দাঙ্গার ঘটনা ঘটে। রাজ্যের কর্মকর্তারা কয়েক বছর ধরে এ কারাগারকে নিরাপদ করার চেষ্টা চালিয়ে আসছেন।

২০১৫ সালে সেখানে এক দাঙ্গায় দুই কর্মকর্তা ছুরিকাঘাতে নিহত হন। ২০১৭ সালের জুলাইয়ে সংঘর্ষে নিহত হয় এক বন্দী। একই বছরের নভেম্বরে এক জন এবং এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে অপর এক বন্দী ছুরিকাঘাতে নিহত হয়। এছাড়া গত মাসে কয়েকজন বন্দী ডরমেটরি ভবনে এক নিরাপত্তা রক্ষীকে জিম্মি করে এক ঘণ্টার বেশি সময় ভবনটি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রেখেছিল।


এলএবাংলাটাইমস/আই/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৮০৫ বার

আপনার মন্তব্য