যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ১০ Jul, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 09:18pm

|   লন্ডন - 04:18pm

|   নিউইয়র্ক - 11:18am

  সর্বশেষ :

  দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৭, শনাক্ত ২৯৪৯   লকডাউনে ভারতে তাবলীগে যোগ দেওয়া ৮২ বাংলাদেশি জামিন পেলেন   এবার নিজ জন্মভূমিতে পোড়ানো হলো মেলানিয়া ট্রাম্পের মূর্তি   করোনার মধ্যে স্কুল খোলার হুমকি দিল ট্রাম্প   এবার ভারমন্টে ‘খাদ্য বর্জ্য নিষিদ্ধ’ নামে নতুন আইন   এবার করবিবরণী নিয়ে ট্রাম্পের নতুন বিপত্তি   বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় প্রতারণা করেছিলেন ট্রাম্প   ৫ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশি ফ্লাইটে ইতালির নিষেধাজ্ঞা   জুতা সেন্ডেলের আঠার নেশায় বুঁদ কিশোররা   সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন আর নেই   ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট হলেন ড্রেইক   মার্কিন অভিবাসন ক্র্যাকডাউনে দায়ী করোনা মহামারি   হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যু নিয়ে উদ্বেগ হেলথ ডিরেক্টরের   ভাড়াটিয়াদের আর্থিক সহয়তা কার্যক্রম শুরু হচ্ছে সোমবার   বৃদ্ধি পেতে পারে ‘স্টে হোম’ অর্ডারের সময়

মূল পাতা   >>   লস এঞ্জেলেস

লস এঞ্জেলেস পুলিশ প্রধান মাইকেল মুরের পদত্যাগ দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

 প্রকাশিত: ২০২০-০৬-০৬ ১০:৩৪:৫১

 আপডেট: ২০২০-০৬-০৬ ২০:৫৩:৩৬

ছবিঃ এলএ বাংলা টাইমস

নিজস্ব প্রতিবেদক:
উসকানিমূলক কথা ও আন্দোলন দমনে লস এঞ্জেলেস পুলিশকে ব্যবহারের কৌশল নিয়ে সাধারণ মানুষের তোপের মুখে পড়েছেন এলএপিডি প্রধান মাইকেল মুর। অভিযোগ রয়েছে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে বিপুল-সংখ্যক পুলিশ ব্যবহার করেছেন মাইকেল। এছাড়া অনেক শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকারীকে গ্রেফতার ও বিতর্কিত ফোম বুলেট ব্যবহার করা হয়েছে।

সিটি হলে উসকানিমূলক কথা বলে নিন্দার মুখে পড়েছিলেন মাইকেল। তিনি ইঙ্গিত করে বলেন, ওসব লুণ্ঠনকারী ফ্লয়েডের মৃত্যুর জন্য দায়ী। যদিও পরবর্তীতে ক্ষমা চেয়ে বক্তব্য পরিবর্তন করেছিলেন তিনি। তবে যা ক্ষতি হবার তা হয়েই গেছে।

এরপর এলএপিডি প্রধানের পদ থেকে তার অব্যাহতির দাবি উঠতে থাকে। যদিও মেয়র গ্যারসেটি ও অন্যান্যরা মুরকে সমর্থন করে গেছেন। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত পিটিশনে ৪২ হাজারের বেশি  মানুষ সমর্থন জানিয়েছেন যাতে মুর পদত্যাগ করেন।

গত সপ্তাহে ফেয়ার‌ফ্যাক্স ডিস্ট্রিক্টে পরিস্থিতির অবনতি হলে মুর অফিসারদের নির্দেশ দেন যাতে ব্যাটন দিয়ে আঘাত করে আন্দোলন থামানো হয়। মেয়র গ্যারসেটি বলেন তিনি এলএপিডিকে নির্দেশনা দিয়েছেন যাতে ফোম বুলেট ও ব্যাটনের ব্যবহার একেবারেই কমিয়ে আনা হয়। সম্ভব হলে না ব্যবহার করার জন্য।

যদিও মুর ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর বলেছিলেন, আমরা বেদনা দেখতে পাই। কষ্ট ও যন্ত্রণাকে স্বীকার করে নিই। সেই অতীত থেকে কালোদের ওপর বৈষম্য বিরাজ করছে বলে জানান মুর। তবে সোমবার তিনি লুণ্ঠনকারীদের ওপর রাগ ঝেড়ে বলেন, গত রাতে আমরা আন্দোলন দেখিনি। দেখেছি অপরাধ। জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর জন্য ওই অফিসাররা যেমন দায়ী। তারাও তেমনই দায়ী। এরপরই তার ওপর মানুষের ক্ষোভ প্রকাশ পায়।


এলএ/বাংলা টাইমস/এনএইচ



এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৩৫২ বার

আপনার মন্তব্য