যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৮ ইং

|   ঢাকা - 04:03am

|   লন্ডন - 11:03pm

|   নিউইয়র্ক - 06:03pm

  সর্বশেষ :

  দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্যাপক বিক্ষোভ   প্রিয়তোষ সাহার অপসারণের দাবিতে লস এঞ্জেলেসে মানববন্ধন, প্রতিবাদ   টুইন টাওয়ার হামলার সন্দেহভাজন সিরিয়ায় গ্রেফতার   ঢাবির হল থেকে ছাত্রীদের বের করে দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ, ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম   খালেদা জিয়ার অবস্থা ‘প্রচণ্ড খারাপ’: ফখরুল   টাইম ম্যাগাজিনের প্রভাবশালী তালিকায় নেই পুতিন-এরদোয়ান-মোদি   ১৪০ দিনে হাতে লিখলেন পুরো কোরআন   কারাগার ছাড়তে চাচ্ছে না কয়েদিরা!   ত্রিভূবনে ফের ১৩৯ যাত্রী নিয়ে ছিটকে পড়ল বিমান   কুইন্স বাংলাদেশী সোসাইটির নতুন কার্যকরি কমিটি ঘোষণা   বড় পরিবর্তনে ইসলামী ব্যাংকে অস্থিরতা   কিশোরগঞ্জ ডিস্ট্রিক্ট এসোসিয়েশনের বর্ষবরণ   নিউইয়র্কে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের আলোচনা সভা   লন্ডনে বিক্ষোভের মুখে মোদি   কোটা সংস্কার আন্দোলন: ঢাবি ক্যাম্পাসজুড়ে ভীতি

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

স্বৈরাচার এরশাদও এত খারাপ ছিলেন না: ফখরুল

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৭-১২-০৬ ১৩:০৯:৩১

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ’৯০ সালে যে গণঅভ্যুত্থান হয়েছিল, সেই অভ্যুত্থানে ক্ষমতা হারানো স্বৈরাচার এরশাদও এত খারাপ ছিলেন না।

তিনি বলেন, অন্তত তার একটা নিয়ম, সৌজন্যবোধ ছিল। আপনি (বর্তমান প্রধানমন্ত্রী) এই কয়েক বছরের মধ্যে কত মানুষ মেরেছেন, কত মায়ের বুক খালি করেছেন, কতজন স্ত্রীকে বিধবা করেছেন তার হিসাব করুন। হিসেব করলে তলা খুঁজে পাবেন না। আজ কারাগারে কারাগারে রুদ্ধ আমাদের নেতাকর্মীরা।

বুধবার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ মন্তব্য করেন। ৬ ডিসেম্বর গণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে ’৯০র ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্র-ঐক্য আলোচনা সভার আয়োজন করে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই এখনো সময় আছে আসুন কথা বলুন, আলোচনা করুন। আলোচনা-সমঝোতা, কথা বলা ছাড়া গণতন্ত্রকে সফল করা যায় না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আওয়ামী লীগ ও এরশাদের জাতীয় পার্টির মধ্যে খুব একটা পার্থক্য নেই। স্বাধীনতার পরে যখনই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছে তখনই দেশের মানুষ এদেরকে একটি ফ্যাসিবাদী দল হিসেবে চিহ্নিত করেছে। জনগণের সাথে তাদের বিচ্ছিন্নতা এতই বেড়েছিল যে, তাদেরকে বাধ্য হয়ে প্রথমে বিশেষ ক্ষমতা আইন, পরবর্তীতে জরুরী অবস্থা এরপর একদলীয় শাসন কায়েম করতে হয়েছে।

’৯০ এর ছাত্র গণঅভ্যুত্থান আমাদের জন্য একটা দিক নির্দেশনা। আমাদের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের পথের দিশারী। আমরা যদি ৯০ এর গণ অভ্যুত্থানকে সঠিকভাবে বিশ্লেষণ করতে পারি তাহলে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ আন্দালনের পথ নির্ধারণ করা সহজ হবে বলেও মির্জা ফখরুল মন্তব্য করেন।

নেতাকর্মীদেরকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের নেত্রীর দিকে তাকিয়ে, তারেক রহমানের দিকে তাকিয়ে, দেশের সাধারণ মানুষের দিকে তাকিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে অধিকার আদায়ের জন্য কাজ করুন। সরকারকে নির্বাচন দিতে বাধ্য করুন। মানুষ নির্বাচন চায়। যে নির্বাচন হবে তা হতে হবে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে, নিরপেক্ষ কমিশনের অধীনে।

বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলমের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন প্রমুখ।


এলএবাংলাটাইমস/এন/এলআরটি

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৭৯ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত

সাম্প্রতিক খবর