যুক্তরাষ্ট্রে আজ শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

|   ঢাকা - 05:33am

|   লন্ডন - 12:33am

|   নিউইয়র্ক - 07:33pm

  সর্বশেষ :

  মিয়ানমার কারও কথা শোনে না : পররাষ্ট্রমন্ত্রী   পরীক্ষা ছাড়া ভর্তিকে কেন্দ্র করে ঢাবিতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের হাতাহাতি   ১৮টি অমুসলিম উপাসনালয়ের অনুমোদন দিচ্ছে আরব আমিরাত   দেশে দুর্নীতি মহামারী আকার ধারণ করেছে : মওদুদ   লাইবেরিয়ায় ধর্মীয় স্কুলে আগুন, নিহত ৩০   ১৮ দিনেও খালেদা জিয়ার সাক্ষাৎ পাননি স্বজনরা, উদ্বেগ   নিউইয়র্কে ইন্টারন্যাশনাল সীরাত কনভেনশন শনিবার   নিউইয়র্কে বিয়ানীবাজার এডুকেশন এন্ড ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্টের ক্রিকেট টুনার্মেন্ট সম্পন্ন   ওয়াশিংটন ডিসিতে শুদ্ধ উচ্চারণ ও আবৃত্তি সংগঠন ‘সমস্বর’-এর আত্মপ্রকাশ   বাফলা চ্যারিটির ফান্ড রাইজিং ডিনার রবিবার   দক্ষিণ কোরিয়ার রাজনীতিবিদরা মাথা ন্যাড়া করছেন   বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আরো ভাগাভাগি হচ্ছে, গণমাধ্যমে আসছে না: আরেফিন সিদ্দিক   ‘জাবির অর্থ কেলেঙ্কারি ফাঁসকারী ছাত্রলীগ নেতারা হুমকির সম্মুখীন’   খালেদা কিছুই দেননি, হাসিনা আমাদের সম্মানিত করেছেন: আল্লামা শফী   রাখাইনে আরও ৬ লাখ রোহিঙ্গা গণহত্যার চরম ঝুঁকিতে : জাতিসংঘ

মূল পাতা   >>   নিউইয়র্ক

প্রবাসে কমিউনিটির চিন্তায় ও মননে সকল বাংলাদেশিরা এক এবং অভিন্ন

রশীদ আহমদ, নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-২৩ ১৪:২৩:২৫

রশীদ আহমদ: বাংলাদেশী আমেরিকান কালচারাল এসোসিয়েশন গত ১৮ই আগষ্ট নিউইয়র্কের ব্রঙ্কসের বাংলাগার্ডেন রেষ্টুরেন্টে কানাডা থেকে প্রকাশিত প্রথম বাংলা সাপ্তাহিক  ও প্রথম বাংলা টিভি চ্যানেল দেশে বিদেশে এর সম্পাদক ও সিইও নজরুল ইসলাম মিন্টোকে সংবর্ধিত করেছে ।মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মিন্টো ফোবানা বাংলাদেশ সম্মেলন উপলক্ষে নিউইয়র্ক এলে তাঁকে এই সম্মান জানানো হয়।

   সংগঠনের সভাপতি আব্দুল হাসিম হাসনুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আহবাব চৌধুরী খোকনের সঞ্চালনায় আয়োজিত উক্ত অনুষ্টানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশী আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিলের সভাপতি মুলধারার রাজনীতিবিদ  মোহাম্মদ এন মজুমদার।বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা সম্পাদক ও টাইম টেলিভিশন এর সিইও আবু তাহের, আমেরিকান বাংলাদেশী ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুস শহিদ, পি পি এম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন সহকারী প্রধান শিক্ষক শামসুল ইসলাম, বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন কমিশনার কাওছারুজ্জামান কয়েছ, জালালাবাদ এসোসিয়েশন এর প্রাক্তন সহ সভাপতি আব্দুল বাসির খান, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ নুরে আলম জিকু, নুরুল ইসলাম খোকন, বাংলাদেশী আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক নজরুল হক, হুদয়ে বাংলাদেশের সহ সভাপতি মোহতাসিন বিল্লাহ তোষার, নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক এ বি এম সালাউদ্দিন,সাপ্তাহিক জনতার কন্ঠের সম্পাদক শাখওয়াত হোসেন সেলিম, ব্রঙ্কস বাংলাদেশী এসোসিয়েশন সভাপতি এ ইসলাম মামুন, বিশিষ্ট বাউল শিল্পি কালা মিয়া, প্রাক্তন নন্দিন ফুটবলার কবির আহমদ খান,ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল হাকিম, বিশিষ্ট সমাজসেবী সালেহ আহমদ চৌধুরী ও আব্দুল কালাম মনু।স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক সারওয়ার চৌধুরী।অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের আইন ও আন্তর্জাতিক সম্পাদক এম ডি আলাউদ্দীন , প্রচার ও গণ সংযোগ সম্পাদক সোহেল আহমদ, কোষাধ্যক্ষ কবি শাহ বদরুজ্জামান রুহেল ও কার্যকরী কমিটির সিনিয়ার সদস্য আহমদ ফয়ছল ও হেলাল আহমদ, সাবেক ছাত্রনেতা আবুল কালাম, শাহ মামুন আহমদ ও আব্দুল কাইয়ুম  ।

সভায় সংবর্ধিত অতিথি নজরুল ইসলাম মিন্টো বলেন, প্রবাসে কমিউনিটির উন্নয়নে ও মননে সকল বাংলাদেশীরা এক এবং অভিন্ন। তাকে নিউইয়র্কে সম্মান জানানোর জন্য বাংলাদেশী আমেরিকান কালচারাল  এসোসিয়েশনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, তিনি অতি সাধারণ মানুষ ।নিজে এভাবে লোকিকতায় বিশ্বাস করেন না । প্রবাসে এসে বাংলাদেশকে ভুলে যাননি বরং নিজের মাটি ও দেশের গর্বিত  ইতিহাসকে সব সময় সবার উর্ধে তোলে ধরার চেষ্টা করেছেন ।তিনি বলেন আশির দশকের প্রারম্ভে এমন এক সময় কানাড়ায় এসেছিলেন যখন সেখানে বাংলাদেশী কমিউনিটি বলতে কিছুই ছিলো না তবে লোকজন এতোটা খারাপ অবস্থায় ছিলো কখন শবে বরাত পালন করবে কখন রোজা রাখা শুরু করবে এই নিযে মানুষের মধ্যে বেশ বিভ্রান্তি ছিলো ।এই জন্যই তিনি দেশে বিদেশে শুরু করেছিলেন ।তিনি বলেন আমি কানাডায় এসে প্রথমে ঠাকার পেছনে না দৌড়ে নিজেকে গড়ার পেছনে মনোনিবেশ করেছিলাম।তিনি দেশে বিদেশে বের করার শুরুর কথা বর্ণনা দিতে গি যে বলেন তিনি এই পত্রিকা বের করার আগে এই পত্রিকা বের করার সকল কৌশল আগে আয়ত্ব করেছিলেন ।
সভায় প্রধান অতিথি মোহাম্মদ এন মজুমদার নজরুল ইসলাম মিন্টোকে বাংলাদেশের গর্ব আখ্যায়িত করে উনার প্রবাস জীবনের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে টাইম টিভির সিইও  আবু তাহের বলেন, নজরুল ইসলাম মিন্টোর কৈশোর থেকেই তাঁর ঝোঁক ছিল সাহিত্য ও সাংবাদিকতার প্রতি।বর্ণমালা নামের সংঙ্কলন প্রকাশ থেকে সাহিত্য ও দেশ বার্তা পত্রিকার মাধ্যমে যার সাংবাদিকতা শুরু হয়েছিল।আশির দশকে আরব আমিরাতে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে যার ছিল বলিষ্ঠ ভূমিকা।সাহিত্য ও সাংবাদিকতার পাশাপাশি তিনি একজন সফল প্রযোজকও।ইন্টারেক্টিভ ডিজিটাল মিডিয়ায় যার উচ্চতর ডিগ্রি রয়েছে।কানাডায় এসে যিনি দেশের সাথে টরন্টোর বাঙালি কমিউনিটির গভীর সেতু বন্ধন নির্মাণ করতে সক্ষম হয়েছেন। প্রবাসী বাংলাদেশীদের আইকন আখ্যায়িত করে বলেন, তিনি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। নজরুল ইসলাম এবং দেশে বিদেশে প্রবাসী বাংলাদেশীর গৌরবের ইতিহাসের অংশ। তাদের বাদ দিয়ে বর্হিবিশ্বে  প্রবাসীদের গর্বের ইতিহাস লেখা সম্ভব নয় ।
সভায় অন্যান্য বক্তাগণ সংবর্ধিত অতিথি মিন্টোর ভূঁয়সী প্রশংসা করে বলেন, তাঁর মতো কিছু গুনীজন ও ক্ষনজন্মা মানুষের জন্যই বর্হিবিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান আজ উজ্বল থেকে উজ্বলতর হচ্ছে ।অনুষ্টানে নজরুল ইসলাম মিন্টোকে সংগঠনের মনোগ্রাম সম্বলিত একটি প্লেক উপহার প্রদান করা হয়।সভায় দলমত নির্বিশেষে বিপুল মানুষের উপস্থিতি ছিলো লক্ষনীয় ।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১৫৪ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত

সাম্প্রতিক খবর