যুক্তরাষ্ট্রে আজ মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 11:32am

|   লন্ডন - 06:32am

|   নিউইয়র্ক - 01:32am

ব্রেকিং নিউজ >>   ঢাকায় ভিপি নুর আটক

  সর্বশেষ :

  ডেঙ্গু আক্রান্তরা হতে পারেন করোনা প্রতিরোধে সক্ষম: গবেষণা   আসছে শীতে যুক্তরাষ্ট্রে 'টুইনডেমিক' আতঙ্ক   টেক্সাসে বিমান বিধ্বস্ত হয়ে চারজনের মৃত্যু   করোনা মোকাবেলায় নিজেকে 'এ প্লাস' দিলেন ট্রাম্প!   ওহাইও থেকে নিখোঁজ ৩৫ কিশোরী উদ্ধার   যুক্তরাষ্ট্রে টিকটকের চুক্তি নিয়ে পরিস্থিতি ধোঁয়াশা   নতুন বিচারপতি হতে পারেন এমি কোনি ব্যারেট   বেকার ভাতার আবেদন বেড়েছে ক্যালিফোর্নিয়ায়   ট্রাম্পকে বিষ মাখানো চিঠি, সন্দেহভাজন নারী গ্রেফতার   স্বাস্থ্যে অধিদপ্তরের সেই গাড়িচালক ১৪ দিনের রিমান্ডে   ঢাকায় ভিপি নুর আটক   মহামারী হেলাফেলা আত্মঘাতী   আহমদ শফী (রহ:) ছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধয় বুজর্গ ও উলামায়ে কেরামের সিপাহসালার: নিউইয়র্কে দুআ মাহফিলে বক্তারা   জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভের ৪৬ বছর পূর্তি: যুক্তরাষ্ট্র আ. লীগের আনন্দ সমাবেশ   কবিতা

মূল পাতা   >>   করোনা কর্ণার

এ বছরেই যুক্তরাষ্ট্রে চলে আসবে ফাইজারের ভ্যাকসিন

এলএ বাংলা ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০২০-০৯-১৫ ০০:৪০:১৩

 আপডেট: ২০২০-০৯-১৫ ০২:৩৭:০০

তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্বে ৩০ হাজার জনকে টিকা দেওয়া শুরু করেছিল ফাইজার

এলএ বাংলা ডেস্ক: এ বছরের মধ্যেই করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে পারবে বলে জানিয়েছে আমেরিকান ওষুধ প্রস্ততকারী কোম্পানি ফাইজার। তাদের ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত পর্বের ট্রায়ালে আশা জাগাচ্ছে। ভ্যাকসিনের ডোজের মাত্রা নির্ধারণ হয়ে গেছে এবং অনুমোদন পেলে শীঘ্রই উৎপাদন শুরু হবে বলে জানান কোম্পানিটির সিইও অ্যালবার্ট বৌরলা।  


সিবিএস নিউজ-এর ফেস দ্য নেশন নামে একটি অনুষ্ঠানে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বৌরলা বলেন, জার্মান সংস্থা বায়োএনটেকের সহযোগিতায় ভ্যাকসিনের সুরক্ষা ও কার্যকারিতা নিশ্চিত হওয়া গেছে। প্রায় ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবককে ভ্যাকসিনের ইঞ্জেকশন দিয়ে কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। আরও বেশি মানুষের ওপরে এখন ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু হয়েছে। অক্টোবরের মধ্যেই সেফটি ট্রায়ালের রিপোর্ট জমা দেওয়া হবে মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন রেগুলেটরি কমিটির কাছে। এরপর এফডিএ সায় দিলেই ভ্যাকসিন চলে আসবে দ্রুত।

জার্মান বায়োটেকনোলজি ফার্ম বায়োএনটেক এসই-র সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে কোভিড ভ্যাকসিন বানিয়েছে ফাইজার। সংস্থার ভ্যাকসিন রিসার্চ বিভাগের প্রধান ক্যাথরিন জ্যানসেন বলেছেন, আরএনএ টেকনোলজিতে এই ভ্যাকসিন ক্যানডিডেট ডিজাইন করা হয়েছে। এই আরএনএ ভ্যাকসিন দেহকোষকে ভাইরাল প্রোটিন তৈরিতে বাধ্য করে, যাতে তার প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি শরীরেই তৈরি হয়ে যায়। 

তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্বে ৩০ হাজার জনকে টিকা দেওয়া শুরু করেছিল ফাইজার। সিইও বোরলা জানিয়েছেন, টিকার সুরক্ষা সার্বিক পর্যায়ে নিশ্চিত করার জন্য এখন ৪৪ হাজার জনকে ইঞ্জেকশন দিয়ে তার প্রভাব লক্ষ করা হবে। এই পর্বে ১৬ বছরের কম বয়সীদেরও টিকা দেওয়া হবে। পাশাপাশি, এইডস রোগী, হেপাটাইটিস বি ও হেপাটাইটিস সি রোগীদেরও টিকার ডোজ দিয়ে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

এই গবেষণার নেতৃত্বে রয়েছেন জার্মানির বায়োএনটেকের অধ্যাপক উগার সাহিন। তিনি জানিয়েছেন, এই আরএনএ ভ্যাকসিন মানুষের শরীরে ‘মেমরি বি সেল’ তৈরি করবে, যা থেকে দেহকোষে ভাইরাস প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি তৈরি হবে। অ্যান্টিবডি বেসড ইমিউন রেসপন্স বা অ্যাডাপটিভ ইমিউন রেসপন্স তৈরি করবে এই ভ্যাকসিন। ফলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।







এলএ বাংলা টাইমস/এমকে

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ১৭৬ বার

আপনার মন্তব্য