যুক্তরাষ্ট্রে আজ বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 05:45am

|   লন্ডন - 12:45am

|   নিউইয়র্ক - 07:45pm

  সর্বশেষ :

  স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতির ভাইয়ের গোডাউনে ৬৩০ বস্তা চাল   করোনার মধ্যে বিয়ে করায় সরকারি কর্মকর্তা বরখাস্ত   আইসিইউ থেকে ওয়ার্ডে নেওয়া হয়েছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে   ঢাকায় বাড়ি থেকে করোনা রোগীর ভাইয়ের পলায়ন, সন্ধানে পুলিশের মাইকিং   করোনা: স্পেনে কমছে মৃতের সংখ্যা   করোনায় মারা গেলেন গার্মেন্টস মালিক   যুক্তরাজ্যে ভয়াবহ আকারে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা   নারায়ণগঞ্জ থেকে নীলফামারী যাওয়া পোশাক শ্রমিক করোনা আক্রান্ত   লস এঞ্জেলেসের করোনা সংক্রমণ যে কারণে চীন থেকে ভিন্ন   করোনায় মানসিক দুশ্চিন্তা কাটাতে ‘হেলথ ডেস্ক’ খুলেছে গভর্নর নিউসোম   করোনায় বেকার ভাতার আবেদন করল ১ কোটি লোক   ট্রাম্পের ধন্যবাদের জবাবে যা বললেন মোদি   সব ধরনের চিকিৎসা সেবায় ৬৯ বেসরকারি হাসপাতাল প্রস্তুত   জার্মান নাগরিকরাও ঢাকা ছাড়ছেন   যেভাবে জীবাণুমুক্ত করবেন প্রতিদিনের বাজার

মূল পাতা   >>   স্বদেশ

আমেরিকার পর আরও কয়েকটি দেশ আমাদের কাছে সুরক্ষা সামগ্রী চাচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০২০-০৩-২৫ ১১:৫৬:৫১

নিউজ ডেস্ক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের পর আরও কয়েকটি দেশ আমাদের কাছে সুরক্ষা সামগ্রী চাচ্ছে। বুধবার (২৫ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদফতরে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিএমসিএ) কাছ থেকে পার্সোনাল প্রটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) সামগ্রী গ্রহণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আগামীকাল বৃহস্পতিবার চীন থেকে ১০ হাজার পার্সোনাল প্রোটেকশন ইকুইপমেন্ট (পিপিই), ১০ হাজার টেস্টিং কিট, এক হাজার ইনফ্রারেড থার্মোমিটার আসবে। আরও দুদিন পর ২৯ মার্চ সে দেশ থেকে ৩০ হাজার এন-৯৫ মাস্ক আসবে। বুধবার (২৫ মার্চ) সকালে ভারত সরকার আমাদের এন-৯৫ মাস্ক দিয়েছে। এছাড়া আরও অনেক দেশ আমাদের জন্য এ বিষয়ে উৎসাহ দেখিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে বেসরকারি খাত যেভাবে এগিয়ে এসেছে, সেটা আমাদের বড় সক্ষমতা বলা যায়। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ, যেমন- শ্রীলঙ্কা, ইরান, যুক্তরাষ্ট্র, ভুটান, নেপাল, সবাই আমাদের কাছে রিকোয়েস্ট করেছে ইকুইপমেন্টের জন্য। কারণ, তাদের দেশে এসব জিনিসের অভাব আছে। এই ক্রাইসিসের সময় আমরা সাপ্লাই করতে পারবো কিনা সেটা তারা জানতে চেয়েছে। আমাদের এখানে বিভিন্ন ব্যবসায়ী বলেছেন আমরা এগুলো সাপ্লাই করতে পারবো। ইতোমধ্যে প্রতিদিন প্রায় ৬ লাখের মতো মাস্ক তৈরি হচ্ছে। আগে ১২ হাজার পিপিই তৈরি হতো, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে প্রতিদিন ৫ লাখ পিপিই তৈরি হবে। এই যে সক্ষমতা বাড়ানো, আর স্বতঃস্ফূর্তভাবে এগিয়ে আসার মনোভাব— এটি একটি নতুনত্ব। এ জন্যই যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশ আমাদের কাছে সুরক্ষা সামগ্রী চাচ্ছে এবং আমরা তাদের দেবো।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘আমি খুব আনন্দিত। কারণ, আমরা বিজয়ের জাতি। আমরা ঝড়ঝাপ্টা, সাইক্লোন অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে ম্যানেজ করেছি।’

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ২০০ বার

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত