যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 12:16pm

|   লন্ডন - 07:16am

|   নিউইয়র্ক - 02:16am

  সর্বশেষ :

  করোনায় ভেষজ চিকিৎসার প্রটোকল অনুমোদন দিল ডব্লিউএইচও   গিন্সবার্গের পদে কোনো নারীকে নিয়োগ দিতে চান ট্রাম্প   আমেরিকায় করোনায় প্রত্যেকটি মৃত্যুর জন্য ট্রাম্প দায়ী: বাইডেন   টিকটক নিষিদ্ধের ঘোষণা স্থগিত করলো যুক্তরাষ্ট্র   ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ১৫ হাজার ছাড়ালো   লস এঞ্জেলেসে আবার বেড়েছে করোনা সংক্রমণ   যুক্তরাষ্ট্রে টিকটকের বাজারমূল্য ৬০ বিলিয়ন!   আগামী সপ্তাহেই নতুন বিচারপতি নিয়োগ দেবেন ট্রাম্প!   উদ্বেগ ও বিষন্নতা বেড়েছে যুক্তরাষ্ট্রে, নেপথ্যে করোনা   ইতালিতে আবারো করোনার হানা, বাড়তে পারে জরুরী অবস্থার মেয়াদ   মিয়ানমারে সেনা ‘অভিযান’, আবারো বাংলাদেশে রোহিঙ্গা ঢলের আশঙ্কা   দেশে নতুন করে করোনায় মারা গেলেন ২৬ জন, আক্রান্ত ১৫৪৪   খালেদা জিয়ার ৪ মামলার স্থগিতাদেশ আপিলেও বহাল   ভিসা পাননি ড. বিজন কুমার, ফিরে গেলেন সিঙ্গাপুরে   বর্ণাঢ্য আয়োজনে নিউজার্সি স্টেট আ.লীগের বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন

মূল পাতা   >>   টুকিটাকি

রয়া চৌধুরী’র ৩টি কবিতা

রয়া চৌধুরী

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-১২ ১৬:৩৬:৩৪

 আপডেট: ২০২০-০৫-১২ ১৬:৪৯:৪৯

রয়া চৌধুরী: ছায়া এবং ফাঁসি
ছায়া এবং বিশ্বাস,
বুকে আগলে ধরে রাখা মায়াবী
অন্ধকার !
ভুলে গিয়েছিলাম
নির্মম এক চিরন্তন সত্য।
ছায়া সবসময় শ্যামই হয়।
আমার ঠোঁটে দেখো,
অট্টহাসির বিদগ্ধ নগরী!
কিন্ত একটু ভালো করে
চেয়ে দেখো আমার পানে,
দেখবে আমার তপনেও আছে
হারিয়ে ফেলার অম্বু।
আজও সেই নিহত ছায়া,
আমার পাশেই শৃঙ্খলাবদ্ধ,
আমি তাকে দেখতে পাই,
অনুভব করতে পারি,
আমি আজও তাকে ভালোবাসি।
তাহলে কেন তোমরা আমায়
নিয়ে যেতে চাচ্ছো ফাঁসিকাষ্ঠে?
কেন আমার ফাঁসি হবে?
সেই মিথ্যে,প্রতারক, অবিশ্বাসী
ছায়াকে আজও ভালোবাসি,তাই?
চুপ করে আছো কেন?
ভালোবাসি বলেই তো আঁকড়ে
ধরে রাখতে চেয়েছিলাম-
আঁধারের রুপ।
আমি না হয় নক্ষত্রের চোখে  তাকিয়ে থাকবো
সেই অমানিশা, বিভৎস, আর
অবিশ্বাসী ঐ ছায়ার অভিমুখে।

-----
আত্মবিলাপ
আমি আজ ক্লান্ত, পরিশ্রান্ত
বিবেকের কারাগারে বন্দী।
কাঁটাতারের বেড়ায় ঝুলে থাকা,
ফেলানী আমাকে প্রশ্ন করে।
সমুদ্র সৈকতে ঘুমিয়ে থাকা ,
আলিয়ান কুর্দি আমায় প্রশ্ন করে,
কি ছিল তাদের অপরাধ?
আমি কিছুই বলতে পারি না
উত্তর দিতে পারি না।
নুসরাত, নাদিয়া,তনু,খাদিজারা
আর্তনাদ করে জানতে চায়,
কি ছিল তাদের অপরাধ?
আমার চোখ জলে সিক্ত হয়,
আমি বিবেকের দংশনে বারবার
দগ্ধ হতে থাকি,সন্তপ্ত হতে থাকি।
কিছুই করতে পারি না,পারি না।
বাসে ধর্ষিতা মাজেদা ,
ফুপাতো ভাইয়ের হাতে
কেরোসিনে মৃত ফুলন,
ভাইয়ের সামনে ধর্ষিতা বোন ,
ছেলের সামনে বলাৎকৃতা মা,
পাঁচ মাসের ধর্ষিতা শিশু,
জন্মের আগেই সন্ত্রাসীদের হাতে
যে শিশু মৃত্যুকে করে আলিঙ্গন ,
সবাই ,সবাই আমাকে প্রশ্ন করে।
আমি উদ্বিগ্ন হই,অবসাদগ্রস্ত হই।
সায়মার বুক ফাটা আর্তনাদ ,
আমাকে সর্বক্ষণ প্রশ্ন করে,
প্রশ্ন করে আর কত সায়মাকে
বাংলার সোনার ছেলেদের
হিংস্রতার আর বর্বরতার
শিকার হতে  হবে?
আর কত সায়মা আত্মাহুতি দিলে
এসব সোনার ছেলেরা,
তাদের অসুস্থ মানসিকতা থেকে
বের হয়ে আসবে?
পতিতালয় কাদের জন্য
কারো কি জানা আছে?
না ,তারা পতিতালয়ে কেন যাবে?
একজন অসহায় শিশু, বালিকা
আর বৃদ্ধার উপর জোর খাটিয়ে ,
যে অসুস্থ তৃপ্তির ঢেকুর তোলে তারা
যে  অসভ্য পুরুষত্বের শক্তিকে
জাহির করতে পারে,
তাতে করে তারা যে, অসুস্থ আনন্দের
আস্বাদ গ্রহণ করে,
তা কি পতিতালয়ে পাওয়া যাবে?
আমি কি জবাব দিব?
আমি যেন আজ বিবেকের
কারাগারে বন্দী এক পাখি।
শুধু ছটফট করি,ছটফট করি।
আমি তমসার শ্রীঘরে
নিমজ্জিত অসহায় এক মানবী।

-----
ভালোবাসা এবং একটি খুন
একটি আপেল মহীরূহ,
তাতে ছিল বিস্তর আপেল।
হাতে ফলাযুক্ত চকচকে ছুরি,
বৃক্ষটির নীচে দাঁড়িয়ে ছিলাম বেশ কিছুক্ষণ,
ঝরে পড়লো একটি লাল আপেল,
হাতে তুলে নিলাম আপেলটি;
ভাবছি কি করবো?
হাতে আমার চকচকে ছুরি,
বাড়ি আসলাম ,দেখছি আর ভাবছি;
আপেলটি যেন আমার দিকে তাকিয়ে আছে,
আমিও অপলক দৃষ্টিতে দেখছি;
আমি কি কাটবো আপেলটি?
তাকিয়ে আছি আর ভাবছি।
কেটে ফেললাম, রক্তাক্ত করলাম আমার হাত !
রক্ত ঝড়ছে আমার অন্তঃকরণ থেকে।
একি করলাম আমি?
ঘোরের মধ্যে ডুবে আছি যেন!
এক টুকরো,দুই টুকরো
এভাবে টুকরোর পর টুকরো।
আমার হাত কাঁপছে,
আমার সমস্ত শরীর কাঁপছে।
আমি খুন করে ফেললাম?
আমি খুনী,আমি খুনী!
এ কি করলাম আমি?

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৯১১ বার

আপনার মন্তব্য