যুক্তরাষ্ট্রে আজ শনিবার, ০৬ Jun, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 06:02am

|   লন্ডন - 01:02am

|   নিউইয়র্ক - 08:02pm

  সর্বশেষ :

  ঢাকায় করোনা আক্রান্ত সাড়ে ৭ লাখের বেশি: ইকোনমিস্ট   নাসিমের অবস্থা সংকটাপন্ন, ৫ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন   সিলেট সিটির সাবেক মেয়র কামরান করোনায় আক্রান্ত   দেশে প্রতি পাঁচজনের নমুনা পরীক্ষায় একজনের করোনা   ত্বক ফর্সা ক্রিমের বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি বর্ণবাদ বিরোধী পোস্ট, সমালোচনায় প্রিয়াঙ্কা   চট্টগ্রামে বিএসআরএম কারখানায় বিস্ফোরণে নিহত ১, দগ্ধ ৪   বাংলাদেশের করোনা শনাক্ত নিয়ে সন্দেহ বিশেষজ্ঞদের   তাহলে কি ট্রাম্পকে ডুবাচ্ছে করোনা আর বর্ণবাদ   বিক্ষোভের মুখেই জার্মানি থেকে সেনা প্রত্যাহার করল ট্রাম্প   এবার বন্ধ হল পুলিশের হাঁটু দিয়ে গলা চেপে ধরা   ট্রাম্পের পেশীশক্তির জবাব দিলেন ওয়াশিংটন মেয়র   এলএপিডি প্রধান মিশেল মুরের পদত্যাগ দাবি   অনলাইন ক্লাশ করতে পারেন যেভাবে   যুক্তরাষ্ট্রে ১৫৪টিসহ মোট ২৬৯টি দোকান বন্ধ করবে ওয়ালমার্ট   করোনায় একদিনে গেল আরও ৩৬ প্রাণ, আক্রান্ত ৬১ হাজার ৪৫

>>  করোনা কর্ণার এর সকল সংবাদ

হোমিও ওষুধে সুফল মিলছে করোনার চিকিৎসায়!


বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের স্বীকৃত কোনো ওষুধের সন্ধান এখনও মিলেনি। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি থেকে রক্ষা পেতে টিকা ও কার্যকরী ওষুধ আবিষ্কারের চেষ্টা চলছে বিশ্বজুড়ে। এর মধ্যে প্রাচীন হোমিও পদ্ধতি করোনার চিকিৎসায় কার্যকরী ভূমিকা রাখছে বলে আলোচিত হচ্ছে।

করোনা পরিস্থিতিতে সম্মুখ সমরে থাকা পুলিশ বাহিনীর পাঁচ হাজারের বেশি সদস্য ইতিমধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মূল চিকিৎসা চলছে এলোপ্যাথিক পদ্ধতিতে। তবে এর বাইরে পুলিশের অনেক সদস্য আগ্রহী হয়ে উঠেছেন হোমিও চিকিৎসায়। ইতিমধ্যে একজন হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক অনানুষ্ঠানিকভাবে জড়িত হয়েছেন

বিস্তারিত খবর

বাংলাদেশে ৪ কোটি তামাক ব্যবহারকারী করোনার ঝুঁকিতে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৬-০২ ১৩:৪৩:৩৫

বাংলাদেশে প্রায় ৪ কোটি তামাক ব্যবহারকারী মারাত্মকভাবে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকিতে আছেন। আসন্ন বাজেটে তামাকপণ্যের দাম বাড়ানো হলে এর ব্যবহার কমবে এবং রাজস্ব আয় বাড়বে।

মঙ্গলবার (২ জুন) তামাকবিরোধী সংগঠন প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান) এবং অ্যান্টি টোব্যাকো মিডিয়া এলায়েন্সের (আত্মা) যৌথ উদ্যোগে ‘কেমন তামাক কর চাই: বাজেট ২০২০-২১’ শীর্ষক ওয়েবিনারে উল্লিখিত কথাগুলো বলেন অর্থনীতিবিদরা।

অর্থনীতিবিদ এবং জাতীয় তামাকবিরোধী মঞ্চের আহ্বায়ক ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, ‘করোনা আমাদের জন্য একটি সুযোগ তৈরি করেছে। আমরা এ সুযোগে কল্যাণের পথ বেছে নেব। এক্ষেত্রে আমাদের তামাক ব্যবহার বন্ধ করতে হবে এবং সার্বজনীন স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে গুরুত্ব দিতে হবে।’

সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘যদি এবারের বাজেটে তামাকপণ্যে করারোপের ক্ষেত্রে কোনো মৌলিক পরিবর্তন না আসে, এই বাড়তি ১১ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আয়ের সুযোগ আমরা হারাই, এত মৃত্যু, অসুস্থতা অব্যাহতই থেকে যায়, তাহলে আমি নৈতিকভাবে এই বাজেটকে সমর্থন করতে পারি না।’

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের (বিআইডিএস) সিনিয়র রিসার্চ ফেলো অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ বলেন, ‘ধূমপান কমাতে সিগারেটের স্তর সংখ্যা কমানোর বিকল্প নেই। আসন্ন বাজেটে সিগারেটের বিদ্যমান চারটি মূল্যস্তর বিলুপ্ত করে দুটি নির্ধারণ করা দরকার। কারণ, একাধিক মূল্যস্তর এবং বিভিন্ন দামে সিগারেট ক্রয়ের সুযোগ থাকায় ভোক্তা স্তর পরিবর্তন করার সুযোগ পায়। ফলে তামাকের ব্যবহার হ্রাসে কর ও মূল্য পদক্ষেপ সঠিকভাবে কাজ করে না।’

বিড়ির ওপর কর না বাড়ানোর পক্ষে সংসদ সদস্যদের চিঠি দেওয়া দুঃখজনক বলে উল্লেখ করেন অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত।

সভায় ২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য তামাক কর বিষয়ে বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়। প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে-

সিগারেটের মূল্যস্তর সংখ্যা চারটি থেকে দুটিতে (নিম্ন এবং প্রিমিয়াম) নামিয়ে আনা, বিড়ির ফিল্টার ও নন-ফিল্টার মূল্য বিভাজন তুলে দেওয়া, ধোঁয়াবিহীন তামাকপণ্যের (জর্দা ও গুল) দাম বাড়ানো এবং সব তামাকপণ্যের খুচরা মূল্যের ওপর ৩ শতাংশ হারে সারচার্জ আরোপ করা।

আলোচকদের দাবি, তামাক-কর ও মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব বাস্তবায়ন করা হলে সম্পূরক শুল্ক এবং ভ্যাট বাবদ প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা পর্যন্ত অতিরিক্ত রাজস্ব আয় হবে। এছাড়া, ৩ শতাংশ সারচার্জ থেকে প্রায় ১ হাজার কোটি টাকা বাড়তি রাজস্ব আয় সম্ভব হবে।

তামাকপণ‌্যের দাম বাড়ালে দীর্ঘমেয়াদে ৬ লাখ ধূমপায়ীর অকাল মৃত্যু রোধ করা সম্ভব হবে এবং প্রায় ২০ লাখ প্রাপ্তবয়স্ক ধূমপায়ী ধূমপান ছেড়ে দিতে উৎসাহিত হবে। একইসাথে করোনার মতো যেকোনো ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমবে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

দেশে করোনায় মারা গেলেন আরও ৩৭ জন, নতুন আক্রান্ত ২৯১১

 প্রকাশিত: ২০২০-০৬-০২ ১৩:৩৬:৪৭

দেশে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৭০৯ জনে।

এ সময়ে নতুন করে আরও ২৯১১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৫২ হাজার ৪৪৫ জনে।

মঙ্গলবার (২ জুন) মহাখালী থেকে নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

ডা. নাসিমা সুলতানা বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪ হাজার ৯৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ৫২টি ল‌্যাবে এ সময়ে ১২ হাজার ৭০৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ৩ লাখ ৩৩ হাজার ৭৩ জনের। শনাক্তের হার ২২ দশমিক ৯১ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫২৩ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ১২০ জন।’

তিনি জানান, নিহতদের মধ্যে ৩৩ জন পুরুষ, নারী ৪ জন। ১০ জন ঢাকা বিভাগের, চট্টগ্রাম বিভাগের ১৫ জন, সিলেট বিভাগের চারজন, বরিশাল বিভাগের তিনজন, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে দুইজন করে এবং ময়মনসিংহ বিভাগের একজন গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন।

বয়সের তথ্য বিশ্লেষণ তুলে ধরে নাসিমা সুলতানা বলেন, ‘নিহতদের মধ‌্যে ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে চারজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে একজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১০ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে নয়জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ১০ জন এবং ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে দুইজন রয়েছেন।  শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ২১ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩৫ শতাংশ। হাসপাতালে মারা গেছেন ২৮ জন এবং বাসায় মারা গেছেন নয়জন।’

নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন নেওয়া হয়েছে ৩৮৮ জনকে। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ৬ হাজার ২৪০ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

চলতি বছরেই ভ্যাকসিনের সুসংবাদ দিলেন জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-১৮ ১১:২১:৪৯

চলতি বছরে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আসার তথ্য দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ড. টম ইঙ্গলসবি।

রোববার জনস হপকিনস ব্লুমবার্গ স্কুল অব পাবলিক হেলথের স্বাস্থ্য সুরক্ষা কেন্দ্রের পরিচালক এনবিসি নিউজের 'মিট দ্য প্রেস' অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান। পাশাপাশি সতর্ক করে তিনি বলেছেন, তাই বলে এ নিয়ে নির্ভাবনায় হাত–পা গুটিয়ে বসে থাকা যাবে না। এতে বিপদ হতে পারে।

ইঙ্গলসবি অনুষ্ঠানের উপস্থাপক চাক টডকে বলেন, মহামারীকে ঘিরে অসাধারণ পরিস্থিতি এমন সম্ভাবনা তৈরি করেছে। সব কিছু ঠিকমতো এগোলে আমাদের কিছুটা আশা করা উচিত যে, আমরা সম্ভবত বছরের শেষের দিকে একটি ভ্যাকসিন দেখতে পাব।

ইঙ্গলসবি বলেন, বিশ্বজুড়ে ১১০টি ভ্যাকসিন প্রকল্প নিয়ে বিশ্বের প্রধান প্রধান ভ্যাকসিন কোম্পানিগুলো কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

ফসি হোয়াইট হাউস করোনভাইরাস টাস্ক ফোর্সের সদস্য। সাউয়ি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মনোনীত টিকা তৈরির প্রয়োজনীয় সময় কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

এদিকে শুক্রবার হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে এক সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, করোনার ভ্যাকসিন আসুক বা না আসুক, যুক্তরাষ্ট্রে সব কিছু ফের চালু হবে।

ট্রাম্প ঘোষণা দিয়েছেন, চলতি বছরের শেষ নাগাদ যুক্তরাষ্ট্র করোনার ভ্যাকসিন পেতে যাচ্ছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রে সব কিছু চালু হওয়ার জন্য ভ্যাকসিনের অপেক্ষায় থাকবেন না তিনি। লকডাউন উঠে যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) জানিয়েছে, শুধু রোববারই দেশটিতে নতুন করে আরও ৩১ হাজার ৯৬৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এদিন করোনা কেড়ে নিয়েছে ১ হাজার ৩৯৪ জনের প্রাণ। এ নিয়ে দেশটিতে করোনায় ৯০ হাজার ৯৭৮ জন প্রাণ হারাল।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

ভ্যাকসিনের আগেই প্রাকৃতিকভাবে পুড়ে যাবে করোনা ভাইরাস: বিশেষজ্ঞ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-১৮ ১১:০৭:৪৩

করোনা ভাইরাসে এখন পুরো বিশ্ব বিপর্যস্ত। ভ্যাকসিনের জন্য জোড় চেষ্টা চলছে বিশ্বজুড়ে। এই যখন অবস্থা তখন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রাক্তন বিশেষজ্ঞ বলেছেন, ভ্যাকসিন তৈরির আগেই ভাইরাসটি প্রাকৃতিকভাবে ধ্বংস হয়ে যাবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ক্যান্সার প্রোগ্রামের প্রাক্তন পরিচালক প্রফেসর কারল সিকোরা টুইটারে লিখেন, ‘এখানে সত্যিকারের একটি সম্ভাবনা রয়েছে। ভ্যাকসিন তৈরির আগে ভাইরাসটি প্রাকৃতিকভাবে পুড়ে ধ্বংস হয়ে যাবে।’

‘আমরা সর্বত্র প্রায় একই ধরণের প্যাটার্ন দেখছি। আমার মনে হয়, আমাদের অনুমানের চেয়ে বেশি রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে।’

তিনি আরো লিখেন, ‘ভাইরাসটি ছড়ানো যেনো ধীরগতিতে থাকে তা নিয়ে আমাদের এখন কাজ করতে হবে। ফলে এটি নিজেই একসময় আর ছড়াতে পারবে না।’

এই ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ বর্তমানে রাদারফোর্ড হেলথের চিফ মেডিকেল অফিসার। অনেকেই তার দাবিটি নিয়ে প্রশ্ন তুললে তিনি বলেন, ‘আমার মতে এটি একটি সম্ভাব্য পরিস্থিতি। কেউ নিশ্চিতভাবে বলতে পারছেন না, আসলে কী হবে? এটি আমার মতামত।’

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে তিনি বলেন, ‘আমাদের এখন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আশা করি এতে পরিস্থিতির উন্নতি অব্যাহত থাকবে।’

পরে এই বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভ্যাকসিন পাওয়ার অত্যন্ত আশাবাদী একটি সময়সূচি ছিল।’

প্রফেসর সিকোরা বলেছেন, ‘অক্সফোর্ডের গবেষক দল অধ্যাপক সারা গিলবার্টের নেতৃত্বে দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছেন। যদি তারা সফল হন তাহলে শরত্কালের মধ্যে ৩০ মিলিয়ন ভ্যাকসিন তৈরি করবে। এটি একটি উল্লেখযোগ্য কীর্তি হবে।’


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা ৩ লাখ ছাড়িয়েছে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-১৪ ১৬:৪৮:২৮

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস মহামারীতে মৃত্যু সংখ্যা ৩ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১০টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৩ লাখ ২২০ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।

চীনের হুবেইপ্রদেশের উহান শহর থেকে বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। এ ভাইরাসে এখন পর্যন্ত প্রায় ৪ লাখ ৪৭ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন।

করোনায় মৃতের সংখ্যায় শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৮৫ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। এদিকে যুক্তরাজ্যে ৩৩ হাজারের বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করেছেন এ মহামারীতে। এছাড়া ইতালিতে ৩১ হাজারেরও বেশি মানুষ, ফ্রান্স ও স্পেনে ২৭ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনাভাইরাসের আক্রমণে মারা গিয়েছেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

করোনা সংক্রমণের দ্বিগুণ ঝুঁকিতে ধূমপায়ীরা: গবেষণা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-১৩ ০৬:৫৮:১৪

বর্তমান ও সাবেক ধূমপায়ীরা নতুন করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) সংক্রমিত হওয়ার দ্বিগুণ ঝুঁকিতে রয়েছেন। যারা ই-সিগারেট ব্যবহার করেন তাদের ঝুঁকিও একই। অধূমপায়ীদের চেয়ে ধূমপায়ীদের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার ঝুঁকিও অনেক বেশি। নতুন এক গবেষণায় এসব কথা বলা হয়েছে।

বুধবার সিএনএন অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, সান ফ্রান্সিসকোর সেন্টার ফর টোবাকো কন্ট্রোল রিসার্চ অ্যান্ড এডুকেশনের গবেষকরা নতুন গবেষণাটি করেছেন। সেখানকার মেডিসিনের অধ্যাপক স্ট্যান্টন গ্লান্টজ ও তার সহকর্মীদের করা গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে জার্নাল নিকোটিন অ্যান্ড টোবাকো রিসার্চে।

মেটা-অ্যানালাইসিস পদ্ধতিতে নতুন গবেষণাটি করা হয়েছে। অর্থাৎ আগের একাধিকা বৈজ্ঞানিক গবেষণাকে নতুন করে পর্যালোচনা করা হয়েছে। চীন, দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের ১৯টি পিয়ার রিভ্যুড পেপারসকে নতুন গবেষণায় পর্যালোচনা করা হয়েছে।

তাতে দেখা গেছে, ৩০ শতাংশ ধূমপায়ী ব্যক্তি গুরুতরভাবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বিপরীতে অধূমপায়ীদের ক্ষেত্রে এ হার ১৭ দশমিক ৬ শতাংশ।

গবেষণা প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, ধূমপানের ফলে ফুসফুস সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি এমনিতেই বেড়ে যায়। ধূমপানের ফলে শ্বাসতন্ত্রের ওপরের অংশও মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর ফলে অধূমপায়ীদের চেয়ে ধূমপায়ীদের ফুসফুসের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। যদিও এই বিষয়গুলোর সঙ্গে নতুন করোনাভাইরাসের ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া কেমন হয় তা আরও বিস্তারিত গবেষণার দাবি রাখে।

অধ্যাপক গ্লান্টজ বলেন, উচ্চ মাত্রায় নতুন করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার সঙ্গে ধূমপানের এক ধরনের সম্পর্ক রয়েছে।

এ জন্য গবেষকরা প্রস্তাব করেছেন, করোনাভাইরাসের মহামারি থেকে মুক্তি পেতে হলে তামাকজাত সিগারেট এবং ই-সিগারেটেও কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতে হবে। সেই সঙ্গে আরও তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখতে হবে যে, ধূমপায়ীরা নতুন এই ভাইরাসটির কারণে ঠিক কতখানি ঝুঁকিতে রয়েছেন।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃত্যু ৮০ হাজার ছাড়াল

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-১০ ০৩:৩৫:২৪

বিশ্বব্যাপী প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণে মৃত্যুর সংখ্যা ২ লাখ ৮০ হাজার ছাড়িয়েছে। তবে মৃতের সংখ্যায় সব দেশকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র। বিশ্বে সবচেয়ে পরাক্রমশালী এ দেশটি এখন মৃত্যুপুরী। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছে ১ হাজার ৪২২ জন।
 
একদিনে যে কোনো দেশের চেয়ে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর রেকর্ড এটি। এ মহামারীতে এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে মারা গেছে ৮০ হাজার ৩৪ জন। আক্রান্তের দিক থেকেও শীর্ষে অবস্থান দেশটির। খবর বিবিসি ও আলজাজিরার।

এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ লাখ ৪৭ হাজার ৩০৯ জন। শুধু নিউইয়র্কেই মারা গেছে ২৬ হাজার ৭৭১ জন। আলো ঝলমলে শহরটি এখন মৃত্যুপুরী। গত ২৪ ঘণ্টায় এই শহরে মারা গেছে ১৮৬ জন।

এ অবস্থায় একদিন বিভিন্ন রাজ্যের লকডাউন শিথিল করা হয়েছে।

নিউইয়র্কের পরই সবচেয়ে বেশি ৯ হাজার ১১৮ জন নিউজার্সিতে, ম্যাসাচুসেটসে ৪ হাজার ৮৪০, মিশিগানে ৪ হাজার ৫২৬, পেনসিলভানিয়ায় ৩ হাজার ৭৯৮ এবং ক্যালিফোর্নিয়ায় ২ হাজার ৬৯১ জন মারা গেছেন।

ওয়ার্ল্ডওমিটারসের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসের সংক্রমণে মারা গেছে ২ লাখ ৮০ হাজার ৪৩১ জন।

প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৪১ লাখ ৭২৯ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ লাখ ৪১ হাজারেরও বেশি মানুষ।

পরিসংখ্যান থেকে জানা যাচ্ছে, এ পর্যন্ত যত মানুষ আক্রান্ত হয়েছিল, তার ২১ শতাংশ মানুষ মারা গেছে। করোনায় আক্রান্তদের শতকরা তিন ভাগের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আর এমন গুরুতর রোগীর সংখ্যা ৪৭ হাজার ৬৮৫ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে এ পর্যন্ত যত মানুষ মারা গেছে, তার মধ্যে আমেরিকা সবার শীর্ষে। দেশটিতে এ পর্যন্ত মারা গেছে ৮০ হাজার ৩৪ জন।

এর মধ্যে নিউইয়র্ক শহরে সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছে। সেখানে গণকবরের ব্যবস্থা করতে হচ্ছে। কোনো কোনো হাসপাতালে লাশ রাখার জায়গা নেই।

এ ছাড়া স্পেনে আক্রান্ত ২ লাখ ৬২ হাজার ৭৮৩, মারা গেছে ২৬ হাজার ৪৭৮ জন। ইতালিতে আক্রান্ত ২ লাখ ১৮ হাজার ২৬৮, মারা গেছে ৩০ হাজার ৩৯৫ জন। ফ্রান্সে আক্রান্ত ১ লাখ ৭৬ হাজার ৬৫০, মারা গেছে ২৬ হাজার ৩১০ জন। জার্মানিতে আক্রান্ত ১ লাখ ৭১ হাজার ৩২৪, মারা গেছে ৭ হাজার ৫৪৯ জন।

ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা ৬২ হাজার ৮০৮, মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ১০১ জন এবং বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ হাজার ৭৭০ জন, মারা গেছেন ২১৪ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ লাখ ছাড়াল, মৃত্যু ২ লাখ ৮০ হাজার

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-১০ ০৩:১৪:২৪

বিশ্বে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। আর এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে প্রায় ২ লাখ ৮০ হাজার।

জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর সিস্টেম সায়েন্সেস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (সিএসএসই) তথ্য অনুযায়ী, রোববার সকাল পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪০ লাখ ২৪ হাজার ৯ জন। এদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৭৯ হাজার ৩১১ জনের। আর ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩ লাখ ৭৫ হাজার ৬২৪ জন।

সিএসএসই'র তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে, ৭৮ হাজার ৭৯৫ জন। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যাও বিশ্বে সর্বোচ্চ ১৩ লাখ ৯ হাজার ৫৫০ জন। মৃত্যুর সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের পরেই রয়েছে ইউরোপের দেশ  যুক্তরাজ্য। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৩১ হাজার ৬৬২ জন। আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ১৬ হাজার ৫২৫ জন। তৃতীয় অবস্থানে থাকা ইতালিতেও মৃতের সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৩০ হাজার ৩৯৫ জন। আর মোট আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ১৮ হাজার ২৬৮ জন।

ইউরোপেরই অন্যান্য দেশগুলোর মধ্যে স্পেনে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ২৬ হাজার ৪৭৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। স্পেনে মৃতের সংখ্যা যুক্তরাজ্য ও ইতালির চেয়ে কম হলেও আক্রান্তের সংখ্যা বেশি। স্পেনে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ২৩ হাজার ৫৭৮ জন। অন্যদিকে ফ্রান্সে এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা স্পেনের কাছাকাছি। দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ২৬ হাজার ৩১৩ জনের। আর আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৭৬ হাজার ৭৮২ জন।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়া নভেল করোনাভাইরাস এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৮৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। যে চীন থেকে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি সেই চীনে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক হিসাবে মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের কয়েকটি দেশ তুলনায় বেশ কম। এমনকি গত বেশ কয়েকদিনের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে মৃত্যুর কোনো তথ্য নেই। রোববার সকাল পর্যন্ত দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা আগের মতো ৪ হাজার ৬৩৭ জনেই স্থির রয়েছে। তবে দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ১৪ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে দেশটিতে শনাক্ত হয়েছে ৮৩ হাজার ৯৯০ জন।

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ১৩ হাজার ৭৭০ জন। এদের মধ্যে ২১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৪১৪ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

রূপ বদলে আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে করোনাভাইরাস

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-০৭ ১৪:৩২:২৫

করোনা ভাইরাস তার আগের অবস্থা পরিবর্তন করে এখন আরো বেশি সংক্রামক হয়ে ওঠেছে। সম্প্রতি একটি অনুসন্ধান গবেষণায় এই তথ্যটি বেরিয়ে আসে। যদিও গবেষণাটি এখনও বিস্তারিত  পর্যালোচনা করা হয়নি।

চার মাস আগে চীনের উহান শহরে উদ্ভূত যে করোনাভাইরাসটি ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে ভাইরাসটি তার রূপ পরিবর্তন করে আরো শক্তিশালী হয়ে ওঠে। এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসটিকে নতুন এবং শক্তিশালী বলে মনে হয়েছে। যা আলিঙ্গনের মাধ্যমে  আরও বেশি সংক্রামক বলে মনে হয়েছে।

প্রকাশিত একটি নতুন গবেষণায় দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডা সহ বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলে পাড়ি জমানোর আগে, ভাইরাসটি ফেব্রুয়ারির গোড়ার দিকে ইউরোপে নতুন ভাবে ছড়িয়ে পড়ে।, মার্চের শেষে বিশ্বজুড়ে কোভিড ১৯- ভাইরাসের প্রভাবশালী রূপে পরিণত হয়েছিল।
লস আলামোস ন্যাশনাল এর একটি ল্যাবরেটরির গবেষকরা লিখেছেন, করোনা ভাইরাস যদি গ্রীষ্মে  ফ্লুর মতো হ্রাস না পায়, তাহলে এটি আরও পরিবর্তন হতে পারে। বর্তমানে বিশ্বজুড়ে বিজ্ঞানীদের দ্বারা তৈরি করোনভাইরাসের ভ্যাকসিনগুলো খুব বেশি কার্যকর না-ও হতে পারে। গবেষকরা সতর্ক করে বলছেন, কিছু ভ্যাকসিন গবেষকরা ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাবের প্রথম দিকে -স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ দ্বারা বিচ্ছিন্ন ভাইরাসের জিনগত সিকোয়েন্সগুলি ব্যবহার করছেন। এইসব ক্ষেত্রে পরবর্তীতে আমাদেরকে আরো সতর্ক হতে হবে।
‘এটি একটি কঠিন সংবাদ’ শিরোনামে জীববিজ্ঞানী এবং গবেষণার শীর্ষস্থানীয় লেখক বেটে করবার তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন, "তবে দয়া করে কেবল এ তথ্যটির  দ্বারা হতাশ হবেন না। ল্যানএল-এ আমাদের দল কেবলমাত্র ক্লিনিকাল লোক। এবং পরীক্ষামূলক গবেষক দলটির  বিশাল প্রচেষ্টার ফলে- স্থানীয়ভাবে নতুন দলভুক্ত ভাইরাসটির নতুন সিক্যুয়েন্স (এসএআরএস-কোভিড -২) তৈরি করার কারণে- এই রূপান্তর এবং সংক্রমণে এর পরবর্তী প্রভাব ডকুমেন্ট করতে সক্ষম হয়েছিল। তারা সম্ভাব্য ভ্যাকসিন আবিস্কারে দ্রুততার সঙ্গে কাজ করছেন।"
তবে এই সমীক্ষাটি এখনও পিয়ার-রিভিউ করা হয়নি, তবে গবেষকরা উল্লেখ করেছেন যে, কোভিড-১৯ প্রতিরোধের জন্য ১০০ টিরও বেশি ভ্যাকসিন তৈরির প্রক্রিয়া বিবেচনা করছেন। আর ভাইরাসটির এই রূপান্তর হওয়ার সংবাদ সবার জন্য  "জরুরি উদ্বেগ" উদ্বেগ এর কারণ।
মার্চের শুরুতে চীনা গবেষকরা বলেছিলেন, তারা দেখতে পেয়েছেন যে করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী দুটি ভিন্ন ধরণের সংক্রমণ ঘটায়। ৩ মার্চ প্রকাশিত এক গবেষণায়, পেকিং বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অফ লাইফ সায়েন্সেস এবং সাংহাইয়ের ইনস্টিটিউট পাস্তুরের বিজ্ঞানীরা দেখতে পেয়েছেন, আরও বেশি আক্রমণাত্মক ধরণের নতুন করোনাভাইরাস বিশ্লেষণযোগ্য প্রভাবশালী।
ভাইরাসটির সবচেয়ে বেশি আক্রমণাত্মক এবং মারাত্মক দিকটি চূড়ান্তভাবে দেখা গিয়েছিল- এই ভাইরাসটি প্রথম যেখানে আবিস্কৃত হয়েছিল সেই ওহান শহরে প্রাদুর্ভাবের প্রথম পর্যায়ে।

লস আলামোস গবেষকরা -ডিউক বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইংল্যান্ডের শেফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের সহায়তায়, সকলের থেকে ডেটা দ্রুত ভাগ করে নেওয়ার প্রচারকারী সংস্থা 'গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ ফর শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা' এর মাধ্যমে সংগৃহীত হাজারো করোনভাইরাস অনুক্রম বিশ্লেষণ করতে সক্ষম হন। এবং ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস এবং করোনভাইরাস এর আজ পর্যন্ত গবেষকরা ১৪ টি মিউটেশন চিহ্নিত করেছেন এবং জেনেছেন মানব দেহে মিউটেশন স্পাইক প্রোটিনকে প্রভাবিত করে, এটি একটি বহুবিধ পদ্ধতি- যা ভাইরাসটিকে শরীরে প্রবেশ করতে দেয়।


এলএবাংলাটাইমস/এসএস/সিসি

বিস্তারিত খবর

বিশ্বব্যাপী ৯০ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনা আক্রান্ত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-০৬ ১৪:১০:৫৯

বিশ্বব্যাপী অন্তত ৯০ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। অবশ্য সুরক্ষা সরঞ্জামের অভাবে এ সংখ্যা দ্বিগুণ হবে সেই সম্ভাবনাই বেশি। বুধবার ইন্টারন্যাশনাল কাউন্সিল অব নার্সেস (আইসিএন) এ তথ্য জানিয়েছে।

জেনেভাভিত্তিক সংগঠনটি  জানিয়েছে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত ২৬০ জনের বেশি নার্স মারা গেছেন।  এক মাস আগে এই সংখ্যা ছিল ১০০।

আইসিএনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাওয়ার্ড ক্যাটন বলেছেন, ‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণের শিকার স্বাস্থ্যকর্মীদের সংখ্যা ২৩ হাজার থেকে বেড়ে ৯০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে যা আমাদের ধারণার চেয়ে বেশি। তবে এই সংখ্যা এখনও কম, কারণ এই তালিকায় বিশ্বের সব দেশকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়নি।’

৩০ টি দেশের নার্সিং অ্যাসোসিয়েশন, সরকার ও সংবাদমাধ্যমের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এই ৯০ হাজারের সংখ্যা জানা গেছে। তবে আইসিএনের অন্তর্ভূক্ত আছে ১৩০টি দেশের সংগঠন। এতে নিবন্ধিত নার্সের সংখ্যা দুই কোটির বেশি।

বিশ্বব্যাপী ৩৫ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে উল্লেখ করে ক্যাটন বলেন, ‘আমরা যদি স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে সংক্রমণের হার ৬ শতাংশ ধরি, তাহলে বৈশ্বিকভাবে করোনার সংক্রমণের শিকার স্বাস্থ্যকর্মীদের সংখ্যা ২ লাখের বেশি হবে।’

তিনি বলেন, ‘কলঙ্কজনক ব্যাপার হচ্ছে, বিভিন্ন দেশের সরকার ধারাবাহিকভাবে এই তথ্য সংগ্রহ করছে না ও এই বিষয়টি জানাচ্ছে না। আমাদের কাছে মনে হচ্ছে, তারা চোখ বন্ধ করে রেখেছে, যেটি সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য এবং আরো জীবনকে কেড়ে নেবে।’

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

বিশ্বে করোনায় বিশ্বে মৃত্যু আড়াই লাখ ছাড়াল

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-০৪ ১৩:৩৯:৪২

করোনা মহামারীতে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন আড়াই লাখের বেশি মানুষ।আর এতে সংক্রমিত হয়েছেন এ পর্যন্ত ৩৬ লাখ ৩ হাজার ৫২১ জন।সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১১ লাখ ৬৯ হাজার ৩৩৩ জন।

সোমবার রাতে আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারসের ওয়েবসাইট থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে ১১ লাখ ৯৪ হাজার ৪৩৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আর এতে সংক্রমিত হয়ে এ পর্যন্ত ৬৯ হাজার ৮ জন মারা গেছেন।

এর পরেই সংক্রমণে দ্বিতীয় ও মৃত্যুর দিক দিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ইউরোপের দেশ স্পেন। দেশটিতে ২ লাখ ৪৮ হাজার ৩০১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছন। আর এতে এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ২৫ হাজার ৪২৮ জন।

এরপরেই সংক্রমণে তৃতীয় আর মৃত্যুর দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ইউরোপের আরেক দেশ ইতালি। দেশটিতে এ পর্যন্ত ২ লাখ ১১ হাজার ৯৩৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর এতে সংক্রমিত হয়ে এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ২৯ হাজর ৭৯জন।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

মসজিদে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার স্থাপন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৯ ০৭:০১:৫৪

ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্রের পুনে শহরের একটি মসজিদকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রূপান্তর করা হয়েছে। কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় যা এখন পুরোপুরি প্রস্তুত।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, পুনের আজম ক্যাম্পাসের ক্যাম্পের ভেতরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশে একটি মসজিদের প্রথম ফ্লোরকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রূপান্তর করা হয়েছে। ৯ হাজার বর্গকিলোমিটারের ওই ফ্লোরে ৮০টি শয্যা স্থাপন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে মহারাষ্ট্র কসমোপলিটন অ্যান্ড এডুকেশনাল সোসাইটির চেয়ারম্যান পি এ ইনামদার বলেন, কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে আমরা এখানে কোভিড-১৯ রোগীদের জন্য কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের ব্যবস্থা করেছি। আমাদের ট্রাস্টি প্রয়োজনে রোগীদের খাবারের ব্যবস্থা করবে।

আরও জায়গার প্রয়োজন হলে সে ব্যবস্থাও করা হবে বলে জানান ইনামদার।

মুসলিম কোঅপারেটিভ ব্যাংকের পরিচালক এস এম ইকবাল বলেন, মসজিদকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রূপান্তর একটি দারুণ উদ্যোগ। ক্যাম্পাসের ইউনানি হাসপাতালেও এ ধরনের সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

পুনে জেলা কালেক্টর নাভাল কিশোর রাম বলেন, আজম ক্যাম্পাস কর্তৃপক্ষ এমন সিদ্ধান্তের কথা জানালে আমরা তাদের বিষয়টি বিবেচনায় নেই। সেন্টারটি পর্যবেক্ষণের পর রোগীদের সেবার অনুমতি দেওয়া হবে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্র মিথ্যা বলছে, ট্রাম্পের বিষোদগারের জবাবে চীন

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৯ ০৬:৫৭:৫৯

মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বিশ্বময় ছড়ানোর জন্য চীনকে দোষারুপ করছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ধারাবাহিক বিষোদগারের জবাবে চীন বলছে, যুক্তরাষ্ট্র নির্লজ্জ মিথ্যাচার করছে। খবর ডয়েচে ভেলের।

কোভিড-১৯ বিশ্বজুড়ে সংক্রমণের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প লাগাতার চীনের দিকে আঙুল তুলছিলেন। তার জবাবে বেইজিং জানালো, যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিবিদরা ‘নির্লজ্জ মিথ্যা’ বলছেন। চীনের দাবি, যুক্তরাষ্ট্র নিজের ব্যর্থতা আড়াল করতে মানুষের চোখ অন্য দিকে ঘোরানোর চেষ্টা করছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্টকে সরাসরি আক্রমণ না করে বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিবিদরা নির্লজ্জ ভাবে অসত্য প্রচার করছেন।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রের দাবি, যুক্তরাষ্ট্র মহামারি মোকাবেলা করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ। সেই ব্যর্থতা ঢাকতেই তারা চীনের দিকে মানুষের দৃষ্টি ঘোরানোর চেষ্টা করছে।

উহানের যে ল্যাবরেটরির বিরুদ্ধে ভাইরাস ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছে, তার প্রধানও মুখ খুলেছেন। রয়টার্সকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে, তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। যারা এ সব কথা বলছেন, তাদের কাছে কোনো তথ্য সূত্র নেই। সম্পূর্ণ মনগড়া অভিযোগ করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, প্রায় এক মাস ধরে প্রায় প্রতিদিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চীন এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে দায়ী করছেন করোনা মোকাবেলায় ব্যর্থতার জন্য। তার অভিযোগ, চীনের গাফিলতিতেই করোনা সংক্রমণ বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে।

শুধু তাই নয়, এর আগে ট্রাম্প অভিযোগ করেছিলেন, উহানের ভাইরোলজির ল্যাবরেটরি থেকে করোনা ভাইরাস ছড়ানো হয়েছে। এর বিরুদ্ধে তদন্ত করা হবে বলেও জানিয়েছিলেন ট্রাম্প। সোমবারেও চীনের বিরুদ্ধে তদন্তের হুমকি দিয়েছেন তিনি। এসবের জবাব দিল চীন।

উল্লেখ্য, চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে ১০ লাখ ৩৫ হাজার ছাড়িয়ে গেছে আক্রান্তের সংখ্যা। ৫৯ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

অন্যদিকে চীনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৩৩ জন। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজার ৯৪০ জন। তবে চীনের বিরুদ্ধে তথ্য লুকানোর অভিযোগও রয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

মে মাসে ভারতে উৎপাদন হবে করোনার টিকা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৯ ০৬:৫৪:৪২

বিশ্বব্যাপী মহামারি রূপ নেয়া করোনাভাইরাসের রুখত অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির টিকা বানরের ওপর পরীক্ষায় সফল হয়েছে। এরই মধ্যে ছয় হাজার মানুষের ওপর পরীক্ষা চলছে এটির। এরই মধ্যে এই টিকা তৈরির ভারতীয় অংশীদার ও বিশ্বের সবচেয়ে বড় টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সিরাম ইনস্টিটিউট মে মাস থেকেই উৎপাদনে যাওয়ার কথা জানিয়েছে।

আগামী সেপ্টেম্বর অক্টোবরে টিকা যাতে সরবরাহ করা যায় এজন্য শুরুতে ৪-৫ মিলিয়ন ডোজ তৈরি করবে সিরাম ইনস্টিটিউট। পরীক্ষায় সাফল্যের ভিত্তিতে এটি ১০ মিলিয়ন ডোজ পর্যন্ত বাড়াবে তারা। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ভারতের পুনে শহরের দু’টি কারখানায় আগামী মাসেই টিকা তৈরির কাজ শুরু হবে। আগামী বছরের মধ্যে ৪০ কোটি ডোজ টিকা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম লাইভ মিন্ট।

নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার অক্সফোর্ডের টিকা প্রাণীর ওপর সফল হয়েছে বলে জানান বিজ্ঞানীরা। যুক্তরাষ্ট্রের হ্যামিল্টনের রকি মাউন্টেন ল্যাবরেটরিজের বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, ছয়টি রিসাস বানরকে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির ভ্যাকসিন এবং ব্যাপক মাত্রায় করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রয়োগ করা হয়েছিল। বানরগুলো ২৮ দিন পর সুস্থ হয়ে উঠেছে।

অক্সফোর্ডের জেনার ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক অ্যাড্রিয়ান হিলের নেতৃত্বে একটি দলও ২৩শে এপ্রিল ভ্যাকসিন মানুষের ওপর পরীক্ষা শুরু করেছে। কারণ প্রাণীর ওপর ভ্যাকসিন পরীক্ষার সফলতা মানুষের ওপরও যে সফল হবে সেই গ্যারান্টি দেয় না।

বানরের ওপর সফল প্রয়োগের খবর পাওয়ার পরপরই সিরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী আদর পুনাওয়ালা জানিয়েছেন, তারা টিকা উৎপাদনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীদের ওপর আমাদের পূর্ণ আস্থা ছিল বলেই তাদের সঙ্গে এ কাজে যুক্ত হয়েছি। আর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে ঝুঁকি তো নিতেই হয়। যেহেতু বানরের ওপর টিকাটি কাজ করেছে, সেহেতু মানষের ওপরও তা কাজ করবে বলে আশাবাদী তিনি।

আগামী সেপ্টেম্বর নাগাদ অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের তৈরি টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগের ফল পাওয়া যাবে। আর তা সফল হবে বলে মনে করেন পুনাওয়ালা। করোনাভাইরাসের টিকা নিয়ে গবেষণা করছে যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ার এমন আরও দু’টি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও চুক্তি করেছে ভারতের এই টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। ৬০০ কোটি রুপি বিনিয়োগ করে টিকা তৈরির নতুন একটি কারখানাও বানাচ্ছে তারা।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা আক্রান্ত ১০ লাখ ছাড়াল, একদিনে আরও ২৪৭০ মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৯ ০৬:৫২:২৯

করোনাভাইরাস মহামারির কেন্দ্র এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে আক্রান্তদের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। মৃতদের শেষকৃত্যের জায়গার সংকট দেখা দিয়েছে। তবে গত দুই দিনে দেশটিতে একদিনে নিহতের সংখ্যা প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছিল। কিন্তু গতকাল মঙ্গলবার ফের তা বেড়ে গিয়েছে। এদিন মৃত্যু হয়েছে ২৪৭০ জনের। একদিনে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৫ হাজার ৪০৯ জন। এ তথ্য জানিয়েছে করোনাভাইরাস নিয়ে লাইভ আপডেট দেয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার।

মঙ্গলবার পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১০ লাখ ৩৫ হাজার ৭৬৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫৯ হাজার ২৬৬ জনের। এছাড়া করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৪২ হাজার ২৩৮ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের শুধু নিউইয়র্কেই মৃত্যু হয়েছে ২৩ হাজার ১৪৪ জনের। এই প্রদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ১ হাজার ৪৫০ জন। এরপরই রয়েছে নিউ জার্সি। সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৬৪৪২ জনের, আক্রান্ত এক লাখ ১৩ হাজার ৮৫৬ জন।

বুধবার সকাল পর্যন্ত করোনায় বিশ্বব্যাপী নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই লাখ ১৭ হাজার ৯৭২ জনে এবং আক্রান্তের সংখ্যা ৩১ লাখ ৩৮ হাজার ১৫১ জন। অপরদিকে ৯ লাখ ৫৫ হাজার ৭৭০ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

চীনের উহান থেকে বিস্তার শুরু করে গত তিন মাসে বিশ্বের ২০০টিরও বেশি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)। চীনে করোনার প্রভাব কমলেও বিশ্বের অন্য কয়েকটি দেশে মহামারি রূপ নিয়েছে।

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব নিয়ন্ত্রণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নেয়া হয়েছে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ। অধিকাংশ দেশেই মানুষের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা নিশ্চিত করতে মানুষের চলাফেরার ওপর বিভিন্ন মাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। কোনো কোনো দেশে আরোপ করা হয়েছে সম্পূর্ণ লকডাউন, কোথাও কোথাও আংশিকভাবে চলছে মানুষের দৈনন্দিন কার্যক্রম। এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার কারণে পৃথিবীর বিভিন্ন এলাকার প্রায় অর্ধেক মানুষ চলাফেরার ক্ষেত্রে কোনো না কোনো মাত্রায় নিষেধাজ্ঞার ওপর পড়েছেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

করোনায় মৃত্যুর মিছিল দেখতে দেখতে নিউইয়র্কে চিকিৎসকসহ দুই স্বাস্থ্যকর্মীর আত্মহত্যা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৮ ১৫:১০:০৫

নিউইয়র্কে চিকিৎসকসহ দুজন স্বাস্থ্যকর্মী আত্মহত্যা করেছেন। ওই দুজন হলেন নিউইয়র্ক প্রেসপেটেরিয়ান হাসপাতালের ইমার্জেন্সি বিভাগের চিকিৎসক ছিলেন লরনা ব্রিন (৫৯) ও এস্টোরিয়া এলাকায় ইমার্জেন্সি সার্ভিসে কর্মরত প্যারামেডিক জন মনডেলো (২৩)। অনেকেই বলছেন, নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর এ তাণ্ডব অনেকেই সামাল দিতে পারছেন না। তাই বাধ্য হয়ে আত্মহত্যা করেছেন তাঁরা।

নিউইয়র্কে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে নগরীর হাসপাতালগুলোতে ছিল উপচে পড়া ভিড়। মানুষ জরুরি বিভাগে আসছে, আর মারা যাচ্ছে। হাসপাতালে রোগী রাখার জায়গা ছিল না, পর্যাপ্ত ভেন্টিলেশন ছিল না। চিকিৎসার নগরী হিসেবে খ্যাত নিউইয়র্কের চিকিৎসকেরাই অসহায় হয়ে পড়েন। শুরুতে তাঁদের ব্যক্তিগত সুরক্ষার অভাব ছিল, ছিল না আগাম কোনো প্রস্তুতি। অনেক চিকিৎসক অজান্তেই আক্রান্ত হয়েছেন, অনেকের মৃত্যুও হয়েছে।

প্রেসপেটেরিয়ান হাসপাতালে চিকিৎসা দিতে গিয়ে লরনা ব্রিন চিকিৎসা দিতে গিয়ে নিজে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। কাজ বন্ধ করে বাসায় থেকে সুস্থ হওয়ার পর আবারও হাসপাতালে যোগ দেন। আরও কিছুদিন বিশ্রামের জন্য হাসপাতাল কতৃর্পক্ষ তাঁকে বাসায় ফেরত পাঠায়। পরে পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁকে ভার্জিনিয়ায় নিকটাত্মীয়ের কাছে রাখা হয়। ২৪ এপ্রিল সেখানেই লরনা ব্রিন আত্মহত্যা করেন।

পরিবারের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। তবে পরিবার বলেছে, লরনা ব্রিন করোনায় সংক্রমিত মানুষের মৃত্যু নিয়ে কথা বলছিলেন। হাসপাতালে এসেই অনেকের মৃত্যু হতো বলে বিমর্ষ থাকতেন ব্রিন।

লরনা ব্রিনের বাবা চিকিৎসক ফিলিপ ব্রিন বলেন, লরনা ব্রিন এত মৃত্যু নিতে পারছিল না। করোনা যোদ্ধার সামনের সারির তালিকায় যেন লরনা ব্রিনকে স্মরণ করা হয়।

এর আগে ২৪ এপ্রিল নগরীর এস্টোরিয়া এলাকায় ইমার্জেন্সি সার্ভিসে কর্মরত প্যারামেডিক জন মনডেলো আত্মহত্যা করেছেন। তিনি নিজের পুলিশ কর্মকর্তা বাবার পিস্তল দিয়ে মাথায় গুলি করে আত্মহত্যা করেন। গত দুই মাসে নগরীর সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ব্রঙ্কসের ক্লারমন্টে ইমার্জেন্সি স্টেশনে কাজ করতেন জন। পুলিশ বলেছে, এত মৃত্যুর দৃশ্য একসঙ্গে দেখে মানসিকভাবে নিজেকে সামাল দিতে পারেননি দুজন।

বিস্তারিত খবর

বিএনপি ত্রাণ দিতে গিয়ে ফটোসেশন করে চলে আসে: হাছান মাহমুদ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৮ ১১:০৩:১৫

বিএনপি'র রাজনীতি মিথ্যার ওপর প্রতিষ্ঠিত, তারা জনগণের পাশে দাঁড়ায়নি। ঢাকা শহরে ত্রাণের নামে ফটোসেশান আর সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করাই তাদের কাজ বলে এমন মন্তব্য করেছেন, তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

তারা ত্রাণ দিতে যায় ফটোসেশন করে চলে আসে। তাদেরকে এসব পরিহার করে সারাদেশে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত ত্রাণ বিতরণে নিয়োজিত আওয়ামী লীগের সাথে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানাই।
 
মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর বনানী কবরস্থানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দ্বিতীয় পুত্র প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা লেফটেন্যান্ট শেখ জামালের ৬৭তম জন্মদিন উপলক্ষে তার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, এটা রাজনীতির সময় নয়, সকলে মিলে জনগণের পাশে দাঁড়াবার সময়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যকারী খুনিচক্র আজও রাজনৈতিক মদদপুষ্ট হয়ে সক্রিয়। বাংলাদেশে আজ শেখ জামালের জন্মদিনে আমাদের প্রত্যয় হবে খুন ও খুনের রাজনীতিকে বাংলাদেশ থেকে চিরতরে বিদায় দেয়া। এজন্য সবাইকেই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।
 
আজ শেখ জামালের ৬৭তম জন্মদিন। শেখ জামাল মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন, সংস্কৃতিমনা ছিলেন, তিনি কোনো রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন না।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

২৮ দিনের মধ্যে যুক্তরাজ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৭ ১৭:৫২:৫৪

মহামারি করোনাভাইরাসের নতুন হটস্পট যুক্তরাজ্য। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দেড় লাখ ছাড়িয়েছে। মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২১ হাজারের ঘর। তবে আশার আলো হয়ে দেখা দিয়েছে সোমবার দিনটি।

এদিন দেশটিতে মারা গেছে ৩৬০ জন। যা ২৮ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন। সবশেষ ৩০ মার্চ মারা গিয়েছিল ১৮০ জন। এরপর থেকে মৃত্যুর মিছিল লম্বা হয়েছে প্রতিদিন। ২৮ দিনের মাথায় এসে কমলো সেই সংখ্যাটা। যা আগের দিনের চেয়ে ১.৭ শতাংশ কম।

৩৬০ জনের মধ্যে ইংল্যান্ডেই মারা গেছে ৩২৯ জন। স্কটল্যান্ডে ১৩ জন। ওয়েলসে প্রাণ হারিয়েছে ৮ জন। আর নর্দান আয়ারল্যান্ডে ১০ জন।

মোট মৃতের সংখ্যা ইংল্যান্ডে ১৮ হাজার ৭৪৯, স্কটল্যান্ডে ১ হাজার ২৬২ জন, ওয়েলসে ৭৯৬, নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডে ৩০৯ জন। যুক্তরাজ্যে মোট মৃতের সংখ্যা ২১ হাজার ৯২ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

কিট বাজারে আসুক না আসুক, কাউকে ঘুষ দেবো না: ডা. জাফরুল্লাহ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৬ ১৫:৪৮:৩১

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ‘গত ৪৮ বছরে কাউকে ঘুষ দেয়নি গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। বাজারে প্রোডাক্ট আসুক বা না আসুক, গণস্বাস্থ্য কাউকে ঘুষ দেবে না। দুর্নীতির অংশীদার আমরা হবো না।’

রোববার (২৬ এপ্রিল) বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডির গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে সংবাদ সম্মেলনে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেছেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘আমরা দেশের একটা উপকার করেছি। গতকাল ছিল আনন্দের দিন। সেজন্য সবার সামনে কিট পরীক্ষার জন্য সরকারের কাছে হস্তান্তর করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু নানা অজুহাত দেখিয়ে গণস্বাস্থ্যের কিট গ্রহণ করেনি সরকার। আমরা জনগণের স্বার্থে শুধু সরকারের মাধ্যমে পরীক্ষা করে কিট কার্যকর কি না, তা দেখতে চেয়েছিলাম।’

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের কার্যালয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনা কিটের উদ্ভাবক ড. বিজন কুমার শীলসহ তিনজন এটি জমা দিতে যান। তবে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর তা গ্রহণ করেনি। এমনকি গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের তিনজনের একজনকে ওষুধ প্রশাসনের কার্যালয়ে প্রবেশও করতে দেওয়া হয়নি। কর্তৃপক্ষ জমা নেবে না। আমরা গিয়েছিলাম, তারা জমা নেননি। বললেন যে, সিআরও নিয়ে আসেন। তারপরে বললেন, এটা আপনারা ভেরিফিকেশন করে আনেন সিআরও থেকে।’

তিনি বলেন, ‘সিআরও হলো চুক্তিভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান। ওখানে পয়সা দিতে হবে। কত খরচ লাগবে, তা উনারা (সিআরও) বাজেট দেবেন। পরে আইসিডিডিআর,বি থেকে ভেরিফিকেশন করিয়ে আনার কথা বলেন। আইসিডিডিআর,বি লকডাউন থাকায় তারা বিএসএমএমইউ, আইইডিসিআর কিংবা আর্মি প্যাথলজি ল্যাবরেটরি থেকে কার্যকারিতা আছে কি না পরীক্ষা করে দেখার প্রস্তাব দিলেও তা মানা হয়নি।’

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, ‘জাতির এ দুর্যোগের সময় যুগান্তকারী আবিষ্কার এ কিট কাজে লাগানো যাচ্ছে না। যেখানে ইরানে এ ধরনের কিট প্রতিদিন ১০ লাখ তৈরি ও ব্যবহৃত হচ্ছে, সেখানে তারা কিট জমাই রাখেননি। যেকোনো ল্যাবরেটরি থেকে পরীক্ষাতে আপত্তি নেই। কিন্তু জাতির এ ক্রান্তিলগ্নে তারা এখন বাজেট ঠিক করবেন, তারপর সিআরও’র মাধ্যমে রিপোর্ট নেবেন।’

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘বিজ্ঞানীরা জনস্বার্থে এটি আবিষ্কার করেছেন। এটি ব্যবহারে যত দেরি হবে তত জনগণের ক্ষতি বেশি হবে। এ গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কারের গুরুত্ব আমরা ওষুধ প্রশাসনকে বোঝাতে পারছি না। সিআরও নামের এজেন্টকে পরীক্ষার জন্য ১০ লাখ টাকা দিতে হবে। আমরা চাই এটির মূল্য ২৫০ থেকে ২০০ টাকায় নামাতে, আর তারা ব্যবসায়িক স্বার্থে নানা অজুহাতে ৫০০ টাকা দাম করতে চায়। ওষুধ প্রশাসন থেকে বলা হয়, দাম বাড়লে বাড়বে। এটা কি জনস্বার্থের কথা হলো? আমার ধারণা, একটা শ্রেণি সরকারের বিরুদ্ধে কাজ করছে।’

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

৪৩ দিনের মাথায় ইতালিতে সর্বনিম্ন মৃত্যুর রেকর্ড

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৬ ১৫:৪৫:৪০

মহামারি করোনাভাইরাসে মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে ইউরোপের দেশ ইতালি। দেশটিতে রোববার পর্যন্ত প্রায় ২৭ হাজার প্রাণহানি ঘটেছে। তবে আস্তে আস্তে কমে আসছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এই যেমন রোববার সেখানে সর্বনিম্ন ২৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা গেল ১৪ মার্চের পর সবচেয়ে কম মৃত্যুর রেকর্ড।

এমনটাই জানিয়েছে দেশটির জননিরাপত্তা সংস্থা (সিপিএ)। শনিবার ইতালিতে ২ হাজার ৩২৪ জন আক্রান্ত হয়েছিল। যা ২০ এপ্রিলের পর সর্বনিম্ন ছিল। আর মৃত্যু হয়েছিল ৪১৫ জনের।

২১ ফেব্রুয়ারি দেশটিতে করোনাভাইরাসে প্রথম প্রাণহানি ঘটে। ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৬ হাজার ৬৪৪। যা বিশ্বে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬৭৫। যা বিশ্বে তৃতীয় সর্বোচ্চ।

শনিবার পর্যন্ত ইতালিতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১ লাখ ৬ হাজার ১০৩ জন। তার মধ্যে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) আছেন ২ হাজার ৯ জন। শনিবার এই সংখাটি ছিল ২ হাজার ১০২ জন। এ পর্যন্ত ৬৪ হাজার ৯২৮ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

৬ কোটি জনসংখ্যার দেশ ইতালির ১ লাখ ১৮ হাজার ৭০০ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে এ পর্যন্ত।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/আই

বিস্তারিত খবর

করোনায় মিশিগানে ৫ বছরের শিশুর মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৬ ০৫:২০:২৮

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মিশিগানে সবচেয়ে কম বয়সী যে শিশুটি মারা গেছে তাঁর নাম স্কাইলার হারবার্ট।এক মাস আগে, ৫ বছর বয়সী স্কাইলার হারবার্ট তার মা-বাবার কাছে অভিযোগ করেছিলেন যে তাঁর মাথাব্যথা করছে।

রবিবার ভেন্টিলেটরে দুই সপ্তাহ কাটানোর পরে ডেট্রয়েটে এই কিশোরীর মৃত্যু হয়। তার শেষ বিদায় আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে। তার পরিবারের পক্ষ থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে। তার মৃত্যুতে মিশিগানে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।গত রবিবার স্কাইলার হার্বার্ট মারা যায়। তাঁর বাবা এব্বি হার্বার্ট জানিয়েছেন, আগামী বুধবার (২৯ এপ্রিল) সকাল ৯ টা থেকে রাত পর্যন্ত ডেট্রয়েটের জেমস এইচ, কোলে ফিউনেরাল হোমে স্কাইলার হার্বার্টের বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। বৃহস্পতিবার পরিবারের পক্ষ থেকে বিদায় জানানো হবে যেখানে ১০ জন অতিথি অংশ নিতে পারবেন।
 
এক মাস আগে স্কাইলারের মাথা ব্যথা শুরু হয়। এরপর তাকে বিউমন্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ২৯ মার্চ। তাঁর মেনিনোগেন্সফ্যালাইটিস রোগ দেখা যায়। যার ফলে তাঁর মস্তিষ্ক ফুলে যায় বলে বাবা-মা জানিয়েছেন। ৪ এপ্রিল তাঁকে ভেন্টিলেটারে রাখা হয়েছিল, সেখানে সে ২ সপ্তাহ ছিল।

স্কাইলারের মা লভন্ড্রিয়া হবার্ট বলেছেন, পরিবার "তাকে ভেন্টিলেটর থেকে সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কারণ" তার অবস্থার উন্নতির সব পথ বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।
স্কাইলারের বাবা-মা, উভয়ই প্রথম প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন যে, তাদের মেয়ে কীভাবে ভাইরাসে সংক্রামিত হয়েছিল তা তারা নিশ্চিত নয়। নগরীর উত্তর-পশ্চিম প্রান্তে বাস করা আফ্রিকান আমেরিকান পরিবার ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত । স্কাইলার কয়েক সপ্তাহ ধরে ঘরে ছিল এবং তার আগে কোনও স্বাস্থ্য সমস্যা ছিল না।

লাভন্ড্রিয়া হবার্ট একজন ডেট্রয়েট পুলিশ অফিসার এবং তার স্বামী একজন সিটি ফায়ার ফাইটার। সোমবার ডেট্রয়েটের মেয়র মাইক ডুগান স্কাইলারকে "ডেট্রয়েট শহরের আসল কন্যা" বলে অভিহিত করেছিলেন। মেয়র বলেছিলেন, স্কাইলারের মর্মান্তিক মৃত্যু "সামাজিক দূরত্বের প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতিবদ্ধতার সাথে ঝুঁকির মধ্যে পড়ে আমাদের সকলের জন্য এটি একটি অনুস্মারক"।
গভর্নর গ্রেচেন হুইটারও স্কাইলারের মৃত্যুর জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

শুক্রবার ওয়েইন কাউন্টি, মিশিগান রাজ্য পুলিশ, ডেট্রয়েট এবং আশেপাশের শহরগুলোর অনেকে স্কাইলারের মৃতদেহের চারপাশে তাদের সরকারী যানবাহন চালিয়ে, লাইট জ্বালিয়ে ও স্কাইলারের পরিবারের জন্য সাইরেন বাজিয়ে একটি রাইড পরিচালনা করা হয়।

এবি হার্বার্ট বলেছেন, এই কঠিন সময়ে আমাদের যে পরিমাণ অপ্রতিরোধ্য সমর্থন ও ভালোবাসা দেখানোর জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এছাড়া কেমিক্যাল ব্যাংকের মাধ্যমে স্কাইলার হারবার্ট মেমোরিয়াল ফান্ডে অনুদান দেওয়া যেতে পারে।
শনিবার মিশিগানের স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, নোভেল করোনাভাইরাসে ১৮৯ জনের প্রাণহানিতে মোট মারা গেছেন ৩ হাজার ২৭৪ জন।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

মানুষের ওপর করোনা ভ্যাকসিনের পরীক্ষা শুরুতেই ব্যর্থ!

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৬ ০৫:১৫:৩২

দুঃসংবাদ, প্রথম ট্রায়ালেই ব্যর্থ হলো মানুষের ওপর করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের পরীক্ষা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওয়েবসাইটে এ নিয়ে প্রথম রিপোর্ট পেশ করা হয়। একই সঙ্গে আমেরিকার ফিনান্সিয়াল টাইমস এবং স্ট্যাট এই রিপোর্ট পেশ করে। যদিও এই ওষুধের নির্মাণ সংস্থা গিলিড জানিয়েছে, আংশিকভাবে সাফল্যের মুখ দেখা গেছে।

যে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, এই ট্রায়ালে যুক্ত ছিলেন চীনের ২৩৭ জন রোগী। ট্রায়াল শুরু হওয়ার পর ১৮ জন রোগীর শরীরে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। তারপরেই মানুষের উপর এই ট্রায়াল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত এক লাখ ৯৭ হাজরেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হলেও প্রকৃতপক্ষে কোন ভ্যাকসিন আবিস্কার সম্ভব হয়নি। জার্মানি এবং ব্রিটেন মানুষের ওপর করোনাভাইরাস ভ্যাকসিন ইতিমধ্যেই সম্মতি দিয়েছিল। কিন্তু সেটিও ব্যর্থ হয়েছে।

প্রসঙ্গত, প্রাণঘাতী করোনার ছোবলে প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা। বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত এক লাখ ৯৭ হাজার ৩০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে আর আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ২৮ লাখ। বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত দেশ হয়েও নোভেল করোনাভাইরাসের সামনে কার্যত অসহায় যুক্তরাষ্ট্র। চীন, ইতালি ও স্পেনের পর আমেরিকায়ও ভয়াবহ মৃত্যুমিছিল শুরু হয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

দেশে নতুন শনাক্ত ৩০৯, আরও ৯ জনের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৫ ০৫:২৮:৫৬

দেশে নভেল করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া নতুন করে আরও ৩০৯ জনের দেহে এই ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত করা হয়েছে।

শনিবার করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তররের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় (শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) মোট ৩ হাজার ৩৩৭টি নমুনা পরীক্ষা করে ৩০৯ জনের দেহে করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এতে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৪ হাজার ৯৯৮ জনে।

ডা. নাসিমা আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪০ জনে।

তিনি জানান, গতকাল শুক্রবার থাকার কারণে দুয়েকটি বেসরকারি পিসিআর ল্যাব টেস্ট করেনি এবং আমাদের রিপোর্ট প্রদান করেনি।

শনিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করা ৯ জন সম্পর্কে ডা. নাসিমা বলেন, এদের মধ্যে নারী ৫ জন ও পুরুষ ৪ জন। এই ৯ জনের মধ্যে সাতজনই সত্তরোর্ধ্ব। বাকি দু'জনের মধ্যে একজনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ এবং আরেকজনের বয়স ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে। এদের মধ্যে ঢাকায় তিনজন এবং ঢাকার বাইরে ছয়জন।

এদিকে, দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন থাকা কেউ শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হননি। ফলে সুস্থ বাড়ি ফিরে যাওয়া মানুষের সংখ্যা ১১২ জনই রইল।

জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর সিস্টেম সায়েন্সেস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (সিএসএসই) তথ্য অনুযায়ী, শনিবার দুপুর পর্যন্ত বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৯৭ হাজার ২১৭ জনের। আর বিশ্বে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ লাখ ১২ হাজার ৫৫৭ জনে। আর ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৭ লাখ ৯৪ হাজার ৩৭৭ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে রেকর্ড ৩ হাজার ৩৩২ জনের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৪ ১৮:৩২:০৮

গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় প্রাণ হারিয়েছে রেকর্ড ৩ হাজার ৩৩২ জন। প্রতি মিনিটে গড়ে সেখানে মারা গেছে প্রায় তিনজন! মহামারি করোনাভাইরাস যুক্তরাষ্ট্রে ছড়িয়ে পড়ার পর একদিনে এতো মৃত্যু এর আগে কেউ দেখেনি। জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়।

তাতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫১ হাজার ৬০৭ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লাখ ১২ হাজার ছাড়িয়েছে। দেশটিতে করোনাভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করে সেরে উঠেছে ৯২ হাজার ২৬৬ জন। চিকিৎসাধীন রয়েছে ৭ লাখ ৬৮ হাজার ৯৬৫ জন। তাদের মধ্যে ১৪ হাজার ৯৩২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক রাজ্যেই মারা গেছে ২১ হাজার ২৮৩ জন। নিউ জার্সিতে ৫ হাজার ৬১৭ জন। মিশিগানে প্রাণ হারিয়েছে ৩ হাজার ৮৫ জন। ম্যাসাচুসেটসে ২ হাজার ৩৬০ জন। এ ছাড়া বাকি ৪৬টি অঙ্গরাজ্যেই বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল।

মহামারি করোনাভাইরাসে বিশ্বের ২১০টি দেশ ও দুটি আন্তর্জাতিক অঞ্চলের ২৮ লাখ ১৩ হাজার ৫৩৮ জন আক্রান্ত হয়েছে। প্রাণ হারিয়েছে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৪১২ জন। করোনার কবল থেকে সেরে উঠেছে ৭ লাখ ৭৮ হাজার ৪২৭ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি
 

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত