Updates :

        ম্যারাডোনার সমাধিতে চুরি: প্রহরায় সশস্ত্র পুলিশ

        নিরীহ আফগান নাগরিকদের হত্যার বিচার চাইল চীন

        বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ কিনবে সৌদি-ভারত-নেপাল-ভুটান

        ভাস্কর্য আর মূর্তি এক নয়: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

        আগামী বছর ‘বিশ্ব শান্তি সম্মেলন’ আয়োজন করবে বাংলাদেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

        টিকা নিন, সুস্থ থাকুন: ফাউসি

        আজ বিশ্ব এইডস দিবস: বিশ্বে প্রতিদিন সাড়ে ৫ হাজার মানুষ এইডসে আক্রান্ত হয়

        এলো রক্তঝরা বিজয়ের মাস

        'ঐতিহাসিক' মন্ত্রিসভা গড়ছেন বাইডেন

        যুক্তরাষ্ট্র পেতে পারে প্রথম নারী অর্থমন্ত্রী

        অবৈধ অভিবাসীদের গণনা জটিলতা, সুপ্রিম কোর্টে শুনানি

        টিকা অনুমোদনের জন্য আবেদন করছে মডার্না

        পা ভাঙ্গলেন বাইডেন!

        করোনা সংক্রমণের আতঙ্কে শ্রীলঙ্কায় কারাগারে সংঘর্ষে নিহত ৬

        মাস্ক না পরলে জেলেও যেতে হতে পারে বাংলাদেশে

        এমসি কলেজে ধর্ষণ: ডিএনএ টেস্টে ৮ আসামিরই জড়িত থাকার প্রমাণ

        জিয়াউর রহমানের নামে থাকা বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করায় বিএনপির নিন্দা

        সৃষ্টিকে ভালোবাসুন, ভালো লাগার মতো নিজেকে যোগ্য করে তুলুন

        দেশে মাশরুমের মতো বেসরকারি মেডিকেল কলেজ গড়ে উঠেছে

        ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টরের বিনামূল্যে চোখের চিকিৎসা

করোনার দ্বিতীয় টেউ;বিচক্ষণতায় সামলাতে হবে

করোনার দ্বিতীয় টেউ;বিচক্ষণতায় সামলাতে হবে

শীতের আগমনী বার্তায় চারদিক যেন কুয়াশাঘেরা চৌচির জমিন বুকে ফাটল ধরেছে।ভোরে সামান্য কাছেও কুয়াশায় ঢাকা থাকায় দেখা যায় না কিছুই।মানে শীত ধীরে ধীরে ঝেঁকে বসেছে। এই সময়টা ঋতু পরিবর্তনের কারণে এমনিতেই কমবেশি সবার ফ্লো লেগে আছে। জ্বর, সর্দি  আর সারাশরীরে প্রচন্ড ব্যথা,যন্ত্রণা। এখন এই অবস্থায় মানুষ জীবন-জীবিকার তাগিদে বের হতে হচ্ছে প্রবল করোনার দ্বিতীয় টেউয়ের ভিতরেই।

কোন উপায় নেই যে আর ঘরের অভিভাবকদের। আমি নিজেও যাই।তার ফল স্বরূপ দীর্ঘদিন জ্বর লেগে আছে।প্রশাসন উর্ধতনের এ ব্যাপারে সকল চাকরীজীবীদের বাঁচাতে সুদৃষ্টি কামনা করছি।যদিও প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে মাস্ক না পরলে সকল সেবা বন্ধ থাকবে গ্রাহকের।এসব কেউ মানে না এই দেশে যা বিভিন্ন পত্রিকা,গণমাধ্যমে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত।

তাহলে কি করে স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত নেবেন?ছোট ছোট মাসুম শিশুরা দেশের ভবিষ্যৎ মানছি।কিন্তু লেখাপড়ার চেয়ে জীবন অনেক মূল্যবান।স্কুল,কলেজ আর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সব সময় স্বাস্থ্যবিধি মানবে না।গ্রামেগঞ্জের অবস্থা স্বচক্ষে দেখলাম কারো মুখেই মাস্ক নাই। পাড়ার দোকানে বসে আড্ডা চলছে সেই আগের মতোই।তাহলে এতো বড় একটা জনগোষ্ঠীকে করোনার দ্বিতীয় টেউ থেকে রক্ষা করতে লকডাউন জরুরী কিছুদিনের জন্য।বিশ্ব এই নীতি অনুসরণ করছে।যদিও আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে দীর্ঘদিন লকডাউনে জনজীবন অচল হয়ে যাবে।

তাই জনসংখ্যার কিয়দংশের এক ভাগ হলেও লকডাউনের আওতায় থাকা সমীচীন।বেঁচে থাকলে আসছে বছর পড়ালেখা স্বাভাবিক গতিতে চলবে বৈকি।আমাদের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা সুন্দর, নিরাপদে ঘরে থাকুক।ঘরই হোক তাদের আনন্দ স্কুল।


লেখক: শিক্ষক, কবি ও প্রাবন্ধিক

শেয়ার করুন