যুক্তরাষ্ট্রে আজ রবিবার, ০৫ Jul, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 10:49pm

|   লন্ডন - 05:49pm

|   নিউইয়র্ক - 12:49pm

  সর্বশেষ :

  করোনার মধ্যেও শত শত মানুষের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন   রক্ত দান ও ফ্লাইওভারে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন নিক্সন লাইব্রেরি   সাউথ লস এঞ্জেলেসে এ্যাম্বুলেন্স চুরির ঘটনায় আটক ১   করোনায় মারা গেলেন লস এঞ্জেলেস পুলিশ কর্মকর্তা   ভিন্নরকম আয়োজনে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবস   বর্ষসেরা চিকিৎসক হয়ে যুক্তরাজ্যের বিলবোর্ডে বাংলাদেশি ফারজানা   দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৯, শনাক্ত ৩২৮৮   অরেঞ্জ সিটির আন্তর্জাতিক স্ট্রিট ফেয়ার হচ্ছে না   ক্যালিফোর্নিয়া পালন করবে ব্যতিক্রমী স্বাধীনতা দিবস   ক্যালিফোর্নিয়ার নাগরিকদের করোনা ভীতি কমছে   ভাবুন সকলেই করোনায় আক্রান্ত’, বললেন মেয়র   সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলো মায়ের গর্ভের আট মাসের শিশু   আগুনে পুড়লো সান বার্নারদিনো ন্যাশেনাল ফরেস্টের ১০০ একর   যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে বিশিষ্টজনদের ভাস্কর্য রক্ষায় ট্রাম্পের উদ্যোগ   স্বাধীনতা দিবসের জমায়েতে যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আশঙ্কা

>>  প্রবাসী কমিউনিটি এর সকল সংবাদ

নর্থ মেসিডোনিয়ায় ট্রাক থেকে ৬৪ বাংলাদেশি আটক

দক্ষিণ পূর্ব ইউরোপের বলকান অঞ্চলের দেশ নর্থ মেসিডোনিয়ায় ৬৪ জন বাংলাদেশি অভিবাসীকে একটি ট্রাক থেকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ। নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে।

পুলিশের বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, স্থানীয় সময় সোমবার (২২ জুন) নিয়মিত টহলের সময় ৬৪ জন বাংলাদেশি অভিবাসীকে আটক করা হয়।

গ্রিসের সঙ্গে দেশটির সীমান্তের কাছাকাছি মহাসড়ক থেকে তাদের আটক করা হয়। আটক অভিবাসীদের সীমান্তের কাছে গেভগেলিজা নামক একটি শহরে স্থানান্তর করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ২৩ জুন এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয় নর্থ মেসিডোনিয়ার পুলিশ। তবে আটক হওয়া অভিবাসীদের

বিস্তারিত খবর

করোনায় মারা গেছেন এক হাজার প্রবাসী বাংলাদেশি

 প্রকাশিত: ২০২০-০৬-১৫ ১৩:৪০:৪১

প্রবাসে করোনাভাইরাসে প্রায় ১ হাজার বাংলাদেশি মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, সারা বিশ্ব স্তব্ধ হয়ে গেছে। এই করোনাভাইরাসের কারণে বহু মৃত্যুও ঘটছে। যা সত্যিই আমাদের জন্য দুঃখজনক ঘটনা।

সোমবার আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন বাংলাদেশ কৃষক লীগের বৃক্ষরোপণ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এই করোনাভাইরাসে মৃত্যুবরণ করছে। যারা করোনাভাইরাসে মৃত্যুবরণ করেছে, আমি তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করি, শান্তি কামনা করি। এর হাত থেকে পৃথিবী মুক্তি পাক।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনাভাইরাস যেমন আমাদের অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতি হচ্ছে, মানুষের ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষতি হচ্ছে, কাজের ক্ষতি হচ্ছে। এটাও যেমন ঠিক আবার প্রাকৃতিক ভারসাম্য যেভাবে নষ্ট হচ্ছিল। এসবের খারাপের দিক থাকার পরও আমি একটা ভালো দিক দেখতে পাচ্ছি। প্রাকৃতিক ভারসাম্য যেটা নষ্ট হয়েছিল, ওজন লেয়ার যেটা সৃষ্টি হয়েছিল। প্রকৃতি যেখানে সম্পূর্ণরূপে দূষিত হয়ে যাচ্ছিল। দূষণ যেভাবে পৃথিবীকে গ্রাস করছিল, করোনাভাইরাস আসার পর এই যে ৩/৪ মাস লকডাউন। এর ফলে প্রকৃতি কিন্তু হেসেখেলে উঠেছে। সবুজে সবুজে ভরে যাচ্ছে। ফুলে ফলে ভরে যাচ্ছে। এটাও কিন্তু প্রকৃতির অদ্ভূত একটা খেলা।

করোনাভাইরাস মহামারী সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ৯ হাজার ৫০০ কোটি টাকা কৃষি ভর্তুকির জন্য আলাদা করে রেখেছি। কারণ, পেটে খেলে পিঠে সয়। এবার করোনাভাইরাসের জন্য বিশ্বে যে দুর্ভিক্ষ দেখা দিচ্ছে, খাদ্যের যে অভাব বাংলাদেশে যেন সেই অভাবটা না হয় সেজন্য আমরা বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। যাতে আমার দেশের কোনো খাদ্যে সমস্যা না হয়।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এন

বিস্তারিত খবর

ক্যালিফোর্নিয়ায় নার্সিং হোমে করোনায় প্রথম প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৬-০৩ ০৫:৪১:০৯

লস এঞ্জেলেসের অদূরে অরেঞ্জ কাউন্টিতে করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রথম বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। অরেঞ্জ কাউন্টির আরবাইন নিবাসী বাবু চৌধুরী নামের এই প্রবাসী গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় ফ্রেঞ্চপার্ক নার্সিংহোমে ইন্তকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর।

তার এক আত্মীয়ের সূত্রে জানা যায়, বাবু চৌধুরী পেশায় একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ছিলেন। কয়েকদিন আগে তার হার্ট অ্যাটাক হয়। এছাড়া তিনি নিউমোনিয়ায় ভুগছিলেন। ৮ দিন আগে তার করোনা পজিটিভ আসে। অসুস্থতা নিয়ে তিনি নার্সিং হোমে চিকিৎসাধীন ছিলেন। আজ সকালে মৃত্যুবরণ করেন।

       স্ত্রী-সন্তানদের সাথে বাবু চৌধুরী


বাবু চৌধুরীর দেশের বাড়ি খুলনায়। ৯০ এর দশকে তিনি আমেরিকা আসেন। দীর্ঘদিন এলএ কাউন্টির লংবিচে বাস করেছেন। গত ১০ বছর ধরে আরবাইন শহরে বসবাস করছেন। মৃত্যুকালে ৩ তিন ছেলে ও স্ত্রীকে রেখে গেছেন। স্ত্রী লীনা চৌধুরী, বড় ছেলে লনি চৌধুরী সান্তা ক্লারিটা থাকেন, মেঝ ছেলে অভি চৌধুরী আটলান্টা আর ছোট ছেলে নাসির চৌধুরী থাকেন আরবাইনে। 

পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী শুক্রবার পাম ডেল মসজিদে জানাযা ও দাফন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশীকে গুলি করে হত্যা করল মানবপাচারকারীরা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-২৮ ১৪:৫৯:০০

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশীসহ ৩০ অভিবাসী শ্রমিককে গুলি করে হত্যা করেছে মানবপাচারকারী চক্রের এক সদস্যের পরিবারের লোকজন। নিহত বাকি চারজন আফ্রিকান।

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) লিবিয়ার সংবাদমাধ্যমে এ খবর জানিয়ে বলা হয়েছে, সাহারা মরুভূমি অঞ্চলের মিজদা শহরের এ ঘটনায় আরও ১১ জন আহত হয়েছেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, বাংলাদেশীসহ ওই অভিবাসীদের মিজদা শহরের একটি জায়গায় টাকার জন্য জিম্মি করে রেখেছিল মানবপাচারকারী চক্র। এ নিয়ে এক পর্যায়ে ওই চক্রের সাথে মারামারি হয় অভিবাসী শ্রমিকদের। এতে এক মানবপাচারকারী মারা যায়। তারই প্রতিশোধ হিসেবে সেই মানবপাচারকারীর পরিবারের লোকজন এ হত্যাকাণ্ড ঘটায়।

এ বিষয়ে লিবিয়ার পশ্চিমা-সমর্থিত জাতীয় সরকার (জিএনএ) জানিয়েছে, মানবপাচারকারী চক্র ও অভিবাসী শ্রমিকদের মধ্যে যে বিরোধ চলে আসছিল, তার জেরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। আহতদের নিকটস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) লিবিয়া কার্যালয়ের মুখপাত্র সাফা সেহলি বলেন, আমরা এই মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডের খবরটি শুনেছি এবং বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছি। যারা বেঁচে গেছেন তাদের পাশে আছে আইওএম।

মোয়াম্মার গাদ্দাফির সময় থেকে তৈল-নির্ভর অর্থনীতির দেশ লিবিয়া উন্নয়নশীল দেশগুলোর অন্যতম বড় শ্রমবাজার। এই দশকের শুরুতে আরব বসন্তের জেরে গাদ্দাফির পতনের পর গৃহযুদ্ধ বেঁধে গেলে লিবিয়ার শ্রমবাজারও ধাক্কা খায়। এক পর্যায়ে দেশটি হয়ে ওঠে ইউরোপে পাড়ি দেয়ার প্রধানতম রুট।

অন্যদিকে জিএনএকে পশ্চিমা দেশগুলো স্বীকৃতি দিয়ে এলেও সেখানে ভিন্ন ভিন্ন অঞ্চলে ভিন্ন ভিন্ন গোষ্ঠীর শাসন কায়েম রয়েছে। ক্ষমতার সংঘাতে লিবিয়ায় প্রায়ই বেসামরিক লোকজনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

করোনা: বিভিন্ন দেশে ৪৭২ বাংলাদেশির মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-০৮ ১৩:২৪:২৪

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত অন্তত ৪৭২ বাংলাদেশি মারা গেছেন। বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশের দূতাবাস, প্রবাসী কমিউনিটি ও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

এর মধ্যে করোনায় সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। শুক্রবার (৮ মে) পর্যন্ত কেবল যুক্তরাষ্ট্রেই করোনায় অন্তত ২৩৪ বাংলাদেশির মৃত্যু হয়। যদিও শেষ ২৪ ঘণ্টায় এখানে নতুন করে আর কোনো বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। কেবল মৃত্যু নয়, আক্রান্তের দিক দিয়েও এ দেশে ঝুঁকির মধ্যে আছেন বাংলাদেশিরা। কয়েকশ’ করোনা আক্রান্ত বাংলাদেশি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি প্রবাসী বাংলাদেশি মারা গেছেন যুক্তরাজ্যে। এখানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন অন্তত ১২৩ বাংলাদেশি।

বিশ্বের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যেই করোনার প্রকোপ সবচেয়ে বেশি। এ দুই দেশে প্রবাসী বাংলাদেশির সংখ্যাও বিশ্বের অন্য দেশগুলোর চেয়ে তুলনামূলক বেশি। ফলে দুইখানেই বাংলাদেশিদের করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তের ঘটনা তুলনামূলক বেশি।

এর বাইরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সৌদি আরবে এখন পর্যন্ত ৬৫ বাংলাদেশি নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে।  এছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১৫ জন, ইতালিতে ৮,  কানাডায় ৭, স্পেনে ৫, কাতারে ৪,  কুয়েতে ৩,  সুইডেনে ২,  লিবিয়ায় ১,  ফ্রান্সে ১,  পর্তুগালে ১, গাম্বিয়ায় ১,  দক্ষিণ আফ্রিকায় ১ ও কেনিয়ায় ১ বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে।

সিঙ্গাপুরেই সবার আগে প্রবাসী এক বাংলাদেশির করোনা আক্রান্তের খবর পাওয়া গেলেও সেখানে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে কোনো বাংলাদেশির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। যদিও আক্রান্ত ৪ হাজারেরও বেশি বাংলাদেশি।

বিস্তারিত খবর

করোনা পরিস্থিতিতে বিপদগ্রস্থ মানুষের পাশে বাফলা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৫-০৩ ০৯:২৮:৩৩

করোনায় কর্মহীন অসহায় ও দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অব লস এঞ্জেলেস (বাফলা)। গত শনিবার সিলেট নগরীর গোটাটিকর ষাটঘর এলাকাসহ আশপাশের কয়েটি গ্রামে কর্মহীন ১৩০টি পরিবারের মাঝে বাফলা চ্যারিটির উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

বাফলা চ্যারিটির কো-অর্ডিনেটর জসীম আশরাফী জানান, কোভিড-১৯ বাফলা এসিস্ট্যান্ট প্রোগ্রামের আওতায় আগামী ৩ মাস বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে খাদ্য সহায়তা ও চিকিৎসকদের পিপিইসহ চিকিৎসা সামগ্রী দেওয়া হবে।

এছাড়াও, করোনা পরিস্থিতিতে লস এঞ্জেলসহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঞ্চলের প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঝেও সেবাগুলোও পৌঁছে দিচ্ছে সংস্থাটি।

করোনা ভাইরাসের কারণে সর্বসাধারণকে ঘর থেকে বের হতে নিষেধ করেছেন বাংলাদেশ সরকার। অনেক হতদরিদ্র ও মধ্যবিত্ত পরিবার লক ডাউনের কারনে কাজে যেতে পারছেন না। সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যাক্তিও খাদ্য সহায়তা প্রদান করছেন। মানবতার এই শ্রেষ্ঠ উদাহরণ হলো মানবসেবা। এরই মধ্যে বাফলা’র পক্ষ থেকে হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী ঘরে নিয়ে পৌঁছে দেওয়া হয়।

সিলেটে এই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সমন্বয়ন করেন বাফলার পাবলিক রিলেশন সেক্রেটারি আব্দুস সামাদ।
খাদ্য সামগ্রী বিতরণের সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার পলাশ রঞ্জ দে, মোগলাবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ আখতার হোসেন, সাংবাদিক শিপন আহমদ, মুরব্বি লাল মিয়া, হারুন মিয়া, মুহিবুর রমান রনি, শদিুল ইসলাম প্রমূখ।

প্রধাণ অতিথির বক্তব্যে পলাশ রঞ্জ দে বলেন, মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য, এই দূর্যোগ মুহুর্তে আমাদের প্রবাসীরা তাদের মাতৃভূমিকে ভুলেনি। তারা প্রবাসে খুব বেশি ঝুঁকির মধ্যে থেকেও বাংলার সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন সহায়তা প্রদান করছেন। সব চেয়ে বেশি ঝুঁকিতে যুক্তরাষ্ট্র এরপরও বাংলাদেশ ইউনিটি ফেডারেশন অব লস এঞ্জেলেস (বাফলা ) নিজের দেশের গরীব হতদরিদ্র ১৩০টি পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করছেন। আমি বাফলাকে ধন্যবাদ জানাই। বাফলার মত আরো অনেক প্রবাসী সংগঠন এগিয়ে আসছেন আমি তাদেরকেও ধন্যবাদ জানাই। এখন আমরা যে যার অবস্থান থেকে মানুষকে সাহায্য করবো। তিনি সবাইকে এই দূর্যোগ মুহুর্তে এগিয়ে আসার আহবান জানান।
আব্দুস সামাদ জানিয়েছেন, প্রতিষ্ঠাকাল থেকে দেশ-বিদেশে জনকল্যাণমূলক কাজ করে আসছে বাফলা। করোনাভাইরাসের এই সময়েও ‘কোভিড-১৯ বাফলা এসিস্ট্যান্স প্রোগ্রাম’ শিরোনামে সহযোগিতা কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি এক ভার্চুয়াল মিটিংয়ে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এজন্য ১০ হাজার ডলারের টার্গেট নিয়ে ফেসবুক ফান্ডরাইজিং চলছে।
এই ফান্ড থেকে ৪টি কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে:

১. করোনার প্রভাবে আর্থিক ক্ষতিগ্রস্থ লস এঞ্জেলেসের স্থানীয় পরিবারগুলোর মধ্যে সহযোগিতার জন্য জরুরি খাদ্য পণ্য বা নগদ অর্থ প্রদান।

২. লস এঞ্জেলেস এবং আশপাশের সিটিতে মাস্ক বিতরণ।

৩. বাংলাদেশে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থদের সহযোগিতা।

৪. বাংলাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদেরকে পিপিই প্রদান।



বাফলার প্রেসিডেন্ট শিপার চৌধুরী জানিয়েছেন, কারও আশপাশের কেউ করোনার কারণে কোন বিপদে বা আর্থিক সঙ্কটে থাকলে আমাদের অবগত করুন। আমরা তাদের পাশে দাঁড়াবো। যে কেউ চাইলে এই ফান্ডে অনুদান প্রাদান করতে পারেন। অনুদানের পাশাপাশি আপনার জাকাতের টাকাও দিতে পারেন বাফলা চ্যারিটির ফান্ডে। বাফলা IRS 501(c)(3) tax deductible status. আপনার টাকা সম্পূর্ণ ট্যাক্স মুক্ত।
সাহায্যের জন্য আমাদের কাছে অনেকে আবেদন করেছেন। যেহেতু বাফলা শুরু থেকেই চ্যারিটির কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। আপনারা জানেন আমরা সবাই আর্থিক সঙ্কটে‌। বাফলার নেতৃবৃন্দও এর বাইরে নয়। তারপরেও সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াতে চাই।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

করোনায় মৃত্যু: ব্রিটিশ মন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে বললেন বাংলাদেশি ছেলে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৮ ১১:০৮:২০

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ব্রিটেনে বাংলাদেশি এক চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার জন্য ভুল স্বীকার করে ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে বললেন ঐ চিকিৎসকের ছেলে।

আব্দুল মাবুদ চৌধুরী ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য ব্যবস্থা (এনএইচসের) একজন চিকিৎসক ছিলেন। এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পূর্ব লন্ডনের একটি হাসপাতালে মারা যান তিনি।

এতে ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকককে ক্ষমা চাইতে বলেন ১৮ বছর বয়সী ছেলে ইনতিসার চৌধুরী।

তিনি স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘ভাইরাসটি মোকাবেলা করতে গিয়ে যেসব ভুল হয়েছে তা স্বীকার করুন। এতে আপনি আরও বেশি মানবিক হয়ে উঠবেন।’

ঐ চিকিৎসকের ছেলে আরও বলেন, ‘আজকের সংবাদ সম্মেলনের সময় আপনি কি দয়া করে আমাদের জন্য জনগণের কাছে এই ক্ষমাটুকু চাইতে পারবেন?’

সরকারি হিসেবে ব্রিটেনে অন্তত ৮২ জন এনএইচএস কর্মী এবং ১৬ জন কেয়ার কর্মী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন।

এদের মধ্যে একজন হলেন বাংলাদেশি চিকিৎসক আবদুল মাবুদ চৌধুরী। তিনি মৃত্যুর আগে স্বাস্থ্য কর্মীদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সামগ্রী বা পিপিইর বিষয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে সতর্ক করে ছিলেন।

তিনি এক খোলা চিঠিতে লিখেন, ‘প্রিয় প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, দয়া করে ব্রিটেনে এনএইচএসের সমস্ত স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য ব্যক্তিগত সুরক্ষার জিনিসপত্র নিশ্চিত করুন। আমাদেরও অধিকার আছে এই পৃথিবীতে সন্তান এবং পরিবার নিয়ে বেঁচে থাকার।’


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশির মৃত্যু ২০০ পেরিয়েছে

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৭ ০৮:০২:২৯

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশির মৃত্যুর সংখ্যা ২০০ পেরিয়ে গেছে। ২৬ এপ্রিল আরও তিন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে আমেরিকায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২০১ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হলো।
গত কয়েক সপ্তাহের মধ্যে নিউইয়র্কে ২৬ এপ্রিল মৃত্যুর সংখ্যা ৪০০-এর নিচে নেমে এসেছে। এদিন রাজ্যে মৃতের তালিকায় ৩৬৭ জনের নাম যুক্ত হয়েছে।

এদিকে ২৬ এপ্রিল মৃত্যুবরণকারী বাংলাদেশিরা হলেন-জাসাসের সাধারণ সম্পাদক হেলাল খানের বাবা আবদুন নুর খান, নিউইয়র্ক নগরীর ট্রাফিক বিভাগের সুপারভাইজার আহসান মোহাম্মদ ও ওয়াশিংটন ডিসিতে খাদিজা বেগম ।

তবে হাসপাতালে ভর্তি, ভেন্টিলেশনে যাওয়া ও মৃতের হার ক্রমাগত কমার দিকে হলেও দিনে ১০০০ করে নতুন রোগীর হাসপাতালে আগমন ঘটছে। এ বিষয়টা মোটেই সুখকর নয় বলে উল্লেখ করেছেন রাজ্য গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো। করোনাভাইরাসে রাজ্যের ১৭ হাজার মানুষ হারিয়ে ধাপে ধাপে সব কিছু খুলে দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে নিউইয়র্কে। ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই নাকাল হতে থাকা নিউইয়র্ক হুট করেই খুলছে না। গভর্ণর কুমো ধাপে ধাপে খোলার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। প্রথম ধাপে নিউইয়র্কের ওয়েস্টচেষ্টার এলাকা ১৫ মে থেকে খুলে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ নিয়ে রাজ্য গভর্নরের বিস্তারিত নির্দেশনা এ সপ্তাহেই আসবে।

নিউইয়র্ক, নিউজার্সি ও কানেকটিকাট মিলে লকডাউন উঠিয়ে দেওয়ার কৌশল ঠিক করা হচ্ছে। আগামী ১৫ মে পর্যন্ত জারি থাকা লকডাউন চালু থাকবে। এর মধ্যে আসছে দুই সপ্তাহ কঠোর পর্যবেক্ষণ করা হবে। অর্থনৈতিক কৌশল ও জনস্বাস্থ্য সংরক্ষণের কৌশলকে মাথায় রেখে কাজ করা হচ্ছে বলে নিউইয়র্কের গভর্নর জানিয়েছেন। এ ছাড়া স্বাস্থ্য সাবধানতা অবলম্বন করে প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের কৌশল ঠিক করবে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী জিকু বড়ুয়ার মায়ের মৃত্যু, এলএ বাংলা টাইমস সিইও’র শোক

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৪ ১৬:২৯:৩৮

লস এঞ্জেলেস প্রবাসী কমিউনিটি এক্টিভিস্টি নিরুপম বড়ুয়া (জিকু)-এর মা পারুল বড়ুয়া আর নেই। তিনি গত বুধবার রাতে হার্ট স্ট্রোক করে চট্টগ্রামে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়সে হয়েছিল ৫৫ বছর।   

পারুল বড়ুয়া ২ ছেলে, এক মেয়ে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখেছেন। বড় ছেলে  নিরুপম  বড়ুয়া (জিকু) লস এঞ্জেলেস প্রবাসী।‌ ছোট ছেলে রিপন বড়ুয়া‌ এসএসসির ফলপ্রার্থী এবং মেয়ে‌ বৃষ্টি বড়ুয়া বিবাহিত।
 
জিকু বড়ুয়া জানিয়েছেন, পারুল বড়ুয়া দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপে ভুগছিলেন। গত বুধবার হঠাৎ হার্ট স্ট্রোক করে তিনি মৃত্যু বরণ করেন।

এলএ বাংলা টাইমসের সিইও’র শোক:
কমিউনিটি এক্টিভিস্টি নিরুপম বড়ুয়া (জিকু)-এর মায়ের মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন এলএ বাংলা টাইমসের সিইও আব্দুস সামাদ। এক শোক বার্তায় তিনি তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে বলেন, লস এঞ্জেলেস প্রবাসীদের অতি পরিচিত মুখ জিকু বড়ুয়ার মায়ের আকস্মিক মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। আমরা তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। সৃষ্টিকর্তা তাদেরকে মা হারানোর এই শোক সইবার ক্ষমতা দিন।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

নিউজার্সিতে বাসায় থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে করোনা থেকে সুস্থ ছাত্রলীগনেতা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২৩ ০৫:১৩:১৬

কোভিড নাইনটিনের দোহাই দিয়ে অভিবাসী দেশ আমেরিকায় অস্থায়ীভাবে সব ধরনের অভিবাসন স্থগিত করছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।আগামী  গত বুধবারএ বিষয়ে এক নির্বাহী আদেশ জারি করবেন তিনি। এদিকে লক ডাউন খুলে দেওয়া নিয়েও বিতর্ক চাঙ্গা। সব মিলিয়ে এক অস্থির দেশ স্বপ্নের আমেরিকা।অন্যদিকে আক্রান্ত ও মৃত্যুর দিক দিয়ে সমান তালে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে আমেরিকার পাশাপাশি দুটি রাজ্য নিউইয়র্ক ও  নিউজার্সি ।করোনা রোগী সামাল দিতে সেখানকার হাসপাতালগুলো রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে।

ঠিক সে সময় নিউজার্সিতে হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে নিজ বাসায় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সম্পুর্ণ সুস্থ হয়েছেন রাজু খান নামে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী ।

নিউজার্সির প্যাটরসন সিটিতে বসবাসকারী  নিউজার্সি স্টেট ছাত্রলীগ নেতা ও নিউজার্সি ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার টেকনোলজি এন্ড মেডিকেল ইনফোরম্যাটিক্স ডিপার্টমোন্টের শেষবর্ষের ছাত্র রাজু খান কিভাবে করোনা সংক্রমিত হয়েছিলন সেটা তিনি বুঝতেই পারেন নাই।
রাজু জনান  ১৪-১৫দিন আগে জ্বর, সর্দি কাশি অনুভব করেন ,প্রথমে স্বাভাবিক সিজনাল জ্বর মনে করে ২ দিন বাসায় থাকার পর যখন  জ্বর কমেনি এবং জ্বরের সাথে প্রচণ্ড মাথাব্যথা শুরু হয় তখন, সে নিজে থেকে পেসাইক কাউন্টি ড্রাইভ ত্রো কোবিড ১৯ টেস্টিং সাইটে গিয়ে দীর্ঘ তিন ঘন্টা দাড়িয়ে থেকে করোনা টেস্টের জন্য নমুনা জমা দেন।জমা দেওয়া পর রাজুকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়ে দ্বায়িত্বে থাকা স্বাস্থকর্মীরা বলেন টেস্টের রেজাল্ট যদি পজিটিভ হয় তাহলে ৭২ঘন্টার ভিতরে থাকে জানানো হবে আর নেগেটিভ হলে রিপোর্ট আর দেয়া হবেনা ।

এরপর ঠিক ৭২ ঘন্টা পরে তাকে ফোন করে জানিয়ে দেওয়া হয় তার নমুনা পজিটিভ এবং বাসায় আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ নির্দেশ দেন এবং তার প্রাইমারী চিকিৎসক  ড. রেহেনা রব ডি এন পি এর সাথে যোগাযোগ করতে বলা হয়।আর  শ্বাস-প্রশ্বাস কষ্ট হলেই হাসপাতালে যেতে।

এরপর থেকে প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট টাইমে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চিকিৎসা নিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সাধারণ সর্দি জ্বর কাশির ওষুধ গ্রহন করে ১৪দিন আইসোলেশনে থেকে সম্পুর্ণ সুস্থ হয়ে উঠেন।

করোনা মুক্ত হওয়ার পর রাজু জানায় করোনা পজিটিভ থাকলেও হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে নিজ বাসায় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী আইসোলেশনে থেকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থেকে সাধারণ প্রতিরোধের নিয়ম মেনে ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খেয়ে খুব সহজেই করোনা মুক্ত হওয়া যায়।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

আমেরিকায় আরও ৯ জনসহ ১৮৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২২ ০৯:০১:৫৮

আমেরিকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও নয়জন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে আমেরিকায় ১৮৭ বাংলাদেশির মৃত্যু হলো। লকডাউনের সীমাবদ্ধতার কারণে তথ্য সংগ্রহে সমস্যা হওয়ায় এ সংখ্যার কিছুটা তারতম্য হতে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হওয়া বাংলাদেশিরা হলেন-সিরাজুল ইসলাম, আবদুর রাজ্জাক, বাবুল ইসলাম, শফি হায়দার, বিদ্যুৎ দাস, আতাউর রহমান চৌধুরী, আবদুস সালাম খান, আবদুল খালেক ও আবু জাহের ।

করোনায় মৃত্যু হওয়া আবদুস সালাম খান (৭৬) জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটির সভাপতি মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম দেলোয়ারের শ্বশুর। তিনি ২১ এপ্রিল লং আইল্যান্ডের নর্থশোর হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে, পাঁচ মেয়ে ও নাতি-নাতনিসহ বহু আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন। মরহুমের দেশে বাড়ি সিলেট জেলার বিয়ানিবাজার উপজেলার কুড়ার বাজার ইউনিয়নের আঙ্গারজুর গ্রামে।

এদিকে নিউইয়র্কে ছোট ভাইয়ের পর বড় ভাইয়েরও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে। তিন সপ্তাহের ব্যবধানে একই পরিবারের দুজনের মৃত্যুতে শোকে বিহ্বল হয়ে আছে পরিবারের সদস্যরা। টাঙ্গাইল জেলা সমিতি ইউএসএর সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক মোহাম্মদ খান রাজেশের বড় ভাই শফি হায়দারের (৫৪) ২১ এপ্রিল মৃত্যু হয়। তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৩০ মার্চ থেকে ম্যানহাটনের মাউন্টসিনাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তাঁর ছোট ভাই সাইফুর হায়দার খান আজাদ (৪৭) করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৪ এপ্রিল মৃত্যুবরণ করেন। মরহুম শফি হায়দারের স্ত্রী মাসুমা পারভীন তাঁদের ছোট মেয়েকে নিয়ে বাংলাদেশে বেড়াতে গিয়ে আটকা পড়েছেন।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কের প্রিয়মুখ প্রকৌশলী বিদ্যুৎ দাস ২১ এপ্রিল স্থানীয় সময় রাত আটটা পাঁচ মিনিটে হাসপাতালে পরলোক গমন করেন। বেশ কিছুদিন থেকেই তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বিদ্যুৎ দাস যুক্তরাষ্ট্র হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টানন ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী কেকা দাস, কন্যা কুহু ও পুত্র আকাশকে রেখে গেছেন। তিনি স্ট্যাটেন আইল্যান্ডে বাস করতেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এন

বিস্তারিত খবর

ইতালিতে ৪ বছরের কন্যাকে খুন করে বাংলাদেশির আত্মহত্যার চেষ্টা

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-২২ ০৮:২৫:০৫

ইতালির আরেজ্জো প্রভিন্সের লেভান ভালদারনো এলাকায় এক বাংলাদশি ৪ বছরের শিশু কন্যাকে খুন করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ।স্থানীয়রা জানায় মঙ্গলবার সকালে ৪ বছরের শিশু কন্যাকে রান্না ঘরের ছুরি দিয়ে গলা কেঁটে হত্যা করে ডুবায় ফেলে দেয় পাষণ্ড বাবা। এসময় ১২ বছরের ছেলেকেও মাথায় প্রচন্ড আঘাত করে হত্যার চেষ্টা করে।আহত ছেলে দৌড়ে পাশের বাংলাদেশি এক বাসায় আশ্রয় নেয়।এ ঘটনা দেখে তাদের প্রতিবেশি একজন পুলিশকে ফোন করে।

এক পর্যায়ে পাষণ্ড ৩৯বছর বয়সী বাংলাদেশি আত্মহত্যার চেষ্টা করলে এসময় ইতালির দমকলবাহিনী ও ক্যারাবিন্যারি (সামরিক বাহিনীর একটি ইউনিট) তাদের উদ্ধার করে।
গুরতর আহত বাবা ও ছেলেকে সাথে সাথে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাবা এবং ছেলে দুজনেই স্থানীয় সান মারিয়া ডেল গুরসিয়া হাসপাতালে কোমায় আছে।

এ ঘটনার সময় সন্তানদের মা বাজার করতে যাওয়ায় বাসার বাইরে ছিলেন । ধারনা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জের ধরে এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে ।পুলিশ ভিকটিমের পরিচয় এখনো প্রকাশ করেনি। উল্লেখ্য যে ইতালিতে এসব ঘটনায় পুলিশ ভিকটিম ও অভিযুক্তদের বিস্তারিত পরিচয় তদন্তের পূর্বে প্রকাশ করে না ।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে আরও ১০ বাংলাদেশির মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-১৯ ০৫:০৭:৩১

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আরও ১০ প্রবাসী বাংলাদেশি করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। সব মিলিয়ে দেশটিতে বাংলাদেশিদের প্রাণহানির সংখ্যা দাঁড়াল ১৬৬ জনে।

এর মধ্যে নিউইর্য়কেই করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৫২ বাংলাদেশির।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া বাংলাদেশিরা হলেন- রাইয়ান আহমেদ, শাহজালাল সরকার, ফিরোজ কবীর, আবদুল হামিদ, গোপাল দত্ত, সাগর নন্দী, গৌরাঙ্গ চন্দ্র, আবদুল গনি, নিরঞ্জন বণিক ও দেওয়ান সিদরাতুল মুনতাহানা।

জানা গেছে, শনিবার মোহাম্মদ রায়হান নামে ২৬ বছরের এক তরুণ মারা যান। তিনি ১৯ দিন লাইফসাপোর্টে ছিলেন।

রায়হানের বাবা মাহতাব উদ্দিনসহ পরিবারের অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। তবে চিকিৎসা নিয়ে তারা সুস্থ হয়ে উঠছেন।

একই দিন মারা গেছেন নিউইয়র্ক বাংলাদেশ পূজা সমিতির সহসভাপতি গোপাল দত্ত। নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে পরলোকগমন করেন। তার দেশের বাড়ি সিলেটের গোলাপগঞ্জে। তার কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তার স্ত্রী বর্তমানে করোনার সঙ্গে লড়াই করছেন।

শনিবার সকাল ৭টার দিকে নিউইয়র্কের কুইন্সে বসবাসকারী ফিরোজ কবীর করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন অত্যন্ত পরিচিত মুখ ও ব্যবসায়ী সাগর নন্দী। শনিবার তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

নিউইয়র্ক প্রবাসী দিনাজপুর জেলা সমিতির অন্যতম সদস্য শাহ জালাল সরকার করোনায় আক্রান্ত শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় নিউইয়র্কের কুইন্স হাসপাতালে মারা যান। তিনি গত ২৯ মার্চ থেকে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

নিউইয়র্ক প্রবাসী আব্দুল হামিদ করোনায় আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

গত শুক্রবার নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন করোনায় আক্রান্ত দেওয়ান সিদরাতুল মুনতাহা।

গোরাঙ্গ চন্দ্র রোববার সকাল ৭টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে কুইন্সের একটি হাসপাতাপালে পরলোকগমন করেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।

নিরঞ্জন মল্লিক শনিবার সকালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। নিউইয়র্কে তিনি একা থাকতেন।।

প্রসঙ্গত, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এর মধ্যে শুধু যুক্তরাষ্ট্র আর যুক্তরাজ্যেই মারা গেছেন প্রায় ৩০০ বাংলাদেশি।

এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণঘাতী মহামারীতে মৃত্যুবরণ করা প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে দেড়শর বেশি ছিলেন নিউইয়র্কের বাসিন্দা। বাকিরা মিশিগান, নিউজার্সি, মেরিল্যান্ড ও ভার্জিনিয়ায় থাকতেন। দেশটির বিভিন্ন হাসপাতালে এখনও চিকিৎসাধীন অনেক বাংলাদেশি।

এখন পর্যন্ত যুক্তরাজ্যে করোনায় শতাধিক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন অন্তত ১৭ জন বাংলাদেশি।

কাতারে এ পর্যন্ত তিন বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। আক্রান্ত ৫০০। লেবাননে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ বাংলাদেশি।

এ ছাড়া সিঙ্গাপুরে মোট ১ হাজার ৬৫৩ বাংলাদেশি আক্রান্ত হয়েছেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

মুনা কনভেনশন বাতিল, ১০ হাজার পরিবারকে ‘রমজান গিফট প্যাকেট’ প্রদানের কর্মসূচি

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-১৮ ০৬:২৩:১৭

করোনাভাইরাস পরিস্থিত জনিত কারণে যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম এবং বাংলাদেশী কমিউনিটির একটি দায়িত্বশীল সংগঠন হিসেবে জাতির এই কঠিন মুহুর্তে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে আসন্ন মুনা ন্যাশনাল কনভেনশন-২০২০ বন্ধ ঘোষণা করেছে মুনা কর্তৃপক্ষ। করোনায় আক্রান্তদের সেবা দানের জন্য খোলা হয়েছে হটলাইন (৮৭৭-৬৮৬-২৭৭৪) এবং বিপুল সংখ্যক স্বেচ্ছাসেবী সংশ্লিষ্টদের খাবার প্রদান ও চিকিৎসা সহায়াতা সহ অন্যান্য সেবা অব্যাহত রয়েছে। সেই সাথে আসন্ন পবিত্র রমজান মাসে নিউইয়র্ক সহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে ১০ হাজার মুসলিম পরিবারের মাঝে ‘রমজান ইফতার গিফট প্যাকেট’ প্রদানের কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, আগামী ৩, ৪ ও ৫ জুলাই শুক্রবার, শনিবার ও রোববার ফিলাডেলফিয়ার সুবিশাল দৃষ্টি নন্দিত ‘পেনসিলভেনিয়া কনভেনশন সেন্টারে’ চলতি বছরের মুনা কনভেনশন-২০২০ হওয়ার কথা ছিলো।

বুধবার (১৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এক টেলি প্রেস কনফারেন্সে মুনা’র নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত ঘোষণা দেন। প্রেস কনফারেন্সে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুনা ন্যাশনাল এসিস্টেটেন্ট এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর আরমান চৌধুরী। এর আগে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মুনা’র ন্যাশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট আবু আহমেদ নূরুজ্জামান। পরে উল্লেখিত নেতৃবৃন্দ ছাড়াও মুনা নেতৃবৃন্দের মধ্যে ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট ইমাম দেলোয়ার হোসাইন, ন্যাশনাল এক্সিকিউভিট ডাইরেক্টর হারুন অর রশীদ ছাড়াও মুনা’র নিউইয়র্ক জোন নর্থ-এর সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল আরীফ প্রমুখ টেলি প্রেস কনফারেন্সে যোগদানকারী সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

ব্যতিক্রমী এই প্রেস কনফারেন্সে আরমান চৌধুরী তার লিখিত বক্তব্যের শুরুতেই সম্প্রতি যারা করোনা ভাইরাসের মহামারিতে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনার সাথে সাথে কভিড-১৯-এ আক্রান্ত সকলের আশু সুস্থতার জন্যে পরম করুণাময়ের দরবারে দোয়া করে বলেন, রাব্বুল আলামিন অসুস্থ এ সকল অসহায় মানুষদেরকে পুরোপুরি সুস্থতার নিয়ামত দান করুন। উল্লেখ্য, সন্ধ্যা সাড়ে ৮টার দিকে শুরু হওয়া এই কনফারেন্স চলে রাত ১১টা পর্যন্ত। এতে নিউইয়র্ক ছাড়াও বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে সাংবাদিকগণ অংশ নেন।

এক প্রশ্নের উত্তরে মুনা নেতৃবৃন্দ বলেন, মুনা যেহেতু যুক্তরাষ্ট্রের নন প্রফিট সংগঠন তাই যুক্তরাষ্ট্রবাসীদের বিশেষ করে বাংলাদেশী কমিউনিটির সেবা করাই লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। তাই বাংলাদেশে মুনা’র কোন কার্যক্রম না থাকলেও অনেক সংগঠন রয়েছে যারা বাংলাদেশের মানুষের সেবায় কাজ করছে। অপর এক প্রশ্নের উত্তরে নেতৃবৃন্দ বলেন, বৈধ-অবৈধ, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে যে কোন কমিউনিটির লোক মুনা’র সাহায্য নিতে পারে। এছাড়াও মুনা’র পক্ষ থেকে প্রয়োজনে আনএমপ্লয়মেন্ট আবেদন করতেও সাহায্য করা হবে।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে মুনা নেতৃবুন্দ জানান, তারা করোনাভাইরাসে মৃত্যুবরণকারী বাংলাদেশীদের সাহায্য ছাড়াও আক্রান্তদেও চিকিৎসার ব্যাপারে সাহায্য এবং প্রয়োজনে খাবার দিয়ে সেবা করছেন। বিভিন্ন সাহায্যের জন্য গড়ে প্রতিদিন মুনা’র হটলাইনে ২০০ কল আসছে বলে তারা জানান।

লিখিত বক্তব্যে আরমান চৌধুরী বলেন, পৃথিবী আজ যে ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখোমুখী; বিশেষজ্ঞদের মতে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে এমন অনিশ্চিত অবস্থা আর কখনো ঘটেনি। এ পরিস্থিতির সূচনালগ্ন থেকে করোনার ভয়াবহতার কথা বিশ্বের মানুষকে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, সতর্কতার কথা বলেছেন দেশের রাষ্ট্রনায়করা; কিন্ত বাস্তবতা হলো এ মরণব্যাধি ভাইরাস মানব জাতির সকল প্রতিবন্ধকতাকে উপেক্ষা করে গ্রাস করে চলেছে একের পর এক মানবজীবন। আমরা ইতিমধ্যে নিউইয়র্ক সিটিতে বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ, গ্রেটার কুমিল্লা সমিটির সাবেক সভাপতি আজাদ বাকের, সাংবাদিক আব্দুল হাই স্বপন, বিএমএএনএ নিউইয়র্ক চ্যাপ্টারের সদস্য ডা. আলী মামুন, ডা. মোহাম্মদ ইফতেখার উদ্দীন, ডা. রেজা চৌধুরী, এস্টোরিয়া আইডিয়াল স্কুলের শিক্ষক প্রফেসর রফিকুল ইসলাম সোবহানী, বাংলাবাজার জামে মসজিদ, বঙ্ক্রস’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি গিয়াস উদ্দীনসহ অনেক দায়িতশ¡ীল আপনজনদের হারিয়েছি। এছাড়াও বিভিন্ন স্টেটে করোনা আক্রান্ত বাংলাদেশীদের মৃত্যু সংবাদ আমাদের কাছে আসছে প্রতিদিন। এখনো আইসিইউতে এ মরণব্যাধি ভাইরাসের সাথে জীবন-মৃত্যুর পাঞ্জা লড়ছেন অনেকে।

আরমান চৌধুরী বলেন, মুসলিম উম্মাহ অফ নর্থ আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম এবং বাংলাদেশী কমিউনিটির একটি দায়িত্বশীল সংগঠন হিসেবে জাতির এই কঠিন মুহূর্তে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে আসন্ন মুনা ন্যাশনাল কনভেনশন ২০২০কে বন্ধ ঘোষণা করেছে। আমরা অসুস্থ, অসহায়, বয়স্ক মানুষের পাশে দাঁড়ানো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে ইতিমধ্যে বিভিন্ন কার্যক্রম শুরু করেছি। দেশব্যাপী হটলাইন নাম্বারের মাধ্যমে অসহায়, অসুস্থ, বয়স্ক মানুষের জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র, গ্রোসারী সরবরাহ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। সেই সাথে যাঁরা মারা যাচ্ছেন, তাদের দাফন-কাফনের সার্বিক সহযোগিতা আমরা প্রদান করে যাচ্ছি। যারা সহজে চিকিৎসা নিতে পারছেন না; আমাদের ভাই-বোনদের একটি ডাক্তার গ্রুপ হটলাইনের মাধ্যমে চিকিৎসা পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন; চিকিৎসা সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। এছাড়াও অনেকে যারা জব হারিয়েছেন, ব্যক্তিগতভাবে ব্যবসা-বাণিজ্য করতেন। ক্যাব চালাতেন, উবার চালাতেন; বর্তমান কঠিন পরিস্থিতিতে তাদের উপাজর্নের পথ প্রায় রুদ্ধ। আমরা যতদরূ জানতে পেরেছি, একই ভাবে সাংবাদিকতা পেশার সাথে জড়িত অনেকেই, অনেকের পরিবার আর্থিকভাবে কঠিন সময় পার করছেন। তারা যাতে সরকারের কাছ থেকে আনএমপ্লয়মেন্ট সুবিধা নিতে পারেন, হটলাইনের মাধ্যমে সেই প্রচেষ্টা এবং সহযোগিতা আমরা অব্যাহত রেখেছি।

তিনি বলেন, মাহে রমজান আসন্ন। অথচ এ রমজান কিভাবে পালন করবো, এমাসকে কিভাবে কাটাবো তা আমরা কেউই জানিনা। একটি অনিশ্চয়তা, একটি আতংকের মধ্যে দিনাতিপাত করছি আমরা সকলে। এ অবস্থায় মুনা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে- ১০ হাজার পরিবারের মাঝে ‘রমজান ইফতার গিফট প্যাকেট’ সরবরাহ করবে, যাতে করে কিছুটা হলেও স্বস্তির সাথে একটি পরিবার মাহে রমজানকে শুরু করতে পারে। 
আরমান চৌধুরী বলেন, গোটা দুনিয়ায় বিষয়টি আজ আবারও প্রমাণিত হলো; আল্লাহ ছাড়া আমাদের আর কোন উপায় নেই। সুতরাং আমরা ইতিপূর্বে যত ভুল করেছি, অন্যায় করেছি, জুলুম করেছি, নামাজ ছেড়ে দিয়েছি, আল্লাহ’র অনেক হুকুম অমান্য করেছি; আসুন, সে সকল ভুলের জন্য রহমানের দরবারে ক্ষমা চাই। আল্লাহ বলেছেন, ‘তোমরা আমার রহমত থেকে নিরাশ হয়োনা। আমার কাছে ক্ষমা চাও, আমি তোমাদেরকে ক্ষমা করবো।’ আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’য়ালা কুরআন মজিদের বহু জায়গায় নিজেকে ‘গাফুরুর রাহীম’- ক্ষমাশীল বলেছেন। সুতরাং আমাদের সকলের উচিত আপন অপরাধ স্বীকার করে ‘গাফুরুর রাহীমে’র দরবারে ধরণা দেয়া। মুসলিম উম্মাহ অফ নর্থ আমেরিকা গোটা দেশব্যাপী মানুষকে আল্লাহমুখী হওয়ার জন্যে উদাত্ত আহবান করে যাচ্ছে। কুরআনের আলোকে, ইসলামের আলোকে জীবন, পরিবার, সমাজ গঠনের জন্য সাংগঠনিক দাওয়াহ কমর্সূিচ অব্যাহত রেখেছে। মানষুকে ‘সিরাতাল মুস্তাকীমে’র পথে আহবানের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আপনিও আমাদের সাথে শরীক হোন।
পরিশেষে তিনি সবাইকে মাহে রামজানের আগাম শুভেচ্ছা এবং অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্যে আবারো অনুরোধ জানান এবং মুনা’র ইমার্জেন্সী ফান্ডে বিত্তবানদের আর্থিক সহযোগিতা কামনা করেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

সৌদি আরবে করোনায় আরো এক প্রবাসীর মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-১৫ ০২:৪৪:২৪

সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্ত হয়ে জসিম উদ্দিন (৩৮) নামের আরো এক প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে পবিত্র মক্কার আল-নুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন তিনি।

জসিম কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের মাইজপাড়ার মৃত নাজির হোসেনের ছেলে। দেশে ছুটি কাটিয়ে মাত্র একমাস আগে সৌদি আরবে ফিরে গিয়েছিলেন।

তার সাথে সৌদি আরবের জেদ্দায় কাজ করা মো. মিজান নামের এক প্রবাসী জসিমের মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করে ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেন, গেল কয়েকদিন আগে করোনার উপসর্গ নিয়ে জসিম হাসপাতালে ভর্তি হন। পরীক্ষার পর তিনি করোনায় আক্রান্ত বলে নিশ্চিত করেন চিকিৎসকরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর মিছিলে মঙ্গলবার যোগ হলো রেমিট্যান্স যোদ্ধা জসিম উদ্দিন। তার মৃত্যুতে মক্কাস্থ বাংলাদেশি কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে৷

দেশে কিংবা প্রবাসে করোনায় আক্রান্ত হয়ে কক্সবাজারের প্রথম অধিবাসী হিসেবে মৃত্যুর শিকার হন জসিম। সদাহাস্যজ্বল জসিমের অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুর খবর এলাকায় পৌঁছালে তা মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে।

উল্লেখ, সৌদি আরবে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে হু হু করে। মৃত্যুর সংখ্যাও নেহাত কম নয়। মঙ্গলবারও নতুন করে ৪৩৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে বিশ্ব মিডিয়া খবর প্রচার করেছে। এ নিয়ে সৌদি আরবে মোট করোনা আক্রান্ত দাঁড়াল ৫,৩৬৯ জনে। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৮৯ জন এবং মৃত্যু বরণ করেছে ৭৩ জন৷ দেশটির কয়েকটি প্রদেশে ২৪ ঘণ্টা কারফিউ চলছে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার অঞ্চলের কয়েকজন রেমিট্যান্স যোদ্ধা।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

সিঙ্গাপুরে আরও ১২৪ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-১২ ১৩:৩৭:৪৩

সিঙ্গাপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২৪ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। রোববার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ২৪ ঘণ্টায় ১২০ বাংলাদেশির করোনায় আক্রান্তের খবর জানিয়েছিল সিঙ্গাপুর। দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক বাংলাদেশির আক্রান্তের রেকর্ড ছিল এটি।

রোববার মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, শনি থেকে রোববার পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা সময়ে সিঙ্গাপুরে আরও ২৩৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ১২৪ জন বাংলাদেশি। এদের অধিকাংশই স্থানীয়ভাবে সংক্রমিত হয়েছেন। তবে শ্রমিকদের আবাসিক ভবন এস১১ ডরমেটরিতে থাকা ১১ জন আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন। এছাড়া কচরেন লজ ১ ও কচরেন লজ২-তেও ৯ বাংলাদেশি শ্রমিক আক্রান্ত হয়েছেন। এই দুই ডরমেটরিতে  কতজন বাংলাদেশি শ্রমিক রয়েছে তা জানা যায়নি।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

ইতালিতে করোনায় আরও ১ বাংলাদেশির মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-১১ ১৯:০৪:৪৩

প্রাণঘাতি করোনায় আক্রান্ত হয়ে ইতালিতে আরও এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। মৃত প্রবাসীর নাম মানিক মিয়া (৪২)।

শনিবার (১১ এপ্রিল) স্থানীয় সময় বিকাল সাড়ে ৩ টায় ইতালির মিলানে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার।

মানিক মিয়ার গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে। মিলানে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশি আব্দুল বাসিত দোলই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ নিয়ে করোনাভাইরাসে ইতালিতে আট বাংলাদেশির মৃত্যু হলো।

মানিক মিয়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মিলান স্থানীয় নিগোয়ারা হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিউতে নেওয়া হয়। পরে শনিবার তিনি মারা যান করেন। তার মৃত্যুতে ইতালিতে বাংলা কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এদিকে ইতালিতে গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ হারিয়েছেন ৬১৯ জন। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৪৬৮।

শনিবার (১১ এপ্রিল) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন চার হাজার ৬৪৯ জন। এনিয়ে দেশটি করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ৫২ হাজার ২৭১ জনে দাঁড়িয়েছে।

শনিবার (১১ এপ্রিল) নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে নাগরিক সুরক্ষা সংস্থার প্রধান অ্যাঞ্জেলো বোরেল্লি এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন দুই হাজার ৭৯ জন। সব মিলিয়ে প্রায় ৩২ হাজার ৫৩৪ জন সুস্থ হয়ে নিজ পরিবারের কাছে ফিরেছেন।

এদিকে ইতালির বিভিন্ন অঞ্চলে করোনায় আক্রান্তদের সহযোগিতায় কাতার, আলবেনিয়া, চীন, কিউবা এবং রাশিয়া থেকে আসা মেডিক্যাল টিম সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

করোনা মহামারিতে দেশটির ছয় কোটি নাগরিককে বোনাস ঘোষণা দিয়েছে ইতালি সরকার।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

সৌদিতে করোনায় মৃতদের ২০ শতাংশ বাংলাদেশি!

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-১১ ১১:২০:১১

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস দিনদিন ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে মরুর দেশ সৌদি আরবে। প্রতিদিনই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। প্রায় প্রতিদিনই নতুন করে রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্তের খবর জানাচ্ছে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

সবশেষ তথ্য অনুযায়ী দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৬৫১ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬৮৫ জন। আর মৃত্যুবরণ করেছেন ৪৭ জন।

দূতাবাস এবং কনস্যুলেট থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত সৌদিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১১ জন বাংলাদেশি প্রবাসী। যা মোট মৃত্যুহারের ২০ শতাংশের বেশি। এর মধ্যে মদিনায় ৭ জন এবং তাদের চারজনই চট্টগ্রামের।

বাংলাদেশ দূতাবাস রিয়াদ এবং বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল জেদ্দা থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, সৌদি আরবের বিভিন্ন শহরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া বাংলাদেশিরা হলেন, সাভারের কোরবান (মদিনা), নড়াইলের ডাক্তার আফাক হোসেন মোল্লা (মদিনা), চট্টগ্রামের মোহাম্মদ হাসান (মদিনা), চট্টগ্রামের মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন (মদিনা), ভোলার মোহাম্মদ হোসেন (রিয়াদ), পাবনার আব্দুল মোতালেব (রিয়াদ), মানিকগঞ্জের মান্নান মিয়া (জেদ্দা), চট্টগ্রামের মোহাম্মদ রহিম উল্লাহ (মদিনা), নরসিংদীর খোকা মিয়া (মদিনা), চট্টগ্রামের নাসির উদ্দিন (মদিনা) এবং আজিবর (মদিনা)।

সৌদি সরকার করোনার বিস্তার রোধ করতে নানামুখি পদক্ষেপ নিয়েছে। পাশাপাশি নাগরিক এবং বিদেশিদের সচেতন করতে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক তথ্য দিয়ে সেলফোনে ২ বিলিয়নের বেশি ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশিদেরকে সচেতন করতে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রচারপত্রে বাংলা ভাষা ব্যবহার করতে দেখা গেছে।

এছাড়াও সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ’র দেয়া একটি বাংলা বক্তব্য প্রচারের পরিকল্পনা নিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। এতো কিছুর পরেও কিছু কিছু এলাকার বাংলাদেশিরা এখনো বেপরোয়া। ২৪ ঘণ্টা কারফিউ চলমান থাকার পরেও তারা অকারণে জমায়েত হচ্ছেন।

বাংলাদেশিদেরকে স্থানীয় আইন মেনে ঘরে থাকার পরামর্শ দিচ্ছে মিশনগুলো। বড় বড় শপিং মলের সামনে করোনা থেকে বাচার বিভিন্ন উপার সম্বলিত রোল আপ স্ট্যান্ড লাগানো হয়েছে।

বাংলাদেশিরা খুব বেশি আইন মানছেন না এ বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। তারা বলছেন কিছুকিছু এলাকায় কিছু অতি উৎসাহী বাংলাদেশিদের কারণের সৌদি আরবে বসবাসরত সকল বাংলাদেশিরা বড় ধরনের সমস্যার সম্মুখিন হতে পারেন। সৌদি আরবে কর্মরত বেশিরভাগ বাংলাদেশি যেহেতো নিম্ন আয়ের এবং গণবসতিতে বাস করেন। সেহেতু এখনই যদি সতর্ক না হয় তাহলে সামনে ভয়ঙ্কর পরিণতি অপেক্ষা করছে বলেও মত দেন অনেকে।

ফয়সাল আহমেদ নামের একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, স্বাভাবিক কমন সেন্স থেকে আশঙ্কা করছিলাম সৌদি আরবের বিভিন্ন কোম্পানির লেবার ক্যাম্পে ভাইরাস বিস্তার লাভ করলে কি বিপর্যয় হতে পারে। শুক্রবারের খবর অনুযায়ী মদিনা শহরের বিভিন্ন লেবার ক্যাম্পে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে, পূর্বাঞ্চলেও নাম করা কয়েকটি বড় কোম্পানির লেবার ক্যাম্প রয়েছে, যেখানে আছে হাজার হাজার বাংলাদেশি শ্রমিক। রাব্বুল আলামীন নিরাপদ রাখুন। প্রত্যেকেই নিজ সহকর্মীর মোবাইল নাম্বার, পাসপোর্ট, ইকামা কপি নিজের পরিবারের নিকট পাঠিয়ে রাখলে ভাল হবে।

মো. ফজলুল হক শেখ লিখেছেন, সৌদিতে কারপিউর (কারফিউ’র) মধ্যেও হারা বাঙ্গালী অধ্যসিত (অধ্যুষিত) এলাকায় একটি জংলি ডিস্টিকের মারামারি দেখে মনে হল কতটা বর্ভর (বর্বর) এরা, জাতি হিসেবে দায়বার (দায়ভার) আমাদের কাদেও (কাঁধেও)।

এছাড়াও অনেক বাংলাদেশি ছবি এবং ভিডিও পোস্ট করে বাংলাদেশিদের আইন না মানার বিষয়টি তুলে ধরে দূতাবাসের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

বাংলাদেশ দূতাবাস রিয়াদের শ্রম কল্যাণ কাউন্সিলর মো. মেহেদী হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, দূতাবাসের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশিদেরকে বিভিন্ন ধরনের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হতে বলা হচ্ছে। খাদ্য সংকটে থাকা প্রবাসীদেরকে দূতাবাসের পক্ষ থেকে সহায়তা দেয়ার জন্য ইতোমধ্যে বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে।৫-৬হাজার বাংলাদেশির কাছ থেকে ম্যাসেজ পাওয়া গেছে। তবে এখন যেহেতু ২৪ ঘণ্টা কারফিউ সে কারণে আমরা কোথাও মুভ করতে পারছি না। এ বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত আছে। সহায়তা বিতরণের জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। তারা সম্মতি দিলে আমরা সাহায্যপ্রার্থী প্রবাসীদের তথ্য ও সামগ্রী দিব। তারা ঘরে ঘরে সেটা পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করবে। যোগ করেন এই কর্মকর্তা।

তিনি আরও বলেন, দূতাবাসের শ্রম কল্যাণ ইউং এর একটি টোল ফ্রি হটলাইন নাম্বার (৮০০১০০০১২৫) প্রবাসীদের সেবায় ২৪ ঘণ্টা চালু রাখা হয়েছে। প্রবাসীরা চাইলে এখানে কল করে যেকোন ধরনের পরামর্শ নিতে পারবেন এজন্য ফোনে কোন টাকা কাটবে না।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি কর্মীদের বাসায় খাবার পৌঁছে দেবে দূতাবাস

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-১০ ১২:৫২:০৫

সিঙ্গাপুরে প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীদের করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউন পরিস্থিতিতে তিন ধরনের সেবা নিশ্চিত করার ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

লকডাউন এর কারণে বন্ধ কলকারখানার কর্মীরা তাদের বেতন পাবেন, আটকে পড়ার নিজের বাসায় পৌঁছে দেওয়া হবে প্রয়োজনীয় খাবার এবং উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সব ধরনের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে।

হাইকমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান এক ভিডিও বার্তায় আজ শুক্রবার এ কথা বলেন।

তিনি সিঙ্গাপুরে অবস্থানরত বাংলাদেশি কর্মীদের সেদেশের  সরকার কর্তৃক আরোপিত বিধি-নিষেধ এবং নিয়মকানুন মেনে চলার আহ্বান জানান।

সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, সিঙ্গাপুরে এক হাজার ৪৮১ জন করোনায় আক্রান্তের মধ্যে ২৪৪ জন বাংলাদেশি। আরও বেশ কিছুসংখ্যক বাংলাদেশিকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তাদের চিকিৎসাসহ সার্বিক তত্ত্বাবধানে সবধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে সিঙ্গাপুর।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/সিসি

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাজ্যের ছায়া মন্ত্রী হলেন টিউলিপ

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-১০ ১০:৩৩:১০

ব্রিটেনের লেবার পার্টির শিশু বিষয়ক ছায়া মন্ত্রী হিসেবে নতুন দায়িত্ব পেয়েছেন ব্রিটিশ বাংলাদেশি এমপি, বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি ও শেখ রেহানার কন্যা টিউলিপ সিদ্দিক। এর আগে চলতি বছরের জানুয়ারিতে লেবার পার্টির প্রাক-প্রাথমিক ছায়া মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এবার শিশু বিষয়ক ছায়া মন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন।

বৃহস্পতিবার পূর্ণাঙ্গ শেডো ক্যাবিনেট গঠন করেন লেবার পার্টির নবনির্বাচিত নেতা স্যার কিয়ার স্ট্যারমার। শেডো কেবিনেটে স্থান পেয়েছেন লিডারশিপ প্রতিদ্বন্দ্বী লিসা নন্দা, রেবেকা লং বেইলি, এমিলি থর্নবারি ও জেসিকা ফিলিপ। এই ক্যাবিনেটের এডুকেশন ডিপার্টমেন্টের চিলড্রেন এন্ড অ্যার্লি ইয়ার্স ছায়ামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন হ্যামস্টেড এন্ড কিলবার্ন আসনের এমপি টিউলিপ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগ্নি টিউলিপ সিদ্দিক বলেন, আমি অ্যাঞ্জেলা রায়নার ছায়া শিক্ষা দলের অংশ হিসেবে বছরের শুরু থেকে ছায়ামন্ত্রী নিযুক্ত হতে পেরে আনন্দিত। শৈশবকালীন পড়াশোনা শিশুর বিকাশের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ, সুবিধাবঞ্চিত ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে অনেকে এমনকি স্কুল শুরু করার আগেই পিছিয়ে পড়ে। এটা যাতে না ঘটে তা নিশ্চিত করতে আমার সহকর্মীদের সাথে আমি কাজ করার আশা করি। টিউলিপ সিদ্দিক ২০১৭ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত শিশু যত্ন ও প্রাথমিক শিক্ষার জন্য সর্বদলীয় সংসদীয় গোষ্ঠীর সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

উল্লেখ্য, টিউলিপ সিদ্দিক ২০১৫ সালে হ্যামস্টেড এন্ড কিলবার্ন আসন থেকে প্রথমবার নির্বাচিত হন। ২০১৭ সালের নির্বাচনে তিনি বড় ব্যবধানে জয়লাভ করেন। সর্বশেষ গত বছরের ডিসেম্বরের নির্বাচনেও তিনি জয়লাভ করেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

নতুন ৫ জনসহ যুক্তরাষ্ট্রে মোট ৯১ বাংলাদেশির মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৯ ০২:২৭:৫৩

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে আরও পাঁচ প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের মধ্যে তিনজন নিউইয়র্কের ও ২ জন মিশিগানের বাসিন্দা ছিলেন।
এ নিয়ে দেশটিতে ৯১ প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যু হলো করোনায়। যাদের মধ্যে ৮৫ জনই নিউইয়র্ক শহরের।

মৃতদের তালিকায় প্রথমবারের মতো যুক্ত হলো এক বাংলাদেশি চিকিৎসকের নাম। করোনায় মারা যাওয়া ওই চিকিৎসক নিউইয়র্কের স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত ছিলেন। এছাড়া, বাংলাদেশ সোসাইটির কার্যকরী এক সদস্য মারা গেছেন। এল্মহার্স্ট হাসপাতালে মারা যান ৫৮ বছর বয়সী এই প্রবাসী। আক্রান্ত আরও অনেকে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। নিউইয়র্কে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশির মৃত্যুতে অন্যান্য রাজ্যের প্রবাসীরা আছেন আতঙ্কে।

যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘন্টায় রেকর্ড মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (৭ই এপ্রিল) দেশটিতে মৃত্যু হয় ১,৯৭০ জনের। এ পর্যন্ত কোন দেশে একদিনে এত সংখ্যক মানুষ করোনায় মারা যাননি। এর আগে, দেশটিতে সোমবার (৬ই এপ্রিল) মৃত্যু হয়েছে ১২৫৫ জনের। রবিবার (৫ই এপ্রিল) মৃত্যু হয় ১,১৬৫ জনের। আর, শনিবার (৪ঠা এপ্রিল) মৃতের সংখ্যা ছিলো ১৩৩১ জন। তার আগে, শুক্রবার (৩রা এপ্রিল) দেশটিতে মৃত্যু হয় ১৩২১ জনের। অর্থাৎ গত পাঁচদিনে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃত্যু হলো ৬,৯৫২ জনের।

এ পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১২,৮৪১ জনের। সেখানে এ পর্যন্ত আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩ লক্ষ ৩৩৫ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ২১ হাজার ৬৭৪ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ হাজার ৩৩১ জন।

এদিকে, সারা বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৮২,০৭৪ জন ব্যক্তি। কোভিড-১৯ এর সংক্রমণে সারা বিশ্বে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লক্ষ ৩১ হাজার ৬৮৯ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৪ হাজার ৯১৫ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩ লক্ষ ১ হাজার ৯০৫ জন। বর্তমানে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১০ লক্ষ ৪৬ হাজার ৯৮০ জন। যাদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় রয়েছেন ৪৭,৯১৩ জন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

সিঙ্গাপুরে একদিনে ৪৭ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ১৮:৩৩:১৪

সিঙ্গাপুরে আরও ৪৭ বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মঙ্গলবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

এ নিয়ে সিঙ্গাপুরে ১১৫ বাংলাদেশির করোনায় আক্রান্তের তথ্য জানা গেল।

গত কয়েক দিন ধরে সিঙ্গাপুরে করোনায় বাংলাদেশিদের আক্রান্তের হার বেড়েছে। এদের অধিকাংশই এস১১ ডরমেটরি ও তোহ গুয়ান এলাকার ওয়েস্টলাইট ডরমেটরিতে থাকতেন। আক্রান্তের হার বাড়তে থাকায় রোববার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই দুই ডরমেটরিতে থাকা ২০ হাজার শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে।

মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরে ১০৬ জনের করোনায় আক্রান্তের তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। এদের মধ্যে ৪৭ জন বাংলাদেশি। আক্রান্ত বাংলাদেশিদের মধ্যে ৩২ জন লং টার্ম পাসধারী এবং ১৫ জন শ্রমিক। এদের অধিকাংশই শ্রমিকদের ডরমেটরিতে থাকতেন।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

করোনা: যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা বাকের আজাদের মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৭ ০২:৪৩:২৯

কমিউনিটির প্রিয়মুখ, বাংলাদেশ সোসাইটির কার্যকরি কমিটির সদস্য, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আজাদ বাকের আর নেই। তিনি সোমবার (৬ এপ্রিল) ভোর রাত ৩ টা ৪০ মিনিটে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহে.....রাজিউন)।

জানা যায়, তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ৮দিন যাবৎ এলমহাস্ট হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। তাঁর ছেলে রোহান হোসেন এবং বন্ধু আনোয়ার ইসলাম আনোয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য যে, গত বেশ কয়েক বছর তিনি কিডনির জটিল সমস্যায়ও ভুগছিলেন।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

কানাডায় করোনায় মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৬ ০৭:০২:৪০

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৫ এপ্রিল কানাডায় টরন্টোতে দ্বিতীয় বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। ৭২ বছর বয়স্ক মুক্তিযোদ্ধা হাজী তুতিউর রহমান ওরফে তুতি ভাই স্থানীয় মাইকেল গেরন হাসপাতালে চির বিদায় নিলেন। (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিঊন)। তিনি গত দুই সপ্তাহ ধরে আইসিইউতে ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি দুই মেয়ে, এক ছেলে এবং স্ত্রী রেখে গেছেন। তুতিউর রহমানের গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখায়। তিনি মৌলভীবাজার জেলা এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা ছিলেন।

গতকাল ৪ এপ্রিল অটোয়ায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যান প্রথম বাংলাদেশি হাজী শরিতুল্লাহ। আজ তাকে স্থানীয় মেনোটিস্থ অটোয়া মুসলিম সেমিট্রতে দাফন করা হয়। জালালাবাদ পত্রিকার সম্পাদক রুহুল চৌধুরী জানান, মরহুমের লাশ ডল ল্যান্ডের মদিনা মসজিদ জানাজা-দাফনে অস্বীকার করেছে। কারণ, এই পরিস্থিতিতে সেখানে করোনায় মৃত ব্যক্তিদের জানাজ-দাফন করা স্থগিত রেখেছে। ফলে পরিবার নাগেট মসজিদ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করছেন। কিন্তু এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে নাগেট মসজিদে জানাজা হলে পিকারিং কবরস্থানে দাফন করা হবে।

অপর এক খবরে প্রকাশ, এ পর্যন্ত কানাডায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৫,৫১২ আর মৃত্যুবরণ করেছেন ২৮০ জন। বর্তমানে টরন্টো এবং মন্ট্রিয়লে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি আইসিইউতে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

যুক্তরাজ্যে করোনায় মা-ছেলেসহ ৩০ বাংলাদেশীর মৃত্যু

 প্রকাশিত: ২০২০-০৪-০৬ ০৬:৫৭:৫০

কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত তিন দিনে আরো ৮ ব্রিটিশ বাংলাদেশী মৃত্যুবরণ করেছেন। শনি ও রোববার বিভিন্ন স্যোশাল মিডিয়ায় তাদের স্বজনরা মৃত্যুর খবর প্রকাশ করে। সরকারি হিসেবে আলাদাভাবে বাংলাদেশীদের মৃত্যুর খবর প্রকাশ না করলেও স্যোশাল মিডিয়া ও বাংলাদেশী কমিউনিটি মিডিয়ার পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ব্রিটেনে এ পর্যন্ত ৩০ জন বাংলাদেশী মৃত্যুবরণ করেছেন।

সর্বশেষ যে ৮ জন ইন্তেকাল করেছেন তারা হচ্ছেন : লুটন শহরে চার দিনের ব্যবধানে একই পরিবারে মা ও ছেলে মৃত্যুবরণ করেছেন মহামারি করোনায়। গত ১ এপ্রিল ছেলে দীবুল আহমদ ( ৫৪) ইন্তেকাল করেন। ছেলের মৃত্যুর ৪ দিন পর ৫ এপ্রিল মারা যান দীবুল আহমদের মা। শুধু মা-ছেলের মৃত্যুই শেষ নয়, আক্রান্ত হয়েছেন দীবুল আহমদের পিতা হাসান আহমদ এবং অন্য তিন ছেলে।

ব্যবসায়ী দীবুল আহমদের দেশের বাড়ী সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার সিলাম ইউনিয়নের ভাংগী গ্রামে। তিনি ব্রিটেনে ও বাংলাদেশে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। তার মৃত্যুতে লুটনে বাংলাদেশি কমিউনিটিতেও শোকের ছায়া নেমে আসে।

এদিকে গ্রেটার ম্যানচেষ্টারস্থ হাইডের বাসিন্দা হাইড জামে মসজিদ ও ইসলামিক সেন্টারের বর্তমান চেয়ারম্যান হাজী মনসুর খান ৩ এপ্রিল শুক্রবার দুপুরে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। তার দেশের বাড়ী সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার আসার কান্দি ইউনিয়নের তিলক গ্রামে। হাজী মনসুর খান হার্টে সমস্যায় ভুগছিলেন। সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত হলে তিনি মারা যান । মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে ১ মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। তার মৃত্যুতে কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে আসে।

শনিবার রাতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন গ্রেটার ম্যানচেস্টারের হাইডের বাসিন্দা মোঃ আকিকুর রহমান। তিনি টেইমসাইড জেনারেল হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। এ নিয়ে গত এক সপ্তাহে শুধু হাইডে ৫ জন বাংলাদেশি করোনায় মারা গেছেন। মরহুম আকিকুর রহমানের দেশের বাড়ী সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার কুবাজপুর গ্রামে।

এদিকে রাজধানী লন্ডনে শনিবার সকালে ইন্তেকাল করেছেন ইসলামিক স্কলার আবু সাঈদ আনসারীর শাশুড়ী। তিনি প্রবীন মুরব্বি সানোয়ার আলীর স্ত্রী রূপজান বিবি। তিনি মিডলসেক্স হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর। তিনি দীর্ঘদিন যাবত বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগলেও সম্প্রতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। কিছু দিন তাকে হাসপাতালেও রাখা হয়। ওয়েস্ট লন্ডনের বাসিন্দা রুপজান বিবি ৪ মেয়ে ২ পুত্র সন্তান রেখে গেছেন। তার দেশের বাড়ী সিলেট দক্ষিণ সুরমা উপজেলার লালাবাজারের বনগাঁও গ্রামে।

রোববার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এনামুল ওয়াহিদ (৩২) নামে আরও এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইউকে বাংলা প্রেসক্লাব সভাপতি কে এম আবু তাহের চৌধুরী। বাংলাদেশে এনামুল ওয়াহিদের বাড়ি নবীগঞ্জের মোস্তফাপুর। তিনি লন্ডনের চেডওয়েলহিথের বাসিন্দা। এর আগে গত সপ্তাহে এনামুলের বড় ভাইও করোনায় মারা গেছেন।

এদিকে লন্ডনের ইলফোর্ডের একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন ব্যবসায়ী দিলাল আহমদ। ৩ এপ্রিল শুক্রবার দুপুরে তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন। তার দেশের বাড়ী সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার পূর্ববাঘা ইউনিয়নের তুড়–গাও গ্রামে। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, তিন মেয়ে রেখে গেছেন।

শুক্রবার সকালে লন্ডনের ইজলিংটনের বাসিন্দা এরশাদ মিয়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হোমারটন হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। তার দেশেরবাড়ী মৌলভীবাজারের পাগুলিয়ায় বলে জানিয়েছেন কমিউনিটি নেতা কে এম আবু তাহের চৌধুরী। মরহুম এরশাদ মিয়া সম্পর্কে এর চেয়ে তথ্য পাওয়া যায়নি।


এলএবাংলাটাইমস/এলআরটি/এএল

বিস্তারিত খবর

সাম্প্রতিক খবর

সর্বাধিক পঠিত