যুক্তরাষ্ট্রে আজ সোমবার, ৩০ মার্চ, ২০২০ ইং

|   ঢাকা - 09:59pm

|   লন্ডন - 04:59pm

|   নিউইয়র্ক - 11:59am

  সর্বশেষ :

  আইসোলেশনে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু   করোনায় অবৈধ প্রবাসীরাও পাবেন সরকারি চিকিৎসা : সৌদি বাদশা   করোনাভাইরাসে নিউইয়র্কে কমপক্ষে ১৫ বাংলাদেশীর মৃত্যু   দিল্লির মসজিদে জমায়েত, কোয়রান্টিনে পাঠানো হল ২০০০ জনকে   করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে থাকবে চীন   কভিড-১৯; গ্রোসারি পণ্য বাড়ি পৌঁছানোর দায়িত্ব নিল টরেন্স সিটি কর্তৃপক্ষ   ছুটি না দেওয়ায় পোশাক কারখানায় আগুন দিলো শ্রমিক   আইসোলেশনে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী, করোনা আক্রান্তের আশঙ্কা   লকডাউন ভারতে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা   করোনা মোকাবিলায় গণমাধ্যম ও সরকার আরো ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবে : তথ্যমন্ত্রী   করোনাভাইরাস: গৃহবন্দি শিশুর বিষণ্নতা দূর করতে যাকিছু করণীয়   অবরুদ্ধ লস এঞ্জেলেসে কেমন কাটল প্রবাসীদের ছুটির দিন   করোনা ঠেকাতে ৩০০০ বন্দি মুক্তি   সরকারের পলিসি নো কিট, নো টেস্ট, নো পেসেন্ট, নো করোনা : রিজভী   ঢামেকে করোনা শনাক্তের টেস্ট, ৩ ঘণ্টায় রিপোর্ট

মূল পাতা   >>   বহিঃ বিশ্ব

যুদ্ধাপরাধী-সন্ত্রাসীদের সিটিজেনশিপ কেড়ে নিতে যুক্তরাষ্ট্রে নয়া অফিস

নিউজ ডেস্ক

 প্রকাশিত: ২০২০-০২-২৮ ১১:২৮:২৩

নিউজ ডেস্ক: আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী চক্রের সদস্য কিংবা যুদ্ধাপরাধ অথবা মানবতাবিরোধী অপরাধের মত গুরুতর অপকর্মে লিপ্ত থাকার তথ্য গোপন করে সিটিজেন হয়েছেন এমন ব্যক্তিদের হদিস উদঘাটনের পর সিটিজেনশিপ কেড়ে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কারের কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র বিচার বিভাগ গত বুধবার এক ঘোষণায় জানিয়েছে যে, ইমিগ্রেশন লিটিগেশন ইউনিটের সিভিল ডিভিশন অফিস এ সংক্রান্ত পদক্ষেপ নেবে। অভিযোগ পাবার পর বিস্তারিতভাবে তদন্ত সাপেক্ষে কঠোর এ পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশনাও জারি করা হয়েছে। সন্ত্রাসী, যুদ্ধাপরাধী, যৌন হামলাকারি, প্রতারক ইত্যাদি শ্রেণীর লোকজনের সিটিজেনশিপ কেড়ে নেয়ার কার্যক্রম দ্রুত শুরু করা হচ্ছে বলেও বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তারা উল্লেখ করেছেন। সহকারি এটর্ণী জেনারেল জুডি হান্ট বলেছেন, এই শ্রেণীর লোকেরা যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব পেতে পারেন না। তথ্য গোপন করে তারা নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন, যা পুরোপুরি বেআইনী। তারা বিদ্যমান আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শণ করেছেন, এর দায় তাদের বহন করতেই হবে। সিটিজেনশিপ গ্রহণের পর যারা আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী নেটওয়ার্কে জড়িয়েছে কিংবা কম্যুনিস্ট পার্টির সাথে সম্পৃক্ত হয়েছে, অথবা সিটিজেন হিসেবে শপথ গ্রহণের জন্যে একেবারেই যোগ্য নয়, তাদের তালিকা করা হয়েছে। নতুন এই অফিস সে সব লোকদের হদিস উদঘাটনের পর সিটিজেনশিপ কেড়ে নিয়ে দ্রুত যুক্তরাষ্ট্র ত্যাগের নির্দেশ দেবে। অন্যথায় তাদেরকে গ্রেফতার করে সরকারী খরচে নিজ নিজ দেশে পাঠিয়ে দেয়া হবে। বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তারা আরো জানান, সিটিজেনশিপ গ্রহণের সময় যারা ইচ্ছাকৃতভাবে মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন, চাকরি সম্পর্কে সঠিক তথ্য দেননি-এমন লোকজনের সিটিজেনশিপও কেড়ে নেয়া হবে। প্রসঙ্গত: উল্লেখ্য যে, বিভিন্ন দেশে যুদ্ধাপরাধ এবং মানবতা-বিরোধী অপরাধে লিপ্ত অনেক মানুষকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতারের পর তাদের সিটিজেনশিপ কেড়ে নিয়ে স্ব স্ব দেশের কর্তৃপক্ষের কাছে সমর্পণ করেছে মার্কিন প্রশাসন। একইধরনের মামলায় দন্ডিত হয়ে একাত্তরের ঘাতক আশরাফুজ্জামান খান, ইঞ্জিনিয়ার জব্বার এবং বঙ্গবন্ধুর ঘাতক মেজর (অব:) রাশেদ চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছে। রাশেদ চৌধুরী বাদে অন্য দু’জন যুক্তরাষ্ট্রে সিটিজেনশিপ নিয়েছে। এই তিনজনের ব্যাপারে এখন পর্যন্ত মার্কিন প্রশাসনের নির্লিপ্ততায় প্রবাসীরাও হতবাক। অনেকের প্রশ্ন, এদের বিরুদ্ধে আদালত প্রদত্ত রায়ের কপি কি মার্কিন বিচার বিভাগের কাছে বাংলাদেশ হস্তান্তর করেনি?
২০১৮ সালে সাবেক ইউএসসিআইএস পরিচালক এল ফ্রান্সিস সিসনা বলেছিলেন যে, যারা সত্য গোপন করে সিটিজেনশিপ নিয়েছেন, এরমধ্যে এমনও অনেকেই রয়েছেন যাদের বিরুদ্ধে ডিপোর্টেশনের নির্দেশ রয়েছে এবং পরবর্তীতে নাম, জন্মতারিখ পাল্টিয়ে সিটিজেন হয়েছেন, তাদের খুঁজে বের করার জন্যে তার সংস্থা বেশ কিছু এটর্নী এবং ইমিগ্রেশন অফিসার নিয়োগ করেছেন। সে সব অভিযোগ পত্র নয়া এই অফিসে হস্তান্তর করা হবে। অবশেষে এধরনের প্রতারক, সন্ত্রাসী, ধাপ্পাবাজিদের বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের পথ সুগম হলো-উল্লেখ করেন সিসনা। তিনি বলেন, এ ধরনের বেশ কয়েক হাজার মানুষ রয়েছে, যারা যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তার জন্যে মারাত্মক হুমকি হিসেবে বিবেচিত। অতি সম্প্রতি সীমান্ত রক্ষীরা দেখতে পান যে, ইতিপূর্বে বহিস্কারের নির্দেশ জারি হয়েছিল এবং এখনও সেটি বহাল রয়েছে, তেমন দুই শতাধিক মেক্সিকান সিটিজেনশিপ নিয়েছেন ভিন্ন নামে। উল্লেখ্য, অভিবাসন বিরোধী নানা প্রক্রিয়া অবলম্বনের মধ্যে ট্রাম্প প্রশাসনের এটি অন্যতম একটি।

এই খবরটি মোট পড়া হয়েছে ৪৫৯ বার

আপনার মন্তব্য